বিকাল ৩:৫৯, রবিবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ ফুটবল

গত সপ্তাহের বাজে কিছু স্মৃতি কাটিয়ে মিশর সফরে গেলেন লিওনেল মেসি। উত্তর আফ্রিকার দেশটির ‘হেপাটাইটিস সি’ সংক্রামক রোগীদের চিকিৎসা সেবা ক্যাম্পেইনে যোগ দিতেই আর্জেন্টাইন অধিনায়কের মিশর যাত্রা।

এর আগে গত মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে প্যারিস সেন্ট জার্মেইর বিপক্ষে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত হয় বার্সেলোনা। পুরো ম্যাচে সতীর্থদের সঙ্গে মেসিও ব্যর্থ ছিলেন। পরে লিগের ম্যাচে দুর্বল লেগেনাসের বিপক্ষে কোনো রকম তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে লুইস এনরিক শিষ্যরা।

তবে এত ধকলের পরও মিশর সফরে বেশ স্বাভাবিকই মনে হয়েছে মেসিকে। পরে নিজের ফেসবুক পেজে এ স্ট্রাইকার লেখেন, ‘চিকিৎসা সেবার মাধ্যমে হেপাটাইটিস সি থেকে বাঁচা সম্ভব।’

মিশর সফরে এদিন মেসি ট্যুর এন’ কিউর এর অ্যাম্বাসেডর নির্বাচিত হন।

এই সফরটিতে মেসির গত বছরের ডিসেম্বরই যাওয়ার কথা ছিল। তবে সে সময় কায়রোতে বোমা বিস্ফোরণে ২৯ জন নিহত হলে সফরটি বাতিল হয়। পরে গত সপ্তাহে আবার দেশটিতে যাওয়া দিন নির্ধারণ হয়। কিন্তু পিএসজির বিপক্ষে ম্যাচ হেরে যাওয়া কোনো কারণ না দেখিয়েই সফর বাতিল করা হয়।

আগামী রোববার লা লিগায় অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মাঠে নামবে বার্সা। ভিসেন্তে কালদেরনে মুখোমুখি হবে দু’দল।

বার্সাকে টপকে গেল সেভিয়া


এইবারের বিপক্ষে সহজ জয়ে লা লিগার পয়েন্ট টেবিলে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনাকে টপকে গেছে সেভিয়া।

শনিবার রাতে নিজেদের মাঠে এইবারকে ২-০ গোলে হারায় কোচ হোর্হে সামপাওলির দল। প্রথমার্ধে পাবলো সারাবিয়ার গোলে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। দ্বিতীয়ার্ধে যোগ করা সময়ে দলকে দ্বিতীয় গোলটি এনে দেন ভিতোলো।

এই জয়ে ২৩ ম্যাচ খেলে ৪৯ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে সেভিয়া।

দুই ম্যাচ কম খেলে ৫২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে রিয়াল মাদ্রিদ। তৃতীয় স্থানে থাকা বার্সেলোনার পয়েন্ট ২২ ম্যাচ থেকে ৪৮।

 

ফাইনালের অনিশ্চয়তায় মেসি

স্প্যানিশ ঘরোয়া ফুটবলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আসর কোপা দেল রে’র ফাইনালে এক পা দিয়ে রেখেছে বার্সেলোনা। তবে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসি সহ আরও দুই গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার নিষেধাজ্ঞার অনিশ্চয়তায় রয়েছেন। বার্সা কোচ লুইস এনরিক বিশ্বাস করেন, এমনটি হবে না।

এনরিক জানান, মেসি, জর্দি আলবা ও স্যামুয়েল উমতিতি সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে স্বাভাবিক খেলাটাই খেলবে। ফাইনালে খেলতে হলে ফাউল এড়িয়ে চলতে হবে তাদের।

এই আসরের নিয়ম অনুযায়ী একজন ফুটবলার যদি তিন ম্যাচে হলুদ কার্ড পায় তবে পরের ম্যাচে নিষিদ্ধ থাকবেন। আর ওপেরর তিন ফুটবলারই ইতোমধ্যে দুটি করে হলুদ কার্ড দেখেছেন। এই কঠিন শঙ্কার মধ্যেই মঙ্গলবার সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে খেলতে নামবে বার্সা।

দ্বিতীয় লেগে ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যু’তে খেলতে নামবে কাতালানরা। যেখানে প্রতিপক্ষের মাঠে প্রথম লেগে ২-১ গোলে জিতে এগিয়ে রয়েছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। তবে দ্বিতীয় লেগে নিষেধাজ্ঞার কারণে খেলতে পারবেন না আরেক তারকা নেইমার। কারণ প্রথম লেগে আসরের তৃতীয় হলুদ কার্ড দেখেছেন ব্রাজিল সেনসেশন।

এদিকে হয়তো প্রথম একাদশেই মাঠে নামবেন মেসি, আলবা ও উমতিতি। আর এনরিক আশা করেন, এমন কোনো পরিস্থিতি তৈরি হবে না যাতে করে তাকে চিন্তার মধ্যে পড়তে হয়, ‘এই ফুটবলাররা পরিস্থিতি খুব ভালো করেই জানে। আমার মনে হয় না খেলায় এ ধরনের কোনো প্রভাব পড়বে। আমাদের প্রধান লক্ষ্যই থাকবে অ্যাতলেটিকোকে হারানো ও ফাইনাল নিশ্চিত করা।’

হতাশ রোনালদোদের পাশে জিদান

ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো, লুকাস ভাসকেস কাঙ্ক্ষিত গোল এনে দিলেন। কিন্তু সের্হিও রামোস, করিম বেনজেমারা নষ্ট করলেন দারুণ সব সুযোগ। স্প্যানিশ কাপের কোয়ার্টার-ফাইনাল থেকে বিদায় নিল রিয়াল মাদ্রিদ। তবে শিষ্যদের সমালোচনা করেননি কোচ জিনেদিন জিদান, বরং দাঁড়াচ্ছেন হতাশ রোনালদোদের পাশেই।

গত বুধবার রাতে কোয়ার্টার-ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে সেল্তা ভিগোর মাঠে ২-২ ড্র করে রিয়াল। প্রথম লেগে সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে ২-১ গোলে হেরেছিল জিদানের দলটি।

এ মাসের শুরুতেই টানা ৪০ ম্যাচ না হারার রেকর্ড গড়েছিল রিয়াল। কিন্তু হঠাৎই দলটি উল্টো রথে। সেল্তা ভিগোর কাছে দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৩ গোলে হেরে কোপা দেল রের শেষ আট থেকেই রিয়াল বিদায় নেওয়ার পর কোচ জানান, শিষ্যদের জন্য হতাশ তিনিও।

“সবচেয়ে পীড়াদায়ক হচ্ছে, ম্যাচে আমরা ভালো খেলেছি। যখন আপনি বাজে খেলবেন এবং পরের ধাপে যাওয়ার যোগ্য হবেন না, তখন আপনি দায়ভার নিতে পারেন। কিন্তু আজ কাউকে দোষ দেওয়ার নেই।”

“নিজেদের উজাড় করে দিয়ে আমরা গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি খেলেছি এবং আমরা সবসময় জয়ের জন্য ছুটেছি। দুঃখটা হলো, যেটা আমরা আশা করেছিলাম, সেটা অর্জন করতে পারিনি। অবশ্যই হতাশ; ছেলেদের জন্য একটু হতাশ।”

দুটি গোলই সেট-পিস থেকে পেয়েছে রিয়াল। তবে রোনালদোরারা গোল পেতে পারতেন আরও। সেটা না হলেও ক্ষুব্ধ নন জিদান।

“আমরা সুযোগ তৈরি করেছি এবং গোল করতে পারিনি। কিন্তু আমরা এটা বদলে দিতে পারব। আমরা পারি এই বিশ্বাস নিয়ে আমরা কাজ চালিয়ে যাব। আপনাদের বলতে পারব না, সম্প্রতি কেন আমরা সুযোগ মিস করলাম কিন্তু আমি এ নিয়ে চিন্তিত নই; ক্ষুব্ধও নই। ফুটবল এমনই; আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।”

 

মায়ের জন্মদিন উদযাপন করলেন মেসি

মা’ শব্দটাই সবার কাছে অন্যরকম অনুভূতি। আর কোনো শব্দ এই অনুভূতি আনতে পারে না; যা একমাত্র ‘মা’ শব্দটাই পারে। লিওনেল মেসির রত্নগর্ভা মা সেলিয়া`র জন্মদিন ছিল সোমবার। তাইতো মায়ের জন্মদিনটা অন্যভাবে উদযাপন করলেন আর্জেন্টাইন এই ফুটবল তারকা।

মেসির বয়স ১৩ বছর হওয়া পর্যন্ত ছেলেকে নিয়ে কম কষ্ট করতে হয়নি সেলিয়াকে। এরপর ছেলেকে নিয়ে আসেন বার্সেলোনায়। তারপর তো গল্প। কাতালান ক্লাবটিতে খেলে মেসি নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়।

সোমবার সেলিয়া ৫৭ বছরে পা রাখেন। তার মায়ের সঙ্গে জন্মদিন উদযাপনের একটি ছবি তিনি তার ইন্সটাগ্রাম একাউন্টে প্রকাশিত করেন। এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে সে তার মায়ের পাশে এবং তাদের সামনে দুইটি ওয়াইনের বোতল।

অবশ্য এর এক বিশেষ অর্থ রয়েছে। একটির গায়ে লিখা ছিল ১৯৬০ এবং অন্যটির গায়ে লিখা ছিল ১৯৮৭। মা ও ছেলের জন্ম সালটা পরিলক্ষিত হয় এই দুই বোতলের সাহায্যে। মেসির জন্মসাল ১৯৮৭ এবং তার মা সেলিয়ার জন্ম সাল ১৯৬০।

মায়ের প্রতি এমন ভালোবাসা প্রকাশ করে অনেকটা আনন্দিত তিনি। তাছাড়াও মেসি তার মায়ের জন্য মোমবাতি জালিয়ে একটি বিশাল কেক কাটেন। মেসির পুত্র সন্তানও সেই আনন্দ উদযাপনের মুহূর্তে উপস্থিত ছিল। কিন্তু মেসির বাবা হোর্হে মেসি এবং তার ভাই উপস্থিত হতে পারেনি অনুষ্ঠানে। জানা যায়, ব্যস্ততার কারণে তারা উপস্থিত থাকতে পারেনি।

ইব্রাহিমোভিচ জাদুতে জিতল ইউনাইটেড

বক্সিং ডে মানেই অন্যরকম রোমাঞ্চ, ভিন্ন উত্তেজনা। বড়দিনের উৎসব পালন করে মাঠে নেমে পড়া, প্রতিপক্ষকে হারিয়ে দেওয়া, গোল উৎসবে মেতে ওঠা। সোমবার রাতে ওল্ড ট্রাফোর্ডে এর সবকিছুই পেয়েছে রেড ডেভিলরা।

বক্সিং ডে ম্যাচে সান্ডারল্যান্ডকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। দলের অঘোষিত জয়ের নায়ক জ্লালাতান ইব্রাহিমোভিচ। নিজে গোল করেছেন, সতীর্থদের দিয়ে গোল করিয়েছেন। সব মিলিয়ে ওল্ড ট্রাফোর্ডে আগত ৭ হাজার ৫৩২৫ ফুটবলপ্রেমীকে মাতিয়ে রেখেছিলেন সুইডেনের তারকা।

ম্যানইউর জয়ে অন্য দুটি গোল করেছেন হেনরিখ মাখিতারিয়ান ও ডালে ব্লিন্ডের। ম্যাচের ৩৯ মিনিটে প্রথম গোলের স্বাদ পায় স্বাগতিক দল। ইব্রাহিমোভিচের বাড়ানো পাসে বল লক্ষ্যভেদ করেন ডালে ব্লিন্ডের। এরপর ৮২ মিনিটে ইব্রাহিমোভিচ নিজে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন। পগবার পাসে ইব্রাহিমোভিচ গোলের স্বাদ পান। চার মিনেটের ব্যবধানে আবার ইব্রাহিমোভিচ জাদু। এবারও সতীর্থকে দিয়ে গোল করান সুইডিশ তারকা। ইব্রার ক্রস থেকে বল পেয়ে দারুণ দক্ষতায় ফ্লিক করে বল প্রতিপক্ষের জালে পাঠান হেনরিখ মাখিতারিয়ান।

 ম্যাচের শেষ মুহূর্তে গোল হজম করে ম্যানইউ। সান্ডারল্যান্ডের ফাবিও গোল করে পরাজয়ের ব্যবধান কমান। টানা চতুর্থ জয় তুলে নিলেও পয়েন্ট টেবিলে ওপরে উঠে আসতে পারছেন না হোসে মরিনহোর শিষ্যরা। ১৮ ম্যাচে ৩৩ পয়েন্ট নিয়ে ষষ্ঠ স্থানে রেড ডেভিলরা। ১৮ ম্যাচে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে চেলসি।

দুর্নীতির সব অভিযোগ উড়িয়ে দিলেন সালাউদ্দিন

দু-একটি পত্রিকা এবং টেলিভিশনে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতির অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন। সোমবার বাফুফে ভবনে অনির্ধারিত মিডিয়া ব্রিফিংয়ে বাফুফে সভাপতি বলেছেন, ‘দু-একটি মিডিয়ায় যে খবর উঠেছে তা মিথ্যা। আমি তো আগেও বলেছি এটা মিথ্যা সংবাদ। এখনো বলছি। ভুয়া ও মিথ্যা সংবাদের জবাব কীভাবে দিতে হয় আমি জানি। সময়মতো সে জবাব দেবো। আমি তো দেখছি কিছু টিভিতে এ নিয়ে প্রপাগান্ডা চলছে।’

এমন খবরকে তার ও তার কমিটির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র উল্লেখ করে বাফুফে সভাপতি বলেছেন, ‘ফুটবল উন্নয়নে আমরা যে পরিকল্পনা দিয়েছি, সেটা যেন ঠিকভাবে বাস্তবায়ন করতে না পারি সেজন্য একটি গ্রুপ কাজ করছে। আপনারা শুনলে অবাক হবেন- সাংবাদিকদের কেউ কেউ স্পন্সরের কাছে গিয়ে হুমকি দিয়েছেন, যাতে তারা ফুটবলে না আসে। স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের লোকজন আমাকে ফোন করে এবং দেখা করে বলেছেন, ভাই ফুটবলে গেলে তো সমস্যা আছে। সময় আসলে এসব ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সব কিছুই হবে।’

এই যে স্পন্সরদের কাছে গিয়ে কে বা কারা হুমকি দিচ্ছে সেটা কি আপনি নির্দিষ্ট করে একটু বলবেন? ‘অল্পদিনের মধ্যে আমি সংবাদ সম্মেলন করে পূর্ণাঙ্গ সব কিছু জানাবো। এমনকি নামও বলে দেবো। দু-একটা টিভিতে এবং পেপারে অনেক কিছু লেখালেখি হচ্ছে এবং লাফালাফি হচ্ছে। আজ তো ব্রিফিং করলাম। এরপর সংবাদ সম্মেলনে সব কিছু জানিয়ে দেবো’- জবাব সালাউদ্দিনের।

বলছেন আপনার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো অসত্য এবং ভুয়া। তাহলে কি আপনি আইনগত কোনো ব্যবস্থা নেবেন? কাজী সালাউদ্দিন বলেছেন, ‘হ্যাঁ। আমি আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলবো, তার কাছ থেকে উপদেশ নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপে যাবো।’

খবরে বলা হয়েছে একটি গোয়েন্দা সংস্থা নাকি এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একটি প্রতিবেদনও দিয়েছে। আপনি কিছু জানেন? ‘চারদিকে যেসব কথাবার্তা হচ্ছে তা মিডিয়ার কাছ থেকেই শুনেছি। অফিসিয়ালি এখনো কিছু জানি না’- বলেন বাফুফে সভাপতি।

কিছু প্রমাণপত্র তো দেখানো হয়েছে। সে বিষয়ে কি বলবেন? কাজী মো. সালাউদ্দিন বলেছেন, ‘দেখুন কেউ একটা পেপার তৈরি করে দিয়ে দিলেই তা প্রমাণপত্র নয়। যে অভিযোগগুলো করা হয়েছে সেটা প্রমাণ হলেই না বোঝা যাবে সত্য।’

সম্প্রতি পাতানো খেলা নিয়েও অনেক কথা উঠছে। নির্বাচনের সময় আপনাদের বিরোধিতা করা পক্ষের একটি ক্লাব শেখ জামাল ও আবাহনীর ম্যাচটি পাতানো ছিল বলে নানাভাবে কথা উঠছে। এমনও শোনা যাচ্ছে, আবাহনী শিরোপা জিতলে তা প্রশ্নবিদ্ধ করা, চট্টগ্রাম আবাহনীকে চ্যাম্পিয়ন হতে না দেয়া এবং বাফুফেকে চাপের মধ্যে রাখার জন্য শেখ জামাল ম্যাচটি ছেড়ে দিয়েছে। এ বিষয়ে কি বলবেন?

‘পাতানো খেলা প্রসঙ্গে মিডিয়ার যে পয়েন্টগুলো আছে সেগুলো নিয়ে পরবর্তী নির্বাহী সভায় আলোচনার পর সংবাদ সম্মেলন করে জানাব’ -বলেছেন বাফুফে সভাপতি।

চেনচোর জোড়া গোলে চট্টগ্রাম আবাহনীর জয়

আবাহনীর সমর্থকরা বেশ করে চাইছিল ম্যাচটি জিতে যাক বিজেএমসি। আরেকটু সহজ করে বললে-হেরে যাক চট্টগ্রাম আবাহনী। ঢাকার সমর্থকদের সে প্রত্যাশা অপূর্ণই থেকেছে। তাদের হতাশ করে চট্টলার দলটি সহজেই বিজেএমসিকে ৩-০ গোলে হারিয়ে টিকে থাকলো শিরোপা লড়াইয়ে। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে চ্যাম্পিয়ন হতে হলে কিছু সমীকরণ মিলতে হবে চট্টগ্রাম আবাহনীর। যার প্রথম সমীকরণ তাদের বাকি ২ ম্যাচ জিততেই হবে।

এ ম্যাচটি হারলে শিরোপার আশা ছাড়তেই হতো চট্টগ্রাম আবাহনীকে। তাদের সে আশা বেঁচে থাকলো ‘ভুটানের রোনালদোখ্যাত’ চেনচোর নৈপূন্যে। তার জোড়া গোলেই চট্টগ্রাম আবাহনীর জয়ের পথ সুগম হয়। বাকি গোলটি করেছেন ইব্রাহিম। এ জয়ে ২০ ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলে দ্বিতীয় স্থানে চট্টগ্রাম আবাহনী। সমান ম্যাচ ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ঢাকা আবাহনী।

ম্যাচের চতুর্থ মিনিটে চট্টগ্রাম আবাহনীকে এগিয়ে দেন চেনচো। রুবেল মিয়ার ক্রস থেকে গোল করেন তিনি। চেনচো দ্বিতীয় গোল করেছেন বিরতির কিছু সময় আগে। গোলমুখে বল পেয়ে তিনি সহজইে পরাস্ত করেন বিজেএমসির গোলরক্ষককে। এটি লিগে তার চতুর্থ গোল।

চট্টলার দলটির জয় নিশ্চিত করেন ইব্রাহিম ৬৬ মিনিটে। চেনচোর জোড়ালো শট হাতে জমাতে পারেননি বিজেএমসির গোলরক্ষক হিমেল। বল চলে যায় ইব্রহিমের সামনে। তার নিঁখুত হেড কাঁপিয়ে দেয় বিজেএমসির জাল। এ হারে ২০ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ৯ নম্বরে জাকারিয়া বাবুর দল।

আরামবাগ-সকার ক্লাব ম্যাচ গোলশূন্য

তিন পয়েন্ট খুবই দরকার ছিল সকার ক্লাবের। পয়েন্ট টেবিলে সবার নিচে থাকা দলটি জিতলে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে টিকে থাকার আশাটা একটু মিটমিট করতো। তা আর হতে দিলো কই আরামবাগ?

দুই দলের ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হওয়ায় প্রিমিয়ার থেকে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে নেমে যাওয়ার শঙ্কা আরো বাড়লো ফেনীর দলটি। ছিল ১৪, যোগ হলো মাত্র ১পয়েন্ট-সকার ক্লাব পড়ে রইলো সেই তলানিতেই।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত রাতের ম্যাচে দুই দলের সামনেই এসেছিল গোলের সুযোগ। কিন্তু কাজের কাজটি করতে পারেনি কোনো দল। তাই পয়েন্ট ভাগাভাগি করেই ঘরে ফিরেছে তারা। ২০ ম্যাচ শেষে আরামবাগের পয়েন্ট ২৩। তারা আছে টেবিলের ৮ নম্বরে।

সাইফ স্পোর্টিংকে রুখে দিয়েছে চট্ট. মোহামেডান

প্রিমিয়ার লিগে ওঠার লক্ষ্য নিয়েই এবার বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে নাম লিখিয়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। কাগজ-কলমে শক্তিশালী এ দলকে রোববার রুখে দিয়েছে এক সময় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে খেলা চট্টগ্রাম মোহামেডান।

কমলাপুর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত দুই দলের ম্যাচটি ড্র হয়েছে ১-১ গোলে। ২৪ মিনিটে রহিম উদ্দিনের গোলে এগিয়ে যায় সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। প্রথমার্ধের ইনজুরি সময়ে গোল করে সমতা আনেন চট্টগ্রাম মোহামেডানের শাকিল।

পরপর দুই ম্যাচ ড্র করে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবে পিছিয়ে পড়েছে পয়েন্ট টেবিলে। ৪ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ৮। ১০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ইয়ংমেন্স ক্লাব। চট্টগ্রাম মোহামেডানের সংগ্রহ ৪ ম্যাচে ৩ পয়েন্ট।

‘আর্জেন্টিনা দলে পরিবর্তন দরকার’

বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের ম্যাচে ব্রাজিলের কাছে ৩-০ গোলে হেরে ব্যাকফুটে রয়েছে আর্জেন্টিনা। রাশিয়া বিশ্বকাপ নিয়ে রয়েছে শঙ্কায়। তবে এখনই তাদের আশা শেষ হয়ে যায়নি। সামনের ম্যাচগুলোতে ভালো করতে পারলে মেসির দল টিকিট পাবে বিশ্বযজ্ঞের। তার জন্য আর্জেন্টিনা দলে পরিবর্তন চান মারিও কেম্পেস।

ইন্টার মিলানের হয়ে আলো ছড়ানো মাওরো ইকার্দিকে আর্জেন্টিনা দলে চান ১৯৭৮ সালে আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী কেম্পেস। বলেন, বিশ্বকাপকে মাথায় রেখে এই মুহূর্তে দলে পরিবর্তন দরকার। দলের ভেতরে কী হচ্ছে, তা নিয়ে আমি নিশ্চিত কিছু বলতে পারছি না। আমরা ইকার্দিকে নিয়ে কতটা কথা বলছি? মাঠে সে কীভাবে পারফর্ম করে, সেটাই বড় বিষয়। তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মাতামাতি করা ঠিক নয়।’

লিওনেল মেসির বন্ধু ম্যাক্সি লোপেজের বউকে পটিয়ে বিয়ে করেছেন ইকার্দি। এই ঘটনার পর আর্জেন্টিনা ও ইতালিতে একের পর এক সমালোচনার তিরে বিদ্ধ হচ্ছেন ইকার্দি। সতীর্থের বউকে পটিয়ে বিয়ে করায় আর্জেন্টাইনদের চোখে তিনি এখন খলনায়ক।

আর দিয়েগো ম্যারাডোনা তো তাকে আখ্যা দিয়েছেন ‘মৃত মানুষ’, ‘বিশ্বাসঘাতক’ হিসেবে। অনেকেরই ধারণা, এই কাণ্ডে জড়ানোয় অসাধারণ প্রতিভা থাকা সত্বেও আর্জেন্টিনা জাতীয় দলে সুযোগ হচ্ছে না ইকার্দির।

রোনালদো নৈপুণ্যে পর্তুগালের জয়

রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে সময়টা ভালো যাচ্ছিল না ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর। গোলও পাচ্ছিলেন না! তবে জাতীয় দলের জার্সিতে জ্বলে উঠলেন রোনালদো। তার অসাধারণ নৈপুণ্যে লাটভিয়াকে ৪-১ গোলে পরাজিত করেছে পর্তুগাল।

এই জয়ে ইউরোপ অঞ্চলের বাছাইপর্বের ‘বি’ গ্রুপের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে পর্তুগিজরা। চার ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ৯ পয়েন্ট। রোনালদোর দল তিনটিতে জয় পেয়েছে, আর একটিতে হেরেছে। সমসংখ্যক ম্যাচে সবক’টিতে জয় তুলে নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষেই আছে সুইজারল্যান্ড। সুইসদের অর্জন ১২ পয়েন্ট।

ঘরের মাঠে লাটভিয়ার বিপক্ষে নিজের সেরাটা ঢেলে দিয়েছেন রোনালদো। ম্যাচের ২৮ মিনিটেই গোলের দেখা পেয়েছেন তিনি। বল নিয়ে ডি-বক্সের ভেতরে ঢুকে পড়েন রোনালদো। প্রতিপক্ষ দলের ডিফেন্ডারদের বাধার সম্মুখীন হলে বলটি ঠেলে দেন নানিকে। বল পায়ে নেয়ার আগে তাকে বাজেভাবে ট্যাকেল করেন লাটভিয়ার খেলোয়াড়েরা। রেফারির চোখ এড়ায়নি। তাই পেনাল্টি পায় পর্তুগাল। সুযোগটা কাজে লাগিয়ে গোল আদায় করে নেন রোনালদো। এভাবে এক গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় স্বাগতিকেরা।

খেলার দ্বিতীয়ার্ধে খানিকটা খেই হারিয়ে ফেলেছিল পর্তুগিজ। ৬৭ মিনিটে একটি গোল হজম করেছে তারা। এ সময় লাটভিয়াকে সমতায় ফেরান আরতুরস জুজিন। দুই মিনেটের ব্যবধানে উইলিয়ানের গোলে ফের এগিয়ে যায় পর্তুগাল (২-১)।

ম্যাচের ৮৫ মিনিটে ব্যক্তিগত দ্বিতীয় গোলটি করেছেন রোনালদো। ডান প্রান্ত থেকে রিকার্ডো কুয়ারেসমার বাড়িয়ে দেয়া বলটি দুর্দান্ত এক শটে লাটভিয়ার জালে জড়ান রিয়াল মাদ্রিদের সুপারস্টার। আর লাটভিয়ার কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন ব্রুনো আলভেজ।

এক আইরিশ ফুটবল-পাগলের গল্প

অনেক দেশ আছে যেখানে ফুটবলে লাথি দেননি এমন পুরুষ মানুষ কমই আছে। আর দেশটি যদি হয় ইউরোপের তাহলেতো কথাই নেই। আয়ারল্যান্ডের জন ব্রে তেমন এক মানুষ। ফুটবলে লাথি দেয়া পর্যন্তই। খেলা বলতে যা বুঝায় তা নেই তার জীবদ্দশায়। অথচ তিনি ফুটবলের পাগল। ফুটবল খেলা দেখতে ভ্রমণ করেছেন ১০০ টিরও বেশি দেশ। স্টেডিয়ামে বসে দেখেছেন চার চারটি বিশ্বকাপ। ইউরোপের বিভিন্ন টুর্ণামেন্টতো তার কাছে দুধভাত। ৫৮ বছর বয়সী এ আইরিশ এখন বাংলাদেশে। ফুটবলের টানেই ঢাকায় ছুটে আসা তার। ৭ নভেম্বর এসেছেন, ফিরে যাবেন আগামীকাল সোমবার।

বাংলাদেশে আসলেও তার এ সফর শুধু ঢাকাকেন্দ্রীক। যে কারণে দেশের শীর্ষ প্রতিযোগিতা বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের কোনো ম্যাচ দেখা হচ্ছে না তার। প্রিমিয়ার লিগ এখন চলছে ময়মনসিংহে। পেশাদার লিগের দ্বিতীয় স্তর বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের খেলা দেখতে শনিবার তিনি ছুটে গিয়েছিলেন কমলাপুর স্টেডিয়ামে।

football

কখনো রিক্সায়, কখনো মটর সাইকেলে অনিকের পেছনে-এভাবেই ঘুড়ছেন জন। তো অনিক কে? এমন প্রশ্ন আসাই স্বাভাবিক। পুরো নাম-রেজাউল হোসাইন অনিক। কাজ করেন এশিয়াটিকের ব্র্যান্ড কমিউনিকেশনের নির্বাহী হিসেবে। জন ব্রে‘র গল্পটা শোনা যাক তার কাছেই- ‘গত ব্রাজিল বিশ্বকাপে আমি একমাত্র বাংলাদেশি হিসেবে স্বেচ্ছাসেবক ছিলাম। আমার ডিউটি ছিল রিও‘র মারাকানা স্টেডিয়ামে। সেখানে আমার এক আমেরিকান বন্ধুর মাধ্যমে জনের সঙ্গে পরিচয়। ফুটবল খেলা দেখতে তার দেশে দেশে ঘুরে বেড়ানোর গল্প শুনেছি। তিনি আমার কাছে শুনেছেন বাংলাদেশের ফুটবলের গল্প। তখনই তিনি বাংলাদেশে আসার আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন। দেশে আসার পরও তার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ ছিল। অনেক দিন ধরেই তিনি বাংলাদেশে আসার কথা বলছিলেন। বিভিন্ন কারণে আমি তাকে নিরুৎসাহিত করার চেষ্টা করেছি। গুলশানের সন্ত্রাসি হামলায় বিদেশিদের প্রাণহানির ঘটনাও তিনি জানতেন। কিন্তু তিনি ওসব পাত্তা দেননি। বাংলাদেশে চলে এসেছেন’।

জন ব্রে ইতিমধ্যে জেনেছেন, বাংলাদেশের ফুটবল এক সময় রমরমা ছিল। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ৫০/৬০ হাজার দর্শক খেলা দেখেছে শুনে অবাক হয়েছেন তিনি। এ সব গল্পই আসলে জনকে টেনেছে বাংলাদেশে। যদিও তিনি যখন ঢাকায় তখন বাংলাদেশের ফুটবল শুধুই অতীতের কঙ্কাল।

‘অনিকের কাছে আমি বাংলাদেশের ফুটবলের গল্প শুনেছি। আমি যখন এশিয়া সফরের পরিকল্পনা করি তখনই সিদ্ধান্ত নেই বাংলাদেশে আসবো। চলে এলাম। মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড ও ব্রনাইয়ের পর বাংলাদেশে এসেছি।’ আপানি কতগুলো দেশে এভাবে ফুটবল খেলা দেখতে গিয়েছেন? ‘একশ`র বেশি হবে। তবে দক্ষিণ এশিয়ায় প্রথম এলাম বাংলাদেশে। আমি ইতালি, যুক্তরাষ্ট্র, জাপান-কোরিয়া ও ব্রাজিল বিশ্বকাপ দেখেছি স্টেডিয়ামে বসে।’

football

বাংলাদেশ কেমন লাগছে? কোনো ভয় কাজ করছে? ‘আসলে বাংলাদেশ বলতে ঢাকা। আমি অন্য কোথাও যাচ্ছি না। গুলশান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, যাদুঘর, আহসান মঞ্জিল, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন ভবন, মোহামেডান ক্লাব, কমলাপুর স্টেডিয়াম ও বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামসহ অনেক জায়গা ঘুরেছি। বন্ধু অনিকের বাসায়ও গিয়েছি। আমার কোনো সমস্যা হয়নি। কোনো ভয়ও পাইনি। এখানকার মানুষ অনেক আন্তরিক। সমস্যার মধ্যে যা দেখলাম তাহলো যানজট, মশা আর বিরিয়ানি। বিরিয়ানি খেয়ে আমার পেট খারাপ করেছিল, হা হা হা। ’

তো এই যে, আপনি দেশে দেশে ঘুরে বেড়ান। পরিবারের লোকজনকে সময় দেন কখন? ‘আমার ছেলে ফুটবল খেলা পছন্দই করে না। আর স্ত্রী? যখন ঘরে ফিরবো তখন আগাম বাই বাই দিয়ে রাখবে, আবার কখন কোন দেশের ফ্লাইট ধরি তাই। কিন্তু আমার এটা নেশা, আমি ফুটবল পাগল। যতদিন শরীর কাজ করবে আমি এটা করবো’-বলেন জন। শরীর না হয় কাজ করলো, কিন্তু এই যে আপনি দুনিয়া চষে বেড়াচ্ছেন এ খরচের উৎস কি? কোনো স্পন্সর আছে? ‘না, কোনো স্পন্সর নেই। আমি নিজের অর্থে ঘুরি। আমি একটি টেলিকম কোম্পানিতে চাকুরি করতাম। আমার অনেক সঞ্চয় আছে। সেখান থেকেই খরচ করি’- জবাব জন ব্রে নামের এ ফুটবল পাগলের।

রোবেন-ডিপাইয়ে ঘুরে দাঁড়ালো নেদারল্যান্ডস

গত বিশ্বকাপের পর নিজেদের হারিয়ে খুঁজছিল নেদারল্যান্ডস। অবশেষে রোবেন-ডিপাইয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে তারা। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে রোববার রাতে লুক্সেমবার্গের বিপক্ষে ৩-১ গোলে জয় পেয়েছে ডাচরা।

এই জয়ে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে চার ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে নেদারল্যান্ডস। সমসংখ্যক ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে ‘এ’ গ্রুপের শীর্ষেই রয়েছে ফ্রান্স। আর পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে থাকা লুক্সেমবার্গের সংগ্রহ মাত্র ১।

নেদারল্যান্ডের হয়ে একটি গোল করেছেন আরিয়েন রোবেন। ৩১ মিনিটে লুক্সেমবার্গের জাল কাঁপান তিনি। আর ডাচদের হয়ে জোড়া গোল করেছেন মেম্পিস ডিপেই। ৫৮ ও ৮৪ মিনিটে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি। আর লুক্সেমবার্গের হয়ে একটি গোল শোধ দিয়েছেন ম্যাক্সিম শ্যানট।



Go Top