ঢাকা ও নারায়নগঞ্জ

মাদকবিরোধী অভিযানে র‌্যাবের গুলিতে নিহত ২

 মাদকবিরোধী অভিযানে র‌্যাবের গুলিতে নিহত ২

করতোয়া ডেস্ক : সারা দেশে চলমান মাদকবিরোধী অভিযানের মধ্যে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে দুইজন র‌্যাবের গুলিতে নিহত হয়েছেন। সোমবার রাত আড়াইটার দিকে ঢাকার মিরপুর বেড়িবাঁধ এলাকায় এবং রাত পৌনে ৩টার দিকে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে মাদক চোরাকারবারিদের সঙ্গে গোলাগুলির ওই ঘটনা দুটি ঘটে বলে র‌্যাব কর্মকর্তাদের ভাষ্য। নিহত দুজন হলেন- ইব্রাহিম ওরফে পাইলট বাবু (৩৫) এবং নাদিম ওরফে পঁচিশ (৩৫)। র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান বলছেন, নিহতদের মধ্যে ইব্রাহিম মিরপুরের এবং নাদিম রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জেনেভা ক্যাম্পের ‘কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী’। ঘটনার বিবরণে  তিনি বলেন, রাতে র‌্যাবের একটি টহল দল মিরপুর বেড়িবাঁধ এলাকায় চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করছিল। সে সময় একটি মোটর সাইকেলে কয়েকজনকে আসতে দেখে র‌্যাব সদস্যরা থামার সংকেত দেন।

 কিন্তু তারা না থেমে প্রথমে র‌্যাব সদস্যদের দিকে বোমা ছোড়ে। পরে দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি শুরু হয়। কিছুক্ষণ পর মোটরসাইকেল নিয়ে তারা দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে সেখানে ইব্রাহিমকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। ইব্রাহিমকে হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান মিজানুর রহমান। তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও ‘বিপুল পরিমাণ’ মাদক উদ্ধার করা হয়েছে। অন্য ঘটনাটি ঘটে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার পূর্বাচল এলাকায়। ইয়াবার চালান ভাগ বাটোয়ারার খবর পেয়ে র‌্যাব সদস্যরা সেখানে অভিযানে যান বলে র‌্যাব-২ এর সিনিয়র এএসপি রবিউল ইসলামের ভাষ্য। তিনি বলেন, র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা গুলি ছোড়ে। র‌্যাবও তখন পাল্টা গুলি চালায়।

 দুই পক্ষের মধ্যে কিছুক্ষণ গোলাগুলি চলার পর মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে নাদিমের গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া যায়। ঘটনাস্থল থেকে ৪ হাজার ইয়াবা, একটি শুটার গান, একটি পিস্তল, ছয় রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে বলেও রবিউল ইসলাম জানান। তিনি বলেন, নাদিম কক্সবাজার থেকে ইয়াবার চালান এনে ঢাকায় ছোট মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে সরবরাহ করত। তার বিরুদ্ধে মোহাম্মদপুর থানাসহ রাজধানীর বিভিন্ন থানায় অস্ত্র ও মাদকের অন্তত আটটি মামলা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মে মাসে মাদকবিরোধী অভিযান শুরুর পর প্রায় প্রতি রাতেই কথিত বন্দুকযুদ্ধে ‘মাদক বিক্রেতাদের’ নিহত হওয়ার খবর দিয়ে আসছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ ধরনের ঘটনায় গত দুই মাসে প্রায় দুইশ মানুষের মৃত্য হয়েছে।