খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ, দাবি রিজভীর

 খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ, দাবি রিজভীর

ঢাকা অফিস : বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে দাবি করেছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি অভিযোগ করে বলেন, বেগম জিয়া অসুস্থ হলেও এখন পর্যন্ত তাকে কোনো চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে না। গতকাল রোববার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন রিজভী।

বিএনপির এই নেতা বলেন, সরকারি মেডিকেল বোর্ড মামুলি প্রহসনের এক্সরে ও রক্ত পরীক্ষা করে ফিজিওথেরাপির সুপারিশ করেছে। খালেদা জিয়া একজন বয়স্কা ও দেশের জনপ্রিয় নেত্রী। তিনি দীর্ঘদিন ধরে হাঁটু ও চোখের সমস্যায় ভুগছেন। কারাগারে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে রাখায় তার আরো বেশকিছু শারীরিক সমস্যা দেখা দিয়েছে। রিজভী বলেন, বেগম জিয়ার দুই হাঁটু প্রতিস্থাপন করা হয়েছে এবং সম্প্রতি চোখের অপারেশনও হয়েছে। সরকারি মেডিকেল বোর্ড বলেছে, খালেদা জিয়ার এক্সরে রিপোর্টগুলোয় দেখা যাচ্ছে- তার ঘাড়ে ও কোমরের হাড়ে সমস্যা আছে। এমতাবস্থায় এমআরআইসহ উন্নত পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়া শুধুমাত্র এক্সরে ও রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে সুনির্দিষ্ট ও সঠিক রোগ নির্ণয় সম্ভব নয়। বিএনপির এই নেতা অভিযোগ করে বলেন, বেগম জিয়াকে যেদিন বিএসএমএমইউ হাসপাতালে আনা হয়েছিল, সেদিন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের ডাকা হলেও তাদের চিকিৎসা সেবার সুযোগ দেওয়া হয়নি, পরামর্শ নেওয়া হয়নি। খালেদা জিয়াকে তিলে তিলে নিঃশেষ করার জন্যই তাকে পরিকল্পিতভাবে সাজা দিয়ে কারাবন্দী করা হয়েছে। এখন তাকে চিকিৎসার সুযোগও দেওয়া হচ্ছে না। এটা জাতীয়তাবাদী শক্তিকে ধ্বংস করতে বহুমুখী চক্রান্তের অংশ। কারাগারে বেগম খালেদা জিয়ার সাথে তার ঘনিষ্ঠ আত্মীয়-স্বজনদের দেখা করতেও বাধা দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন রিজভী। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, চক্রান্ত বাদ দিয়ে খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দিন। তার চিকিৎসা কিসে ভালো হয়, সেটি তাকে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সুযোগ দিন। খালেদা জিয়ার ইচ্ছানুযায়ী তার সুচিকিৎসা নিশ্চিত করুন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন-বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, আবদুল আউয়াল খান, অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।