প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর পেয়ে খুশি সবাই

 প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর পেয়ে খুশি সবাই

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার শুকতাইল গ্রামের পলি বেগম ও তার স্বামী নতুন ঘরের চাবি হাতে পেয়ে খুশিতে কেঁদে দিয়ে বলেন, ৬ খান টিন দিয়ে একচালা বানিয়ে তার মধ্যে কোনভাবে থাকতাম। শীতের বাতাস একদিক দিয়ে ঢুকে অন্যদিক দিয়ে বেরুতো। প্রধানমন্ত্রী নতুন ঘর দিয়েছে। শীতের কষ্ট পাব না। ছেলে-মেয়ে নিয়ে ভালভাবে বাঁচতে পারব। এ জন্য আমরা শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই। তার জন্য দোয়া করি তিনি আবার ক্ষমতায় আসুন। শুধু পলি বেগমই নয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘর পেয়ে নতুন এই ঘরের মালিকরা সবাই খুশি। তারা এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে তার দীর্ঘায়ু কামনা করেছেন।

গত মঙ্গলবার গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে উপকারভোগীদের ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে। নতুন ঘরের চাবি হাতে পেয়ে অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে উপস্থিত সকল উপকারভোগীই সরকারের প্রতি তাদের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। নতুন ঘরের চাবি হাতে পেয়ে গোপীনাথপুর শরীফ পাড়ার মিজানুর রহমান, রেবেকা বেগম, ছবর আলী মিয়া বলেন, আমাদের বসবাস করার মতো ভাল একটি ঘর ছিল না। সরকার আমাদের একটি ঘর দিয়েছে। ছেলে-মেয়ে নিয়ে শান্তিতে বসবাস করতে পারব।

নতুন ঘরের চাবি হাতে নিয়ে চন্দ্রদিঘলীয়া গ্রামের হাবিবুর রহমান, ময়না বেগম বলেন, আমাদের আগে বসবাসের ঘর ছিল জরাজীর্ণ, বৃষ্টি আসলেই বাইরে পড়ার আগে ঘরের মধ্যে বৃষ্টি পড়তো। বসবাস করতে অনেক কষ্ট হতো। এখন প্রধানমন্ত্রী ঘর দিয়েছেন। বৃষ্টির দিনেও শান্তিতে বাস করা যাবে। এদিন সন্ধ্যায় গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার গোপীনাথপুর শরীফ পাড়ায় চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শান্তি মনি চাকমা সদর উপজেলার গোপীনাথপুর, শুকতাইল, চন্দ্রদিঘলীয়া ও পাইককান্দি ইউনিয়নের ৪৬ জন উপকারভোগীর হাতে নতুন ঘরের চাবি তুলে দেন। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. শাম্মি আক্তার এতে সভাপতিত্ব করেন।