সন্ধ্যা ৭:১০, বুধবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তাজাতিক


সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকায় ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে বিশ্বজুড়ে হৈ চৈয়ের মধ‌্যে সেদেশে যেতে বাধা পেয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এক ব্রিটিশ নাগরিক।

জুহেল মিয়া নামে ওই স্কুলশিক্ষককে ফিরিয়ে দেওয়ার সময় তার সঙ্গে অপরাধীদের মতো আচরণ করা হয়েছিল বলে অভিযোগ এসেছে যুক্তরাজ‌্যের সংবাদপত্রগুলোতে।

২৫ বছর বয়সী জুহেল মিয়া সাউথ ওয়েলসের একটি বিদ‌্যালয়ের গণিত শিক্ষক। সহকর্মী ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে তিনি নিউ ইয়র্ক রওনা হয়েছিলেন।

গত ১৬ ফেব্রুয়ারি আইসল‌্যান্ডের রাজধানী রিকিয়াভিকে তাকে বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়া হয় বলে ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান জানিয়েছে।

দি সান লিখেছে, নিজের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘জনপ্রিয় ও শ্রদ্ধেয়’ শিক্ষক হিসেবেই পরিচিত জুহেল মিয়া। তাকে নামিয়ে আনার পর শিক্ষার্থীরা কাঁদছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত ১০ ফেব্রুয়ারি সাতটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের তার দেশে ঢোকায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। দেশগুলো হচ্ছে ইরান, ইরাক, সিরিয়া, ইয়েমেন, সুদান, সোমালিয়া ও লিবিয়া।

তুমুল বিক্ষোভের মধ‌্যে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আদালত প্রেসিডেন্টের ওই নির্বাহী আদেশ স্থগিত করে।

এর মধ‌্যেই হেনস্তার শিকার হলেন জুহেল মিয়া, যার বাবা-মা বাংলাদেশি হলেও তিনি যুক্তরাজ‌্যের নাগরিক।

তিনি গার্ডিয়ানকে বলেন, “আমার পরিবারের কেউ ওই সাতটি দেশের নয়। গত বছরও আমার ভাই ফ্লোরিডা ঘুরে এসেছে। আমি বুঝতে পারছি না, কেন আমার সঙ্গে এমন হল।”

শিক্ষকতা পেশায় থাকার কারণে চট করে রেগে না ওঠা জুহেল এই ঘটনায় বেশ রেগেছেন।
“আমার ভীষণ ভীষণ রাগ হচ্ছে। সবাই আমার দিকে তাকাচ্ছিল, সাধারণ যাত্রীরাই শুধু নয়, সহকর্মীরা, আমার ছাত্র-ছাত্রীরাও। এই ঘটনায় আমার মাথা হেট হয়ে গেছে, মনে হচ্ছিল আমি যেন এক ভয়ানক অপরাধী। সবাই নিশ্চয়ই তাই ভাবছিল, আমার সহকর্মী, আমার শিক্ষার্থীরা। আমি এখন কোথায় দাঁড়াই?”

জুহেল বলেন, ফ্লাইট ছাড়ার একটু আগেই এক কর্মকর্তা তার কাছে এসে বলেন, তিনি বিমানে থাকতে পারবেন না। তারপর তাকে পাহারা দিয়ে বিমান থেকে বের করে দেওয়া হয়।

বিমানে ওঠার আগে চুলচেরা তল্লাশির শিকার হতে হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, পাসপোর্ট দেখার পর একটি কক্ষে নিয়ে গিয়ে সবকিছু খুলে ৫ মিনিট ধরে দুজন ভালভাবে পরীক্ষা করার পর তাকে যেতে দিয়েছিল।

বিমান থেকে নামিয়ে জুহেল মিয়াকে একটি হোটেলে কক্ষে দু’ঘণ্টা বসিয়ে রাখা হয়েছিল। এরপর যুক্তরাজ্যে ফিরে যান তিনি।

“এই ধরনের ঘটনা কারও সঙ্গে ঘটা উচিৎ নয়। আমি সব প্রক্রিয়া নির্দেশনা অনুযায়ী সেরেছিলাম। তারপরও এমন আচরণ করা হল, যেন আমি এক অপরাধী,” বলেন জুহেল।

জুহেলকে নামিয়ে দেওয়ার পর তার সহকর্মী ও শিক্ষার্থীরা ওই ফ্লাইটে নিউ ইয়র্ক রওনা হয়েছিলেন।

জুহেলের সঙ্গে এই আচরণে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে নেথ পোর্ট টালবোট কাউন্টি বারা কাউন্সিল।

বৈধ কাগজপত্র থাকার পর তাকে বাধা দেওয়ায় শহর কর্তৃপক্ষ নিজেদের অসন্তোষ প্রকাশ করে লন্ডনে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসে চিঠি দিয়েছে বলে ইনডিপেডেন্ট জানিয়েছে।

সংস্থার এক মুখপাত্র বলেছেন, তারা তাদের সম্মানীত একজন শিক্ষকের সঙ্গে এমন আচরণের ব‌্যাখ‌্যা চেয়েছেন।

ঘটনাটি যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও জেনেছে। মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র ইনডিপেনডেন্টকে বলেছেন, “ব্রিটিশ যে নাগরিককে রিকিয়াভিকে বিমান থেকে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে, তার প্রতি আমাদের সমর্থন থাকবে।”

এই বিষয়ে লন্ডনে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের কোনো মন্তব‌্য তাৎক্ষণিকভাবে পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে গার্ডিয়ান।

 

হংকংয়ের সাবেক প্রধান নির্বাহীর ২০ মাসের কারাদণ্ড

সরকারি অফিসে অসদাচরণের দায়ে হংকংয়ের সাবেক প্রধান নির্বাহী ডোনাল্ড স্যাংকে ২০ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

হংকংয়ের শক্তিশালী আইনের শাসন থেকে ক্ষমতাবানরাও যে রেহাই পান না, বুধবারের এই রায়ে তা আবারও প্রমাণিত হল বলে মন্তব্য করেছেন কয়েকজন বিশ্লেষক।

হংকংয়ের ইতিহাসে স্যাংই অভিযুক্ত হওয়া সর্বোচ্চ পদাধিকারী সাবেক কর্মকর্তা।

১৯৯৭ সালে চীনা কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তরের আগে-পরে দীর্ঘদিন ধরে হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী হিসেবে দায়িত্বপালন করে এসেছেন স্যাং। এই দণ্ডের মাধ্যমে তার সেই উজ্জল ক্যারিয়ারের কলঙ্কজনক পরিসমাপ্তি ঘটল।

বুকে ব্যথা ও শ্বাসকষ্টজনিত কারণে সোমবার রাত থেকে হাসপাতালে ছিলেন তিনি। সেখান থেকে পুলিশি প্রহরায় হাতে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে তাকে আদালতে হাজির করা হয়। এ সময়ও তিনি তার বিখ্যাত বো টাই পরা ছিলেন।

রায় হওয়ার আগেই ভাল চরিত্র হিসেবে এবং চার দশকেরও বেশি সময় ধরে সরকারি দায়িত্ব পালনের বিষয়টি উল্লেখ করে হংকংয়ের সাবেক শীর্ষ কর্মকর্তারাসহ গণ্যমান্য অনেকেই স্যাংয়ের দণ্ড হ্রাস করার আবেদন জানিয়ে চিঠি লিখেছিলেন।

এর আগে নয়জন বিচারকের সমন্বয়ে গঠিত জুরি বোর্ড সরকারি অফিসে অসদাচরণের দায়ে স্যাংকে দোষী সাব্যস্ত করেছিল।

স্যাংয়ের মন্ত্রিসভায় ওয়েভ মিডিয়া রেডিও কোম্পানিকে ডিজিটাল ব্রডকাস্টিং লাইসেন্স দেওয়ার বিষয় নিয়ে আলোচনা ও তা অনুমোদন করার সময় স্যাং সচেতনভাবে ধনকুবের ব্যবসায়ী বিল ওংয়ের সঙ্গে তার ব্যক্তিগত লেনদেনের বিষয়টি গোপন করেছিলেন। ওয়েভ মিডিয়া কোম্পানির অধিকাংশ শেয়ারের মালিক ছিলেন ওং।   

তবে অপর একটি অসদাচরণের অভিযোগ থেকে খালাস পান তিনি।

স্যাংয়ের বিরুদ্ধে আনা ঘুষ গ্রহণের আরেকটি অভিযোগের নিষ্পত্তি সেপ্টেম্বরে করা হবে বলে জানিয়েছে আদালত।

 

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ৪৬ সিটিতে একযোগে আমেরিকানদের বিক্ষোভ

করতোয়া ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের চেতনা আর মূল্যবোধের পরিপন্থী কর্মকান্ডে অতীষ্ঠ আমেরিকানরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। সোমবার ছিল ‘প্রেসিডেন্ট ডে’, এই দিনটি উপলক্ষেও লাখো আমেরিকান রাজপথে নামেন ‘নট মাই প্রেসিডেন্ট’স ডে’ ব্যানারে। নিউইয়র্কসহ ৪৬ সিটিতে একযোগে এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। নিউইয়র্ক সিটির ম্যানহাটানে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মালিকানাধীন ট্রাম্প টাওয়ারের সামনে প্রধান কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারি অনেকের হাতেই ছিল ট্রাম্পকে অভিশংসনের পোস্টার। অর্থাৎ দায়িত্ব গ্রহণের ঠিক এক মাসের মাথায়ই এই প্রেসিডেন্টের ব্যাপারে অতীষ্ঠ হয়ে উঠেছেন আমেরিকানরা।

 এর আগের দিন অর্থাৎ ১৯ ফেব্রুয়ারি রবিবার নিউইয়র্ক সিটির টাইমস স্কোয়ারে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুসলিম বিদ্বেষমূলক কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে অভিনব আরেকটি কর্মসূচি পালিত হয় ‘টু-ডে আই এ্যাম মুসলিম টু’ (আজ আমিও মুসলমান) ব্যানারে। সমস্বরে স্লোগান উচ্চারিত হয়, ‘এভরি ডে আই এ্যাম মুসলিম-টুডে উই আর অ্যল মুসলিমস’, ‘আই হেভ ড্রিম অব এ সেইফ ওয়ার্ল্ড ফর ডাইভার্সিটি’, ‘স্প্রেড লাভ ইটস দ্য মুসলিম ডে’ ইত্যাদি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘোষিত এ কর্মসূচিতে সকল ধর্ম-বর্ণ আর জাতিগোষ্ঠির আমেরিকানরা জড়ো হয়ে মুসলমানদের সাথে সংহতি প্রকাশ করে দৃপ্ত প্রত্যয়ে উচ্চারণ করেন, ‘এ দেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান-জুইশ-মুসলমানের। আমরা সকলেই এদেশকে ভালোবাসি। কেউ আমাদের তাড়াতে পারবে না।

’ এমন সংকল্প ব্যক্ত করা হয় গান আর জ্বালাময়ী বক্তব্যে। এ সমাবেশের সাথে সংহতি প্রকাশ করতে এসেছিলেন সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টনের কন্যা চেলসী ক্লিন্টন। সাথে ছিল দুই বছর বয়েসী কন্যা শার্লটি। এ সমাবেশ-মঞ্চের পাশেই দাঁড়িয়ে সাম্প্রতিক সময়ে ট্রাম্প-বিরোধী আন্দোলনের প্রতীকে পরিণত ‘উই দ্য পিপল’ পোস্টারের বিখ্যাত ছবি মনিরা আহমেদের মা নারগিস আহমেদ এবং বাবা মোস্তাক আহমেদ। তাদের হাতেও শোভা পাচ্ছিল সেই পোস্টার। এই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারি অনেকের হাতেই ছিল পোস্টারটি। এ সময় বাংলাদেশি এই দম্পতিকে অনেকে অভিনন্দন জানান ট্রাম্প-বিদ্বেষ রুখে দেয়ার সংকল্প ব্যক্তকারীদের পাশে দেখে। সমাবেশে অংশগ্রহণকারি নেতৃবৃন্দের মধ্যে ছিলেন বাংলাদেশি আমেরিকান ডেমক্র্যাটিক লীগের সভাপতি ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতা খোরশেদ খন্দকার, কম্যুনিটি এ্যাক্টিভিস্ট হাসানুজ্জামান হাসান, সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

চীনের পণ্যে ইভানকার নাম!

করতোয়া ডেস্ক : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বড় কন্যা ইভানকা ট্রাম্পে মজেছে চীন। সাউথ চীনা মর্নিং পোস্ট জানায়, চীনের কমপক্ষে ৬৫টি কোম্পানি তাদের ট্রেড মার্ক হিসেবে ফার্স্ট ডটারের নাম ব্যবহার করার অনুমতি চাইছে। এই প্রতিটি কোম্পানিরই নিজস্ব ট্রেড মার্ক লাইসেন্স আছে। কসমেটিক ও পুষ্টিকর বিভিন্ন পণ্যে ইভানকার নাম ব্যবহারের জন্য ১০ টি আবেদনপত্র জমা পড়েছে।

ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হিসেবে জয় লাভের এক সপ্তাহ পর চীনের ‘ফুজিয়ান ইয়েনগিলি’ কোম্পানি তাদের স্যানেটারি ন্যাপকিনে ইভানকার নাম ব্যবহারের জন্য আবেদন করে। চীনের পত্রিকায় বলা হয়, লুনার নিউ ইয়ার এর ওয়াশিংটনের চীনা অ্যাম্বেসি সফরের পর চীনে ইভানকার জনপ্রিয়তা অনেক বেড়ে যায়। অন্যদিকে অনলাইন মার্কেট অ্যামাজনেও বিক্রির শীর্ষে আছে ইভানকা ব্র্যান্ডের সুগন্ধি। এর আগে, যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত চেইন শপ নর্ডস্ট্রোম ইভানকা ব্র্যান্ডের বিক্রি কমে যাওয়ায় ফার্স্ট ডটারের পণ্য না রাখার ঘোষণা দেয়।

 

মেলবোর্নে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত ৫

করতোয়া ডেস্ক : অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে একটি বিপনী বিতানে চার্টার বিমান বিধ্বস্ত হয়ে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। নিহত পাঁচজনই ওই বিচক্রাফট বি২০০ কিং এয়ার উড়োজাহাজে ছিলেন, তারা সবাই তাসমানিয়ার কিং আইল্যান্ডের বাসিন্দা বলে জানিয়েছে বিবিসি।

ভিক্টোরিয়া পুলিশের সহকারী কমিশনার স্টিফেন লিন জানান, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে এসেনডেন বিমানবন্দর থেকে ওড়ার কিছু সময় পরই আকস্মিকভাবে বিমানটির ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়ে এবং তা ওই বিপনী বিতানের উপর আছড়ে পড়ে। সেন্ট্রাল মেলবোর্নের ১৩ কিলোমিটার উত্তর পশ্চিমে এসেনডেন বিমানবন্দর সাধারণত হালকা যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ ওঠানামার জন্য ব্যবহৃত হয়। স্টিফেন জানান, দুর্ঘটনার সময় বিপনী বিতানটি বন্ধ থাকায় হতাহতের সংখ্যা বাড়েনি। উড়োজাহাজটি আছড়ে পড়ে স্পটলাইট নামের একটি দোকানের ওয়্যারহাউজের উপর। স্পটলাইটের একজনর মুখপাত্র জানিয়েছেন, তাদের সব কর্মীই নিরাপদে আছেন। স্থানীয় চ্যানেল নাইনের ভিডিওতে ঘটনাস্থলে আগুন জ্বলতে ও ধ্বংসস্তূপ থেকে কালো ধোঁয়া বের হতে দেখা যায়। মাইক কাহিল নামের একজন প্রত্যক্ষদর্শী অস্ট্রেলিয়ার হেরাল্ড সানকে জানান, বিস্ফোরণের পর লাল-কালো আগুনের হলকা অন্তত ৩০ মিটার উপরে উঠে যায়। আরেক প্রত্যক্ষদর্শী ড্যানিয়েল মে দ্য এজ-কে জানান, ঘটনার সময় তিনি বিপনী বিতানটি খোলার অপেক্ষায় কাছাকাছি দাঁড়িয়ে ছিলেন।  হঠাৎ করেই কমলা রঙয়ের বিস্ফোরণ হল, এবং তারপরই ধোঁয়া দেখতে পেলাম। কিছুক্ষণ পর জরুরি নিরাপত্তা কর্মীরা ঘটনাস্থলে দ্রুত ছুটে এলেন, তার কিছু সময় পর আমি চলে আসি। এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করে ভিক্টোরিয়ার প্রিমিয়ার ডেনিয়েল অ্যান্ড্রুজ বলেন, এটি একটি ভয়াবহ শোকের দিন। যত লোক মারা গেছেন, গত ত্রিশ বছরে আমাদের অঙ্গরাজ্য বিমান দুর্ঘটনায় এতজনকে নিহত হতে দেখেনি। অস্ট্রেলিয়ার ট্রান্সপোর্ট সেফটি ব্যুরো জানিয়েছে, টুইন ইঞ্জিনের উড়োজাহাজটি কীভাবে দুর্ঘটনায় পড়েছে তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে তারা।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভাষা শহীদদের স্মরণ

করতোয়া ডেস্ক : বাংলা ভাষার জন্যে আত্মত্যাগকারীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্যে দিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে। নিউ ইয়র্কে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ পালিত হয়েছে। বাংলাদেশের একুশের প্রথম প্রহরের সঙ্গে মিল রেখে  মঙ্গলবার নিউ ইয়র্ক সময় বেলা ১টা ১ মিনিটে জাতিসংঘ সদর দপ্তরের সামনে স্থাপিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে ফুল দেওয়া হয়। এ কর্মসূচিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপদেষ্টা তৌফিক-ই ইলাহী চৌধুরী বীরবিক্রম ছিলেন প্রধান অতিথি। তিনি বলেন, একুশে ফেব্রুয়ারির ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের’ স্বীকৃতি আদায়ে প্রবাসীদের অবিস্মরণীয় ভূমিকার প্রশংসা করেন। তৌফিক ইলাহী বলেন, আজ আমরা যে নতুন স্বপ্ন দেখছি, বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ করার, বাঙালি সংস্কৃতিকে চিরজাগ্রত রাখার, সেই স্বপ্ন বাস্তবায়িত করার জন্যেই শহীদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সংকল্প গ্রহণ করলাম। জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন, কন্সাল জেনারেল শামীম আহসানও বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানে। গত ২৬ বছর ধরে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন এবং বাঙালি চেতনামঞ্চের উদ্যোগে জাতিসংঘের সামনে এই কর্মসূচি পালিত হলেও বাংলাদেশের একুশের প্রথম প্রহরের সাথে সঙ্গতি রেখে গত বছর থেকে ভর দুপুরে এ আয়োজন করা হচ্ছে। তবে নিউ ইয়র্কের অন্যসব প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে রাত ১২টা এক মিনিটেই শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদর্শনের কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। এবারই প্রথম জাতিসংঘ সদর দপ্তরের ভেতরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। মঙ্গলবার সন্ধ্যার এই অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের প্রেসিডেন্টসহ কর্মকর্তারা অংশ নেবেন বলে জানা গেছে।


লন্ডনে ভাষা শহীদদের স্মরণ
একুশের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে ভাষা শহীদদের স্মরণ করেছে লণ্ডনের প্রবাসী বাংলাদেশিরা। প্রতিবছরের মত এবারও স্থানীয় সময় সোমবার রাত ১২টা ১ মিনিটে টাওয়ার হ্যামলেটসের আলতাব আলী পার্কে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর্ব শুরু করেন যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাই কমিশনার নাজমুল কাওনাইন। ডেপুটি হাই কমিশনার খন্দকার এম তালহা ও প্রেস মিনিস্টার নাদিম কাদিরও এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন। এরপর ফুল দিয়ে শহীদদের স্মরণ করেন টাওয়ার হ্যামলেটসের নির্বাহী মেয়র জন বিগস ও স্পিকার কাউন্সিলর খালেস উদ্দিন। যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পর স্থানীয় লেবার পার্টির নেতৃবৃন্দ, টাওয়ার হ্যামলেটস পিপলস অ্যালায়েন্স, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরাও শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। ১৯৯৯ সালে স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মিত হওয়ার পর থেকে আলতাব আলী পার্কেই আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, স্বাধীনতা দিবস ও বিজয় দিবসসহ বিভিন্ন দিবস পালন করে আসছেন প্রবাসীরা। শহীদ মিনার কমিটির মুখপাত্র বিধান চক্রবর্তী জানান, আগের বছরগুলোর তুলনায় এবার শীত কম থাকায় দূর দূরান্ত থেকে এসেও ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন অনেকে। অনেক মানুষ এসেছেন এবার, তাদের মধ্যে শিশুও আছে। তারা সবাই আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি গেয়ে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানিয়েছে। বিধান বলেন, রাত ২টা পর্যন্ত দেড়শর বেশি সংগঠন আলতাব আলী পার্কে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে।


মালয়েশিয়ায় একুশ উদযাপন
মালয়েশিয়ায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। কুয়ালালামপুরে হাই কমিশন প্রাঙ্গণে একুশের প্রথম প্রহরে হাই কমিশনার মো.শহিদুল ইসলাম হাই কমিশনের কর্মকর্তা ও প্রবাসীদের নিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে এই কর্মসূচি শুরু করেন ৷ তারপর হাই কমিশন প্রাঙ্গণে তৈরি অস্থায়ী শহীদ মিনারে শহীদদের স্মরণে ফুল দেয়- বাংলাদেশ হাই কমিশন,বাংলাদেশ কমিনিউটি প্রেসক্লাব মালয়েশিয়া, জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন, মামা সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী, চাঁদপুর সমিতি, মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গসংগঠনসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন এবং নানা পেশাজীবী প্রবাসীরা।


কাতারে মাতৃভাষা দিবস পালন
ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর মধ্য দিয়ে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছেন কাতার প্রবাসী বাংলাদেশিরা। মঙ্গলবার কাতারের রাজধানী দোহা আল হেলাল বাংলাদেশ দূতাবাসে একুশের প্রথম প্রহরে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে এই উদযাপন শুরু করেন রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদ। পরে দূতাবাসের প্রথম সচিব নাজমুল হকের পরিচালনায় একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন- শ্রম কাউন্সিলর সিরাজুল ইসলাম, কাউন্সিলর কাজী জাবেদ ইকবাল, শ্রম প্রথম সচিব রবিউল ইসলাম ও পাসপোর্ট বিভাগের প্রথম সচিব নাজমুল হাসান।


সিঙ্গাপুরে মহান একুশের শ্রদ্ধাঞ্জলি
সিঙ্গাপুরে একুশের প্রথম প্রহরে অস্থায়ী শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। সিঙ্গাপুরের রয়েল রোড মোস্তফা প্লাজা সংলগ্ন সেরাঙুনে প্রবাসীদের পত্রিকা ‘বাংলার কণ্ঠ’ ও প্রবাসী সেবাপ্রতিষ্ঠান ‘বাংলাদেশ সেন্টার’ যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ‘বাংলার কণ্ঠ’ পত্রিকার সম্পাদক এ কে এম মোহসীন ও শহীদুল ইসলাম পিপলু ভাষা শহীদের প্রতি ফুলের শ্রদ্ধাঞ্জলি জানিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করেন। আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি শহীদদের স্মরণে কবিতা আবৃতি, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে বলে বাংলাদেশি কমিউনিটি নেতারা জানিয়েছেন।


অস্ট্রেলিয়ায় মাতৃভাষা দিবস পালন
অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। স্থানীয় সময় রোববার সন্ধ্যায় সিডনির ইংগেলবার্ন কমিউনিটি হলে ‘বাঙালি কমিউনিটি ইনক্’ এর উদ্যোগে দিবসটি পালন করা হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স ও ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান অধ্যাপক লুৎফর রহমান ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করেন। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন সিডনি ম্যাককুয়ারি ফিল্ড আসন থেকে নির্বাচিত এমপি অনুলাক চান্টিভং। শুরুতেই লিভারপুল সাটারডে কমিউনিটি বাংলা স্কুলের শিক্ষার্থীর দল দেশি পোশাকে সুসজ্জিত হয়ে পুঁথিপাঠ, কবিতা আবৃতি, নাচ ও গান পরিবেশন করে। এরপর শিশু-কিশোরদের ‘কিশলয় কচিকাঁচার সাংস্কৃতিক দল’ বাংলাদেশ ও বাংলা ভাষাভিত্তিক ছড়া, নাচ ও গান পরিবেশন করে। এই পর্বের শেষ দিকে বিষয়ভিত্তিক বিবেচনায় বাংলাদেশ নিয়ে ছবি আঁকা,বাংলা ভাষা চর্চা, যন্ত্র-সঙ্গীত ও একক সঙ্গীত বিষয়ে শিশু-কিশোরদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

 

দক্ষিণ সুদানে দুর্ভিক্ষের ঘোষণা

করতোয়া ডেস্ক: দক্ষিণ সুদানে দুর্ভিক্ষ চলছে বলে ঘোষণা দিয়েছে জাতিসংঘ। ছয় বছর পর প্রথম পৃথিবীর কোথাও দুর্ভিক্ষ চলছে বলে ঘোষণা দিল জাতিসংঘ। সুদানের সরকার এবং জাতিসংঘের প্রতিবেদন অনুযায়ী প্রায় ১ লাখ মানুষ এখন দক্ষিণ সুদানে খাদ্য সংকটে ভুগছে। আরো প্রায় ১০ লাখ মানুষ দুর্ভিক্ষের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। দীর্ঘদিন গৃহযুদ্ধের ফলেই সুদানে এই দুর্ভিক্ষের কারণ।

 যুদ্ধের কারণে সুদানের মতো ইয়েমেন, সোমালিয়া এবং উত্তর-পূর্ব নাইজেরিয়াতেও দুর্ভিক্ষের আলামত দেখা দিচ্ছে। তবে সুদানেই তা প্রথম ঘোষণা করা হলো। গত সপ্তায় জাতিসংঘের ফুড প্রোগ্রাম থেকে জানিয়েছে, মধ্যপ্রাচ্যে ও আফ্রিকা অঞ্চলে যুদ্ধ পরিস্থিতির কারণে আগামী ছয় মাসের মধ্যে ২ কোটি মানুষ দুর্ভিক্ষে আক্রান্ত হতে পারে।

সমুদ্রের নিচে ছুটবে ভারতের প্রথম বুলেট ট্রেন

করতোয়া ডেস্ক: ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্বপ্ন এবার সফল হওয়ার পথে। মুম্বাই থেকে আহমেদাবাদের মধ্যে দেশের প্রথম বুলেট ট্রেন ছুটবে সমুদ্রের নিচ দিয়ে। তার জন্য ৭ কিলোমিটার দীর্ঘ টানেল তৈরি হবে। ইতিমধ্যে মাটি পরীক্ষার জন্য খোঁড়াখুঁড়ির কাজ শুরু হয়েছে। পিটিআইয়ের বরাত দিয়ে  জানায়, দেশের মধ্যে প্রথমবার সমুদ্রের নিচ দিয়ে ট্রেনে চড়ার অভিজ্ঞতা পেতে চলেছেন যাত্রীরা।

 দুটি মেট্রো সিটিকে জুড়বে এই বুলেট ট্রেন, থানের কাছে এই ট্রেনের সর্বোচ্চ গতিবেগ হবে প্রতি ঘন্টায় ৩৫০ কিলোমিটার। এখন ওই দুই শহরের মধ্যে যাতায়াতের জন্য ৭ ঘন্টা সময় লাগে। প্রস্তাবিত বুলেট ট্রেন চালু হয়ে গেলে ওই দূরত্ব অতিক্রম করতে দু’ঘন্টার বেশি সময় লাগবে না।


রেল মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সমুদ্রপৃষ্ঠের ৭০ মিটার গভীরে টানেল তৈরির জন্য মাটি ও পাথর পরীক্ষা করা হচ্ছে। এর পাশাপাশি থানে থেকে ভিরারের মধ্যে আরও ২১ কিলোমিটার দীর্ঘ টানেল তৈরি হচ্ছে। মোট ৫০৮ কিলোমিটার দীর্ঘ বুলেট ট্রেনের যাত্রাপথের জন্য মাটির উপরে নয়, বরং সমুদ্রের নিচের পথই পছন্দ রেল কর্মকর্তাদের। কারণ, সেক্ষেত্রে জমি অধিগ্রহণের সমস্যা থাকবে না। এই প্রকল্পের জন্য মোট ৯৭ হাজার ৬৩৬ কোটি টাকা খরচ হবে। যার মধ্যে ৮১ শতাংশ টাকা জাপানের কাছ থেকে ঋণ মিলেছে।

নির্বাচনে হস্তক্ষেপ না করতে রাশিয়াকে ফ্রান্সের সতর্ক বার্তা

করতোয়া ডেস্ক: নির্বাচনে হস্তক্ষেপ না করতে রাশিয়াকে সতর্ক বার্তা পাঠিয়েছে ফ্রান্স। যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের কথা উল্লেখ করে ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জিন মার্ক আয়রোল্ট এ সতর্ক বার্তা দেন। ফ্রান্সের নির্বাচনে রাশিয়াসহ অন্য কোনো দেশের হস্তক্ষেপ মেনে নেবে না ফ্রান্স মার্ক তার এই বক্তব্যে রাশিয়াকে নির্বাচনে হস্তক্ষেপ না করতে সতর্ক বার্তা পাঠান।

মার্ক জাতিসংঘের পার্লামেন্টে জানান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ নিয়ে তীব্র সমালোচনার পর ফ্রান্সের নির্বাচন নিয়ে যাতে এমন কোনো সমালোচনা না হয় সেই বিষয়ে জরুরি পদক্ষেপ নিতে হবে। ফ্রান্সের নির্বাচন সম্মানের সঙ্গে সম্পন্ন হওয়ার আশায় এই বক্তব্য প্রদান করেন তিনি।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রাসোয়া ওঁলাদ তার প্রশাসনিক বক্তব্যে আগামী নির্বাচনের প্রচারণায় নিরাপত্তা বাহিনীদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার করার নির্দেশনা দিয়েছেন। আগামী ২৩ এপ্রিল প্রথম দফা ও ৭ মে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

চীনের হুমকির জবাবে দক্ষিণ চীন সাগরে মার্কিনী টহল

করতোয়া ডেস্ক: বিতর্কিত দক্ষিণ চীন সাগরে আবারো ‘রুটিন টহল’ শুরু করেছে মার্কিন বিমান বাহিনী। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ওয়াশিংটনকে চীনের বিষয়ে কোন রকম হস্তক্ষেপ করা নিয়ে হুমকি দেয়ার পরপরই মার্কিন এয়ারক্রাফট নিয়মিত টহল শুরু করে।

দক্ষিণ চীন সাগর এলাকা চীন নিজের বলে দাবি করে আসলেও কয়েক বছর ধরে এখানে বিভিন্ন দেশ কৃত্রিক কৃত্রিম দ্বীপ ও এয়ারস্ট্রিপ নির্মাণ চলছে। মালয়েশিয়ার নৌ ও বিমান বাহিনী এতে ১৬ টি যাত্রাপথ নির্মাণ করে। যা ৩৫ বছর ধরে মার্কিন নৌ-বাহিনীকে সহায়তা দিয়ে আসছে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করার পর মার্কিন প্রশাসন জানায়, চীনকে কোনভাবেই দক্ষিণ চীন সাগর এলাকা হস্তগত করতে দেওয়া হবে না। তা যে কোন মূল্যে প্রতিরোধ করা হবে। বুধবার চীনের পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র গেং সুয়েং বলেন, ‘চীনের সার্বভৌমত্ব এবং নিরাপত্তার বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কোন পদক্ষেপ নিতে পারবে না।’ চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই মন্তব্যের পরপরই নতুন প্রশাসন চীন সাগরে ‘রুটিন টহল’ শুরু করে।

মাতাল নারীর সম্মতিতে সেক্স ধর্ষণের সামীল

করতোয়া ডেস্ক: মাতাল অবস্থায় কোন নারী যদি সেক্সে সম্মতিও দিয়ে থাকেন, আইনের চোখে তা কখনোই বৈধ বলে বিবেচিত হবে না। শনিবার এক গণধর্ষণ মামলার শুনানি চলাকালীন তা স্পষ্ট করে দিল ভারতের মুম্বাই হাইকোর্ট। ভারতের পুনের এক যুবতীকে গণধর্ষণের মামলায় অভিযুক্তদের জামিন নিয়ে শুনানি চলাকালীন বিচারপতি ‘সম্মতি’র অর্থ ব্যাখ্যা করেন।

 পুনের ওই নিগৃহীতা অভিযোগ করেন, দুই বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে তারই এক সহকর্মী তাকে গণধর্ষণ করে। ঘটনার রাতে বন্ধুর ফ্ল্যাটে নিয়ে যাওয়ার আগে, তাকে ওই সহকর্মী চার পেগ মদও খাইয়েছিল। হাইকোর্ট জানায়, কোনও নারী মত্ত অবস্থায় যৌন সম্পর্কে নিয়ে সচেতন ভাবে কোনও সম্মতি দেওয়ার অবস্থায় থাকেন না। এমন অবস্থায় তিনি যদি সেক্সে সম্মতিও দেন, আইনের চোখে তার কোনও বৈধতা নেই। অপরাধ হিসবেই তা বিবেচিত হবে। ধর্ষণের অজুহাত হিসেবে ওই সম্মতিকে ঢাল করা যাবে না।

ট্রাম্পের গাড়িবহরে ঢিল নিক্ষেপ!

করতোয়া ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের গাড়িবহর লক্ষ্য করে ঢিল নিক্ষেপ করা হয়েছে। দেশটির ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে শুক্রবার এ ঘটনা ঘটেছে বলে মার্কিন প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তায় নিয়োজিত বিশেষ বাহিনী সিক্রেট সার্ভিসের মুখপাত্র জানিয়েছেন।

 এ নিয়ে তদন্ত করছে তারা। মার্কিন গণমাধ্যম জানায়, পাম বিচ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে মারা লাগো অবকাশ যাপন কেন্দ্রে যাওয়ার পথে ট্রাম্পের গাড়িবহর লক্ষ্য একটি অজ্ঞাত বস্তু ছোঁড়া হয়। বস্তুটি পাথর হতে পারে বলে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সফরসঙ্গী সাংবাদিকদের বরাত দিয়ে এক খবরে জানান।

খবরে আরো বলা হয়, বস্তুটি কী সে বিষয় নিশ্চিত হতে চায় সিক্রেট সার্ভিস। ঘটনার পর ওই স্থান থেকে পাম বিচ পুলিশের অপরাধ বিভাগ দুটি বস্তু সংগ্রহ করেছে এবং তা নিয়ে গেছে।কয়েক সপ্তাহ ধরে ট্রাম্প পাম বিচে রয়েছেন এবং আমেরিকা সফরকারী জাপানি প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবের সঙ্গে সেখানেই বৈঠক করেন তিনি।

বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন লৌহমানবী শর্মিলা চানু

করতোয়া ডেস্ক: লৌহমানবী’ খ্যাত ভারতের মণিপুর রাজ্যের মানবাধিকার কর্মী ইরম শর্মিলা চানু বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছেন। সামনের মাস মার্চে রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের পরই তিনি বিয়ে করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বিয়ের বিষয়টি হুট করে প্রকাশ করলেন না তিনি; সব প্রস্তুতি নিয়েই সাংবাদিকদের জানালেন। ঠিক করা আছে পাত্রও। ডেসমন্ড কৌটিনহো; তার দীর্ঘদিনের সহকর্মী।

 অনশনের সময় শর্মিলার পাশেই ছিলেন এই ব্যক্তি। এএফএসপিএ (১৯৫৮) আইন প্রত্যাহারের দাবিতে ২০০০ সালের ৪ নভেম্বর আমরণ অনশনে বসেছিলেন শর্মিলা চানু। ১৬ বছর পর গতবছর অর্থাৎ ২০১৬ সালের ৯ অগাস্ট অনশন প্রত্যাহার করেন তিনি। বর্তমানে শর্মিলার ব্যস্ততা নির্বাচন নিয়ে, রাজধানী ইম্ফলের হাসপাতাল থেকেই নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। দিন কাটছে তার ইম্ফল হাসপাতালে সিকিউরিটি ওয়ার্ডে।

ট্রাম্পে বিরক্ত আরও ১০ উপদেষ্টার পদত্যাগ

ডোনাল্ড ট্রাম্পের নীতিতে অসন্তুষ্ট হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের এশিয়ান-আমেরিকান ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ বিষয়ক উপদেষ্টা পরিষদের আরও ১০ সদস্য পদত্যাগ করেছেন। বারাক ওবামার আমলে নিয়োগ পাওয়া এ উপদেষ্টারা বৃহস্পতিবার এক চিঠিতে নতুন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে তাদের পদ ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন।

পদত্যাগকারীদের মধ্যে পরিষদের চেয়ার টাং টি নিগুয়েন ও ভাইস চেয়ার মেরি ওকাদা ছাড়াও আছেন মাইকেল বিউন, ক্যাথি কো চিন, জ্যাকব ফিটিজিমানো, ডেফনি কোয়াক, ডি জে মেইলার, মলিক পাঞ্চলি, লিন্ডা ফেন, সনজিতা প্রধান।

পদত্যাগের কারণ হিসেবে তারা গত মাসের শেষদিকে অভিবাসন ও শরণার্থীদের নিয়ে ট্রাম্পের দেওয়া নির্বাহী আদেশ এবং ওবামার আমলে নেওয়া স্বাস্থ্যসেবা বাতিলকে কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। জানুয়ারির ১৩ তারিখে নতুন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে পরিষদের সদস্যরা বসতে চেয়ে চিঠি দিলেও তিনি কোনো সাড়া দেননি বলেও পদত্যাগপত্রে জানানো হয়। স্বাস্থ্যসেবা ও অভিবাসী নিয়ে ট্রাম্পের দুই আদেশ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের এশিয়ান-আমেরিকান ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ বিষয়ক পররাষ্ট্র নীতির লঙ্ঘন বলেও দাবি করেন তারা। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের এ বিষয়ক উপদেষ্টা পরিষদের ২০ সদস্যের ১৬ জনই দায়িত্ব ছেড়ে দিলেন। বারাক ওবামার এশিয়ান-আমেরিকান ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ বিষয়ক উপদেষ্টা পরিষদ, যার ১৬ জনই পদত্যাগ করেছেন।

বারাক ওবামার এশিয়ান-আমেরিকান ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ বিষয়ক উপদেষ্টা পরিষদ, যার ১৬ জনই পদত্যাগ করেছেন। ছবি-বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।
পরিষদের সদস্য বাংলাদেশি-আমেরিকান ড. নীনা আহমেদসহ ৬ জন এর আগে ট্রাম্পের শপথের দিন ২০ জানুয়ারি পদত্যাগ করেছিলেন। বাকি চারজনের মেয়াদ থাকছে চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের আমলে ১৯৯৯ সালে প্রথম এ এশিয়ান-আমেরিকান ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ বিষয়ক উপদেষ্টা পরিষদ গঠিত হয়। এর পরের প্রেসিডেন্টরা দায়িত্ব নিয়ে তাদের পছন্দের উপদেষ্টাদের দিয়ে পরিষদটি পুনর্গঠন করেন। বারাক ওবামা তার দ্বিতীয় মেয়াদে নীনা আহমেদকে উপদেষ্টা মনোনীত করেছিলেন। নীনাই ছিলেন ওবামা প্রশাসনে সর্বোচ্চ পদমর্যাদার বাংলাদেশি-আমেরিকান। ‘খানিক বিলম্বে’ সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ায় ১০ পদত্যাগকারীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ফিলাডেলফিয়া সিটির ডেপুটি মেয়র নীনা। উপদেষ্টা পরিষদে থাকার সময়ই তিনি এ পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন। নীনা শুক্রবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ট্রাম্প বিজয়ী হওয়ার পরপরই তিনি প্রেসিডেন্টের এশিয়ান-আমেরিকান ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ বিষয়ক উপদেষ্টা পরিষদের ভবিষ্যৎ নিয়ে সন্দিহান হয়ে পড়েন। নির্বাচনী প্রচার সমাবেশ ও টিভি বিতর্কে ট্রাম্পের অভিবাসনবিরোধী ও মুসলিমবিদ্বেষী বক্তব্য আমাকে হতবাক করেছিল। তার প্রতিটি বক্তব্য ছিল যুক্তরাষ্ট্রের নীতি, আদর্শ ও মূল্যবোধের পরিপন্থি। এ জন্য নতুন প্রেসিডেন্টের শপথের দিনই আমিসহ ৬ জন পদত্যাগ করি। সর্বশেষ পদত্যাগকারী ১০ জনও ট্রাম্পের গণবিরোধী অভিবাসন নীতিতে ‘অতিষ্ঠ’ হয়ে পদ ছেড়েছেন বলে মন্তব্য করেন নীনা।

 

যুক্তরাষ্ট্রের হুমকির কাছে মাথা নত নয় ইউরোপকে ইইউ

করতোয়া ডেস্ক: নেটোতে প্রতিরক্ষা ব্যয় না বাড়লে এ জোটে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন কমিয়ে দেওয়ার হুমকির কাছে মাথা নত না করার ব্যাপারে ইউরোপকে সতর্ক করেছেন ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জেন-ক্লদে জাঙ্কার। যুক্তরাষ্ট্র নেটো সদস্যদের সামরিক ব্যয় বরাদ্দ বাড়ানোর যে দাবি তুলেছে তার কাছে ইউরোপের কোনওভাবেই মাথা নত করা ঠিক হবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।

 নিরাপত্তা কেবল সামরিক বিষয়ই নয়, উন্নয়ন এবং মানবিক ত্রাণও এর আওতাভুক্ত বলে উল্লেখ করেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নেটো কে ‘সেকেলে’ বলে মন্তব্য করেছেন এবং এ প্রতিরক্ষা জোটে ইউরোপীয় দেশগুলো সামরিক ব্যয় না বাড়ালে তাদের জন্য নিরাপত্তা সুরক্ষা কমানোর হুমকি দিয়েছেন। নেটোতে যুক্তরাষ্ট্রই ৭০ শতাংশ তহবিলের যোগান দেয়। মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস বুধবার নেটো মিত্রদেশগুলোকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা সুরক্ষা ঠিকমত পেতে হলে তাদেরকে সামরিক ব্যয় বাড়াতে হবে। এরই প্রতিক্রিয়ায় মিউনিখের নিরাপত্তা সম্মেলনে ইইউ এর ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জাঙ্কার বলেন, “বহু বহু বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্র এ বার্তাই দিয়ে আসছে। আমি এ চাপের কাছে আমাদের মাথা নত করার ঘোর বিরোধী।”

ট্রাম্পের ১০ এশীয়-আমেরিকান উপদেষ্টার পদত্যাগ

করতোয়া ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এশীয় আমেরিকান ১০ উপদেষ্টা পদত্যাগ করেছেন। তারা এশিয়া-আমেরিকা এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় বিষয়ক উপদেষ্টা হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন। বারাক ওবামা প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন ওই উপদেষ্টাদের নিয়োগ দেয়া হয়েছিল।

তাদের মেয়াদ চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত থাকলেও নতুন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিভিন্ন বিতর্কিত নীতি এবং বিভিন্ন কাজের কারণেই তারা পদত্যাগ করেছেন। ট্রাম্প শপথ গ্রহণের সময়ই পদত্যাগ করেন ২০ সদস্য বিশিষ্ট এই কমিশনের ৬ সদস্য। এ পর্যন্ত পদত্যাগ করেছেন ১৬ জন সদস্য। পদত্যাগপত্রে ওই উপদেষ্টারা আলাদা আলাদাভাবে তাদের পদত্যাগের কারণ জানিয়েছেন।

যে ফটোশ্যুট করে সমালোচিত রাশিয়ান মডেল

করতোয়া ডেস্ক: রাশিয়ার মডেল ভিক্টোরিয়া ওদিনস্তোভা। সম্প্রতি দুবাইয়ের বেশ উঁচু একটি ভবন থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় ফটোশ্যুট করেন তিনি। একটু এদিক সেদিক হলেই মরতে হতো ভিক্টোরিয়াকে। মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে করা সেই ফটোশ্যুটের ছবি নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে আপলোড করেছেন ভিক্টোরিয়া ওদিনস্তোভা। ২২ বছর বয়সী ওই মডেল সেখানে লিখেছেন, প্রতি বার ছবিটা দেখে আমার হাতের তালু ঘেমে যাচ্ছে।

  ছবিগুলো দেখলে যে কারো হাত-পা ঠান্ডা হয়ে যেতে পারে। এমন ছবির জন্য ভিক্টোরিয়া পোজ দিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইকের আশায়। আর এতেই অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। সেন্ট পিটার্সবার্গের মডেলকে উদ্দেশ্যে করে একজন লিখেছেন, এটা বোঝা যাচ্ছে ঈশ্বর আপনাকে শুধু রূপ দিয়েছেন, কিন্তু মগজে কিছুই দেননি।

ট্রুডোর প্রেমে পড়েছেন ইভাঙ্কা ট্রাম্প!

 

করতোয়া ডেস্ক: বর্তমান বিশ্বের সুদর্শন রাষ্ট্রনায়কদের একজন জাস্টিন ট্রুডো। কানাডার তরুণতম প্রধানমন্ত্রীদের একজন তিনি। রাজনীতি বোঝেন না এমন ব্যক্তিও ট্রুডোতে মুগ্ধ হতে বাধ্য। ভীষণ বিনয়ী ও ভদ্র এ মানুষটি রাজনীতির চেয়ে ব্যক্তিগত জীবনদর্শনের কারণে বিশ্ববাসীর মন জয় করে নিয়েছেন। নিন্দুকেরা বলে থাকেন, ট্রুডোর নারী ভক্তের সংখ্যা নাকি একটু বেশিই। এবার সেই তালিকায় যোগ হলো বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর ব্যক্তির কন্যাও। নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বড় মেয়ে ইভাঙ্কার কথাই বলা হচ্ছে।

 ট্রুডোর প্রতি তার এই মুগ্ধতা নিয়ে আমেরিকা তো বটেই, বিশ্বজুড়ে হইচই পড়ে গেছে। অনেকে ইভাঙ্কার স্বামী জারেড কুশনারের কপাল পুড়েছে বলে গুঞ্জন শুরু করেছেন। সম্প্রতি নারী উদ্যোক্তাদের ক্ষমতায়ন নিয়ে আলোচনায় অংশ নিতে ট্রুডো হোয়াইট হাউজে অতিথি হয়ে আসেন। সেখানে বক্তৃতা দেন তিনি। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইভাঙ্কাও। ট্রুডো মঞ্চে হাজির হতেই দাঁড়িয়ে অভিবাদন জানান ইভাঙ্কা। ট্রুডো বক্তব্য রাখার সময় তার দিকে অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে ছিলেন তিনি। বেচারা ট্রুডো বক্তব্যে এমনটাই নিবিষ্ট ছিলেন যে পাশের নারী ভক্তটির দিকে একবার তাকিয়েও দেখেননি। তাই তার প্রতিক্রিয়াও বন্দী করতে পারেননি ক্যামেরাম্যানরা। কিন্তু ইভাঙ্কার এ মুগ্ধতা নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়ে গেছে।

ফের বিতর্কে ট্রাম্প কন্যা ইভাঙ্কা

করতোয়া ডেস্ক : কেন বাবার চেয়ারে বসেছেন তিনি, এ নিয়েই ফের বিতর্কের কেন্দ্রে ডোনাল্ড ট্রাম্প কন্যা ইভাঙ্কা ট্রাম্প। গতকালই ট্রাম্পের ওভাল অফিসে বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করেন ইভাঙ্কা। যে ছবিতে দেখা যায়, প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসে আছেন তিনি। ছবিটি পোস্ট করে ইভাঙ্কা লেখেন, ‘দুই রাষ্ট্র নায়কের সঙ্গে  খুবই ভাল আলোচনা হল।

দু’জনেই টেবিলের মধ্যমণি মহিলার উপস্থিতির বিষয়টি স্বীকার করেছেন। আর সেই ছবি নিয়েই সমালোচনার ঝড় ওঠে সোস্যাল নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইটে। ইনস্টাগ্রামে ছবিটি পোস্ট করার পরেই দেখা যায়, ছবি নিয়ে নানা জনের নানা মত রয়েছে। একদল ডোনাল্ড ও ইভাঙ্কা ট্রাম্পকে এ নিয়ে ধন্যবাদ জানান। ছবিটি আকর্ষণীয় বলেও মনে করেন তারা। অন্যদিকে, আরেকদলের মত, ইভাঙ্কা এমন চেয়ারের পিছনে বসার ক্ষমতা এখনো অর্জন করেননি। তাই তার এসব ছবি দেয়ার মানে হয় না। আমেরিকা ও কানাডার মহিলা সচিবদের সঙ্গে চলা বৈঠকে জাস্টিন ট্রুডোর পরের চেয়ারেই বসেছিলেন ইভাঙ্কা ট্রাম্প।  

মঙ্গলে শহর গড়ার ঘোষণা আরব আমিরাতের

 

করতোয়া ডেস্ক : মঙ্গলগ্রহে প্রথম শহর গড়ে তোলার লক্ষ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাত নতুন একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। বিশেষ আন্তর্জাতিক সংস্থা ও বৈজ্ঞানিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে ২১১৭ সালের মধ্যে ওই শহর গড়ে তোলা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে মধ্যপ্রাচের এই দেশ। সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট শেইখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুম ‘মঙ্গল ২১১৭ প্রকল্প’র ঘোষণা দিয়েছেন।

 পঞ্চম ওয়ার্ল্ড গভর্নমেন্ট সামিটে শেইখ মোহাম্মদ বলেছেন, অন্যান্য গ্রহে অবতরণে মানুষের স্বপ্ন দীর্ঘদিনের। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে, আন্তর্জাতিক এ স্বপ্ন বাস্তবায়ন করা। আমিরাতের এই পদক্ষেপের বিষয়ে এক টুইট বার্তায় তিনি বলেছেন, বিজ্ঞান এবং মানব প্রযুক্তি এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য তারা কাজ করছেন।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ে হাভার্ডসহ ১৭ বিশ্ববিদ্যালয়

করতোয়া ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ে নেমেছে দেশটির হাভার্ড, ইয়েল, স্ট্যানফোর্ডসহ মোট ১৭টি বিশ্ববিদ্যালয়। সোমবার নিউ ইয়র্কের ফেডারেল কোর্টে এ বিষয়ে অভিযোগ দাখিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো।
 
গত ২৭ জানুয়ারি ইরান, ইরাক, লিবিয়া, সোমালিয়া, সুদান, সিরিয়া ও ইয়েমেনের ওপর যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণ তিন মাসের জন্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে নির্বাহী আদেশ দেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো বলেছে, এ নিষেধাজ্ঞার কারণে বিশ্বজুড়ে আগামী দিনের যোগ্য নেতা তৈরির যে লক্ষ্য তাদের রয়েছে তা ব্যাহত হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তভাবে আসা-যাওয়ার ক্ষেত্রে বিধিনিষেধের ফলে শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবারের মধ্যে বিভক্তি সৃষ্টি হয়েছে। আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন সবচেয়ে মেধাবীদের বের করে আনার ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সক্ষমতা তাও নষ্ট হচ্ছে।  

বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিযোগে বলা হয়, ৬২ জন নোবেল পুরস্কারপ্রাপ্ত, সায়েন্স, ইঞ্জিনিয়ারিং, আর্টসের ৮১৩ জন ন্যাশনাল একাডেমির সদস্যসহ ৪২ হাজারের বেশি পন্ডিত ব্যক্তি যুক্তরাষ্ট্রের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে তাদের মত দিয়েছেন।

এক রকেটে ১০৪ উপগ্রহ পাঠিয়ে ভারতের রেকর্ড

করতোয়া ডেস্ক : একটি রকেট উৎক্ষেপণ করে সফলভাবে ১০৪টি কৃত্রিম উপগ্রহ মহাশূন্যে পাঠিয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেছে ভারত।  বুধবার অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটা মহাশূন্য কেন্দ্র থেকে রকেটটি উৎক্ষেপণ করা হয় বলে এনডিটিভির খবর।
এই উৎক্ষেপণের মাধ্যমে রাশিয়াকে পেছনে ফেলল ভারত। এর আগে ২০১৪ সালে একসঙ্গে ৩৭টি উপগ্রহ পাঠিয়েছিল রাশিয়া। ইন্ডিয়ান স্পেস রিসার্চ অর্গানাইজেশন (আইএসআরও) জানিয়েছে, ২৮ ঘণ্টা আগে এই উৎক্ষেপণের কাউন্টডাউন শুরু হয়েছিল। বুধবার সকাল ৯টা ২৮ মিনিটে রেকর্ড সংখ্যক উপগ্রহ নিয়ে রকেটটি অভিকর্ষের বাধা অতিক্রম করে মহাশূন্যের দিকে যাত্রা করে। প্রায় ১৮ মিনিট সময় নিয়ে রকেটটি নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে উপগ্রহগুলো কক্ষপথে ছেড়ে দেয়। উপগ্রহগুলো এখন ঘণ্টায় ২৭ হাজার কিলোমিটার বেগে পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করছে। এই ১০৪টি উপগ্রহের মধ্যে মাত্র তিনটি ভারতের, বাকি ১০১টির মধ্যে ৯৬টি যুক্তরাষ্ট্রের। অন্যগুলো ইসরায়েল, কাজাখস্তান, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সুইজারল্যান্ড ও নেদারল্যান্ডসের। পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ভারত যে মাল্টি-বিলিয়ন ডলারের স্পেস মার্কেটের বড় খেলোয়াড় হয়ে উঠেছে, এই উৎক্ষেপণ তারই প্রমাণ। উপগ্রহগুলোর মধ্যে ভারতের একটি কার্টোগ্রাফিক উপগ্রহ রয়েছে, যাতে উচ্চ রেজ্যুলেশনের ছবি তোলার ব্যবস্থা আছে। এই উপগ্রহের মাধ্যমে ভারত আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান ও চীনের ওপর নজরদারি করার সুযোগ নিতে পারে বলেও বিশ্লেষকদের ধারণা। বিবিসি লিখেছে, ভারত এই সফল্যের ফলে স্পেস মার্কেটের আন্তর্জাতিক পক্ষগুলোর মধ্যে স্বল্প খরচে মহাশূন্যে উপগ্রহ পাঠানোর প্রতিযোগিতায় এক ধাপ এগিয়ে গেল। গত দুই দশক ধরে মহাশূন্য বাজারের লাভজনক বাণিজ্যে ভারত এখন নির্ভরশীল বিকল্প হয়ে উঠেছে। চলতি বছর মহাশূন্য কর্মসূচিতে বাজেট বৃদ্ধি করেছে ভারত সরকার। আগামীতে শুক্র গ্রহেও একটি অভিযানের পরিকল্পনা রয়েছে দেশটির।

কাশ্মিরে গোলাগুলিতে ভারতীয় মেজরসহ নিহত ৪


কাশ্মিরের উত্তরাঞ্চলীয় হ্যান্ডওয়ারা শহরে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে গোলাগুলিতে তিন সন্দেহভাজন বিচ্ছিন্নতাবাদী নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবারের এ ঘটনায় ভারতীয় সেনাবাহিনীর আহত এক মেজর কয়েক ঘন্টা পর মারা গেছেন, জানিয়েছে এনডিটিভি।

ওই এলাকায় বিচ্ছিন্নতাবাদীরা অবস্থান করছে গোয়েন্দা সূত্রে এমন খবর পায় পুলিশ। এ খবরের ভিত্তিতে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী ওই এলাকাটি ঘিরে ফেলে তল্লাশি অভিযান শুরু করে। এরই এক পর্যায়ে নিরাপত্তা বাহিনীকে লক্ষ্য করে ব্যাপক গুলিবর্ষণ শুরু করে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা।

এ সময় সেনাবাহিনীর ওই কর্মকর্তা গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন। হেলিকপ্টারে করে তাকে শ্রীনগরের সামরিক হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে দুপক্ষের তুমুল লড়াইয়ে তিন বিচ্ছিন্নতাবাদী গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন। তাদের অবস্থান থেকে একে-৪৭ রাইফেলসহ অন্যান্য অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

১২ ঘন্টারও কম সময়ের মধ্যে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর দ্বিতীয় গোলাগুলির ঘটনা এটি।

এর আগে একই দিন সকালে নিকটবর্তী বান্দিপোড়া জেলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক বিচ্ছিন্নতাবাদী নিহত হন। লড়াই ভারতীয় সেনাবাহিনীর তিন সৈন্যও নিহত হন।

এখানে আহত ১৫ জন নিরাপত্তা সদস্যকে হেলিকপ্টারে করে শ্রীনগরের সামরিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এদের কারো কারো অবস্থা সঙ্কটজনক বলে জানানো হয়েছে।  

প্রায় ২৫ বছর ধরে কাশ্মিরের উত্তরাঞ্চলজুড়ে চলা বিদ্রোহ দমন করার চেষ্টা করছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। গত বছর ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে কাশ্মিরের জনপ্রিয় বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা বুরহান ওয়ানি নিহত হওয়ার পর উপত্যকাটিজুড়ে প্রবল ভারত বিরোধী প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়ে।

তারপর থেকে নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর বিদ্রোহীদের হামলার মাত্রাও বেড়ে গেছে। বিপরীতে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দমনেও একের পর এক অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে ভারতীয় বাহিনী।

রোববার এ ধরনের অপর একটি অভিযান চলাকালে দুপক্ষের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে চার সন্দেহভাজন বিচ্ছিন্নতাবাদী, দুই ভারতীয় সেনা ও বেসামরিকসহ সাতজন নিহত হন।        

এই পরিস্থিতির মধ্যেই সোমবার কাশ্মিরের সাম্ভা এলাকার রামগড় সেক্টরের সীমান্তে ২০ মিটার দীর্ঘ এক সুড়ঙ্গের খোঁজ পেয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী- বিএসএফ।   বিএসএফের প্রশিক্ষণের সময় অসমাপ্ত ওই সুড়ঙ্গের সন্ধান মেলে।

পাকিস্তান থেকে শুরু হওয়া ওই সুড়ঙ্গ ব্যবহার করে ‘সন্ত্রাসীরা’ভারতে ঢোকার পরিকল্পনা করছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

মূখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে নয়, শশীকলার জায়গা হচ্ছে জেলখানায়

করতোয়া ডেস্ক: তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার সব সম্ভবনা শেষ হয়ে গেল ভি কে শশিকলার। দুর্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত করে তাকে চার বছরের কারাদন্ড দিয়েছেন ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। সেইসঙ্গে শশিকলাকে ১০ কোটি টাকা অর্থদন্ডও করা হয়েছে। ফলে আগামী দশ বছর কোনো নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন না তিনি। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় সুপ্রিম কোর্টের দুই বিচারক এ মামলায় পৃথক রায় দেন।

 তবে, দু’জনই তাকে ৪ বছরের কারাদন্ডের আদেশ দেন। শশিকলাকে চেন্নাই পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। জয়ললিতার মৃত্যুর পর রাজ্যের ক্ষমতাসীন এআইএডিএমকে দলের নেতাকর্মীরা সর্বসম্মতভাবে শশিকলাকে মুখ্যমন্ত্রী পদের জন্য নির্বাচিত করেন। প্রায় ২০ বছর আগে জয়ললিতার সঙ্গেই তার ছায়াসঙ্গী শশিকলার নামও একের পর এক দুর্নীতির মামলায় জড়াতে শুরু করে। জয়ললিতা চারটি মামলা থেকে শেষ পর্যন্ত অব্যাহতি পান। কিন্তু ৬৬.৬৫ কোটি টাকার আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন মামলা থেকে মুক্তি পাননি। সেই মামলায় শশিকলাও জড়িত।

ওয়াশিংটনে শরণার্থী ইস্যুতে ট্রাম্প-ট্রুডো উল্টো অবস্থান

করতোয়া ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে হোয়াইট হাউসের ওভাল অফিসে দেখা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিবেশি ও বন্ধু দেশ কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। বৈঠকের পর  যৌথ সংবাদ সম্মেলনে সীমান্ত নিরাপত্তা, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য, শিল্প উৎপাদন, অর্থনৈতিক সহযোগিতা’র ক্ষেত্রে দুই নেতা দ্বি-পাক্ষিক সহযোগিতার কথা জানান। তবে শরণার্থী ইস্যুতে পাল্টা অবস্থান নেন তারা।

 বৈঠকের পর যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ট্রুডো বলেন, শরণার্থীদের আশ্রয় দেওয়া কানাডার সাফল্য, কানাডায় আশ্রয় নেয়া শরণার্থীরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাদের সফলতা প্রমাণ করেছে। আমরা যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের মানুষদের স্বাগত জানাই। তিনি আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্র-কানাডা বন্ধু হিসেবে যুদ্ধসহ সব ইস্যুতেই একে অপরের পাশে থেকেছে। কোন ইস্যুতে দ্বিমত হলেও দুই দেশই একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।

 ভবিষ্যতেও এই নীতি অক্ষুন্ন থাকবে। যুক্তরাষ্ট্র শরণার্থী গ্রহণ করবে কি করবে না এটি তাদের নিজস্ব বিষয়। আমি এই ইস্যু নিয়ে কথা বলতে আসি নি। এটি কানাডার দায়িত্বও নয়। কানাডা তাদের মনোভাব সারা বিশ্বে তুলে ধরাসহ এবং ইতিবাচক ইস্যু নিয়ে কাজ করে। অন্যদিকে ট্রাম্প বলেন, আমি একটি সুন্দর ও বৃহত্তর পরিসরে বিশ্বাসী। যুক্তরাষ্ট্রকে যারা ভালবাসে তাদের জন্য দরজা সব সময়ই খোলা।

 তাবে খারাপ লোক ও যারা যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষতি করতে চায়, তাদেরকে কোনোমতেই প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। শরণার্থী ইস্যুতে এঞ্জেলা মার্কেলের পর সহানুভূতিশীল হিসেবে ট্রুডোর নাম রয়েছে। তবে ওয়াশিংটন সফরে কূটনৈতিক শিষ্টাচারিতা অক্ষুন্ন রেখে ট্রাম্পের শরণার্থী নীতি নিয়ে কোন প্রকার মন্তব্য করা হতে বিরত থেকেছেন তিনি।

অবশেষে অস্ট্রিয়ায় হিটলার আটক!


করতোয়া ডেস্ক: অবশেষে জন্মভূমি অস্ট্রিয়া থেকেই আটক হলেন এ্যাডলফ হিটলার। তবে এই হিটলার আসল হিটলার নয়। নকল হিটলার। আটককৃত এ নকল হিটলার আসল হিটলারের নাৎসি আমলকে গৌরবান্বিত করার চেষ্টায় লিপ্ত ছিলেন।

 এমন অভিযোগ এনে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ২৫ বছর বয়সী আটককৃত ওই যুবকের চুলকাটার ভঙ্গি থেকে শুরু করে পোশাক, এমনকি গোফও একেবারে অবিকল হিটলারের মতো। সম্প্রতি এ যুবককে অস্ট্রিয়ার ব্রুনো আম ইনে শহরের একটি বাড়ির সামনে অবিকল হিটলারের ভঙ্গিমায় দাঁড়িয়ে ছবি তুলতে দেখা যায়। যে বাড়িটিতে স্বয়ং এ্যাডলফ হিটলার জন্মগ্রহণ করেছিলেন।

নগ্নতায় ফিরছে প্লেবয়

করতোয়া ডেস্ক: প্লেবয় ম্যাগাজিন ঘোষণা দিয়েছে যে, তারা গত বছরের একটি সিদ্ধান্ত বাতিল করে আবারো নগ্ন নারীদের ছবি প্রকাশ শুরু করবে। প্লেবয়ের নতুন চিফ ক্রিয়েটিভ কর্মকর্তা কুপার হেফনার বলেছেন, ”নগ্নতা পরিত্যাগ করার ওই সিদ্ধান্ত ছিল পুরোপুরি একটি ভুল।” ”আজ আমরা আমাদের পুরনো পরিচয়ে ফিরে যাচ্ছি এবং সবাইকে জানাতে যাচ্ছি আমরা কারা”, বলছেন পত্রিকার মালিক হেফনার। মার্কিন এই সাময়িকীটি তাদের মার্চ এপ্রিলের সংখ্যার একটি বিজ্ঞাপনে তাদের বিশেষ একটি ছবি ব্যবহার করেছে, যেখানে হ্যাশট্যাগে বলা হয়েছে যে ‘ন্যাকেড ইজ নরমাল’ বা নগ্নতা স্বাভাবিক।

গ্রিনহাউস ঠেকাতে ‘গাছ ভবন’ বানাচ্ছে চীন

 

করতোয়া ডেস্ক: নিজ দেশে দূষণ ঠেকাতে এগিয়ে এসেছে চীন। গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমন ঠেকাতেই ওই দেশের দুটো ভবনের মধ্যে রোপণ করা হবে হাজারো গাছ। আগামী বছরে এর নির্মাণকাজ শেষ হবে। চীনের পূর্ব উপকূলবর্তী শহর নানজিংয়ে নির্মিত হতে যাচ্ছে দুটি ভবন, যেখানে ভবনের প্রতি ধাপে রোপণ করা হবে সবুজ গাছ। এক একটি ভবনে থাকবে ১১ হাজার সবুজ গাছ।

 আর এতে করে সেখানে বসবাসকারী মানুষের প্রয়োজনীয় অক্সিজেন চাহিদা মিটবে বলে আশা করছে দেশটি। ‘নানজিং গ্রিন টাওয়ার’ নামের ওই ভবনগুলোর নকশা করেছেন বিখ্যাত স্থপতি স্টেফানো বোইরি। তিনি বলেন, ভবন দুটো হবে পুরোপুরি সবুজ। নানজিং গ্রিন টাওয়ারের দুটোর মধ্যে একটি ভবনের উচ্চতা ৬০০ ফিট। অপর, অর্থাৎ দ্বিতীয়টির উচ্চতা ৩৫৫ ফিট।

 ভবনের ছাদে থাকবে মিউজিয়াম ও ব্যক্তিগত ক্লাবও। ১ হাজার ১০০ গাছের মধ্যে ৬০০টি বড় লম্বা ধরনের আর ৫০০টি মধ্যম আকারের গাছ থাকবে। এগুলোর পাশাপাশি থাকবে আড়াই হাজার ছোট গাছও। এ গাছগুলো থেকে দৈনিক ৬০০ কেজি অক্সিজেন সরবরাহ হবে বলে আশা করছেন উদ্যোক্তারা। এ ছাড়া বছরে ২৫ টন কার্বন ডাই-অক্সাইড শোষণ করবে গাছগুলো।

ভ্যালেন্টাইনস ডে তে যুগলে ধরা পড়লেই বিয়ে!

করতোয়া ডেস্ক: সারা বিশ্ব মেতেছে ভ্যালেনটাইনস ডে সেলিব্রেশনে। বাধা কাটিয়ে, ভয় ঘুচিয়ে আজ প্রেম উদযাপন করার দিন। কিন্তু ভয়ে ভয়েই থাকবেন ওড়িশার প্রেমিক প্রেমিকারা। কেননা তাদের উপর জোর হুমকি, প্রেম করছে দেখতে পেলেই ধরে বিয়ে দিয়ে দেয়া হবে। ভ্যালেনটাইনস ডে যদিও স্রেফ কিশোর প্রেমিক প্রেমিকাদের জন্য নয়, চিরন্তন ভালোবাসাকে উদযাপনের দিনও।

 কিন্তু হরেদরে পুরো দিনটা যেন তরুণ যুগলদের জন্যই তুলে রাখা থাকে। এদিকে হিন্দুত্ববাদী বজরঙ্গ দলের আবার এসব একেবারেই না-পছন্দ। কেননা, তারা মনে করে, ভ্যালেনটাইনস ডে ভারতীয় সভ্যতা ও সংস্কৃতির পরিপন্থী। তাছাড়া ভ্যালেনটাইনস ডে উদযাপনের নামে অল্পবয়সি প্রেমিক প্রেমিকারা নানারকম ‘কুকর্ম’ করে থাকে বলেও তাদের অভিযোগ। আর তাই ভ্যালেনটাইনস ডে উদযাপনে একেবারে দাঁড়ি টানতে চেয়েছে তারা। প্রতিবছরই ভ্যালেনটাইনস ডের প্রাক্কালে এই ইস্যুতে সরব হয় দলটি। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। যুগলদের হুমকি দিয়ে জানানো হয়েছে, প্রেম করছে এই অবস্থায় হাতেনাতে ধরতে পারলে, যুগলের মা-বাবার সামনেই তাদের বিয়ে দিয়ে দেয়া হবে। পার্ক থেকে শপিং মল রেহাই নেই কোথাও।