৭০৫ মিলিয়ন ডলারে চীনের ‘বি অ্যান্ড চেরি’ কিনছে পেপসিকো

৭০৫ মিলিয়ন ডলারে চীনের ‘বি অ্যান্ড চেরি’ কিনছে পেপসিকো

চীনে নিজেদের বাজার বৃদ্ধির লক্ষ্যে খাদ্যপণ্য বিক্রি করে এমন একটি বড় প্রতিষ্ঠান কিনে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান পেপসিকো। এর জন্য তাদের ব্যয় হচ্ছে প্রায় ৭০৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

চীনের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, ২০০৬ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে বি অ্যান্ড চেরি নামের স্ন্যাকস বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানটির বাজার বেড়েছে প্রায় চারশ’ শতাংশ। চীনের হাংঝৌ শহরকেন্দ্রিক প্রতিষ্ঠানটি মূলত বাদাম, শুকনো ফলসহ অন্যান্য স্ন্যাক জাতীয় পণ্য অনলাইনে বিক্রি করে। এ থেকে গত বছর তাদের লাভ হয়েছিল প্রায় ১৭১ মিলিয়ন ইউয়ান, যা ২০১৮ সালের তুলনায় অন্তত ৩২ শতাংশ বেশি।


 
বি অ্যান্ড চেরির বর্তমান মালিক হাওজিয়াংনি হেলথ ফুড। তারা ২০১৬ সালে ৯৬০ মিলিয়ন ইউয়ান (১৩৬ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলার) দিয়ে প্রতিষ্ঠানটিকে কিনেছিল। এবার তাদের কাছ থেকে বি অ্যান্ড চেরিকে পেপসি কিনে নিচ্ছে প্রায় পাঁচগুণ বেশি দামে।

কয়েক দশক ধরেই চীনে নিজেদের বাজারবৃদ্ধির চেষ্টা করছে পেপসি। এজন্য বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিও করেছে তারা। গত বছর তারা চীনের অন্যতম খাদ্য উৎপাদক একটি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার কিনেছে।

চলতি মাসের শুরুতেই পেপসিকো জানিয়েছিল, ২০১৯ সালে চীনে তাদের ‘দুই অংকের শক্তিশালী প্রবৃদ্ধি’ হয়েছে। যদিও লাভের অংক প্রকাশ করেনি তারা।

পেপসিকোর চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী রামোন লাগুয়ার্তা বিনিয়োগকারীদের বলেন, ‘পেপসিকোর একটি বড় সুযোগ হলো আন্তর্জাতিক ব্যবসা বাড়ানো। আর চীন, অবশ্যই এটি একটি বড় বাজার, যেখানে আমাদের ভালো ব্যবসা রয়েছে। এটা ভালোভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে… কিন্তু সুযোগটা আরও বড়, আরও উঁচু।’


করোনাভাইরাস সংকটের কারণে প্রায় দুই মাস ধরে বাণিজ্যিক সংকটে থাকা অবস্থাতেই নতুন এই বিনিয়োগের ঘোষণা দিলো পেপসিকো। ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের প্রভাবে চীনে তাদের বেশ কিছু কারখানা বন্ধ, বেচাকেনাও কমেছে ব্যাপক হারে। ভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে সাধারণ মানুষজনকে স্বশরীরে দোকানে না গিয়ে অনলাইনে কেনাবেচা করতে উদ্বুদ্ধ করছেন চীনা কর্মকর্তারা।