মেয়ের বোরকা নিয়ে তসলিমার সমালোচনার জবাব এ আর রহমানের

মেয়ের বোরকা নিয়ে তসলিমার সমালোচনার জবাব এ আর রহমানের

অস্কারজয়ী সংগীত পরিচালক এ আর রহমানের মেয়ে খাতিজার বোরকা পরা নিয়ে ভারতে নির্বাসিত বাংলাদেশের বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিনের সমালোচনার জবাব দিলেন বাবা।

এ আর রাহমান বলেছেন, মেয়ে খাতিজা রহমান নিজের ইচ্ছাতেই বোরকা পরে। তাকে কেউ বাধ্য করেনি। তসলিমার নাম উল্লেখ না করে তিনি বলেন, আমাদের থেকেই উত্তরাধিকার সূত্রে ধর্ম-সংস্কৃতি-ঐতিহ্য পেয়েছে খাতিজা। এগুলো ওর রক্তে মেশা। ফলে, জোর করে নয়, স্ব-ইচ্ছায় খাতিজা বেছে নিয়েছে এই পোশাক। আমরা কেউ ওকে জোর করিনি।
 
তিনি আরও বলেন, ‘এটা বোধহয় সবাই জানেন না, বোরকা শুধু ধর্মের বা জাতির প্রতীক নয়। দেশের সংস্কৃতিরও প্রতীক। যাকে আমার মেয়ে নিজের ইচ্ছাতে গায়ে তুলেছে। তারপরও কেন এটি নিয়ে এত সমালোচনা।’

এই সংগীত পরিচালক আরও বলেন, নানা ভাষা, নানা মত, নানা পোশাকের দেশ ভারত। স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে সবাই স্বাধীনভাবে খেতে-পরতে-চলতে পারেন। আমার মেয়েও তাই। তারপরও গত একবছর ধরে ওর বোরকা পরা নিয়ে বিতর্ক চলছে।

গত ১১ ফেব্রুয়ারি তসলিমা নাসরিন খাতিজার বোরকা পরিহিত একটি ছবি টুইটারে প্রকাশ করে লেখেন, ‘আমি এ আর রহমানের গান পছন্দ করি। কিন্তু যখনই তার মেয়েকে দেখি, আমার দম বন্ধ হয়ে আসে। একটি শিক্ষিত পরিবারের মেয়ের চিন্তাধারাও কীভাবে মগজধোলাই করে বদলে ফেলা হয়, তা ভাবতেও অবাক লাগে!’

এর জবাবে ১৫ ফেব্রুয়ারি নিজের ইনস্টাগ্রামে খাতিজা রহমান বলেন), ‘প্রিয় তসলিমা নাসরিন, আমি দুঃখিত আমার পোশাকে আপনার দম বন্ধ হয়ে যায়। দয়াকরে মুক্ত বাতাস গ্রহণ করুন। আমার দম বন্ধ হয় না, কারণ আমি যে নীতি মেনে চলি তাতে আমি গর্বিত। আমি আপনাকে পরামর্শ দিব, প্রকৃত নারীবাদ কী তা গুগল করে জেনে নিন। নারীবাদ মানে অন্য মেয়েকে হেয় করা ও কোনো বিষয়ে তার বাবাকে টেনে আনা নয়। আর কখনো আপনাকে আমার বোরকা পরা ছবি পাঠিয়েছি বলেও আমার মনে পড়ে না!’