বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ‘রাত্রির যাত্রী’ দেখার আহ্বান জানালেন মৌসুমী

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ‘রাত্রির যাত্রী’ দেখার আহ্বান জানালেন মৌসুমী

বিনোদন প্রতিবেদক : আগামী ১৪ ডিসেম্বর মুক্তি পাচ্ছে হাবিবুল ইসলাম হাবিব পরিচালিত বহুল প্রতীক্ষিত সিনেমা প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী অভিনীত ‘রাত্রির যাত্রী’। সিনেমাটি মুক্তির লক্ষ্যে বিভিন্ন ধরনের প্রচারণার উদ্যোগ নিয়েছে সিনেমাটির পরিচালক হাবিবুল ইসলাম হাবিব। এর প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে ৪ ডিসেম্বর দুপুর ১টায় রাজধানীর বনানীতে অবস্থিত কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি’র ফিল্ম অ্যা- টেলিভিশন ডিপার্টম্যান্ট আয়োজিত বিশেষ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী। ‘রাত্রির যাত্রী’র মুক্তি উপলক্ষ্যে আয়োজিত বিশেষ এই অনুষ্ঠানের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন মৌসুমী। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোঃ মাহফুজুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিনেমার পরিচালক হাবিবুল ইসলাম হাবিব ও কিংবদন্তী সিনেমাটোগ্রাফার, চলচ্চিত্র পরিচালত আব্দুল লতিফ বাচ্চু। অনুষ্ঠানের শুরুতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রামিসা ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়ে বরণ করে নেন হাবিবুল ইসলাম হাবিবকে এবং ফিওনা ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়ে বরণ করে নেন প্রিয়দর্শিনী মৌসুমীকে। মূল অনুষ্ঠানের শুরুতেই ড. বাবুলের উপস্থাপনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ অবসরপ্রাপ্ত বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আসাদুজ্জামান সোবহানী রাত্রির যাত্রী প্রসঙ্গে কিছু কথা বলেন। আব্দুল লতিফ বাচ্চু বলেন, ‘একটি সিনেমার ট্রেইলারের মধ্যেই বুঝানো হয়ে থাকে যে সিনেমায় কী আছে। রাত্রির যাত্রী’র ট্রেইলার দেখেই বুঝতে পেরেছি কেমন হবে সিনেমাটি। একটি কথা না বললেই নয় , সিনেমাতে যাদের গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে নির্বাচিত করা হয় তাদের অভিনয়ের প্রতিি গুরুত্ব দিয়ে সিনেমা যথাযথভাবে নির্মাণ করলে তা দেখতে দর্শক হলমুখী হন।

 আমার বিশ্বাস হাবিবুল ইসলাম হাবিব মৌসুমী’সহ অন্য যাদের নিয়ে সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন তা যথাযথভাবেই করেছেন এবং আমার বিশ্বাস রাত্রির যাত্রী দেখতে দর্শক হলে হলে যাবেন। কারণ আমি বুঝতে পেরেছি যে হাবিবের সিনেমায় সবই আছে। সবার বক্তৃতার মাঝে মৌসুমীকে ঘিরে শিক্ষার্থীদের মধ্যে কুইজ রাখা হয়।  তিনজন ছাত্র এবং তিন জন ছাত্রী সেই প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিয়ে পুরস্কার লাভ করেন। এরমধ্যে সিনেমার ট্রেইলার এবং সিনেমার একটি গানও দেখানো হয়। নির্মাতা হাবিবুল ইসলাম হাবিব বলেন,‘ রাত্রির যাত্রী কোন ভাবেই শেষ হতোনা যদি না মৌসুমী আপু আমাকে সহযোগিতা না করতেন। তারমতো এভাবে কোন শিল্পী পরিচালককে সহযোগিতা করেন কী না আমার জানা নেই। শুটিং-এর সময় তিনি সন্ধ্যা থেকে ভোর পর্যন্ত শুটিং করেছেন, আবার নিজেই গাড়ি ড্রাইভ করে বাড়ি ফিরেছেন। তিনি আমার সিনেমার জন্য এই কষ্ট হাসি মুখে মেনে নিয়েছেন। তাই আমার সিনেমার জন্য তিনি যখন যাই করতে বলেন তা আমি করার চেষ্টা করি। আপনাদের শুধু এতোটুকুই বলবো, প্লিজ আপনারা হলে গিয়ে সিনেমাটি দেখবেন।’ সবার শেষে মঞ্চে উঠে আসেন মৌসুমী।

 মৌসুমী মঞ্চে উঠেই সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন,‘ এমন অনেক সিনেমাই নির্মিত হয় মুক্তির আগে প্রচারণায় অংশগ্রহণের সুযোগ থাকে না। কিন্তু রাাত্রির যাত্রী এমনই একটি সিনেমা যার প্রচারণায় আমি নিজে উদ্বুদ্ধ হয়েই অংশগ্রহণ করছি। রাত্রির যাত্রী এমনই একটি সিনেমা যার প্রচারণার জন্য এই বিশ্ববিদ্যালয়ে আসার কথা শুনেই আমি সম্মতি জানিয়েছি। কারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে সিনেমাটি দেখায় আগ্রহ সৃষ্টি করার মধ্যে আমি ভালোলাগা খুঁজে পাবো। রাত্রির যাত্রী এমনই একটি সিনেমা যে সিনেমার প্রতিটি চরিত্রের মধ্যদিয়ে রাজধানী’র বর্তমান চিত্র ফুটে উঠবে। তাই এই চিত্র সবার মধ্যে তুলে ধরতে আপনারা বেশি বেশি ফেসবুকের মাধ্যমে, অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দিবেন যেন রাত্রির যাত্রী দেখতে দর্শক হলুমখী হন।’ সবার বক্তৃতা শেষে প্রশ্নোত্তর পর্বে মৌসুমী বেশ কয়েকজনের প্রশ্নের উত্তর দেন। শামসুল আলমের নির্বাহী প্রযোজনায় আগামী ১৪ ডিসেম্বর মুক্তি পাবে ‘রাত্রির যাত্রী’ সিনেমাটি। ‘রাত্রির যাত্রী’র অনলাইন নিউজ পার্টনার ‘ইয়েসনিউজবিডিডটকম’। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার ও আলিফ হোসেন রিফাত।