বিকাল ৩:৫৯, রবিবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ রাজশাহী

দুপচাঁচিয়া (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার দুপচাঁচিয়া থানা পুলিশ স্থানীয় জনগণের সহায়তায় দেশী অস্ত্রসহ গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ২ যুবককে আটক করেছে।
আটককৃত ২ যুবক উপজেলার জোহাল মাটাই গ্রামের আবু তালেব মাস্টারের পুত্র আবু নাসের ওরফে নিয়ন (২০) ও খিহালী মধ্যপাড়ার মৃত মাসুদ ফারুকের পুত্র মাহমুদুল হাসান জুনায়েদ (২৫)। এ সময় তাদের কাছে রক্ষিত গিটারের মধ্যে থেকে স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে পুলিশ সামুরাই, ভুজালী, তরবারি উদ্ধার করে। পুলিশ আটককৃত যুবকদের জিজ্ঞাসা করলে তারা জানায়, পালিয়ে যাওয়া বন্ধু বেলভুজা গ্রামের আব্দুর রশিদের পুত্র আকাশ (২১) এর প্রেমিকাকে অপহরণের জন্য উক্ত অস্ত্রগুলো ব্যবহারের উদ্দেশ্যে ছিল। এ ব্যাপারে ওই রাতেই পুলিশ বাদী হয়ে দুপচাঁচিয়া থানায় অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করে। থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নজরুল ইসলাম অস্ত্রসহ ২ যুবককে আটক করে  শনিবার বগুড়া কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর ২ যুবককে গ্রেফতারের তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

ধামইরহাটে আদিবাসী শিক্ষার্থীদের  মাঝে দুধ ও ডিম বিতরণ

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর ধামইরহাটে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ পালন উপলক্ষে উপজেলার তালঝাড়ী আদিবাসী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ শত জন শিক্ষার্থীদের পুষ্টি খাদ্য হিসেবে দুধ ও ডিম বিতরণ করা হয়। 
গতকাল শনিবার সকালে উপজেলা প্রাণিসম্পদ দফতরের উদ্যোগে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ পালন উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি উপজেলা সদরে বের করা হয়। 

নিরাপদ প্রাণিজ আমিষের প্রতিশ্রুতি সুস্থ সবল মেধাবী জাতি এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে শহীদ মিনারে এক আলোচনা সভা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সফিউজ্জামান ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। 

সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান মঈন উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাজেদা বেগম, ইউপি চেয়ারম্যান মো. কামরুজ্জামান, ধামইরহাট পোল্ট্রি ফিড এবং খামারি সমিতির সভাপতি মো. হানজালা, খামারি আবু সাঈদ প্রমুখ।  
 

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আগ্নেয়াস্ত্র ও  গুলিসহ একজন গ্রেফতার

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও শিবগঞ্জ প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিবগঞ্জ উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নের বাখেরআলী এলাকায়  শনিবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে ২টি পিস্তল ও ১৪ রাউন্ড গুলিসহ মিলন হোসেন (২২) নামে এক অস্ত্র ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে বিজিবি। 
গ্রেফতারকৃত মিলন উপজেলার পারচৌকা গ্রামের একরামুল হকের ছেলে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল এস.এম আবুল এহসান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির চৌকা সীমান্ত ফাঁড়ির একটি টহল দল শনিবার দুপুর ১টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার বাখের আলী বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে আমেরিকার তৈরি ২টি পিস্তল, ৪টি ম্যাগজিন ও ১৪ রাউন্ড গুলিসহ অস্ত্র ব্যবসায়ী মিলনকে গ্রেফতার করে। 
এ ঘটনায় শিবগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে। 

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আগ্নেয়াস্ত্রসহ আটক ১

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিবগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ইকবালপুর এলাকা থেকে গত বুধবার রাতে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্রসহ লাল চাঁদ (২৫) নামে এক অস্ত্র ব্যবসায়ীকে আটক করেছে বিজিবি। আটককৃত লাল চাঁদ উপজেলার তারাপুর এলাকার সেন্টু মিয়ার ছেলে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল এস এম আবুল এহসান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মনাকষা সীমান্ত ফাঁড়ির হাবিলদার হাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে বিজিবির একটি টহল দল বুধবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে ইকবালপুর মোড়ে একটি অটোরিক্সায় তল্লাশি চালিয়ে ১টি পিস্তল, ৪ রাউন্ড গুলি, ২টি ম্যাগজিন ও ২০ বোতল ফেনসিডিলসহ লাল চাঁদ নামে এক অস্ত্র ব্যবসায়ীকে আটক করেছে। এ ঘটনায় শিবগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে তেলকুপি সীমান্ত ফাঁড়ির অপর একটি দল বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী শাহবাজপুর ইউপির বিশ^াসটোলা এলাকায় একটি বাঁশ ঝাড়ের ভিতর থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ৪৫০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোয়া ৭ কেজি গানপাউডার উদ্ধার

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার ওয়াহেদপুর সীমান্তে গত বুধবার গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে ৭ কেজি ২৫০ গ্রাম গান পাউডার উদ্ধার করেছে বিজিবি। তবে এ ঘটনায় কেউ আটক হয়নি।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল এস.এম আবুল এহসান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির ওয়াহেদপুর সীমান্ত ফাঁড়ির নায়েব সুবেদার জামাল উদ্দিনের নেতৃত্বে একটি দল বুধবার দিবাগত রাত ১টার দিকে ওয়াহেদপুর সীমান্তের ১৩/৩ এস নম্বর সীমান্ত পিলার এলাকা থেকে বাংলাদেশের প্রায় এক কিলোমিটার অভ্যন্তরে শিবগঞ্জের শ্যামপুর গ্রামের একটি বাঁশ ঝাড়ে অবস্থান নেয়। এ সময় ২/৩ জন চোরাকারবারী ব্যাগ নিয়ে ভারতের দিক থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করে। বিজিবি সদস্যরা তাদের ধাওয়া করলে তারা একটি ব্যাগ ফেলে ভারতের দিকে পালিয়ে যায়। পরে ওই ব্যাগ থেকে ৭ কেজি ২৫০ গ্রাম গান পাউডার উদ্ধার করে বিজিবি। উদ্ধারকৃত গানপাউডার শিবগঞ্জ থানায় জমা দেয়া হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ কেন্দ্রীয় ট্রাক টার্মিনালে পাথরের স্তূপ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি : নির্মাণের ৯ বছর পেরিয়ে গেলেও চাঁপাইনবাবগঞ্জ কেন্দ্রীয় ট্রাক টার্মিনাল পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হয়নি। ট্রাকের পরিবর্তে টার্মিনাল জুড়ে রাখা হয়েছে পাথরসহ বিভিন্ন নির্মাণ সামগ্রী। এদিকে শহরের বিভিন্ন সড়কের দু’ধারে ইচ্ছামত ট্রাক পার্কিং করায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। পৌরসভার দাবি কেন্দ্রীয় টার্মিনালে সবধরনের সুযোগ সুবিধা থাকার পরও টার্মিনালটি সচল করা যাচ্ছে না। অন্যদিকে ট্রাক মালিকরা বলছেন ১০ মাসের জন্য ইজারা নিলেও তাদের কাছে টার্মিনাল হস্তান্তর করছে না পৌরসভা।
শহরকে যানজটমুক্ত ও ট্রাক পার্কিং-এর ক্ষেত্রে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী মহাসড়কের দ্বারিয়াপুর এলাকায় ২০০৮ সালে নির্মাণ করা হয় কেন্দ্রীয় ট্রাক টার্মিনাল।

৩ দশমিক ১৫ একর জায়গার ওপর প্রায় ২ কোটি টাকা ব্যয়ে এই ট্রাক টার্মিনালটি নির্মাণ করে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা। পৌরসভার সূত্রে জানা গেছে, এখানে প্রায় শতাধিক ট্রাক পার্কিং করাসহ চালক ও তাদের সহকারীদের বিশ্রামের জন্য অন্যান্য সব ধরনের সুযোগ সুবিধা আছে। কিন্তু নির্মাণের ৯ বছর পেরিয়ে গেলেও আজও পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে টার্মিনালটি। বেশ কয়েকবার ঢাকঢোল পিটিয়ে এর উদ্বোধন করা হলেও কখনাই স্থায়ীভাবে চালু হয়নি এই টার্মিনাল। ফলে এখন ট্রাক টার্মিনালে পরিণত হয়েছে পুরো চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহর। জেলা শহরের বিশ্বরোড মোড় থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল এলাকা, স্বরূপনগর, সিসিডিবি মোড় এলাকা পর্যন্ত এলাকায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী মহাসড়কের দু’ধারে যেখানে-সেখানে ট্রাক পার্কিং করে রাখা হচ্ছে। এছাড়া শহরের ঢাকা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রেলের জমিতে গড়ে উঠেছে একাধিক ট্রাক টার্মিনাল। এসব কারণে এই এলাকাগুলোয় যানবাহনের চাপ বেড়ে যাওয়ায় দিনরাত যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। সরেজমিন ট্রাক টার্মিনাল ঘুরে দেখা গেছে টার্মিনালের খোলা চত্বরে রাখা হয়েছে নির্মাণ কাজের জন্য ব্যবহৃত পাথরের স্তূপ। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভায় চলমান ‘তৃতীয় নগর পরিচালন ও অবকাঠামো উন্নতিকরণ’ প্রকল্পের কাজে ব্যবহৃত নির্মাণ সামগ্রী রাখা হয়েছে এই ট্রাক টার্মিনালে। তবে এসব মালামাল রাখার জন্য পৌরসভাকে রাজস্ব দেয়া হয় কি না- এই বিষয়ে মুখ খুলতে চাননি সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ও পৌরসভার কর্মকর্তরা।

এদিকে ট্রাক টার্মিনালটি চালু না হওয়ার জন্য একে অপরকে দূষছেন ট্রাক মালিক-শ্রমিক ও পৌরসভা কর্তৃপক্ষ।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ট্রাক মালিক গ্রুপের সভাপতি আমিনুল ইসলাম সেন্টু জানান, বেশ কয়েকমাস আগে এই টার্মিনালটি পৌরসভার কাছ থেকে ৯ লাখ টাকায় ১০ মাসের জন্য ইজারা নেয়া হয়। কিন্তু মাত্র ২ মাস টার্মিনালটি সচল ছিল। এরপরে প্রশাসনের নির্দেশে টার্মিনাল বন্ধ করে দেয়া হয়। কিন্তু আজ পর্যন্ত পৌরসভা এই টার্মিনাল আর চালু করেনি। এতে তারা আর্থিকভাবে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী সাদেকুল ইসলাম জানান, এখানে ট্রাক চালকদের জন্য সব ধরনের সুবিধা রয়েছে। মাঝে কিছুদিন চালু করার পর বিভিন্ন কারণে আবার টার্মিনাল বন্ধ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, প্রয়াত জেলা প্রশাসক জাহিদুল ইসলামের উদ্যোগে টার্মিনালটি চালুর সব ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু হঠাৎ করে তার মৃত্যুর কারণে সেই প্রক্রিয়াও ভেস্তে গেছে। এ ব্যাপারে পৌরসভার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে দাবি করে তিনি বলেন নতুন জেলা প্রশাসকের সহায়তা নিয়ে খুব শিগগরিই তা চালু করা হবে।

সোনাতলায় সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুলশিক্ষক গুরুতর আহত

সোনাতলা (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার সুখানপুুকুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী ক্যাটালগার (লাইব্রেরিয়ান) ওয়ালিউল হক সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বগুড়ার শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করেছে। বৃহস্পতিবার ওই শিক্ষক পার্শ্ববর্তী মহিচরণ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে থেকে পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফেরার পথে গনিয়ারীকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন স্থানে পৌঁছলে অপরদিক থেকে আসা একটি মাটি বোঝাই ট্রাক তাকে সজোরে ধাক্কা দিলে সে মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে। এ সময় সে গুরুতর আহত হয়।

রাজশাহীতে জেএমবি সদস্য গ্রেফতার

রাজশাহী প্রতিনিধি : নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়েতুল মুজাহেদীন বাংলাদেশ (জেএমবির) সক্রিয় সদস্য মজনুর রহমান ওরফে বল্টুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত বুধবার রাত ৮টার দিকে রাজশাহী নগরীর নিউ গভঃ ডিগ্রি কলেজ এলাকা থেকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সহায়তায় চারঘাট মডেল থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।
 গ্রেফতার মজনুর রহমান ওরফে বল্টু জেলার বাগমারা উপজেলার পলাশী গ্রামের মৃত-ছাবের আলীর ছেলে। তার বিরুদ্ধে চারঘাট ও বাগমারা থানায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনসহ বিভিণœ ধরনের একাধিক মামলা রয়েছে।

চারঘাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (চলতি দায়িত্বে) উপপরিদর্শক মনিরুল ইসলাম বলেন, জেএমবির সক্রিয় সদস্য আহম্মদ বিন ওরফে লালনের সহযোগী হিসেবে চারঘাট ও বাগমারাসহ গ্রেফতার মজনুর রহমান সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করছিল। মজনুর থানার সন্ত্রাস বিরোধী আইনের একটি মামলার সন্দেহজনক আসামি এবং পুলিশের তালিকাভুক্ত জেএমবি সদস্য।

তিনি বলেন, বুধবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে মজনুর রাজশাহী নগরীতে অবস্থান করে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের পরিকল্পনা করছে। এর পর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সহায়তায় নিউ গভঃ ডিগ্রি কলেজ এলাকা থেকে মজনুরকে গ্রেফতার করা হয়।  বৃহস্পতিবার সকালে মজনুরকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আত্রাইয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টায় একজন আটক

আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর আত্রাইয়ে এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে এক বখাটেকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে গ্রামবাসী। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটেছে  বৃহস্পতিবার উপজেলার তাড়াটিয়া ছোটডাঙ্গা গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার উচলীকাশিমপুর গ্রামের জনৈক ব্যক্তির কন্যা ও ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী প্রতিদিনের ন্যায়  বৃহস্পতিবার স্কুলে যাওয়ার পথে পার্শ্ববর্তী তারাটিয়া ছোটডাঙ্গা গ্রামের এনামুল হক (১৮) নামের এক বখাটে তার পথরোধ করে জোরপূর্বক তাকে রাস্তার পাশে ভূট্টার জমিতে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় ওই ছাত্রী চিৎকার শুরু করলে গ্রামবাসী গিয়ে এনামুলকে হাতেনাতে আটক করে আত্রাই থানা পুলিশের নিকট সোপর্দ করে। আত্রাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বদরুদ্দোজা বলেন, এনামুলকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা ।

গোদাগাড়ীতে অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার

গোদাগাড়ী (রাজশাহী) প্রতিনিধি :  রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে অজ্ঞাত এক যুবকের (২৫) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার সাহাব্দিপুর এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) মর্গে পাঠানো হয়। এর আগে ভোরে রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ মহাসড়কের পাশে লাশটি পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেন।  গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিপজুর আলম মুন্সি বলেন, অজ্ঞাত ওই যুবক মানসিক প্রতিবন্ধী। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় তাকে ঘুরে বেড়াতে দেখা যেত। ধারণা করা হচ্ছে, মহাসড়কে কোনো গাড়ির ধাক্কায় রাতে তিনি মারা গেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি রামেকের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত ব্যক্তির পরিচয় জানারও চেষ্টা চলছে। আর এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হবে।

পাবনায় স্বর্ণালঙ্কার ও টাকা চুরি করে লাপাত্তা ৩ শ্রমিক

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনা শহরের সোনপট্রি এলাকার ‘শাহজালাল চেইনঘর’ নামের এক জুয়েলারী ব্যবসায়ীর দোকান থেকে প্রায় ২৫ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ২ লাখ ৭৮ হাজার টাকা চুরির ঘটনা ঘটেছে। গত বুধবার দিবাগত গভীর রাতে এই চুরি সংঘটিত হয়। এ ঘটনার পর থেকে ওই দোকানের তিন শ্রমিক লাপাত্তা রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তারাই এ চুরির সাথে জড়িত।

 জেলা জুয়েলারী মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও ‘শাহজালাল চেইনঘর’র মালিক আমজাদ হোসেন জানান, সোনপট্রি এলাকার বিভিন্ন জুয়েলারী ব্যবসায়ী অত্যাধুনিক মেশিনে চেইন তৈরি করতে ‘শাহজালাল চেইনঘরে’ প্রায় ২৫ ভরি সোনা জমা দেন। এরপর মেশিন নষ্ট হয়েছে এই অজুহাত দেখিয়ে বুধবার রাতের আঁধারে স্বর্ণালংকার ও নগদ ২ লাখ ৭৮ হাজার টাকা চুরি করে পালিয়ে যায় কারখানার তিন শ্রমিক।

ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা জানান, ‘শাহজালাল চেইনঘরে’ তিন বছর যাবত কর্মচারী হিসেবে কাজ করার মধ্যে দিয়ে বিশ^স্ততা অর্জন করেন তিন শ্রমিক। তাদের বাড়ি সবার কুমিল্লা জেলায়। এরা হলেন- শাহদাত হোসেন লিটন (৪৫), রিপন হোসেন (৪৪) ও রুবেল উদ্দিন (৩৬)। চুরির ঘটনার পর থেকে তাদের কোন সন্ধান মিলছে না। ধারণা করা হচ্ছে-লাপাত্তা হওয়া তিন শ্রমিকই চুরির ঘটনার সাথে জড়িত।

এ ব্যাপারে পাবনা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, চুরির ঘটনায় জেলা জুয়েলারী মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও ‘শাহজালাল চেইনঘর’র মালিক আমজাদ হোসেন বাদি হয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি তদন্তপূর্বক আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

বেলকুচিতে ওমরের খুনিদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন

 বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জে বেলকুচিতে নিহত ওমর আলীর খুনিদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।  বুধবার দুপুরে উপজেলার কাঠেরপুল এলাকায় উক্ত মানববন্ধন করা হয়। খুনিদের ফাঁসির দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে এলাকার বিপুলসংখ্যক জনগণ অংশগ্রহণ করেন। উল্লেখ্য, গত ১৬ ফেব্র“য়ারি  বেলকুচি চরাঞ্চল থেকে নিখোঁজের ৮ দিন পর ওমর আলীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। সে উপজেলার বড়ধূল ইউনিয়নের চর ধুলপগাতী গ্রামের মছির উদ্দিনের ছেলে। বেলকুচি থানার ওসি সাজ্জাদ  হোসেন জানান, গত ৭ ফেব্রুয়ারি সকালে ওমর আলী মাস কলাই তোলার কথা বলে বাড়ি  থেকে  বের হয়ে যায়। এর পর  সে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। ১৬ ফেব্রুয়ারি দুপুরে স্থানীয় জেলেরা নদীতে মাছ ধরতে গেলে তাদের জালে একটি বস্তা আটকা পড়ে। পরে বস্তাটি ডাঙ্গায় তোলার পর খুলে হাত পা বাধা অবস্থায় ওই যুবকের অর্ধ গলিত লাশ দেখতে পায়। পরে তারা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ বেলা তিনটার দিকে ওমরের লাশ উদ্ধার করে। উদ্ধার করা লাশের হাত-পা ও গলায় দড়ি দিয়ে বাঁধা ছিল। ধারণা করা হচ্ছে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করার পর   বস্তায় বালু ভরে বস্তাবন্দী করে যমুনা নদীতে  ফেলে দিয়েছে। লাশ উদ্ধারের পর ময়না তদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় ওমরের পিতা মছির উদ্দিন বাদী হয়ে বেলকুচি থানায় একটি হত্যামামলা দায়ের করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিার সফর উপলক্ষে সান্তাহারে কৃষকলীগের বিশেষ বর্ধিত সভা

সান্তাহার (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার সান্তাহারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা সফল করার লক্ষে  বুধবার  বেলা ১২টায় আদমদীঘি উপজেলা কৃষকলীগের উদ্যোগে বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সান্তাহার আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে আদমদীঘি উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি হারুনুর রশিদ সোহেলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন  কেন্দ্রীয় বাংলাদেশ কৃষকলীগের সহ-সভাপতি আব্দুল লতিফ তারিন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাথাওয়াৎ হোসেন সুইট,  বাংলাদেশ কৃষকলীগের ক্ষেত মজুর বিষয়ক সম্পাদক ইমারত আলী, বাংলাদেশ কৃষকলীগের  কেন্দ্রীয় কমিটি সদস্য আজমল হোসেন, বগুড়া জেলা কৃষকলীগের সভাপতি আলমগীর বাদশা, প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন বগুড়া জেলা কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক মঞ্চুরুল হক মঞ্জু, কৃষকলীগের নেতা বাদল রহমান, শাহিন কাদের, আনোয়ার পারভেজ, কুইন তালুকদার, সুমা, বিথি, দৃপ্তি, গোলাম ফারুক আঙ্গুর, আনোয়ার হোসাইন, শামীম আক্তার প্রমুখ। বক্তারা  সভায় আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি সান্তাহার স্টেডিয়ামে আয়োজিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা সফল করতে দৃঢ় সংকল্প ব্যক্ত ও বিভিন্ন পরামর্শমূলক বক্তব্য রাখেন। প্রধানমন্ত্রী এদিন বিকালে জনসভায় বক্তব্য দেবার পূর্বে বেলা ১১টায় সান্তাহারে নির্মিত দেশের প্রথম বহুতলবিশিষ্ট খাদ্য গুদাম (মাল্টিস্টোরিড ওয়ারহাউজ গ্রেইন সাইলো) উদ্বোধনের পাশাপাশি এখান থেকে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় নির্মিত ৮ উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন ও উন্নয়নমুলক ৮ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন।

 

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে নারী শিক্ষার প্রসার ঘটে : টুকু এমপি

সাঁথিয়া (পাবনা) প্রতিনিধি : সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এড. শামসুল হক টুকু এমপি বলেছেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে নারী শিক্ষার প্রসার ঘটে। এখন দেশে নারীরা উন্নয়ন কাজে ব্যাপক সহযোগিতা করে দেশকে বিশ্বের দরবারে উজ্জল করেছে। বর্তমান সরকার নারীদের সুশিক্ষা করে গড়ে তোলার উপর গুরুত্ব দিয়ে  দেশ থেকে নিরক্ষরতা দূর করতে বদ্ধপরিকর।  বুধবার পাবনার সাঁথিয়া মহিলা ডিগ্রি কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, পুরস্কার বিতরণ ও প্রীতিভোজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে ও শিক্ষক আবুল কালাম আজাদের পরিচালনায় আরো বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান  মোখলেছুর রহমান, আওয়ামী লীগ নেতা হাসান আলী খান, রবিউল করিম হিরু, সাঁথিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দিন প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য দেন কলেজের অধ্যক্ষ মাওঃ আব্দুল মালেক।

সরকার ক্রীড়া ও সংস্কৃতি চর্চায় অধিক গুরুত্ব দিয়েছে : তানসেন এমপি

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি : নন্দীগ্রাম-কাহালু আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম তানসেন বলেছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে লেখাপড়ার পাশাপাশি ক্রীড়া ও সংস্কৃতি চর্চায় সমান গুরুত্ব দিতে হবে। শেখ হাসিনার সরকার অধিক গুরুত্ব দিয়েছে ক্রীড়া ও সং¯কৃতি চর্চাকে। তিনি বলেন, খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার মাধ্যমে আমাদের শিশুদের মেধা ও মনন বিকাশের সুযোগ পাবে। সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদকাশক্তি থেকে ছেলে-মেয়েদের দূরে থাকতে হবে।  বুধবার বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার কড়ইহাট বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক শিক্ষা, সংস্কৃতি, ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি গোলাম রব্বানীর সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন পন্ডিতপুকুর ফাঁড়ি ইনচার্জ মিজানুর রহমান, প্রধান শিক্ষক রইছ উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলী প্রমুখ। পরে তিনি বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন শিক্ষক মো. সাইফুল ইসলাম ও অফিস সহকারী মো. শফিকুল ইসলাম।

নবনির্মিত নন্দীগ্রাম উপজেলা পরিষদ ও মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধনের অপেক্ষায়

বকুল হোসেন, নন্দীগ্রাম (বগুড়া) : বগুড়ার নন্দীগ্রামে ভয়াবহ তান্ডবে লন্ডভন্ড উপজেলা পরিষদ নতুন রূপ পেয়েছে। আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি এটি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই দিন মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন উদ্বোধন করবেন তিনি।

মাওলানা দেলোওয়ার হোসাইন সাঈদীকে দেখা যাওয়ার গুজবে তান্ডবের তিন বছর পর নির্মিত হয়েছে চারতলাবিশিষ্ট উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স। পাশাপাশি উপজেলা অডিটরিয়ামের নির্মাণ কাজও শেষ। নতুন সাজে সজ্জিত হয়ে নবরূপে উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে উপজেলা পরিষদের নবনির্মিত কমপ্লেক্স। দরজা-জানালা থেকে শুরু করে ভবনের চারপাশে রঙের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। ঝকঝকে চকচকে করা হয়েছে উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স। পাল্টে গেছে পরিষদের ২০১৩ সালের ধ্বংসযজ্ঞ চিত্র।

সূত্র মতে, ২০১৩ সালের ৩ মার্চ জামায়াত নেতা মাওলানা দেলোওয়ার হোসাইন সাঈদীকে চাঁদে দেখা যওিয়ার গুজবে নন্দীগ্রাম উপজেলা পরিষদে দফায় দফায় কয়েক ঘন্টাব্যাপী তান্ডবে ১৬টি অফিসে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এরপর ২০১৪ সালের ১৬ এপ্রিল জিওবির অর্থায়নে ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর এলজিইডির বাস্তবায়নে ৪ কোটি ২৮ লাখ ৮৪ হাজার ৩৯৪ টাকা ব্যয়ে উপজেলা কমপ্লেক্স ভবন সম্প্রসারণ প্রকল্পের কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বগুড়ার কবির ট্রেডার্স। ৬তলা ভিতবিশিষ্ট ৪র্থতলা ভবন নির্মাণ, হল নির্মাণ, স্যানিটারি, বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহসহ সোলার সিস্টেম নির্মাণ শেষ হয়েছে।

এদিকে পৌর শহরের শেরপুর বাসস্ট্যান্ড নামক স্থানে মহাসড়কের পশ্চিম পাশে ৮শতক জায়গার উপর মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের নির্মাণ কাজও শেষ পর্যায়ে। চলতি বছরের ১৩ মার্চ স্থানীয় সরকার বাস্তবায়নে ১ কোটি ৭২ লাখ ২৫ হাজার ৫৮২ টাকা ব্যয়ে এ ভবনটি নির্মাণ করা হয়। পাঁচতলাবিশিষ্ট তিনতলা ভবনটির নিচ তলায় দোকন ঘর থাকবে। দ্বিতীয় তলায় হবে কমিউনিটি হল এবং তৃতীয় তলায় হবে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অফিস। দোকান ঘর ও কমিউনিটি হল ভাড়া বাবদ প্রতি মাসে বাড়তি আয় হবে যা মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণে ব্যয় করা হবে।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা: শরীফুন্নেসা বলেন, আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি নবনির্মিত নন্দীগ্রাম উপজেলা পরিষদ ও মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

 

মারা গেলেন বগুড়ার সেই রোগী

বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সেই রোগী মারা গেছেন, যার ছেলেকে মারধর করার পর জরুরি বিভাগে তালা দিয়ে ধর্মঘট করেছিলেন ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

আলাউদ্দিন (৬০) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার ভোরে মারা যান বলে জানান হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ টিএসআই শাহ আলম।

তিনি বলেন, আলাউদ্দিনের বাড়ি সিরাজগঞ্জ সদরের কোনাগাতি গ্রামে। হাসপাতাল থেকে তার স্বজনরা লাশ নিয়ে চলে গেছেন।

হৃদরোগে আক্রান্ত আলাউদ্দিনকে শনিবার রাত ৩টার দিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আলাউদ্দিনের ছেলে রউফ সরকার অভিযোগ করেছিলেন, “রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রুমের ফ্যান বন্ধ করার চেষ্টা করেও যখন পারছিলাম না তখন নাজ নামের এক ইন্টার্নি ডাক্তারকে বলি ‘আপা ফ্যানের সুইচটা কোথায়’?

“তিনি রেগে গিয়ে বলেন, ‘আমি কি আয়া?  আমি কি এই রুমে থাকি?’  এ সময় আসিফ নামে আরেক ডাক্তার এসে বলেন, ‘এই ডাক্তারের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করছিস কেন?

“এ কথা বলে আমার শার্টের কলার চেপে ধরে মারতে মারতে একটি কক্ষে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে মারধর করে এবং একশ বার কান ধরে উঠবস করায়।”

রউফ বলেন, “তারপর পরিচালকের কক্ষে আটকে রাখা হয়। বিকাল ৩টায় আবারও মারধর করার সময় পরিচালক কক্ষ থেকে বেরিয়ে যান।”

ইন্টার্ন চিকিৎসকরা তার দুই বোনকে লাঞ্ছিত করে বলেও অভিযোগ করেন রউফ।

টিএসআই শাহ আলম বলেন, “মারধরের ঘটনা জানার পর সেখানে গিয়ে রউফকে উদ্ধার করি। এ সময় পুলিশ সদস্যরাও মারধরের শিকার হয়।”

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের মুখপাত্র কুতুবুদ্দিন বলেন, “অসাদাচরণের জন্য দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে বেলা সাড়ে ৩টা পর্যন্ত জরুরি বিভাগ বন্ধ করে ডাক্তারদের নিরাপত্তাসহ ৭ দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু করি। পরে পরিচালকসহ সিনিয়র ডাক্তারদের অনুরোধে জরুরি বিভাগের তালা খুলে দেওয়া হয়েছে।”

পরদিন সোমবার অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটও প্রত্যাহার করা হয়।

রউফকে মারধরের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “রউফ দুর্ব্যবহার করলে তাকে দমানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।”

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম মাসুদ আহসান দাবি করেন, তার কক্ষে মারধরের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

 

বদলগাছীতে বেসরকারি কলেজগুলোতে দরিদ্র ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি

বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর বদলগাছীতে নিভৃত গ্রাম পর্যায়ে বেসরকারি কলেজগুলো প্রতিষ্ঠা লাভে হতদরিদ্র ছাত্রছাত্রীদের উ””শিক্ষা লাভে সুযোগ মিলেছে। ইতিপূর্বে দরিদ্রতার কষাঘাতে এস.এস.সি পাস করার পর অসংখ্য ছেলেমেয়ে উচ্চশিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হতো।

যারা অর্থাভাবে দূরে কোথাও বা উন্নত কলেজে ভর্তি হতে পারেনি। সাধ ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও কত মেধাবী ছাত্রছাত্রীরা এসএসসির পর উচ্চশিক্ষা থেকে ঝরে পড়েছে। বর্তমানে বদলগাছীর নিভৃত পল্লী গ্রাম পর্যায়ে কারিগরিসহ ৮টি কলেজ প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। এছাড়া বদলগাছী উপজেলায় ১টি সরকারি কলেজ রয়েছে।
গ্রাম পর্যায়ে কলেজগুলো প্রতিষ্ঠা করায় এলাকার সকল শ্রেণির ছাত্রছাত্রী ডিগ্রি পর্যন্ত শিক্ষা লাভের সুযোগ পেয়েছে। বাড়িতে পান্তা ভাত খেয়ে পায়ে হেঁটে কলেজে পড়াশুনা করতে পারছে জন্যই এখন শতভাগই ছাত্রছাত্রী উচ্চশিক্ষা লাভ করছে।

কলেজগুলো হলো কোলা আদর্শ ডিগ্রি কলেজ, বদলগাছী মহিলা ডিগ্রি কলেজ, গবরচাপা ডিগ্রি কলেজ এবং মিঠাপুর আকতার হামিদ সিদ্দিকী কলেজ। মিঠাপুর আকতার হামিদ সিদ্দিকী কলেজটি এখনও এমপিওভুক্ত না হওয়ায় ওই কলেজের শিক্ষক কর্মচারীবৃন্দ মানবেতর জীবনযাপন করছে এবং কলেজটি অনিশ্চয়তার পথে। বদলগাছী ৪টি কারিগরি কলেজ প্রতিষ্ঠা লাভে এলকার ছাত্র/ছাত্রীরা কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষালাভ করতে পারছে। কিন্তু ৩টি কারিগরি কলেজ এখনও  এমপিওভুক্ত না হওয়ায় শিক্ষক কর্মচারীবৃন্দ মানবেতর জীবনযাপন করছে।

কোলা আদর্শ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. আলাউদ্দীন ও বদলগাছী মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সাজ্জাদ হোসেন এবং বদলগাছী কারিগরি কলেজের অধ্যক্ষ জিনাত রশিদ আজাদ বলেন, কলেজগুলোতে শিক্ষার পরিবেশ ভাল এবং ছাত্রছাত্রীরা ভালো ফলাফলও করছে।

পাবনায় দেড়বছর বয়সী শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনার বেড়া পৌর সদরের পায়না মহল্লার ইমন নামের দেড় বছর বয়সী এক শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।  সোমবার দুপুরে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মৃত ইমন ওই মহল্লার ফরমান মোল্লার ছেলে।  

পুলিশ ও স্বজনদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত রোববার রাতে ফরমান মোল্লা ও তার স্ত্রী দেড় বছর বয়সী ছেলে ইমনকে নিয়ে ঘুমিয়েছিলেন। ভোর রাতে তারা জেগে দেখেন তাদের সন্তান বিছানায় নেই। বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও শিশুটির সন্ধান পাননি তারা।   সোমবার দুপুর ১২টার দিকে বাড়ির অদূরে একটি মাঠের ক্যানেলের পাড়ে শিশুটিকে মৃত অবস্থায় দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন। পরে খবর পেয়ে বেড়া থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে পাবনার সহকারী পুলিশ সুপার (বেড়া সার্কেল) শামসুল হক জানান, শিশুটির মৃত্যুর ঘটনা রহস্যজনক। কিভাবে তার মৃত্যু হলো সেটা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ময়না তদন্তের জন্য শিশুটির মরদেহ পাবনা জেনারেল হাসাপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

 

দেশের মধ্যে প্রথম পাবনা জেলায় শতভাগ বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ!

পাবনা প্রতিনিধি : বাংলা ভাষা ও শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এবং ভাষা আন্দোলনের ইতিহাসকে সমুন্নত রাখতে পাবনা জেলার শতভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে। একটি জেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শতভাগ শহীদ মিনার নির্মাণ সারাদেশের মধ্যে প্রথম হওয়ার গৌরব অর্জন করল পাবনা জেলা।
গত ১৯ ফেব্রুয়ারি জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ঘোষণা দেন পাবনার জেলা প্রশাসক রেখা রানী বালো। সংবাদ সম্মেলনে রেখা রানী বালো জানান, প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার থাকার কথা। কিন্তু জেলার নয়টি উপজেলার ১ হাজার ৭০১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মাত্র ২৫৩টি প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার ছিল। ফলে তিনি দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রতিটি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোগ নেন। সে অনুযায়ী ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে বিষয়টি জানিয়ে প্রতিটি উপজেলা প্রশাসনে চিঠি দেন তিনি। যার প্রেক্ষিতে উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে নতুন করে ১ হাজার ৪৪৮টি শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়। জেলা প্রশাসকের দেয়া হিসাব অনুযায়ী দেখা যায়, পাবনা জেলা সদরে ৩০৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৪টি, ফরিদপুরে ১১৯টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪টি, চাটমোহরে ২৪১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৩১টি, আটঘরিয়ায় ১৩৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৩১টি, বেড়ায় ১৪৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৯টি, সাঁথিয়ায় ২৫২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২৮টি, সুজানগরে ২০৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৫১টি, ঈশ^রদীতে ১৭৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৬৭টি ও ভাঙ্গুড়ায় ১৩১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮টি প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার ছিল। বর্তমানে শতভাগ প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণ হয়েছে।
কয়েকজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে জানা  গেছে, জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী উপজেলা প্রশাসন প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান, পরিচালনা পরিষদ প্রধান ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের বিষয়টি অবগত করেন। এতে সাড়া দিয়ে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিজস্ব খরচে শহীদ মিনার তৈরি করেন। পাবনার কয়েকজন ভাষা সৈনিকের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ভাষা আন্দোলনে ঢাকার বাইরে যে জেলাগুলো গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছিল, তার মধ্যে পাবনা অন্যতম। ১৯৪৮ সালে পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় পার্লামেন্টে বাংলাকে প্রাদেশিক ভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব এলে তা নাকচ হওয়ার পর সারাদেশের মতো পাবনাতেও আন্দোলন হয়। গঠিত হয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদ। ২৯ ফেব্রুয়ারি পরিষদের আহ্বানে পাবনা শহরে পূর্ণ দিবস ধর্মঘট পালিত হয়। পাবনা এডওয়ার্ড কলেজে সমবেত ছাত্ররা ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে মিছিল করে। এদিন ৪০ জন গ্রেফতার হন। কিন্তু তাতেও আন্দোলন থেমে যায় না। ১৯৫২ সালে উর্দুকে পাকিস্তানের একমাত্র রাষ্ট্রভাষা  ঘোষণা দেওয়ার পর ঢাকার মতো পাবনাতেও ছাত্রজনতা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। গড়ে ওঠে সর্বদলীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদ। আবারও ছাত্ররা ১৪৪ ধারা অমান্য করে মিছিল করে। ২১ ফেব্রুয়ারি পাবনায় হরতাল পালিত হয়। এরপরেও ৭৫ পরবর্তী সময়ে মৌলবাদীদের বাধায় পাবনায় প্রকাশ্যে একুশ উদযাপন সম্ভব হতো না। শহীদ মিনার ছিল না পাবনার বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। এ প্রসঙ্গে পাবনার জেলা প্রশাসক রেখা রাণী বালো বলেন, বাঙালির আবেগকে যদি ইতিবাচকভাবে ব্যবহার করা যায়, তাহলে যেকোনো অপশক্তি তার কাছে মাথা নত করতে বাধ্য। এ ভাবনা  থেকেই নতুন প্রজন্মকে একুশ ও দেশপ্রেমের  চেতনায় উদ্বুদ্ধ করতে আমাদের এ উদ্যোগ। পাবনাবাসীর স্বতঃস্ফূর্ত সহযোগিতায় যা বাস্তবায়িত হয়েছে। এখন সম্মিলিতভাবে আমরা সবাই আনন্দিত।

কাহালুতে বাসচাপায় দাখিল পরীক্ষার্থী নিহত

কাহালু (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়া-দেওগ্রাম সড়কের কাহালু উপজেলার মালঞ্চা ইউনিয়নের ইন্দখুর বাজারের সামান্য পূর্বে বোলধর নামক স্থানে  সোমবার সকালে একটি চলন্ত যাত্রীবাহী বাসের চাপায়  হাদিসুর রহমান (১৫) নামের এক দাখিল পরীক্ষার্থী ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছে।

জানা গেছে, বগুড়া জেলার শাহজাহানপুর উপজেলার শাবরুল আসকান শরীফ দাখিল মাদ্রাসার ছাত্র ও দাখিল পরীক্ষার্থী হাদিসুর রহমান গতকাল সোমবার সকালে বাংলা বিষয়ে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য নিজ বাড়ি থেকে সাইকেলে চড়ে ডোমনপুকুর পরীক্ষা কেন্দ্রে যাওয়ার সময় সকাল আনুমানিক ৯টার দিকে বোলধর নামক স্থানে পৌঁছা মাত্রই নন্দীগ্রাম উপজেলার কড়ইহাট থেকে বগুড়াগামী একটি যাত্রীবাহী বাস (চট্র মেট্রো-জ-১৯৩১) পিছন থেকে সাইকেলসহ তাকে চাপা দিলে হাদিসুর ঘটনাস্থলেই মারা যায়। ঘটনার পরপরই ওই বাসটিকে রানিরহাট বাজার এলাকায় আটক করার পর পুলিশ বাসটি কাহালু থানায় নিয়ে আসে। এদিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষুদ্ধ জনতা বোলধর এলাকায় গাছের ডাল কেটে ব্যারিকেড দিয়ে বগুড়া-দেওগ্রাম সড়ক প্রায় ২/৩ ঘন্টা অবরোধ করে রাখে। নিহত হাদিসুল বগুড়া জেলার কাহালু উপজেলার মুরইল ইউনিয়নের ডোমর গ্রামের আব্দুল হামিদের পুত্র।

রাজশাহীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সন্ত্রাসী নিহত

রাজশাহী প্রতিনিধি : রাজশাহী মহানগরীতে র‌্যাবের সাথে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কাওসার আলী (৪০) নামে এক সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। গত শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে নগরীর মতিহার থানার বুধপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত কাওসার চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার পিয়ারাপুর গ্রামের ইয়াসিন আলীর ছেলে।

র‌্যাব-৫ এর মেজর এএম আশরাফুল ইসলাম জানান, রাতে র‌্যাবের একটি নিয়মিত টহলদল নগরীর বুধপাড়া এলাকায় টহলে যায়। এ সময় কয়েকজন সন্ত্রাসী আমবাগান থেকে র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পিছু হটে। এরপর ঘটনাস্থলে কাওসারকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি জানান, এ ঘটনায় দুই র‌্যাব সদস্যও আহত হয়েছেন। তারা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। আর ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশী পিস্তল, চার রাউন্ড গুলি, একটি ম্যাগজিন, একটি ছোরা ও একটি বড় হাসুয়া উদ্ধার করা হয়েছে।

মেজর আশরাফুল ইসলাম জানান, নিহত কাউসার হোসেনের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সদরের পিয়ারাপুর এলাকায়। গত বছরের ১৩ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১টা থেকে ২টার মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার দক্ষিণসহ নামক জায়গায় পিয়ারাপুর এলাকায় বাসেদ (৬০) নামের একজনকে জবাই করে মাথা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করে নৃশংসভাবে হত্যা করে। সে চাঁপাইনবাবগঞ্জের একজন দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী এবং ডাকাত হিসেবে পরিচিত। সে খুন ও ডাকাতিসহ ৪টি মামলার প্রধান আসামি।

 

২০১৮ সালের ডিসেম্বরের নির্বাচনে বিএনপি হবে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী – ওবায়দুল কাদের

রাজশাহী প্রতিনিধি : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সংবিধান মেনে আগামী বছরের (২০১৮) ডিসেম্বরে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য নেতাকর্মীদের প্রস্তুত হওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। তবে ভোটের রাজনীতিতে বিএনপিকে ছোট করে দেখা যাবে না। কারণ আগামী নির্বাচনে তারাই হবে আওয়ামী লীগের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ।
শনিবার দুপুরে রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা ময়দানে অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের বিভাগীয় কর্মী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কথা উল্লেখ করে নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সরকারের উন্নয়নে কোনো ঘাটতি নেই, ঘাটতি থাকলে নেতাদের আচরণে আছে। তাই যত দ্রুত সম্ভব আচরণটা শুদ্ধ করে নিতে হবে। নির্বাচনের বেশি দেরি নেই। এখন ক্ষমতায় আছেন, কেউ কিছু বলছে না। তবে আচরণ খারাপ হলে আগামী নির্বাচনে মানুষ ব্যালটে তার শাস্তি দিয়ে দিবে’।
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আপনারা কেউ পকেট কমিটি করবেন না। ত্যাগী নেতাদের দলে স্থান দেন। কর্মীবান্ধব নেতা হন। কর্মীদের মূল্যায়ন করুন। তারা কি চায় সেই দিকে খেয়াল করেন। কর্মীদের চোখের ভাষা, মনের ভাষা আপনাদের বুঝতে হবে। যদি না বোঝেন তাহলে রাজনীতি করার দরকার নেই।’

তিনি বলেন, যেই নেতারা অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে দল ভারী করেছেন, আমি বলতে চাই দ্রুত এগুলো সরান। আওয়ামী লীগে গডফাদারদের দরকার নাই। প্রয়োজন রয়েছে জনপ্রিয় নেতার, সৎ ও নির্ভিক কর্মীর’।

তিনি বলেন, ‘মঞ্চের সামনে বসে থাকা সাধারণ কর্মীদের নিয়ে আওয়ামী লীগের কোনো সমস্যা নেই। সমস্যা মঞ্চে বসে থাকা নেতাদের নিয়ে। আমরা কর্মীদের ব্যবহার করি। নিজেদের স্বার্থ রক্ষার পাহারাদার বানাই। কর্মীদের বলি- কারও স্বার্থ রক্ষার পাহারাদার হবেন না। তাহলে ভালো নেতা পাবেন না। অপকর্ম করলে দলে ভালো লোক আসবে না। আর খারাপ লোক আমাদের দরকার নাই।’

সম্প্রতি সময়ে বিএনপির হুমকি-ধামকি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিএনপি এখন নিজেরাই নিজেদের শত্রু। তাদের নেতায় নেতায় মারামারি, হানাহানি, কোন্দল চলছে। তাই বিএনপিকে নিয়ে বিচলিত হওয়ার কিছু নেই। আন্দোলন করার কোনো ক্ষমতা বিএনপির নেই’।
তিনি বলেন, ‘বিএনপি এখন নালিশবাদী দলে পরিণত হয়েছে। কোনো অর্জন নেই, ইতিহাস নেই, আন্দোলন নেই, প্রত্যেক দিন কেবল নালিশ আর নালিশ! তাই বিএনপিকে আমি বাংলাদেশ নালিশ পার্টি বলি।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টায় ওবায়দুল কাদের দলীয় পতাকা উত্তোলন ও পায়রা উড়িয়ে কর্মী সমাবেশের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি। পরিচালনা করেন সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। সমাবেশে রাজশাহী বিভাগের ৮ জেলার প্রায় ৩০ হাজার নেতাকর্মী অংশ নেন।

এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ড. আবদুল খালেক, রাকসুর সাবেক ভিপি নূরুল ইসলাম ঠান্ডু, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহীর সাবেক মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক, আয়েন উদ্দিন, আবদুল ওয়াদুদ দারা, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার প্রমুখ।

 

 

তাড়াশে ২১ নলকূপে পানি উঠছে না

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের তাড়াশে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের লক্ষ্যে এডিপির অর্থায়নে স্থাপিত ২১টি অগভীর তারা ডেভহেড পাম্পের পরিবর্তে ৬নং হাত নলকূপের মাথা ব্যবহার করায় ওই নলকূপগুলোতে কাক্সিক্ষত পানি না পেয়ে ব্যবহারকারীরা চরম বিপাকে পড়েছেন।

জানা গেছে, ২০১৫-১৬ ও ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে স্থানীয় জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের মাধ্যমে এডিপির অর্থায়নে উপজেলায় বিশুদ্ধ সুপেয় পানি সরবরাহের লক্ষ্যে শিল্প প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি পর্যায়ে ২১টি তারা ডেভহেড পাম্প স্থাপনের কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়। এ সকল উন্নতমানের একেকটি নলকূপের বাজার মূল্য প্রায় ৩০ হাজার টাকা। ব্যক্তি পর্যায়ে ও শিল্প প্রতিষ্ঠানে নলকূপগুলো বিতরণের সময় স্ব স্ব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান নলকূপ প্রতি ২৫শ’ টাকা অংশীদারমূলক অর্থ জমা দিয়ে নলকূপগুলো পেয়েছেন। যা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গত ডিসেম্বর থেকে গত জানুয়ারি মাসের মধ্যে শাহিনুর ইসলাম এন্টারপ্রাইজ নামক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে স্থাপন করা হয়েছিল। স্থাপনকালে নলকূপগুলোতে তারা ডেভহেড পাম্প ব্যবহারের কথা থাকলে তা না করে ব্যবহার করা হয় ৬নং হাত নলকূপের মাথা।  আর এতে করেই শুরু হয় ব্যবহারকারীদের পানি না ওঠা নিয়ে ভোগান্তি।  

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, বেশিরভাগ নলকূপ ঠিকই আছে, কিন্তু পানি উঠছে না। স্থানীয় নলকূপ ব্যবহারকারী শামসুল ইসলাম জানান, নলকূপ হাতলে চাপতে চাপতে অনেক পর পানি উঠছে তাও আবার দ্রুত নেমে যাচ্ছে। সামান্য পানি তুলতে অনেক বেশি শক্তি ব্যয় করতে হয়। তারপরও মিলছে না কাক্সিক্ষত পানি। আবার রাতের বেলায় নলকূপগুলো ব্যবহার না করায় সকালে ওই নলকূপগুলোতে পানি তুলতে অনেক সময় চাপতে হয় এবং যে পরিমাণ পানি ওঠার কথা তা উঠছে না। ফলে ব্যবহারকারীরা বিরক্ত হয়ে উঠছেন এবং নলকূপগুলো আর ব্যবহার করতে চাচ্ছেন না।  

পানি না ওঠা প্রসঙ্গে তাড়াশ উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ইউসুফ আলী স্থাপিত ২১টি নলকূপের বেশির ভাগই পানি না ওঠার অভিযোগ পেয়েছেন বলে স্বীকার করে তিনি জানান, মূলত ওই অগভীর নলকূপগুলো তারা ডেভহেড পাম্প থাকার কথা ছিল।  কিন্তু তা না করে ঊর্ধ্বতন কর্র্তৃপক্ষ পরীক্ষামূলকভাবে ৬নং হাত নলকূপের মাথা ব্যবহার করায় সিদ্ধান্ত দেন। যার ফলে এ ধরনের সমস্যা দেখা দিচ্ছে। এতে তাদের করার কিছুই নেই।

সিরাজগঞ্জে বাস-ট্রাকের সংঘর্ষে দুই চালকসহ নিহত ৪

সিরাজগঞ্জে বাস-ট্রাকের সংঘর্ষে দুই চালকসহ চারজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ২৫ জন।

শনিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে কামারখন্দ উপজেলার কোনাবাড়ি এলাকায় বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিমপাড় সংযোগ মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড় থানার এসআই মিজানুর রহমান জানান।

নিহতদের মধ্যে বাস যাত্রী পাবনা সদরের ফজলুল হক রোডের দীপ্ত চ্যাটার্জীর ছেলে লিটন চ্যাটার্জীর (৩৫) পরিচয় জানাতে পারলেও অন্য তিনজনের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেনি পুলিশ।

আহতদের মধ্যে ২৩ জনকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে কতর্ব্যরত সিনিয়র স্টাফ নার্স সিদ্দিকুর রহমান জানান।

এসআই মিজানুর বলেন, ঢাকা থেকে পাবনাগামী নাইট স্টার পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে বগুড়া থেকে ঢাকাগামী সার বোঝাই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে দুই যানের চালকসহ চারজন ঘটনাস্থলেই মারা যান।

এ দুর্ঘটনার পর মহাসড়কে দুইপাশে যানবাহন আটকা পড়লেও উদ্ধার অভিযানের পর পরিস্থতি স্বাভাবিক হয় বলে জানান তিনি।

কালাইয়ের উৎপাদিত আলু যাচ্ছে দক্ষিণাঞ্চলের ১৪ জেলায়

কালাই (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি : সার ও কীটনাশক ওষুধের পর্যাপ্ত সরবরাহসহ আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার জয়পুরহাটের কালাইয়ে আলুর বাম্পার ফলন হয়েছে। যা লক্ষ্যমাত্রাকে ছাড়িয়ে গেছে। ফলে স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে এখানকার আলু বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করা হচ্ছে।  

উপজেলা কৃষি বিভাগ জানায়, কালাই পৌরসভাসহ উপজেলার আহম্মেদাবাদ, মাত্রাই, উদয়পুর, পুনট ও জিন্দারপুর ইউনিয়নে চলতি মৌসুমে উপজেলার ১১ হাজার ৫শ’ হেক্টর জমিতে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও ১ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে অতিরিক্ত আলু চাষ করা হয়েছে। ফলে অর্জিত লক্ষ্যমাত্রা দাড়িয়েছে ১২ হাজার ৫৫০ হেক্টরে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে আলু চাষ হওয়ার পাশাপাশি বাম্পার ফলন হওয়ায় এখানকার আলু স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে কুষ্টিয়া, চট্রগ্রাম, মাগুড়া, ঝিনাইদাহ, ঢাকা, খুলনা, পাবনা, আতাইকুলা, বেড়া, বাগেরহাট, যশোর, চুয়াডাংঙ্গা, শরীয়তপুর, নড়াইলসহ দেশের অন্তত ১৪টি জেলায় সরবরাহ করা হচ্ছে। ভাল দাম পাওয়ায় কৃষকও খুশি।

কৃষকরা জানান, এ বছর তারা বিদেশী ও উন্নতজাতের মধ্যে কার্ডিনাল, এ্যারিস্ট্রিক, ডায়ামন্ড, গ্র্যানোলা, রোজেটো, মিউজিকা আলুর পাশাপাশি দেশীয় জাতের পাক্রি, তেল পাক্রি, ফাটা পাক্রি, রোমনা পাক্রি, বট পাক্রি আলু চাষ করেছেন। তবে মৌসুমের শুরুতে আলু বীজের সংকট থাকলেও বিএডিসি ও বীজ সংরক্ষণকারী বহুজাতিক কোম্পানির প্রচেষ্টায় সংগৃহীত বীজ ও স্থানীয়ভাবে কৃষকদের উৎপাদিত লোকাল বীজ দিয়ে এ সংকট দূরীভূত হয়।

উপজেলার ইমামপুর গ্রামের আলু চাষি আব্দুর জোব্বার, পৌরসভার আওড়া মহল্লার বজলুর রহমান বজু, থুপসারা মহল্লার আব্দুল মোমিনসহ অন্যান্য কৃষকরা জানান, এবার তারা গড়ে ৪ বিঘা জমিতে বিদেশি জাতের মিউজিকা, এ্যারিস্ট্রিক, ডায়ামন্ড, গ্র্যানোলা, রোজেটো আলু চাষ করেছেন। শতক প্রতি গড় ফলন পেয়েছেন আড়াই মণ। মণ প্রতি গড় দাম পেয়েছেন ৩শ’ টাকা। এতে তারা বেশ খুশি।

এ ব্যাপারে আন্তঃজেলা আলু ব্যবসায়ী ইমামপুর গ্রামের নাসির বাহাদুর, নওপাড়ার সরোয়ার, বালাইটের পচা মুন্সি জানান, তারা ইমামপুর মোড়, হারুঞ্জা বাজার, হাতিয়র, নওপাড়া, হাজিপাড়া, সুরাইলমোড়সহ উপজেলার বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে প্রতিদিন গড়ে ৭ ট্রাক আলু ক্রয় করে দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করছেন। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ রেজাউল করিম জানান, এবার সার ও কীটনাশ ওষুধের পর্যাপ্ত সরবরাহসহ আবহাওয়া অনুকূলে থাকার পাশাপাশি কৃষি বিভাগের পরামর্শ নিয়ে আলু চাষ করায় বাম্পার ফলন পেয়েছেন।

ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত পল্লীবিদ্যুৎ শ্রমিক-কর্মচারীরা

পাবনা প্রতিনিধি : পল্ল¬ীবিদ্যুৎ সমিতির কর্মচারীদের কোন ট্রেড ইউনিয়ন না থাকায় ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন তারা। শ্রম আদালত থেকে শ্রমিক হিসেবে স্বীকৃতি ও ট্রেড ইউনিয়ন রেজিস্ট্রেশনের আদেশ পেলেও রেজিস্ট্রেশন পাচ্ছেন না পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির কর্মচারীরা।

প্রস্তাবিত ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা জানান, ২০১৩ সালের ২১ জুন পল্লীবিদ্যুৎ বোর্ডের কর্মচারীরা ‘পল্লীবিদ্যুৎ শ্রমিক কর্মচারী লীগ’ নামে একটি ইউনিয়ন গঠন করে। ওই বছরের ১০ ডিসেম্বর শ্রম পরিচালকের বরাবরে ‘পল্লী বিদ্যুৎ শ্রমিক কর্মচারী লীগ’ নামে ইউনিয়নের রেজিস্ট্রেশনের জন্য আবেদন করা হয়। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ২০১৩ সালের ১৫ ডিসেম্বর ইউনিয়ন রেজিস্ট্রেশনের আবেদনপত্রটি বিবেচনা করা গেল না মর্মে আবেদনকারীদের অবহিত করেন। এর ফলে পবিস এর কর্মচারীদের প্রস্তাবিত ইউনিয়নের সভাপতি এনামুল হক ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা রেজিস্ট্রেশনের জন্য শ্রম আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত ২০১৪ সালের ১৬ নভেম্বর দেয়া রায়ে পবিস কর্মচারীরা শ্রমিক উল্লেখপূর্বক ৩০ দিনের মধ্যে ‘পল্লীবিদ্যুৎ শ্রমিক কর্মচারী লীগ’ এর রেজিস্ট্রশন প্রদানের জন্য শ্রম পরিচালককে নির্দেশ দেন। শ্রম আদালতের আদেশটি অদ্যাবধি কার্যকর করা হয়নি।

প্রস্তাবিত পল্লী বিদ্যুৎ শ্রমিক কর্মচারী লীগের সভাপতি এনামুল হক জানান, শ্রমিক সংগঠন না থাকায় নির্মাণ এন্ড কর্পোরেশন (নিপর) কর্মচারীরা উর্ধতন কর্তৃপক্ষের দ্বারা সর্বদা নিষ্পেষিত হচ্ছে। দায়িত্ব পালনকালে কোন কর্মী দুর্ঘটনায় মৃত্যু বা পঙ্গুত্ববরণ করলেও তাদের কোন বেনিফিট দেয়া হয় না। তিনি বলেন, বৈষম্য নিরসনে শ্রমিক-কর্মচারীদের ন্যায্য দাবির পক্ষে কথা বলার জন্য ট্রেড ইউনিয়নের প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।

সরকার শিক্ষাখাতে উন্নয়ন বরাদ্দ অব্যাহত রেখেছে: বগুড়া জেলা প্রশাসক

গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার জেলা প্রশাসক আশরাফ উদ্দিন বলেছেন, বর্তমান সরকার সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিনামূল্যে বই বিতরণ এবং উপবৃত্তিসহ শিক্ষাখাতে উন্নয়ন বরাদ্দ অব্যাহত রেখেছে। এছাড়াও শিক্ষকদের বেতনভাতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। ছাত্র-ছাত্রীদের জ্ঞান অর্জনের জন্য উচ্চ শিক্ষালাভ করতে হবে। এজন্য মনোযোগ দিয়ে নিয়মিত পড়াশোনা করতে হবে। তাহলেই ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে দেশের সকল উন্নয়ন করা সম্ভব হবে।

বৃহস্পতিবার গাবতলীর নেপালতলী ইউনিয়ন পরিষদ  আয়োজিত কদমতলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ইউনিয়নের সকল কৃতী ছাত্র-ছাত্রী এবং শ্রেষ্ঠ শিক্ষকদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। নেপালতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এসএম লতিফুল বারী মিন্টুর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরুজ্জামান, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এএইচ আজম খান,  উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার টিএম আব্দুল হামিদ, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ সাজ্জাদ জাহিদ।
এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন কদমতলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মমিরুল ইসলাম, সাবেক প্রধান শিক্ষক হারুনুর রশিদ, সুখানপুকুর এমআরএম স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান মজনু, ইউপি সদস্য উজ্জল, সবুজ  প্রমুখ।

রাণীনগরে ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকোই ২৫ হাজার মানুষের একমাত্র ভরসা

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার কুজাইল-আতাইকুলা নামক স্থানে নওগাঁর ছোট যুমনা নদীর ওপর দিয়ে চলাচলের জন্য ইজারাদারের উদ্যোগে নির্মিত বাঁশের সাঁকোই ওই এলাকার মানুষের যোগাযোগের একমাত্র ভরসা। ডিজিটাল বাংলাদেশের গ্রামীণ জনপদের ভাল যোগাযোগের ভরসা হিসেবে ব্রিজের বদলে স্বাধীনতার পর থেকে এই জনপদে বসবাসরত প্রায় ২৫ হাজার জনসাধারণের নওগাঁর ছোট যুমনা নদী পারাপার হতে বাঁশ দিয়ে নির্মাণ করা সাঁকোই তাদের জীবনে আধুনিকতার ছোঁয়ায় অনেক পাওনা।

মিরাট, কালিকাপুর, হাটকালুপাড়া, গোনা ও কাশিমপুর ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষের মাঝে যোগ হয়েছে নিবিড় বন্ধন হিসেবে এই সাঁকো। উপজেলার কাশিমপুর, গোনা ও মিরাট ইউনিয়নের অবহেলিত জনপদের মধ্যে সর্বরামপুর, কাশিমপুর, ডাঙ্গাপাড়া, এনায়েতপুর, মঙ্গলপাড়া, ভবানীপুর, পীরেরা, বয়না, বেতগাড়ী, দূর্গাপুর, কৃষ্ণপুর, মালঞ্চি, ঘোষগ্রাম, নান্দাইবাড়ি, বেতগাড়ী, আতাইকুলা, কুনৌজ, হামিদপুর, জালালগঞ্জ গ্রামসহ এই তিন ইউনিয়নের প্রায় ২৫ হাজার লোকের যোগাযোগ ব্যবস্থার তেমন উন্নয়ন না হওয়ায় অনেক জরুরি সুযোগ-সুবিধা ও সেবা থেকে বঞ্চিত রয়েছে এই তিন ইউনিয়নের বাসিন্দা।

যোগাযোগ ব্যবস্থার এই আধুনিকতার যুগে এখনও ছোট যুমনা নদীর উপর ব্রিজ নির্মাণ না হওয়ায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাঁশের সাঁকো অথবা নৌকা দিয়ে প্রতিদিন পারাপার হয় প্রায় ১৩টি গ্রামের কৃষক-শ্রমিক, স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীসহ প্রায় ২৫ হাজার মানুষ। বর্ষাকালে নৌকা যোগে নদী পারাপার হলেও নদীর নাব্যতা সংকটের কারণে স্থানীয় ইজারাদারের উদ্যোগে তৈরি বাঁশের সাঁকোই একমাত্র যোগাযোগের ভরসা হয়ে দাঁড়ায়। কিন্তু সেই সাঁকোটি বেশকিছু দিন ধরে সংস্কার না করায় মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় স্কুলগামী ছাত্র-ছাত্রীদের চলাচলের সময় নানান ধরণের অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়।   

রাণীনগর উপজেলা প্রকৌশলী অধিদফতরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো: মকলেছুর রহমান জানান, কুজাইল-আতাইকুলা নামক স্থানে নওগাঁর ছোট যুমনা নদীর ওপর ব্রিজ নিমার্ণের জন্য ঘটনাস্থল নির্ধারণ করে মাপ- যোগ ও ডিজাইন করে একটি প্রস্তাবনা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর এর প্রধান কার্যালয়ে অনুমোদনের জন্য গত মাসে প্রেরণ করা হয়েছে। অনুমোদন সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় সকল প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করে এখানে ব্রিজ নির্মাণের কাজ শুরু করা হবে।   



Go Top