দুপুর ২:৫০, মঙ্গলবার, ২৩শে মে, ২০১৭ ইং
/ বিনোদন

বিনোদন প্রতিবেদক : অনন্যা রুমার পরিচালনায় এটি একটানা প্রচারিত হচ্ছে ১৪ বছর যাবত। এ উপলক্ষে ২১ মে চ্যানেল আই ভবনে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানটি সম্পর্কে তারকাদের স্মৃতিচারণ শেষে চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তাপ্রধান শাইখ সিরাজের শভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। এ সময় তিনি উপস্থিত বিভিন্ন অঙ্গণের তারকাদের সঙ্গে নিয়ে বর্ষপূর্তির কেক কাটেন। এদিন টেলিফোনে সরাসরি দর্শকদের সাথে তারকাদের আড্ডার এ অনুষ্ঠানটি প্রচার করেছে ৬,৭১৪ পর্ব। অনুষ্ঠানটি বর্তমানে প্রচার হচ্ছে ‘ইউনিভার্সেল ফুড লি.’ এর সৌজন্যে।

 অনুষ্ঠান সম্পর্কে তারকাদের স্মৃতিচারণের পাশাপাশি আরো সঙ্গীত পরিবেন করেন- কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী, রফিকুল আলম, মেহরীন, দিঠি আনোয়ার, তানভীর আলম সজীব ও পিন্টু ঘোষ।  তারকাকথনের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে অংশ নেন- সঙ্গীতজ্ঞ আজাদ রহমান, প্রবীন সাংবাদিক কামাল লোহানী, কবি আসাদ চৌধুরী,

চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেন ও মতির রহমান, সঙ্গীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী, সংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ম. হামিদ, কবি মুহাম্মদ সামাদ, চিত্রশিল্পী আবদুল মান্নান, ফকির আলমগীর, স্বাধীন বাংলা বেতারের শিল্পী লীনু বিল্লাহ, শাহীন সামাদ, রফিকুল আলম, হায়দার হোসেন, মেহরীন, অভিনেতা আজিজুল হাকিম, শহীদুল আলম সাচ্চু, রুনা খান, আহসানুল হক মিনু, সোহেল আরমান, দীপা খন্দকার, তমালিকা কর্মকার, রোকেয়া প্রাচী, নবাগত চিত্রনায়িকা হিমি, লাক্সস্টার চৈতি, শানু, প্রমুখ।

জন্মদিনেও ব্যস্ত তানজিন তিশা

অভি মঈনুদ্দীন : ঈদের নাটকের কাজ নিয়েই তানজিন তিশা ব্যস্ত সময় পার করছেন। অভিনেত্রী হিসেবে কাজ শুরু করার পর তার অভিনয় ক্যারিয়ারের ব্যস্ত সময় কাটছে আসছে ঈদকে ঘিরে। যে কারণে একের পর এক ঈদ নাটকে কাজ করা নিয়ে বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। এরইমধ্যে তানজিন তিশা আসছে ঈদের জন্য অভিনয় করেছেন সোহেলের নির্দেশনায় ‘হিয়ার মাঝে তুমি’ ও ‘হাসনা হেনা’ , রিজভীর ‘ইস্যু’ নাটকের কাজ।

 

 শিগগিরই তিনি শুরু করবেন হিমেল আশরাফের নির্দেশনায় ‘শর্ত সাপেক্ষে’, হাবিব মাসুদের ‘পরিচয়’ এবং রুমান রুনির নির্দেশনায় আরেকটি ঈদ বিশেষ নাটকের কাজ। প্রচ- গরমে মাঝে মাঝে বিদ্যুৎ বিহীন অবস্থায় রাজধানী’সহ রাজধানীর অদূরে পূবাইল’সহ আরো বিভিন্ন লোকেশনে এখন নাটক নির্মাণের ধুম শুরু হয়েছে। অন্যান্য অনেক শিল্পীর মতো তানজিন তিশাও গরম সহ্য করেই শুটিং করছেন। ঈদের কাজ নিয়ে তানজিন তিশা বলেন,‘ এবারের ঈদে আমাকে বেশকিছু ভালো ভালো নাটকে কাজ করতে দেখা যাবে। এরইমধ্যে বেশ কয়েকটির কাজ শেষ করেছি। ঈদের পূর্ব পর্যন্ত নাটক টেলিফিল্মে কাজ করা নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হবে।


 প্রতিটি নাটকে আমার চরিত্রে দর্শক এবার ভিন্নতা পাবেন। ’ এদিকে সম্প্রতি তানজিন তিশা অভিনীত মাহবুবা ইসলাম সুমী পরিচালিত ‘তুমি রবে নীরবে’ চলচ্চিত্রটি মুক্তি পেয়েছে। এ প্রসঙ্গে তানজিন তিশা বলেন,‘ আমি ব্যক্তিগতভাবে এটাকে চলচ্চিত্র হিসেবে গণ্য করিনা। তবে ভালোলাগা এই যে আমার অভিনীত টেলিফিল্মটি দর্শক হলে গিয়ে দেখেছেন। কিন্তু কেউ যদি এটাকে চলচ্চিত্র বলেন-তাহলে আমার ভালোলাগাটা নষ্ট হয়ে যাবে। কারণ এতে আমাকে ডাবিংও করানো হয়নি। তাছাড়া যখন আমি শুটিং করি তখন আমি জানতাম যে এটি টেলিফিল্ম।

 

 তাই এটি কোনভাবেই আমার চলচ্চিত্র নয়।’ এদিকে আজ তানজিন তিশার জন্মদিন। জন্মদিনে আরটিভির ‘তারকালাপ’ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে তিনি ভক্ত দর্শকের সঙ্গে কথা বলবেন। এর পরপরই তিনি শেখ সেলিমের তত্ত্বাবধানে একটি ফ্যাশন হাউজের ফটোশ্যুটে অংশ নিবেন তিনি। সন্ধ্যা পর্যন্ত এর কাজ করে তিনি বাবা আবুল কাশেম, মা উম্মে সালমা এবং তিন বোন সুইটি, টুম্পা, নিপা’সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে রাজধানীর কোন একটি রেস্টুরেন্টে রাতের খাবার খাবেন। এদিকে তানজিন তিশাকে সর্বশেষ হাবিব ওয়াহিদের ‘বেপরোয়া মন’ গানের মিউজিক ভিডিওতে মডেল হিসেবে দেখা যায়। এটি নির্মাণ করেছিলেন অনন্য মামুন। করতোয়ার পক্ষ থেকে তানজিন তিশাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

মুক্তির অপেক্ষায় বিপাশা কবিরের তিন চলচ্চিত্র

বিনোদন প্রতিবেদক : মুক্তির অপেক্ষায় আছে চলচ্চিত্রাভিনেত্রী বিপাশা কবির অভিনীত তিনটি চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্র তিনটি হচ্ছে বুলবুল বিশ্বাসের ‘রাজনীতি’, সৈকত নাসিরের ‘পাষাণ’ এবং সারোয়ার হোসেনের ‘খাস জমিন’। ‘রাজনীতি’ চলচ্চিত্রে শুধুমাত্র একটি গানে বিপাশা কবিরকে দেখা যাবে। আসছে ঈদে শাকিব খান, অপু বিশ্বাস ও বিপাশা কবির অভিনীত ‘রাজনীতি’ চলচ্চিত্রটি মুক্তি পাবার সম্ভাবনা রয়েছে বলে নির্মাতা সূত্রে জানা যায়। বিপাশা কবির নায়িকা হিসেবে অভিনীত ‘পাষাণ’ এবং ‘খাস জমিন’ চলচ্চিত্রের কাজ শেষ করেছেন।

 

দুটি চলচ্চিত্রে তার বিপরীতে রয়েছেন ওপার বাংলার ওম এবং এপার বাংলার সাইমন সাদিক। ৪৫টিরও বেশি চলচ্চিত্রে আইটেম গার্ল হিসেবে বিপাশা কবিরকে দেখা গেলেও এখন নায়িকা হিসেবেই কাজ করতে বেশী আগ্রহী তিনি। নায়িকা হিসেবে বিপাশা কবির অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ছিলো সায়মন তারিকের ‘গু-ামি’।

 

 এতে তার বিপরীতে ছিলেন চিত্রনায়ক শাহরিয়াজ। এরপর তিনি নায়িকা হিসেবে অভিনয় করেন শাহেদ চৌধুরীর ‘আড়াল’, সোহেল বাবুর ‘বাজে ছেলে দ্য লোফার’ এবং সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সায়মন তারিকের ‘ক্রাইম রোড’। চলচ্চিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে বিপাশা কবির বলেন, ‘চলচ্চিত্রে কাজ করার মধ্যেই আমি আমার নিজেকে খুঁজে পাই। কারণ আমি মনেপ্রাণে একজন চলচ্চিত্রাভিনেত্রী।

 

চলচ্চিত্রে শুরুর দিকে আইটেম গার্ল হিসেবে কাজ করলেও এখন নায়িকা হিসেবে কাজ করার চেষ্টা করছি। আমার আগ্রহকে প্রাধান্য দিয়ে এরইমধ্যে বেশ কয়েকজন গুণী পরিচালক আমাকে নায়িকা হিসেবে নিয়ে কাজ করেছেন। আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। আজীবন চলচ্চিত্রেই কাজ করতে চাই আমি। দর্শকের আগ্রহ থাকলে আরো ভালো ভালো কাজ উপহার দিতে চাই।’ এদিকে রাজধানীর ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে বিপাশা কবিরের নানী সুফিয়া বেগম গুরুতর অসুস্থাবস্থায় চিকিৎসাধীন আছেন।

 

 যে কারণে আজ তার জন্মদিন হলেও দিনটি বিশেষভােিব উদ্যাপনের তেমন কোন পরিকল্পনা নেই। বিপাশা বলেন,‘ আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি তিনি যেন আমার নানীকে সুস্থ করে আমাদের মাঝে ফিরিয়ে নিয়ে আসেন। কারণ আমার নানী আমার খুউব প্রিয় একজন মানুষ। নানীর শারীরিক অবস্থার এমন পরিপ্রেক্ষিতে আমি আমার আম্মুকে স্বাভাবিক দেখছিনা।

 

সবার কাছে আমার নানীর জন্য দোয়া চাই।’  ২০০৯ সালে লাক্স চ্যানেল আই প্রতিযোগিতায় ১৪ তম হয়েছিলেন বিপাশা কবির। রুমানা রশীদ ঈশিতার নির্দেশনায় বিপাশা কবির প্রথম ‘একটা ক্যান্টিনে সবাই এবং একটি গোলাপ’ নাটকে অভিনয় করেন। এরপর আরো বেশ কিছু নাটকে অভিনয় করেন তিনি। শাহীন সুমনের নির্দেশনায় ‘ভালোবাসার রং’ চলচ্চিত্রে প্রথম অভিনয় করেন। জন্মদিনে বিপাশা কবিরকে শুভেচ্ছা। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার

সম্মাননা পেলেন আলতাফ, আইনুল ববিতা ও শাহাদত চৌধুরী

বিনোদন প্রতিবেদক : অসংখ্য অসাধারণ মানুষের অসামান্য অবদানে আমরা পেয়েছি গৌরবোজ্জ্বল বাংলাদেশ। তাঁদের এ অবদানের কারণে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে। সেই ঋণ স্বীকার ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশের অঙ্গীকারে ২০১৭ থেকে ওকে ওয়ার্ল্ড ও চ্যানেল আই প্রবর্তন করেছে ‘ওকে ওয়ার্ল্ড-চ্যানেল আই গোল্ড অ্যাওয়ার্ড’ অসাধারণত্বের সম্মাননা।

ক্রীড়াশিক্ষক হিসেবে বিশ্ব ক্রিকেট দরবারে বাংলাদেশের অসংখ্য বিশ্বসেরা ক্রিকেটার তৈরির অবদানে সৈয়দ আলতাফ হোসেন এবং স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের সহ-অধিনায়ক হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের তহবিল সংগ্রহের জন্য বিভিন্ন চ্যারিটি ফুটবল ম্যাচ আয়োজন করে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে আরো বেগবান করার মহান ভূমিকায় আইনুল হক, দেশের স্বাধীনতা, সাংবাদিকতা, শিল্প সংস্কৃতিতে অবিস্মরণীয় অবদানের জন্য মরহুম শাহাদত চৌধুরী, অসাধারণ অভিনয়ের কৃতিত্বে বিশ্ব চলচ্চিত্রের দরবারে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি এবং চলচ্চিত্রভূবনকে বিশেষ মর্যাদা দানের জন্য চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ববিতাকে কৃতজ্ঞতা প্রকাশের স্বরূপ হিসেবে এ সম্মাননা জানানো হয়। এ উপলক্ষে ২০ মে সন্ধ্যায় গুলশান একটি হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য চার অসাধারণজনকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। সম্মাননার অংশ হিসেবে প্রত্যাককে উত্তরীয়, স্বর্ণপদক ও ৫০ হাজার টাকার চেক দেয়া হয়।

সাহদত চৌধুরীর পক্ষে সম্মাননা গ্রহণ করেন তার স্ত্রী সেলিনা চৌধুরী ও মেয়ে শাশা চৌধুরী। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চ্যানেল আই এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর এবং ওকে ওয়ার্ল্ডের প্রেসিডেন্ট কাজী জসিমুল ইসলাম বাপ্পী। উপস্থাপনা করেন আফজাল হোসেন। অনুষ্ঠানের শেষে সঙ্গীত পরিবেশন করেন অনিমা রায়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত বিশিষ্টজনরা চ্যানেল আই  ও ওকে ওয়ার্ল্ডের এমন মহতি উদ্যোগকে স্বাগত জানান এবং দেশের এমন কৃতিজনদের সম্মাননা জানানোয় চ্যানেল আই কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও ছেলের বাবা হওয়ায় উচ্ছ্বসিত জয়

বিনোদন প্রতিবেদক : চলচ্চিত্র ও নাট্যাভিনেতা, নির্দেশক শাহরিয়ার নাজিম জয় নির্দেশিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘প্রার্থনা’। তার নির্দেশিত প্রথম চলচ্চিত্রে অভিনয় করেই শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী হিসেবে পুরস্কার লাভ করতে যাচ্ছে যারা যারিব ও প্রমিয়া রহমান। তাই এই পুরস্কার অর্জনে ভীষণ খুশি জয়। সেই খুশিকে আরো বহুগুণে বাড়িয়ে দিয়েছে তার স্ত্রী নুসরাত অনন্যা এক পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়ে। গতকাল রবিবার দুপুর ১২.৩০ মিনিটে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ডা. নারগিস ফাতেমার তত্ত্বাবধানে অস্ত্রোপাচারের মাধ্যমে নুসরাতের কোল জুড়ে এক পুত্র সন্তানের জন্ম হয়।

 

 আর তাতে জয় এবং নুসরাতের পরিবার ভীষণ খুশি। জন্মের পরপরই জয় তার নবজাতক পুত্র সন্তানের নাম রাখেন শানজের নাজিম। জন্মের সময় নবজাতকের ওজন ছিলো সাত পাউ-। জয় জানান মা ও সন্তান দু’জনই সুস্থ আছেন। বাবা হওয়া প্রসঙ্গে জয় বলেন,‘ আমার প্রার্থনা চলচ্চিত্রে অভিনয় করে দু’জন শিশুশিল্পীর পুরস্কার পেয়েছে। আবার আমিও আরেক শিশুর বাবা হয়েছি। জীবন আজ সত্যিই অনেক সুন্দর লাগছে।

 

 পৃথিবীটা আজ একটু বেশিই সুন্দর মনে হচ্ছে। আজ বারবার মনে হচ্ছে পৃথিবীতে আসাটা বড় স্বার্থক হয়েছে। মহান আল্লাহর কাছে অসীম কৃতজ্ঞতা যে তিনি আমাকে সুস্থ সন্তান উপহার দিয়েছেন। আজ আমি ভীষণ খুশি, উচ্ছসিত। এই খুশি ভাষায় প্রকাশের নয়। সবার কাছে আমার সন্তানের জন্য দোয়া চাই।’ জয় জানান তার স্ত্রী ও নবজাতককে আরো দু’তিনদিন হাসপাতালে থাকতে হবে।

 

নুসরাত অনন্যার সঙ্গে পারিবারিকভাবে জয়ের বিয়ে হয় ২০০৭ সালের ১৯ অক্টোবর, শুক্রবার। জয় এর আগেও আরো এক পুত্র সন্তানের বাবা হয়েছিলেন। তার নাম শাফায়েত নাজিম, তার বয়স সাত বছর। এদিকে জয় এরইমধ্যে তার নির্দেশনায় নির্মিত দ্বিতীয় চলচ্চিত্র ‘অর্পিতা’র কাজ শেষ করেছেন। ছবি ঃ আলিফ হোসেন রিফাত।

আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন শেখ সাদী খান

দেশের সংগীতাঙ্গনে নিভৃতচারী যে কয়জন গুণী মানুষ আছেন তাদের মধ্যে অন্যতম সুরকার ও সংগীত পরিচালক শেখ সাদী খান। তাকে বাংলাদেশের সংগীতের জাদুকর বলে অভিহিত করা হয়। অসংখ্য জনপ্রিয় গানের ¯্রষ্টা তিনি। সংগীতে কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ দুইবার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এর বাইরেও অসংখ্য সম্মাননা পেয়েছেন তিনি।

 সংগীত সাধনাতেই গুণী এই মানুষটি পার করেছেন জীবনের ৫৭টি বছর। এ সব কিছু মিলিয়ে নিভৃতচারী এই সংগীত পরিচালককে ‘হিউম্যান রাইটস্ অ্যাওয়ার্ড’ আজীবন সম্মাননা প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ পরিবেশ ও মানবাধিকার বাস্তবায়ন সোসাইটি। কাল বিকেল ৫টায় রাজধানীর শাহবাগস্থ কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরীর শওকত ওসমান মিলনায়তনে তাকে এই সম্মাননা প্রদান করা হবে।

সম্মাননা প্রদান করবেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙা, এমপি। উল্লেখ্য, ১৯৬৫ সালে রেডিও পাকিস্তানে কর্মজীবন শুরু করে পরবর্তীতে ১৯৬৮ সালে শেখ সাদী খান যোগ দেন তৎকালীন পাকিস্তান টেলিভিশনে।

তবে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় যুক্ত হন স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের সঙ্গে। বাংলাদেশ স্বাধীন হলে বাংলাদেশ বেতারে সংগীত পরিচালক হিসেবে যোগ দেন তিনি। শেখ সাদী খান সত্তরের দশকে সংগীত পরিচালক খন্দকার নুরুল আলমের সহকারী হিসেবে চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেন। চলচ্চিত্রের প্রথম সংগীত পরিচালনা করার সুযোগ পান ১৯৮০ সালে। চলচ্চিত্রটির নাম ছিল আবদুল্লাহ আল মামুন পরিচালিত ‘এখনই সময়’। প্রথম চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক হিসেবে বাচসাস পুরস্কার পান তিনি।

প্রকাশিত হল শাকিল ও কল্পনার “একটুকু ছোঁয়া লাগে”

বিনোদন প্রতিবেদক : লেজার ভিশনের আয়োজনে গতকাল সন্ধ্যায় ধানমন্ডির ছায়ানট মিলনায়তনে  নজরুলসংগীত দম্পতি কন্ঠশিল্পী খায়রুল আনাম শাকিল ও কল্পনা আনাম এর গাওয়া  রবীন্দ্রসংগীতের অ্যালবাম “একটুকু ছোয়া লাগে” এর মোড়ক উন্মোচন ও প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে শিল্পী দম্পতিকে শুভাশিষ জানিয়ে অ্যালবামটির মোড়ক উন্মোচন করেন সুস্মিতা ইসলাম,শিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার, এ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল ও শিল্পী  ইফ্ফাত আরা দেওয়ানসহ আরও অনেকে। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন লেজার ভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাজহারুল ইসলাম, সংগীত জগতের বিশিষ্ট ব্যক্তি ও বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকগণ। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন মিতা মোস্তফা এবং  সভাপতিত্ব করেন লেজার ভিশনের চেয়ারম্যান এ.কে.এম আরিফুর রহমান।


  উল্লেখ্য, বিশিষ্ট নজরুল সংগীত শিল্পী খায়রুল আনাম শাকিল ও কল্পনা আনাম এর এটি প্রথম রবীন্দ্রসংগীতের অ্যালবাম। অ্যালবামটির সংগীত আয়োজনে ছিলেন দূর্বাদল চট্রোপাধ্যায় ও অম্লান দত্ত। অ্যালবামটিতে রবীন্দ্রনাথের ১৪ টি জনপ্রিয় গান রয়েছে। উল্লেখযোগ্য কয়েকটি গান হল- আজি বিজন ঘরে, খেলা ঘর বাঁধতে লেগেছি, বাদল দিনের প্রথম কদম ফুল, একটুকু ছোঁয়া লাগে, আমার রাত পোহালো,আগুনের পরশমনি ও তুমি রবে নিরবে ইত্যাদি।


 অ্যালবামটিতে শাকিল আনামের ছয়টি ও কল্পনা আনামের সাতটি গান রয়েছে এবং একটি গান তাদের দ্বৈত কন্ঠে গাওয়া। অ্যালবামটি প্রসঙ্গে শিল্পী দম্পতি বলেন বেশ কয়েক বছর থেকে ভাবনা ছিল দুজনে মিলে একটি রবীন্দ্রসংগীতের অ্যালবাম বের করার। অবশেষে সুস্মিতা ইসলামের অনুরোধে আমরা অ্যালবামটি প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নেই। আশা করি রবীন্দ্র ভক্ত শ্রোতাদের অ্যালবামটির গানগুলি অবশ্যই ভাল লাগবে।

দুই বছর পর একসঙ্গে জাহিদ হাসান-শশী

অভি মঈনুদ্দীন : দুই বছর পর আবারো একসঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে একটি ঈদ বিশেষ নাটকে অভিনয় করছেন দর্শকপ্রিয় অভিনেতা জাহিদ হাসান ও অভিনেত্রী শারমীন জোহা শশী। তরুণ নাট্যনির্মাতা আহমেদ শাকিল নিশানের নির্দেশনায় ‘বিবর্তন’ নাটকে তারা দু’জন আবারো জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করছেন।

নাটকটি রচনা করেছেন এন এম রাসেল। গত ২০ মে থেকে রাজধানীর উত্তরার একটি আবাসিক ভবনে নাটকটির শুটিং শুরু হয়েছে। জাহিদ হাসান ও শশী মাঝের একদিন বিরতি দিয়ে আজ আবার নাটকটির শুটিং হবে উত্তরাতেই একটি শুটিং হাউজে।

 নাটকে একটি বাড়ির কেয়ারটেকার মফিজুল চরিত্রে অভিনয় করছেন জাহিদ হাসান এবং বাড়ির মহিলা মালিকের ব্যক্তিগত সহকারী চামেলী চরিত্রে অভিনয় করছেন শারমীন জোহা শশী। গল্পে দেখা যাবে পার্কে হাটতে গিয়ে মফিজুলের ব্যবহারে ভালোলেগে যায় বাড়ির মালিকের।

তাকে বাড়ির কেয়ারটেকারের দায়িত্বে নিয়োজিত করেন। মফিজুল ও চামেলীর মধ্যে একসময় ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে উঠে। এগিয়ে যায় নাটকের গল্প। নাটকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে গুণী অভিনেতা জাহিদ হাসান বলেন,‘ শশীর সঙ্গে এর আগে যে খুব বেশি কাজ করেছি এমন নয়।


 তবে যেসব নাটকে কাজ করেছি সেসব নাটকের জন্য দর্শকের কাছ থেকে বেশ সাড়া পেয়েছিলাম। পরিচালক নিশান নতুন হলেও বেশ গুছিয়ে কাজ করছেন। একসময়তো আমাকে জানানো হলো যে শশী সিডিউল মেলাতেই পারছে না। পরিচালককে তখন আমি বললাম, শশী যদি কাজটি না করে তাহলে আমি কাজটি করবো না।

কারণ শশী খুব ভালো একজন অভিনেত্রী। তারসঙ্গে কাজ করলে নাটকটিও খুব ভালো হবে। আমরা বেশ উৎসাহ নিয়ে কাজটি করছি। আশাকরি দর্শকের ভালোলাগবে।’ শশী বলেন,‘ জাহিদ ভাই অনেক বড় মাপের একজন অভিনেতা হয়েও বেেতা আন্তরিক এবং এতোটা সহযোগিতা পরায়ণ যা ভাবাই যায়না।


আমার ভীষণ ভালোলাগছে তারসঙ্গে দু’বছর পর কাজ করে। ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর আগে রিহার্সেল এবং আমার ক্লোজ ধরার সময় কিউ দেয়া-এমনটা সবাই করেন না। তাই আমি জাহিদ ভাই’তে মুগ্ধ এবং সেইসাথে বিবর্তন নিয়ে খুব আশাবাদী আমি।’

আসছে ঈদে একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচারের লক্ষে ‘বিবর্তন’ নাটকটি নির্মিত হচ্ছে। দু’বছর পূর্বে ‘বউ পাগল’ নামের একটি নাটকে তারা দু’জন জুটি হয়েছিলেন। এদিকে এবারের ঈদে জাহিদ হাসান নিজেও বেশ কয়েকটি নাটক নির্মাণ করবেন। এরইমধ্যে একটি নাটক নির্মাণের কাজ শেষ করেছেন। তার নির্দেশনায় নির্মিত ‘ভ্যাগাব-’ ও ‘রাজু ৪২০’ ধারাবাহিক দুটি ভিন্ন চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে। এদিকে  শশী ‘শূণ্যতা’, ‘জল রং’, ‘শেফালী’ ধারাবাহিকে নিয়মিত অভিনয় করছেন।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নাটক ‘মহামানবের দেশে’

বিনোদন প্রতিবেদক : নাট্যকার ও গীতিকবি সহিদ রাহমানের গল্পের অবলম্বনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে নাটক ‘মহামানবের দেশে’র মহরত ২০ মে সংস্কৃতি বিকাশ কেন্দ্র অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন শব্দসৈনিক ও বরেণ্য সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী। প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

 এছাড়া উপস্থিত ছিলেন- স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রের রচয়িতা ব্যারিস্টার আমীর-উল ইসলাম, বরেণ্য চিত্রশিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার’সহ আরো অনেকে। বঙ্গবন্ধুর ৪২তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে ‘মহামানবের দেশে’ নামক এই টেলিভিশন নাটক নির্মিত হচ্ছে। নাটকটির চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করবেন গুণী নাট্যকার ও নির্মাতা মান্নাান হীরা। নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করবেন তারিক আনাম খান, ডলি জহুর, ফজলুর রহমান বাবু, শর্মীমালা প্রমুখ।

জাতীয় স্বর্ণপদক প্রাপ্ত করতোয়া মাল্টিমিডিয়া স্কুল এন্ড কলেজ ছাত্রী মেঘাকে সংবর্ধনা

বাংলাদেশ শিশু একাডেমী আয়োজিত শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতায় ভরত নাট্যম নৃত্যে স্বর্ণপদক প্রাপ্ত করতোয়া মাল্টিমিডিয়া স্কুল এন্ড কলেজ-এর সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী এবং আমরা ক’জন শিল্পী গোষ্ঠী’র নৃত্য শিল্পী মার্জিয়া সুলতানা মেঘাকে করতোয়া মাল্টিমিডিয়া স্কুল এন্ড কলেজের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। গতকাল শনিবার সকালে প্রতিষ্ঠানের অডিটোরিয়ামে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে মেঘার হাতে সংবর্ধনা ক্রেস্ট তুলে দেন প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক ও  কলেজের অধ্যক্ষ ছামছুল আলম।


মেঘা ইতিপূর্বে একাদশ জাতীয় শিশু-কিশোর আদিবাসী ও অবহেলিত শিশু নাট্যোৎসব-২০১১ সালে প্রথম প্রত্যয়ণ পত্র পায়। প্রথম সনদপত্র পায় করতোয়া মাল্টিমিডিয়া স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা-২০১২ সালে নৃত্যে প্রথম স্থান অর্জন করে।


 ২০১৪ সালে জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা ‘ক’ শাখায় ভরত নাট্যম (উচ্চাঙ্গ নৃত্য) প্রথম ও কত্থক (উচ্চাঙ্গ নৃত্য) তৃতীয় স্থান। শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা-২০১৪, ভরত নাট্যম, (উচ্চাঙ্গ ) নৃত্যে দ্বিতীয় স্থান। বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা-২০১৫ লোক নৃত্যে প্রথম হয়।

 

বাংলাদেশ নৃত্য শিল্পী সংস্থা এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী আয়োজিত বগুড়া অঞ্চলের বাছাই পর্বে ‘ক’ শাখায়, ভরত নাট্যম (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে দ্বিতীয় স্থান, কত্থক (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে দ্বিতীয় স্থান, সাধারন নৃত্যে ৩য় স্থান, লোকনৃত্যে প্রথম স্থান অধিকার করে।

লায়ন্স ক্লাব অব বগুড়া করতোয়ার আয়োজনে ২০১৫ সালে নৃত্যে প্রথম স্থান অর্জন, জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা ২০১৫ সালে বগুড়া জেলা সৃজনশীল নৃত্যে দ্বিতীয় স্থান, কত্থক (উচ্চাঙ্গ) নৃত্য দ্বিতীয় স্থান, ভরত নাট্যম (উচ্চাঙ্গ) নৃত্য তৃতীয় স্থান অধিকার করে। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী আয়োজিত বগুড়া জেলা পর্যায়ে উচ্চাঙ্গ নৃত্যে প্রথম স্থান, সাধারন নৃত্যে তৃতীয় স্থান অর্জন।


 বাংলাদেশ টেলিভিশনের সুবর্ণ জয়ন্তীতে উপজেলা পর্যায়ে নৃত্যে (উচ্চাঙ্গ) ‘ক’ গ্রুপে প্রথম স্থান অধিকার। জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা-২০১৫ উপজেলা পর্যায়ে কত্থক (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে প্রথম স্থান, সাধারন নৃত্যে প্রথম স্থান, ভরত নাট্যম (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে প্রথম স্থান অধিকার করে। ব্র্যাক আয়োজিত চ্যানেল আই প্রচারিত ‘তারায় তারায় দ্বীপশিখা’ সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা-২০১৬ নৃত্য প্রতিযোগিতায় সারা দেশের মধ্যে চ্যাম্পিয়ন।

 

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী আয়োজিত-২০১৫ সালে দেশব্যাপী নৃত্য প্রতিযোগিতায় কত্থক (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে প্রথম স্থান অধিকার করে। বাংলাদেশ নৃত্যশিল্পী সংস্থা-২০১৬ সালে বগুড়া জেলা পর্যায়ে ‘খ’ শাখায় ভরত নাট্যম (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে, সৃজনশীল নৃত্যে, ও কত্থক (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে অংশগ্রহন করে বিজয়ী হয়।


 বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর আয়োজনে জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা-২০১৬ বগুড়া জেলা পর্যায়ে ভরত নাট্যম (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে দ্বিতীয় স্থান, লোক নৃত্যে তৃতীয় স্থান এবং কত্থক (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে প্রথম স্থান অর্জন করে। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা-২০১৬ সালে সাধারন নৃত্যে দ্বিতীয় স্থান এবং জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা-২০১৬ সালে ‘খ’ বিভাগে বগুড়া জেলা পর্যায়ে লোক নৃত্যে প্রথম স্থান, কত্থক (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে প্রথম স্থান, ভরত নাট্যম (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে প্রথম স্থান অর্জন করে।

 

জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা-২০১৬ সালে রাজশাহী অঞ্চল পর্যায়ে কত্থক (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে তৃতীয় স্থান অধিকার করে। বাংলাদেশ নৃত্যশিল্পী সংস্থা এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী আয়োজিত দেশব্যাপী বিষয় ও বয়স ভিত্তিক নৃত্য প্রতিযোগিতা-২০১৬ সালে ‘খ’ শাখায় কত্থক (উচ্চাঙ্গ) নৃত্যে ও সৃজনশীল নৃত্যে সারাদেশের ১০ জনের মধ্যে এক জন হওয়ার গৌরব অর্জন করে।


মেঘা বাংলাদেশ শিশু একাডেমী কর্তৃক আয়োজিত শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা-২০১৭ ভরত নাট্যম নৃত্যে অংশগ্রহণে ‘ক’ শাখায় সমগ্র দেশের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করে স্বর্ণপদকে ভূষিত হয়েছে। মেঘা গত ১৮ মে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের হাত থেকে স্বর্ণপদক গ্রহণ করেন। খবর বিজ্ঞপ্তির।

গোল্ড অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হচ্ছেন ববিতা

বিনোদন প্রতিবেদক : অসংখ্য অসাধারণ মানুষের অসামান্য অবদানে আমরা পেয়েছি গৌরবোজ্জ্বল বাংলাদেশ। তাদের এ অবদানের কারণে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে। সেই ঋণ স্বীকার ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশের অঙ্গীকারে এ বছর থেকে ওকে ওয়ার্ল্ড ও চ্যানেল আইয়ের পক্ষ থেকে প্রবর্তিত হচ্ছে ‘ওকে ওয়ার্ল্ড-চ্যানেল আই গোল্ড অ্যাওয়ার্ড’ অসাধারণত্বের সম্মাননা। এ উপলক্ষে আগামী ২০শে মে সন্ধ্যা ৭টা ৩০ মিনিটে গুলশান ২-এর ফোর পয়েন্ট বাই শেরাটন হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য চার অসাধারণজনকে শ্রদ্ধা জানানো হবে।


 এরা হচ্ছেন দেশের স্বাধীনতা, সাংবাদিকতা, শিল্প সংস্কৃতিতে অবিস্মরণীয় অবদানের জন্য মরহুম শাহাদত চৌধুরী, অসাধারণ অভিনয়ের কৃতিত্বে বিশ্ব চলচ্চিত্রের দরবারে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি এবং চলচ্চিত্রভূবনকে বিশেষ মর্যাদা দানের জন্য চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ববিতা, ক্রীড়াশিক্ষক হিসেবে বিশ্ব ক্রিকেট দরবারে বাংলাদেশের অসংখ্য বিশ্বসেরা ক্রিকেটার তৈরির অবদানে সৈয়দ আলতাফ হোসেন এবং স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের সহ-অধিনায়ক হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের তহবিল সংগ্রহের জন্য বিভিন্ন চ্যারিটি ফুটবল ম্যাচ আয়োজন করে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে আরো বেগবান করার মহান ভূমিকা পালনকারী আইনুল হককে কৃতজ্ঞতা প্রকাশের স্বরূপ হিসেবে এ সম্মাননা জানানো হবে।

এই বিশেষ সম্মাননা প্রসঙ্গে ববিতা বিবার্তাকে বলেন,‘ আমি ভীষণ খুশি যে চলচ্চিত্রে আমার অবদানকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দিয়ে আমাকে সম্মাননা করা হচ্ছে। এই সম্মাননার আলাদা গুরুত্ব আছে বলেই আমি বেশ আগ্রহ নিয়ে এই সম্মাননা গ্রহণ করছি। আমি সত্যিই খুব উচ্ছসিত, আনন্দিত এই সম্মাননা পাচ্ছি বলে।’

২৫ মে যুক্তরাষ্ট্রে আন্তর্জাতিক সম্মাননা পাচ্ছেন রুনা লায়লা

অভি মঈনুদ্দীন : আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা এর আগে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক অনেক সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন। এবার আবারো একটি আন্তর্জাতিক সম্মাননায় ভূষিত হতে যাচ্ছেন তিনি। তবে এবারের সম্মাননা বা পুরস্কারের বিষয়টি একটু ভিন্ন। যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ‘ব্যারিনু ইনস্টিটিউট ফর ইকোনোমিক ডেভেলপমেন্ট’ আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন বাংলাদেশের বিশিষ্ট কন্ঠশিল্পী রুনা লায়লাকে ’ডিস্টিনগুইশ সেলেব্রেটি লিজেন্ড অ্যাওয়ার্ড’-এর জন্য মনোনিত করেছে। বাংলায় যাকে বলা হচ্ছে ‘বিশিষ্ট তারকা কীর্তিমান পুরস্কার’।

 ‘ইন্সপায়ারিং ওম্যান ক্রিয়েটিভিটি এন্ড এন্টারপ্রেনারসিপ ইন দ্যা গ্লোবাল ইকোসিস্টেম’-শীর্ষক অনুষ্ঠানে আগামী ২৫ মে রুনা লায়লার হাতে সম্মানজনক এ পুরস্কার তুলে দেয়া হবে। সঙ্গীত, শিল্পচর্চা এবং নারী উন্নয়নের অনুপ্রেরণা হিসেবে তিনি এই সম্মাননা পাচ্ছেন। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অবস্থিত ট্রাম্প ওয়ার্ল্ড টাওয়ারে এক অনাড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে রুনা লায়লার হাতে এই পুরস্কার তুলে দেয়া হবে।। ইতোমধ্যে আয়োজক কর্তৃপক্ষ ইমেইলের মাধ্যমের রুনা লায়লাকে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহনের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।


 আয়োজক কর্তৃপক্ষ রুনা লায়লাকে জানান, ‘সংগীতে আজীবন অসাধারণ অবদান ও আপনার নিজের দেশ বাংলাদেশসহ এশিয়া ও বিশ্বব্যাপী নারীদের সৃজনশীলতা উন্নয়নে দৃষ্টান্তমূলক অবদানের জন্য আপনাকে এ পুরস্কারের জন্য মনোনিত করা হয়েছে।’ অনুষ্ঠানে শুধু সম্মাননাই গ্রহণ করছেন এমন নয়, অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবেও উপস্থিত থাকবেন রুনা লায়লা। রুনা লায়লা বলেন, ‘ পুরো বিষয়য়টিই আমার জন্য যেমন অনেক আনন্দের, গর্বের সেইসাথে একজন বাংলাদেশী হয়ে এমন একটি পুরস্কার লাভের বিষয়টি একজন বাংলাদেশী হিসেবে অনেক সম্মানেরও।


 নিশ্চয়ই একজন নারী হিসেবে এ সম্মাননা আমার কাছে বিশেষ গুরুত্ব বহন করে। যারা সম্মানা দিচ্ছেন তাদেরকেও অনেক শুভেচ্ছা। ’ গিনেজ বুকে স্থান পাওয়া রুনা লায়লা আঠারোটি ভাষায় গান গাইতে পারেন। বাংলাদেশ’সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে তিনি তিনশো’র বেশি পুরস্কার লাভ করেছেন।

যারমধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে বাংলাদেশের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, স্যায়গাল অ্যাওয়ার্ড অব ই-িয়া, নিগার অ্যাওয়ার্ড অব পাকিস্তান, কালাকার অ্যাওয়ার্ড, গ্র্যাজুয়েট অ্যাওয়ার্ড ইত্যাদি। ২০১৫ সালে রুনা লায়লা তার সঙ্গীত জীবনের পাঁচ দশক পূর্ণ করেছেন। ১৯৭৭ সালে আব্দুল লতিফ বাচ্চু পরিচালিত ‘যাদুর বাঁশি’ চলচ্চিত্রে প্লে-ব্যাক করার জন্য প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হন রুনা লায়লা। এরপর তিনি একই সম্মাননায় ভূষিত হন ‘এ্যাকসিডেন্ট’, ‘অন্তরে অন্তরে’, ‘তুমি আসবে বলে’, ‘দেবদাস’, ‘প্রিয়া তুমি সুখী হও’ চলচ্চিত্রে প্লে-ব্যাক’র জন্য।

উপস্থাপিকা থেকে নায়িকা

অভি মঈনুদ্দীন : নাম তার সানাই, এটি তার পারিবারিক নাম। বিশিষ্ট চলচ্চিত্র নির্মাতা গাজী মাহবুব তার নতুন নির্মিতব্য চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসা ২৪.৭’ এর নতুন নায়িকা। অনেকেই চলচ্চিত্রে এসে পারিবারিক নাম থেকে দূরে সরে যান। পরিচালক গাজী মাহবুব্রেও ইচ্ছে ছিলো সানাইয়ের নাম পরিবর্তন করে নতুন নাম রাখার।

 

কিন্তু সানাই তার পরিবারের নাম থেকে দূরে সরতে চাননি। যে কারণে গাজী মাহবুবের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই তিনি পারিবারিক নামেই চলচ্চিত্রের সাথে নিজেকে যুক্ত করছেন। এর আগে বিভিন্ন চ্যানেলে বেশকিছু অনুষ্ঠানের সানাই উপস্থাপনা করলেও এবারই প্রথম চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে যাচ্ছেন সানাই। ‘ভালোবাসা ২৪.৭’ চলচ্চিত্রের প্রধান নায়িকা স্টামফোর্ডে বিবিএ’তে অধ্যয়নরত সানাই। তার বিপরীতে আছেন জায়েদ খান।


 থাকবেন আরো একজন নায়ক। এমনটাই জানালেন গাজী মাহবুব। চলচ্চিত্রটির কাহিনী, চিত্রনাট্য লিখেছেন গাজী মাহবুব। সংলাপ রচনা করেছেন গাজী জাহাঙ্গীর। আজ সন্ধ্যা ছয়টায় মান্না ডিজিটাল মিলনায়তনে চলচ্চিত্রটির শুভ মহরত অনুষ্ঠিত হবে। মহরত অনুষ্ঠানে চলচ্চিত্রটির শিল্পী কলাকুশলীবৃন্দ’সহ চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অনেকেই। গাজী মাহবুব জানান তারই ফেসবুকের মাধ্যমে সানাইয়ের সঙ্গে তার পরিচয়।

 

ফেসবুকে ছবি দেখেই সানাইকে তার চলচ্চিত্রে নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন গাজী মাহবুব। আজ থেকে গাজী মাহবুবের হাত ধরে সানাইয়ের জীবনে নতুন এক অধ্যায়ের রচনা হতে যাচ্ছে। সানাই বলেন,‘ চলচ্চিত্রে কাজ করার স্বপ্ন ছিলো আমার। সেই স্বপ্নপূরণে হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন গাজী মাহবুব স্যার। আমি সত্যিই মুগ্ধ।


 তবে এটা সত্যি যে নিজের ভেতর অনেক চাপ অনুভব করছি। কারণ চলচ্চিত্রে অভিনয় খুব সহজ কোন কথা নয়, অনেক কঠিন কাজ। মাহবুব স্যার আমাকে দারুণভাবে সহযোগিতা করছেন। আমার বিশ্বাস আমি আমার চরিত্র যথাযথভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারবো।’ উল্লেখ্য গাজী মাহবুব পরিচালিত রিয়াজ শাবনূর অভিনীত ‘প্রেমের তাজমহল’ চলচ্চিত্রটি বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে মাইলফলক একটি চলচ্চিত্র। তার নির্মিত অন্য চলচ্চিত্রগুলো হচ্ছে ‘শিরী ফরহাদ’, ‘আমার পৃথিবী তুমি’, ‘রাজা সূর্য খাঁ’।

 

গাজী মাহবুবের নতুন চলচ্চিত্রের গীতিকার আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল, তানভীর তারেক, সুদীপ কুমার দীপ। সঙ্গীতায়োজন করবেন ইমন সাহা ও তানভীর তারেক। ‘ভালোবাসা ২৪.৭’ চলচ্চিত্রে আরো যারা অভিনয় করবেন তারা হচ্ছেন আনোয়ারা, সোহেল রানা, কাজী হায়াৎ, মিশা সওদাগর, রেসি প্রমুখ। আজ মহরতের পর আসছে রোজার মাঝামাঝিতে চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরু হবে বলে জানান গাজী মাহবুব। ছবি ঃ গোলাম সাব্বির।

একুশে টিভির অনুষ্ঠান প্রধান ফারহানা নিশো বরখাস্ত

বিনোদন রিপোর্টার : একুশে টেলিভিশন থেকে বরখাস্ত হলেন জনপ্রিয় মিডিয়ামুখ ফারহানা নিশো। একাধিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করে। সূত্র জানায়, গতকাল প্রতিষ্ঠানের মানবসম্পদ বিভাগ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি পাঠায় সকল বিভাগীয় প্রধানের কাছে। কোম্পানি সচিব ও মানব সম্পদ প্রধান মো. আতিকুর রহমানের স্বাক্ষরিত অফিসের নোটিশ বোর্ডে ঝুলিয়ে দেওয়া ঐ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এতদ্বারা সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, অনুষ্ঠান প্রধান জনাব ফারহানা শবনম নিশোকে কর্তৃপক্ষের আদেশক্রমে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

 

 এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে। তবে ঠিক কী কারণে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে সেটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ বিষয়ে ফারহানা নিশোর সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলার চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে টিভি চ্যানেলটির সিইও এবং প্রধান সম্পাদক মঞ্জুরুল আহসান বুলবুলের কাছে জানতে চাইলে তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমার কোনও মন্তব্য নেই। যিনি (মানব সম্পদ প্রধান মো. আতিকুর রহমান) ঐ বিজ্ঞপ্তি স্বাক্ষর করেছেন, তাকেই জিজ্ঞেস করুন। একুশে টেলিভিশনের মানব সম্পদ প্রধান মো. আতিকুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘দেখুন এটা আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এখানে অনেকেই আসবেন, অনেকেই চলে যাবেন- এটাই তো স্বাভাবিক। ফলে এই বিষয়টি আলাদা করে বাইরে শেয়ার করার কারণ নেই।’   

 

এদিকে, অনেক নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে গেল বছর (২০১৬) ফেব্রুয়ারিতে একুশে টেলিভিশনে যোগ দেন ফারহানা নিশো। তখনই তার যোগদান নিয়ে চ্যানেলকর্মীদের মধ্যে দ্বন্দ্ব তৈরি হয়, যা প্রাকাশ্যে চলে এসেছিল। প্রসঙ্গত, উপস্থাপক এবং সংবাদ পাঠিকা হিসেবে এখনও ভালোই জনপ্রিয় ফারহানা নিশো। পাশাপাশি চ্যানেল ওয়ান ও বৈশাখী টিভির করপোরেট অ্যাফেয়ার্স বিভাগের প্রধান হিসেবেও কাজ করেছেন দীর্ঘদিন। ২০০৩ সালে এনটিভিতে সংবাদ উপস্থাপক হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু হলেও মাঝে গ্রামীণফোনের টেকনিক্যাল ডিভিশন ও ওয়ারিদ টেলিকমে প্রোজেক্ট ম্যানেজমেন্ট বিভাগেও কাজ করেন বেশ কিছুদিন।

চার তারকা’র মা পেলেন ‘গরবিনী মা’ সম্মাননা

বিনোদন প্রতিবেদক : জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত চার শিল্পী ফাহমিদা নবী, সামিনা চৌধুরী, বিপাশা হায়াত ও চঞ্চল চৌধুরী মা’র হাতে বিশ্ব মা দিবসে ‘গরবিনী মা’ সম্মাননা তুলে দেয়া হলো। গত ১৪ মে বিশ্ব মা দিবসে রাজধানীর ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ অ্যা-  হাসপাতালের আয়োজনে এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্ত্তীর উদ্যোগে চতুর্থবারের মতো এই সম্মাননা মা’দের হাতে তুলে দেয়া হলো।

 

 মা দিবসে রাজধানীর মহাখালীর রাওয়া কনভেনশন হলে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর কাছ থেকে ফাহমিদা নবী ও সামিনা চৌধুরীর মা বেগম রাশিদা চৌধুরী, বিপাশা হায়াতের মা শিরীণ হায়াত এবং চঞ্চল চৌধুরীর মা নমিতা চৌধুরীর হাতে ‘গরবিনী মা’ সম্মাননা তুলে দেন।

 

এছাড়া বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফল আরো সাত সন্তানের মাকে এই সম্মাননা তুলে দেয়া হয়। নিজেদের মাকে এমন সম্মাননায় ভূষিত করা প্রসঙ্গে ফাহমিদা নবী বলেন,‘ যারা আমার সংগ্রামী মাকে এমন সম্মাননায় ভূষিত করেছেন তাদের প্রতি আমি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ। আজকের এই দিন, আমাদের পরিবারের কাছে অনেক স্মরনীয় একটি দিন হয়ে থাকবে।’ সামিনা চৌধুরী বলেন,‘ যদিও আমি আজ কিছুটা অসুস্থ কিন্তু তারপরেও যেহেতু আম্মা আজ আমাদের কারণে সম্মাননা পাচ্ছেন তাই শেষ পর্যন্ত ছুটে এলাম এই স্মরণীয় মুহুর্তে আম্মার পাশে থাকার।


 আমি শুধু একটি কথাই বলবো যে আমাদের ভাই বোনদের মধ্যে কেউ যদি কখনো আম্মার সঙ্গে একটু উচ্চস্বরে কথা বলে তা আমি মেনে নিতে পারিনা। আমার আম্মা আমাদের গর্ব, আমাদের বেঁচে থাকার প্রেরণা। আম্মা আপনি সবসময়ই ভালো থাকুন, সুস্থ খাকুন আল্লাহর কাছে এই তো চাই।’ বিপাশা হায়াত তার মা’র প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে অনেকটাই আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

 তিনি বলেন,‘ আমি শিল্পের পথে একজন যোদ্ধা, আমার মাই সেই যোদ্ধা হতে শিখিয়েছেন আমাকে। আমি আমার মাকে সর্বোচ্চ বিনয়ের সাথে গভীর শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা জানাই।’ অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী বলেন,‘ অভিনয় জীবনে আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকেও রাষ্ট্রীয় পুরস্কার পেয়েছি। অভিনয় জীবনে এটাই আমার কাছে সবচেয়ে স্মরনীয় মুহুর্ত। কিন্তু আমার সারা জীবনের জন্য স্মরনীয় মুহুর্ত হয়ে থাকলো আজকের দিনটি, কারণ আজ আমার কারণে আমার মা গরবিনী মা হিসেবে সম্মাননা পেলো। এ যে সন্তান হিসেবে কতোটা গর্বের, সুখের, শান্তির তা ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব না।’ ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

সেরাকণ্ঠের বাছাই শুরু ১৯ মে

‘ফিজআপ-চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ, সিজন-৬ পাওয়ার্ড বাই শরীফ কিচেন স্টার ১৯ মে শুক্রবার চট্টগ্রাম বিভাগের প্রাথমিক বাছাইয়ের মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে এবারের প্রতিযোগিতার কার্যক্রম। চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে যারা রেজিষ্ট্রেশন করেছেন এদিন সকাল ৯টায় তাদেরকে ইস্পাহানি পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ প্রাঙ্গণে উপস্থিত থাকতে হবে।  যারা ইতোমধ্যে রেজিষ্ট্রেশন করতে পারেননি তারা অডিশনের দিন রেজিষ্ট্রেশন করে অডিশনে অংশগ্রহন করতে পারবেন, প্রতিযোগীদের বয়সসীমা ১৪ বছর এর উপরে হতে হবে।


এবার ‘ফিজআপ-চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ, সিজন-৬ পাওয়ার্ড বাই শরীফ কিচেন স্টার -এর প্রধান বিচারক উপমহাদেশের কিংবদন্তি সঙ্গীতশিল্পী ওপার বাংলার মিতালী মুখার্জী, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, সামিনা চৌধুরী ও কুমার বিশ্বজিৎ। এ রিয়েলিটি শোটি উপস্থাপনা করবেন আরজে ও মডেল মারিয়া নূর।

সেরাকণ্ঠের বিচারক হিসেবে নির্বাচিত করায় চ্যানেল আইকে ধন্যবাদ জানিয়ে মিতালী মুখার্জী বলেন, ‘নাড়ির টানে প্রাণের ঢাকায় এসেছি, এই আসতে পেরে আমি খুবই খুশি’। সেরাকণ্ঠ পরিচালনা করবেন ক্ষুদে গানরাজের পরিচালক ইজাজ খান স্বপন। তিনি জানান, এবারের সেরাকণ্ঠের পুরোটাজুড়েই থাকবে বিশেষ চমক। দর্শকরা চমকটি দেখতে পারবেন চ্যানেল আইয়ের পর্দায়।  খবর বিজ্ঞপ্তির।

ঢাকার মঞ্চে ফেইড্রা

বিনোদন প্রতিবেদক : গত বছরের অক্টোবরে নয়াদিল্লীর ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামা’তে [এনএসডি] অনুষ্ঠিত ৯ম এশিয়ান প্যাসেফিক এপিবি নাট্যোৎসবে জ্যঁ রাসিন এর ফরাসি ধ্রুপদী নাটক ‘ফেইড্রা’র অসিত কুমার কৃত বাংলা অনুবাদ অবলম্বনে ‘সাঁঝবেলার বিলাপ’ প্রদর্শিত হয়েছিল। এশিয়ার ২০টিরও বেশি দেশের নাটকের মাঝে বিশেষভাবে প্রশংসিত হয়েছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের এই নাটকটি। আগামী ১৬, ১৭ ও ১৮ মে ঢাকায় প্রথমবারের মতো ‘সাঁঝবেলার বিলাপ’ মঞ্চস্থ হতে যাচ্ছে।


 বিভাগের নাট-ম-ল মিলনায়তনে প্রতি সন্ধ্যা ৭টায় নাটকটির প্রদর্শনী হবে। আর্ন্তজাতিক খ্যাতিসম্পন্ন নির্দেশক অধ্যাপক ড. ইসরাফিল শাহীন এর নির্দেশনায় নাটকটিতে অভিনয় করছেন থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের এমএ(শেষ বর্ষ) শিক্ষার্থীরা।  নাটকটি প্রসঙ্গে অধ্যাপক ড. ইসরাফিল শাহীন বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগ থেকে যখন একটি প্রযোজনা হয় তখন সেটি আর ¯্রফে একটি প্রযোজনারূপেই থাকে না। ‘সাঁঝবেলার বিলাপ’ প্রযোজনাটি থিয়েটারের শিক্ষণপ্রণালীর ফলাফলরূপে নির্মিত। আমার মনে হয়, পেডাগজি বা শিক্ষণপ্রণালী কেবল কিছু নিয়মবদ্ধ নীতিমালা বা পদ্ধতি মাত্র নয়। শিক্ষা পদ্ধতি বলতে সাধারণত যা বোঝায়, শিল্পের শিক্ষণপ্রণালী তার চেয়েও বেশি কিছু।


 আর জ্যঁ রাসিনের ‘ফেইড্রা’ নাটকটিতে ফরাসি ধ্রুপদীবাদের মৌল নীতিগুলোর প্রতিফলন খুবই স্পষ্ট। কিন্তু রাসিনের এই মাস্টারপিসের প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা রেখেই আমরা এক নতুন প্রস্থান বিন্দুর সূচনা করতে চেয়েছি।’ এক ঘন্টা ব্যাপ্তিকালের নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইলিয়াস বাসেত, আফরিন তোড়া, ইসতিয়াক খান পাঠান, ধীমান চন্দ্রবর্মন, রানা নাসির, সাওগাতুল ইসলাম হিমেল এবং সাফওয়ান মাহমুদ।

 ড্রামাতুর্গ ও নাট্যকথন ও গীতরচনায় শাহমান মৈশান; মঞ্চ, আলো ও দ্রব্য পরিকল্পনায় আশিক রহমান লিয়ন; পোশাক পরিকল্পনায় ওয়াহীদা মল্লিক, আশিক রহমান লিয়ন, কাজী তামান্না হক সিগমা; রূপসজ্জা পরিকল্পনায় রহমত আলী; সংগীত পরিকল্পনা ও প্রয়োগে সাইদুর রহমান লিপন, কাজী তামান্না হক সিগমা এবং দেহবিন্যাসে অমিত চোধুরী। উল্লেখ্য, গত বছরের অক্টোবরে নয়াদিল্লীর ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামা’তে  যাওয়র আগে শুধুমাত্র সাংবাদিকদের জন্য ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় টিএসসি ৩য় তলায় সেমিনার কক্ষে নাটকটির বিশেষ একটি প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

চিত্রনায়িকা মাহির বিরুদ্ধে অভিযোগ

বিনোদন প্রতিবেদক : সময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন প্রযোজক তাপসী ঠাকুর। এ ব্যাপারে গত ১০ মে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি বরাবর একটি চিঠিও দিয়েছেন তিনি। অতিরিক্ত পারিশ্রমিক দাবি, শিডিউল না দেয়া প্রভৃতি অভিযোগের উল্লেখ রয়েছে সেখানে।প্রযোজক তাপসী ঠাকুরের দাবি, মাহির ‘খামখেয়ালিপনা’র জন্য ‘মনে রেখো’ ছবিটির কাজ শেষ হচ্ছে না।

 

এ ছাড়া ছবির চুক্তিবদ্ধ টেকনিশিয়ানদের ব্যাপারে মাহির আপত্তির কথাও বলেছেন। পাশাপাশি তিনি অতিরিক্ত পারিশ্রমিক, ভারতীয় টেকনিশিয়ান নেয়া, বিদেশে গানের শুটিং করাসহ বিভিন্ন আবদার করছেন। অচিরেই সুরাহা না হলে এই নায়িকার বিরুদ্ধে উকিল নোটিশ পাঠানো হতে পারে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।


এ প্রসঙ্গে মাহি বলেন, আগে উকিল নোটিশ আসুক, তারপর দেখা যাবে। সত্যি বলতে আমার বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ তোলা হয়েছে, তা ঠিক নয়। ঈদের ছবি হিসেবে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে ‘মনে রেখো’র কাজ শুরু করেছিলাম। কিন্তু যেভাবে কাজ হওয়ার কথা ছিলো, তা করা হয়নি। একটি ছবির কাজ সর্বোচ্চ ২৫দিন লাগতে পারে। সেখানে আমি ইতিমধ্যে ৪৫ দিন শিডিউল দিয়েছি।

 

 এখনও নাকি ১৫দিন সময় দিতে হবে! পারিশ্রমিক বেশি দাবি করার পক্ষে যুক্তি হিসেবে মাহি বলেন, ৬ ও ৭ মে তারা শিডিউল চেয়েছিলেন। কিন্তু আগে থেকেই আমি এই দুটি তারিখে স্টেজ পারফরমেন্সের জন্য বুকড ছিলাম। অ্যাডভান্সও নিয়েছিলাম। ‘মনে রেখো’ টিমকে বলেছিলাম যদি তাদেরকে সময় দিতে হয় তাহলে অ্যাডভান্সটা ফেরত দিন। তারা রাজি হয়নি। এর পরপরই আমার অন্য ছবিগুলোর শিডিউল দেয়া। আমি কিভাবে সময় দেবো?

মিস যুক্তরাষ্ট্র হলেন কারা মেকালখ

বিনোদন ডেস্ক : মিস যুক্তরাষ্ট্র হয়েছেন কারা মেকালখ নামে এক আফ্রিকান-আমেরিকান। রবিবার নেভাদার লাস ভেগাসে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় ২৫ বছর বয়সী এই শ্যামা সুন্দরীকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। তিনি এবার মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগিতায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিত্ব করবেন। এএফপির খবরে বলা হয়েছে, কারার জন্ম ইতালিতে। তিনি পরিবারের সঙ্গে জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া ও হাওয়াইতে বাস করেছেন। তার বেড়ে ওঠা যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায়। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নিউক্লিয়ার রেগুলেটরি কমিশনে রসায়নবিদ হিসেবে কর্মরত আছেন।

প্রতিযোগিতার মঞ্চে কারা মেকালখ বলেন, ‘আমরা পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নিয়ন্ত্রণ করি। এ ছাড়া শিশুদের জন্য ব্যক্তিগত উদ্যোগে কমিউনিটিভিত্তিক বিজ্ঞানচর্চার সঙ্গে আমি যুক্ত। মিস যুক্তরাষ্ট্র হিসেবে আমি শিশু ও নারীদের বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, প্রকৌশল ও গণিতশাস্ত্রের মতো ক্ষেত্রগুলোতে যুক্ত হওয়ার ব্যাপারে সাহস ও অনুপ্রেরণা জোগাতে চাই। এবারের প্রতিযোগিতায় বৈচিত্র্য ও বহুত্ববাদের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়। এর প্রকাশ দেখা গেছে বিজয়ী নির্বাচনেও। প্রথম রানারআপ হয়েছেন ছবি ভার্গ। তার জন্ম ভারতে। তিনি ইংরেজির পাশাপাশি হিন্দি ও স্প্যানিশ ভাষায় কথা বলতে পারেন।

আমি সেই ধর্ষিতা নই : রাহা তানহা খান

বিনোদন রিপোর্টার : রাহা তানহা খান। মডেলিং, টিভি ও চলচ্চিত্রের ব্যস্ত অভিনয়শিল্পী। এদিকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে রটেছে, সম্প্রতি বনানীতে ঘটে যাওয়া দুই তরুণীকে ধর্ষণের যে ঘটনা ঘটেছে, তার মধ্যে একজন তিনি। ধর্ষক নাঈম আশরাফের সঙ্গে সেলফির কারণে তা আরও পোক্ত হয়েছে। কিন্তু আসল ঘটনা কী? তা জানতে রাহা তানহা খানের সঙ্গে কথা হয়। শোনা যাচ্ছে, ধর্ষিত দুই তরুণীর একজন আপনি। মিথ্যা কথা। পত্রিকাসহ সব জায়গায় যে তথ্য আছে, তাতে ধর্ষিত দুই তরুণীর পরিচয় বিস্তারিত আছে।

 

 সেই দুজন মধ্যে আমি যে নাই, তার প্রমাণ আছে। আমি সেই ধর্ষিতা নই। তবে কেন এই কথা ছড়াচ্ছে, বুঝতে পারছি না। ধর্ষক নাঈম আশরাফের সঙ্গে আপনার একটি সেলফি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। নেহা কাক্করের একটি গানের প্রোগ্রামে পারফর্ম করার ব্যাপারে আলোচনার জন্য তিনি আমাকে বনানীর একটি রেষ্টুরেন্টে ডেকেছিলেন। তাও অনেক আগে। আমি সে সময় তাকে নিষেধ করে দিয়েছিলাম।

 

তখন সে এই সেলফিটি নিয়েছিলেন। আমরা মিডিয়ার মানুষ। নানা জনের সঙ্গে আমাদের সেলফি রয়েছে। সেখানে নাঈম তো একজন মিডিয়ার লোক। তার সঙ্গে সেলফি তোলায় অন্যায়টা কোথায় বুঝলাম না! কথাটা যে ছড়াচ্ছে, কখন জনতে পারলেন? জেনেছি আগেই। তবে পাত্তা দেইনি। পরে কাছের মানুষদের কাছ থেকে  ঘন ঘন ফোন আর এসএমএস পেয়ে ব্যাপারটি সিরিয়াসলি নিয়েছি। কারা ছড়িয়েছে, জানতে পেরেছেন?


ফেসবুকে একটা মহিলার ছবি সম্বলিত একটা অ্যাকাউন্ট থেকে আমার সঙ্গে নাঈম আশরাফের ছবিটা ছড়িয়েছে। সেলফি ছড়ানোর বিরুদ্ধে কোনো আইনী ব্যবস্থা নিচ্ছেন? সেই অ্যাকাউন্টের বিস্তারিত সংগ্রহ করছি। সব তথ্য পেলে তারপর আইনী ব্যবস্থার আশ্রয় নেব। একটা ভুয়া খবর আমার ক্যারিয়ারে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে, এটা আমি হতে দেব না।  কেন মনে হচ্ছে এ ঘটনা আপনার ক্যারিয়ার ধ্বংস করবে? ঠিক এটা মনে না করলেও নেতিবাচক প্রভাব তো পড়বেই। সেটা কীভাবে আমি মেনে নেব! সবাই তো আসল ঘটনা জানছে না।

 

শুনলাম, চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন? আমি প্রথমে একটি মিউজিক্যাল মুভিতে অভিনয় করেছি। নাম ‘সারাংশে তুমি’। কুমার বিশ্বজিতের ৮টি গান দিয়ে সাজানো হয়েছিল এই মিউজিক্যাল মুভি। এটি পরিচালনা করেছেন আশিকুর রহমান। আমার বিপরীতে ছিলেন অন্তু করিম।

 

এছাড়া আরও একটি ছবির কাজ শেষ করেছি। নাম ‘অভয় দ্য সাইক্লোন’। এছাড়া ‘রূপ’ নামের আরও একটি ছবিতে কাজ কাজ করব। এছাড়া আরও দুটি ছবিতে অভিনয় করব। কিন্তু এই মুহুর্তে এর বেশি কিছু বলতে পারছি না। নতুন কোনো মিউজিক ভিডিওর কাজ করেছেন ? না। ছবির শুটিংয়ের কারণে মিউজিক ভিডিওতে কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না।

এবার চট্টগ্রামে আইয়ূব বাচ্চুর একক গীটার শো

বিনোদন রিপোর্টার : গীটারের জাদুকর এলআরবি আইয়ূব বাচ্চু’র একক গীটার শো ঢাকার পর এবার ২০ মে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চট্টগ্রামের র‌্যাডিসন ব্লু-তে। রবি, এয়ারটেল ও ইয়োন্ডা মিউজিকের পৃষ্ঠপোষকতায় গীটার শো ‘নাউ অ্যান্ড দেন’ এর আয়োজন করছে এবি কিচেন, ডিজে প্রো এবং উইর্জাড-শো বিজ। এ কনসার্টে শুধুমাত্র গীটারের যন্ত্রসঙ্গীত পরিবেশন করবেন আইয়ূব বাচ্চু।

এ উপলক্ষে চ্যানেল আই ভবনে এর বিস্তারিত জানাতে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চ্যানেল আই এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, এলআরবি আইয়ূব বাচ্চু, মাহবুবুল আলম ভুঁইয়া (ভাইস প্রেসিডেন্ট, বিজনেস অপারেশন, রবি) ও ইয়োন্ডা মিউজিক বাংলাদেশের ক্রান্টি ডিরেক্টর ইমরুল করিম।


 এ সম্পর্কে আইয়ূব বাচ্চু বলেন, আমাদের দেশে এমন কনসার্ট খুব একটা হয় না। তবে দেশের বাইরে এ ধরনের কনসার্টের প্রচলন রয়েছে। সাউন্ড অব সাইলেন্স কনসার্টের মাধ্যমে আমি সলো গীটার শো’র সূচনা করেছিলাম। ভক্তদের অনুরোধে আমি এবার চট্টগ্রামে আমার জন্মভূতি গীটার শো করতে যাচ্ছি। আমার কাছে ৪৮টি বিশ্বের সেরা গীটার রয়েছে। আরো দুটি গীটার সংগ্রহ করবো।

 

আমার একটি গীটার প্রদর্শনী করার ইচ্ছে রয়েছে, যেখানে তরুণরা অংশ নিয়ে গীটার জেতার সুযোগ পাবে। কনসার্ট উপলক্ষে একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে এ কনসার্টের স্পন্সর কোম্পনাীগুলো। বিজয়ী ২০জন পাবেন ফ্রি টিকেট এবং ৩ জন পাবেন আইয়ূব বাচ্চুর সাথে ‘চলো বদলে যাই’ গানে অংশ নেয়ার সুযোগ। টিকেট পাওয়া যাবে-

চলচ্চিত্র জীবনে পূর্ণিমা’র দুই দশকে পদার্পণ

অভি মঈনুদ্দীন : পূর্ণিমা তখন নবম শ্রেণির ছাত্রী, সেই সময়েই পরিচালক জাকির হোসেন রাজুর এবং প্রযোজক মতিউর রহমান পানুর নায়িকা হিসেবে পছন্দ হয় পূর্ণিমাকে। রাজু’র নির্মিত সালমান শাহ ও শাবনূরকে নিয়ে ‘জীবন সংসার’ তখর সুপারহিট। রাজু নতুন চলচ্চিত্র নির্মাণ করবেন। কিন্তু রিয়াজের বিপরীতে চান নতুন নায়িকা। সেই হিসেবেই পেয়ে গেলেন পূর্ণিমাকে।

 

নির্মিত হলো রিয়াজ ও পূর্ণিমাকে নিয়ে ‘এ জীবন তোমার আমার’। মুক্তি পায় ১৯৯৮ সালের ১৫ মে। চলচ্চিত্রটি মুক্তির হিসেবে আজ চলচ্চিত্র জীবনের দীর্ঘ পথচলায় পূর্ণিমা দুই দশকে পা রাখলেন। আজকের বিশেষ এই দিনে পূর্ণিমারও পরিকল্পনা ছিলো একটি অনুষ্ঠান করার। কিন্তু আজ বিকেলের ফ্লাইটেই তিনি আমেরিকা চলে যাচ্ছেন।


 ফিরবেন একমাসেরও বেশি সময় পর। চলচ্চিত্র জীবনের সফল পথচলা প্রসঙ্গে পূর্ণিমা বলেন,‘শুরুতেই মহান আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞতা। সেই সাথে আমার মায়ের কথা বলতেই হয়, কারণ তিনি আমাকে উৎসাহ না দিলে চলচ্চিত্রে কাজ করা হয়ে উঠতো না। সাংবাদিক শামীম আহমেদ ভাই’র প্রতিও কৃতজ্ঞতা। কারণ তারসঙ্গেই মূলত আম্মার পরিচয় ছিলো। পরিচয়ের সইে সূত্র ধরেই রাজু ভাইয়ের আমাকে খুঁজে বের করা।

 

আমি কৃতজ্ঞ রাজু ভাই, পানু ভাই’র প্রতি। সেই সাথে আমার প্রথম চলচ্চিত্রের নায়ক রিয়াজ’সহ রুবেল ভাই, ফেরদৌস, শাকিব খান, প্রয়াত মান্না ভাই, আমিন ভাই’র প্রতি শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা। পরম শ্রদ্ধা পরিচালক চাষী নজরুল ইসলাম, এফ আই মানিক, মনতাজুর রহমান আকবর, মুশফিকুর রহমান গুলজার, বদিউল আলসম খোকন, সাংবাদিক আওলাদ ভাই, ইমরুল শাহেদ ভাই’র প্রতিও।  সর্বোপরি আমার ভক্তদের প্রতিও অসংখ্য ভালোবাসা।


 কারণ তাদের ভালোবাসাই আামাকে আজকের পূর্ণিমায় পরিণত করেছে।’ চলচ্চিত্রে সম্পৃক্ত হবার আগে পূর্ণিমা সালাহ উদ্দিন লাভলুর নির্দেশনায় ‘কসকো’র একটি বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছিলেন। পূর্ণিমা প্রসঙ্গে তার প্রথম চলচ্চিত্রের নায়ক রিয়াজ বলেন,‘ পূর্ণিমা খুব ভালো একজন অভিনেত্রী। প্রথম চলচ্চিত্রের পরও আমরা একসঙ্গে বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছি। একজন নায়িকা ও অভিনেত্রীর মধ্যে যে ধরনের গুনাবলী থাকাটা জরুরী তার সবগুলো গুণই আছে পূর্ণিমার। তার জন্য সবসময়ই শুভ কামনা।

 

পূর্ণিমার প্রথম চলচ্চিত্রের পরিচালক জাকির হোসেন রাজু বলেন,‘ আমার চোখে পূর্ণিমা পূর্ণিমাই। দেখতে দেখতে এতোটা সময় পেরিয়ে গেছে ভাবাই যায়না। পূর্ণিমা ভালো আছে, ভালো থাকুক এই দোয়া সবসময়।’ কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘ওরা আমাকে ভালো হতে দিলো না’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য পূর্ণিমা পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এই চলচ্চিত্রটি’সহ তার নিজের অভিনীত ভালোলাগার চলচ্চিত্র হচ্ছে  ‘এ জীবন তোমার আমার’,‘মনের মাঝে তুমি’, ‘হৃদয়ের কথা’,‘ আকাশ ছোঁয়া ভালোবাসা’,‘শাস্তি’,‘সুভা’,‘মা আমার স্বর্গ’। ছবি ঃ গোলাম সাব্বির।

শাকিরার নতুন চমক

বিনোদন ডেস্ক : দীর্ঘ সময় পর আবারও অ্যালবাম নিয়ে ভক্তদের মাঝে ফিরছেন জনপ্রিয় পপ গায়িকা শাকিরা। তার এই নতুন অ্যালবামের নাম ‘এল ডোরাডো’। অ্যালবামটির মুক্তির তারিখও ঘোষণা করেছেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রয়েছে শাকিরার অসংখ্য অনুরাগী।

তাদের উদ্দেশ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নতুন অ্যালবামের কভারটির ছবি পোস্ট করেছেন ৪০ বছর বয়সী এই কলাম্বিয়ান গায়িকা। ছবিটির সঙ্গে শাকিরা লিখেছেন, আনন্দের সঙ্গে আমার নতুন অ্যালবামের ঘোষণা দিতে যাচ্ছি। আগামী ২৬শে মে আসছে আমার নতুন গানের অ্যালবাম ‘এল ডোরাডো’। উল্লেখ্য, এটি শাকিরার ১১ তম গানের অ্যালবাম। ২০১০ সালে ফুটবল বিশ্বকাপের থিম সং গেয়েছিলেন তিনি। তারপর থেকেই তার জনপ্রিয়তা আকাশ ছুঁয়ে যায়।

মায়ের ভালোবাসার মাঝেই বাবাকে খুঁজে পান শাবনাজ-মৌ

অভি মঈনুদ্দীন : আজ বিশ্ব মা দিবস। তবে বিশ্বের অন্যান্য বেশ ক’টি দেশের মতো আমাদের দেশেও আজ মা দিবস উদ্যাপিত হবে। আঞ্জুমান নাহার, বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের দর্শকনন্দিত নায়িকা শাবনাজ এবং ছোট পর্দার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী তাহমিনা সুলতানা মৌ’র গর্বিত মা। তাদের আরেক বোনের নাম সোনিয়া। তবে তিনি মিডিয়ার সাথে সম্পৃক্ত নন। সাধারণ একজন গৃহিনী তিনি।

 

 দুই বোনের মিডিয়ার সাফল্যে তিনিও গর্বিত একজন তাদের মায়েরই মতোন। শুধু আজ বিশ্ব মা দিবস বলেই যে শাবনাজ-মৌ তাদের মায়ের একটু বেশি খোঁজ খবর নিবেন, তা নয়। শাবনাজ, সোনিয়া, মৌ প্রতিদিনই তাদের মায়ের খোঁজ খবর নিয়ে থাকেন নিয়মিত।

 

যে কারণে তাদের কাছে মা দিবসের বিশেষ গুরুত্ব নেই। মা’র প্রতি ভালোবাসা লোক দেখানো কিছু নয়, ঠিক তেমনি মাকে ভালোবাসার জন্য বিশেষ কোন দিবসেরও প্রয়োজন হয়না। তাই মায়ের প্রতি ভালোবাসা তাদের সবসময়ই আছে, থাকবে। শাবনাজ, মৌ তাদের বাবা এস এম হুমায়ূনকে হারিয়েছেন ২০১০’র ২৩ ফেব্রুয়ারি। এরপর থেকে মায়ের মাঝেই যেন তারা তাদের হারিয়ে যাওয়া বাবাকে খুঁজে বেড়ান।


 কারণ তারা তাদের বাবাকে হারিয়েছেন সত্যি, কিন্তু কখনোই মাকে একটুও অন্য মনস্ক হতে দেন না তারা। মাকে নিয়ে শাবনাজ বলেন,‘ আমার আম্মা খুব ঠান্ডা প্রকৃতির একজন মানুষ। আমার বাবা যে সময়টাতে রাজ্যের যতো কাজ নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন সেই সময়টাতে মা সংসার এবং আমাদের তিন বোনকে আগলে রেখেছেন, মানুষ করেছেন। আমি এসএসসি দেয়া পর্যন্ত আম্মা আমাকে স্কুলে নিয়ে গেছেন।

 

 আমাকে মানুষের মতো মানুষ করে তোলার জন্য আম্মার অনুপ্রেরণা ছিলো অনেক। আমি সবসময়ই মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি যেন আল্লাহ আমাদের পাশে আমাদের আম্মাকে সুস্থ রাখেন, ভালো রাখেন। যেন প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠেই যেন আম্মার সাথে কথা বলতে পারি। জীবনে এরচেয়ে বড় পাওয়া আর কী ই বা হতে পারে যে আমার আম্মা বেঁচে আছেন এবং আমি তাকে আম্মা বলে ডাকতে পারছি, তিনি সেই ডাকে সাড়া দিচ্ছেন।

 

 ’ আঞ্জুমান আরার ছোট কন্যা মৌ বলেন,‘ আম্মাই আসলে আমার পৃথিবী, আমি ছোট মেয়ে বলে আম্মাকে আমার বাসাতেই রাখার জোরালে দাবীটা আমার বেশি। আমি সবসময়ই চাই, আম্মা যেন আমার পাশেই থাকে। আম্মা আমার পাশে থাকা যেন আমার অনেক শক্তি, সাহসেরও বিষয়। আল্লাহ যেন আমার আম্মাকে সুস্থ রাখেন, শুধু এতোটুকুই চাই। এটা সত্য যে আব্বাকে খুব মিস করি। আল্লাহ যেন আব্বাকে বেহেস্ত নসীব করেন।’ ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

মা-ই আমার শ্রেষ্ঠ বন্ধু’ -দিলরুবা সাথী

বিনোদন প্রতিবেদক : এই সময়ের নন্দিত উপস্থাপক দিলরুবা সাথী। বিশ্ব মা দিবসে তিনিও তার অফিসিয়াল কাজের ব্যস্ততার পর ছুটে যাবেন তার নিজ গৃহে। সেখানেই তিনি মায়ের সঙ্গে সময় কাটাবেন অন্যান্য দিনেরই মতো। তবে আজ যেহেতু মা দিবস, তাই মা’কে নিয়ে বিশেষ কিছু কথা বলেছেন সাথী।

রাজবাড়ির মেয়ে সাথীর মা ফাতেমা পারভীন বকুল। বকুলের একমাত্র সন্তানই সাথী। তাই ছোটবেলা থেকেই বেশ আদরে আদরে বড় হয়েছেন, বেড়ে উঠেছেন সাথী। স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের গন্ডি পেরিয়ে সাথী এখন পুরোদস্তুর ব্যস্ত উপস্থাপনায়-তার পেশাগত কাজে।


পথ চলতে গিয়ে সাথী এমন প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছেন অনেকবার যে আপনার শ্রেষ্ঠ বন্ধু কে? সাথীর সবসময়ই একইরকম উত্তর ছিলো এমন যে , ‘আমার শ্রেষ্ঠ বন্ধু আমার মা।’ সত্যিই তাই, একজন নারীর কাছে প্রথমত তার শ্রেষ্ঠ বন্ধুতো তার মা-ই। তারপর না হয় অন্যকেউ। সাথী বলেন,‘ আমার মা আমাকে একজন নারী হতে শিখিয়েছেন, আমার মা আমাকে সত্যিকারের একজন মানুষ হেত শিখিয়েছেন।

 আমার জীবনে মায়ের ভূমিকা কী তা আসলে ব্যাখ্যা করে বুঝানোর মতো নয়। শুধু এতোটুকুই বলবো , আমার মা আমাকে আগলে রেখেছেন, ভালোবেসেছেন, আদর করেছেন। সব মাই তা করেন জানি। কিন্তু কেন যেন মনে হয় আমার মা একটু বেশি বেশিই করেছেন। আজ বিশ্ব মা দিবসে পৃথিবীর সকল মা’র প্রতি আমার অনেক শ্রদ্ধা, ভালোবাসা। পৃথিবীর সকল মা ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।’ ছবি ঃ আলিফ হোসেন রিফাত

দেখা হবে প্রতি মাসে…

বিনোদন প্রতিবেদক : ছোটপর্দায় যারা অভিনয় করেন বিশেষ দিবস বা বিশেষ কোন উপলক্ষ ছাড়া একে অন্যের সঙ্গে সাধারণত সময় সুযোগ করে দেখা করা যেন কঠিনই হয়ে পড়ে। শুধু তাদেরই একে অন্যের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ হয়ে উঠে যারা একসঙ্গে কাজ করেন। বিষয়টিকে উপলদ্ধি করে অভিনেত্রী তাহমিনা সুলতানা মৌ’র উদ্যোগে এক ব্যতিক্রমধর্মী গেট-টুগেদারের আয়োজন করা হয়েছে।

 

এটি কোন সংগঠন বা কারো শুধুমাত্র একার উদ্যোগ নয়। মৌ’র পরিকল্পনা থেকেই এমন কিছু করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। এখন থেকে ছোটপর্দার অভিনয়শিল্পীরা প্রতিমাসের যে কোন একটি সুবিধামতো দিনে নির্দিষ্ট একটি সময়ে নিজেদের মতো সময় কাটাবেন। এই আড্ডার বিশেষ কোন উদ্দেশ্য নেই। শুধু নিজেদের মতো করে সময় কাটানোই হচ্ছে এমন পরিকল্পনা করা।


 মৌ’র আহ্বানে প্রথমবারের মতো এমন আড্ডায় অংশগ্রহণ করতে গত ১১ মে বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর নিকুঞ্জতে অবস্থিত নতুন রেস্টুরেন্ট ‘লা গ্রাসিয়া’তে উপস্থিত হয়েছিলেন বেশ ক’জন তারকা। যারা উপস্থি হয়েছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছেন নাট্যাঙ্গনের সিনিয়র তারকা দম্পতি রহমত আলী-ওয়াহিদা মল্লিক জলি, চিত্রনায়িকা শাবনাজ, অভিনেত্রী সাবেরী আলম,

নির্মাতা রায়হান খান ও তার স্ত্রী অভিইেত্রী নোভা, তারকা দম্পতি শাহেদ আলী-দীপা খন্দকার, শারমিন শিলা, হিল্লোল, লাক্স তারকাভিনেত্রী শানারেই দেবী শানু, ওয়াইবিসিএফ’র সেক্রেটারী কমল চৌধুরী ও তার স্ত্রী মুনা চৌধুরী, অভিনেত্রী মাসুদা বিজলী, নৃত্যশিল্পী ও অভিনেত্রী নমিরা’সহ আরো বেশ ক’জন। মৌ’র আহ্বানে তারকারা বেশ আন্তরিকতা নিয়েই এমন ঘরোয়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছিলেন। মৌ বলেন,‘ আমি কৃতজ্ঞ যারা আমানর আহ্বানে আমার পরিকল্পনাকে সাড়া দিয়ে লা গ্রাসিয়াতে উপস্থিত হয়েছিলেন।


আমরা এখন থেকে প্রতি মাসেই এই লা গ্রাসিয়া’তেই নিজেদের মতো আড্ডায় মেতে উঠবো। কারণ এখানে পরিবশেটা খুব চমৎকার এবং খাবার দাবারও খুব ভালো। শিগগিরই আমরা আমাদের পরবর্তী সিডিউল সবাইকে জানিয়ে দেবো।’ ১১ মে অনেকেরই শুটিং থাকায় প্রথম আড্ডায় অনেকেই অংশগ্রহণ করতে পারেনি। তবে পরবর্তী আড্ডায় অনেক তারকাই অংশ্রগ্রহণ করবেন বলে জানালেন অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তা তাহমিনা সুলতানা মৌ।

আজ গানের উৎসব-এ সুধীন দাসের নাতনি ঐশী

বিনোদন প্রতিবেদক : চ্যানেল আইর এর সাপ্তাাহিক গানের অনুষ্ঠান ‘গানের উৎসব সরাসরি’র আজকের পর্বে অংশ নিচ্ছেন বাপ্পা মজুমদার। এ পর্বটি সাজানো প্রখ্যাত সঙ্গীতজ্ঞ সুধীন দাসের স্বর্গী ছেলে নিলয় দাস স্মরণে। বাপ্পার সঙ্গে উপস্থিত থাকবেন নিলয় দাসের ভাগনী ঐশী।

অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করবেন মৌসুমী বড়–য়া। পরিচালনা করবেন অনন্যা রুমা। চ্যানেল আই স্টুডিও থেকে সরাসরি সম্প্রচার হবে আজ মা দিবসের বিকেল ২.৪০ মিনিট থেকে।  এরইমধ্যে অনুষ্ঠানে গান গাওয়ার জন্য মামার গানগুলো করার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছেন ঐশী। আজ সরাসরি দর্শকের জন্য গানগুলো গাইবেন তিনি। ঐশীর গানগুলো শ্রোতাদের মাঝে হারিয়ে যাওয়া নিলয়কে খুঁজে পাবেন সবাই।

কাল জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়ের মুখোমুখি হবেন চঞ্চল

অভি মঈনুদ্দীন : পাবনার সুজানগর থানার কামারহাট গ্রামের সন্তান জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। মঞ্চে, টেলিভিশনে এবং চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার’সহ আরো বিভিন্ন সংগঠন এবং প্রতিষ্ঠান থেকে বহুবার পুরস্কৃত হয়েছেন।

 

কিন্তু এবার তার জীবনের সেরা মুহুর্তের মুখোমুখি হবার অপেক্ষায় আছেন তিনি। এবারই প্রথম তার মা নমিতা চৌধুরী একজন শ্রেষ্ঠ মা হিসেবে ‘গরবিনী মা’ সম্মাননা পেতে যাচ্ছেন। রাজধানীর মহাখালীতে অবস্থিত ‘ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ অ্যা- হসপিটাল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্ত্তীর প্রধান উদ্যোগে এই নিয়ে চতুর্থবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বিশ্ব মা দিবস উপলক্ষ্যে ‘গরবিনী মা সম্মাননা’। বাংলাদেশের নাটকে এবং চলচ্চিত্রে বিশেষ অবদানের ক্ষেত্রে অভিনয় জগতে চঞ্চল চৌধুরী এক শ্রদ্ধার নাম। আর এ কারণেই তার মা নমিতা চৌধুরীকে ‘গরবিনী মা সম্মানা’য় ভূষিত করা হচ্ছে।


আগামীকাল দুপুর দুইটায় রাজধানীর রাওয়া কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রধান অতিথি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর কাছ থেকে সম্মাননা গ্রহণ করবেন নমিতা চৌধুরী। নিজের কাজের সাফল্যের জন্য মাকে সম্মাননা দেবার বিষয়টি প্রসঙ্গে চঞ্চল চৌধুরী বলেন,‘ অভিনয় করে আমি জীবনে অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছি। যতোবারই পুরস্কার হাতে নিতে গিয়েছি ততোবারই আমার মা-বাবার কথা মনে পড়েছে।

 

কারণ তাদের কারণেই আমি এই সুন্দর পৃথিবীর মুখ দেখতে পেরেছি। এমন মায়ের গর্ভে আমার জন্ম হয়েছে বলেই আমি চঞ্চল চৌধুরী হতে পেরেছি। তাই আমার সাফল্যে আমার মা’র হাতে যে সম্মানা তুলে দেয়া হচ্ছে এর চেয়ে ভালোলাগা আমার জীবনে আর কিছুই হতে পারেনা। তাই সেই জীবনের সেই শ্রেষ্ঠ সময়ের মুখোমুখি হবার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি আমি।


 আমি কৃতজ্ঞ যারা আমার মাকে সম্মাননা দিচ্ছেন।’ চঞ্চল চৌধুরীর মা নমিতা চৌধুরী শুধু এই টুকুই বললেন,‘খুব খুশি আমি, খুশি চঞ্চলের বাবা’সহ আমাদের পরিবারের সবাই। ’ এরইমধ্যে চঞ্চল চৌধুরীর মা এবং বাবা রাধা গোবিন্দ চৌধুরী পাবনা থেকে ঢাকায় চলে এসেছেন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করার জন্য। সামনে ঈদ। ঈদের নাটকের কাজ করার পাশাপাশি নতুন ধারাবাহিকের কাজ নিয়ে চঞ্চল চৌধুরী ব্যস্ত থাকলেও মা’ সম্মাননা অর্জনের এই দিনটিতে কোন শুটিং রাখেননি। কালকের দিনটি শুধুই তার মায়ের জন্য।

 

করতোয়ার পক্ষ থেকে চঞ্চল চৌধুরীর পুরো পরিবারের জন্য শুভ কামনা। চঞ্চল চৌধুরী অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত সর্বশেষ চলচ্চিত্র অমিতাভ রেজা পরিচালিত ‘আয়নাবাজি’। এরইমধ্যে তিনি জয়া আহসানের প্রযোজনায় অনম বিশ্বাসের নির্দেশনায় ‘দেবী’ চলচ্চিত্রের শুটিং শেষ করেছেন। গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘মনপুরা’ চলচ্চিত্রে সোনাই চরিত্রে অভিনয়ের জন্য প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

‘বডিগার্ড হোসেন’-এ তারা তিনজন

বিনোদন প্রতিবেদক : গত বছর ঈদে শামীম জামানের নির্দেশনায় মোশাররফ করিম ও শখ ‘আমার ইচ্ছে করে না’ নাটকে একসঙ্গে কাজ করেছিলেন। এরপর তারা দু’জন নাটকে অভিনয় না করলেও একটি বহুজাতিক কোম্পানীর চানাচুরের বিজ্ঞাপনে মডেল হয়ে কাজ করেছিলেন। প্রায় একবছর বিরতির পর মোশাররফ করিম , শখ আবারো শামীম জামানের নির্দেশনায় ঈদ নাটকে অভিনয় করেছেন।

 নাটকের নাম ‘বডিগার্ড হোসেন’। এ নাটকে শামীম জামান নির্দেশনার পাশাপাশি মোশাররফ করিম ও শখের সঙ্গে অভিনয়ও করছেন। মোশাররফ করিম হোসেন চরিত্রে, শখ রূপালী চরিত্রে এবং শামীম জামান বাদশা চরিত্রে অভিনয় করেছেন। নাটকটির গল্প প্রসঙ্গে নাটকের রচয়িতা এবং নির্মাতা শামীম জামান বলেন,‘ বাদশা ও রূপালী একে অপরকে ভালোবাসে। রূপালীকে স্কুলে আনা নেওয়ার জন্য রূপালীর ভাই বোবা হোসেনের সঙ্গে পাঠায়। যে কারণে তাদের মধ্যে একসময় প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। রেগে যায় বাদশা। এগিয়ে যায় নাটকের গল্প।

’ নাটকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে মোশাররফ করিম বলেন,‘ শামীম জামান আমার বন্ধু। তার নির্দেশনায় এর আগেও অনেক নাটকে কাজ করেছি। তবে এই নাটকের গল্পটা আমার কাছে দারুণ লেগেছে। নির্মাতা হিসেবে শামীম সবসময়ই বেশ বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়ে আসছে।

আর শখের সঙ্গে অভিনয় সবসময়ই আমি বেশ উপভোগ করি।’ নির্মাতা ও অভিনেতা শামীম জামান বলেন,‘ ঈদে দর্শকের কথা ভাবনায় রেখেই ভিন্ন ধরনের গল্প নিয়ে নাটকটি নির্মাণ করেছি। আমি খুব আশাবাদী এ নাটকটি নিয়ে।’ আনিকা কবির শখ বলেন,‘ এবারের ঈদে আমাকে বেশকিছু নাটকে দেখা যাবে। বলা যেতে পারে গত ঈদের চেয়ে একটু বেশিই। মোশাররফ ভাইয়ের সঙ্গে অভিনয় সবসময়ই আমি দারুণ উপভোগ করি।



Go Top