সকাল ১১:০৫, মঙ্গলবার, ২৪শে জানুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ বিনোদন


বিনোদন প্রতিবেদক : গত ২২ জানুয়ারি বিকেলে সাংবাদিক ও জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক শাহআলম সাজুর নতুন উপন্যাস ‘মনে রেখো সন্ধ্যাতারা আমিও ভালোবেসেছিলাম’ বইটির মোড়ক উন্মোচন করলেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী ।

 সেই সাথে মোড়ক উন্মোচনে নেন এদেশের জনপ্রিয় নাট্যকার বৃন্দাবন দাশ,জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাহনাজ খুশি । আরো অংশ নেন দেশের বিশিষ্ট নজরুল সংগীত শিল্পী সাদিয়া আফরিন মল্লিক । শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন অনন্যা প্রকাশনীর প্রকাশক মনিরুল হক । অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ফাহমিম ফেরদৌস । অনন্যা থেকে প্রকাশিত এই উপন্যাসটি সাজুর  ২৫ তম উপন্যাস । চঞ্চল চৌধুরী বলেন,জীবনে অনেক অনুষ্ঠানে গিয়েছি ।

 কিন্তু বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করতে পারাটা প্রথম । ভীষণ ভালো লাগছে । সাদিয়া আফরিন মল্লিক বলেন, প্রতিদিন পত্রিকায় কাজ করেও নিয়মিত লেখালেখি করাটা বড় বিষয়,যা সাজু করে চলেছে,আশা করছি একদিন সফল হবে । শাহনাজ খুশি বলেন,নতুন  এই উপন্যাসটির অর্ধেক পড়ে ফেলেছি । সুন্দর ও গোছানো লেখা । বৃন্দাবন দাশ বলেন,লিখতে লিখতেই একদিন কালজয়ী লেখা সাজুর কাছ থেকে বের হয়ে আসবে,সেই প্রত্যাশা করছি ।

 সাজু তার নতুন বইয়ের এবং ২৫ তম উপন্যাস প্রকাশের অনুভূতি জানাতে গিয়ে বলেন,সাংবাদিকতার পাশাপাশি লেখালেখিটাই সব,লেখালেখি ছাড়া কোনো স্বপ্ন নেই আমার । উল্লেখ্য,মনে রেখো সন্ব্যাতারা আমিও ভালোবেসেছিলাম উপন্যাসটির প্রচ্ছদ করেছেন ধ্রুব এষ । বই মেলায় এটি অনন্যা থেকে পাওয়া যাবে ।

 

নায়ক রাজরাজ্জাকের ৭৬তম জন্মদিন পালন

 

বিনোদন প্রতিবেদক : বাংলা চলাচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেতা নায়ক রাজরাজ্জাক। ২৩ জানুয়ারি ছিলো তার ৭৬তম জন্মদিন। চ্যানেল আই এ উপলক্ষে দিনব্যাপি নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলো। এদিন বেলা ১২ মিনিটে চ্যানেল আই স্টুডিও থেকে সরাসরি সম্প্রচারিত ‘তারকাকথন’টি ছিলো ব্যাতিক্রমী। যেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্জাক।

 সকালে রাজ্জাক চ্যানেল আই ভবনে আসলে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান চ্যানেল আই এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর। চ্যানেল আই স্টুডিওতে রাজ্জাকের সঙ্গে বিভিন্ন সময়ে উপস্থিত ছিলেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার, চিত্রনায়ক ফারুক, নিপুন, রাজ্জাকের ছেলে সম্্রাট,  স¤্রাটের মেয়ের আরিবা, বাচসাস সভাপতি সাংবাদিক আব্দুর রহমান, আব্দুর রহমান, আনন্দ আলো রেজানুর রহমান, অনুষ্ঠানের প্রযোজক অনন্যা রুমা, সাংবাদিক অভি মঈনুদ্দীন, সোহেল হাকিম প্রমুখ।  অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনা করেন দিলরুবা সাথী। অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত সবাই মিলে স্টুডিওতে কেক কেটে রাজ্জাকের জন্মদিন উদযাপন করেন। অনুষ্ঠানটি ঘণ্টাব্যাপি চ্যানেল আই সরাসরি সম্প্রচার করেছে।

জামিন পেলেন কল্যাণ কোরাইয়া

গাড়ির ধাক্কায় আলোকচিত্রী জিয়া ইসলাম আহত হওয়ার ঘটনায় গ্রেফতার অভিনেতা কল্যাণ কোরাইয়াকে অন্তবর্তীকালীন জামিন পেয়েছেন। ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম কায়সারুল ইসলাম  সোমবার আসামিপক্ষের আবেদনের শুনানি করে কল্যা।ণের জামিন মঞ্জুর করেন।

বাদীপক্ষের অন্যিতম আইনজীবী শুভ্র সিনহা রায় রনি জানান, দুই হাজার টাকা মুচলেকায় মামলার তদন্ত প্রতিবেদন অর্থাৎ অভিযোগপত্র অথবা চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল পর্যন্ত জামিনে থাকতে পারবেন কল্যারণ কোরাইয়া। বাদীপক্ষের অপর আইনজীবী প্রশান্ত কর্মকার  জানান, আসামিকে কারাফটকে জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্য যুক্ত করে এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কলাবাগান থানার এস আই ওমর ফারুক খান সোমবার আদালতে প্রতিবেদন দিয়েছেন। সেখানে তদন্ত কর্মকর্তা বলেছেন, জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু তথ্যও মিলেছে, যা যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। তারপরও এ মামলার সবগুলো ধারাই জামিনযোগ্য বলে বিচারক আসামিকে জামিন দিয়েছেন বলে জানান প্রশান্ত। গত ৯ জানুয়ারি মধ্যরাতে রাজধানীর পান্থপথে বসুন্ধরা সিটির সামনে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় আহত হন মোটর সাইকেলে থাকা জিয়া। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর কল্যাইণও সেখানে গিয়েছিলেন। পরদিন সন্ধ্যালয় এই অভিনেতা ফেইসবুকে ‘আই এম ইনোসেন্ট’ লিখে স্ট্যায়টাস দিলে তা অনেকের নজরে পড়ে।

পুলিশও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য  তাকে থানায় ডেকে নেয়। এরই মধ্যেয প্রথম আলোর নিরাপত্তা ব্য্বস্থাপক অবসরপ্রাপ্ত মেজর সাজ্জাদুল কবির কলাবাগান থানায় কল্যানণের নামে মামলা করেন। রাতেই কল্যানণকে গ্রেপ্তার করার কথা জানানো হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। গত ১১ জানুয়ারি কল্যাণকে আদালতে তোলা হলে রিমান্ড ও জামিনের আবেদন নাকচ করে তাকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে কারাফটকে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেয় আদালত। পরে গত রোববার কল্যাণের পক্ষে তার নতুন আইনজীবী ফারুক মিয়া জামিনের আবেদন করলেও সেদিন জিজ্ঞাসাবাদ সংক্রান্ত পুলিশ প্রতিবেদন আদালতে না আসায় এবং আসামির আগের আইনজীবীর অনুমতি না নিয়ে নতুন আইনজীবী আবেদন করায় বাদীপক্ষের আইনজীবীরা জামিনের বিরোধিতা করেন।

বগুড়ার শিল্পিরা গানে গানে মাতিয়ে তুলেছেন ঢাকার বগড়্যার মেলায়


 অআব্দুল খালেক নান্নু: ঢাকাস্থ বৃহত্তর বগুড়া সমিতির উদ্যোগে ৪ দিনের বগড়্যার মেলার ৩য় দিনে বগুড়ার শিল্পিরা গানে গানে মাতিয়ে তুলেছেন ঢাকার বগড়্যার মেলায়। বিকেল ৩ টা থেকে অবিরাম চলছে একের পর এক জমকাল আয়োজনে গান আর গান। আরতা হল বগুড়ার আঞ্চলিক ভাষায় গান। বগুড়ার ইয়থ কয়ার শিল্পিরা গেয়েছেন, হামরা বগরার ছোল, পুঠি মাছ ধরতে গিয়ে ধরে আনি বোইল।পর দিকে “বগুড়ার শিশু নাট্র দল” শিল্প বৃন্দ কবিতা আবৃত্তি, গান ও নাটিকা পরিবেশন করেন। এর পর  বগুড়ার নন্দন শিল্পি গোস্টির আয়োজনে শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও নাটক। এ্যড: মুহিবুল্লা রচিত বগুড়ার আঞ্চলিক ভাষায় মঞ্চায়িত হয় নাটক “হায়রে স্বাধীনতা”। নাটকটি নির্দেশনা করেছেন মাহমুদুল কাজল নূর। নাটক দেখার জন্য দর্শক গ্যালারী ভরে যায়।  অপর দিকে সন্ধার পর আদিবাসী নাট্র গোস্টিরা তাদের নিজস্ব ভাষায় গান পরিবশেন করেন। বিএদিকে সন্ধার পর মেলার শিল্পকলা একাডেমির মাঠের কানায় কানায় দর্শক দিয়ে ভরে যায়। একদিকে উপভোগ করছে গান, অপরদিকে মেলার প্রায় ৫০ টি স্টলে চলছে বেচা কেনার ধুম। এই মেলায় বগুড়ার দৈ বিক্রি নিয়ে গ্রাহকদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ছড়িয়ে পড়েছে। ১৫০ টাকা কেজি দৈ বিক্রয় করছে ৩৫০ টাকায়। ক্রেতারা সাংবাদিকদের জানান, বগুড়া থেকে নিয়ে আসতে অনেক কস্টিং তাই এই দাম নির্ধারন করা হয়েছে। আয়োজকরা জানান, এ ব্যপারে আমরা কিছু বলতে পাবনা। রোববার বিকেল ৩ টায় গ্রামীন খেলা,পালা গান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বিকেল সাড়ে ৪ টায় কবি গান, নৃত্য ও পালাগান। বিকেল ৫.৩০ এ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও নাটক মঞ্চস্থ হয়। প্রতি দিনের ন্যয় রবিবারেও দর্শকদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে শুরু হয় আর রাত ১০ টায় মেলার কার্যক্রম শেষ হয়। এই মেলার অনুষ্ঠানমালার সকল ভিডিও ও ছবি ধারন করছেন এশিয়ানবার্তা২৪ডটকম এর ফটো সাংবাদিক রাশেদ রোকন।

অপর্ণা’র ভাবনায় ‘ভুবন মাঝি’

 

অভি মঈনুদ্দীন, চলচ্চিত্রে অভিনয় করেই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন দর্শকনন্দিত অভিনেত্রী অপর্ণা। যে কারণে ছোটপর্দায় কাজের পাশাপাশি চলচ্চিত্রে কাজ করতেও বেশ আগ্রহী তিনি। প্রত্যেক শিল্পীই তার ভালো কাজের স্বীকৃতি চান।

 আর সেটা যদি রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে হয় তাহলে সেই স্বীকৃতি পাওয়াটা শিল্পীর জন্য হয় অনেক গর্বের। গাজী রাকায়েত পরিচালিত ‘মৃত্তিকা মায়া’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্যই অপর্ণা জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলেন। এটি ছিলো সরকারী অনুদানের চলচ্চিত্র। এর আগে এবং পরে তার অভিনীত আরো দুটি সরকারী অনুদানের চলচ্চিত্র মুক্তি পায়। একটি জাহিদুর রহিম অঞ্জনের ‘মেঘমল্লার’ এবং অন্যটি প্রসূণ রহমানের ‘সূতপার ঠিকানা’।

 এবার চতুর্থ অনদানের চলচ্চিত্র নিয়েই ভাবনা যতো অপর্ণার। এরইমধ্যে অপর্ণা অভিনীত চতুর্থ সরকারী অনুদানের চলচ্চিত্র ‘ভুবন মাঝি’ সেন্সরবোর্ডে জমা পড়েছে। এটি নির্মাণ করেছেন ফখরুল আরেফিন। সেন্সর ছাড়পত্র পেলেই আসছে মার্চ মাসে মুক্তি পাবার সম্ভাবনা রয়েছে। চলচ্চিত্রটিতে কাজ করা প্রসঙ্গে অপর্ণা বলেন,‘ ভুবন মাঝিতে আমি ফরিদা নামক একটি চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে অভিনয় করেছি। সবমিলিয়ে ভুবন মাঝি অসাধারণ একটি চলচ্চিত্র হয়েছে এবং আমি খুব আশাবাদী চলচ্চিত্রটি নিয়ে। ’ এরইমধ্যে গত ডিসেম্বর থেকে ‘আমার পতাকা, আমার বাংলাদেশ’ শিরোনামে ভুবন মাঝি চল”িত্রের ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে।

এদিকে গত বুধবার অপর্ণা ঢাকায় ফিরেছেন আমিরুল ইসলাম অরুনের নির্দেশনায় আনিসুর রহমান মিলনের বিপরীতে  ‘নোনাজলে হঠাৎ দেখা’ নাটকের শুটিং শেষ করে। নাটকটি আসছে ভালোবাসা দিবসে এনটিভিতে প্রচার হবে। এছাড়া গতকাল থেকে তিনি ইরফান সাজ্জাদের বিপরীতে শুরু করেছেন খ- নাটক সাখাওয়াত শিবলী পরিচালিত ‘তুমি ছিলে আমার কাছে’র কাজ। এছাড়া অপর্ণা অভিনীত নতুন ধারাবাহিক হচ্ছে ‘সিনেমাটিক’।

 এটি নির্মাণ করছেন ইমরাউল রাফাত। অপর্ণা অভিনীত গোলাম সোহরাব দোদুল পরিচালিত ধারাবাহিক নাটক ‘সংসার’ এবং আর বি প্রীতম পরিচালিত ‘কমিউনিটি’ দুটি ভিন্ন স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে। অপর্ণা অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র মোস্তফা সরওয়ার ফারুকী পরিচালিত ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’। ইফতেখার আহমেদ ফাহমি পরিচালিত ‘টু বি কন্টিনিউড’ মুক্তি পায়নি এখনো। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার

একযুগ পর কাজী সোমা


বিনোদন প্রতিবেদক : প্রায় প্রতিবছরই রিয়েলিটি শো কিংবা নিজস্ব উদ্যোগে আমাদের সঙ্গীতাঙ্গনে নতুন নতুন অনেক সঙ্গীতশিল্পীর আগমন ঘটে। আবার এমন অভিযোগও শোনা যায় যে নতুন শিল্পীরা গানে কোনরকম গুরুমুখী শিক্ষা না নিয়েই গান করছেন। কিন্তু এক্ষেত্রে একেবারেই ব্যতিক্রম কাজী সোমা।

 স্টেজ শো’তে তিনি নিয়মিত গান করছেন ২০০৭ সাল থেকে। ছোটবেলা থেকেই ক্ল্যাসিক্যাল ঘরানার সঙ্গীতের সাথে তার এগিয়ে চলা। ২০০৫ সাল থেকে ওস্তাদ সঞ্জীব দে’র কাছে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতে তালিম নিচ্ছেন নিয়মিত। স্টেজ শো আর উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতে নিজেকে অধ্যবসায়ে ব্যস্ত রেখে নিজেকে একজন যথাযথ সঙ্গীতশিল্পীতে পরিণত করেছেন কাজী সোমা। বিগত প্রায় একযুগ যাবত তিনি উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতে নিয়মিত তালিম নিয়েই তাতে পরিণত করেছেন নিজেকে। এই সময়ে এসেই নিজের একটি পূর্ণাঙ্গ এ্যালবাম করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

 এরইমধ্যে তিনটি গান তিনি নির্বাচন করেছেন। গান তিনটি লিখেছেন আহমেদ রিজভী। একটি গানের রেকর্ডিং-এর কাজ শেষ করেছেন। বাকী দুটির কাজ দ্রুত শেষ করবেন। গানগুলোর সুর সঙ্গীতায়োজন করছেন নাজির আহমেদ ও মাহমুদ জুয়েল। এছাড়া শওকত আলী ইমনও একটি গানের কাজ করবেন। পাশাপাশি আরো বেশ কয়েকজন গীতিকারের গীতিকবি নিয়েও নতুন গান করবেন।

 সবমিলিয়ে কাজী সোমা তার জীবনের প্রথম একক এ্যালবামটি বেশ যতœ নিয়েই ভালোভাবে শেষ করতে চাচ্ছেন। বাংলাদেশের আনাচে কানাচে স্টেজ শো করে চলেছেন নিয়মিত তিনি। গান গাওয়া প্রসঙ্গে কাজী সোমা বলেন,‘ গান শুনে যেমন শান্তি পাই আমি ঠিক তেমনি গান গেয়েও তেমনি শান্তি পাই। একজন সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে পরিচয় দিতে সবসময়ই আমি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।’ এদিকে আজ সোমার জন্মদিন।

একেবারেই নিজের মতো করে জন্মদিনটি উদ্যাপন করবেন বলে জানান তিনি। জন্মদিনে সবার কাছে দোয় চেয়েছেন সোমা। কাজী সোমার সবচেয়ে প্রিয় শিল্পী রুনা লায়লা। তারপরও ভালোলাগে শাহনাজ রহমতুল্লাহ, সাবিনা ইয়াসমিন, সামিনা চৌধুরী, ডলি সায়ন্তনী, আলম আরা মিন, ুআঁখি আলমগীরের গান মঞ্চে গাইতে।  ব্রাম্মণবাড়িয়ার বাঞ্চারামপুরের মেয়ে কাজী সোমা’র একমাত্র সন্তান ফারহান রেজা স্বপ্ন। একমাত্র ছেলেই তার সুখের পৃথিবী। সোমার বাবা মরহুম কাজী আতাউর রহমান এবং মা হাসনা বেগম। গত বছর সুইজারল্যা- ও ইটালীতে স্টেজ শো’তে অংশ নেন। আসছে মার্চ মাসে স্টেজ শো’েত লন্ডনে যাবার কথা রয়েছে তার। ছবি ঃ দীপু খান

২০০৬ সালের মে মাস থেকে দৈনিক করতোয়ার বিনোদন বিভাগের প্রধান হিসেবে কাজ করছেন অভি মঈনুদ্দীন। একই প্রতিষ্ঠানে একই বিভাগে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন তিনি। একই প্রতিষ্ঠানে টানা দশ বছরেরও বেশি সময় ধরে চাকরি করার বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়ে অভি মঈনুদ্দীনকে অভিনন্দন জানাতে গতকাল  দৈনিক করতোয়ার ঢাকা অফিসে এসেছিলেন চিত্রনায়ক সাইমন ও চিত্রনায়িকা আইরিন। এ সময় করতোয়ার সকল সাংবাদিকসহ অন্য কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন। এ উপলক্ষে গতকাল  দৈনিক করতোয়া কেক কেটা হয়     ছবি ঃ দীপু খান

মুক্তির মিছিলে বিপাশা কবিরের দুই ছবি

বিনোদন রিপোর্টার : আগামী মার্চে মুক্তি পাচ্ছে বিপাশা কবির অভিনীত ‘ক্রাইম রোড’। সায়মন তারিক পরিচালিত এ ছবিটি চলতি সপ্তাহে সেন্সরে জমা দেওয়া হয়েছে। এর প্রধান চরিত্রগুলোতে আরো অভিনয় করেছেন- আনিসুর রহমান মিলন, শায়লা সাবি, শাহরিয়াজ প্রমুখ। ছবির প্রযোজক শরিফ চৌধুরী বলেন, ‘ছবিটি মার্চ মাসে মুক্তি দেব। চলচ্চিত্রের স্বনামধন্য শিল্পীদের নিয়ে ছবিটি করেছি।

আশা করি, ছবির গল্প ও শিল্পীদের অভিনয়- দুটোই দর্শকদের মন কাড়বে।’ ছবির গল্প প্রসঙ্গে প্রযোজক বলেন, ‘সমাজে যারা ক্রাইম করছে, তারা কেউ মহাশূন্য থেকে আসেনি। এরা আমাদের সমাজের, আমাদের পরিবারের সদস্য। কোনো বিশেষ কারণে তারা এ পথে পা বাড়াচ্ছেন। সেই বিষয়টিই আমি চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।’ শরিফ আরো বলেন, ‘আমি সব সময় সুন্দর গল্প নিয়ে কাজ করতে চাই।

গল্প পছন্দ হলে তারপর চিন্তা করি এই ছবি কোন পরিচালককে দিয়ে নির্মাণ করব। এ ছবিতে আমি পরিচালক হিসেবে সায়মন তারিককে নিয়েছি। তিনি এ ধরনের গল্প নিয়ে ভালো কাজ করেন।’ মিলন, শায়লা, শাহরিয়াজ ও বিপাশা ছাড়াও এ ছবিতে আরো অভিনয় করেছেন জেফ, সাদিয়া আফরিন, বড়দা মিঠু, অমিত হাসান, মিজু আহমেদ, আহমেদ শরিফ প্রমুখ। ছবির গানের কথা লিখেছেন সুদীপ কুমার। কণ্ঠ দিয়েছেন তানজিলা রুমা, লেমিস ও প্রতীক হাসান। সংগীত পরিচালনা করেছেন আলী আকরাম শুভ। গানের কোরিওগ্রাফি করেছেন হাবিব।

এবার উপস্থাপনায় মৌসুমী হামিদ

 

অভি মঈনুদ্দীন : নাটকে, টেলিফিল্মে এবং চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে নিজেকে একজন দক্ষ অভিনেত্রী হিসেবে প্রমাণ করেছেন। যে কারণে এই সময়ে এসে টিভি নাটকে এবং চলচ্চিত্রে তার ব্যস্ততা আগের চেয়ে তুলনামূলকভাবে বাড়ছে। ব্যস্ততা বাড়ছে মৌসুমী হামিদেও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কাজেও। যেমন এবারই প্রথম মৌসুমী হামিদকে উপস্থাপনায় দেখা যাবে।

 স্যাটেলাইট চ্যানেল জিটিভি’র প্রচার চলতি ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘আজকের অনন্যা’ অনুষ্ঠানের উপস্থাপনার মধ্যদিয়ে প্রথমবারের মতো উপস্থাপনায় নাম লেখালেন মৌসুমী। এরইমধ্যে মৌসুমীর উপস্থাপনায় কয়েকটি পর্বের শুটিং সম্পন্ন হয়েছে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের বিএফডিসি’র একটি ফ্লোরে। গত মঙ্গল ও বুধবার টানা দু’দিন এর শুটিং-এ অংশ নিয়েছেন মৌসুমী হামিদ। প্রথমবারের মতো উপস্থাপনা প্রসঙ্গে মৌসুমী হামিদ বলেন,‘ নতুন অভিজ্ঞতা, সত্যিই একেবারেই অন্যরকম অভিজ্ঞতা হলো উপস্থাপনা করতে এসে।

প্রতিমুহুর্তে আমার মনে হয়েছে উপস্থাপনা একটি চ্যালেঞ্জিং কাজ। নিজেকে অনেক বিষয়েই জানতে হয়। তা না হলে উপস্থাপনা নিজেকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়না। জিটিভি কর্তৃপক্ষের কাছে কৃতজ্ঞ আমি যে তারা আমাকে উপস্থাপনা করার সুযোগ তৈরী করে দিয়েছেন।’ মৌসুমী হামিসদ জানান তার উপস্থাপনার পর্বগুলো শিগগিরই প্রচার শুরু হবে।

 ‘আজকের অনন্যা’ সর্বশেষ উপস্থাপক ছিলেন বাঁধন। এদিকে বাগেরহাট থেকে মৌসুমী হামিদ রহমানের নির্দেশনায় স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘শেষ দেখা’র শুটিং শেষে ঢাকায় ফিরেই ‘আজকের অনন্যা’র শূটিং করছেন। বাগেরহাটে ড্রোন দিয়ে শুটিং-এর সময় মৌসুমী  কিছুটা আহত হয়েছিলেন। পরে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তিনি সুস্থ হয়ে ঢাকায় ফিরেন। এদিকে সম্প্রতি কুয়াকাটা ঘুরে এসেছেন মৌসুমী সুমন আনোয়ার পরিচালিত ‘কয়লা’ চলচ্চিত্রের শুটিং লোকেশন দেখে। চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে এই চলচ্চিত্রের শুটিং শুরু হবে বলে জানান মৌসুমী।

  মৌসুমী হামিদ অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রগুলো হচ্ছে সাফি উদ্দিন সাফির ‘ব্ল্যাক মানি’, অনন্য মামুনের ‘ব্ল্যাক মেইল’, সাফি উদ্দিন সাফির ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী টু’ এবং আবু শাহেদ ইমনের ‘জালালের গল্প’। এদিকে মৌসুমী হামিদ ইমরাউল রাফাতের নির্দেশনায় নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘সিনেমাটিক’র কাজ শুরু করেছেন। ভিন্ন ধরনের গল্প নিয়ে নির্মিত এই ধারাবাহিকের প্রধান একটি চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। ছবি  ঃ গোলাম সাব্বির।

বিচ্ছেদের পর গানে সরব সালমা

বিনোদন রিপোর্ট : বিচ্ছেদের পর আবার গানের ভুবনে সরব হলেন শ্রোতাপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সালমা আক্তার। টিভি লাইভ, স্টেজ শো, অ্যালবাম, থিম সং  সংগীতের প্রতিটি ক্ষেত্রেই নতুন করে নিজেকে মেলে ধরার চেষ্টা করছেন তিনি।

তারই ধারাবাহিকতায় বেশ কয়েকটি নতুন গানে কণ্ঠ দিয়েছেন সালমা। এর মধ্যে আসিফ ইকবালের কথায় অটোমুনাল মুনের সুরে একটি গান গেয়েছেন। সর্বশেষ পার্থ বড়ুয়ার সুরে গেয়েছেন ‘বাংলাদেশ চা প্রদর্শনী’র থিম সং। সালমা ছাড়াও সিনিয়র ও চলতি প্রজন্মের আরও ছয়জন শিল্পী এ গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। এদিকে এর বাইরেও আরো একাধিক নতুন গানের কাজ করেছেন সালমা।

এ গানগুলোর আসছে ভালোবাসা দিবস ও পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে প্রকাশ হবে। এ প্রসঙ্গে সালমা বলেন, বেশ কিছু নতুন গান করেছি । তবে সব ধরনের গান করবো না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কেবল মন মতো হলেই সেগুলো করবো।’ এদিকে নতুন গানের বাইরে টিভি লাইভেও নিয়মিত হয়েছেন সালমা। পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন স্থানে শো করছেন। সম্প্রতি তিনি শো করেছেন খুলনায়। চলতি মাসের পুরোটা জুড়েই শো নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন এ শিল্পী।

 এ প্রসঙ্গে সালমার ভাষ্য, আমি নতুন বছর সবকিছু নতুন করে শুরু করতে চাচ্ছি। যে গানের জন্য আমাকে সংসার ছাড়তে হলো, এখন আজীবন সেই গান নিয়েই থাকতে চাই । তাই এ বছরটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। এ মাসটা পুরোটাই শো রয়েছে।


পাশাপাশি টিভি লাইভ ও রেকর্ডিংও রয়েছে। আশা করছি ভালোভাবেই গানের বাকি দীর্ঘ পথটা পাড়ি দিতে পারবো। প্রসঙ্গত, গত বছর সালমা তার পাঁচ বছরের দাম্পত্য জীবনের অবসান ঘটিয়েছেন। গত ৩০শে নভেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে স্বামী শিবলির সঙ্গে তার ডিভোর্স হয়। বর্তমানে বাবা, মা ও মেয়ে স্নেহাকে নিয়ে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে থাকছেন সালমা। সব মিলিয়ে নতুন বছরটা ভালোভাবে শুরু হয়েছে।

শুক্রবার থেকে অহনা’র ‘অহ-মি’

 

অভি মঈনুদ্দীন :  বেশকিছুদিন যাবত দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী অহনা অভিনয়ের পাশাপাশি একটি ইভেন্ট ম্যানেজম্যান্ট’র ব্যবসা করে আসছিলেন। তবে এবার সেই ব্যবসার পাশাপাশি বেশ গুরুত্ব দিয়ে একটি বিউটি পার্লার চালু করছেন।

 আসছে ১৩ জানুয়ারি শুক্রবার থেকে রাজধানীর উত্তরার ১৩ নং সেক্টরের গরীবে নেওয়াজ রোডে অহনা তার বিউটি পার্লার ‘অহ-মি’র যাত্রা শুরু করছেন। ‘অহ-মি’র কর্ণধার দু’জন। প্রধান কর্ণধার অহনা নিজে। আরেকজন হচ্ছেন তারই খালাতো বোন লিজা মিতু। অহনা’র নামের ‘অহ’ এবং মিতুর নামের ‘মি’ নিয়ে অহনা তার বিউটি পার্লারের নাম রেখেছেন ‘অহ-মি’।

 হঠাৎ ব্যবসার প্রতি মনোযোগ দিচ্ছেন কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে অহনা বলেন,‘ সত্যি বলতে কী প্রতি মাসের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত শুটিং নিয়ে ব্যস্ত থাকার সুযোগ নেই। তাই ভাবলাম নিজের একটি ব্যব্যসা প্রতিষ্ঠান থাকলে সেটা আমার নিজের জন্য, পরিবারের জন্য সর্বোপরি সবার জন্যই অনেক ভালো হয়। পাশাপাশি আমার খালাতো বোন মিতুরও অনেকদিন যাবত আগ্রহ আমরা দু’জন মিলে যেন একটি বিউটি পার্লার দেই।

এসব নানাবিধ কারণেই বিউটি পার্লারটি দেয়া। আল্লাহর রহমতে অবশেষে আসছে শুক্রবার অহ-মি’র যাত্রা শুরু করতে পারছি। আশাকরি পরিচিত, অপরিচিতরা আমাদের পাশে থাকবেন। ’ অহনা রহমান জানান প্রথমদিন যারা পার্লারে আসবেন তাদের জন্য বিশেষ ডিসকাউন্টের সুবিধা রয়েছে। শুক্রবার বিকেল তিনটায় পার্লারটির উদ্বোধন হবে। অহনা জানান প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নির্ধারিত সময়ে পার্লারটি খোলা থাকবে। এদিকে অহনা অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র ছিলো পিএ কাজল পরিচালিত ‘চোখের দেখা’। এতে তার বিপরীতে ছিলেন সাইমন।

 বিভিন্ন সময়ে খ- নাটকে অভিনয়ের পাশাপাশি অহনা ব্যস্ত রয়েছেন বেশ কয়েকটি ধারাবাহিক নাটকে অভিনয়ে। ধারাবাহিকগুলো হচ্ছে ‘নোয়াশাল’, ‘রূপালী প্রান্তর’, ‘মহাগুরু’, ‘কমেডি ৪২০’, ‘শান্তি অধিদপ্তর’, ‘আয়নাঘর’।  ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার

এক মাসের ছুটিতে মাহি

 

বিনোদন প্রতিবেদক :  গত বছর বিয়ে এবং বিয়ে এবং দুটি চলচ্চিত্র মুক্তি নিয়েই আলোচনায় ছিলেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। সিলেটের ছেলেকে বিয়ে এবং ‘কৃষ্ণপক্ষ’ ও ‘অনেক দামে কেনা’ এই ছিলো মাহির আলোচনায় থাকার কারণ।

গত বছরের শেষ দিন পর্যন্ত ছবির শুটিং নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন মাহি। জানুয়ারি মাসের পুরোটা সময় স্বামী এবং বাবা মার সঙ্গেই সময় কাটাতে চান মাহি। এরপর ফেব্রুয়ারি থেকে শুটিং শুরু করবেন তিনি এরই মধ্যে মাহি গত বছরের শেষ দিন পর্যন্ত ‘প্রেমের বাঁধন’ ছবির শুটিং করেছেন। বদিউল আলম খোকনের ‘তুমি আমার প্রিয়া’ ছবিতে দেশের শীর্ষ মডেল চরিত্রে অভিনয় করবেন মাহিয়া মাহি। তার বিপরীতে আরিফিন শুভকে দেখা যাবে বলে জানালেন পরিচালক। ছবির পরিচালক খোকন এ ছবিটি নিয়ে জানিয়েছেন, নতুন এ ছবিতে মাহিকে সুপার মডেল হিসেবে উপস্থাপনা করা হবে।

 বেশ কিছু সাহসী দৃশ্যেও কাজ করতে হবে তাকে। এর আগে সজলের বিপরীতে মাহি ‘হারজিৎ’ নামে একটি ছবির কাজ করেছেন। নতুন এ ছবিটি নিয়েও বেশ আগ্রহ প্রকাশ করেছেন তিনি। খোকনের ছবিতে মাহির বিপরীতে আরিফিন শুভর কথা ভাবছেন পরিচালক। তবে এখনও তা চূড়ান্ত হয়নি। উল্লেখ্য, মাহি গত মাসে এ কে সোহেল পরিচালিত ‘পবিত্র ভালোবাসা’ ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হন এবং শামীম পরিচালিত ‘গোলাপতলীর কাজল’ ছবির শুটিং-এ অংশ নেন। আর দীপংকর দীপনের পরিচালনায় ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির কাজ শেষ করেছেন মাহি। এ ছবিতে তার বিপরীতে কাজ করেছেন আরিফিন শুভ। ছবিটি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

ধারাবাহিকে একসঙ্গে স¤্রাট তানিয়া ও পুষ্পিতা

অভি মঈনুদ্দীন : ছোটপর্দার নির্মাণ কাজে নিয়মিত হবার পাশাপাশি অভিনয়েও বেশ ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন চিত্রনায়ক স¤্রাট।

যে কারণে এখন প্রতিমাসেই তাকে নির্মাণে এবং অভিনয়ে বেশ ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে। এরইমধ্যে নতুন বছরের শুরুতেই নতুন আরেকটি ধারাবাহিকের কাজ শুরু করেছেন স¤্রাট। এতে তার স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করছেন তানিয়া বৃষ্টি এবং বোনের চরিত্রে অভিনয় করছেন পুষ্পিতা পপি। ধারাবাহিকের নাম ‘রেড অ্যালার্ট ফ্যামিলি’। নাটকটি রচনা করেছেন স¤্রাট জাহাঙ্গীর এবং নির্দেশনা দিচ্ছেন আপন রানা। গতকাল পর্যন্ত রাজধানীর উত্তরায় একটি শুটিং হাউজে ধারাবাহিকটির প্রথম লটের শুটিং হয়েছে। এতে অভিনয় প্রসঙ্গে স¤্রাট বলেন,‘ আমি সবসময়ই গল্প এবং চরিত্র’র প্রতি বেশ গুরুত্ব দেয়ার চেষ্টা করি। নতুন এই ধারাবাহিকটির গল্প এবং আমার চরিত্র নিয়ে আমি সন্তুষ্ট। বেশ গুছানো একটি ইউনিট।

 কাজ করে খুবই ভালোলেগেছে। আশা করা যায় ধারাবাহিকটি দর্শকের কাছে ভালোলাগবে। ’ ধারাবাহিকটিতে তানিয়া বৃষ্টি স¤্রাটের স্ত্রী আনিকা চরিত্রে অভিনয় করছেন তানিয়া বৃষ্টি। বৃষ্টি বলেন,‘ স¤্রাট ভাইয়ার সঙ্গে আরো একটি ধারাবাহিকে কাজ করছি আমি। তারসঙ্গে অভিনয়ের সুবিধা এই যে তিনি অভিনয়ের খুঁটিনাটি অনেক কিছুই শিখতে খুব সহযোগিতা করেন। নতুন এই ধারাবাহিকটির গল্প একেবারেই অন্যরকম। যে কারণে কাজটি করছি বেশ আগ্রহ নিয়েই। ’ পুষ্পিতা পপি সাধারণত নাটকে অভিনয় করেন না। তার ভাষ্যমতে এর আগে তিনি তিন/চারটি খ- নাটকে অভিনয় করেছিলেন। এটি তার অভিনীত প্রথম ধারাবাহিক নাটক। এতে তিনি স¤্রাটের বোন লিলি চরিত্রে অভিনয় করছেন। নপুষ্পিতা বলেন,‘ নাটকে আমার চরিত্রটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ বলেই কাজটি করছি।

 পুরো ইউনিটের আন্তরিকতায় মুগ্ধ আমি। দর্শক এই নাটকে নতুন আমাকে খুঁজে পাবেন আশাকরি।’ পরিচালক আপন রানা জানান শিগগিরই একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে ধারাবাহিক এ নাটকটির প্রচার শুরু হবে। স¤্রাট ও তানিয়া মজিবুল হক খোকনের নির্দেশনায় এটিএন বাংলায় প্রচার চলতি ধারাবাহিক ‘মন থেকে দূরে নয়’তে অভিনয় করছেন। পুষ্পিতা পপি অভিনীত মোস্তাফিজুর রহমান বাবু পরিচালিত ‘কখনো ভুলে যেওনা’ এবং মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত ‘আগে যদি জানতাম তুই হবি পর’ চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছে।

 প্রায় শেষ হয়ে আছে আব্দুল মান্নান নির্দেশিত শাকিব খানের বিপরীতে ‘পাঙ্কু জামাই’ এবং মোস্তাফিজুর রহমান বাবু পরিচালিত ‘বিধ্বস্ত’ চলচ্চিত্র। মনতাজুর রহমান আকবরের নির্দেশনায় ‘তবুও ভালোবাসি’ চলচ্চিত্রে ছোট্ট একটি চরিত্রে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে চলচ্চিত্রে পুষ্পিতা পপি’র সম্পৃক্ততা ঘটে। এদিকে তানিয়া  বৃষ্টি অভিনীত তিনটি চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছে। সেগুলো হচ্ছে ‘ঘাসফুল’, ‘লাভার নাম্বার ওয়ান’ এবং ‘যদি তুমি জানতে’। স¤্রাট অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র ছিলো রাজু চৌধুরীর ‘শ্যুটার’। ছবি ঃ দীপু খান

ভারতের খ্যাতিমান অভিনেতা ওম পুরি আর নেই


ভারতের শক্তিমান অভিনেতা ওম পুরি শুক্রবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। গান্ধী সিনেমায় অনবদ্য অভিনয় করে তিনি সুনাম অর্জন করেন।

বার্তা সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, মুম্বাইয়ে নিজ বাসভবনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ওম পুরী মারা গেছেন।
১৯৭০ এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে মারাঠি সিনেমার মধ্য দিয়ে ওম পুরি তার ক্যারিয়ার শুরু করেন। এরপর তিনি হিন্দি সিনেমায় অভিনয় করে রাতারাতি তারকা খ্যাতি লাভ করেন। তিনি কয়েকটি পাকিস্তানি সিনেমায়ও অভিনয় করেন। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।

তিনি বেশ কয়েকটি ব্রিটিশ সিনেমায়ও কাজ করেন। ১৯৮২ সালে ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের মহান নেতা মহাত্মা গান্ধীর জীবনকে নিয়ে রিচার্ড অ্যাটেনবোরার সিনেমায় তার অভিনয় উল্লেখযোগ্য।

হলিউডের ‘চার্লি উইলসন’স ওয়ার’ সিনেমায়ও তিনি অভিনয় করেন
ওম পুরি ২০১৪ সালে ‘দ্য হান্ডেড ফুট জার্নি’ সিনেমায় কিংবদন্তী ব্রিটিশ অভিনেত্রী হেলেন মিরেনের বিপরীতে অভিনয় করেন।
তিনি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে অবদান রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ পদ্মশ্রী পুরস্কার লাভ করেন। এটা ভারতের ৪র্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা।

তার মৃত্যুর খবরে ভারতের সিনেমা জগতে শোকের ছায়া নেমে আছে। অভিনেতা-অভিনেত্রী ও পরিচালকরা তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন।
ভারতের অন্যতম শক্তিমান অভিনেতা অনুপম খের টুইটারে জানান, ‘তাকে শান্তিতে শুয়ে থাকতে দেখে দেখলাম। আমার বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে যে আমাদের একজন অন্যতম শ্রেষ্ঠ অভিনেতা আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। এটা আমার জন্য অত্যন্ত দুঃখজনক ও শোকাবহ ঘটনা।’
ওম পুরীর মৃত্যুতে নরেন্দ্র মোদি শোক বার্তা পাঠিয়েছেন।

তার কার্যালয় থেকে টুইটারে জানানো হয়েছে, ‘অভিনেতা ওম পুরির মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি এই মহান অভিনেতার সুদীর্ঘ থিয়েটার ও চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারের কথা স্মরণ করেন।’
১৯৫০ সালে হারিয়ানা রাজ্যের এক পাঞ্জাব পরিবারের এই মহান অভিনেতা জন্মগ্রহণ করেন।

 

নির্বাচনী মাঠে রিয়াজ-পূর্ণিমা

 

বিনোদন প্রতিবেদক : দেশীয় চলচ্চিত্রের এক সময়ের জনপ্রিয় জুটি রিয়াজ-পূর্ণিমা। তবে এবার তারা বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে দুজনই মিশা সওদাগর-জায়েদ খান প্যানেলের হয়ে কার্যকরী সদস্য পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে লড়াই করবেন।

আর এমনটাই জানিয়েছেন নায়ক রিয়াজ। তিনি বলেন, ‘আসছে শিল্পী সমিতির নির্বাচনে অংশগ্রহণ করব। আর এর জন্য প্রচারণায় নামবো খুব শিগগিরই। শিল্পী সমিতি শুধু নামমাত্র সংগঠন হিসেবে বিবেচিত না হোক! সবাই মিলে চেষ্টা করলে অনেক সমস্যার সমাধান দ্রুত করা যাবে।’ অভিনেত্রী পূর্ণিমা গত ২৩ ডিসেম্বর ভারতে গিয়েছেন। যার কারণে তার সাথে এ বিষয়ে যোগাযোগ করা যায় নি।

তবে ভারতে যাওয়ার আগে ২২ ডিসেম্বর বিকেলে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘কী কারণে যাচ্ছি, কেনো যাচ্ছি তা এখনই বলতে চাই না। তবে এটুকু বলা যায়-ব্যক্তিগত কারণেই যাচ্ছি। অন্যকোন বিষয় নয়।’ প্রসঙ্গত, আসছে মে মাসে অনুষ্ঠিত হবে ২০১৭-১৮ মেয়াদে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন। এখন পর্যন্ত দুটি প্যানেলের নাম ঘোষনা করা হয়েছে। এরমধ্যে একটি প্যানেলে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে দাঁড়াচ্ছেন ওমর সানি- ফেরদৌস। অন্য একটি প্যানেলটি হলো মিশা সওদাগর- জায়েদ খান।

নতুন বছরে পড়শীর চমক

বিনোদন প্রতিবেদক : নতুন বছরে চমক নিয়ে আসছেন শ্রোতাপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী পড়শী। এ বছরের ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে তিন থেকে চারটি গান নিয়ে পড়শী তার চতুর্থ একক (ইপি) অ্যালবাম প্রকাশ করতে যাচ্ছেন।

 তবে প্রথমে পূর্ণাঙ্গ অ্যালবাম আকারে প্রকাশের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সময়ের চাহিদাকে প্রাধান্য দিয়ে ইপি অ্যালবাম হিসেবে এটি প্রকাশ করবেন। এর সুর-সংগীত করবেন আরেফিন রুমি ও ইমরান। অ্যালবামটি প্রকাশের আগে এর একটি গান ভিডিও আকারে প্রকাশ করবেন। পরবর্তীতে সবগুলো গান একটি একটি করে মিউজিক ভিডিও আকারে প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন পড়শীর সহোদর। এ প্রসঙ্গে পড়শী জানান, ‘আগের অ্যালবামের ধারাবাহিকতায় এটি ‘পড়শী-৪’ শিরোনামে প্রকাশিত হবে। চলতি বছরেই এর কাজ শুরুর কথা ছিল।

 কিন্তু প্লে­ব্যাক, স্টেজ শো, বিদেশ সফর ও চলচ্চিত্রে অভিনয়ের ব্যস্ততার কারণে আর সম্ভব হয়নি। সম্প্রতি তিনি কোরিয়া সফর শেষে দেশে ফেরে অ্যালবামটির কাজ নিয়ে ব্যস্ত আছেন।’ এদিকে, পড়শী চলতি মাসে দুটি ছবিতে প্লে­ব্যাক করেছেন। এর মধ্যে মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের ‘তুমি যে আমার’ ছবিতে একটি গান করেছেন। এতে তার সঙ্গে দ্বৈতকণ্ঠ দিয়েছেন হৃদয় খান। অন্যদিকে নাম চূড়ান্ত না হওয়া আরেকটি ছবিতে আরেফিন রুমির সঙ্গে একটি দ্বৈত গানে কণ্ঠ দিয়েছেন পড়শী। সামনে আরও কয়েকটি ছবিতে তার গান করার কথা রয়েছে।

 সন্দেহাতীত সত্য যে, এ প্রজন্মের জনপ্রিয় শিল্পীদের তালিকায় পড়শীর নামটি সবার আগেই উচ্চারিত হয়। ভক্তদের ভালোবাসায় পড়শীও যেন সিক্ত। বাংলা গানের শ্রোতাদের ভিন্ন কিছু উপহার দেয়ার লক্ষ্যেই তার এ ছুটে চলা। উল্লেখ্য, পড়শী তার সঙ্গীত ক্যারিয়ারে এ পর্যন্ত তিনটি একক অ্যালবাম প্রকাশ করেছেন। এগুলো হচ্ছে ‘পড়শী-১’, ‘পড়শী-২’ ও ২০১৩ সালের রোজার ঈদে তার সর্বশেষ একক অ্যালবাম ‘পড়শী- ৩’ প্রকাশিত হয়েছিল। তার সবগুলো অ্যালবামই শ্রোতামহলে দারুণভাবে প্রশংসিত হয়। গত ১২ ডিসেম্বর একটি স্টেজ শোতে অংশ নিতে কোরিয়া সফরে পাড়ি জমান পড়শী। ১৪টি ডিসেম্বর দেশটির কিউন শহরে গান গেয়ে দর্শক-শ্রোতাদের মাতিয়েছেন তিনি। এর আগে নিউজিল্যান্ড সফরেও তিনি প্রবাসী শ্রোতাদের কয়েকটি মনোমুগ্ধ পরিবেশনা উপহার দিয়েছেন।

ক্যারি ফিশারের চিরবিদায়

 

বিনোদন ডেস্ক : রয়টার্স ‘স্টার ওয়ারস’ সিরিজের বিখ্যাত অভিনেত্রী ক্যারি ফিশার চলে গেছেন না ফেরার দেশে। মঙ্গলবার এই হলিউড তারকা মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে ক্যারি ফিশারের বয়স হয়েছিল ৬০ বছর।

 বিবিসি অনলাইনের সূত্রে জানা গেছে, হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার কয়েক দিন পর মারা গেলেন ক্যারি ফিশার। গত শুক্রবার হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। লন্ডন থেকে লস অ্যাঞ্জেলসগামী একটি ফ্লাইটে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

 বিমান থেকে নামানোর পর ক্যারি ফিশারকে  হাসপাতালে নেয়া হয়। পরিবারের পক্ষ থেকে দেয়া বিবৃতিতে বিবিসিকে আরো জানায়, মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ৫৫ মিনিটে ক্যারি ফিশার মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুতে স্বজন, সহকর্মী, বন্ধু, শুভাকাঙ্খী ও অগণিত ভক্ত শোক-শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন। ‘স্টার ওয়ারস’ ছাড়াও ক্যারি ফিশার অভিনীত অন্য ছবিগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল ‘আন্ডার দ্য রেইনবো’, ‘গারবো টকস’, ‘হলিউড ভাইস স্কোয়াড’, ‘দ্য টাইম গার্ডিয়ান’ ইত্যাদি।

একই ধারাবাহিকে তারিন আখম হাসান ও সাজু খাদেম


অভি মঈনুদ্দীন : অভিনয়ের আঙ্গিনায় আখম হাসান ও সাজু খাদেমের অনেক আগেই তারিনের আগমন। দু’জন এবারই প্রথম তারিনের সঙ্গে একটি ধারাবাহিক নাটকে কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন।

 বৃন্দাবন দাসের রচনায় ও সাগর জাহানের নির্দেশনায় ‘হাটখোলা’ ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করছেন তারিন, আখম হাসান ও সাজু খাদেম। ধারাবাহিকটিতে মেহেরজান চরিত্রে অভিনয় করছেন তারিন এবং টেপা চরিত্রে আখম হাসান, পঁচা চরিত্রে সাজু খাদেম অভিনয় করছেন। এরইমধ্যে রাজধানীর অদূরে পূবাইলের একটি শুটিং হাউজে ধারাবাহিক এ নাটকটির দু’টি লটের শুটিং শেষ হয়েছে। মেহেরজান গ্রামেরই মেয়ে। শহরে একটি মেডিক্যাল কলেজে পড়াশুনা করেন। ছুটিতে গ্রামে বেড়াতে আসেন। বেড়াতে আসার পরই ঘটতে থাকে নানান রকম মজার মজার ঘটনা।

 এতে অভিনয় প্রসঙ্গে তারিন বলেন,‘ আমার সঙ্গে এই ধারাবাহিকে এখন পর্যন্ত যাদের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ হয়েছে তারা হচ্ছেন শাহনাজ খুশী, আখম হাসান, সাজু খাদেম, রুনা খান। তারা প্রত্যেকেই চৌকস অভিনয়শিল্পী। নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে দর্শককে হাসানো খুব কঠিন বিষয়। যারা শক্তিশালী অভিনয়শিল্পী তাদের দ্বারাই সম্ভব অভিনয় দিয়ে দর্শককে হাসানো। এই নাটকে যারা অভিনয় করেছেন তারা কঠিন কাজটি করতে পেরেছেন। শুটিং-এর সময় শিল্পীদের রি-অ্যাকশান দেখে আমি নিজেই হাসি ধরে রাখতে পারিনি। নাট্যকার কিংবা নির্দেশক হিসেবে সাগর জাহানের ভাবনার জায়গাটা আমার পরিচিত।


যে কারণে তার প্রতি আমার এই বিশ^াস আছে যে কোন চরিত্রে আমাকে অভিনয়ের প্রয়োজন পড়লে তিনি আমাকে নিয়ে কাজ করবেন। তার নির্দেশিত নতুন ধারাবাহিকটিতে কাজ করাটা দারুণভাবে উপভোগ করছি।’ তারিনের সঙ্গে অভিনয়ের ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে একটি নাটকের এক দু’টি দৃশ্যে অভিনয় করেছিলেন আখম হাসান। এর বহুবছর পর গেলো ঈদে সাগর জাহানেরই নির্দেশনায় ‘চুপ ভাই কিছু ভাবছে’ নামক ঈদ ধারাবাহিকে অভিনয় করেছিলেন। তারিনের সঙ্গে ধারাবাহিক নাটকে এবারই তার প্রথম কাজ করা।

 আখম হাসান বলেন,‘ আমি যখন টিভি নাটকে অভিনয় শুরু করি তারিন তখন তারকাভিনেত্রী। সেই সময়ে তারসঙ্গে একটি নাটকে অভিনয় করেছিলাম। তারিন এককথায় একজন অসাধারণ অভিনেত্রী। নাটকে কাজ করার ব্যাপারে সবসময়ই চুজি একজন শিল্পী। শুটিং-এর সময় শিল্পীদের সঙ্গে একাত্ব হয়ে অভিনয় করাটা সবাই পারেন না।
আমাদের নতুন ধারাবাহিকটির কাজ দর্শকের ভালোলাগবে।’ পরিচালক সাগর জাহান জানান শিগগিরই ধারাবাহিকটি বৈশাখী টিভিতে প্রচার শুরু হবে। পরিচালক আরো জানান ধারাবাহিকটির নাম পরিবর্তন হবার সম্ভাবনা রয়েছে। ছবি ঃ দীপু খান।

বিচ্ছেদের জন্য মালাইকার দাবি ১০ কোটি

 

বিনোদন ডেস্ক : বিচ্ছেদের বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য অভিনেতা-প্রযোজক আরবাজ খানের কাছে ১০ কোটি রুপি দাবি করেছেন বলিউডের জনপ্রিয় আইটেমগার্ল মালাইকা আরোরা।

 তিনি এর কমে ডিভোর্সের বিষয়টি নিষ্পত্তি করবেন না বলে সম্প্রতি ভারতীয় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে।  ওয়ান ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, চলতি বছরের অন্যতম আলোচিত ঘটনা আরবাজ ও মালাইকার ডিভোর্স। মৌখিকভাবে বিষয়টি তারা জানালেও আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের এই ডিভোর্সের নিষ্পত্তির জন্য বান্দ্রার একটি ফ্যামিলি কোর্টের শরণাপন্ন হয়েছেন এই জুটি।  এ প্রসঙ্গে একটি সূত্র সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘মালাইকার দাবিকৃত অর্থের পরিমাণ কমপক্ষে ১০ কোটি রুপি। তিনি এর কম হলে ডিভোর্সের বিষয়টি নিষ্পত্তি করবেন না।

 এছাড়াও একমাত্র সন্তানের (আরহান খান) খোরপোষের বিষয়টিও এর সঙ্গে যোগ হবে। এখন দেখার বিষয় মালাইকা-আরবাজ কত তাড়াতাড়ি এ বিষয়ে সমঝোতায় পৌঁছান।’ সূত্রটি আরো জানিয়েছে, আরবাজ-মালাইকা জুটির ছাড়াছাড়ি ঠেকাতে অনেক চেষ্টা করেছেন তাদের আপনজরা। কিন্তু কোনো কিছুতেই লাভ হয়নি। গত মার্চে আনুষ্ঠানিকভাবে ছাড়াছাড়ির ঘোষণা দেন তারা।

১৯৯৮ সালে একটি বিজ্ঞাপনের শুটিংয়ে দেখা হয় মালাইকা ও আরবাজ খানের। এরপরই তাদের বিয়ে হয়। ২০০২ সালে তাদের ঘর আলো করে আসে তাদের একমাত্র পুত্র আরহান খান। ছেলে মালাইকার সঙ্গেই থাকছেন। তবে ছেলের ভরণপোষণের খরচ দিতে আরবাজ রাজি হয়েছেন বলে জানা গেছে।

আলিয়ার নিউ ইয়ার পার্টি সিদ্ধার্থের সাথে

 

বিনোদন ডেস্ক : নতুন বছরের শুরুটা সিদ্ধার্থ মলহোত্রার সঙ্গেই করতে চান আলিয়া ভাট। তার জন্য দেশের বাইরে রওনা দিয়ে দিয়েছেন তাঁরা। কিছুদিন আগেই আলিয়ার নতুন বাড়ির পার্টিতে অন্যান্য বলি-তারকার সঙ্গে সিদ্ধার্থও উপস্থিত ছিলেন।

 এখন আবার নিউ ইয়ারও একসঙ্গে পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন তাঁরা। চলতি বছরেই শোনা গিয়েছিল, ব্রেকআপ হয়েছে সিদ্ধার্থ-আলিয়ার। তবে এ ব্যাপারে দু’জনের কেউই স্পষ্টভাবে কিছু জানাননি কখনও। আলিয়া নিজেকে ‘সিঙ্গল’ বলেই দাবি করেন। বছরের শেষে এসে আবার এই মেলামেশা কি তাহলে আলিয়া-সিদ্ধার্থের কমিটমেন্টের ইঙ্গিতই দিচ্ছে? তা না হলে একসঙ্গে নিউ ইয়ার পার্টিও পরিকল্পনা কেন? জানা গেছে একসঙ্গে নিই ইয়ারের সুন্দর সময় কাটিয়ে জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহেই দেশে ফিরবেন তারা। 

গান গাইলেন অরুনা বিশ^াস

 

বিনোদন প্রতিবেদক  : অরুনা বিশ^াসকে সবাই একজন অভিনেত্রী হিসেবেই চিনেন। কিন্তু এর বাইরে যে তিনি খুব ভালো একজন নৃত্যশিল্পী এবং গায়িকাও বটে এটা অনেকেরই অজানা।

 ছোটবেলায় নাচে এবং গানে গোল্ড মেডেল পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু বড়বেলায় এসে চলচ্চিত্রের নায়িকা হবার কারণে নাচের সাথে সম্পৃক্ততা থাকলেও গান চলে যায় অনেকদূরে। সেই গানের দিনগুলোতেই আবার ফিরে গিয়েছিলেন গুণী এই অভিনেত্রী। গত সোমবার বাংলাদেশ বেতারের একটি সাক্ষাৎকার ভিত্তিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন তিনি। আর সেখানেই তিনি সাক্ষাৎকারের ফাঁকে ফাঁকে মেঘ বলেছে যাবো যাবো, আনন্দধারা বহিছে ভুবনে, ভালোবাসা যতো বড় জীবন ততো বড় নয়’সহ নিজের অভিনীত কয়েকটি চলচ্চিত্রের গান পরিবেশন করেন।

 অরুনার কন্ঠে গান শুনে উপস্থিত সবাই তাকে গানে নিয়মিত হবারও পরামর্শ দেন। অরুনা বলেন,‘ সত্যি বলতে কী অনেক সময়ই ইচ্ছে করে গান গাইতে। কিন্তু সেই সময় কী আর আছে! নেই, তারপরও হয়তো হঠাৎ কোন একদিন মৌরকি কোন গান গেয়েও ফেলতে পারি। মানুষের মনতো, তাই কোনকিছুই আগে থেকে বলাটা মুশকিল। দেখা যাক ভবিষ্যতে কী হয়। তবে সবার কাছে দোয়া চাই যেন সবসময় সুস্থ থাকি, ভালো থাকি।

]’ গানে অরুনার হাতেখড়ি তার বাবা অমলেন্দু বিশ^াসের কাছে। এরপর তিনি ওস্তাদ জগদানন্দ বড়–য়া মৃন্ময় দাশ গুপ্তের কাছে সঙ্গীতে তালিম নেন। তাই গান তার বেশ আয়ত্ত্বেই রয়েছে। এদিকে আজ রাত ১১.৩০ মিনিটের ফ্লাইটে কানাডা যাচ্ছেন অরুনা বিশ^াস। বেশকিছুদিন থাকবেন সেখানে। এরপর দেশে ফিরে আবারো অভিনয়ে নিয়মিত হবেন তিনি। তবে কানাডা যাবার আগে তিনি তার অভিনীত ধারাবাহিক নাটকগুলোর শুটিং-এ অংশ নিয়ে ধারাবাহিকের প্রচারের ধারাবাহিকতা রেখে গেছেন। 

‘কফি উইথ করণ’ দেখেন না কঙ্গনা!

 

বিনোদন ডেস্ক :  বরাবরই একটু বেশিই অকপট জবাব দেন বলিউড ‘কুইন’ কঙ্গনা রানাওয়াত। যেমন অকপট জবাব দেন, তেমনই মজা করতেও পছন্দ করেন, আবার বিতর্কিত মন্তব্যও করেন।

সেই ধারাবাহিকতায় ‘কফি উইথ করণ’ প্রসঙ্গেও অকপট জবাব দিলেন নায়িকা। তিনি নাকি অনুষ্ঠানটি দেখেনই না! সম্প্রতি চলা বলিউড পরিচালক করণ জোহরের টেলিভিশন শো ‘কফি উইথ করণ’-এ আসার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল এই অভিনেত্রীকে। দর্শকরাও কঙ্গনাকে দেখার অপেক্ষা করে আছেন। কিন্তু খবর পাওয়া গেছে, এতটাই ব্যস্ত রয়েছেন ‘কুইন’, যে তিনি হয়তো এখনই ‘কফি উইথ করণ’-এ আসতে পারবেন না। ভারতের একটি ইংরেজি দৈনিকে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, কঙ্গনা ‘কফি উইথ করণ’-এ আসা প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, তিনি এখন কাজ নিয়ে খুবই ব্যস্ত।

 তাই তিনি নিজেও জানেন না, যে তিনি আসতে পারবেন কী না। কঙ্গনা বলেন, ‘আসলে আমি কখনও ‘কফি উইথ করণ’ দেখিনি। তাই জানি না এই অনুষ্ঠানে সঙ্গীকে নিয়ে আসার মাপদ-টা ঠিক কী।’ কঙ্গনা রানাওয়াত তিনটি জাতীয় পুরস্কারজয়ী অভিনেত্রী হলেও, তিনি একেবারেই সোশ্যালাইজ নন। তাকে কোনো অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানেও দেখা যায় না। বিভিন্ন কারণে তিনি খবরের শিরোনামে থাকেন। কখনও বিতর্ককে ঘিরে, আবার কখনও তার অসাধারণ অভিনয়ের কারণে।

নতুন চলচ্চিত্রে অমৃতা খান

 

বিনোদন প্রতিবেদক : প্রয়াত নাট্য ব্যক্তিত্ব খালদে খানের ভাগ্নি অমৃতা খান। তার মিডিয়াতে আগমন দেখে অনেকেই ভেবেছিলেন যে তিনি হয়তো শুরুতেই আলোচনায় চলে আসবেন।

 কিন্তু পারেননি। পারেননি বলেই পিএ কাজলের সঙ্গে ফেসবুক চ্যাটিং-এর ঘটনাকে কেন্দ্র করে নোংরাভাবে আলোচনায় আসেন তিনি। কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি তার। যাইহোক আগামী ৩১ ডিসেম্বর জনপ্রিয় অভিনেতা ও সফল প্রযোজক মনোয়ার হোসেন ডিপজলের একটি ছবির মহরত হতে যাচ্ছে। ছবিটি পরিচালনা করবেন ছটকু আহমেদ।

 ‘এক কোটি টাকা’ নামের এই ছবিতে ইতিমধ্যে শিল্পী নির্বাচনের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। অতীতে দেখা গেছে নিজের প্রযোজিত ছবিগুলোতে ডিপজল নিজেই অভিনয় করেছেন। আগের মতো এই ছবিতেও অভিনয় করবেন তিনি। ডিপজলের বিপরীতে অভিনয়ের জন্য ‘এক কোটি টাকা’য় চূড়ান্ত হয়েছেন চিত্রনায়িকা রেসি। ছটকু আহমেদের নিজের লেখা গল্পে এতে আরো একজন নায়িকা থাকছে। এরইমধ্যে এই নায়িকাকেও চূড়ান্ত করেছেন ডিপজল।

‘গেইম’ ও ‘গুন্ডা দ্যা টেরোরিস্ট’ খ্যাত নায়িকা অমৃতা খান অভিনয় করবেন ছবিটিতে। অমৃতার বিপরীতে ছবিটিতে অভিনয় করার কথা রয়েছে বাপ্পি চৌধুরীর। এ প্রসঙ্গে ছটকু আহমেদ বলেন, ‘৩১ ডিসেম্বর ‘এক কোটি টাকা’র মহরত করবো ডিপজলের ফুলবাড়িয়ার বাড়িতে। ছবিটি প্রযোজনার পাশাপাশি এতে অভিনয়ও করবেন ডিপজল। ডিপজলের বিপরীতে রেসিকে দেখতে পাবে দর্শক। এছাড়াও ছবিটিতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ করা হয়েছে অমৃতা খান। অমৃতার বিপরীতে অভিনয় করবেন বাপ্পি চৌধুরী। পহেলা জানুয়ারি থেকে ছবিটির শুটিং শুরু করবো।’

লোকেশনের খুঁজে নায়িকা

অভি মঈনুদ্দীন : নাটক কিংবা চলচ্চিত্রের লোকেশনের খুঁজে সাধারণত পরিচালক এবং তার সহকারী’ই গিয়ে থাকেন। সঙ্গে নায়ক কিংবা নায়িকা যান না। কিন্তু সুমন আনোয়ার পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে ঘটেছে ভিন্ন ঘটনা।

 সুমন আনোয়ার পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘কয়লা’ চলচ্চিত্রের শুটিং-এর আগে লোকেশনের খুঁজে তার সঙ্গী হয়েছেন তারই চলচ্চিত্রের নায়িকা মৌসুমী হামিদ। বেশ কয়েকমাস আগে ঘোষনা হয়েছিলো যে মৌসুমী হামিদ সুমন আনোয়ারের প্রথম চলচ্চিত্র ‘কয়লা’তে অভিনয় করতে যাচ্ছেন। ঘোষণার কিছুদিনের মধ্যে চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরু হবার কথা থাকলেও অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে নির্ধারিত সময়ে এর শুটিং শুরু হয়নি। কিন্তু এবার সবকিছু ঠিকঠাক। আসছে নতুন বছরের জুন মাসে পুরোদমে চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরু হবে।

 তবে তার আগে লোকেশনে ঘুরে আসার পরিকল্পনা করেন পুরো ‘কয়লা’ পরিবার। গত সোমবার রাতে লোকেশনের খুঁজে পরিচালক সুমন আনোয়ার গিয়েছেন কুয়াকাটায়। তারসঙ্গে গিয়েছেন অভিনেত্রী মৌসুমী হামিদও। ‘কয়লা’ চলচ্চিত্রে চ্যালেঞ্জিং একটি চরিত্র ‘ময়না’তে অভিনয় করবেন তিনি। চলচ্চিত্রে ময়না যেখানে বসবাস করবেন তার স্থানটি নিজ চোখে পূর্বেই দেখার জন্য গিয়েছেন মৌসুমী হামিদ। মৌসুমী হামিদ বলেন,‘ ময়না চরিত্রটি আমার কাছে এখন স্বপ্নের একটি চরিত্র। চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরুর পূর্ব পর্যন্ত আমি ময়নার মাঝেই ডুবে থাকতে চাই।

 যে কারণে নিজের মধ্যে ময়নাকে ধারণ করার জন্য নিজে লোকেশনে এসেছি। তাছাড়া আমার মনে হয় যেখানে শুটিং করবো সেখানে যদি আগেই একটু ঘুরে আসা যায় তাহলে শুটিং-এর সময় খুব সহজে সে জায়গায় নিজেকে মানিয়ে নেয়া যায়। কয়লা চলচ্চিত্রটি নিয়ে আমি খুব আশাবাদী। দেখা যাক সময় কী বলে।’ ‘কয়লা’ চলচ্চিত্রের কাহিনী, সংলাপ. চিত্রনাট্য করেছেন পরিচালবক নিজেই। এতে মৌসুমী হামিদের সঙ্গে অভিনয় করবেন রওনক হাসান। কুয়াকাটার লোকেশন ঘুরা শেষে আজই ঢাকায় ফেরার কথা রয়েছে মৌসুমী হামিদের।

 মৌসুমী হামিদ অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রগুলো হচ্ছে সাফি উদ্দিন সাফির ‘ব্ল্যাক মানি’, অনন্য মামুনের ‘ব্ল্যাক মেইল’, সাফি উদ্দিন সাফির ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী টু’ এবং আবু শাহেদ ইমনের ‘জালালের গল্প’। এদিকে মৌসুমী হামিদ ইমরাউল রাফাতের নির্দেশনায় নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘সিনেমাটিক’র কাজ শুরু করেছেন। ভিন্ন ধরনের গল্প নিয়ে নির্মিত এই ধারাবাহিকের প্রধান একটি চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার

লচ্চিত্রের জন্যই প্রস্তুত তানজিন তিশা ছোটপর্দায় এখনো নিয়মিত তানজিন তিশা


অভি মঈনুদ্দীন  বিগত বেশ কয়েকমাস ছোটপর্দার কাজ থেকে তানজিন তিশা বেশখানিকটা দূরেই ছিলেন। তবে ছোটপর্দার কাজ থেকে তিনি নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন, বিষয়টি আসলে এমন নয়।

 তিশা জানান বেশকিছুদিন যাবত তিনি আগামীর পরিকল্পনা নিয়েই সময় পার করেছেন। বছরের শেষ সময়ে এসে আগামী বছরের পরিকল্পনা নিয়েই কিছু কথা বলেছেন তিনি।

তানজিন তিশা জানান চলচ্চিত্রে অভিনয়ের প্রবল আগ্রহ রয়েছে তার। চলচ্চিত্রের জন্য তিনি নিজেকে প্রস্তুতও করেছেন। কিন্তু তারমানে এই নয় যে চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য চুড়ান্ত হবার পূর্ব পর্যন্ত তিনি টিভি নাটকে কিংবা টেলিফিল্মে অভিনয় করবেন না। সম্প্রতি তার চলচ্চিত্রে অভিনয়ের খবরে অনেকেই মনে করেছিলেন যে তিনি হয়তো ছোটপর্দায় অভিনয় করবেন না। কিন্তু বিষয়টি সত্য নয়।

 ভালো গল্প এবং অভিনয় করার মতো চরিত্র পেলে অবশ্যই তিনি নাটক টেলিফিল্মে অভিনয় করবেন। তবে ধারাবাহিক নাটকে তিনি আর অভিনয় করবেন না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন। নিজের ক্যারিয়ারের পরিকল্পনা নিয়ে তানজিন তিশা বলেন,‘ মাঝে কিছুদিন ছোটপর্দার কাজ থেকে বিরত থাকলেও এখন আবার ছোটপর্দার কাজে নিয়মিত হয়েছি।

 নতুন বছরের শুরুতেই কয়েকটি নাটকে কাজ করবো। তবে এই মুহুর্তে আমি চলচ্চিত্রে কাজ করার জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত। চাইলে যে কোন ভালো প্রযোজনা সংস্থা’ই আমাকে নিয়ে কাজ করতে পারেন। আমার যদি গল্প, চরিত্র’সহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক বিষয় মনের মতো হয় তাহলে অবশ্যই আমি চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করতে চাই। তবে চলচ্চিত্রে কাজ করার জন্য চুক্তি স্বাক্ষর না হওয়া পর্যন্ত আমি ছোটপর্দায় নিজেকে ব্যস্ত রাখতে চাই।

 কারণ এই মাধ্যমটিই আমাকে আজকের তানজিন তিশাতে পরিণত করেছে।’ এদিকে একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে তানজিন তিশা অভিনীত একটি ধারাবাহিক নাটক প্রচার হচ্ছে। এর কাজও তিনি শিগগরিই শেষ করে দিবেন। তানজিন তিশা অভিনীত সর্বশেষ প্রচারিত নাটক হচ্ছে সরদার রোকন পরিচালিত ‘পরী ও চাঁদের টিপ’।

 অমিতাভ রেজার নির্দেশনায় ‘রবি’র বিজ্ঞাপনে মডেল হয়ে আলোচনায় আসেন তানজিন তিশা। তবে একটি মিউজিক ভিডিওর মডেল হয়ে আরো বেশি দর্শকের চোখে পড়েন তিনি। তার অভিনীত প্রথম নাটক রেদওয়ান রনি পরিচালিত ‘ইউটার্ন’। মডেল হিসেবে কাজ করা ‘তিব্বত গ্লিসারিন’র বিজ্ঞাপনটি বর্তমানে দেশের প্রায় সবগুলো চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে। আসছে জানুয়ারির শুরুতে তিনি খালিদ হোসেন স¤্রাট, শ্রাবণের নির্দেশনায় নাটকে কাজ করবেন। উল্লেখ্য তানজিন তিশা টানা চার বছর বাংলাদেশ ললিতকলা একাডেমি এবং হিন্দোল একাডেমি থেকে নাচের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন।

 

অভিনয়ে ফিরলেন স্বাগতা


বিনোদন প্রতিবেদক : এক বছর পর অভিনয়ে ফিরলেন দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী জিনাত সানু স্বাগতা। বর্তমানে তিনি ধারাবাহিক, টেলিছবি ও খ- নাটকে নিয়মিত শুটিং করছেন। তবে আগের চেয়ে কাজ কিছুটা কমিয়ে দিয়েছেন স্বাগতা। কারণ তিনি এখন শুধু মাত্র মানসম্মত নাটকেই কাজ করতে আগ্রহী।

   অভিনয়ে ফেরা প্রসঙ্গে স্বাগতা বলেন, ‘বিয়ের পর দীর্ঘ দিন অভিনয়ে অনিয়মিত ছিলাম। কারণ ওই সময়টা নতুন জীবনটা একটু গুছিয়ে নিয়েছি। এছাড়া  আমি মনে করি, সংসার ও ক্যারিয়ার দুটোকে ব্যালেন্স করে চলা বেশ শক্ত বিষয়। তাই আমাকে এখন অনেক হিসেব-নিকেষ করেই চলতে হচ্ছে। এখন থেকে বেছে বেছে দক্ষ পরিচালক ও মান সম্পূর্ন গল্পের নাটকে কাজ করতে চাই।’

 সম্প্রতি চিত্রনায়ক সম্রাটের ‘পরিনাম’ শীর্ষক একটি টেলিছবির শুটিং করছেন স্বাগতা। এ টেলিছবিতে  শারিরীক প্রতিবন্ধী স্ত্রীর চরিত্রে রূপদান করেছেন তিনি।  রূপে-গুনে পরিপূর্ন থাকার পরেও একজন প্যারালাইস্ড স্ত্রী পরিবারের সবার কাছে কতটা অবহেলার পাত্র হয় সেটিই এ টেলিছবিতে তুলে ধরা হয়েছে। এছাড়া সজলের বিপরীতেও স্বাগতা ‘ফালতু’ শীর্ষক একটি খন্ড নাটকের কাজ শেষ করেছেন। এটি পরিচালনা করেছেন নজরুল কোরায়শি। এদিকে, এশিয়ান টিভিতে স্বাগতা অভিনীত ‘অদ্বীতিয়া’ শির্ষক একটি ধারাবাহিক নিয়মিত প্রচার হচ্ছে।

 এই ধারাবাহিকটির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করছেন স্বাগতা। আসছে নতুন বছরেই আরো কিছু ধারাবহিকের কাজ শুরু করবেন বলে জানান তিনি। অভিনয়ের পাশাপাশি স্বাগতা বর্তমানে উপস্থাপনাও ব্যস্ত সময় পার করছেন। বাংলাদেশ বেতারে তার উপস্থাপনায় ‘তারার সাথে কিছুক্ষন’ শীর্ষক একটি অনুষ্ঠান  নিয়মিত প্রচার হচ্ছে । এখানে স্ব-স্ব-ক্ষেত্রে সফল ব্যক্তিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়। এছাড়া বাংলাভিশনে অড়িচরেই স্বাগতার উপস্থাপনায় ‘সোনালি দিনের রূপালী গল্প’ শির্ষক চলচ্চিত্র বিষয়ক একটি অনুষ্ঠান প্রচার শুরু হবে বলে স্বাগতা জানান।

বগুড়ায় ভারতের শ্রীঅরবিন্দ অনুশীলন কেন্দ্রের নাটক ও ওড়িশি নৃত্য পরিবেশন

বগুড়ার শ্রীঅরবিন্দ সোস্যাল ডেভলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের আয়োজনে ভারতের পশ্চিম বাংলার শিউড়ীর শ্রীঅরবিন্দ অনুশীলন কেন্দ্র ও শ্রীঅরবিন্দ মিউজিক কলেজের পরিবেশনায় গত শনিবার সন্ধ্যায় শহরের শহীদ টিটু মিলনায়তনে স্বামী বিবেকানন্দ অবলম্বনে নাটক “পরিব্রাজক স্বামী বিবেকানন্দ” নাটক মঞ্চস্থ হয়। নাটকের আগে ওড়িশি নৃত্য পরিবেশন করেন ওড়িশি নৃত্য শিল্পী সঙ্গীতা দাস ও পন্ডিচরি মীর ড্যান্স একাডেমির শিল্পীরা।

 স্বামী বিবেকানন্দের পরিব্রাজক জীবনের অধ্যায় নিয়ে এই নাটক রচিত। তিনি পায়ে হেঁটে কাশ্মীর থেকে কণ্যাকুমারী এবং ভারতের প্রতিটি অঞ্চলে গিয়ে দীনতম কুটির থেকে বিত্তশালী প্রভাবশালী রাজার বৈভব প্রাচুর্য দেখেছেন। নাটকের মর্মবানী পৃথিবী যখন দুঃখে পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে তখন মানবতার বানী কেন চুপ করে থাকবে। নাটকের গ্রন্থনা নাট্যরূপ ও সঙ্গীত রচনা করেছেন ডাঃ জগন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়।

 অতিরিক্ত সঙ্গীতে ছিলেন স্বামী বিবেকানন্দ ও সন্ত সুরদাস। সঙ্গীত পরিবেশন করেন কৈশিকী চক্রবর্ত্তী, অনুপ ঘোষাল, বিদ্যুৎ ঘোষ,সোমা দাস, বিভাস চট্টোপাধ্যায়। অভিনয় করেছেন স্বামীজীর ভূমিকায় বিদ্যাপতি চক্রবর্ত্তী, সাধু সুরজিৎ দাস,স্টেশন মাস্টার ও স্বামী সদানন্দ উজ্জ্বল মালাকার, হুকোওয়ালা  ও রাজার পর্ষদ চম্পক মুখার্জী । নাটকে নাচ পরিবেশন করে ওন্দ্রিলা সেনগুপ্ত, অন্তরা লোধ এবং রবীন্দ্রভারতী থেকে নৃত্যে ¯œাতোকোত্তর প্রাপ্ত তানিয়া চট্টরাজ, ও মধুমিতা চট্টরাজ। নাটকের আলোক সম্পাতে ছিলেন রনজয় ব্যানার্জী। নাটক ও  ওড়িশি নৃত্য পরিবেশনার আগে শ্রীঅরবিন্দ ডেভলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের সভাপতি ডাঃ বিপুল চন্দ্র রায় ও সাধারণ সম্পাদক কাঞ্চন কুমার অধিকারী দর্শক শ্রোতাদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। নাটক শেষে ভারতীয় অতিথি নাট্য শিল্পী ও নাট্যকারদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন। খবর বিজ্ঞপ্তির।

সরকারি অনুদানের দুই চলচ্চিত্রে মুনমুন

অভি মঈনুদ্দীন : দেখতে দেখতে চলচ্চিত্রে প্রায় দুই দশক সময় পার করছেন চিত্রনায়িকা মুনমুন। মাঝে পারিবারিক কারণে চলচ্চিত্রে অভিনয় থেকে কিছুটা দূরে থাকলেও বর্তমান সময়ে আবারো তিনি চলচ্চিত্রে নিয়মিত হয়ে উঠছেন। অভিনয় করছেন একের পর এক ভালো ভালো চলচ্চিত্রে। বর্তমানে দুটি চলচ্চিত্রের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন মুনমুন।
 একটি জাভেদ জাহিদের ‘দুই রাজকন্যা’ এবং অন্যটি মিজানুর রহমান মিজানের ‘রাগী’। দুটি চলচ্চিত্রেই মুনমুন গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন। বিশেষ করে ‘রাগী’ চলচ্চিত্রে মুনমুন চ্যালেঞ্জিং একটি চরিত্রে অভিনয় করছেন যা নিয়ে একটু বেশিই আশাবাদী। মুনমুন জানান এই ধরনের চরিত্রে তিনি এর আগে কখনোই অভিনয় করেননি। সম্প্রতি মুনমুন শেষ করেছেন দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর ‘৫২ থেকে ৭১’ এবং ড্যানি সিডাকের নির্দেশনায় ‘কাসার থালায় রূপালী চাঁদ’।

 দুটি সরকারী অনুদানে নির্মিত চলচ্চিত্র। একইসাথে দুটি সরকারী অনুদানের চলচ্চিত্রে কাজ করেও বেশ গর্বিত মুনমুন। বর্তমান কাজ ও চলচ্চিত্রে আবারো নিয়মিত হওয়া প্রসঙ্গে মুনমুন বলেন,‘ আমিতো মনেপ্রাণে একজন চলচ্চিত্রের মানুষ। চলচ্চিত্রই আমাকে আজকের মুনমুনে পরিণত করেছে। তাই এই শিল্পের প্রতি আমার আজীবন ভালোবাসা থাকবে। মাঝে পরিবার নিয়ে ভীষণ ব্যস্ত থাকায় চলচ্চিত্রে বেশ কয়েকটি বছর কাজ করা থেকে দূরে ছিলাম। আবারো চলচ্চিত্রে নিয়মিত কাজ করছি। তাই নিজের মধ্যে এক অন্যরকম ভালোলাগা কাজ করছে। বর্তমান সময়ের রাগী চলচ্চিত্রের চরিত্রটি নিয়ে আমি খুব আশাবাদী। চলচ্চিত্রে যারা আমাকে সবসময় সহযোগিতা করেছেন তাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।

’ ১৯৯৭ সালে এহতেশাম পরিচালিত ‘মৌমাছি’ চলচ্চিত্রে মুনমুন প্রথম অভিনয় করলেও জীবন রহমান পরিচালিত ‘আজকের সন্ত্রাসী’ চলচ্চিত্রটির মাধ্যমে তার অভিষেক ঘটে। এতে তার বিপরীতে ছিলেন বাপ্পারাজ। তার অভিনীত রোমান্টিক চলচ্চিত্র শেখ জামাল পরিচালিত ‘লঙ্কাকা-’। এতে তার বিপরীতে ছিলেন জুয়েল। তার মুনমুন অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র বাবুল রেজা পরিচালিত ‘কুমারী মা’। এটি ২০১৪ সালে মুক্তি পায়। এখন পর্যন্ত মুনমুন ৮৬টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। তার অভিনীত একমাত্র কাহিনীচিত্র হচ্ছে বিবেশ রায় পরিচালিত ‘ধানের কাব্য’।

 ২০০১ সালে এর শুটিং হয়েছিলো সুনামগঞ্জের মধ্যনগর বাজারে। ‘ধানের কাব্য’তে অভিনয় করাটাও তার অভিনয় জীবনের এক বিশেষ অর্জন বলে মনে করেন মুনমুন। কারণ ‘ধানের কাব্য’ নির্মিত হয়েছিলো প্রখ্যাত কথা সাহিত্যিক শাহেদ আলীর ছোটগল্প ‘ফসল তোলার কাহিনী’ অবলম্বনে। এতে মুনমুনের সঙ্গে আরো অভিনয় করেছিলেন মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, ডা. গোপীরঞ্জন রায় পোদ্দার, হুমায়ূন কবির, প্রদীপ দেবনাথ, রজনী, হেনা, বিজন বিহারী রায় প্রমুখ। মুনমুন বর্তমানে অভিনয়ের পাশাপাশি স্জে শোতেও ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। ছবি ঃ আলিফ হোসেন রিফাত।

এবং ‘গহীন বালুচর’-এ

অভি মঈনুদ্দীন তখন তিনি বদরুল আনাম সৌদ পরিচালিত ‘অন্তর্যাত্রা’ ধারাবাহিক নাটকের শুটিং করছিলেন। নভেম্বরের শেষ সপ্তাহের কথা, করতোয়াকে সময় দিয়েছিলেন তখন। যেহেতু শুটিং-এর সময়, তাই চাইলেও সুবর্ণা মুস্তাফা অনেকটা সময় দিতে পারেননি। কিন্তু তারপরও পরও ছবি তোলা, শুটিং-এর ফাঁকে ফাঁকে কথা বলেছিলেন তিনি। সেখান থেকেই পাঠকের কাছে কিছু কথা তুলে ধরার চেষ্টা আমাদের।

অনেকদিন সুবর্ণা মুস্তাফাকে চলচ্চিত্রে দেখা যায় না। তার ভক্ত দর্শকেরাও চাইছিলেন তিনি যেন চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। সুবর্ণার কাছে ভক্তদের ভালোলাগা মন্দলাগার বিয়ষটি সবসময়ই গুরুত্ব পেয়েছে। যে কারণে তিনি সবসময়ই চেষ্টা করেন তার দর্শক ভক্তদের জন্য ভালো ভালো গল্পের নাটকে অভিনয় করতে। এই সময়ে একুশে টিভিতে প্রচার চলতি ধারাবাহিক ‘অন্তর্যাত্রা’ও যেন ঠিক তাই। তবে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে সুবর্ণা মুস্তাফা একটি নতুন চলচ্চিত্রে অভিনয়ের শুটিং শুরু করতে যাচ্ছেন। ডিসেম্বরের ২৭ কিংবা ২৮ তারিখে তিনি বদরুল আনাম সৌদ নির্মিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘গহীন বালুচর’র শুটিং শুরু করবেন।

যদিও এর আগেই ঢাকার বাইরে চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরু হবে ২২ ডিসেম্বর থেকে। পরিচালক বদরুল আনাম সৌদ জানিয়েছেন তার আগেই একটি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে শিল্পী কলাকুশলীদের পরিচয় করিয়ে দেয়া হবে। ‘গহীন বালুচর’ চলচ্চিত্রে কয়েক দশক পর সুবর্ণা মুস্তাফা তারই বন্ধু রাইসুল ইসলাম আসাদের সঙ্গে অভিনয় করতে যাচ্ছেন। নাট্যদল ‘ঢাকা থিয়েটার’ থেকেই তাদের বন্ধুত্ব।

সেই হিসেবে রাইসুল ইসলাম আসাদ এবং সুবর্ণা মুস্তাফার মধ্যে বন্ধুত্ব পেরিয়ে গেছে চার দশকেরও বেশি। একই দলের হয়ে তারা দু’জন যেমন মঞ্চ মাতিয়েছেন ঠিক তেমনি টিভি নাটকেও তারা দু’জন একসঙ্গে অনেক নাটকে অভিনয় করেছেন। পাশাপাশি তারা দু’জন জুটিবদ্ধ হয়ে চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন। ১৯৮০ সালে আসাদ এবং সুবর্ণা মুস্তাফা প্রথম জুটিবদ্ধ হয়ে সৈয়দ সালাহ উদ্দীন জাকী পরিচালিত ‘ঘুড্ডি’ চলচ্চিত্রে প্রথম অভিনয় করেন। এতে দু’জনের অনবদ্য অভিনয় সেই সময়ে বেশ প্রশংসিত হয়।

এরপর তারা দু’জন একসঙ্গে অভিনয় করেন সৈয়দ হাসান ইমামের ‘লাল সবুজের পালা’, কাজী জহিরের ‘নতুন বউ’ এবং ১৯৮৪ সালে কাজল আরেফিনের ‘সুরুজ মিঞা’ ও বেলাল আহমেদ’র ‘নয়নের আলো’ চলচ্চিত্রে। এরপর তাদের দু’জনকে আর একসঙ্গে চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায়নি। দীর্ঘ ৩২ বছর অর্থাৎ তিন দশকেরও বেশি সময় পর রাইসুল ইসলাম আসাদ এবং সুবর্ণা মুস্তাফা আবারো একই চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে যাচ্ছেন। বদরুল আনাম সৌদ’র কাহিনী, সংলাপ, চিত্রনাট্য ও নির্দেশনায় ‘গহীন বালুচর’ চলচ্চিত্রে তারা দু’জন আবারো একসঙ্গে অভিনয় করবেন। চলচ্চিত্রের কাহিনী’র দুই পরিবারের প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করবেন আসাদ এবং সুবর্ণা। আসাদ অভিনয় করবেন লতিফ চরিত্রে এবং সুবর্ণা মুস্তাফা অভিনয় করবেন আসমা চরিত্রে।

বহুবছর পর প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে চলচ্চিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে সুবর্ণা মুস্তাফা বলেন,‘ আমি আর আসাদ টিভিতে কিন্তু অনেক নাটক-টেলিফিল্মে কাজ করেছি। কখনো আসাদ আমার স্বামী, কখনো ভাই, আবার কখনো আমার চরিত্রে অভিনয় করেছে। সত্যি বলতে কী আমাদের মধ্যে এতো চমৎকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক যে সবসময়ই আমাদের একসঙ্গে কাজ করাটা অনেক আনন্দের হয়, হয় অনেক ভালোলাগার।

আমি খুব আশা করছি যে আমাদের দীর্ঘদিনের বিরতির পর নতুন চলচ্চিত্রটি অনেক ভালো কিছুই হবে।’ ছোটবেলায় সুবর্ণা মুস্তাফাকে লেখাপড়া ঠিক রেখেই তাকে অভিনয় করতে হতো। কারণ পরিবার থেকে শর্ত ছিলো এমন যে , পড়াশুনায় যদি ভালো না করা যায় তাহলে অভিনয় করাই বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তাই ছোটবেলা থেকেই সুবর্ণা মুস্তাফা পড়াশুনার প্রতি ছিলেন ভীষণ মনোযোগী।

যে কারণে অভিনয় করতে তেমন কোন বাধা ছিলো না। এদিকে সুবর্ণা মুস্তাফা অভিনীত বদরুল আনাম সৌদ পরিচালিত ধারাবাহিক নাটক ‘অন্তর্যাত্রা’ নিয়মিত একুশে টিভিতে প্রচার হচ্ছে। সুবর্ণা মুস্তাফা অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রগুলো হচ্ছে ‘ঘুড্ডি’, ‘লাল সবুজের পালা’, ‘নতুন বউ’, ‘সুরুজ মিঞা’, ‘নয়নের আলো’, ‘স্ত্রী’, ‘পালাবি কোথায়’, ‘দূরত্ব’ ইত্যাদি। এবার সুবর্ণা মুস্তাফাকে বদরুল আনাম সৌদ’র ‘গহীন বালুচর’-এ দেখার অপেক্ষায় দর্শক। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ