‘দেবী’র সাফল্যে আনন্দে ভাসছেন জয়া-চঞ্চল

‘দেবী’র সাফল্যে আনন্দে ভাসছেন জয়া-চঞ্চল

বিনোদন প্রতিবেদক  : জয়া আহসান প্রযোজিত সরকারী অনুদানে নির্মিত সিনেমা ‘দেবী’। এটি নির্মাণ করেছেন অনম বিশ্বাস। গেলো ১৯ অক্টোবর সারাদেশের ২৮টি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে সিনেমাটি। সরকারী অনুদানের কোন সিনেমায় ব্যবসায়িক সাফল্য এসেছে এবারই প্রথম। তাই দেবী’র অভূতপূর্ব সাফল্যে আনন্দে ভাসছেন এই সিনেমার অন্যতম দুই অভিনয়শিল্পী জয়া আহসান ও চঞ্চল চৌধুরী। তবে জয়া আহসানের আনন্দটা যেন একটু বেশিই। কারণ এই সিনেমায় তিনি শুধু অভিনয়ই করেননি প্রথমবারের মতো প্রযোজকের ভূমিকাতেও আবির্ভাব ঘটেছে তার। জয়া আহসান বলেন, দেবী দর্শকের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেবার জন্য যতো ধরনের প্রচারণার কৌশল আছে, আমরা তা নিয়েছি। যেমন আমি আর চঞ্চল মিলে মাছরাঙ্গা টিভিতে সংবাদ পাঠকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছি। আবার গেলো রবিবার আমি এবং নীলু চরিত্রে সাফল্য লাভ করা অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া চট্টগ্রামের একটি সিনেমা হলে টিকেট বিক্রি করেছি। আমি একজন প্রযোজক হিসেবে আমার সিনেমার অর্থ তুলে আনার জন্য যতো ধরনের পরিকল্পনা করা দরকার, যতোটা শ্রম দেয়া দরকার আমি দেবার চেষ্টা করেছি।

 দর্শক প্রতিদিন দেবী দেখার জন্য হলমুখী হচ্ছেন এটাই আমার জন্য অনেক আনন্দের, ভালোলাগার।’ চঞ্চল চৌধুরী বলেন, ‘দেবীর জন্য ১৫ দিন আমি কোন কাজ করিনি। নাটক টেলিফিল্মে অভিনয়ের অনেক প্রস্তাব ছিলো। কিন্তু জয়া আহসানের দেবীর প্রচারণার জন্য আমি আমার কাজ বন্ধ রেখেছি। একটি সিনেমার জন্য এটাও কিন্তু আমার বড় ত্যাগ। জয়াকে অভিনন্দন জানাই প্রথম প্রযোজিত সিনেমায় সাফল্য লাভ করার জন্য। কিন্তু তারপরও কথা থেকে যায়, জয়ার মতো যারা এভাবে প্রযোজনায় আসেন তারা যদি নিয়মিত হন প্রযোজনায় তাহলে আমাদের সিনেমা শিল্প ঘুরে দাঁড়াবে।’ ‘দেবী’র সাফল্য চলচ্চিত্র পাড়া’সহ সারা দেশের সিনেমাপ্রেমী দর্শকের কাছে পৌঁছেগেছে। তাই দেবী’র সাফল্যে পুরো দেবী’র টিমই যেন উচ্ছসিত। এদিকে মধুমিতা সিনেমা হলের মালিক নওশাদ জানান তিনি আরো কয়েক সপ্তাহ ‘দেবী’ প্রদর্শন করবেন। এর পরপরই তিনি জয়া অভিনীত কলকাতায় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত ‘বিসর্জন’ সিনেমাটি মুক্তি দেবেন। এদিকে ঢাকায় জয়া অভিনীত বেশ কয়েকটি সিনেমা রয়েছে মুক্তির অপেক্ষায়। তারমধ্যে অন্যতম হচ্ছে মাহমুদ দিদারের ‘বিউটি সার্কাস’। এতে জয়ার বিপরীতে আছেন ফেরদৌস। এদিকে ৯ নভেম্বর আমেরিকায় মুক্তি পাচ্ছে জয়ার ‘দেবী’।