সকাল ৭:৫১, বুধবার, ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং
/ সিলেট

সিলেট প্রতিনিধি : আর মাত্র কয়েকদিন বাকি পবিত্র ঈদুল ফিতরের। সিলেটের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সিলেটের ঐতিহাসিক শাহী ঈদগাহ ময়দানে। তাই ঈদের জামাতকে সফল করে তুলতে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি।  সেখানে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৯টায়।
শাহী ঈদগাহে গিয়ে দেখা যায়, পরিচ্ছন্নকর্মীরা  সেখানে কাজ করছেন। চলছে ঝাড়ু  দেয়া, ঘাস পরিষ্কার করা, চলছে মাইকিং এর লাইন তৈরির কাজ, ময়দানের  দেয়ালে ও মিনারে রঙ লাগানোর কাজ।

সিলেটের প্রধান জামাত এখানে অনুষ্ঠিত হয় বিধায় মানুষের চাপ থাকে বেশি। তাই ময়দান থেকে মানুষের চাপ রাস্তা পর্যন্ত চলে যায়। তাই নগরীর স্কলার্সহোম স্কুল পর্যন্ত নামাজের উপযোগী করে  তোলার জন্যও কাজ করে যাচ্ছেন পরিচ্ছন্ন কর্মীরা।
এদিকে সিলেটে ঈদের জামাত নির্বিঘœ করতে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে বলে জানিয়েছেন সিলেট  মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া)।
 

সিলেটের ডাকের প্রকাশনা অনুমতি বাতিল

সিলেট প্রতিনিধি: সিলেটের বিতর্কিত শিল্পপতি রাগীব আলীর মালিকানাধীন পত্রিকা দৈনিক সিলেটের ডাকের প্রকাশনার অনুমোদন (ডিক্লেরেশন) বাতিল করে দিয়েছে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার জানান, বৃহস্পতিবার পত্রিকাটির ডিক্লেরেশন বাতিল করা হয় এবং রোববার ওই নোটিশ সিলেটের ডাক কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে। প্রকাশক রাগীব আলী আদালতের রায়ে সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় আইন অনুযায়ী পত্রিকাটির প্রকাশনার অনুমোদন বাতিল করা হয়েছে বলে জানান তিনি। ডিক্লেরেশন বাতিলের ফলে সিলেটের প্রকাশ সংখ্যায় শীর্ষে থাকা পত্রিকাটি আর প্রকাশ করা যাবে না বলেও জানান জেলা প্রকাশক।

এ ব্যাপারে পত্রিকাটির ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মো. আব্দুল হান্নান ও নির্বাহী সম্পাদক আব্দুল হামিদ মানিকের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তারা কল রিসিভ করেননি। সিলেটের ডাকের প্রকাশক ও সম্পাদক মণ্ডলীর সভাপতি রাগীব তিন মামলায় ভিন্ন ভিন্ন মেয়াদে দণ্ডিত হয়ে বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন। পত্রিকাটির সম্পাদকের দায়িত্ব থাকা রাগীব আলীর ছেলে আব্দুল হাইও সিলেট কারাগারে দণ্ডিত হয়ে কারাবন্দি রয়েছেন।

দেবোত্তর সম্পত্তি বন্দোবস্তের নামে ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতি মামলার রায়ে গত ২ ফেব্রুয়ারি রাগিব আলী ও তার ছেলেকে ১৪ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেয় আদালত। প্রতারণার আরেক মামলায় গত ৬ এপ্রিল রাগীব আলীর ১৪ বছর, ছেলে আবদুল হাই, জামাতা আবদুল কাদির, মেয়ে রুজিনা কাদির ও নিকটাত্মীয় দেওয়ান মোস্তাক মজিদকে ১৬ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। তাছাড়া গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর পলাতক থাকা অবস্থায় পত্রিকা প্রকাশের কারণে রাগীব আলী ও তার ছেলের বিরুদ্ধে দায়ের আরেক মামলায় তাদের এক বছর করে কারাদণ্ডও দেওয়া হয়েছে।

মৌলভীবাজারে পাহাড় ধসে মা-মেয়ের মৃত্যু

মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলায় পাহাড় ধসে মা ও মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। উপজেলার ডিমাই এলাকায় রোববার ভোরে এ ঘটনা ঘটে বলে বড়লেখা থানার ওসি  শহীদুল ইসলাম জানান।

নিহতরা হলেন- আছিয়া বেগম (৪০) ও তার মেয়ে ফাহমিদা (১৩)। ওসি বলেন, “প্রবল বর্ষণের কারণে রোববার ভোর ৩টা থেকে ৪টার মধ্যে ডিমাই এলাকার বেশ কয়েকটি পাহাড়ে ধস নামে। এ সময় আছিয়া বেগমের ঘরের ওপর মাটি ধসে পড়লে তিনি ও তার মেয়ে চাপা পড়েন।”

খবর পেয়ে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে গিয়ে সকাল ৯টার দিকে মাটি সরিয়ে লাশ উদ্ধার করে বলে জানান শহীদুল। স্থানীয় বাসিন্দা লিটন শরিফ বলেন, ডিমাই এলাকায় আরও কয়েকটি পাহাড় ধসে কয়েকটি ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। তবে সেখানে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

 

কোম্পানিগঞ্জে পাহাড়ি ঢলে ২ শিশুসহ ৩ জনের মৃত্যু

সিলেট প্রতিনিধি: সিলেটের কোম্পানিগঞ্জে পাহাড়ি ঢলে দুই শিশুসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে দুইজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার দুপুর ১টার দিকে মরদেহ দু’টি উদ্ধার করা হয়। নিহত দুই শিশু হলো- তামান্না (৩) ও সুলতানা (১)। অপর নিহত হলেন ৫৬ বছর বয়সী ফারুক মিয়া। এর মধ্যে নিহত শিশু সুলতানার মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। কোম্পানিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলতাফ হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, শনিবার সকালে অতিবৃষ্টিতে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে উপজেলার পশ্চিম কালাইরাগ গ্রামের সেলিম মিয়ার বসতঘর ভেঙে নিয়ে যায়। এ সময় ঢলের পানিতে ভেসে যান সেলিম মিয়ার দুই শিশু কন্যা তামান্না (৩) ও সুলতানা (১)। একই সময় পাশ্ববর্তী মৃত ইউসুব আলীর ছেলে ৫৬ বছর বয়সী ফারুক মিয়াও নিখোঁজ হন। পরে তামান্না ও ফারুক মিয়ার মরদেহ উদ্ধার করা হলেও সুলতানার মরদেহ এখনও পাওয়া যায়নি। স্থানীয়রা সুলতানার মরদেহ উদ্ধারে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। স্থানীয় বাসিন্দা ডা. হারুন অর রশিদ  বলেন, সকাল থেকে মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছিল। সকালে হঠাৎ করে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সেলিম মিয়ার কাঁচা বাঁশ-বেতের ঘর ভাসিয়ে নিয়ে যায়। ওসি আলতাফ হোসেন আরও বলেন, স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় স্রোতের তোড়ে ভেসে যাওয়া মরদেহ দু’টি দুপুর ১টার দিকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। তবে সুলতানা নামের এক শিশুর মরদেহ এখনও পাওয়া যায়নি। ঘুমন্ত অবস্থায় দুই শিশু ও বৃদ্ধ পাহাড়ি ঢলে ঘরের সঙ্গে ভেসে যায় বলেন তিনি।

সিলেটে ঘাস কাটা নিয়ে বিরোধে ‘ছুরিকাঘাতে হত্যা’

সিলেটের ওসমানীনগরে ঘাস কাটা নিয়ে কথা কাটাকাটির মধ্যে দুই প্রতিবেশীর ছুরিকাঘাতে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। নিহত ছোরাব খাঁ (৬০) উপজেলার সন্ন্যাসীপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

ওসমানীনগর থানার ওসি সহিদ উল্লাহ জানান, উপজেলার সন্ন্যাসীপাড়া গ্রামে বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনায় ছোরার দুই ছেলেও আহত হয়েছেন। এরা হলেন- জগলু ও শিবলু। তাদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ওসি সহিদ বলেন, সকালে স্থানীয় রুনিয়ার হাওরে গরুর জন্য ঘাস কাটতে যান ছোরাব। এ সময় পাশের বাড়ির ফারুক আলী ও সেবুল আহমদ তাকে বাধা দিলে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়।

“এক পর্যায়ে তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে ছোরাব আলীকে কুপিয়ে জখম করেন। তাকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।”

এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান শুরু হয়েছে বলে জানান ওসি।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

 

সিলেটে ‘মসজিদের বাতি জ্বালানো নিয়ে’ সংঘর্ষ, নিহত ১

সিলেটের বিয়ানীবাজারে মসজিদের বাতি জ্বালানো নিয়ে ঝগড়া থেকে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। উপজেলার পাতন গ্রামে রোববার রাতে এ ঘটনায় আরও আটজন আহত হয়েছেন বলে বিয়ানীবাজার থানার ওসি চন্দন কুমার চক্রবর্তী জানান।

নিহত মুহিদুর রহমান মিন্টু (৫৫) ওই গ্রামের ছওয়াব আলীর ছেলে।

আহতদের চিকিৎসার জন্য বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে। তবে তাদের নাম-পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেনি পুলিশ। ওসি চন্দন বলেন, রোববার রাত ১১টার দিকে মসজিদের বাতি জ্বালানো নিয়ে স্থানীয় রেজা আহমদ ও নোমান মিয়ার মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।

“এক পর্যায়ে দুই পক্ষের অনুসারীরা দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় রেজার ভাই মিন্টু গুরুতর আহত হন।” সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মিন্টুর মৃত্যু হয় বলে জানান ওসি।

তিনি বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ঘটনাস্থলে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তবে সোমবার দুপুর পর্যন্ত থানায় কেউ লিখিত অভিযোগ করেননি।

 

হবিগঞ্জে স্কুলছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: হবিগঞ্জ শহরের নোয়াহাঠি এলাকায় মুক্তা দেব নামে এক স্কুলছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার দুপুরে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। মুক্তা ওই এলাকার দিরেন্দ্র দেবের মেয়ে এবং স্থানীয় বিকেজিসি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী।

হবিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইয়াছিনুল হক  জানান, সকালে স্থানীয়রা বাসার রান্না ঘরে ওই ছাত্রীর মরদেহ ঝুলতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। তবে তার মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি।

 

সিলেটে অস্ত্রসহ সন্ত্রাসী এনামুল আটক

সিলেট প্রতিনিধি : সিলেটে অস্ত্রসহ সন্ত্রাসী এনামুলকে আটক করেছে  র‌্যাপিড অ্যাকশান ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা। গতকাল শুক্রবার দুপুরে র‌্যাব-৯ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মাঈন উদ্দিন চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

এতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার (০৮ জুন) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় শেখ পাড়ার তেমুখী সুরমা নদীর সেতুর উপর উত্তর চন্ডিপুল বাইপাস এলাকায় সন্ত্রাসীরা অস্ত্র বেচাকেনা করছে।

 এ সময় ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে একটি শর্টগানসহ সন্ত্রাসী এনামুলকে আটক করা হয়। আটক এনামুল সদর উপজেলার জালালাবাদ পাইকরাজ গ্রামের মো. আব্দুল বারিকের ছেলে।

র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে এনামুল জানায়, ভারতীয় সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে অস্ত্র চোরাচালানের মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরে অস্ত্র কেনাবেচা করে আসছে। বিভিন্ন জেলায় অস্ত্র সরবরাহ করেন। এছাড়া অস্ত্র দিয়ে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ, চুরি, ডাকাতি, ছিনতাইসহ নানা অপরাধ করে তিনি। তার বিরুদ্ধে মহানগরীর জালালাবাদ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানায় র‌্যাব।

সিলেটে বোনকে জবাই করে হত্যা : ঘাতক ভাই আটক

সিলেট প্রতিনিধি : সিলেটের গোয়াইনঘাটে কিশোরী  বোনকে জবাই করে খুন করেছে এক ভাই। নিহত তামান্না আক্তার (১৬) উপজেলার পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নের আলীছড়া গ্রামের আব্দুল হাসিমের  মেয়ে। বুধবার সকালে হত্যাকান্ডের এঘটনা ঘটে। নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায় তামান্নার সাথে একই গ্রামের চান মিয়ার  ছেলে জাফর মিয়ার (২০)  প্রেমের সম্পর্ক ছিল। গত মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে বাড়িতে ফিরে তামান্না ও জাফরকে ঘনিষ্ঠ অবস্থায়  দেখতে  পেয়ে ক্ষিপ্ত হয় তামান্নার ভাই তাজুল ইসলাম। এনিয়ে ভাই বোনের মধ্যে ঝগড়া হয়। এর জের ধরে সকাল ৮টার দিকে তাজুল বাড়ির পাশে তামান্নাকে জবাই করে খুন করে। ঘটনার পর ঘাতক ভাই তাজুল ইসলামকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। খবর পেয়ে থানার ওসি (তদন্ত) হিল্লোল রায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও লাশের প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।

বাঁধ ভেঙে মৌলভীবাজারে শতাধিক গ্রাম প্লাবিত

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও বৃষ্টিতে মৌলভীবাজারের মনু ও ধলই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙে রাজনগর, কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ উপজেলার শতাধিক গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

রোববার রাত সাড়ে ১১টার দিকে মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিবার্হী প্রকৌশলী বিজয় ইন্দ্র শংকর চক্রবর্তী ও স্থানীয় চেয়ারম্যানরা এ তথ্য নিশ্চিত করছেন।

কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. মালিক  বলেন, রোববার রাত পৌনে ১১টায় তার ইউনিয়নের মিয়া পাড়ায় মুন নদীর বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে খন্দকার গ্রাম, তাজপুর, লারাজপুর, সালন, লাল পুর, পাল্লাকান্দিসহ ২০টি গ্রাম।

“এতে ডুবে গেছে স্কুল-কলেজ, ফসলি জমি।রাতে হঠাৎ পানি ঢুকে পড়ায় বিপাকে পড়েছে গ্রামবাসীরা।”  

শরিফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো: আব্দাল মিয়া বলেন, “দুপুরে নিশ্চিন্তপুরে এলাকায় মনু নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙে পানি প্রবেশ করে আমার ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর, সোনাপুর, দত্তগ্রাম ও হাজিপুর ইউনিয়নের দাউদপুর, ভুঁইগাও, সুলতানপুর, রনচাপ, পাইকপাড়াসহ ১৫ গ্রাম তলিয়ে গেছে।”

এদিকে দুপুরে রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নের ভোলানগর এলাকায় মনু নদীর বাঁধ ভেঙে প্রায় ১৫টি গ্রামে পানি প্রবেশ করেছে।

কামারচাক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. নজমুল হক সেলিম জানান, ভোলানগরে প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় ভোলানগর, খাস প্রেমনগর, মিঠিপুর, গোবিন্দপুর, পঞ্চানন্দপুর, চিক বিশালী, শ্যামর কোনা, হাতি কড়াইয়া ও মৌলভীর চকসহ প্রায় ২০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

তার দাবি, এখনও ভাঙনের ঝুঁকিতে রয়েছে কালাই কোনা, দস্তিদার চক, কমার চাক, টুপির মহল ও ছাতি কোনা গাওসহ বাঁধের ১০টি পয়েন্ট।

কমলগঞ্জ উপজেলার উত্তর আলেপুর, চৈতন্যগঞ্জ ও প্রতাপি এলাকা দিয়ে ধলই নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙে অর্ধ শতাধিক গ্রাম প্লাবিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাহমুদুল হক।

এখনও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ সমর্পকে জানা যায়নি বলে জানান তিনি।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিবার্হী প্রকৌশলী বিজয় ইন্দ্র শংকর চক্রবর্তী বলেন, টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে ধলই ও মনু তিনটি পয়েন্টে ভাঙনের খবর পেয়েছি। পানি কমে গেলে ওই বাঁধ মেরামতের কাজ করা হবে।

 

মৌলভীবাজারে পাহাড়ি ঢলে নিখোঁজ স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় একদিন আগে পাহাড়ি ঢলে ভেসে গিয়ে নিখোঁজ স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার হয়েছে। মৃত রাকিবুল হাসান বড়লেখার মুছেগুল গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে। মুছেগুল সরকারি প্রাথামিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র।

রোববার সন্ধায় স্কুলের পাশের একটি জলাশয় থেকে তার লাশ উদ্বার করা হয় বড়লেখা থানার বড়লেখা থানার এসআই লিটন চন্দ্র পাল জানান । ওই ছাত্রের পরিবারের বরাত দিয়ে এসআই লিটন বলেন, শনিবার সকালে বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢল দেখতে সহপাঠীদের সঙ্গে বাড়ি থেকে বের হয়ে স্রোতে ভেসে যায় রাকিবুল।

“ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত খোঁজাখুঁজি করে তার সন্ধান পায়নি। সিলেট থেকে আসা ডুবুরি দল রোববার দুপুর পর্যন্ত রাকিবুলের খোঁজে অভিযান চালিয়ে ব্যর্থ হয়। বিকাল ৫টার দিকে মুছেগুল স্কুলের পাশের জলাশয়ে রাকিবুলের লাশ ভেসে উঠে।”

পাহাড়ি ঢলে ভেসে গিয়ে ওই ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে বলে জানান তিনি।

 

সিলেটে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নানা-নাতির মৃত্যু

সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে নানা-নাতির মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হলেন – উপজেলার তুরুকভাগ গ্রামের শরফ আলীর ছেলে ফখর উদ্দিন (৭০) ও তার নাতি মিজানুর রহমান (১৪)।

গোয়াইনঘাট থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন বলেন, নানাবাড়ি বেড়াতে আসা মিজানুর শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বাড়ির পাশের খালে মাছ ধরতে যায়।

“এ সময় বিদ্যুতের ছেঁড়া তারে জড়িয়ে যায় সে। তাকে উদ্ধার করতে গিয়ে নানাও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। তারা ঘটনাস্থলেই মারা যান।”

 

সিলেটে বজ্রপাতে ২ জনের মৃত্যু

সিলেটের বিশ্বনাথে বজ্রপাতে স্কুল ছাত্রসহ দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়েনের দিঘলী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে বিশ্বনাথ থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানিয়েছেন।

নিহতরা হলেন দিঘলী মাধবপুর গ্রামের শমসর নুরের ছেলে গোবিন্দগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র মিলন মিয়া (১৮) ও একই গ্রামের মৃত নুর মিয়ার ছেলে আকমল হোসেন (৩৫)।

ওসি জানান, সকালে মিলন মিয়া ও আকমল হোসেন পার্শ্ববর্তী নলিয়াপুর জাইদরমার ডর এলাকায় মাছ ধরতে যান। বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়।

 

মৌলভীবাজারে শ্যালিকাকে হত্যার অভিযোগ

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় পারিবারিক কলহের জেরে শ্যালিকাকে ছুরিকাঘাতে হত্যার পর স্ত্রী ও সন্তানকে কুপিয়ে জখমের অভিযোগ উঠেছে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে।

কুলাউড়া থানার এসআই সাব্বির আহমদ জানান, হাজীপুর ইউনিয়নের পাবই গ্রামে মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মনি বেগম (১৬) ওই এলাকার গ্রামের মছলু মিয়ার মেয়ে। এ ঘটনায় মনির ভগ্নিপতি মো. সালাউদ্দীনকে (৩২) আটক করছে পুলিশ। তিনি কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের জাঙ্গালিয়া গ্রামের মো.আলাউদ্দীনের ছেলে।

আহতরা হলেন- সালাউদ্দীনের স্ত্রী রায়না ও তাদের ছয় মাস বয়সী ছেলে সন্তান মাছুম মিয়া।তাদের কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বাচ্চু জানান, এক বছর আগে রায়নার সঙ্গে সালাউদ্দীনের দ্বিতীয় বিয়ে হয়।পারিবারিক কলহের জেরে কিছুদিন আগে রায়না তার বাবার বাড়ি চলে যান।

“সোমবার সন্ধ্যায় স্ত্রী ও সন্তানকে ফিরিয়ে আনতে শ্বশুর বাড়ি গেলে রায়নার বাড়ির লোকজনের সঙ্গে সালাউদ্দীনের কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে শ্যালিকা মনিকে হত্যা করেন তিনি।

“পরে স্ত্রী ও সন্তানকে ছুরি দিয়ে জখম করে সালাউদ্দিন নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।” খবর পেয়ে স্থানীয়রা রায়না ও তার শিশু সন্তান মাসুমকে উদ্ধার করে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় বলে জানান তিনি।

রায়নার মা রাবেয়া বেগম ও বড় ভাই মজিদ মিয়া জানান, ঘটনাটি কুলাউড়া থানায় জানালে পুলিশ গিয়ে সালাউদ্দীনকে আটক করে। ঘটনাস্থল থেকে একটি ছুরি জব্দ করা হয়েছে বলে কুলাউড়া থানার এসআই সাব্বির জানান।

 

হবিগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: হবিগঞ্জে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতিসহ ২ জন নিহত ও অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।
পুলিশ জানায়, সোমবার দুপুর ১২টার দিকে সদর উপজেলার লস্করপুরে কুমিল্লা থেকে সিলেটগামী কুমিল্লা ট্রান্সপোর্টের একটি বাসের চাকা বিস্ফোরণ ঘটে। এতে বাসের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। দুর্ঘটনায় ওই বাসের যাত্রী ১ মহিলা নিহত হন। এ ঘটনায় আহত হয় অন্তত ২০ জন। খবর পেয়ে পুলিশ এবং হবিগঞ্জ ও শায়েস্তাগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের দু’টি দল ঘটনাস্থল থেকে হতাহতদের উদ্ধার করে আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠায়। নিহত মহিলার পরিচয় জানা যায়নি। তার আহত শিশু পুত্রটি পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। অপরদিকে হবিগঞ্জ-লাখাই সড়কে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আশরাফ আলী নিহত হন।

সিলেটে পরিবহন ধর্মঘটে ভোগান্তি

সিলেট বিভাগে পাঁচ দফা দাবিতে পরিবহন শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটে ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ মানুষ। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির ডাকে রোববার সকাল ৬টা থেকে এই ধর্মঘট শুরু হয় বলে সংগঠনের সভাপতি সেলিম আহমদ ফলিক জানান।

সকাল থেকে এ বিভাগের চার জেলা থেকে কোনো দূরপাল্লার বাস ছেড়ে যায়নি। আঞ্চলিক বাস চলাচলও বন্ধ থাকায় বিভিন্ন জেলায় যাত্রীরা অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছেন।

সিলেট কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে কোনো বাস ছেড়ে না গেলেও নগরীতে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। অটোরিকশা ও হালকা যানবাহনও চলাচল করতে দেখা গেছে।

সেলিম আহমদ জানান, গত মে দিবসে অটোরিকশা শ্রমিকদের উপর হামলা ও তাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার, বিভিন্ন পৌরসভার পরিবহন কর প্রত্যাহার, সিলেট-কোম্পানিগঞ্জ সড়কে মোটরসাইকেলে যাত্রী পরিবহন বন্ধ করা এবং জেলা শ্রমিক লীগ সভাপতি এজাজুল হক এজাজের ট্রেড ইউনিয়নের নিবন্ধন বাতিলের দাবিতে তাদের এই ধর্মঘট।

এই পাঁচ দফা দাবিতে গত ১১ মে বিভাগীয় কমিশনারের কাছে স্মারকলিপি দেয় সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সিলেট বিভাগীয় কমিটি। কিন্তু প্রশাসন সমাধানের কোনো উদ্যোগ নেয়নি বলে অভিযোগ করেন সেলিম আহমদ।

এদিকে দূরপাল্লার বাস চলাচল না করায় অনেক যাত্রী ট্রেনে করে গন্তব্যে পৌঁছানোর চেষ্টা করছেন। তবে  টিকেট না পেয়ে রেলস্টেশন থেকে ফিরে যেতে হয়েছে তাদের অধিকাংশকেই।

সিলেট রেলওয়ে স্টেশনের ব্যবস্থাপক আব্দুর রাজ্জাক বলেন, পর্যাপ্ত টিকেট না থাকায় সবাইকে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

বগুড়া থেকে তিন বন্ধুসহ সিলেটে বেড়াতে আসা রবিন বলেন, “সকালে বাস টার্মিনালে গিয়ে শুনি ধর্মঘট। এখন কীভাবে যাব বুঝতে পারছি না; কখন বাস ছাড়বে তাও কেউ বলতে পারছে না।”

ঢাকা থেকে আসা আলফাজ আহমদ বলেন, “সকালে ঢাকা ফিরতে বাস টার্মিনালে এসে দেখি ধর্মঘট। কথায় কথায় ধর্মঘট ডাকলে মানুষের যে ভোগান্তি হয়- সেদিকে কারও খেয়াল নেই। এ ব্যাপারে সরকারের উদ্যোগ নেওয়া দরকার।”

সিলেটের জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার বলেন, “পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে শ্রমিক নেতাদের সাথে বৈঠকে বসার কথা চলছে। আশা করি দ্রুত সমস্যার সমাধান হবে।”

 

সিলেটের আতিয়া মহলের দুই মামলার তদন্তে পিবিআই

সিলেটে প্রতিনিধি : সিলেটের দক্ষিণ সুরমায় শিববাড়ীর জঙ্গি আস্তানা আতিয়া মহলে অভিযানকালে পার্শ্ববর্তী পুলিশের চেকপোস্টের সম্মুখে বোমা বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনায় দায়ের করা দুটি মামলায় আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। ব্যুরোর বিশেষ পুলিশ সুপার রেজাউল করিম মল্লিক জানান, গতকাল সোমবার সকালে তদন্ত দলের সদস্যরা আতিয়া মহল পরিদর্শন করেছেন। গত ২৫ মার্চ সন্ধ্যায় আতিয়া মহল সংলগ্ন পাঠানপাড়া দাখিল মাদ্রাসার কাছে পরপর দুই দফা বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় র‌্যাবের গোয়েন্দা বিভাগের প্রধান লেফটেন্যান্ট কর্নেল আবুল কালাম আজাদসহ সাতজন মারা যান। এ ঘটনায় আরও অর্ধশত মানুষ আহত হন। এরপর ২৮ মার্চ সন্ধ্যা পর্যন্ত সেখানে ‘অপারেশন টুয়াইলাইট’ পরিচালনা করে সেনাবাহিনীর প্যারা কমান্ডো। এসব ঘটনায় মোগলাবাজার থানার পুলিশ দুটি মামলা দায়ের করে।

ব্যুরোর পুলিশ সুপার রেজাউল আরও বলেন, প্রথমে মামলা দুটি তদন্ত করে মহানগর পুলিশ। ৯ মে পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশে মামলা দুটি তদন্তের দায়িত্ব পিবিআই ব্যুরোকে হস্তান্তর করা হয়। গত শনিবার মামলার আলামত ও ডকেট গ্রহণ করে কাজ শুরু করে ব্যুরো। তদন্তকাজ দ্রুত শেষ করে অভিযোগপত্র দেওয়া হবে জানিয়ে তিনি বলেন, দেশে জঙ্গিবাদের মূলোৎপাটন করতেই তদন্তকাজ দ্রুত এগিয়ে নেওয়া হবে।

বজ্রপাতে হবিগঞ্জে ৩ কৃষকের মৃত্যু

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলা ও নবীগঞ্জ উপজেলায় বজ্রপাতে তিন গ্রামের তিন কৃষকের মৃত্যু হয়েছে; এতে আহত হয়েছেন আরও একজন। জেলা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক দেবাশীষ দাশ জানান, বৃহস্পতিবার সকালে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন – বানিয়াচং উপজেলার বাঘহাতা গ্রামের মধু মিয়া (৪৫), হলদারপুর গ্রামের আনহার আলী (১৮) ও নবীগঞ্জ উপজেলার রামগঞ্জ গ্রামের কিসমত আলী (৫২)।

চিকিৎসক দেবাশীষ বলেন, বজ্রপাতে আহত চারজনকে হাসপাতালে আনার আগেই একজনের মৃত্যু হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আরও দুইজন।

এছাড়া আহত ওয়ালিদুর রহমানকে গুরুতর অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

 

হবিগঞ্জে স্কুলছাত্র খুন

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে ষাঁড়ের লড়াইকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় সুজাত মিয়া (১৫) নামে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। এ সময় একই পরিবারের আহত হয়েছে আরও ৪ জন। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ৩ জনকে আটক করেছে। বুধবার উপজেলার নিভৃত পল্লী বড় ভাকৈর পশ্চিম ইউনিয়নের আমড়াখাইর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, গত সোমবার ওই গ্রামের ফয়জুল্লাহর একটি ষাঁড় গোচারণ ভূমিতে বাঁধা অবস্থায় একই গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে তার আরেকটি ষাঁড় নিয়ে লড়াই শুরু করে। এ খবর পেয়ে ষাঁড়ের মালিক ফয়জুল্লাহর লোকেরা বাধা দেয়। এ নিয়ে বাদানুবাদের একপর্যায়ে তাদের মাঝে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে বিরোধের সূত্রপাত হয়।  বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ফয়জুল্লাহ স্থানীয় বিবিয়ানা বাজারে যাওয়ার পথে আব্দুল খালেকের লোকজন পূর্ব থেকে ওঁৎপেতে থাকা অবস্থায় তার অপর হামলা চালায়। এ খবর পেয়ে তার ভাই-ভাতিজা এগিয়ে এলে তাদের উপরও অতর্কিত আক্রমণ করা হয়। এতে অফর মিয়ার ছেলে বোয়ালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র সুজাত মিয়াসহ কয়েকজন আহত হয়। স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুজাত মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। এর মধ্যে ফয়জুল্লাহ (৫৫), ছায়েদুন্নেহার (৪৫), আল-আমীন (২২) ও মোঃ আব্দুল্লাহ (৭০)কে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম আতাউর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে সাথে সাথে এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত ৩ জনকে আটক করা হয়েছে।

সিলেটের স্ত্রী খুনের দায়ে স্বামী গ্রেফতার

সিলেট প্রতিনিধি: সিলেটের ওসমানীনগরে স্ত্রী সৈয়দা হেমী বেগমকে খুনের দায়ে স্বামী আব্দুল হান্নানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার দুপুরে খাসিপাড়া গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ছেলে নাহিন মিয়ার দায়ের করা হত্যা মামলায় (নম্বর-৮(০৫)১৭) হান্নানকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শহিদউল্যাহ  এ তথ্য জানিয়ে বলেন, আব্দুল হান্নান স্ত্রীকে খুনের দায় স্বীকার করেছেন এবং পারিবারিক কলহের কারণেই খুন করেছেন বলে জিজ্ঞাসাবাদে জানান। ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি নেওয়ার জন্য তাকে আদালতে হাজির করা হবে, বলেন ওসি। মঙ্গলবার দুপুরে পারিবারিক কলহের জের ধরে নিজবাড়িতে নিহত সৈয়দা হেমী বেগমকে (৪৯) বটি দিয়ে কুপিয়ে খুন করে পালিয়ে যান হান্নান মিয়া। পরে ঘটনাস্থল থেকে খুনে ব্যবহৃত রক্তমাখা বটি ও একটি জামা উদ্ধার করে পুলিশ।

হবিগঞ্জে নিখোঁজ শিশুর লাশ উদ্ধার

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জে ৭ দিন আগে নিখোঁজ এক শিশুর গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়েছে। রোববার ভোরে সদর উপজেলার ছোটবহুলা গ্রাম থেকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, ওই গ্রামের খুর্শেদ আলী এবং ইসমাইল মিয়ার মাঝে জমির ধান কাটা নিয়ে বিরোধ দেখা দেয়। এনিয়ে তাদের মাঝে মামলা মোকদ্দমাও হয়। কয়েকদিন পূর্বে উভয় পরিবারের মাঝে ঝগড়া হয়। এ সময় ইসমাইল মিয়ার স্ত্রীকে গালিগালাজ করেন খুর্শেদ আলী ও তার পরিবারের লোকজন। এরপরই তার ৭ বছর বয়সী ছেলে আকাশকে হত্যার পরিকল্পনা করে ইসমাইল মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া। ৭ দিন পূর্বে আকাশ নিখোঁজ হয়। এ বিষয়ে তার পরিবারের পক্ষ থেকে সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করা হয়। এর প্রেক্ষিতে পুলিশ সন্দেহভাজন হিসেবে সুমনকে গত শনিবার দিবগত গভীর রাতে আটক করা হয়। তার দেয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ভোরে গ্রামের পার্শ্ববর্তী জমিতে ডুবন্ত অবস্থায় আকাশের গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইয়াছিনুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

হবিগঞ্জে আইনমন্ত্রী আইসিটির ৫৭ ধারা মানুষের বাক স্বাধীনতা হরণ করে

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : ৫৭ ধারা নিয়ে কিছু প্রশ্ন উঠেছিল। এটি মানুষের বাকস্বাধীনতা হরণ করছে। এ কারণেই এটি বাতিল করা হবে। এমন মন্তব্য করেছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, এ আইন স্পষ্টিকরণের জন্য নতুন ডিজিটাল সিকিউরিটি এক্ট করা হচ্ছে। এ আইনে যাতে কারও বিরুদ্ধে অন্যায়ভাবে অহেতুক কোন ব্যবস্থা নেয়া না হয় সে রকম ব্যবস্থা থাকবে। ৫৭ ধারা বাতিল হলে এ আইনে চলমান মামলাগুলোর অবস্থা কি হবে এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, একটি আইন বা এর কোন ধারা যদি বাতিল হয়, তার স্থলে নতুন যে আইনটি হয় সে আইনে শেষ যে ধারা থাকে সেখানে স্পষ্ট করে বলা থকে এ আইনে যে ব্যবস্থাগুলো নেয়া হয়েছিল সেগুলো বিদ্যমান থাকবে কিনা। অথবা সেগুলো রহিত হবে। ৫৭ ধারাকে বাতিল করার কারণ হচ্ছে এ ধারা সম্পর্কে কিছু বিতর্ক উঠেছিল যে এটি জনগণের বাকস্বাধীনতা হরণ করছে। এ স্পষ্টিকরণের প্রয়োজনীয়তা আছে বলেই এটি বাতিল করে নতুন ডিজিটাল সিকিউরিটি এক্ট করা হচ্ছে।  রোববার দুপুরে হবিগঞ্জে নবনির্মিত জুডিসিয়াল ভবন উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় শাহ এএমএস কিবরিয়া হত্যা মামলার বিচার সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, এ মামলাটি যাতে খুব তাড়াতাড়ি ন্যায় বিচারের সব আইনি প্রক্রিয়া শেষ করে দ্রুত যাতে বিচার শেষ করা হয় প্রসিকিউশন সে ব্যবস্থা নেবে। পরে আইনমন্ত্রী পায়রা ও বেলুন উড়ান। এরপর মন্ত্রী জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত সুধি সমাবেশ ও জেলা আইনজীবী সমিতি আয়োজিত তাকে দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগদান করেন।

 

হারিয়ে যাচ্ছে সিলেটের শিল-পাটার কারিগর

এম এ.সাবলু হৃদয়, সিলেট : আধুনিক যুগ শিল্পায়নের যুগ। শিল্পায়নের এই যুগে পাথর কেটে শিলপাটা তৈরি কালের আবর্তে হারিয়ে যাচ্ছে। একটা সময় ছিল শিলপাটা ছাড়া চুলায় হাঁড়িও উঠত না। ব্যাপক চাহিদা ছিল শিলপাটার। প্রতিটি পরিবারের কাছে একটি পরিচিত নাম ছিল শিলপাটা।

চিরায়ত গ্রামবাংলার শিলপাটা নিয়ে রয়েছে নানা মজার কাহিনী। এখনো গ্রাম-বাংলার অনেক পরিবার রয়েছে যারা শিলপাটায় বাটা মসলা ছাড়া রান্না খেতে পছন্দ করে না। শিলপাটা দিয়ে শুধু মসলা বাটা নয়, একসময় মেহেদী বাটা থেকে শুরু করে নানা ধরনের খাবারের ভর্তা বাটা ছিল ঘরের গৃহিণীদের কাছে প্রতিদিনের রুটিন মাফিক কাজ।
কিন্তু এখন বদলে গেছে যুগ পাড়া-মহল্ল¬ার প্রতিটি মুদির দোকানে হাত বাড়ালেই পাওয়া নানা জাতের প্যাকেটজাত মসলা আর মসলা ভাঙার মেশিনত আছেই। বাণিজ্যিকভাবে মসলা ভাঙার মেশিন চালু হওয়ায় শিলপাটায় মসলা বাটার গুরুত্ব একেবারেই কমে গেছে।

শিলপাটা কারিগরদের সাথে আলাপ করে জানা গেছে, এখানে দীর্ঘদিন ধরে শিলপাটা তৈরি করে প্রায় ৫০/৬০টি পরিবার জীবন জীবিকা নির্ভর করে আসছে। বর্তমানে শিলপাটার কদর আগের চেয়ে অনেক কমে গেছে। অনেকেই এ পেশা ছেড়ে দিয়ে অন্য পেশায় চলে গেছেন। আবার কেউ কেউ বাব দাদার পেশা ধরে রেখেছেন। এখনো কিছুটা চাহিদা আছে বলে তারা জানান।

শিলপাটা কারিগর মাহমুদ আলী জানান, দীর্ঘ ১৯ বছর ধরে পাথরের সাথে যুদ্ধ করে চালিয়ে যাচ্ছেন তার জীবন-জীবিকা। তার নিত্যসঙ্গী হিসেবে রয়েছে হাতুড়ি আর ছেনি (ধারালো লৌহখন্ড)।

মাহমুদ আলী জানান, প্রায় ৩৫ বছর আগে উপজেলা সদর থেকে আনুমানিক ১২ কি.মি. উত্তরে লোভা পাথর কোয়ারিতে কাজ করতাম। ওই সময় বড় পাথর ভাঙতে গিয়ে চারকোনা টুকরো বের হতো। অনেকেই টুকরোগুলো কিনে নিয়ে শিল-পাটা তৈরি করতেন। দেখে দেখে লেগে যাই শিল-পাটা তৈরির কাজে।
বর্তমানে আমার এখানে ২-৩ জন শ্রমিক প্রতিদিন কাজ করে, দিনে ৫-৬টি শিল-পাটা তৈরী করতে পারে একজন শ্রমিক। একটি শিল-পাটা ১৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়।

বগুড়া থেকে জাফলং বেড়াতে আসা পর্যটক শারমিন জাহান বলেন, শিলপাটার কোন বিকল্প নেই। বাজারের মসলার মধ্যে ভেজাল থাকে। বাড়িতে শিলপাটার বাটা মসলা দিয়ে রান্নার তরকারির স্বাদই আলাদা। তাই একটি শিলপাটা কিনলাম।

ঝড়ে সিলেটের স্টেডিয়ামে ব্যাপক ক্ষতি

ঝড়ে সিলেট শহরের অন্য কোথাও কোনো ক্ষতি না হলেও ভেঙে পড়েছে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের কাচের অবকাঠামোর প্রায় এক-তৃতীয়াংশ। শুক্রবার গভীর রাতে এ ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে জানান বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল।

তিনি বলেন, ঝড়ে স্টেডিয়ামের প্রেসিডেন্ট বক্সের অর্ধেক গ্লাস ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে। “এছাড়া হসপিটালিটি বক্স ও মিডিয়া বক্সেরও ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কাচের অবকাঠামোর প্রায় এক-তৃতীয়াংশ ভেঙে গেছে। ভেঙে গেছে অনেক চেয়ার। ঝড়ের সময় কাচ ভেঙে যাওয়ায় বৃষ্টির পানি ঢুকে নষ্ট হয়েছে অন্যান্য আসবাবপত্রও।”

ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণে ঢাকা থেকে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ ও ক্রিকেট বোর্ডের একটি দল সিলেটের উদ্দেশে রওনা হয়েছে বলে তিনি জানান। গত ২০০৭ সালে স্টেডিয়ামটি প্রতিষ্ঠার পর ২০১৩ সালে এখানে প্রায় ১২০ কোটি টাকার সংস্কারকাজ করা হয়। ২০১৪ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এটি উদ্বোধন করার পর সে বছরই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয় এখানে।

ঝড়ে সিলেটের বিভিন্ন গ্রামে কিছু ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া গেলেও শহরের কোথাও কোনো ক্ষতির খবর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

সার্টিফিকেট বাণিজ্য করতে দেওয়া হবে না: শিক্ষামন্ত্রী

সিলেট প্রতিনিধি: বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার নামে কাউকে সার্টিফিকেট বাণিজ্য করতে দেওয়া হবে না বলে আবারও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ। গতকাল বৃহস্পতিবার সিলেট মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাসের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, একসময় ব্যবসার উদ্দেশ্যে দেশে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছিল। ২০১০ সালে আইন করে এগুলোকে একটি নীতিমালার মধ্যে আনা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে এখন কাউকে ব্যবসা বা সার্টিফিকেট বাণিজ্য করতে দেওয়া হচ্ছে না। শর্তপূরণ না করে কেউ বিশ্ববিদ্যালয় চালাতে পারবেন হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সকল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে স্থায়ী ক্যাম্পাসে যেতে হবে। শর্ত পূরণে যারা ব্যর্থ হবে তাদের অনুমোদন বাতিল করা হবে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সরকারি চাকরি পেতে কোনো বৈষম্যের শিকার হবেন না উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সবার জন্য সরকারি সুযোগ উন্মুক্ত। যার যার মেধা দিয়ে সুযোগ কাজে লাগাতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের ক্ষমতা আরও বাড়ানো হবে জানিয়ে নাহিদ বলেন, মঞ্জুরী কমিশনের কর্মপরিধি আরও বাড়ানো হবে। যাতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উপর নজরদারি বাড়ানো যায়। এখন দেশে ১৩৪টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এ অবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের ক্ষমতা আরও বাড়াতে হবে। মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য সালেহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর মো. ফরাস উদ্দিন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম, ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান তৌফিক রহমান চৌধুরী ও প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব সাইফুজ্জামান শিখর প্রমুখ।

আরও ২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ দেবে ভারত: প্রতিমন্ত্রী

সিলেট প্রতিনিধি: আগামী দুই বছরের মধ্যে ভারত থেকে আরও দুই হাজার মেগাওয়াট বিদুৎ আমদানি করা হবে বলে জানিয়েছেন বিদুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।  রোববার সিলেটের একটি হোটেলে ‘টেকসই জ্বালানি প্রসারে গ্রিন ব্যাংকিংয়ের ভূমিকা’ শীর্ষক কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ইতিমধ্যে ভারত থেকে ৬০ মেগাওয়াট বিদুৎ আনা হয়েছে। সামনে আরও দুই হাজার মেগাওয়াট আনা হবে এবং তা দুই বছরের মধ্যেই হবে। এ বিদ্যুতে দাম নির্ধারণ হবে দুদেশের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে ২২টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে, যার মধ্যে চারটি চুক্তিপত্র অনুষ্ঠানে বিনিময় হয়।

অনুষ্ঠানে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী বাংলাদেশকে আরও ৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহের ঘোষণা দেন। দেশের সব মানুষকে বিদুতের আওতায় নিয়ে আসতে সরকার কাজ করছে জানিয়ে নসরুল হামিদ বলেন, ২০১৮ সালে একশ ভাগ বিদ্যুতায়ন করতে পারব বলে আমরা আশাবাদী। সরকারের গৃহীত গ্রিন ব্যাংকিং নীতিমালা ও বিভিন্ন কার্যক্রমের সাফল্য নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, পরিবেশবান্ধব অর্থায়নের উপযোগী অবকাঠামো তৈরির জন্য এ ধরনের প্রশিক্ষণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দেশে পরিবেশবান্ধব অর্থায়ন সহায়ক অবকাঠামো তৈরি শুধু টেকসই জ্বালানি উন্নয়নের জন্য নয়, বরং সামগ্রিক পরিবেশ উন্নয়ন ও টেকসই অর্থনীতির দিকে দেশের অগ্রযাত্রায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলেও তিনি মনে করেন।

সৌরবিদ্যুতের চাহিদা দিন দিন কমছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এখন প্রত্যন্ত গ্রাম পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে। এজন্য সৌরবিদ্যুতের চাহিদা কমছে। সঞ্চালন লাইনে বিদ্যুৎ পাওয়ায় মানুষ এখন সৌরবিদ্যুৎ নিতে চাইছে না। তবে যেসব এলাকায় গ্রিড লাইন যাবে না সেসব এলাকায় সৌরবিদ্যুৎ ব্যবহার করে আলোকিত করা হবে। সরকারের সাসটেইনেবল অ্যান্ড রিনিউয়েবল এনার্জি ডেভেলপমেন্ট অথরিটির (স্রেডা) চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চৌধুরী, সিলেটের জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার, বাংলাদেশে জার্মান দূতাবাসের ডেপুটি হেড অব মিশন মাইকেল শুলথেই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

সিলেট থেকে ১১টি মর্টার শেল উদ্ধার

সিলেট প্রতিনিধি : সিলেট মহানগরীর দরগাহ মহল্লা থেকে ১১টি মর্টার শেল উদ্ধার করা হয়েছে।  বুধবার দুপুরে দরগাহ মহল্লার হোটেল হেরিটেজের পেছনে একটি ছড়া থেকে এগুলো উদ্ধার করা হয়। সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ছড়া সংস্কারের সময় পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা ১১টি মর্টার শেল দেখতে পান। উদ্ধারকৃত মর্টার শেলগুলোর মধ্যে ৫টি বড় আকারের এবং ৬টি ছোট আকারের। এনামুল হাবীব আরও বলেন, দেখে মনে হয়েছে, এগুলো মুক্তিযুদ্ধকালীন মর্টার ও শেল।

শাবির ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির মামলা

সিলেট প্রতিনিধি,  সিলেটে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতিসহ সাত-আটজনের বিরুদ্ধে এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানিসহ হামলার অভিযোগে মামলা হয়েছে। জেলার নারী ও শিশুনির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে  বুধবার দুপুরে ওই ছাত্রীর মা মামলাটি দায়ের করেন বলে জানান পিপি আব্দুল মালেক। তিনি বলেন, আদালতের বিচারক মোহিতুল হক মামলা আমলে নিয়ে এ বিষয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। মামলায় তিনজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও চার-পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে। বিবাদীরা হলেন – বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী সঞ্জীবন চক্রবর্তী পার্থ, একই বিভাগের শিক্ষার্থী ছাত্রলীগকর্মী সাজ্জাদ রিয়াদ ও সমাজকর্ম বিভাগের শিক্ষার্থী ছাত্রলীগকর্মী মাহমুদুল হক রুদ্র।

এজাহারের বরাতে বাদীপক্ষের আইনজীবী মশরুর চৌধুরী শওকত বলেন, শনিবার বিকেলে পাঠানটুলা দ্বিপাক্ষিক উচ্চবিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা দেওয়া ওই ছাত্রী তার ফুফাত ভাইয়ের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ে বেড়াতে যান। শহীদ মিনার এলাকায় কয়েকজন ছাত্রলীগকর্মী তাকে উত্ত্যক্ত করার পাশাপাশি শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই সাংবাদিক এর প্রতিবাদ করলে তাদের ওপর হামলা চালান বিবাদীরা। হামলায় আহত বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি নাবিউল আলম দিপু ও সাধারণ সম্পাদক সরদার আব্বাস সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তবে ছাত্রলীগ সভাপতি সঞ্জীবন দাবি করেন, শ্লীলতাহানি বা হামলার সঙ্গে আমি বা ছাত্রলীগের কেউ জড়িত না। এ বিষয়ে ভিডিও ফুটেজ দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

শাবি ছাত্রলীগের কার্যক্রম স্থগিত
এক মেয়েকে শ্লীলতাহানি ও দুই সাংবাদিককে মারধরের ঘটনার পর সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। গতকাল বুধবার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এম এম জকির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির এক জরুরি সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক দেলওয়ার হোসেন শাহজাদা বলেন, ‘আমরা ঘটনা তদন্তে দুই সদস্যে কমিটি গঠন করেছি। তাদের তদন্তের ফলাফলের ভিত্তিতে কমিটি স্থায়ী বাতিলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব।’ কমিটির দুই সদস্য হচ্ছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক চন্দ্র শেখর মণ্ডল এবং প্রচার সম্পাদক সাইফুদ্দিন বাবুল। কমিটির সদস্যরা শিগগির ক্যম্পাসে গিয়ে তদন্ত শুরু করবেন। ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক নজরুল ইসলাম তাদের সহযোগিতা করবেন জানান এ ছাত্রলীগ নেতা।

সেনা কর্মকর্তা লাঞ্ছিত ছাত্রলীগের ৪ নেতাকর্মী কারাগারে

সিলেট প্রতিনিধি: সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত করার মামলায় সিলেট নগরীর ছাত্রলীগের চার নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।
কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি সোহেল আহাম্মদ জানান, শনিবার জালালাবাদ সেনানিবাসের মেজর আবদুল আজিজ কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা করেন। ওইদিন বিকালে নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। রোববার আদালতে হাজির করলে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়। এরা হলেন নগরীর ২২ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আসাদুজ্জামান খান জুয়েল, সংগঠনটির কর্মী হাবিবুর রহমান পাবেল, সাইদুল ইসলাম ও মাকসুদ আহমেদ। মামলার বরাত দিয়ে ওসি সোহেল বলেন, গত ৬ এপ্রিল বিকালে নগরীর মীরের ময়দান কেওয়াপাড়ার বাড়ি থেকে প্রাইভেটকারে নিয়ে বের হন মেজর আবদুল আজিজ। এ সময় গাড়িটিকে মোটরসাইকেলে করে ওভারটেক করার চেষ্টা করেন কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী। রাস্তা সরু হওয়ায় অতিক্রম করতে না পারায় তারা আজিজের গাড়ি ভাঙচুর করেন। বাধা দেওয়ায় তারা আজিজকে ছুরিকাঘাত করেন। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে তাকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। এ ঘটনায় শনিবার দুপুরে কোতোয়ালি থানায় সাত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেন মেজর আজিজ। গ্রেফতার চারজনই ওই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি বলে জানান তিনি। সিলেট মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি আবদুল বাসিত রুম্মান বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক। আরেকটি ঘটনায় ওইদিন শহরের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ করে ছাত্রলীগ। সে সময় এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। ঘটনার সঙ্গে গ্রেপ্তার চার নেতাকর্মীর সম্পৃক্ততা না থাকলে তাদের মুক্তির দাবি জানান তিনি।



Go Top