এবার ঢাকায় চালু হলো ‘উবার পুল’

এবার ঢাকায় চালু হলো ‘উবার পুল’

বাংলাদেশে ব্যবসার তিনবছর পূর্তি উপলক্ষে ঢাকায় ‘উবার পুল’ চালু করেছে আর্ন্তজাতিক রাইড-শেয়ারিং কোম্পানি উবার।

মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ‘উবার পুল’ রাইড শেয়ারিং-এর একটি নতুন ধারণা, যা একজন যাত্রীকে একই যাত্রাপথের অন্যান্য যাত্রীদের সঙ্গে ট্রিপ শেয়ারের পাশাপাশি যাত্রাপথের খরচও ভাগাভাগি করে নেওয়ার সুবিধা দেয়।

কম সংখ্যক গাড়িতে বেশি যাত্রী বহন করতেই ‘উবার পুলে’র মতো রাইড শেয়ারিং সার্ভিস চালু করা হয়েছে। ফলে যাত্রীদের সাশ্রয়ী মূল্যে যাতায়াত করা, চালকদের দীর্ঘ সময়ের লাভজনক ট্রিপ দেওয়া ও শহরগুলোতে যানজট কমানো সম্ভব হবে। একই দূরত্বের জন্য ‘উবার এক্সে’র ভাড়ার চেয়ে ‘উবার পুলে’র ভাড়া ৪০ শতাংশ পর্যন্ত সাশ্রয়ী হতে পারে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘উবার পুল’ ব্যবহারের জন্য প্রথমে আপনাকে উবার অ্যাপের ‘পুল’ অপশনটি ক্লিক করতে হবে। সেখান থেকে রাইড রিকোয়েস্ট করার পর আপনার গন্তব্যের সঙ্গে মিলে যায় এমন সহযাত্রী ও নিকটস্থ চালকের সঙ্গে আপনাকে যোগাযোগ করিয়ে দেওয়া হবে।

দুইমিনিটের মধ্যে পিকআপের জন্য সবচেয়ে সুবিধাজনক জায়গাটি আপনাকে নির্বাচন করে দেওয়া হবে। যখন আপনি রাইডটি কনফার্ম করবেন তখন অ্যাপে আপনাকে হাঁটার দিক-নির্দেশনা ও পিক আপ করার সময় দেওয়া হবে, যাতে আপনি জানতে পারেন কখন ও কোথায় আপনার চালকের সঙ্গে দেখা করতে হবে।

আপনার যাত্রা শেষ হওয়ার কিছু আগে উবার অ্যাপ একটি ‘ড্রপ অফ’ স্পট নির্বাচন করবে। আপনাকে অবহিত করবে এবং আপনার চূড়ান্ত গন্তব্যে পৌঁছানোর দিক নির্দেশনা দেবে।

বাংলাদেশে রাইড শেয়ারিং ব্যবসার তৃতীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষে উবারের বাংলাদেশ ও পূর্ব ভারতের প্রধান রাতুল ঘোষ বলেন, বাংলাদেশের যাতায়াত ব্যবস্থার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হতে পেরে আমরা গর্বিত। ‘উবার পুল’ চালু করার মাধ্যমে যাতায়াত ব্যবস্থার প্রতি আমাদের প্রতিশ্রুতি অব্যাহত রেখেছি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে আমাদের সাফল্যের তৃতীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আমি সরকার, আমাদের ব্যবসায়িক অংশীদার, চালক ও যাত্রীদের সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ জানাই। একই সঙ্গে তাদের আশ্বস্ত করতে চাই যে, এ দেশের যাতায়াত ব্যবস্থার উন্নয়ন ও বিকাশে আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। যা আমাদের জন্যও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এদিকে অনুষ্ঠানে তিনবছরে সর্বোচ্চ সংখ্যক ট্রিপ দেওয়ায় হিরো পার্টনার হিসেবে নূর ই আলম সিদ্দিকী, নূর হোসেন বাপ্পী, হৃদয় চন্দ্র রায়, মোহাম্মদ কয়েস নামে চার চালককে সম্মাননা দিয়েছে উবার।

২০১৬ সালের নভেম্বরে ‘উবার এক্স’ দিয়ে বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরু করে উবার। পরবর্তীতে ‘উবার প্রিমিয়ার, মোটো, হায়ার’ চালু করে।

২০১৮ সালের এপ্রিল চট্টগ্রামে চালু করে উবার লাঞ্চ, জুলাইয়ে ঢাকায় উবার ইন্টারসিটি, নভেম্বরে উবার এক্সেল, ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে সিলেটে উবার লাঞ্চ, সেপ্টেম্বরে চট্টগ্রামে সিএনজি ও নভেম্বরে ঢাকায় ‘উবার পুল’ চালু করলো যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এই রাইড শেয়ারিং কোম্পানিটি।