সহকারী পরিচালকদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি এবং সাংবাদিককে হেনস্থা করলেন শাকিব

সহকারী পরিচালকদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি এবং সাংবাদিককে হেনস্থা করলেন শাকিব

বিনোদন প্রতিবেদক : সহকারী পরিচালক সমিতি ‘সিডাব’র আইন না মেনে শুটিং করায় শাহেন শাহ ’ সিনেমার শুটিং চলাকালীন সময়ে বন্ধ করতে নির্দেশ দেয়া শাকিব খানের সঙ্গে বাকবিত-া হয়েছে সমিতির কয়েকজনের।  বিএফডিসিতে গত ৮ নভেম্বর বৃহস্পতিবার রাতে সহকারী পরিচালকদের সঙ্গে শাকিব খানের কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে দু’জন বিনোদন সাংবাদিকের এই দৃশ্য ভিডিও করা নিয়ে সাংবাদিকদের হেনস্থা করেছেন শাকিব খান। বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে অনলাইন পোর্টাল মিডিয়াভুবন টোয়েন্টিফোর ডটনেট এর সাংবাদিক জিয়াউদ্দিন আলম বলেন,‘ সহকারী পরিচালকদের সমিতি সিডাব’র নিয়ম অনুযায়ী তিনজন সহকারী পরিচালক নিয়ে সিনেমার শুটিং করার কথা। কিন্তু সেদিন রাতে শামীম আহমেদ রনি সেই নিয়ম না মেনে শাহেনশাহ সিনেমার শুটিং করছিলেন। বিষয়টি অবগত হয়ে রনির কাছে এর কারণ জানতে চেয়ে কোন সদুত্তর না পেয়ে শুটিং বন্ধ করে রাখতে বলেন। এ ঘোষণার প্রতিবাদ করলে সহকারী পরিচালকদের সঙ্গে একপর্যায়ে সেট’র বাইরে শাকিব খানের বাকবিত-া শুরু হয়।’ আলম বলেন, ‘একজন সাংবাদিক হিসেবে স্বাভাবিক হিসেবেই আমি এসব ঘটনার ভিডিও করছিলাম। আমার সঙ্গে ছিলেন জিনিউজের সুদীপ্ত সাঈদ। তিনিও ভিডিও করছিলেন। কিন্তু এক পর্যায়ে শাকিব খান আমাকে উদ্দেশ্য করে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করেন। আমার মোবাইল কেড়ে নিয়ে যান। মোবাইল থেকে আমার প্রয়োজনীয় অনেক ভিডিও ফুটেজ ডিলিট করে দেন।

আমার কথা হলো, সেদিন যদি শাকিব খানের কোন ক্ষতি হতো তার প্রমাণ হিসেবেতো আমার ভিডিওটা কাজে লাগতো। তিনি আমাকে বহুবছর ধরে চিনেন জানেন। কিন্তু তার সেদিনের আচরণ আমার কাছে অপ্রত্যাশিত মনে হয়েছে।’ সুদীপ্ত সাঈদের মোবাইল কেড়ে নিয়ে পরিচালক শামীম আহমেদ রনি ভিডিওটি ডিলিট করে দেন। বিষয়টির সত্যতা জানতে শাকিব খানকে ফোন করা হলে তিনি বারবার মুঠোফোনের সংযোগ কেটে দেন। পরিচালক শামীম আহমেদ রনি বলেন,‘ যেহেতু আমার সেট ফেলা ছিলো। আবার সূর্যের আলোর মধ্যে শুটিং করার তাড়া ছিলো। তাই সহকারী পরিচালকদের সঙ্গে আমার কথাবার্তা দেখে এগিয়ে আসেন শাকিব ভাই। ভাইয়ের সঙ্গে একসময় সহকারী পরিচালকদের কথা কাটাকাটি হয়। পরবর্তীতে তা মিটমাট হয়ে যায়। আর সাংবাদিক যারা বিষয়টি ভিডিও করছিলেন তাদের মোবাইল চেয়ে নিয়ে ডিলিট করে দেয়া হয়। ’ সাংবাদিক সুদীপ্ত সাঈদ বলেন,‘ বিষয়টি আমি আমার অফিসে অবগত করেছি। অফিস যা ব্যবস্থা নিবে আমি তাই মেনে নিবো। তবে শাকব ভাইয়ের আচরণে আমি কষ্ট পেয়েছি। এই ধরনের আচরণ তার কাছ থেকে আশা করা যায়না।’ আবার চলচ্চিত্র সংশ্লিস্ট অনেকেই বলছেন ‘সিডাব’র নিয়ম না মেনে শুটিং করাটাও আইনত দ-নীয়। ভবিষ্যতে সবাই যেমন আইন মেনে কাজ করেন এমন আশাবাদই ব্যক্ত করেন সিডাবের নেতারা।