হবিগঞ্জ, সিলেট ও সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে ৯ নিহত

হবিগঞ্জ, সিলেট ও সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে ৯ নিহত

সিলেট প্রতিনিধি : হবিগঞ্জ জেলায় পৃথক স্থানে বজ্রপাতে ৬ ধান কাটা শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।  বুধবার দুপুর থেকে হবিগঞ্জ জেলায় ভারী বর্ষণ ও বজ্রপাত হয়। এ সময় বানিয়াচংয়ের মাকালকান্দি হাওরে দুই ধানকাটা শ্রমিক, নবীগঞ্জ হাওরে দুই ধান কাটা শ্রমিক এবং লাখাই উপজেলার তেঘরিয়া হাওরে এক ধানকাটা শ্রমিক ও মাধবপুর হাওরে ১ জন মারা যায়।

নিহতরা হলেন জেলার বানিয়াচং উপজেলায় দাইপুর গ্রামের বাসন্ত দাশের ছেলে স্বপন দাশ (৩৫), সিরাজগঞ্জ জেলার দত্তকান্দি গ্রামের জয়নাল উদ্দিন (৬০), লাখাই উপজেলার তেঘরিয়া গ্রামের তাহির মিয়ার ছেলে সুফি মিয়া (৫৫), মাধবপুর উপজেলার পিয়াইম গ্রামের রায় কুমার সরকারের ছেলে জহুর লাল সরকার (১৮), নবীগঞ্জ উপজেলার বৈলাকপুর গ্রামের হরিচরণ পালের ছেলে নারায়ণ পাল (৪০), মায়াকান্দি গ্রামের হাবিব উল্লার ছেলে আবু তালিব (২০)।

বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী অফিসার মামুন খন্দকার এবং নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম আতাউর রহমান বজ্রপাতে নিহতের খবর নিশ্চিত করেছেন। এদিকে সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা ও শাল্লা উপজেলায় বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার দুপুরে বজ্রপাতে ধর্মপাশা উপজেলার সদর ইউনিয়নের দুর্বাকান্দা গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে জুয়েল আহমদ (১৮) ও শাল্লা উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের ইসহাক আলীর ছেলে আলমগীর মিয়ার (২৫) মৃত্যু ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, দুপুরে দুর্বাকান্দা গ্রামের জুয়েল মিয়া বাড়ির পাশে কাইলানী হাওরে ধান কাটতে যান। এ সময় সময় বজ্রপাতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ধর্মপাশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

অপরদিকে শাল্লা উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের কাশিপুর-শরিফপুর গ্রামের আলমগীর মিয়া ট্রলি চালিয়ে ছায়ার হাওরে যাচ্ছিলেন। এ সময় বজ্রপাতে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। এছাড়া সিলেটের গোয়াইনঘাটের তোয়াকুল ইউনিয়নের লাকি কামারগাওয়ে বজ্রপাতে ১ জন নিহত হয়েছেন।  বুধবার দুপুর ২টায় ইউনিয়নের লাকি কামারগাও গ্রামে আকস্মিক বজ্রপাতে এ মৃত্যু ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম নুরুল হক (৩০)। তিনি পার্শ্ববর্তী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার মোড়ারগাও গ্রামের চন্ডু মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, ঘটনার সময় নরুল গোয়াইনঘাটের তোয়াকুলের লাকি কামারগাওয়ে তার মামার বাড়ি যাচ্ছিলেন।