দুপুর ২:৪৯, মঙ্গলবার, ২৩শে মে, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তাজাতিক

যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টারে একটি ইনডোর স্টেডিয়ামে মার্কিন পপ তারকা আরিয়ানা গ্রান্ডের কনসার্টে বিস্ফোরণে অন্তত ১৯ জন নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক।

বিবিসি জানিয়েছে, স্থানীয় সময় রাত ১০টা ৩৫ মিনিটে কনসার্ট শেষ হওয়ার পরপরই বিস্ফোরণের ওই ঘটনাকে সন্ত্রাসী হামলা বলে মনে করছে যুক্তরাজ্যের পুলিশ।  

আর যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছেন, এ ঘটনার পেছনে দুজন আত্মঘাতী হামলাকারী রয়েছে বলে তাদের সন্দেহ। সন্ত্রাসী হামলার সন্দেহ সত্যি প্রমাণিত হলে ম্যানচেস্টারের এ ঘটনা হবে ২০০৫ সালে লন্ডনে চার আত্মঘাতী হামলায় ৫২ জন নিহত হওয়ার পর সবচেয়ে বড় ধরনের হামলার ঘটনা।

যুক্তরাজ্যের নির্বাচনের আড়াই সপ্তাহ আগে বিস্ফোরণের এই ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে।

ভোটের প্রচার স্থগিত রেখে জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলায় গঠিত কোবরা কমিটির বৈঠক ডেকেছেন তিনি। লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিনও টুইট করে হতাহতের ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন।

বিবিসি জানিয়েছে, ম্যানচেস্টার অ্যারেনায় আরিয়ানা গ্রান্ডের পরিবেশনা শেষে দর্শক-শ্রোতারা যখন বের হতে শুরু করেছেন, তখনই প্রবেশপথে বিস্ফোরণের ওই ঘটনা ঘটে।

কনসার্ট দেখতে আসা দর্শকদের মধ্যে অনেক শিশুও ছিল। বিস্ফোরণের পর সেখানে আতঙ্কে ছুটোছুটি শুরু হয়ে যায়। অ্যান্ডি হোলি নামে একজন জানান, তিনি কনসার্ট শেষে স্ত্রী আর মেয়েকে নেওয়ার জন্য অ্যারেনার বাইরে অপেক্ষা করছিলেন। এসময় হঠাৎ বিস্ফোরণের ধাক্কায় তিনি প্রায় ৩০ ফুট দূরে ছিটকে পড়নে।

“উঠে দাঁড়িয়ে দেখি, অনেকে মেঝেতে পড়ে আছে। তখন আমার প্রথম চিন্তা ছিল যেভাবে হোক ভেতরে ঢুকে আমার পরিবারের সদস্যদের খুঁজে বের করতে হবে।

“কিন্তু ভেতরে তাদের খুঁজে না পেয়ে বাইরে এসে পুলিশ আর দমকল কর্মীদের সঙ্গে মিলে হতাহতদের মধ্যে আমার স্ত্রী আর মেয়েকে খুঁজতে শুরু করি। শেষ পর্যন্ত আমি তাদের অক্ষত অবস্থাতেই খুঁজে পাই।”

এমা জনসন নামের আরেকজন জানান, ১৫ ও ১৭ বছর বয়সী দুই মেয়েকে কনসার্ট শেষে নিতে অ্যারেনায় এসেছিলেন তিনি ও তার স্বামী। বিবিসি রেডিও ম্যানচেস্টারকে তিনি বলেন, প্রবেশ পথের হলঘরটিতে ওই বিস্ফোরণ ঘটে এবং সেটি বোমা ছিল বলেই তার দৃঢ় বিশ্বাস।

“আমরা সিঁড়ির মাথায় দাঁড়িয়েছিলাম। হঠাৎ কাঁচগুলো বিস্ফোরিত হল।… পুরো ভবন কেঁপে উঠল। বিস্ফোরণের শব্দ পেলাম, তারপর এল আগুনের হল্কা। অনেক মানুষ পড়েছিল আশপাশে।”

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে। ওই স্টেডিয়ামের কাছে ভিক্টোরিয়া স্টেশন থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

ঘটনাস্থলে আহতদের চিকিৎসা দিয়েছেন এমন স্বেচ্ছাসেবীদের সঙ্গে কথা বলে বিবিসির একজন প্রতিবেদক জানিয়েছেন, আহতদের ক্ষত ‘বোমার শার্পনেলের আঘাতের মতো’।

ট্রাম্পের বক্তব্যে ভরসা পাচ্ছে না মুসলিমরা

করতোয়া ডেস্ক: সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে অনুষ্ঠিত আরব ইসলামিক আমেরিকান সম্মেলনে মুসলিম নেতাদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দিলেন যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট, তিনিই কি ট্রাম্প; যিনি তার নির্বাচনী প্রচারণায় অবলীলায় প্রচার করেছিলেন মুসলিমবিদ্বেষী নীতি। আর প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর প্রথম নির্বাহী আদেশেই তিনিই কি-না ৮টি মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।

 এমন সব আলোচনায়ই এখন মশগুল মধ্যপ্রাচ্য, উপসাগরীয় এবং অন্যান্য মুসলিম দেশগুলোর মানুষেরা। ট্রাম্প মুসলিম নেতাদের উদ্দেশ্যে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যে ঐক্যবদ্ধ অবস্থানের কথা বলেছেন তা নিয়ে ইতোমধ্যেই সন্দিহান সারা পৃথিবীর অসংখ্য মুসলিম। কেউ কেউ বলছেন, ট্রাম্প তার স্বাভাবিকতার বাইরে এসে পুরনো গীতই গাইলেন।

 তাছাড়া মন্তব্য করে সে মন্তব্য পরবর্তী সময়ে অস্বীকারের স্বভাবটিও ট্রাম্পের মধ্যে প্রবল। তাহলে তার এ বিপরীত চিত্র হঠাৎ করে কেনই বা বিশ্বাসযোগ্য হয়ে উঠবে? তাকে ঘিরে মুসলিম বিশ্বের সাধারণ নাগরিক থেকে শুরু করে নেতৃত্বে থাকা ব্যক্তিদেরও আস্থার সংকট রয়েছে। তাই সৌদি সফরে গিয়ে স্বভাবে যায়না এমন একটি মধুর ভাষণ দিলেই যে সংকট মুছে যাবেনা তা বলাই বাহুল্য।


কারো মতে, ট্রাম্প সবাইকে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার ঘোষণা দিয়ে নিজে কেটে পড়ার ফন্দি করছে। বক্তব্যে সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধ পরিচালনার কথা বলে ট্রাম্প এও বলেছেন, ‘শুধু যুক্তরাষ্ট্রের ওপর ভরসা করলে চলবে না।’ বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ট্রাম্প মুসলিম দেশগুলোকে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানালেও মধ্যপ্রাচ্যকে আবারও শিয়া-সুন্নিতে বিভক্ত করার পায়তারা করেছেন। আইএস দমনের কথা বললেও ইরানকে নিয়েই তিনি বেশি চিন্তিত। তাই ট্রাম্পে ভরসা করতে আরও সময় প্রয়োজন বলে মনে করছেন তারা।

যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত কিমের নতুন মিসাইল ‘পুকগুকসং-২’

করতোয়া ডেস্ক: মাত্র দুই সপ্তাহের ব্যবধানে পরপর দুটি মিসাইল উৎক্ষেপণ করেছে উত্তর কোরিয়া। উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন জানিয়েছেন, তার দেশের এই মিসাইল পরীক্ষা নিখুঁতভাবে সফল হয়েছে। সেই সঙ্গে এই মিসাইলের প্রশংসা করে তিনি জানান, এই ক্ষেপণাস্ত্রকে সম্ভাব্য যুদ্ধে ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। উত্তর কোরিয়ার সংবাদমাধ্যম ‘কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি’ গতকাল জানিয়েছে, রবিবার পুকগুকসং-২ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার বিষয়টি কিম জং উন নিজেই পর্যবেক্ষণ করেছেন। এই মিসাইল পরীক্ষার সাফল্যে তিনি গভীরভাবে সন্তুষ্ট।

 পাশাপাশি এ ক্ষেপণাস্ত্রকে তিনি যুদ্ধে মোতায়েনের জন্য অনুমতিও দিয়েছেন। কেসিএনএ আরও জানিয়েছে, পুকগুকসং ক্ষেপণাস্ত্রের বিশ্বাসযোগ্যতা, নিখুঁতভাবে আঘাত হানার ক্ষমতা এবং লেট-স্টেজ ওয়ারহেড গাইডেন্স সিস্টেমকে পূর্ণাঙ্গভাবে যাচাই করা হয়েছে। এ ক্ষেপণাস্ত্রে ‘সলিড ফুয়েল’ ব্যবহার করা হয়েছে যার ফলে তাৎক্ষণিকভাবে একে নিক্ষেপ করা সম্ভব হবে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে পুকগুকসং ক্ষেপণাস্ত্রের প্রথম পরীক্ষা চালানো হয়। রবিবার চলেছে এর দ্বিতীয়দফা পরীক্ষা।

পোশাকের জন্যে সৌদিতে প্রশংসিত মেলানিয়া

করতোয়া ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ফার্স্ট লেডি হিসেবে প্রথম মধ্যপ্রাচ্য সফরে গিয়েছেন মেলানিয়া ট্রাম্প। বিদেশি নেতা ও কূটনীতিকদের সঙ্গে কাজের বাহিরে মেলানিয়ার পোশাক নজর কেড়েছে সবার। খবর আরব নিউজের।ওয়াশিংটন ডিসি থেকে রওনা হওয়ার সময় সাদা ফুলহাতা গেঞ্জি ও হাঁটুর নিচ পর্যন্ত উজ্জল কমলা রঙ্গের স্কার্ট পরেন তিনি। সানগ্লাসের সঙ্গে খোলা চুলে অসাধারণ লাগছিল তাকে। তবে রিয়াদের কিং খালিদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করার সময় প্রথা মেনে লম্বা কালো পোশাকে দেখা যায় তাকে।

 এই সময় তার পরনে ছিল কালো জাম্পস্যুট ও সোনালি বেল্ট। গহনা বলতে গলায় শেকলের মত আঁটসাট সোনার হার। তবে মেলানিয়ার ফ্যাশন ও স্টাইলে মজেছে সৌদি গণমাধ্যম। দেশটির গণমাধ্যমগুলোর শিরোণামে মেলানিয়ার পোশাককে ‘অভিজাত ও রক্ষণশীল’ বলে উল্লেখ করা হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, সুন্দর ও সম্মানিত পোশাকের জন্য মেলানিয়াতে অভিভূত হয়েছে সৌদিআরব। ৪৭ বছরের মেলানিয়ার ফ্যাশন সচেতনতা মুগ্ধ করেছে সৌদি আরবকে।

ভারতে স্কুলে বাধ্যতামূলক হচ্ছে ‘গীতা’

করতোয়া ডেস্ক: ভারতের প্রতিটি স্কুলেই ‘ভাগবদ গীতা’ পড়ানো বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। যে সমস্ত স্কুল ওই নিয়ম মানবে না, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানা গেছে। এমনকি সেক্ষেত্রে ওই স্কুলগুলির স্বীকৃতিও বাতিল হতে পারে। বিষয়টি নিয়ে সংসদের আগামী অধিবেশনেই আলোচনা করা হবে বলে খবর।
গত মার্চ মাসেই দেশটির সংসদে ‘কম্পলসারি টিচিং অফ ভাগবদ গীতা অ্যাজ এ মোরাল এডুকেশন ইন্সিটিউশন বিল, ২০১৬’ পেশ করা হয়। যেখানে বলা হয় নৈতিক শিক্ষা প্রদানের অংশ হিসেবেই প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাঠ্যসূচিতে যেন এটি পড়ানো হয়। তবে গীতা পড়ানোর ওই নিয়ম থেকে বাদ রাখা হচ্ছে সংখ্যালঘু স্কুলগুলিকে। তাদের ক্ষেত্রে আপাতত এ বিষয়ে কোন কিছুই বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে না। 

উগ্রবাদ দমনে আন্তর্জাতিক কেন্দ্র উদ্বোধন করলেন ট্রাম্প ও বাদশাহ সালমান

করতোয়া ডেস্ক: সৌদি বাদশাহ সালমান রবিবার মাকির্ন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপস্থিতিতে উগ্রবাদ দমনের জন্য একটি আর্ন্তজাতিক কেন্দ্র উদ্বোধন করেছেন।সৌদি আরবের উগ্রবাদ দমনের ধারাবাহিকতায় গতকাল এ কেন্দ্র উদ্বোধন করা হয়েছে। এই কেন্দ্রের উদ্দেশ্য হল উগ্রবাদী চিন্তা-চেতনা রোধ করা। এবং পারষ্পরিক সহমর্মিতা এবং ইতিবাচক সংলাপের সমর্থন করা।

 

 সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের জন্য সৌদি আরব নতুন একটি উদ্যোগ হাতে নিয়েছে এবং উগ্র মানসিকতা রোধে একাধিক কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেছে। উল্লেখ্য, সৌদি আরব ২০০৫ সালে সন্ত্রাসবাদ দমনের জন্য একটি আর্ন্তজাতিক সম্মেলনের আয়োজন করেছিলো। পাশাপাশি উগ্রচিন্তার শিকার পরিবারের পুর্নবাসনের জন্য একাধিক কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেছে।সৌদিতে তলোয়ার হাতে ট্রাম্পের নাচমার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণের পর প্রথম বিদেশ সফরে সৌদি আরবে সস্ত্রীক এসেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।


সফরে এসেই শনিবার সৌদি আরব ও আমেরিকার মধ্যে ১১ হাজার কোটি ডলারের অস্ত্রচুক্তিসহ দুই দেশ মধ্যে মোট ৩৫ হাজার কোটি ডলারের চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।  এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে সাদরে অভ্যর্থনা জানাতে সৌদি বাদশা আয়োজন করেন ঐতিহ্যবাহী নৃত্যের। সেখানে শুধু স্থানীয় কলাকূশলীরাই ছিলেন না, আমন্ত্রিত অতিথিরাও তলোয়ার হাতে সে নাচে অংশ নিলেন।

 

আরদাহ নামে তলোয়ারের এ নাচে সৌদি বাদশা সালমানের সঙ্গে যোগ দিলেন ট্রাম্প, মার্কিন বাণিজ্যমন্ত্রী রস উইলবার ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন। শুধুমাত্র হোয়াইট হাউজের স্ট্র্যাটেজিস্ট স্টিভ ব্যানন নাচে অংশ নেয়নি। ২০০৮ সালে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশও সৌদি আরব সফরে এসে এ নাচে অংশ নেন।

জার্মান নারী-আফগানরক্ষীসহ ২০ পুলিশকে হত্যা

করতোয়া ডেস্ক: আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলের একটি চেক পয়েন্টে ২০ পুলিশ সদস্যকে হত্যা করেছে তালেবান জঙ্গি গোষ্ঠী। এক প্রাদেশিক মুখপাত্র জানিয়েছেন, শনিবার জাবুল প্রদেশে জঙ্গিদের আকস্মিক হামলায় আরো কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। এদিকে, রাজধানী কাবুলের একটি গেস্ট হাউসে হামলা চালিয়ে এক জার্মান নারী এবং এক আফগানরক্ষীকে হত্যা করা হয়েছে।

 ওই রক্ষীকে শিরñেদ করে হত্যা করা হয়েছে। একটি সুইডিশ এনজিওর একটি গেস্ট হাউসে শনিবার স্থানীয় সময় রাত ১১টায় হামলা চালানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে আফগান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ওই গেস্ট হাউসের ফিনল্যান্ডের এক নারী নিখোঁজ রয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে তাকে অপহরণ করা হয়েছে। গত কয়েক বছরে আফগানিস্তানে বেশ কয়েকজন বিদেশি নাগরিককে অপহরণ করা হয়েছে। ওই এলাকায় তালেবানদের তৎপরতা দিন দিন বেড়েই যাচ্ছে। ২০০১ থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ১শ জন বিদেশি নাগরিককে অপহরণ করা হয়েছে।

শততম জন্মদিনে জোড়া কেক কাটলেন যমজ বোন !

করতোয়া ডেস্ক: মার্লিয়া পিগনাটোন পন্টিন ও পাওলিনা পিগনাটোন পান্ডলফি। ব্রাজিলের বাসিন্দা এই দুই যমজ বোন একসঙ্গে রেকর্ড গড়তে চলেছেন। তারাই বিশ্বের প্রথম যমজ, যারা ছুঁতে চলেছেন একশো বছরের মাইলস্টোন। আগামী ২৪মে তারিখ তাদের একশোতম জন্মদিন। কিন্তু ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে এই জোড়া জন্মদিনের সেলিব্রেশন।

আর তাই কখনও হাত ধরাধরি করে তো কখনও পাশাপাশি হাসি মুখে বসে ছবি তুলছেন দুই বোন। সেই ছবি পৌঁছে গিয়েছে সংবাদ মাধ্যমে।  জন্মদিনের উৎসবে দু’জনের পরনেই জড়ুয়া পোশাক। তবে একজনেরটা গোলাপি তো অন্যজন পরেছেন হালকা আকাশি পোশাক। শুধু জামাতেই নয়, সেই সঙ্গে ফুলের মুকুট, গলার হার সবই পারফেক্ট ম্যাচ। এইভাবে একসঙ্গে জন্মদিনের কেকও কাটবেন তারা।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ১১০ বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র চুক্তি সৌদির

প্রথম বিদেশ সফরে সৌদি আরবে গিয়ে দেশটির সঙ্গে ১১০ বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র সরবরাহ চুক্তি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শনিবারের এ অস্ত্র চুক্তি রিয়াদে ট্রাম্পের প্রথমদিনের সবচেয়ে বড় সাফল্য ছিল জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন জানিয়েছেন, অস্ত্র চুক্তি ও অন্যান্য বিনিয়োগ চুক্তি মিলিয়ে মোট চুক্তির আর্থিক মূল্য ৩৫০ বিলিয়ন ডলার পর্যন্ত দাঁড়াতে পারে। দেশে এফবিআই প্রধানকে বরখাস্ত করার পর ট্রাম্প যে রাজনৈতিক আগুন জ্বালিয়েছেন, তার থেকে মনোযোগ সরাতে শুক্রবার থেকে নয়দিনের মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপ সফরে বেরিয়েছেন তিনি।

নয়দিনের এ সফরে সৌদি আরব থেকে ইসরায়েল হয়ে ইতালি ও বেলজিয়াম যাওয়ার কথা রয়েছে ট্রাম্পের।

চুক্তি স্বাক্ষরের পর এক অনুষ্ঠানে ট্রাম্প দিনটিকে ‘অসাধারণ’ উল্লেখ করে বলেন, “যুক্তরাষ্ট্রে শত শত বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ হচ্ছে, আর চাকরি, চাকরি, চাকরি। তাই আমি সৌদি আরবের সব লোককে ধন্যবাদ দিচ্ছি।”

সফরে সৌদি আরবের বাদশা সালমান বিন আব্দুলআজিজ আল সৌদ ট্রাম্পকে লক্ষ্যণীয় উষ্ণ অভ্যর্থনা জানিয়েছেন। ট্রাম্পকে বহনকারী বিমান ‘এয়ার ফোর্স ওয়ান’ রিয়াদে নামার পর বিমানের সিড়িতে যেয়ে তাকে স্বাগত জানান, ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়ার সঙ্গে হাত মেলান এবং ট্রাম্পের লিমুজিনে চড়ে গন্তব্যে যান।

তারপর শনিবার প্রায় সারা দিন তিনি ট্রাম্পের সঙ্গেই ছিলেন।

ট্রাম্পের সঙ্গে বাদশা সালমানের বৈঠককে যুক্তরাষ্ট্র, সৌদি আরব ও পরাস্য উপসাগরীয় আরব দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্কের ‘একটি টার্নিং পয়েন্টের শুরু’ বলে অভিহিত করেছেন সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল জুবেইর।

ইরানকে প্রতিরোধ করার লক্ষ্যেই অস্ত্র চুক্তিটি করা হয়েছে বলে তিনি ও টিলারসন পরিষ্কার করে জানিয়েছেন। তারা একথা যে দিন জানান সেই দিনটিতেই হাসান রুহানি দ্বিতীয়বারের মতো ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে টিলারসন বলেন, দ্বিতীয় মেয়াদকে ইরানের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার ইতি ঘটানো ও অস্থিতিশীল এ অঞ্চলে উগ্রবাদকে সমর্থন দেওয়া বন্ধ করার কাজে ব্যবহার করা উচিত রুহানির।

ট্রাম্পের সৌদি সফর নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বিবিসি জানিয়েছে, সৌদি সফরের দ্বিতীয় দিন রোববার রিয়াদে আঞ্চলিক নেতাদের এক সম্মেলনে ভাষণ দিবেন ট্রাম্প।

ভাষণে তিনি ইসলামের উগ্রবাদ মোকাবিলা কেন জরুরি তা নিয়ে কথা বলবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের লড়াইয়ে সমর্থন বাড়ানোর উদ্যোগে ভাষণে তিনি ‘সহযোগিতামূলক ভাষায়’ কথা বলবেন বলে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

সিএনএন-র এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রে সাতটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করে ট্রাম্প প্রশাসন যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল, সেই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাটি যে ব্যক্তি লিখেছিলেন, সেই উপদেষ্টা স্টিফেন মিলারই ট্রাম্পের রোববারের ভাষণটি লিখেছেন, যার মূল বক্তব্য ইসলাম ধর্ম নিয়ে।

 

ট্রাম্পকে সৌদিতে লালগালিচা সংবর্ধনা

করতোয়া ডেস্ক: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম বিদেশ সফর উপলক্ষে সৌদি আরবের রিয়াদ বিমানবন্দরে ট্রাম্পকে লালগালিচা সংবর্ধনা জানিয়েছেন সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ। শনিবার বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ১৫ মিনিটে রাজধানী রিয়াদের বাদশা খালেদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ট্রাম্পকে লালগালিচা সংবর্ধনা জানানো হয়। এ সময় ট্রাম্পের সফরসঙ্গী হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ফাস্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্প ও কন্যা ইভানকা। সৌদি বাদশাহ সালমানের আমন্ত্রণে আরব, ইসলামিক, আমেরিকান সম্মেলনে যোগ দিতে ট্রাম্প সৌদি পৌঁছেছেন।

 রোববার অনুষ্ঠেয় এ সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্টসহ বিশ্বের ৫৪টি দেশের সরকারপ্রধান যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এ সম্মেলনে যোগ দিতে গতকাল সন্ধ্যায় ঢাকা ত্যাগ করছেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার বিদেশ সফরে প্রথম দেশ হিসেবে সৌদি আরবকে বেছে নেয়ার বিষয়টি সৌদি আরব ও যুক্তরাষ্ট্রের কৌশলগত মিত্র হিসাবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

এ দিকে সৌদি সংস্কৃতি ও তথ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, বাদশাহ সালমান ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মধ্যেকার বৈঠক দুটি দেশের রাজনৈতিক, বাণিজ্য ও নিরাপত্তা সম্পর্ককে আরো জোরদার করবে। ট্রাম্পের সৌদি আরব সফর দুটি দেশের মধ্যেকার চুক্তিগুলো বাস্তবায়নের মধ্যে দিয়ে উভয় দেশের অংশীদারিত্বের নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টি করবে।

রিয়াদে ট্রাম্প-নওয়াজ মুখোমুখি হচ্ছেন!

করতোয়া ডেস্ক: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আজ রবিবার রিয়াদে অনুষ্ঠিত ‘আরব ন্যাটো’ সম্মেলনে মুখোমুখি হচ্ছেন। এই সম্মেলনেই দুই রাষ্ট্রনেতা একটি একান্ত বৈঠক করবেন বলেও ধারণা করা হচ্ছে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ট্রাম্পের এই সাক্ষাৎকারের জন্য পাকিস্তান সরকারের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে সৌদি আরবের কাছে।

একটি আন্তর্জাতিক সংবাদসংস্থাকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে কূটনীতিবিদরা জানিয়েছেন, পাকিস্তানে বেড়ে ওঠা চরমপন্থা, সন্ত্রাসবাদ এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি নিয়েই ট্রাম্পের সঙ্গে আলোচনা করবেন নওয়াজ শরিফ। রবিবার এই বিশেষ সামিটে প্রায় ৫৪ জন নেতা একত্রিত হচ্ছেন। সৌদি আরবের বাদশা সুলেমান বিন আব্দুল আজিজ এই বিশেষ সামিটে ট্রাম্পকে উপস্থিত থাকার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।

উত্তর কোরিয়া হামলা চালালে মাত্র ১০ মিনিট সময় পাবেন ট্রাম্প!

করতোয়া ডেস্ক: কোরীয় উপদ্বীপ নিয়ে উদ্বিগ্নতা চলছে বেশ কিছুদিন ধরেই, এবার সেই উদ্বেগে নতুন করে মাত্রা যোগ করলেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের বিস্ফোরক মন্তব্যে উদ্বিগ্নতার পারদ আরও কয়েক ধাপ ওপরে ওঠল। বিশেষজ্ঞরা বলছেন পারমাণবিক হামলা হলে ডোনাল্ড ট্রাম্প করণীয় ঠিক করার জন্য মাত্র ১০ মিনিট সময় পাবেন। আর এ ১০ মিনিটেই কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার ওপর নির্ভর করবে যুক্তরাষ্ট্রের ভবিষ্যৎ।

 

 এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক গণমাধ্যম ইন্ডিপেনডেন্ট। উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উনের একটা ভয়ঙ্কর নির্দেশেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দিকে রওনা হতে পারে ভয়ঙ্কর সব পারমাণবিক অস্ত্রবাহী ক্ষেপণাস্ত্র। আর এসব ক্ষেপণাস্ত্র যদি ওয়াশিংটন ও নিউইয়র্কের মতো জনবহুল শহরের দিকে রওনা দেয় তাহলে শহরগুলোর বাসিন্দারা ৪০ মিনিটেরও কম সময় পাবেন সেখান থেকে পালাতে।  


আক্রমণ শুরু হলে দ্রুত ধ্বংস হয়ে যাবে পুরো যুক্তরাষ্ট্র। উত্তর কোরিয়ার মিসাইলের আঘাতে গুঁড়িয়ে যাবে ওয়াশিংটন, নিউ ইয়র্ক ও সানফ্রানসিসকোর মতো বড় শহরগুলো। দেশটির নাগরিক সুরক্ষা বিষয়ক সাইটে পোস্ট করা একটি নথিতে হামলা থেকে বাঁচতে নাগরিকদের এসব উপায় বাতলে দেয়া হচ্ছে। এতে বলা হয়েছে, যদি তারা আক্রান্ত হয় তাহলে আশপাশের শক্তিশালী ভবন অথবা ভূগর্ভস্থ নিরাপদ স্থানে আত্মগোপনে যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।  কিছুদিন আগেই সাগরে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করে উত্তর কোরিয়া। গবেষকদের দাবি, এটাই নাকি ভয়ঙ্করতম মিসাইল।

 

 কোথায় কোথায় ওই মিসাইল পৌঁছতে পারে সে নিয়ে হিসেব-নিকেশ কষেছেন অনেকেই। উত্তর কোরিয়া যদি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে তবে তা জাপানের ওকিনাওয়ায় পৌঁছাতে পাড়ি দিতে হবে প্রায় এক হাজার ৬০০ কিলোমিটার পথ। এতে সময় লাগবে প্রায় ১০ মিনিট।  সম্প্রতি বিশেষজ্ঞরাও এ বিষয়টি স্বীকার করেছেন। তবে অনেক বিশেষজ্ঞ বলছেন, উত্তর কোরিয়ার দাবি অনুযায়ী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সরাসরি আঘাত হানার মতো ক্ষেপণাস্ত্র নেই। তবে কিমের পরমাণু হামলার সম্ভাবনায় চিন্তিত সমগ্র আন্তর্জাতিক মহল।

লিবিয়ায় বিমান ঘাঁটিতে হামলায় নিহত ১৪১

করতোয়া ডেস্ক: লিবিয়ায় বিমান ঘাঁটিতে বিদ্রোহীদের হামলায় ১৪১ জন  নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে বেশিরভাগই সেনা সদস্য। গত বৃহস্পতিবার লিবিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় বারাক আল-শাতি বিমান ঘাঁটিকে  লক্ষ্য করে থার্ড ফোর্স বিদ্রোহীরা হামলা চালালে এ ঘটনা ঘটে। ওই বিমান ঘাঁটিটি লিবিয়ার ন্যাশনাল আর্মি (এলএনএ) ব্যবহার করত।


এলএনএ এর মুখপাত্র আহমেদ আল-মেসমারি বলেন, সেনারা সামরিক প্যারেড শেষে ফেরার সময় তাদের উপর হামলা করা হয়। নিহতের মধ্যে ১০৩ জন সেনা সদস্য এবং বাকিরা বিমানঘাঁটিতে বেসামরিক পদে কাজ করতেন।

সৌদি নাগরিকত্ব পেলেন ড. জাকির নায়েক

করতোয়া ডেস্ক: সৌদি নাগরিকত্ব পেয়েছেন পিস টিভির প্রতিষ্ঠাতা ভারতীয় নাগরিক ড. জাকির নায়েক (৫১)। ভারতে মানি লন্ডারিং এবং সন্ত্রাসবিরোধী আইনে অভিযুক্ত হওয়ার পর সৌদি নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করেছিলেন ড. জাকির নায়েক। সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল-সৌদ সে আবেদন মঞ্জুর করায় এখন আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোলের গ্রেফতার এড়াতে সক্ষম হবেন এ ধর্মপ্রচারক।

এর আগে গত এপ্রিলে ড. জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় দফায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে ভারতের আদালত। এ সময় তাকে ফেরাতে তৎপরতা শুরুর কথাও জানায় ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। তখন ভারতীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, বিচারিক কার্যক্রমে সহায়তার জন্য জাকির নায়েককে দেশে ফেরাতে সৌদি আরবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হবে।

লিবিয়ার এল-শাতি বিমানক্ষেত্রে হামলায় নিহত ১৪১

লিবিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় বরাক এল-শাতি বিমানক্ষেত্রে জাতিসংঘ স্বীকৃত ত্রিপলিভিত্তিক সরকারের অনুগত বেসামরিক বাহিনীর হামলায় প্রায় ১৪১ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে লিবিয়ার পূর্বাঞ্চলীয়ভিত্তিক সশস্ত্র বাহিনীর এক মুখপাত্র।

বৃহস্পতিবার ত্রিপলিভিত্তিক সরকার অনুগত বাহিনী এল-শাতি বিমানক্ষেত্রটির নিয়ন্ত্রণ নেয়ার চেষ্টা করলে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে বিবিসি। ত্রিপোলিভিত্তিক ঐক্যমতের সরকারের অনুগত পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর মিসরাতার ‘থার্ড ফোর্স’ নামে পরিচিত এক বাহিনীর একটি ব্রিগেড হামলাটি চালিয়েছে বলে জানা গেছে।

বার্ত সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুক্রবার সকালে বরাক আল শাতির মেয়র ও শহরটির চিকিৎসা সূত্রগুলো নিহতের সংখ্যা ৮৯ জন বলে জানিয়েছিল। তবে অনেক লাশ হাসপাতালে আনা হয়নি বলে জানিয়েছিলেন সেখানকার চিকিৎসা কর্মকর্তারা।

পরে লিবিয়ার পূর্বাঞ্চলভিত্তিক স্বঘোষিত লিবিয়ান ন্যাশনাল আর্মির (এলএনএ) মুখপাত্র আহমেদ আল মিসমারি জানিয়েছেন, প্রায় ১৪১ জন নিহত হয়েছে, তাদের মধ্যে ১০৩ জন এলএনএ-র সেনা। এদের অধিকাংশই বিমানক্ষেত্রটির দায়িত্বে থাকা ১২তম ব্রিগেডের সদস্য।

কিছু লাশ শুক্রবার উদ্ধার করা হয়েছে এবং নিহতদের মধ্যে বেসামরিক লোকজনও রয়েছে বলে জানিয়েছেন মিসমারি। তিনি বলেন, “সামরিক প্যারেড শেষে সেনারা ফিরে আসছিল। তারা সশস্ত্র ছিল না। তাদের অধিকাংশকেই হত্যা করা হয়েছে।”

এই হামলায় ঘটনায় জেনারেল খলিফা হাফতারের নিয়ন্ত্রণাধীন এলএনএ ও ত্রিপলিভিত্তিক প্রধানমন্ত্রী ফায়েজ আল সারাজির অনুগত বাহিনীর মধ্যে বিদ্যমান অনানুষ্ঠানিক অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘিত হয়েছে।

এই হামলার আদেশ তারা দেয়নি বলে দাবি করেছে প্রধানমন্ত্রী সারাজির দপ্তর। এ ঘটনায় ত্রিপলিভিত্তিক সরকার তাদের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ও হামলাকারী বেসামরিক বাহিনীর প্রধানকে ঘটনার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত বরখাস্ত করেছে। এ বিষয় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে ১৫ দিনের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে সরকার।

‘থার্ড ফোর্সের’ এক মুখপাত্র জানিয়েছে, তারা বিমানক্ষেত্রটি ‘মুক্ত’ করে ভেতরে থাকা সব বাহিনীকে ‘ধ্বংস’ করে দিয়েছে। আগুন লাগিয়ে কয়েকটি বিমান পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শহরটির মেয়র।

ত্রিপলিভিত্তিক ঐক্যমতের সরকারকে লিবিয়ার বৈধ সরকার হিসেবে মানে না এলএনএ। গত ডিসেম্বরে তারা ওই বিমানক্ষেত্রটির নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করেছিল। এর আগে বিমানক্ষেত্রটি ‘থার্ড ফোর্সের’ নিয়ন্ত্রণে ছিল।

সংক্ষিপ্ত বিচারে হত্যার খবরে ‘ক্ষুব্ধ’ হয়েছেন বলে জানিয়েছেন লিবিয়ার নিযুক্ত জাতিসংঘের রাষ্ট্রদূত মার্টিন কোবলার।

 

কোরিয় উপদ্বীপে যাচ্ছে আরও মার্কিন যুদ্ধজাহাজ

করতোয়া ডেস্ক: উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে তীব্র উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যেই কোরীয় উপদ্বীপের কাছে দ্বিতীয় বিমানবাহী রণতরী ইউএসএস রোনাল্ড রিগ্যানকে পাঠিয়েছে মার্কিন নৌবাহিনী। এদিকে, উত্তর কোরিয়া নতুন ধরণের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালানোর পরই এ ঘোষণা দেয়া হলো। পরমাণু শক্তি চালিত রিগ্যান মঙ্গলবার কোরিয় উপদ্বীপের দিকে রওনা হয়ে গেছে বলে মার্কিন নিউজ চ্যানেল সিএনএন জানিয়েছে।

জাপানের ঘাঁটিতে মোতায়েন এ রণতরীর রক্ষণাবেক্ষণ এবং সাগরে পরীক্ষামূলক চালানোর পর একে কোরীয় উপদ্বীপের দিকে পাঠানো হলো। জানা গেছে, কোরিয় উপদ্বীপের কাছে মোতায়েন মার্কিন বিমানবাহী রণতরী ইউএসএস কার্ল ভিনসনের সাথে যোগ দেবে। উল্লেখ্য, গত রবিবার উত্তর কোরিয়া মধ্যপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র বা আইআরবিএমের পরীক্ষা চালিয়েছে। অনেক বিশেষজ্ঞ ধারণা করছেন, এ পর্যন্ত পিয়ংইয়ং যে সব ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে তার মধ্যে এটিই সবচেয়ে উন্নত মানের।

বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা বিড়াল এটি!

করতোয়া ডেস্ক: সম্প্রতি ইন্টারনেটে ব্যাপক খ্যাতি পেয়েছে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে বাস করে বিড়ালটি। বিড়ালটির মনিবের নাম স্টেফি হার্সট। বিড়ালটি অনেকে বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা বিড়াল হিসেবে মনে করছেন। ২০১৩ সাল থেকে বিড়ালটি পুষছেন স্টেফি। তিনি যখন প্রথম একে বাড়িতে নিয়ে যান তখন অন্যান্য বাচ্চা বিড়ালের মতোই দেখতে ছিলো সে।

কিন্তু এরপর ক্রমে বড় হতে থাকে বিড়ালটি। বর্তমানে মেপে দেখা গেছে, তার দৈর্ঘ্য প্রায় ১২০ সেন্টিমিটার বা ৩ ফুট ১১ ইঞ্চি।  বিড়ালটির মালিক স্টেফি জানিয়েছেন, গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের লোকজন বিড়ালটির পরিমাপ পাঠানোর জন্য তাকে অনুরোধ করেছেন। এরপর তিনি বিড়ালটির মাপ পাঠিয়েছেন তাদের কাছে।

এবার কংগ্রেসে ট্রাম্পের পদচ্যুতি দাবি উঠল

করতোয়া ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর বহু বিতর্ক চলছে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নিয়ে। ট্রাম্পের জনপ্রিয়তা নিয়ে বেশ কয়েকটি জরিপও চালানো হয়েছে। জরিপগুলোতে তার অভিশংসন চেয়েছেন অর্ধেক মার্কিনী। সর্বশেষ দুইট জরিপেও তার অভিশংন দাবি করেছে মার্কিনীরা। ওয়াশিংটন পোস্ট/ওয়াল স্ট্রিটের জার্নালের জরিপে ৬৮ ভাগ মানুষ ও পাবলিক পলিসি পোলিং জরিপেও ৪১ ভাগ মার্কিনী ট্রাম্পের অভিশংসন চেয়েছেন।

 

গণতন্ত্রকে ভালোবাসে বলে নির্বাচিত হওয়ার ৫ মাস পরেও কোনো কংগ্রেসম্যান তার অভিশংসন চাননি। তবে এবার অঘটন ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে। প্রথমবারের মতো তার অভিশংসন দাবি করেছেন খোদ কংগ্রেসম্যান আল গ্রিন। টেক্সাসের কংগ্রেসম্যান আল গ্রিন ট্রাম্পের অভিসংশন দাবি করেছেন তাও আবার হাউসে দাঁড়িয়ে। হাউসে এ কংগ্রেসম্যান বলেন, আমি অবশ্যই ট্রাম্পের অভিশংসন চাই। ট্রাম্প কোমির উপর বল প্রয়োগ করেছিলেন জেনারেল মাইক ফ্লিনের বিষয়ে তদন্ত না করতে। রাশিয়ার কূটনৈতিকদের সঙ্গে যোগসাজসের অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হিসেবে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছিলেন।

 

ট্রাম্পের এই নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে কোমি নিউ ইয়র্ক টাইমসের একটি নিবন্ধে উল্লেখ করেছেন। ট্রাম্পকে প্রশ্ন করে টেক্সাসের আল গ্রিন বলেন, আমেরিকার মানুষ শুধু নির্বাচনের এক দিনই গণতন্ত্র চায় না। তারা দেশের সর্বত্র ও সবসময় গণতন্ত্র চায়। আমি আমেরিকা মানুষের প্রতিনিধি। আমি তাদের পক্ষে বলতে চাই। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আমরা আপনার অবস্থান জানতে চাই। আপনি কি চান তা আমরা জানতে চাই। হিলের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্রিন অভিযোগ করেছেন ট্রাম্প নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের বিষয়ে কোমিকে নাড়ানাড়া না করতে চাপ দেন।

ইন্দোনেশিয়ায় রংধনু গ্রাম

করতোয়া ডেস্ক: ইন্দোনেশিয়ায় খোঁজ মিলেছে রংধনু গ্রামের। বায়ুমন্ডলে জলকনায় সূর্যালোকের প্রতিফলন এবং প্রতিসরণের ফলে আকাশে যে ধনুক আকৃতির হরেক রং-এর সমাহার সৃষ্টি হয় তাকে রংধনু বলে। তবে এবার ইন্দোনেশিয়ায় খোঁজ মিলেছে এমন একটি গ্রামের যার পুরোটাই রংধনুর রং-এ রাঙ্গানো। বৃষ্টিতে তৈরি রংধনু কিছু সময় পর বাতাসে মিলিয়ে গেলেও এই গ্রামের রংধনু চিরস্থায়ী।

স্থায়ী রংধনুর সৌন্দর্য উপভোগ করতে ইন্দোনেশিয়ার একটি গোটা গ্রামকেই রাঙানো হয়েছে রংধনুর রঙে। কেমপাঙ পেলাঙ্গি নামের এ গ্রামের ২৩২টি বাড়ির বাইরে রংধনু আঁকা হয়েছে নানা রঙে। ফলে পুরো গ্রামটিকে একটু দূর থেকে দেখলে মনে হবে যেন দূর আকাশে অনেকখানি জায়গা জুড়ে রংধনু উঠেছে।

ইন্দোনেশিয়ার এই রংধনু গ্রামটি অল্প সময়ের মধ্যে পর্যটকদের কাছে আকর্ষণের বস্তুতে পরিণত হয়েছে। গ্রাম্য স্কুলের প্রধান শিক্ষকের পরিকল্পনা থেকেই এই রংধনু গ্রামের সূচনা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ায় পর্যটকদের আগমন বেড়ে যাওয়ার কারণে স্থানীয় গ্রামবাসীদের ব্যবসাও এখন আগের চেয়ে বেশ রমরমা হয়ে উঠেছে।

ফ্লিন-রাশিয়া সম্পর্ক নিয়ে ‘তদন্ত বন্ধ করতে বলেছিলেন ট্রাম্প’

করতোয়া ডেস্কঃ হোয়াইট হাউসের সাবেক জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিনের সঙ্গে রাশিয়ার যোগাযোগ নিয়ে এফবিআই-র তদন্ত বন্ধ করতে সংস্থাটির তৎকালীন প্রধান জেমস কোমিকে অনুরোধ করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কোমির লেখা একটি মেমো দেখেছেন, এমন এক সূত্র এ কথা জানিয়েছেন বলে নিউ ইয়র্ক গণমাধধ্যমে মঙ্গলবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এক সপ্তাহ আগে এফবিআই প্রধান কোমিকে বরখাস্ত করেছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তারপর থেকে বিভিন্ন ঘটনায় হোয়াইট হাউসজুড়ে আলোড়ন চলছিল। তারমধ্যে খবর প্রকাশ হল, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের সঙ্গে বৈঠককালে ইসলামিক স্টেট (আইএস) সম্পর্কে অত্যন্ত গোপন কিছু রাষ্ট্রীয় তথ্য প্রকাশ করে দিয়েছেন। এরপর ফ্লিন-রাশিয়া সম্পর্ক নিয়ে তদন্ত বন্ধ করতে অনুরোধ করার এই বিস্ফোরক খবরটি প্রকাশ পেল।

 কোমির এই চিরকুট যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে শঙ্কা ছড়িয়ে দিয়েছে এবং কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার তদন্তে ট্রাম্প হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করেছিলেন কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। হোয়াইট হাউস দ্রুততার সঙ্গে প্রকাশিত প্রতিবেদনটির অস্বীকার করেছে, এক বিবৃতিতে বলেছে, “প্রেসিডেন্ট ও কোমির মধ্যে যে কথোপকথন হয়েছে তার নির্ভুল ও সত্য ছবি প্রতিবেদনটিতে প্রকাশ পায়নি।গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত সের্গেল কিসলিয়াকের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন ফ্লিন। তখন ট্রাম্পের প্রচারণা শিবিরের অন্যতম শীর্ষ কর্মকর্তা ছিলেন তিনি।

থর মরুভূমিতে ভারতের গোপন যুদ্ধ-মহড়া

করতোয়া ডেস্কঃ পাকিস্তানের সঙ্গে উত্তেজনা তুঙ্গে থাকতেই মরুভূমিতে যুদ্ধের গোপন মহড়া শেষ করলো ভারত। রাজস্থানের থর মরুভূমিতে গত ১০ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া এই যুদ্ধ-মহড়া শেষ হয়েছে সোমবার। ভারতীয় সেনা সূত্রের বরাত দিয়ে দেশটির কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে এ খবর জানানো হয়েছে।

 

  এ ব্যাপারে ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র বলেন, ‘বর্তমানে যে লড়াইয়ের পরিবেশ রয়েছে, তার ভিত্তিতে এটা বলাই যায় যে ওই গোপন মহড়ায় আমাদের সেনারা চমৎকারভাবে পাশ করেছে। ’ জানা গেছে, ‘থর শক্তি’ নামে এই যুদ্ধ-মহড়ার দায়িত্বে ছিলো ভারতীয় সেনাবাহিনীর দণি-পশ্চিমাঞ্চলীয় কম্যান্ডের চেতক কোর।

 

সামরিক পরিভাষা এবং দায়িত্ব অনুসারে এই কোর ‘স্ট্রাইকিং কোর’ বা আক্রমণাত্মক যুদ্ধে পারদর্শী হিসেবে পরিচিত। ২০ হাজার সেনাকে নিয়ে এই মহড়ায় হাজির ছিলেন কোরের কম্যান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল অশ্বিনী কুমার। মহড়া হয়েছে ট্যাঙ্ক, গোলন্দাজ, পদাতিক বাহিনীসহ আকাশপথেও।

আফগানিস্তানে রাষ্ট্রীয় টিভি ও রেডিও স্টেশনে বন্দুকধারীর হামলা, নিহত ৩

করতোয়া ডেস্কঃ আফগানিস্তানে রাষ্ট্রীয় টিভি ও রেডিও স্টেশনে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহত হয়েছে ৩জন। হামলাকারীরা সুইসাইড ভেস্ট পরিহিত ছিল। পূর্বাঞ্চলীয় নানগাহার প্রদেশের রাজধানী জালালাবাদে টিভি ও রেডিও স্টেশনে ওই হামলা চালানো হয়। গতকাল বুধবার দেশের রেডিও টেলিভিশন আফগানিস্তান (আরটিএ) নামের সরকারি টিভি-রেডিও স্টেশনে হামলা চালানোর পর ওই স্টেশনের নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকধারীদের তীব্র গুলি বিনিময় হয়।

 পুলিশ জানিয়েছে, হামলাকারীদের মধ্যে দু’জন তাদের সঙ্গে থাকা বিস্ফোরকের বিস্ফোরণ ঘটায়। ওই সময় লোকজন এলাকা থেকে পালিয়ে যায়। হামলায় সাংবাদিকসহ ৬ জন আহত হয়েছে বলে জানা যায়। এখনো পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে আফগানিস্তানের তালেবান জঙ্গি গোষ্ঠী প্রায়ই এ ধরনের হামলা চালিয়ে থাকে।

ভেনেজুয়েলায় সরকারবিরোধী বিক্ষোভে নিহত ৪২

করতোয়া ডেস্কঃ ভেনেজুয়েলায় রাজধানী কারাকাসে সরকার বিরোধী বিক্ষোভে ১৭ বছর বয়সী এক কিশোর গুলিতে নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার দেশটির প্রসিকিউটররা একথা জানান। এই নিয়ে দেশটিতে ছয় সপ্তাহ ধরে চলমান এই আন্দোলনে ৪২ জন প্রাণ হারাল। আন্দোলনটি ২০১৪ সালের মতো ভয়াবহ ও রক্তক্ষয়ী হয়ে উঠেছে। ২০১৪ সালের ওই সরকার বিরোধী আন্দোলনে ৪৩ জন মারা যায়।

 আন্তর্জাতিক অঙ্গনে মাদুরোর অন্যতম কট্টর সমালোচক অর্গানাইজেশন অব আমেরিকান স্টেটস চিফ লুইস আলমারগো বলেন, ‘তারা মানুষকে হত্যা ও জনগণের ওপর নির্যাতন চালিয়ে যেতে পারে না। তাদের এ অধিকার নেই।’ জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে বুধবার ভেনেজুয়েলা সংকট নিয়ে আলোচনা হবে বলে জানান কূটনীতিকরা।  যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধে রুদ্ধদ্বার বৈঠকটি সকালবেলা অনুষ্ঠিত হবে। গত ১ এপ্রিল বিক্ষুব্ধ বিরোধীরা নিকোলাস মাদুরোর ক্ষমতা আরো বাড়ানোর প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে ভেনেজুয়েলার রাস্তায় নেমে আসে।

আফগানিস্তানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন স্টেশনে বন্দুকধারীদের হামলা

আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় শহর জালালাবাদে দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন স্টেশনে হামলা চালিয়েছে বন্দুকধারীরা। বুধবার এই হামলা চলাকালে বেশ কিছু বন্দুকধারী টেলিভিশন স্টেশনের ভবনটিতে প্রবেশ করেছে বলে জানিয়েছেন প্রদেশিক গভর্নরের মুখপাত্র আতাউল্লাহ খুঝিয়ানি।

তিনি বলেন, “তারা কারা, তাদের লক্ষ্যস্থল কী, এসব পরিষ্কার নয়।”

স্টেশনটির নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত বাহিনীর সঙ্গে বন্দুক লড়াইয়ের পর তারা ভবনটিতে প্রবেশ করে বলে জানিয়েছেন তিনি। দুই হামলাকারী আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটানোর পর অপর এক হামলাকারী নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে গোলাগুলি চালিয়ে যাচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আফগানিস্তান ন্যাশনাল ব্রডকাস্টারের (আরটিএ) ওই ভবনটির আশপাশ থেকে ব্যাপক গোলাগুলির শব্দ শোনা যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। ভবনটির অবস্থান প্রাদেশিক গভর্নরের কম্পাউন্ডের কাছেই।

জালালাবাদ আফগানিস্তানের নানগারহার প্রদেশের রাজধানী। পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী এই প্রদেশটিতে নিজেদের শক্ত অবস্থান প্রতিষ্ঠা করেছে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) । তবে প্রদেশটিতে তালেবানের অবস্থানও বেশ শক্তিশালী।

সম্প্রতি নানগারহারের আচিন জেলায় আইএসের পার্বত্য ঘাঁটিতে অপারমাণবিক সবচেয়ে বড় বোমা নিক্ষেপ করে যুক্তরাষ্ট্র। ওই হামলায় জঙ্গিগোষ্ঠীটির অন্তত ৯৪ সদস্য নিহত হয় বলে জানিয়েছে আফগান কর্তৃপক্ষ।

 

যেকোনো মুহূর্তে আবারও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাতে পারে উত্তর কোরিয়া

করতোয়া ডেস্ক: ফের মিসাইল পরীক্ষার হুঁশিয়ারি দিল পিয়ংইয়ং। যেকোনো স্থানে, যেকোনো সময়ে আবারও পরমাণুবোমা বহনে সক্ষম আধুনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা করতে পারে উত্তর কোরিয়া। আর কিমের নির্দেশেই এই হামলা হতে পারে বলে জানা গেছে।  ফলে, পিয়ংইয়ংয়ের হুঁশিয়ারি মোতাবেক নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা করছেন রাষ্ট্রনেতারা।

 নিজেদের সর্বশেষ মিসাইলের পরীক্ষা সম্পর্কে সোমবার উত্তর কোরিয়া জানায়, তারা নতুন ধরণের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের সক্ষমতা যাচাইয়ে এই পরীক্ষা চালান। তারা দেখতে চেয়েছে যে বড় ধরণের পারমাণবিক হামলায় ক্ষেপণাস্ত্রটি সক্ষম কিনা। এরপর চীনে নিয়োজিত উত্তর কোরীয় রাষ্ট্রদূত ঝি জোয়াও রিয়ংকে উদ্ধৃত করে কেসিএনএ জানায়, ধারাবাহিকভাবে আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাতে চায় উত্তর কোরিয়া। ঝি জোয়াও কেএনএসএ-কে জানিয়েছেন, ‘উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতৃত্ব চাইলে যেকোনো সময়, যেকোনও স্থানে আন্তমহাদেশীয় ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হবে। ‘

আমেরিকাই বিশ্বব্যাপী সাইবার হামলা চালিয়েছে : পুতিন

করতোয়া ডেস্ক: রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন বিশ্বের ১৫০টি দেশে সাম্প্রতিক সাইবার হামলার জন্য আমেরিকাকে দায়ী করেছেন। তিনি বলেছেন, এই হামলার সঙ্গে তার দেশের কোনো ধরনের সংশ্লিষ্টতা ছিল না। চীন সফররত পুতিন সোমবার বেইজিংয়ে সাংবাদিকদের বলেন, মাইক্রোসফটের ব্যবস্থাপনা বিভাগ অত্যন্ত স্পষ্ট করে জানিয়েছে, ভাইরাসটির উৎস হচ্ছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো।

 এর আগে মাইক্রোসফটের প্রেসিডেন্ট ব্র্যাড স্মিথ জানিয়েছেন, রোববারের সাইবার হামলার জন্য সিআইএ এবং এনএসএ’র মতো মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো দায়ী। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, হ্যাকাররা হামলার কাজে যে ভাইরাস ব্যবহার করেছে এ ধরনের সফটওয়্যারের কোড মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর কাছে রয়েছে।

এনএসএ দাবি করেছে, সাইবার হামলায় যে সফটওয়্যারটি ব্যবহার করা হয়েছে তা এই সংস্থার কাছ থেকে কেউ চুরি করে নিয়ে গেছে। ভøাদিমির পুতিন এ সম্পর্কে বেইজিংয়ে আরো বলেন, “এতবড় দৈত্য যখন একবার চেরাগ থেকে বেরিয়ে গেছে তখন এটি তার স্রষ্টা বা মালিকেরও ক্ষতি করতে পারবে।”

পাকিস্তানকে মেট্রো তৈরি করে দেবে চীন!

করতোয়া ডেস্ক: পাকিস্তানের সরবরাহ ব্যবস্থা আরও মসৃণ করতে কোমর বেঁধে নামল চীন। পাকিস্তানের জন্য মেট্রো তৈরির কাজ ইতিমধ্যেই শুরু করে দিয়েছে চীন। সোমবার মধ্য চীনের হুনান সীমান্তে এই মেট্রো তৈরির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। এই মেট্রোতে থাকবে পাঁচটি কামরা।

 

এটি ২৫.৫৮কিলোমিটার লম্বা লাহোর মেট্রোর জন্য তৈরি করা হচ্ছে। কর্পোরেশন ইঞ্জিনিয়ারের মতে, পাকিস্তানের উচ্চ তাপমাত্রার কথা মাথায় রেখে জ্বালানি বাঁচাতে, এই মেট্রো হবে সম্পূর্ণ শীততাপ নিয়ন্ত্রিত। এই মেট্রোতে পাকিস্তানের জাতীয় ফুল এবং বাদশাহী মসজিদের গম্বুজের আকার আঁকা থাকবে। আগামী জুলাইয়ে এগুলি পাকিস্তানের হাতে তুলে দেওয়া হবে। বাকি ২৬টি গাড়ি বছরের শেষে দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে।

নওয়াজ, ট্রাম্পের বৈঠক এ সপ্তাহেই

করতোয়া ডেস্ক: ৬ মাস ধরে অপেক্ষার অবসান হতে যাচ্ছে। এর মধ্যে ‘অসাধারণ ও অভূতপূর্ব’ টেলিকথপোকথন হয়েছে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে। কিন্তু মুখোমুখি সাক্ষাত হয়নি। সৌদি আরবে ইউএস-আরব ইসলামিক সামিটে দুই নেতার সাক্ষাত হবে এবার। আর ওই সামিটে প্রায় দুই ডজন মুসলিম দেশের শীর্ষ নেতারা যোগ দিচ্ছেন। সামিট শুরু হচ্ছে ২১ মে।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দফতর বলছে সামিটের এক ফাঁকে দুই নেতা দ্বিপাক্ষিক ইস্যু নিয়ে বৈঠকে বসবেন। আলোচনা হবে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ইস্যু নিয়েও। ভারতের সঙ্গে পাকিস্তানের উত্তেজনাকর সম্পর্ক ও আফগানিস্তানে ফের সন্ত্রাস মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার বিষয়টি বৈঠকে প্রাধান্য পেতে পারে।

আফগানিস্তানে মার্কিন নীতির পরিবর্তন ঘটতে পারে।এর আগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের সঙ্গে টেলিফোনে দেশটি সফরের ইচ্ছা ব্যক্ত করে বলেছেন, তিনি চমৎকার একটি দেশ, চমৎকার মানুষ ও চমৎকার একটি স্থান সফরে আসতে চান। ট্রাম্প বলেন, পাকিস্তানি নাগরিকদের জানিয়ে দিন, তারা অসাধারণ ও ব্যতিক্রমী। ইসলামাবাদ এ দুই নেতার টেলিকথপোকথন প্রকাশ করে।

ইয়েমেনে ছড়িয়ে পড়েছে কলেরা, নিহত শতাধিক

করতোয়া ডেস্ক: কলেরার প্রাদুর্ভাবে অনেক মানুষ মারা যাওয়ার পর ইয়েমেনের রাজধানী সানায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। হুতি বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রিত সানার হাসপাতালগুলো কলেরা রোগীতে উপচে উঠেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। রেডক্রস জানিয়েছে, গত এক সপ্তাহে দেশটিতে কলেরা রোগীর সংখ্যা তিনগুণ বৃদ্ধি পেয়ে আট হাজার ৫০০ ছাড়িয়ে গেছে।

গৃহযুদ্ধে জর্জরিত ইয়েমেনে তীব্র খাদ্যাভাব বা প্রায় দুর্ভিক্ষ চলছে, এতে ক্ষুধার্ত মানুষের মধ্যে কলেরা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। জাতিসংঘ জানিয়েছে, দেশটির দুই-তৃতীয়াংশ মানুষ নিরাপদ খাবার পানি পাচ্ছে না। রোববার সানায় এক সংবাদ সম্মেলনে রেডক্রসের কার্যক্রম পরিচালনা বিভাগের প্রধান ডমিনিক স্টিলহার্ট জানান, ২৭ এপ্রিল থেকে ১৩ মে-র মধ্যে কলেরায় দেশটিতে ১১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। “এখন গুরুতর প্রাদুর্ভাবের মোকাবিলা করছি আমরা,” বলেন তিনি। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) জানিয়েছে, সানাতেই কলেরার প্রাদুর্ভাব সবচেয়ে বেশি, এর পরে আছে রাজধানীর চারপাশে ঘিরে থাকা আমানত আল সামাহ প্রদেশ।



Go Top