রোনালদো নয়, মডরিচকেই যোগ্য বলছেন রামোস

রোনালদো নয়, মডরিচকেই যোগ্য বলছেন রামোস

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নয়, লুকা মডরিচের উয়েফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জেতা ঠিক হয়েছে বলে মনে করছেন রিয়াল মাদ্রিদ অধিনায়ক সার্জিও রামোস।

উয়েফা বর্ষসেরা পুরস্কারের খেতাব জিততে মডরিচ পেছনে ফেলেছেন রোনালদোকে। রোনালদো ও মডরিচের মধ্যে এ খেতাব জিততে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছে। দুজনই গত মৌসুমে জিতেছেন চ্যাম্পিয়নস লিগ ট্রফি। কিন্তু রাশিয়া বিশ্বকাপে রোনালদোর থেকে মডরিচের পারফরম্যান্স ছিল উজ্জ্বল। ক্রোয়েশিয়ার এ তারকা দলকে তুলেছিলেন ফাইনালে এবং বিশ্বকাপের গোল্ডেন বল পুরস্কার পেয়েছিলেন। সব মিলিয়ে রোনালদোর থেকে পারফরম্যান্সে এগিয়ে থেকে উয়েফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জেতেন মডরিচ। শুধু রোনালদোকে না, মোহাম্মদ সালাহকেও পেছনে ফেলেছেন মডরিচ।

মডরিচ পুরস্কার জেতায় অনেকেই খুশি নন। আবার অনেকেই মনে করছেন, মডরিচের হাতেই মানিয়েছে পুরস্কারটি। দুজনের সঙ্গে চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা ভাগাভাগি করেছেন সার্জিও রামোস। রোনালদো নাকি মডরিচ, কার পুরস্কার জেতা উচিত ছিল? জানতে চাওয়া হয়েছিল রামোসের কাছে। রিয়াল মাদ্রিদ অধিনায়ক বেছে নিলেন মডরিচকেই। তার মতে, রোনালদোর থেকে মডরিচই এই পুরস্কার পাওয়ার যোগ্য দাবিদার।

ডেইলি মেইলকে রামোস বলেছেন, ‘আমাদের দলে অনেক খেলোয়াড় আছে যাদেরকে নিয়ে আমরা গর্বিত। মডরিচ সেরকমই একজন। ও আমার খুব ভালো বন্ধু এবং অসাধারণ খেলোয়াড়। ও পুরস্কার জেতায় আমি খুব খুশি এবং আমাকে যদি পুরস্কার দিতে বলা হতো তাহলে আমি ওকেই পুরস্কৃত করতাম।’


রিয়াল মাদ্রিদে নয় মৌসুম কাটানোর পর রোনালদো গিয়েছেন জুভেন্টাসে। নয় মৌসুমে ক্লাবের হয়ে ৪৫০ গোল করেছেন সিআর-সেভেন। চারবার জিতেছেন চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা।

রিয়াল মাদ্রিদে রামোস ও রোনালদোর মধ্যে ছিল অসাধারণ বন্ধুত্ব। অনুশীলন, সফর, ম্যাচ কিংবা ড্রেসিং রুমে সব সময় দুজন দুজনের কাছাকাছি থাকতেন। একে অপরের সঙ্গ বেশ পছন্দও করতেন তারা। কিন্তু রোনালদো রিয়াল ছাড়ায় দুজনের বন্ধুত্বে চিড় ধরা পড়ল? রামোসের কথায় তাই মনে হচ্ছে, ‘হয়ত মার্কেট বিবেচনায় অনেক খেলোয়াড় ছিল বর্ষসেরা পুরস্কারের তালিকায়। তাদের বড় নাম, অনেক সুনাম। কিন্তু আমার মতে মডরিচই যোগ্য।’
 


ফিফা বর্ষসেরার তিনজনের সংক্ষিপ্ত তালিকাতেও রোনালদো ও সালাহর সঙ্গে আছেন মডরিচ। এই পুরস্কারটিও রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়াট মিডফিল্ডার জেতেন কি না, সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা।