বিকাল ৩:১০, রবিবার, ৩০শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তাজাতিক

করতোয়া ডেস্ক: মার্কিন সামরিক বাহিনী বলেছে, তুরস্ক এবং সিরিয়া সীমান্তে আমেরিকার সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। তুর্কি এবং সিরিয়দের মধ্যে সংঘর্ষ আরো ঠেকাতে সামরিক যানসহ এসব সেনা মোতায়েন করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। কুর্দি সূত্র থেকে বলা হয়েছে, মার্কিন পতাকাবাহী সাঁজোয়া গাড়ির একটি বহরকে দারবাশিয়েহের গ্রাম্য রাস্তায় দেখা গেছে।


 সিরিয়ার উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় হাসাকা প্রদেশ সংলগ্ন তুর্কি সীমান্ত থেকে কয়েক শ’ মিটার দূরে এ স্থানটি অবস্থিত। পেন্টাগন মুখপাত্র ক্যাপ্টেন ডেভিস এ খবরটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, অভিন্ন শত্রু দায়েশের প্রতি সকলপক্ষকে মনোনিবেশ করতে বলেছে আমেরিকা।

 

ইলহাম আহমেদ নামের পদস্থ এক কুর্দি কর্মকর্তা বলেন, মার্কিন সেনারা বৃহস্পতিবার থেকেই এ এলাকায় টহল দিতে শুরু করেছে। এ ছাড়া, তারা গোয়েন্দা তৎপরতা চালানোর কাজে নিয়োজিত বিমানও পরিচালনা করেছে। ইরাক এবং সিরিয়ায় তুর্কি বিমান হামলায় মার্কিন মদদপুষ্ট কুর্দি পিপলস প্রোটেকশন ইউনিটস বা ওয়াইপিজি’র ২০ সদস্য নিহত এবং ১৮ সদস্য আহত হওয়ার পর ওই এলাকায় মার্কিন সেনা মোতায়েন করা হলো।

ট্রাম্পকে যুক্তরাজ্য সফরের আমন্ত্রণ প্রত্যাহারের আহবান সাদিক খানের

করতোয়া ডেস্ক: মুসলিম ও অভিবাসী বিরোধী নীতি গ্রহণ করায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে কে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ব্রিটেনে আসার আমন্ত্রণ প্রত্যাহারের আহবান জানিয়েছেন লন্ডনের মেয়র সাদিক খান।লন্ডনের টটিংয়ে স্থানীয় একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উদ্বোধনের সময় তিনি আবার ট্রাম্পকে ব্রিটেন সফরে আসার আমন্ত্রণ বাতিলের আহবান জানিয়েছেন।

 শনিবার গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সাদিক খান এ আহবান জানিয়েছেন। সাক্ষাৎকারে সাদিক খান বলেন, ট্রাম্প ব্রিটিশ ও আমেরিকার মূল্যবোধের বিরোধী। দুই দেশের মূল্যবোধ হচ্ছে সহিষ্ণুতা, মানবতা ও সুনাম বিশ্বব্যাপী খ্যাতি রয়েছে। সেই মূল্যবোধের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন ট্রাম্প। তাকে ব্রিটেনে রাষ্ট্রীয় সফরে আসার কোনো প্রয়োজন নেই।

 তার নেওয়া মুসলিম ও অভিবাসী বিরোধী নীতি বিশ্বকে হুমকির মধ্যে ঠেলে দিচ্ছে। এ সময় মেয়র সাদিক খান ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে কে পরামর্শ দিয়ে বলেন, আপনি সাহসিকতা দেখান। ট্রাম্পকে বলে দিন যে তার নেওয়া মুসলিম ও অভিবাসী নীতি সম্পূর্ণ ভুল। বিশ্বে আমাদের মধ্যে সুসম্পর্ক স্থাপন করা উচিৎ। আমেরিকা বিশ্বের মধ্যে একটি অসাধারণ দেশ।

দুই দশকের প্রথম হরতালে সহিংসতা ব্রাজিলে

করতোয়া ডেস্ক: দুই দশকের মধ্যে দেশব্যাপী প্রথম হরতালে ব্যাপক সহিংতা হয়েছে ব্রাজিলে। রিও ডি জেনিরোর সিটি সেন্টারে বাস ও কারে আগুন দেয়া হয়েছে। সড়ক অবরোধ করে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে, ভাঙচুর করা হয়েছে দোকানপাট। হরতালের সময়টাতে মানুষজন বাইরে বের হয়েছে কম।

 

দোকান-পাট, স্কুল ও ব্যাংকও ছিল বন্ধ। এ হরতাল ব্যাপক সহিংসতা হলেও দিনের বেশিরভাগটা সময় তা শান্তিপূর্ণই ছিল। সরকারের পেনশন ব্যবস্থা সংস্কারের প্রতিবাদে শুক্রবার এ হরতালের ডাক দেয় শ্রমিক সংগঠনগুলো। শ্রমিক সংগঠনগুলো বলছে, পেনশন ব্যবস্থায় যে সংস্কার করা হয়েছে তার বোঝা বইতে হবে ব্রাজিলের সবচেয়ে দরিদ্র মানুষগুলোকে। সংস্কার প্রস্তাবে অবসরের বয়সসীমা বাড়িয়ে কমিয়ে দেয়া হয়েছে সুযোগ-সুবিধা।

ট্রাম্পের শাসনামলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধি তিন বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন

করতোয়া ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর যুক্তরাষ্ট্রের  শেয়ার বাজারে ধস নামে। তিনি একের পর এক নির্বাহী আদেশ দিয়ে উদ্বেগে ফেলেছেন আইন কর্মকর্তাদের। তবে তার নির্বাহী আদেশ বাস্তবায়ন করতে পারছেন না। এবার কমেছে প্রবৃদ্ধির হারও।

 

ট্রাম্পের তিন মাসের শাসনামলে গত তিন বছরের মধ্যে প্রবৃদ্ধি সর্বনিম্ন পর্যায়ে রয়েছে বলে জানিয়েছে মার্কিন বাণিজ্য বিভাগ। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচনী প্রচারণায় মোট দেশীয় উৎপাদনের পরিমাণ ৪ শতাংশে বৃদ্ধি করার ঘোষণা দিয়েছিলেন।


প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি রক্ষার্থে গত বুধবার করপোরেশন ট্যাক্স কমানের প্রস্তাব করে হোয়াইট হাউস। তাতে বলা হয়, ব্যববাসীয় করের পরিমাণ  ৩৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১৫ শতাংশ করা হবে। গতকাল শনিবার ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সির ১০০ কার্যদিবস পূর্ণ হচ্ছে। তবে তাঁর এ সময়ের শাসনামলে জাতীয় প্রবৃদ্ধির হার মাত্র ০.৭ শতাংশ।

২০১৪ সালের পর এটি সর্বনিম্ন প্রবৃদ্ধির হার। গত বছর এ সময়ে প্রবৃদ্ধির হার ছিল ০.৮ শতাংশ। যুক্তরাষ্ট্রের ক্লোজ ব্রাদারস এসেট ম্যানেজমেন্ট’র প্রধান বিনিয়োগ কর্মকর্তা মিস কার্টিস মনে করেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধির পরিমাণ বছরের বাকি সময়ে কম থাকবে।

দাউদ ইব্রাহিমের অসুস্থতা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে

করতোয়া ডেস্ক: হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে করাচির একটি হাসপাতালে ভর্তি ভারতের মোস্ট ওয়ান্টেড ডন দাউদ ইব্রাহিম। তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। মৃত্যু মুখে দাউদ ইব্রাহিম এমন খবরও প্রকাশ করেছে একাধিক সংবাদমাধ্যম।  কেউ কেউ আবার দাবি করেছে, বাড়িতে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার পর প্যারালাইসড হয়ে গেছেন দাউদ। তার শরীরের ডান অংশ একেবারেই কাজ করছে না।

 গত ২২ এপ্রিল ব্রেন টিউমারের অস্ত্রোপচার ব্যর্থ হওয়ায় আপাতত ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে ১৯৯৩ সালের মুম্বাই বিস্ফোরণের মূলচক্রীকে। প্রতিনিয়ত দাউদের শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হচ্ছে। তবে এই খবরের সত্যতা অস্বীকার করেছেন দাউদের অন্যতম শিষ্য ছোট শাকিল। তার দাবি পুরো খবরটাই ভুয়া। সুস্থ অবস্থাতেই রয়েছেন ‘ডন’। 

কিমের ৫ লাখ নারী যোদ্ধা প্রস্তুত

করতোয়া ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যুদ্ধ লেগে গেলে উত্তর কোরিয়া ৫ লাখ নারী যোদ্ধা পাঠাবে সমরে। ইতিমধ্যে এসব নারী সেনা মহড়া সম্পন্ন করেছে। উত্তর কোরিয়ার ৮৫তম সশস্ত্র বাহিনী দিবসে আয়োজিত মহড়ায় ৫ লাখ নারী সেনা সক্রিয়ভাবে অংশ গ্রহণ করে।

অসমর্থিত খবর হলেও জানা যায়, প্রেসিডেন্ট কিম জং-উন কোরিয়ার পিপলস আর্মিকে ৫ লাখ নারী সেনাকে প্রস্তুত রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।গত বছর উত্তর কোরিয়ার নারী সেনাদের সামরিক কুচকাওয়াজে অংশ নিতে দেখা যায়। উত্তর কোরিয়ার সেনা সদস্য সংখ্যা ১২ লাখ এবং এর ১০ ভাগ নারী সেনা রয়েছে এমন অনুমান থাকলেও এখন বলা হচ্ছে এ অনুপাত ৪০ ভাগ পর্যন্ত হতে পারে।

আগের জীবনকে মিস করি : ট্রাম্প

প্রেসিডেন্ট হবার পর যখন হোয়াইট হাউজ থেকে বের হই তখন লিমুজিন বা এসইউভি গাড়িতে করে যেতে হয়। আমি গাড়ি চালাতে পছন্দ করি। কিন্তু এখন আর গাড়ি চালাতে পারি না। গাড়িতে নিজে চালকের আসনে বসতে না পারাটা খুব মিস করি। বললেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

দায়িত্বের ১শ’ দিন পূর্ণ হওয়ার আগে বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসের ওভাল অফিসে রয়টার্সকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প  এসব কথা বলেন।
প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, আমি আমার আগের জীবনকে ভালোবাসি। আমার অনেক কিছু করার ছিল। কিন্তু এখন আমার আগের জীবনের চেয়ে অনেক বেশি কাজ। আমি ভেবেছিলাম এটা আরও সহজ হবে। এখন তা মনে হচ্ছে না। প্রেসিডেন্টের কাজ এতো কঠিন আগে বুঝিনি।
ট্রাম্প বলেন,  আগের জীবনে গোপনীয়তা রক্ষায় অভ্যস্ত ছিলাম না। এখন জীবন কতটা সংকীর্ণ হয়ে গেছে তা ভেবে বিস্মিত হই। এখন ২৪ ঘণ্টাই সিক্রেট সার্ভিসের সুরক্ষার মধ্যে থাকতে হয়।

নিজের বর্তমান অবস্থা বোঝাতে ট্রাম্প বলেন,  আমি আসলে একটি খোলসের মধ্যে বন্দি।  কারণ আমার এত বেশি নিরাপত্তা যে আমি কোথাও স্বাধীনভাবে যেতেও পারছি না।

উত্তর কোরিয়া প্রসঙ্গে বলেন, বিষয়টি আমেরিকার জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।  উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে আমাদের বড় আকারের সংঘাত বেধে যাওয়ার একটা আশঙ্কা রয়েছে। তবে আমরা বিষয়টি কূটনৈতিকভাবেই সমাধানের পক্ষে, কিন্তু তা অত্যন্ত কঠিন। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন সম্পর্কে ট্রাম্প বলেন, এই নেতা তুলনামূলক অল্প বয়সে দেশের ভার নিয়েছেন।

নিজেদের মিত্র দক্ষিণ কোরিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা বসাতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এ বিষয়ে ট্রাম্প বলেন, তিনি চান দক্ষিণ কোরিয়া এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থার খরচ বহন করুক। তার হিসাব অনুযায়ী, এ জন্য খরচ হবে প্রায় ১শ’ কোটি মার্কিন ডলার।
এমকে

যোগীর মতো চুল কাটার নির্দেশে বিক্ষোভ

করতোয়া ডেস্ক : মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের মতো করে চুল কেটে না আসায় বেশ কয়েকজন ছাত্রকে স্কুলে ঢুকতে দেয়নি স্কুল কর্তৃপক্ষ। ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসে বৃহস্পতিবার। জানা যায়, সিবিএসই অধীনস্ত ওই স্কুলে মোট ২৮০০ ছাত্র-ছাত্রী আছে। স্কুল কর্তৃপক্ষ পড়–য়াদের নির্দেশ দেয়, যোগী আদিত্যনাথের মতো মাথায় হালকা চুল থাকতে হবে, সেই সঙ্গে দাড়ি-গোঁফ কামিয়েও আসতে হবে স্কুলে।


 স্কুল কর্তৃপক্ষের এমন ফতোয়ায় স্বভাবতই অবাক পড়–য়া ও তাদের অভিভাবকরা। এই ফতোয়ার পিছনে স্কুল কর্তৃপক্ষের যুক্তি- এটা কোনও মাদ্রাসা নয়, এটা স্কুল। এদিকে, বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরই বেশ হইচই শুরু হয়ে যায়। এমন ফতোয়া নিয়ে স্বভাবতই প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় স্কুল কর্তৃপক্ষকে। উল্লেখ্য, জৈন ট্রাস্ট পরিচালিত এই স্কুলে আগেই আমিষ খাবারের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল।

 ছাত্ররা টিফিনে কোনও আমিষ খাবার আনছে কিনা তা দেখতে মাঝেমধ্যেই হঠাৎ করে তল্লাশি চালানো হয় বলেও পড়–য়াদের অভিযোগ। শুধু তাই নয়, ছাত্র এবং ছাত্রীদের ক্লাসরুমে পাশাপাশি বসার উপরেও নিষেধাজ্ঞা রয়েছে ওই স্কুলে।

উ: কোরিয়ার সঙ্গে ‘প্রবল’ সংঘর্ষ, ট্রাম্পের হুঁশিয়ারি

করতোয়া ডেস্ক : শান্তিপূর্ণ সমাধান চাইলেও উত্তর কোরিয়া তাদের পরমাণু অস্ত্র প্রকল্পের কাজ অব্যাহত রাখলে বড় ধরনের সংঘাত শুরু হয়ে যেতে পারে বলে সতর্ক করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিজ কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার মার্কিনী গণমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেন,  কোরীয় উপদ্বীপের চলমান সংকটের শান্তিপূর্ণ সমাধান তিনি চান। এজন্য উত্তর কোরিয়ার উপর নতুন করে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথাও বিবেচনা করছেন তিনি।


তবে সামরিক অভিযানের বিষয়টিও তার বিবেচনায় রয়েছে বলে জানান ট্রাম্প। তিনি বলেন, “উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে বড় ধরনের সংঘাতে মাধ্যমেও আমরা সমস্যার ইতি টানাতে পারি।” “যদিও আমরা কূটনৈতিকভাবেই সমস্যার সমাধান করতে আগ্রহী, কিন্তু সেটা খুবই কঠিন।” উত্তর কোরিয়া তার জন্য সবচেয়ে বড় পরীক্ষা বলেও মনে করেন ট্রাম্প। এদিকে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ওয়াং ই সতর্ক করে বলেন, সেখানে বর্তমানে যে অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে তাতে কোরীয় উপদ্বীপের পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে বা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে।


 বৃহস্পতিবার জাতিসংঘে রাশিয়ার একজন কূটনীতিকের সঙ্গে বৈঠকে ওয়াং এ কথা বলেন বলে এক বিবৃতিতে জানায় চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বিশ্বের সঙ্গে প্রায় বিচ্ছিন্ন উত্তর কোরিয়ার সবচেয়ে শক্তিশালী মিত্র দেশ চীন। কিন্তু গত কয়েকমাসে জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র ও দূর পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চীনের ক্ষোভের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

উত্তর কোরিয়াকে নিয়ন্ত্রণে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের চেষ্টার প্রশংসা করেছেন ট্রাম্প। ট্রাম্প বলেন, “তিনি নিরন্তর চেষ্টা করছেন বলেই আমার বিশ্বাস। তিনি নিশ্চিতভাবেই অশান্তি ও মৃত্যু দেখতে চান না। তিনি একজন ভালো মানুষ।”চীন তাদের প্রতিবেশী উত্তর কোরিয়াকে আর কখনও পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা না করার আহ্বান জানিয়েছে বলেও জানান যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন। না হলে একতরফা নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়েও চীন সতর্ক করেছে বলে জানান তিনি।

মেসিডোনিয়ার সংসদে রক্তাক্ত মারামারি

করতোয়া ডেস্ক : স্পিকার নির্বাচন নিয়ে ইউরোপের মেসিডোনিয়া পার্লামেন্টে রক্তাক্ত মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় অন্তত দশ জন আহত হয়েছে। মারামারির সময় মেসিডোনিয়ার প্রভাবশালী সোশ্যাল ডেমোক্রেট দলের নেতা জোরান জেইভকে রক্তাক্ত মুখে পার্লামেন্ট ভবন ত্যাগ করতে দেখা গেছে।


স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার মেসিডোনিয়ার পার্লামেন্টের সদস্যরা আলবেনিয়ান বংশোদ্ভূত তালাত জাফরিকে স্পিকার নির্বাচন করলে এই তুমুল মারধরের সূত্রপাত ঘটে। দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী নিকোলা গ্রুয়েভস্কির ভিএমআরও দলের সমর্থকরা নতুন নির্বাচনের দাবিতে তুমুল হৈ-হুল্লা করতে থাকেন। একপর্যায়ে সোশ্যাল ডেমোক্রেট দলের নেতা জোরান জেইভকে আঘাত করেন আরেক পার্লামেন্ট সদস্য।

এরপরই মারামারির সূত্রপাত হয় বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। এ সময় প্রায় ২০০ মুখোশধারী প্রতিবাদকারী হৈচৈ করে পার্লামেন্ট ভবনে ঢুকে পড়ে এবং এথনিক আলবেনিয়ান পার্টি ও সোশ্যাল ডেমোক্রেট দলের নেতাদের আঘাত করে।

যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানতে সক্ষম উত্তর কোরিয়া?

করতোয়া ডেস্ক: উত্তর কোরিয়ার ওপর অর্থনৈতিক অবরোধ আরো কঠোর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ পরিকল্পনার মূল লক্ষ্য হচ্ছে, উত্তর কোরিয়াকে ক্ষেপণাস্ত্র এবং পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি পরিত্যাগে বাধ্য করা। এক বিবৃতির মাধ্যমে সিনেটের একশো সদস্যকে এমনটাই জানিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। ওয়াশিংটন থেকে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম জানায়, নতুন পরিকল্পনার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে, চীনকে উত্তর কোরিয়ার ওপর চাপ প্রয়োগে যুক্ত রাখা।


 যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে এক শুনানিতে কোরিয়ায় মার্কিন বাহিনীর কমান্ডার জানিয়েছেন, উত্তর কোরিয়া যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানতে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্র তৈরিতে অগ্রগতি অর্জন করেছে। অ্যাডমিরাল হ্যারি হ্যারিস জুনিয়র বলেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনকে উৎখাত করা যুক্তরাষ্ট্রের লক্ষ্য নয় সু-বুদ্ধির উদ্রেক করাই এর উদ্দেশ্য।


 তিনি উত্তর কোরিয়ার ঘনিষ্ঠ মিত্র চীনকে নিজের দায়িত্বপালনের কথা স্মরণ করিয়ে দেন। এদিকে, উত্তর কোরিয়ার ওপর অর্থনৈতিক অবরোধ এবং কূটনৈতিক তৎপরতা বাড়িয়ে দেশটিকে ক্ষেপণাস্ত্র এবং পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচী পরিত্যাগে বাধ্য করানোর পরিকল্পনা করছে যুক্তরাষ্ট্র। সিনেট সদস্যদের সামনে দেশটির পররাষ্ট্র এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রীর উপস্থাপন করা পরিকল্পনায় বলা হয়,


 যুক্তরাষ্ট্র আলোচনার জন্য উন্মুক্ত থাকবে, কিন্তু নিজেকে এবং মিত্র দেশগুলোকে রক্ষার জন্য যথেষ্ট প্রস্তুতি আছে দেশটির। গত কিছুদিন ধরেই, কোরীয় উপদ্বীপ ঘিরে উত্তেজনা বেড়েই চলেছে। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র উত্তর কোরিয়াতে হামলার পরিকল্পনা করলে, দেশটি আগাম পারমাণবিক হামলা চালাবে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর এমন কথা জানান একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

কাশ্মীরে সেনা ক্যাম্পে গেরিলা হামলায় মেজরসহ নিহত ৫

করতোয়া ডেস্ক: ভারতের জম্মু ও কাশ্মির রাজ্যের কুপওয়ারা জেলার এক সেনা ক্যাম্পে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলায় ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তাসহ তিন সৈন্য ও দুই বিচ্ছিন্নতাবাদী নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোরে কাশ্মিরের নিয়ন্ত্রণ রেখার (সীমান্ত) কাছে ওই ক্যাম্পটিতে হামলাটি চালানো হয় বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম। বিচ্ছিন্নতাবাদীরা ভোর প্রায় ৪টার দিকে গুলি ছুড়তে ছুড়তে সেনা ক্যাম্পটিতে প্রবেশের চেষ্টা করে।


 এরপর দুপক্ষের মধ্যে প্রায় চার ঘন্টা ধরে বন্দুক যুদ্ধ চলে। গোলাগুলি চলাকালে ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক মেজর, এক জেসিওসহ তিন সেনা নিহত হয়। সৈন্যদের পাল্টা গুলিতে দুই বিচ্ছিন্নতাবাদীও নিহত হয়। হামলাকারী বিচ্ছিন্নতাবাদীরা আত্মঘাতী হামলা চালিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। গোলাগুলি থামার পর তাৎক্ষণিকভাবে একটি তল্লাশি অভিযান শুরুর কথা জানিয়েছে ভারতীয় বাহিনী। যেখানে ঘটনাটি ঘটেছে সেটি নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছে এবং পুরো জেলার মধ্যে যেখানে ক্যাম্পটি রয়েছে সেটি আসলে গ্যারিসন টাউন বা সেনা ছাউনের শহর।

থাড ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন শুরু দ. কোরিয়ায় বিক্ষোভ

করতোয়া ডেস্ক: কোরিয়া উপদ্বীপে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই মার্কিন সামরিক বাহিনী দক্ষিণ কোরিয়ায় থাড ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন শুরু করেছে। তবে এ ঘটনায় যুদ্ধবিরোধী স্থানীয়রা বিক্ষোভ জানিয়েছে। বুধবার টার্মিনাল হাই অ্যাল্টিচিউড এরিয়া ডিফেন্স (থাড)-এ ব্যবহৃত রাডার ও অন্যান্য সরঞ্জাম মোতায়েন করার জন্য ছয়টি ট্রেইলারে করে দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় সেউনজু এলাকার একটি গলফ খেলার মাঠে নেওয়া হয়। যন্ত্রপাতি পরিবহন করার সময় বিক্ষোভকারীরা তাতে বাধা দেন। এতে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ হয়েছে।


 দক্ষিণ কোরিয়ার আসন্ন নির্বাচনে এগিয়ে থাকা প্রার্থীরাও এ নিয়ে কঠোর সমালোচনা করছেন। নির্বাচনের অন্যতম প্রার্থী মুন জা ইনের মুখপাত্র জানান, মার্কিনিদের থাড মোতায়েনের অনুমতি দিয়ে জনগণের মতামত এবং যথাযথ প্রক্রিয়াকে উপেক্ষা করা হয়েছে। যদি ক্ষমতায় মুন আসেন তবে তিনি এটি বাতিল করবেন বলেও ওই মুখপাত্র জানান। আগামী ৯ মে দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

 

যুক্তরাষ্ট্রের এমন সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ হয়েছে চীন। বেইজিং বলছে, ওয়াশিংটনের এমন সিদ্ধান্ত উত্তর কোরিয়াকে তেমন প্রভাবিত করতে পারবে না। দক্ষিণ কোরিয়ার ভূমিতে ‘থাড’ মোতায়েনে আঞ্চলিক নিরাপত্তা ক্ষতিগ্রস্ত হবে উল্লেখ করে এর আগে রাশিয়া এবং চীন বলেছে, এর বিরুদ্ধে তারা সম্মিলিত অবস্থান জোরদার করবে।

মার্কিন রণতরী হাজির হতেই জবাব দিল উত্তর কোরিয়া

করতোয়া ডেস্ক: উপকূলে আমেরিকার সাবমেরিন এসে উপস্থিত হতেই জবাব দিতে শুরু করল উত্তর কোরিয়া। মঙ্গলবার এক বড়সড় আকারে লাইভ ফায়ার এক্সারসাইজ করল পিয়ংইয়ং। মার্কিন সাবমেরিনের উপস্থিতি নজরে আসতেই নিজেদের শক্তি প্রদর্শন করতে এই ব্যাপক আকারের মহড়া করল কিমের দেশ। সম্প্রতি, উত্তর কোরিয়া ও আমেরিকার মধ্যে ক্রমশ বেড়ে চলা অশান্তির মধ্যেই আরও বেশি করে আগুন জ্বালিয়ে দিল এই পরিস্থিতি।

 

 মঙ্গলবার ছিল উত্তর কোরিয়ার মিলিটারির প্রতিষ্ঠা দিবস। আর সেই উপলক্ষে নিউক্লিয়ার টেস্ট করার সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছিল। এদিনই উত্তর কোরিয়া পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা করবে বলে সতর্কবার্তা দিয়েছিলেন বিশেষজ্ঞরা। তবে এদিন দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারি সূত্রে জানানো হয়েছে যে উত্তর কোরিয়া সেদেশের সীমান্তে লাইভ ফায়ার ড্রিলের জন্য প্রচুর পরিমাণ লং রেঞ্জ আর্টিলারি ইউনিট মোতায়েন করেছে। আর সেই পুরো মহড়া দেখাশোনা করছেন প্রেসিডেন্ট কিম জং উন নিজে।

বিমানবাহী রণতরী সাগরে ভাসাল চীন

করতোয়া ডেস্ক: এবার নিজেদের তৈরি বিমানবাহী রণতরী সাগরে ভাসালো চীন। দক্ষিণ কোরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর টার্মিনাল হাই আলটিটিউড এরিয়া ডিফেন্স (থাড) এন্টি মিশাইল সিস্টেম মোতায়েনের কারণে কোরীয় দ্বীপে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এমন সময়েই সাগরে রণতরী ভাসিয়েছে চীন। বুধবার সাগরে ভাসানো নতুন রণতরীটির নাম এখনো প্রকাশ করা হয়নি।

 

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় লিয়াওনিং প্রদেশের দালিয়ানে জাহাজ নির্মাণের স্থানে রণতরীটির উদ্বোধন করা হয়েছে। নতুন রণতরীটির ওজন ৭০ হাজার টন। রণতরীটি ৩১৫ মিটার দীর্ঘ এবং ৭৫ মিটার প্রশস্ত।

 

 উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক এবং ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দেশটির বাকযুদ্ধ শুরু হয়েছে। এক পক্ষ অপর পক্ষকে ক্রমাগত হুশিয়ারি দিচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে চীনের রণতরী সাগরে ভাসানোর ঘটনা নতুন করে উত্তেজনা বাড়িয়ে দিতে পারে বলে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। রণতরীটি এমনভাবে তৈরি হয়েছে যে, এতে ২৮ থেকে ৩৬টি বিমান নামানোর ব্যবস্থা রয়েছে।

এবার কৃত্রিম গর্ভে বেড়ে উঠবে শিশু

করতোয়া ডেস্ক: কৃত্রিম গর্ভ তৈরি করতে পেরেছেন বলে দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানীরা। ভবিষ্যতে প্রিম্যাচিউর বা অকালে জন্ম নেয়া শিশুদের বাঁচিয়ে রাখতে এটা ব্যবহার করা যাবে। এই ‘অতিরিক্ত-জরায়ু সহায়তা’ যন্ত্রটি ভেড়ার উপর পরীক্ষা করে সাফল্য পাওয়া গেছে। গবেষকরা বলছেন, তাদের উদ্দেশ্য হলো প্রিম্যাচিউর শিশুদের ফুসফুস এবং অন্যান্য প্রত্যঙ্গ যাতে সঠিকভাবে বেড়ে উঠতে পারে সেটা নিশ্চিত করা।

এই যন্ত্রটি মূলত একটি প্লাস্টিক ব্যাগ, যার ভেতরে রয়েছে কৃত্রিম অ্যামনিওটিক ফ্লুইড। এটার ভেতরের পরিবেশ অনেকটা জরায়ুর ভেতরের পরিবেশের মতো। বিজ্ঞানীর ধারণা করছেন, আর তিন থেকে পাঁচ বছরের মধ্যে মানবদেহে পরীক্ষা করে দেখবার জন্য প্রস্তুত করা যাবে এটিকে।

কাশ্মিরে ‘পাথর-ছোঁড়ায়’ যোগ দিয়েছে মেয়েরাও

করতোয়া ডেস্ক: গত এক সপ্তাহ ধরে কাশ্মিরে বিভিন্ন এলাকায় সহিংস-বিক্ষোভ চলছে। এসব সংঘর্ষের সময় ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর পাথর নিক্ষেপকারী কাশ্মিরিদের মধ্যে ইদানীং দেখা যাচ্ছে মেয়েদেরও।

কাশ্মিরে নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর পাথর-নিক্ষেপকারীদের যেসব ছবি আগে ছাপা হতো তাতে সাধারণত: ছেলেদেরই দেখা যেতো। কিন্তু এখন কাশ্মিরি বিক্ষোভকারী আর ইট-পাটকেল নিক্ষেপকারীদের মধ্যে মেয়েদেরও দেখা যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রে ট্রেন যাত্রীদের মালামাল লুটলো কিশোরের দল

যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সসিসকো শহরের বে এরিয়ায় একটি সাবওয়ে স্টেশনে ট্রেনের যাত্রীদের লাঞ্ছিত করে ব্যাগ ও মোবাইল ফোন ডাকাতি করে নিয়ে গেছে একদল কিশোর।

শনিবার রাতে সান ফ্রান্সিসকোর অকল্যান্ড এলাকার কোলিসিয়াম স্টেশনে সহিংস এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে সিএনএন। বে এরিয়া কর্তৃপক্ষ স্টেশনের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে উচ্ছৃঙ্খল ওই কিশোরের দলকে শনাক্ত করার চেষ্টা করছে।

স্টেশনটির দুজন কর্মী জানিয়েছেন, ওই এলাকার একটি অনুষ্ঠান থেকে ৪০ থেকে ৬০ জনের মতো একটি কিশোরের দলকে আসতে দেখেছেন তারা। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কিশোরদের বড় একটি দল গেট টপকে স্টেশনের ভেতরে ঢুকে ট্রেন থামার পর দরজা খোলার সঙ্গে সঙ্গেই ভিতরে ঢুকে যাত্রীদের লাঞ্ছিত করে মালামাল ছিনিয়ে নেয়।

কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই সন্দেহভাজনরা যাত্রীদের ব্যাগ ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। এক নারী যাত্রী বলেন, “প্রথমে সবাই বিহ্বল হয়ে পড়েছিল, ওরা ঘোড়ার মতো দাপিয়ে বেড়াচ্ছিল।

“এরপর পরিস্থিতি সহিংস হয়ে উঠতে শুরু করে। আমি অনুভব করলাম পরিস্থিতি সহিংস হয়ে উঠছে, এ সময় কেউ একজন আমার ফোন ছিনিয়ে নিল। ওই সময় তাদের অনেকে দৌঁড়ে বের হয়ে গিয়েছিল। আমি পেছনে তাকিয়ে দেখলাম তারা একটি পরিবারকে আক্রমণ করেছে।”

সাবওয়ে ট্রেন বিএআরটি-র মুখপাত্র অ্যালিসিয়া ট্রস্ট জানিয়েছেন, ডাকাতরা দুই যাত্রীর মুখে ঘুষি মেরেছে এবং ট্রেনটির সাত যাত্রীর সবকিছু নিয়ে গেছে। ট্রেনের যাত্রী ক্রিস উইলিয়ামস বলেছেন, “ঘটনাটি পরিকল্পিত ছিল। কারণ তারা জানতো আশপাশে খুব বেশি পুলিশ নেই।”

ওই কিশোরদের হাতে কেউ কোনো অস্ত্র দেখেনি বলে জানিয়েছেন ট্রস্ট। মঙ্গলবার শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ওই ঘটনায় জড়িত কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।

 

সকল সিনেটরকে হোয়াইট হাউসে জরুরি তলব ট্রাম্পের

করতোয়া ডেস্ক: উত্তর কোরিয়া ইস্যুতে হোয়াইট হাউসে বিরল বৈঠক ডাকা হয়েছে। আজ বুধবার ট্রাম্প প্রশাসনের কর্মকর্তারা ওই বৈঠকে অংশ নেবেন। উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র এবং পারমাণবিক পরীক্ষা যুক্তরাষ্ট্র এবং এর প্রতিবেশি দেশগুলোতে হুমকি হিসেবে দেখা দিয়েছে।

 

ক্রমেই উত্তর কোরিয়ার কর্মকান্ডে উদ্বিগ্ন হয়ে উঠছে ওয়াশিংটন। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জেমস মেটিসসহ সেনেটের ১শ সদস্য ওই বিশেষ বৈঠকে অংশ নেবেন। সব পক্ষকেই নিজেদের সংযত রাখার আহ্বান জানিয়েছে উত্তর কোরিয়ার প্রধান মিত্র দেশ চীন।


 রোববার চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার পরেই দেশটির তরফ থেকে এমন আহ্বান জানানো হয়। চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, উত্তেজনা যেন না বাড়ে সেজন্য শি জিনপিং সব পক্ষকেই নিজেদের সংযত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। নিয়মিত কংগ্রেসে জাতীয় নিরাপত্তা ইস্যুতে ব্রিফিংয়ে অংশ নেন হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা।


 কিন্তু এই ব্রিফিং অন্য সব ব্রিফিংয়ের মত নয়। এখানে হোয়াইট হাউসের প্রায় সব সেনেটকে অংশ নিতে বলা হয়েছে। হোয়াইট হাউসে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে ট্রাম্প বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা জারির বিষয়ে জাতিসংঘকে প্রস্তুত থাকতে হবে। এর আগে রোববার উত্তর কোরিয়ার গণমাধ্যম জানিয়েছে, মার্কিন রণতরী কার্ল ভিনসন ডুবিয়ে দিতে প্রস্তুত রয়েছে তারা।

কোরীয় জলসীমায় পৌঁছেছে মার্কিন পরমাণু অস্ত্রবাহী সাবমেরিন

করতোয়া ডেস্ক: উত্তর কোরিয়ার পরমাণু পরীক্ষা নিয়ে অব্যাহত উত্তেজনার মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ার জলসীমায় পৌঁছেছে মার্কিন পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম একটি সাবমেরিন। পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্রবাহী সাবমেরিন ‘ইউএসএস মিশিগান’ মঙ্গলবার সকালে দক্ষিণ কোরিয়ার জলসীমানায় ঢোকে। সাবমেরিনটি ওই এলকায় থাকা মার্কিন রণতরী কার্ল ভিনসনের সঙ্গে যোগ দেবে।

 সাবমেরিনটিতে পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র ছাড়াও ১৫৪টি টমাহক ক্ষেপণাস্ত্র, ৬০জন বিশেষ প্রশিক্ষিত সেনা এবং কয়েকটি ছোট আকারের ডুবোজাহাজ রয়েছে। এদিকে মঙ্গলবার সেনাবাহিনীর ৮৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করছে উত্তর কোরিয়া। এ দিন ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার আশঙ্কা করছে চীন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতাসীন হওয়ার পর উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে উত্তেজনা বেড়েছে।

 এই প্রেক্ষাপটে মার্কিন যুদ্ধজাহাজের উপস্থিতিতে কোনো ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালালে যুদ্ধ বেধে যেতে পারে বলে আশঙ্কা অনেকেরই। বেশ কিছুদিন ধরেই যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরিয়া উত্তপ্ত সম্পর্কের মধ্যে এই ডুবোজাহাজের অবস্থান ওই অঞ্চলে নতুন করে উত্তেজনা তৈরি করবে বলে ধারণা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ইতিহাসের সেরা সামরিক মহড়া চালাল উত্তর কোরিয়া

করতোয়া ডেস্ক: কোরীয় উপদ্বীপে বেড়েই চলেছে সামরিক উত্তেজনা। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যুদ্ধাবস্থার মধ্যেই মঙ্গলবার ইতিহাসের সবচেয়ে বড় সামরিক মহড়ার আয়োজন করল উত্তর কোরিয়া। দেশটির সেনাবাহিনীর ৮৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এ মহড়া চালায় পিয়ংইয়ং।

 বিশ্লেষকরা বলছেন বিদ্যমান উত্তেজনার মাঝে এ সামরিক মহড়া কোরীয় উপদ্বীপের পরিস্থিতিকে জটিল করে তুলবে। দক্ষিণ কোরীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, সেনাবাহিনীর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় ওনসান উপকূলীয় এলাকায় সামরিক মহড়ার আয়োজন করা হয়েছে।


 এজন্য সংশ্লিষ্ট এলাকায় আর্টিলারি বাহিনীর বিপুল পরিমাণ সদস্য ও সমরাস্ত্র মোতায়েন করেছে পিয়ংইয়ং। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন নিজেও এ সামরিক মহড়া পর্যবেক্ষণের জন্য উপস্থিত থাকতে পারেন কলে মনে করছে দক্ষিণ কোরিয়া।

 দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আমাদের সেনাবাহিনী উত্তর কোরিয়ার সেনাদের গতিবিধি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। এটি দেশটির ইতিহাসে সবচে বড়  সামরিক মহড়া হতে যাচ্ছে। প্রতিবছরই সেনাবাহিনীর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে সামরিক মহড়া আয়োজন করে থাকে কিম জং-উন প্রশাসন। চালিয়ে থাকে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা। এবারও দেশটি নতুন করে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানতে প্রস্তুত উত্তর কোরিয়া!

করতোয়া ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ভূখন্ডে পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাত হানতে পুরোপুরি প্রস্তুত উত্তর কোরিয়া। আপাতত এসব ক্ষেপণাস্ত্রের লক্ষ্য হচ্ছে এশীয় প্রশান্ত মহাসাগরে মার্কিন ঘাঁটি ও যুক্তরাষ্ট্রের ভূখন্ড। এমনকি যুক্তরাষ্ট্রকে ছাইয়ে পরিণত করার মত শক্তি উত্তর কোরিয়ার আছে এবং আক্রান্ত হবার আশঙ্কা মনে করলে দেশটি যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানলে সেখানে একজনও বেঁচে থাকবে না।

 

উত্তর কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী পাক ইয়ং-সিক এধরনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের রণতরী ‘আরমাদা’ কোরিয়া উপদ্বীপে প্রবেশ করা মাত্রই উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং-উন লালবোতামে চাপ দেবেন। এক্ষেত্রে পুরোপুরি প্রস্তুত রয়েছে তার দেশ। আমাদের পারমাণবিক অস্ত্র মার্কিন ঘাঁটি ও যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানতে সক্ষম। একদিন আগে উত্তর

টাইটানিক যাত্রীর পোশাক নিলামে ১.৪ কোটি টাকা

করতোয়া ডেস্ক: টাইটানিক ছবিটি দেখেননি এমন সিনেপ্রেমীর সংখ্যা হয়তো হাতে গোনা। জ্যাক-রোজের লাভস্টোরি, টাইটানিকের সলিল সমাধি সবকিছু যেন রুপোলি পর্দার দৌলতে চোখের সামনে ভেসে ওঠে সকলেরই। সেই ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া যাত্রী মার্বেল বেনেটের গায়ের কোটটিই উঠল এবার নিলামে। প্রায় ১.৪কোটি টাকা উঠল এই নিলামে।

 শনিবার হওয়া এই নিলামে এই ফার কোটটি ব্রিটেনের এক ব্যক্তি কিনে নেয়। বেঁচে যাওয়া মার্বেল বেনেট ১৯৭৪-এ ৯৬বছর বয়সে মারা যান। ৬০-এর দশকে বেনেট নিজের সেই কোটটি আত্মীয়দের দিয়ে যান। সেই কোটটিই নিলামের উঠে।

ফ্রান্সের নির্বাচন: দলের নেতৃত্ব ছাড়লেন ল্য পেন

কট্টর-ডানপন্থি দল ন্যাশনাল ফ্রন্টের (এফএন) নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ালেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দলটির প্রার্থী, রানঅফ ভোটের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যারিন ল্য পেন।

বিবিসির খবরে বলা হয়, ফ্রেঞ্চ টিভিকে ল্য পেন জানান, তার দলীয় বিবেচনার উর্ধ্বে থাকা দরকার।  ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম পর্বে সবচেয়ে বেশি ভোট পাওয়া দুই প্রার্থীর একজন হয়ে দ্বিতীয় পর্বের (রানঅফ) প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পৌঁছানোর একদিন পর সোমবার তিনি এ সিদ্ধান্ত জানান।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দ্বিতীয় পর্বে তিনি উদার মধ্যপন্থি প্রার্থী এমানুয়েল মাক্রোঁর মুখোমুখি হবেন। প্রথম পর্বের ভোটাভুটিতে মাক্রোঁ সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়েছেন।

জনমত জরিপে আভাস পাওয়া গেছে, দ্বিতীয় পর্বের ভোটেও মাক্রোঁ স্পষ্ট ফেভারিট। তারপরও জয়ের ব্যাপারে প্রত্যয় জানিয়ে ল্য পেন বলেছেন, “আমরাও জিততে পারি, আমরাই জিতব।” তবে তার কথাবার্তায় ইঙ্গিত পাওয়া গেছে, তার দলীয় প্রধানের পদ ছাড়ার বিষয়টি সাময়িক হতে পারে।

ফ্রেঞ্চ টু-কে তিনি বলেছেন, ফ্রান্স একটি ‘চূড়ান্ত মূহুর্তের’ দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। প্রেসিডেন্টকে ফ্রান্সের সকল মানুষের মধ্যে মিলন ঘটাতে হবে, এই ‘গভীর প্রত্যয়বোধ’ থেকেই তিনি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন ল্য পেন।

“তাই, এই সন্ধ্যা থেকে আমি আর ন্যাশনাল ফ্রন্টের সভাপতি না। আমি ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট পদের প্রার্থী,” বলেন তিনি। ২০১১ সালে বাবা জঁ মারি ল্য পেনের কাছ থেকে এফএনের নেতৃত্বভার গ্রহণ করেছিলেন ল্য পেন। তার নেতৃত্ব গ্রহণের পর ফ্রান্সের আঞ্চলিক নির্বাচনগুলোতে এফএন বড় ধরনের সাফল্য পায়। তার নেতৃত্বেই দলটি গত ১৫ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি করে।

এদিকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম পর্বের ভোটে ২০ শতাংশ ভোট পেয়ে তৃতীয় স্থান দখলকারী রক্ষণশীল দলের প্রার্থী ফ্রঁসোয়া ফিয়ঁও সোমবার রিপাবলিকান দলের নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা জানিয়েছেন।

নিজ দলীয় নেতাদের তিনি বলেছেন, আইনপরিষদের নির্বাচনে দলকে নেতৃত্ব দেয়ার আর কোনো ‘বৈধতা’ তার নেই।

“অন্যান্যদের মতোই তিনি সাধারণ একজন আন্দোলনকারী” হয়ে থাকবেন বলে জানিয়েছেন।

 

ভারতের ছত্রিশগড়ে মাওবাদীদের হামলায় কেন্দ্রীয় পুলিশের রিজার্ভ ফোর্সের ২৬ সদস্য নিহত

করতোয়া ডেস্ক: ভারতের ছত্তিশগড়ে সন্দেহভাজন মাওবাদী বিদ্রোহীদের হামলায় আধা-সামরিক বাহিনী সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) অন্তত ২৬ সদস্য নিহত হয়েছেন। প্রদেশের সুকুমায় মাওবাদীদের এ হামলায় আহত হয়েছেন আরও কমপক্ষে ৭ সিআরপিএফ জওয়ান। স্থানীয় পুলিশ দেশটির গণমাধ্যমকে বলছে, গতকাল সোমবার স্থানীয় সময় দুপুর পৌনে ১টার দিকে ছত্তিশগরের মাওবাদী সহিংসতায় উত্তপ্ত দক্ষিণ বাস্তার এলাকার বুরকাপল ও চিন্তাগুফা এলাকার মাঝে এনকাউন্টারে ওই জওয়ানরা নিহত হয়েছেন।


 সিআরপিএফের অন্তত ৯০ জওয়ান ওই এলাকায় একটি সড়ক নির্মাণ কাজের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন। মাওবাদী অধ্যুষিত এলাকার সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে ওই সড়ক নির্মাণ কাজ চলছে। দান্তেওয়াদা পুলিশের উপ-পরিদর্শক পি সুন্দর রাজ বলেন, ঘটনাস্থলে উদ্ধারকারী একটি দল পাঠানো হয়েছে; সিআরপিএফের সঙ্গে এনকাউন্টারে অন্তত ৫ মাওবাদী বিদ্রোহীও নিহত হয়ছে। পুলিশের জ্যেষ্ঠ এই কর্মকর্তা বলেন, ঘটনাস্থলে দুপুরের খাবার খাওয়ার সময় বিদ্রোহীরা সিআরপিএফের জওয়ানদের ওপর হামলা চালায়।

 

হামলার পর নয়াদিল্লি সফররত ছত্তিশগরের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিং সফর সক্ষিপ্ত করে রায়পুরে পৌঁছেছেন। বাস্তার পুলিশের মহাপরিদর্শক ও সুন্দর রাজও সুকমা পরিদর্শনে গেছেন। সিআরপিএফের ৭৪ ব্যাটালিয়নের সদস্যদের ওপর ওই হামলা হয়েছে। এনকাউন্টারে পরিদর্শক পদমর্যাদার এক কর্মকর্তাও আহত হয়েছেন। গত দুই মাসের মধ্যে দেশটির আধা সামরিক বাহিনীর সদস্যদের ওপর এই নিয়ে দু’বার বড় ধরনের হামলা চালালো মাওবাদী বিদ্রোহীরা। গত মার্চে সুকমায় একই ধরনের হামলায় অন্তত ১২ সিআরপিএফ জওয়ানের প্রাণহানি ঘটে।

কোরীয় উপদ্বীপে সব মার্কিন নাগরিককে প্রস্তুত থাকতে ট্রাম্পের নির্দেশ

করতোয়া ডেস্ক: কোরিয়ান পেনিনসুলা বা কোরিয় উপদ্বীপ অঞ্চল থেকে ২ লাখ ৩০ হাজার মার্কিন নাগরিককে যে কোনো সময় ওই এলাকা ত্যাগ করতে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

 

যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী মাস খানেকের মধ্যে ওই অঞ্চলে সামরিক মহড়া শুরু করবে যার লক্ষ্যই হবে কিভাবে মার্কিন নাগরিকদের ওই অঞ্চল থেকে নিরাপদে সরিয়ে আনা যায়। উত্তর কোরিয়ার অব্যাহত পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষা ও তৃতীয় যুদ্ধ বেঁধে যাওয়ার আশঙ্কার মাঝে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এ নির্দেশ দিলেন।


 একদিকে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং-উন তার দেশ আক্রান্ত হলে যুক্তরাষ্ট্রে পাল্টা পারমাণবিক হামলার হুমকি দিয়ে আসছেন। যুক্তরাষ্ট্র উত্তর কোরিয়াকে সাবধান করে বলছে দেশটি যদি পারমাণবিক অস্ত্র বা ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা অব্যাহত রাখে তাহলে সামরিক ব্যবস্থা, অর্থনৈতিক অবরোধ সহ সবধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এরপর মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ আরামাদা কোরীয় উপদ্বীপে ধেয়ে যায় এবং এক পর্যায়ে অস্ট্রেলিয়া অভিমুখে রওনা দেয়।

 

সর্বশেষ মার্কিন সেনাবাহিনী এখন কোরীয় উপদ্বীপ অঞ্চল থেকে মার্কিন নাগরিকদের প্রত্যাহারে মহড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বন্দ্ব আরো বৃদ্ধি পেলে ওই অঞ্চল থেকে মার্কিন সেনাবাহিনীকে দেশটির ২ লাখ ৩০ হাজার নাগরিককে সরিয়ে আনতে হবে।

মঙ্গলবার ঘিরে অমঙ্গলের শঙ্কা

করতোয়া ডেস্ক: উত্তর কোরিয়াকে নিয়ে নতুন করে শঙ্কায় আছে দক্ষিণ কোরিয়া। পিয়ংইয়ং নতুন করে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাতে পারে বলে কোরীয় দ্বীপে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার একীভূতকরণ মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লি ডুক হায়েং জানিয়েছেন, আজ মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়া তাদের সেনা বাহিনী কোরিয়ান পিপলস আর্মির ৮৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করবে।

 

 এই অনুষ্ঠানে শীতকালীন অনুশীলন অন্তর্ভূক্ত করবে দেশটি। একই সময়ে যৌথ সামরিক মহড়া চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র এবং দক্ষিণ কোরিয়া। তাদের এই মহড়া চলতি মাসের শেষ নাগাদ পর্যন্ত চলবে। শুক্রবার উত্তর কোরিয়ার তরফ থেকে জানানো হয়েছে, কোরীয় দ্বীপের পরিস্থিতি খুবই বিপজ্জনক।

 

উত্তর কোরিয়ার সার্বভৌমত্ব এবং এখানে বেঁচে থাকার অধিকারে যুক্তরাষ্ট্র হস্তক্ষেপের চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ আনা হয়েছে। গত বছর দুটি পারমাণবিক অস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া। তারপর থেকেই কোরীয় দ্বীপে উত্তেজনা বেড়ে গেছে।

 এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ঠেকানোর প্রতিজ্ঞা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বৃহস্পতিবার দক্ষিণ কোরিয়ার অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি হুয়াং কিয়ো আহন শীর্ষ কর্মকর্তাদের জানিয়েছেন, যে কোনো সময় নতুন করে উস্কানিমূলক কাজ করতে পারে উত্তর কোরিয়া।

তাজমহলে ঢুকতে বাধা এই সুন্দরী মডেলদের

করতোয়া ডেস্ক: এট সত্যি যে, রোদের মধ্যে তাজমহল ঘোরা বেশ কষ্টসাধ্য ব্যাপার। তাই রোদ থেকে নিজেদের চোখ-মুখ ঢাকতে গেরুয়া স্কার্ফ ব্যবহার করেছিলেন মডেলরা। কারও কারও স্কার্ফে আবার ‘জয় শ্রী রাম’-এর মতো বাণীও লেখা ছিল। ব্যস, তাতেই ঘটে বিপত্তি।

 তাঁদের সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, তাজমহলে প্রবেশ করতে হলে ওই গেরুয়া স্কার্ফ খুলে রেখে আসতে হবে। এই নিয়ে ওঠে বিতর্কের ঝড়। গত ১২ এপ্রিল শুরু হয়েছে সুপার মডেল আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা। ১১ দিন ধরে চলতে থাকা এই সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া ৩৪ দেশের ৪২ জন মডেল সম্প্রতি আগ্রার তাজমহল ঘুরতে গিয়েছিলেন। তাঁদের মধ্যেই কয়েকজন রোদ থেকে বাঁচতে মাথায় চাপিয়েছিলেন গেরুয়া রঙের ‘জয় শ্রী রাম’ লেখা স্কার্ফ। কিন্তু তাজমহলে ঢোকার মুখেই ঘটে বিপত্তি। স্কার্ফ খুলে ফেলতে বলা হয় তাঁদের।

মঙ্গলবার ঘিরে অমঙ্গলের শঙ্কা

করতোয়া ডেস্ক: উত্তর কোরিয়াকে নিয়ে নতুন করে শঙ্কায় আছে দক্ষিণ কোরিয়া। পিয়ংইয়ং নতুন করে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাতে পারে বলে কোরীয় দ্বীপে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার একীভূতকরণ মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লি ডুক হায়েং জানিয়েছেন, মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়া তাদের সেনা বাহিনী কোরিয়ান পিপলস আর্মির ৮৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করবে। এই অনুষ্ঠানে শীতকালীন অনুশীলন অন্তর্ভূক্ত করবে দেশটি। একই সময়ে যৌথ সামরিক মহড়া চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র এবং উত্তর কোরিয়া। তাদের এই মহড়া চলতি মাসের শেষ নাগাদ পর্যন্ত চলবে। লি জানান, বড় ধরনের সামরিক মহড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে উত্তর কোরিয়া। একই সময়ে দক্ষিণ কোরিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ সামরিক মহড়ার কারণে কোরীয় দ্বীপে শক্ত ও কৌশলগত অবস্থান লক্ষ্য করা যাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, ‘আমরা খুব কাছ থেকেই সব কিছু পর্যবেক্ষণ করছি। দক্ষিণ কোরিয়া কখনো নিজেদের অবস্থান থেকে সরে আসবে না।’ উত্তর কোরিয়ার তরফ থেকে জানানো হয়েছে, কোরীয় দ্বীপের পরিস্থিতি খুবই বিপজ্জনক। উত্তর কোরিয়ার সার্বভৌমত্ব এবং এখানে বেঁচে থাকার অধিকারে যুক্তরাষ্ট্র হস্তক্ষেপের চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ আনা হয়েছে। এদিকে, উত্তর কোরিয়া সীমান্তে সেনা মোতায়েন করেছে এমন অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছে রাশিয়া। মস্কোর এক সেনা মুখপাত্রের বরাত দিয়ে ইন্টারফ্যাক্স নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, রুটিন মাফিক সেনা মহড়ার অংশ হিসেবে অনুশীলন করেছেন সেনারা। কয়েক সপ্তাহ ধরেই যুক্তরাষ্ট্র এবং দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা বলে আসছে, জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে খুব শিগগিরই আরো একটি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাতে পারে উত্তর কোরিয়া। এদিকে, পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে মার্কিন রণতরীর বহরের সঙ্গে জাপানের নৌবাহিনীর দুটি জাহাজ যৌথ মহড়ায় অংশ নেয়ায় রোববার উত্তর কোরিয়া হুমকি দিয়ে বলেছে, পিয়ংইয়ং তার সামরিক শক্তি প্রদর্শন করতে হামলা চালিয়ে মার্কিন রণতরী ডুবিয়ে দিতে প্রস্তুত রয়েছে। বিভিন্ন দেশের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার কূটনৈতিক সম্পর্ক ক্রমেই ভঙ্গুর হতে শুরু করেছে। বিরোধীতা করলে বা দেশটি নিয়ে কোনো মন্তব্য করলেই তাদের শত্রু ভাবছে উত্তর কোরিয়া। তাছাড়া নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও বার বার ক্ষেপনাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়ে কোরীয় দ্বীপে অস্থিরতা তৈরি করছে তারা। মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপানের শীর্ষ রাষ্ট্রদূতরা মঙ্গলবার সাক্ষাত করবেন। দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইঙ্গিত করেছেন, এই সাক্ষাতের পেছনে মূল উদ্দেশ্য উত্তর কোরিয়ার ওপর চরম চাপ তৈরি এবং চীনের গঠনমূলক অবস্থান নিশ্চিত করা। এদিকে, চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় নিজেদের অবস্থান সম্পর্কে জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়ার সীমান্তে তাদের সেনা বাহিনী স্বাভাবিক অনুশীলন করছে।



Go Top