শিবগঞ্জে ৪ জনকে হত্যার ঘটনায় মামলা

শিবগঞ্জে ৪ জনকে হত্যার ঘটনায় মামলা

বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার ডাবইর এলাকায় ধান ক্ষেতে চারজনকে গলাকেটে হত্যার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (০৮ মে) রাতে নিহত পানের দোকানি শাহরুল ইসলাম সাবুর বাবা উপজেলার আটমুল ইউনিয়নের কাথগাড়া গ্রামের আছির উদ্দিন বাদি হয়ে থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করা হয়েছে।
 
জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সনাতন চক্রবর্তী  বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক টিম মাঠে কাজ করছেন। দ্রুত সময়ের মধ্যে এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন ও ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব হবে বলেও আশা ব্যক্ত করেনদ তিনি।
 
এছাড়া এ ঘটনায় জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল জলিলকে প্রধান করে গোয়েন্দা (ডিবি) ও থানা পুলিশের সমন্বয়ে ছয় সদস্যের একটি বিশেষ তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে। এরই মধ্যে তদন্ত টিম কাজ শুরু করেছে বলেও জানা গেছে।
 
এদিকে, এর আগে বিকেল পৌনে ৪টার দিকে রাজশাহী রেঞ্জের অ্যাডিশনাল ডিআইজি নিশারুল আরিফ (ক্রাইম ও অভিযান) শিবগঞ্জে যান। পাশাপাশি তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে রাত ৮টার দিকে শিবগঞ্জ ত্যাগ করেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।
 
অপরদিকে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সর্বশেষ স্বামী-স্ত্রীসহ ছয় জনকে আটক করেছে বলে শিবগঞ্জ থানা পুলিশের একটি দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে।
 
আটকরা হলেন- উপজেলার কাথগাড়া গ্রামের আবু বক্করের ছেলে বেলাল হোসেন, তার স্ত্রী নাজনীন বেগম এবং তার মেয়ে নাতিশা খাতুন, আফছার আলীর ছেলে আবদুল হালিম প্রামাণিক, চন্দনপুর গ্রামের জসিমুদ্দিনের ছেলে রফিকুল ইসলাম ও আটমূল ইউনিয়নের কুলুপাড়া গ্রামের ছেলে মোবাইল ব্যবসায়ী প্রফুল্ল সরকার লিটন সরকার।
 
এর আগে সোমবার (৭ মে) সকালে মরদেহ চারটি উদ্ধার করা হয়। সকাল ৯টার দিকে উপজেলার আটমূল ইউনিয়নের আলিয়ারহাটের উত্তরে ও গাঙ্গনই নদীর পশ্চিমে ডাবইর এলাকার একটি ধান ক্ষেতে চারজনের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেন স্থানীয়রা। খবর পেয়ে শিবগঞ্জ থানার পুলিশসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে যান।