গভীর রাতে মোবাইলের মাধ্যমে লেনদেন কঠোর নজরদারিতে

গভীর রাতে মোবাইলের মাধ্যমে লেনদেন কঠোর নজরদারিতে

রাত ১২টার মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসের (বিকাশ, রকেট ইত্যাদি) মাধ্যমে লেনদেন বন্ধ রাখার কোনো পরিকল্পনা নেই। তবে গভীর রাতে যেসব এজেন্ট বা গ্রাহকের মোবাইল হিসেবের মাধ্যমে লেনদেন হয় সেসব হিসাব কঠোর নজরদারিতে রয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

মঙ্গলবার (০৩ জুলাই) বিকেলে জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এ কথা জানান। এর আগে বিকেল ৫টার পর স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে দিনের কার্যসূচি শুরু হয়।
 
মুদ্রানীতির কারণে বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ প্রবাহ কমছে; এ কে এম রহমতুল্লাহ্’র অপর এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, না, এটি সত্য নয়। মুদ্রানীতির কারণে বেসরকারি খাতের ঋণ প্রবাহ কমে যাচ্ছে না, বরং বাড়ছে। বাংলাদেশ ব্যাংক সবসময়ই অন্তর্ভূক্তিমূলক কর্মসংস্থান-সহায়ক এবং বিনিয়োগবান্ধব মুদ্রানীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়ে আসছে।
 
বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবাহ বৃদ্ধির বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত দিয়ে অর্থমন্ত্রী জানান, ২০১৩ সালের জুন থেকে বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৩ অর্থবছরে শতকরা ১০ দশমিক ৮৫ ভাগ থেকে পর্যায়ক্রমে বৃদ্ধি পেয়ে চলতি অর্থবছরের এপ্রিল শেষে তা দাঁড়িয়েছে ১৭ দশমিক ৬৫ ভাগ। বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধির ফলে অর্থবছর ২০১৭ এর জিডিপি’র উচ্চ প্রবৃদ্ধি সম্ভব হয়েছে। ওই অর্থবছরের মোট বিনিয়োগের শতকরা ৭৫ দশমিক ৭ ভাগই বেসরকারি বিনিয়োগ। জিডিপি’র মোট বিনিয়োগ ২০১৬ অর্থবছরে শতকরা ২৯ দশমিক ৭ ভাগ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে অর্থবছর ২০১৭ এ দাঁড়িয়েছে ৩০ দশমিক ৫ ভাগ।

একইসঙ্গে সরকারি বিনিয়োগও ক্রমন্বয়ে বৃদ্ধি পেয়ে ২০১৩ এর শতকরা ৬ দশমিক ৬ ভাগ থেকে ২০১৭ এ জিডিপি’র ৭ দশমিক ৪ ভাগে দাঁড়িয়েছে। কাজেই মুদ্রানীতির কারণে বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবাহ কমে বিনিয়োগে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে না বলে জানান অর্থমন্ত্রী।