সকাল ৭:৫১, বুধবার, ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং
/ ঢাকা

স্টাফ রিপোর্টার: রাজধানীর মিরপুর ২ নং সেকশন এলাকায় ফুটওভার বিজের নিচে চলন্ত বাসেরচাপায় আবুল হাশেম (২১) নামের এক কলেজ ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। মৃত হাশেম তেজগাঁও পলিটেকনিক কলেজের শিক্ষার্থী। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

]গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বেলা পৌনে ১২টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত হাশেম কেরানীগঞ্জের বাটারাকান্দি গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে। তিনি মিরপুর মধ্যপাইকপাড়া এলাকায় পরিবারের সঙ্গে থাকতেন।


মৃত হাশেমের বড় ভাই আবুল কাশেম জানায়, তার ভাই তেজগাঁও পলিটেকনিক কলেজের কম্পিউটার সায়েন্সের ২য় বর্ষের ছাত্র। সকালে মিরপুরের বাসা থেকে খালাত ভাই নাহিদকে (১৬) সঙ্গে নিয়ে উত্তরা যাচ্ছিল ঈদের কেনাকাটা করতে। মিরপুর বাংলা কলেজের সামনে থেকে প্রজাপতি পরিবহনের একটি বাসে ওঠে তারা।

এক পর্যায়ে হাশেম বাসের জানালা দিয়ে মাথা বের করলে একই পরিবহনের অপর একটি বাস পাশ থেকে তাকে চাপা দেয়। গুরুতর আহত হাশেমকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। দুই ভাই, এক বোনের মধ্যে হাশেম মেঝ। ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ বক্সের ইনচার্জ (এসআই) বাচ্চু মিয়া মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ময়না তদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে রাখা হয়েছে।

 

আড়াই বছর পর গাজীপুর সিটি মেয়রের চেয়ারে মান্নান

গাজীপুর প্রতিনিধি: গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচিত মেয়র এমএ মান্নান প্রায় আড়াই বছর পর সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশে মেয়রের চেয়ারে বসেছেন।  রোববার বেলা ১টার দিকে এমএ মান্নান গাজীপুর আদালতে হাজিরা শেষে নগর ভবনে গিয়ে নিজ দপ্তরের চেয়ারে আসন গ্রহণ করেন। এর আগে এম এ মান্নান নগর ভবনে আসবেন, এমন খবরে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মী এবং বিএনপি পন্থী কাউন্সিলরগণ সিটি করপোরেশনের সামনে এসে উপস্থিত হন।

বেলা একটার দিকে নগর ভবনের প্রধান ফটকের সামনে এমএ মান্নান কালো মাইক্রোবাস থেকে নামার পর দলীয় নেতা-কর্মী, কাউন্সিলর এবং সিটি করপোরেশনের কর্মচারীরা তাকে ফুল ছিটিয়ে স্বাগত জানান। পরে মেয়র তার নিজ দপ্তরে এক প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের বলেন, বারবার আমাকে মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়েছে। আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে আজকে এখানে বসতে পেরেছি। পুনরায় গাজীপুর মহানগরের মানুষের সেবা করার সুযোগ পেয়েছি। সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে যে সব কাজ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করা দরকার সে কাজ গুলো করা হবে।এম এ মান্নান বলেন, সর্বোচ্চ আদালতের আদেশের পর মেয়রের দায়িত্ব পালনে আর কোনো অনুমতির প্রয়োজন নেই।প্রসঙ্গত, যাত্রীবাহী বাসে পেট্রলবোমা হামলার মামলায় ২০১৫ সালের ১১ ফেব্র“য়ারি সন্ধ্যায় মেয়র এমএ মান্নানকে ঢাকার বারিধারার বাসভবন থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর পর একে একে তার বিরুদ্ধে সব মিলিয়ে ৩০টি মামলা দায়ের করা হলেও সব কটি মামলায় তিনি জামিন পেয়েছেন। তাঁর অবর্তমানে ২০১৫ সালের ৮ মার্চ থেকে প্যানেল মেয়র আসাদুর রহমান কিরণ গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

ধামরাইয়ে ডাকাতি প্রস্তুতির অভিযোগে গ্রেপ্তার ৪

ঢাকার ধামরাই উপজেলায় ডাকাতি প্রস্তুতির অভিযোগে চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধামরাই থানার কাওয়ালিপাড়া পুলিশ ফাঁড়ীর পরিদর্শক মো. সোহেল রানা জানান, সোমবার রাতে উপজেলার কাওয়ালিপাড়া নান্দেশ্বরী এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন – উপজেলার ধলকুন্দু এলাকার জানে আলমের ছেলে মো. আলামিন (২০), জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে মো. আলামিন (১৮), মৌসাষী এলাকার হাসেম আলীর ছেলে মিলন আলী (১৯) ও আব্দুল মালেকের ছেলে মো. সুমন (২০)।

পরিদর্শক রানা  বলেন, “এই চার তরুণ ডাকাতদলে নতুন নাম লিখিয়েছেন। তারা স্থানীয় ডাকাত।

“সোমবার গভীর রাতে সাটুরিয়া রোডের নান্দেশ্বরী এলাকার একটি লেবুক্ষেতে তারা ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।”

এ সময় আরও কয়েকজন পালিয়ে গেছে জানিয়ে পরিদর্শক রানা বলেন, গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে একটি কাটার, দুটি চাপাতি ও একটা সাদা ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ ডাকাতি প্রস্তুতির মামলা দিয়ে আদালতে পাঠিয়েছে বলে জানান পরিদর্শক রানা।

 

গাজীপুরে আগুনে পুড়েছে ঝুটের গুদাম, স-মিল

গাজীপুর সিটি করপোরেশনে অগ্নিকাণ্ডে আটটি ঝুটের গুদাম ও একটি স-মিল পুড়ে গেছে। কোনাবাড়ি আমবাগ পশ্চিমপাড়া এলাকায় সোমবার রাতে অগ্নিকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটে বলে জানান জয়দেবপুর ফায়ার সার্ভিসের জ্যেষ্ঠ স্টেশন কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেন।

তিনি বলেন, রাত ১১টার দিকে আগুন লাগার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের চারটি ইউনিট গিয়ে প্রায় সাড়ে ছয় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে আব্দুর রাজ্জাক, জাহাঙ্গীর আলম, আক্কাছ আলী, মো. শামীম, শরিফ আহম্মেদসহ কয়েকজনের আটটি ঝুটের গুদাম ও জমির আলীর স-মিল পুড়ে গেছে বলে তিনি জানান।

আগুনের কারণ বা ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানাতে পারেননি তিনি।

 

আশুলিয়ায় ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যঙ্গ করায় বিএনপির কর্মী গ্রেফতার

আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি : সামাজিক  যোগাযোগ মাধ্যম  ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যাঙ্গ করার অভিযোগে আশুলিয়ায় এক বিএনপির কর্মীকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ওই বিএপির কর্মীর নাম  হাসান আলী (৪১)। গতকাল  সোমবার সকালে আশুলিয়া ইউনিয়নের  গৌরিপুর বটতলা  থেকে তাকে  গ্রেফতার করা হয়। হাসান আলী  ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানা এলাকার চাঁন মিয়ার ছেলে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় ,স্থানীয় ওয়ার্ড  বিএনপির কর্মী হাসান আলী তার নিজস্ব ফেসবুক একাউন্টে প্রধানমন্ত্রী  শেখ হাসিনার ছবি ব্যাঙ্গ চিত্র অংকন করে তা  পোস্ট করেন। এ ঘটনায় স্থানীয় সাধারন মানুষের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। পরে এলাকাবাসী বিষয়টি আশুলিয়া থানা পুলিশকে জানায়। পুলিশ গতকাল সোমবার সকালে তাকে  গৌরিপুর বটতলা থেকে  গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।  আশুলিয়া থানা পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মহসিন কাদির ঘটনাটির সত্যাতা নিশ্চিত করে জানান, এলাকাবাসী সু-নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে হাসান আলীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


 

ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় শিক্ষক জসিম জেলহাজতে

সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি : সাভার ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে কৌশলে অপহরণের পরে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ওই স্কুলের লম্পট শিক্ষক জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে সাভার মডেল থানায় অপহরণর ও  ধর্ষণের অভিযোগে এনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। গত শনিবার গভীর রাতে ধর্ষণকারী শিক্ষককে  গ্রেফতারের পর জেল হাজতে প্রেরণ করে পুলিশ। সাভার মডেল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুমন ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গত ৯ জুন বিকেলে সাভার ক্যান্টনমেন্ট স্কুল এ্যান্ড কলেজের দশম  শ্রেণীর এক ছাত্রী (১৫)কে সাভারের শিমুলতলা  থেকে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যান সাভার ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজের বায়োলজি বিভাগের সহকারী শিক্ষক জসিম উদ্দিন। পরে শিক্ষার্থীকে রাজধানীর মহাখালীর একটি  হোটেলে নিয়ে রাতভর ধর্ষণ করেন ওই শিক্ষক। অভিযুক্ত শিক্ষকের গ্রামের বাড়ি ধামরাই উপজেলার মহীশাসী গ্রামে। সে ওই এলাকার  দেলোয়ার  হোসেনের  ছেলে ও বর্তমানে ধামরাই থানা  রোডে ওয়াজেদের বাড়িতে পরিবারসহ ভাড়া থাকে। ধর্ষণের শিকার ওই শিক্ষার্থীকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। এঘটনায় ওই শিক্ষার্থীর পরিবার সাভার মডেল থানায় একটি অপহরণের মামলা করলে পুলিশ সকালে ওই শিক্ষার্থীকে অসুস্থ অবস্থায় আশুলিয়ার জিরাবো  থেকে উদ্ধার করে। এঘটনায় পর ধর্ষণকারী শিক্ষক জসিম উদ্দিন পালিয়ে যায়। পরে  গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার গভীর রাতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা  থেকে তাকে  গ্রেফতার করা হয়। শিক্ষার্থীর বাবা আক্ষেপ করে বলেন, সাভারে এমন একটি নাম করা বিদ্যালয়ে এধরনের ঘটনা দুর্ভাগ্যজনক। এঘটনা ছড়িয়ে পড়লে সাভার ক্যান্টনমেন্ট স্কুল এ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকেরা ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।  

আশুলিয়া থেকে অর্ধকোটি টাকা মূল্যের চোরাই ক্যামিকেল উদ্ধার

আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি : সাভারের আশুলিয়া হতে প্রায় ৪২ লাখ টাকা মূল্যের ক্যামিকেল উপাদান উদ্ধার করেছে গেন্ডারিয়া থানা পুলিশ। এসময় আটক করা হয়েছে শহিদুল হক ও এনামুল হক নামে দুই জনকে। গত রোববার সন্ধ্যায় আশুলিয়ার গাজীরচট এলাকায় রাজধানীর গেন্ডারিয়া থানা পুলিশের একটি বিশেষ টিম অভিযান চালিয়ে ২১৬ ড্রাম ক্যামিকেল পটাশিয়াম পারম্যাঙ্গানেট উদ্ধার করে। যার ওজন প্রায় ১১টন। যা মূলত গার্মেন্টে কাপড় ডায়িং করার কাজে ব্যবহৃত হয়।  গেন্ডারিয়া থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুবুল আলম জানান, গত ৯ জুন গেন্ডারিয়া এলাকার ইসলাম ট্রেডার্স নামে একটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান যারা মূলত গার্মেন্টে ক্যামিকেল সরবরাহ করে থাকে তাদের একটি ক্যামিকেল ভর্তি ট্রাক কর্মচারীসহ আশুলিয়া এলাকা হতে উধাও হয়ে যায়। ইসলাম ট্রেডার্সের পক্ষ হতে এব্যাপারে  গেন্ডারিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হলে অনুসন্ধানে নামে গেন্ডারিয়া থানা পুলিশ। পরে ইসলাম ট্রেডার্সের মালিকপক্ষের তথ্যের ভিত্তিতে সর্বোচ্চ প্রযুক্তি ব্যবহার করে দুই দিনের মাথায় তারা হারিয়ে যাওয়া মালামালের সন্ধান পান আশুলিয়ার গাজিরচট এলাকায়। এসময় পুলিশের ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন ইসলাম ট্রেডার্সের অংশিদার এমকে আফজাল।  তিনি বলেন, প্রায় ১ বছর ধরে তাদের প্রতিষ্ঠানে মালামাল সরবরাহের কাজ করে আসছিলো কর্মচারী শহিদুল হক। শহিদুলের যোগসাজসেই গত ৯ জুন দুপুর হতে ট্রাক ভর্তি মালামাল উধাও হয়ে যায়। পরে তারা মালামাল উদ্ধারের জন্য গেন্ডারিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এসময় তিনি বলেন, ২২০ ড্রামের মধ্যে চার ড্রাম ব্যতিত সকল ক্যামিকেল তারা পেয়েছেন। যার আনুমানিক ক্রয় মূল্য প্রায় ৪২ লাখ টাকা।এঘটনায় গাজিরচট এলাকা হতে উদ্ধারকৃত মালামালসহ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মার্কেট মালিক বাবুল হোসেনকেও আটক করে গেন্ডারিয়া থানা পুলিশ।

টাঙ্গাইলে ‘পেট্রোল বোমাসহ’ শিবিরের ২৯ নেতাকর্মী আটক

টাঙ্গাইলে মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রশিবিরের ২৯ নেতা-কর্মীকে বোমাসহ আটকের খবর দিয়েছে পুলিশ। সংগঠনটির বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মাহমুদুল হাসান ও সাধারণ সম্পাদকও রয়েছেন তাদের মধ্যে।

টাঙ্গাইল সদর মডেল থানার ওসি নাজমুল হক ভুঁইয়া বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন সন্তোষ সেনা বাজারের হাফিজুর রহমানের বাড়িতে সংগঠনটির অনেক নেতা-কর্মী ভাড়া থাকতেন।

“রোববার রাত ৯টার দিকে পুলিশের কাছে খবর আসে সেখানে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড চালানোর জন্য গোপন বৈঠক চলছে। পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে শিবিরের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ২৯ নেতা-কর্মীকে আটক করে। এ সময় তাদের কাছে সাতটি পেট্রোলবোমা ও আটটি হাতবোমাসহ জিহাদি বই পাওয়া যায়।”

তাদের থানায় রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ওসি নাজমুল।

 

গাজীপুরে স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

গাজীপুরে তিন বছর আগে এক পোশাক শ্রমিককে হত্যা মামলায় তার স্বামীকে যাবজ্জীন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। গাজীপুরের জেলা ও দায়রা জজ একেএম এনামুল হক সোমবার সকালে এ রায় ঘোষণা করেন।  

দণ্ডিত শরবেশ আলী (৩৬) টাঙ্গাইলের বাগবাড়ি এলাকার কাসেম আলীর ছেলে। রায় ঘোষণার সময় তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। একইসঙ্গে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

মামলার বিবরণে বলা হয়, ভ্যানচালক শরবেশের স্ত্রী শাহিদা বেগম (৩০) কালিয়াকৈরের একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক ছিলেন। শরবেশ সব সময় তার স্ত্রীর কাছে টাকা চাইতেন। এ নিয়ে প্রায়ই তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হত।

২০১৪ সালের ২ এপ্রিল রাতে শরবেশ ফের শাহিদার কাছে টাকা চাইলে তিনি দিতে অস্বীকৃতি জানান। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শরবেশ বালিশ চাপা দিয়ে শাহিদাকে হত্যা করে পালিয়ে যান। পরে পুলিশ গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হারিছ উদ্দিন আহমদ জানান, এ ঘটনায় শাহিদার মামা ফরহাদ হোসেন বাদী হয়ে শরবেশকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। পরে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

তদন্ত শেষে ওই বছরের ৭ জুলাই কালিয়াকৈর থানার এসআই আজহারুল ইসলাম আদালতে শরবেশ আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন বলে জানান তিনি।

 

রূপগঞ্জে দুই ‘জেএমবি সদস্য’ গ্রেপ্তার

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থেকে জেএমবির সারোয়ার-তামিম গ্রুপের দুই সদস্যকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে র‌্যাব। র‌্যাব সদরদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. মিজানুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, শনিবার রাতে রূপগঞ্জের এক বাড়ি থেকে ওই দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তাদের কাছে একটি পিস্তল, দুটি গুলি ও বেশ কিছু জিহাদি বই পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি। 
র‌্যাব বলছে, গ্রেপ্তার দুজনের মধ্যে ইমরান আহমেদ ওই জঙ্গি সংগঠনের শুরা সদস্য ও ঢাকা মহানগর পশ্চিমের দাওয়াতি আমির। অন্যজন তার সহযোগী শামিম মিয়া। 

রোববার ব্যাবের পক্ষ থেকে ব্রিফিংয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করা হবে বলে মিজানুর রহমান জানান।

রূপগঞ্জে গুলি ছুড়ে অর্ধ কোটি টাকা ছিনতাই

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ফাঁকা ছুড়ে কাপড় ব্যবসায়ীদের ৫৩ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। শনিবার বেলা ১টার দিকে পূর্বাচলের কাঞ্চন-কুড়িল বিশ্বরোড (৩০০ ফিট) সড়কের ১ নম্বর সেক্টর সংলগ্ন নীলা মার্কেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে রূপগঞ্জ থানার ওসি ইসমাইল হোসন জানান।

ছিনতাইয়ের শিকার ব্যবসায়ী স্বপন সরকার বলেন, তিনি রাজধানীর গুলিস্থান ট্রেড সেন্টারেরত স্বর্ণালী এন্টারপ্রাইজ নামের একটি একটি দোকানের পরিচালক। তাদের প্রতিষ্ঠান ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের চলতি বছরের জাকাতের কাপড়ের টেন্ডার পেয়েছে।

“এ কারণে শনিবার পার্টনার জুয়েল, ম্যানেজার রাসেল ও রাকিবকে নিয়ে মাইক্রোবাসে করে নরসিংদীর শেখেরচর হাটে কাপড় কেনার জন্য ৫৩ লাখ টাকা নিয়ে রওনা দেই। গাড়িটি পূর্বাচলেরনীলা মার্কেট এলাকায় স্পিড ব্রেকারের সামনে আসামাত্র পেছনথেকে চারটি মোটরসাইকেল আসে।

“ওই মোটরসাইকেলের আট আরোহী নিজেদের পুলিশ পরিচয় দিতে গাড়িটি থামাতে বাধ্য করে। পরে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে দুটি আলাদা ব্যাগে থাকা টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়।”

এসময় বাধা দেওয়া চেষ্টা করলে পিস্তলের বাট দিয়ে আঘাত করে জুয়েলকে আহত করে বলে জানান এ ব্যবসায়ী। ওসি ইসমাইল বলেন, ছিনতাইকারী চক্র ও ছিনতাই হওয়া টাকা উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় সন্দেহ হওয়ায় গাড়ির চালক শরিফ মিয়াকে আটক করা হয়েছে।

 

‘স্বামীকে আটকে রেখে’ স্ত্রীকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় ‘মুক্তিপণের দাবিতে স্বামীকে আটকে রেখে’ স্ত্রীকে ডেকে নিয়ে দল বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার ওই নারীর স্বামী বাদী হয়ে নয়জনকে আসামি করে মামলা করেছেন বলে জানিয়েছেন কালিয়াকৈর থানার পরিদর্শক মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ।

মামলার পর দুপুরে ওই নারীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে চার যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।  

এরা হলেন উপজেলার হরিণহাটি এলাকার রবিন (২৬), রিপন (৩০), রাজিব (৩০) ও ডালিম (৩৪)। পুলিশ কর্মকর্তা জিন্নাহ বলেন, ওই নারীর স্বামী রং মিস্ত্রি। বাড়িতে রং করার কথা বলে শুক্রবার রাত ৮টার দিকে দীঘির পাড় এলাকায় রবিনদের বাড়িতে ডেকে নেয় আসামিরা।

“পরে তাকে সেখানে আটকে রেখে এক লাখ টাকা মুক্তিপণ চেয়ে স্ত্রীকে ফোন করে রবিন ও রিপন। রাত ৯টার দিকে টাকা ছাড়া স্বামীকে ছাড়িয়ে নিতে ওই নারী রবিনদের বাসায় গিয়ে ছেড়ে দেওয়ার জন্য আসামিদের হাতে-পায়ে ধরেন।”

মামলার বরাত দিয়ে পরিদর্শক জিন্নাহ বলেন, টাকা দিতে না পারায় স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে অন্য ঘরে নিয়ে দল বেঁধে ধর্ষণ করে আসামিরা। পরে চোখ-মুখ বেঁধে স্বামী-স্ত্রীকে দুইটি আলাদা স্থানে আটকে রাখে।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, বিষয়টি টের পেয়ে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দিলে রাত ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে ওই চার যুবককে আটকের চেষ্টা করে। শনিবার ভোরে তারা ওই নারী ও তার স্বামীকে হারিণহাটি এলাকার একটি রাস্তার পাশে ছেড়ে দিয়ে যায়।

পরে পুলিশ তাদের কাছে ঘটনা শুনে হরিণহাটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই চারজনকে আটক করে বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

 

শ্রীপুরে ট্রাক-পিকআপ সংঘর্ষে একজনের মৃত্যু

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষে এক পিকআপযাত্রীর মৃত্যু হয়েছে; এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন জানান, সোমবার রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার এমসি বাজার মেঘনা সাইকেল কারখানার সামনে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত রফিকুল ইসলাম (২৮) ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাট থানার কিসমত নড়াইল গ্রামের আসিম উদ্দিনের ছেলে।

ওসি দেলোয়ার বলেন, রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকটির পেছনে ধাক্কা দেয় বেপরোয়া গতির একটি পিকআপ। “পিকআপের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে গেলে এর যাত্রী রফিকুল ঘটনাস্থলেই মারা যান।”

দুর্ঘটনায় পিকআপচালক ও সহকারীসহ তিনজন আহত হলে তাদের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয় বলে জানান ওসি দেলোয়ার।

আহতরা হলেন – ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানার মনিকুড়া এলাকার জামির উদ্দিনের ছেলে কাজল (২৯), নলুয়া গ্রামের মোস্তফা কামালের ছেলে শফিকুল ইসলাম (২২), ও অজ্ঞাতপরিচয় একজন।

দুর্ঘটনার পর ট্রাকটি পালিয়ে গেলেও পুলিশ পিকআপ আটক করেছে বলে জানিয়েছেন ওসি দেলোয়ার।

 

তুরাগে নৌকা ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু

ঢাকার সাভারে তুরাগ নদীতে নৌকা ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। রোববার রাত ১০টার দিকে সাভারের কাউন্দিয়া এলাকার দিয়াবাড়ি খেয়াঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

কাউন্দিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান খাঁন শান্ত জানান, রাতে মিরপুর থেকে নৌকায় করে ফেরার পথে খেয়াখাট এলাকায় সাত থেকে আটজন যাত্রী নিয়ে নৌকাটি ডুবে যায়। এসময় বেশ কয়েকজন সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও দুই শিশু তলিয়ে যায়।

পরে মিরপুর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল নদীতে তল্লাশি চালিয়ে ১১ ও ১২ বছর বয়সী দুই মেয়ে শিশুর লাশ উদ্ধার করে। তাৎক্ষণিক শিশু দুটির নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

 

গাজীপুর কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

গাজীপুর প্রতিনিধি: গাজীপুর জেলা কারাগারের এক কয়েদির মৃত্যু হয়েছে। কারাগারের ডেপুটি জেলার সর্বোত্তম দেওয়ান জানান, গাজীপুরের তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকালে তার মৃত্যু হয়। মৃত আবুল হোসেন প্রধান (৪৯) কাপাসিয়া উপজেলার আঞ্জাব এলাকার

সামসুদ্দিন প্রধানের ছেলে। সর্বোত্তম দেওয়ান বলেন, সকাল ৮টার দিকে আবুল হোসেন  বুকে ব্যাথা অনুভব করলে তাকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

 কাপাসিয়া থানায় পাওনা টাকা নিয়ে দায়ের করা একটি মামলায় গত ৩১ মে থেকে তিনি গাজীপুর কারাগারে ছিলেন বলে সর্বোত্তম জানান। শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক প্রণয় ভূষণ দাস বলেন, আবুল হোসেন হৃদরোগে আক্রান্ত ছিলেন। জরুরি বিভাগে চিকিৎসা দেওয়ার সময় তার মৃত্যু হয়।

 

ফরিদপুরে কভার্ডভ্যান মাহেন্দ্র সংঘর্ষে নিহত ১

ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরে মাহেন্দ্র ও কভার্ড ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে মাহেন্দ্র চালকের প্রাণ গেছে: আহত হয়েছেন অন্তত সাতজন। শহরের রাজবাড়ি রাস্তার মোড়ে শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার এসআই মনিরুজ্জামান জানান। হতাহতরা সবাই মাহেন্দ্র যাত্রী। নিহত চঞ্চলের বাড়ি মানিকগঞ্জের দিঘি ইউনিয়নের দাউটিয়া গ্রামে।

আহতদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের পেরিচয় নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ। এসআই মনিরুজ্জামান বলেন, ঢাকা থেকে ফরিদপুরগামী একটি কর্ভাডভ্যানের সঙ্গে সংঘর্ষ হলে ঘটনাস্থলেই মাহেন্দ্র চালক চঞ্চল নিহত হন। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় হতাহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় বলে জানান তিনি।

 

টঙ্গীতে শিশু কর্মচারী খুন, আটক ২

গাজীপুরের টঙ্গীতে দোকান কর্মচারী এক শিশুকে মাথায় আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে; এ ঘটনায় মালিকসহ দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। টঙ্গী থানার এসআই মো. ছিদ্দিকুর রহমান জানান, বুধবার রাতে টঙ্গীর উত্তর আউচপাড়া এলাকায় হত্যাকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটে। নিহত তমালের (১৪) মাথায় প্রচণ্ড আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

তমাল আউচপাড়া এলাকায় আহসান উল্লাহর (৩২) টাইলসের দোকানে কাজ করত। সে শেরপুর সদর উপজেলার তিরশা গ্রামের সোহরাব আলীর ছেলে। আটককৃতরা হলেন – দোকান মালিক আহসান ও নিহত তমালের সমবয়সী এক বন্ধু।

তমালের ভাই আপনবাবু বলেন, তারা ওই এলাকার বাদশা মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকেন। “তমাল প্রতিদিন রাত ১০টা-১১টার মধ্যে বাসায় ফিরত। বুধবার ১১টায়ও না ফেরায় তার মোবাইলে ফোন করি। কিন্তু সে রিসিভ করছিল না। রাত সোয়া ১১টার দিকে তমালের এক বন্ধু ও দোকান মালিক আহসান খবর দেন, একটি নির্মাণাধীন ভবনের এক কোণায় অচেতন অবস্থায় তমাল পড়ে আছে।”

পরে তাকে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান তিনি।

রাতেই তমালের মা হুজুরা বেগম আহসানকে প্রধান করে অজ্ঞাত আরও ১০-১২ জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানিয়েছেন এসআই ছিদ্দিকুর রহমান।

 

সাভারে মা-মেয়েকে মারধর, মেয়েকে ‘ধর্ষণের চেষ্টা’

পূর্ব শত্রুতার জেরে সাভারে মা-মেয়েকে মারধরের পর মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় কয়েক যুবকের বিরুদ্ধে। আহত ওই নারী (৫০) ও তার মেয়েকে (২৫) সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভার্তি করা হয়েছে।

সাভার পৌর এলাকার বক্তারপুর মহল্লার ভাড়া বাড়িতে সোমবার মধ্যরাতে মারধরের ঘটনা ঘটলেও ধর্ষণের চেষ্টা হয়নি বলছেন সাভার মডেল থানায় এসআই শেখ ফরিদ উদ্দিন।

ওই নারীর ছেলে বলেন, প্রায় দুই সপ্তাহ আগে বাসা থেকে তাদের দুটি মোবাইল ফোন চুরি হয়। তখন এলাকার আজিজুলকে বাড়ির সামনে ঘুরতে দেখে সন্দেহ হলে তার কাছে ফোন চুরির বিষয় জানতে চাইলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে।

“এক পর্যায়ে ওই রাতে আজিজুল তার লোকজন নিয়ে এসে আমাদের মারধর করে। এ ঘটনায় আমরা সাভার মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছি।” বিষয়টি এলাকায় সালিশের মাধ্যমে মীমাংসার কথা ছিল জানিয়ে তিনি বলেন, সোমবার সালিশ বৈঠক হওয়ার কথা থাকলেও তা হয়নি। পরে রাতে এলাকার আজিজুল, নজরুল, সুলতান, আমিরসহ আরও ১৫/২০ জন তাদের বাড়িতে গিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট চালায়।

“তাছাড়া আমার মা-বোনকে মারধর করে। এক পর্যায়ে মাকে একটি ঘরে আটকে রেখে আমার বোনকে ধর্ষণের চেষ্টা করে তারা।” পরে তার মা-বোনের চিৎকারে এলাকাবাসী বেরিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায় বলে জানান তিনি।

এসআই ফরিদ বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। তবে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়নি। ধস্তাধস্তিতে জামা-কাপড় ছিঁড়ে গেছে। বিষটি স্থানীয়ভাবে মীমাংসার চেষ্টা করা হবে বলেও তিনি জানান।

সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন ওই তরুণী বলেন, তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছিল।

 

নারায়নগঞ্জে শিক্ষক লাঞ্ছনা সেলিম ওসমানের আদালতে আত্মসমর্পণ

নারায়ণগঞ্জের শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে লাঞ্ছনার মামলায় ঢাকার আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন এমপি এ কে এম সেলিম ওসমান।  রোববার সকালে তিনি ঢাকার মুখ্য বিচারিক হাকিম জেসমিন আরার আদালতে হাজির হয়ে জামিন চান।

বিচারক জামিন আবেদনের শুনানির জন্য আগামী ২৩ মে দিন রেখেছেন বলে আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের কৌসুঁলি আনোয়ারুল কবির বাবুল জানান। তিনি বলেন, গত ৮ মে সেলিম ওসমান হাইকোর্টে আত্মসমর্পণ করে ১৫ দিনের জামিন নেন। ওই জামিনের মেয়াদ আগামী ২২ মে শেষ হওয়ার কথা। এদিন আদালতে আসামি পক্ষে ছিলেন আইনজীবী কাজী নজিবুল্লা হিরু ও সিদ্দিকুর রহমান। বিচারিক তদন্তে নারায়ণগঞ্জের পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তিকে লাঞ্ছনায় সম্পৃক্ততা পাওয়ার পর সেলিম ওসমান ও স্থানীয় অপু প্রধানকে ২৯ মার্চ তলব করা হয়েছিল। ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে গত বছরের ১৩ মে শ্যামল কান্তিকে তারই স্কুলের প্রাঙ্গণে লাঞ্ছিত করা হয়। ওই ঘটনার ভিডিওতে প্রধান শিক্ষককে কান ধরে উঠ-বসের নির্দেশ দিতে দেখা যায় স্থানীয় সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানকে। এই ঘটনা প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। তবে বিষয়টি নিয়ে নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি হলে পুলিশ ‘লাঞ্ছনার প্রমাণ পাওয়া যায়নি’ উল্লেখ করে অভিযোগ সত্য নয় বলে আদালতে প্রতিবেদন দেয়। কিন্তু পুলিশ প্রকৃত দোষীদের চিহ্নিত করতে ব্যর্থ হয়েছে বলে হাই কোর্ট পুরো ঘটনার বিচারিক তদন্তের নির্দেশ দেওয়ার পর ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম শেখ হাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে তদন্ত কমিটি গঠিত হয়। ওই কমিটি গত ১৯ জানুয়ারি হাই কোর্টে প্রতিবেদন দাখিল করে।

গোপালগঞ্জে তরুণ-তরুণীর ঝুলন্ত লাশ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলায় গাছের ডালের সঙ্গে গলায় ওড়না বাঁধা তরুণ-তরুণীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।কাশিয়ানী থানার ওসি একেএম আলীনূর হোসেন জানান, শনিবার সকালে উপজেলার থানাপাড়া এলাকার একটি রেইনট্রি গাছের ডালে তাদের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা।নিহতরা হলেন – উপজেলার বরাশুর গ্রামের মানিক শেখের ছেলে কাঠমিস্ত্রি নূর ইসলাম (২৪) ও ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার বারৈপাড়া গ্রামের নওশের আলীর মেয়ে খুকুমনি (২২)।

 

ওসি হোসেন বলেন, খুকু থানাপাড়ায় তার দুলাভাই রিপন মিয়ার বাড়ি থাকতেন। ফার্নিচার নির্মাতা রিপনের দোকানে কাজ করতেন কাঠমিস্ত্রি নূর ইসলাম।“নূর ও খুকুর মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে বলে এলাকাবাসীর ধারণা। শুক্রবার রাতে তারা দুইজনই রিপনের বাড়ি খাবার খায়।

 

সকালে রিপনের বাড়ির পাশের বারাশিয়া নদীর পাড়ে রেইনট্রি গাছের ডালের সঙ্গে দুই ওড়নার দুই প্রান্তে দুইজনের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় এলাকাবাসী।প্রাথমিকভাবে একে আত্মহত্যা বলেই ধারণা করছে পুলিশ। তবে বিষয়টি অনুসন্ধানের পাশাপাশি লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি হোসেন।তাদের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

গাজীপুরে আগুনে পুড়ল পোশাক কারখানা

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার একটি পোশাক কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার চন্দ্রা এলাকার ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইংয়ে শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে আগুন লাগে বলে জানান জেলা ফায়ার সার্ভিসের সহকারী উপ-পরিচালক আখতারুজ্জামান।

তিনি বলেন, খবর পেয়ে কালিয়াকৈর, জয়দেবপুর, ঢাকা ইপিজেড ও মির্জাপুর স্টেশন থেকে সাতটি ইউনিট গিয়ে প্রায় দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। “কারখানার সাততলা ভবনের তৃতীয়তলায় আগুন লেগে পুরো ফ্লোরে ছড়িয়ে পড়েছিল। ওই ফ্লোরে থাকা তৈরি পোশাক ও ফেব্রিক্স পুড়ে গেছে।”

আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানান ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা আখতারুজ্জামান।

 

গাজীপুরে স্ত্রী ‘হত্যায়’ স্বামী গ্রেপ্তার

গাজীপুরের কাপাসিয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগে তার স্বামীকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার বিকালে ঘরের তালা ভেঙে মোসা. শামীমা আক্তারের (৩০) লাশ উদ্ধার এবং পরে ঢাকা থেকে স্বামী হাবিবুর রহমানকে (৪০) গ্রেপ্তার করা হয় বলে কাপাসিয়া থানার এসআই মনিরুজ্জামান জানান।

হাবিবুর কাপাসিয়ার একটি গ্রিল ওয়ার্কশপের শ্রমিক। উপজেলার সাফাইশ্রী এলাকার বাসিন্দা তিনি, পরিবার নিয়ে পাশের জুনিয়া আদালতপাড়া এলাকা একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

এসআই মনিরুজ্জামান জানান, নিহত শামীমা শ্রীপুর উপজেলার গোসিঙ্গা ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামের মৃত আহমদ আলীর মেয়ে। ১২ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। তাদের দুই শিশুকন্যা মাইশা (১০) ও লামিয়াকে (৭) বৃহস্পতিবার তাদের নানা বাড়িতে রেখে আসেন হাবিবুর।

পরদিন শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে হাবিবুর মোবাইলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়েছে বলে নিহতের ভাই খালিদ হোসেনকে তাদের বাসায় যেতে বলেন। “খালিদ তাদের বাসায় গিয়ে শামীমার ঘর তালাবন্ধ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন। বিকালে ঘরের তালা ভেঙে শামীমার রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।”

পরে কৌশলে হাবিবুরকে ঢাকার দনিয়া থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে এসআই জানান।

 

নারায়ণগঞ্জে উদ্ধার নারীর লাশের পরিচয় মিলেছে

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় পাওয়া নারীর অর্ধগলিত লাশের পরিচয় পাওয়া গেছে। তিনি উপজেলার কদমরসুল এলাকায় বসবাসকারী বেদে সম্প্রদায়ের আলম সওদাগরের মেয়ে তানিয়া। গত পহেলা বৈশাখে স্বামী আকাশ ওরফে আব্বাসের সঙ্গে বেড়াতে বের হওয়ার পর নিখোঁজ থাকেন তানিয়া। বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় তার অর্ধগলিত লাশ পাওয়া যায়।


তানিয়ার মা শাহনাজ বেগম সাংবাদিকদের জানান, তারা বেদে সম্প্রদায়ের লোক। তারা পরিবার পরিজন নিয়ে বন্দর উপজেলার কদমরসুল দরগাহর পাশে মিঠু মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকেন। তানিয়া শহরের একটি গার্মেন্টসে কাজ করার সময় পরিচয় হয় ভোলার চরফেশন উপজেলার ওমরাবাহু গ্রামের মহিউদ্দিন মিয়ার ছেলের সাথে। পরিচয়ের সূত্র ধরে তারা বিয়ে করে। তিনি বলেন, তানিয়েকে নিয়ে আকাশ বন্দর উপজেলার একরাপুর এলাকার আলম মিয়ার বাড়িতে ভাড়া বাসায় থাকত। পহেলা বৈশাখ বেড়াতে বের হওয়ার পর থেকে তানিয়া নিখোঁজ হয়।


 তার স্বামী আকাশ তাদের এসে বলে- ‘তানিয়া অন্য নাগর ধরে চলে গেছে’। তানিয়ার বাবা আলম সওদাগর সাংবাদিকদের বলেন, তার বাড়ি মুন্সীগঞ্জের টংগীবাড়ি উপজেলার আবদুল্লাহপুরে। তারা প্রথমে নৌকায় থাকতেন; পরে কদমরসুল এলাকায় দীর্ঘদিন যাবত ভাড়া বাসায় বসবাস করছেন। তানিয়া প্রেম করে নিজ ইচ্ছায় বিয়ে করার পর জানতে পারে স্বামী আকাশের আগের স্ত্রী-সন্তান রয়েছে।

 

 এ নিয়ে তানিয়ার সঙ্গে আকাশের ঝগড়া হয়েছিল। এই সূত্র ধরেই আকাশ তানিয়াকে খুন করেছে। বন্দর থানার ওসি আবুল কালাম জানান, নিহতের পরিচয় শনাক্ত হয়েছে। এই ঘটনায় তানিয়ার বাবা বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এই ঘটনায় গ্রেফতার তানিয়ার স্বামী আকাশ ওরফে আব্বাস প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার দায় স্বীকার করেছে।

 

 পরকীয়া প্রেমের জের ধরে তানিয়াকে হত্যা করা হয়েছে বলে জিজ্ঞাসাবাদে সে জানিয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় তানিয়ার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায় পুলিশ। লাশ উদ্ধারের আট ঘণ্টা পর তানিয়ার লাশ বলে শনাক্ত করেন তার মা শাহনাজ। বৃহস্পতিবার বিকালে পুলিশ আকাশকে গ্রেপ্তার করে। গতকাল শুক্রবার সকালে তানিয়ার লাশ নবীগঞ্জ কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

গ্যাস সঙ্কটে দুর্ভোগে রাজধানীর মিরপুরবাসী

স্টাফ রিপোর্টার: রাজধানীর মিরপুর এলাকায় শুক্রবার সকাল থেকে গ্যাস না থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে এলাকার বাসিন্দারা। মেট্রোরেলের কাজের জন্য গ্যাস লাইনের সংস্কারে গ্যাস বন্ধ রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। গ্যাস বন্ধ রাখার খবর আগেই স্থানীয়ভাবে মাইকিং করে ও গণমাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।  দুপুর ২টার পর থেকে কিছু কিছু এলাকায় আবার গ্যাস আসতে শুরু করেছে বলে জানা গেছে। মিরপুর ১, ২, ৬, ১০, ১১, ১২ নম্বর সেকশনসহ কাজীপাড়া, শেওড়াপাড়াসহ আশেপাশের এলাকায় শুক্রবার সকাল থেকে গ্যাস লাইন বন্ধ ছিল।


গ্যাস লাইন বন্ধ থাকায় খাবারের জন্য হোটেলগুলোতে ছিল ভীড়, চাহিদার তুলনায় খাবার সরবরাহ কম থাকায় দীর্ঘ লাইন দিয়ে খাবারের অপেক্ষা করে অনেকে ফিরে গেছেন। মিরপুর -১১ নম্বর সেকশনে ১২ নং রোডের বাসিন্দা মৃদুল কুমার চাকী বলেন, সকাল থেকে বাসায় গ্যাস নেই। খাবারের জন্য সাত/আটটি হোটেল ঘুরে লম্বা লাইন ধরে, এক প্রকার যুদ্ধ করে খাবার সংগ্রহ করেছি।গ্যাস না থাকায় আমাদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। কখন গ্যাস আসবে জানিনা। মিরপুর -২ এর বাসিন্দা সাজ্জাদ খানও জানিয়েছেন একইরকম অবস্থার কথা।


 তিনি বলেন, সকাল থেকে গ্যাস না থাকায় অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।হোটেলগুলোতে ছিল খাবারের জন্য হাহাকার।বিশেষ করে নামাজের পরে এটা আরো চরম আকার ধারণ করে। কেননা হোটেলগুলোতে খাবারের তুলনায় চাহিদা ছিল অনেক বেশি। তিনি আরও বলেন, সকাল থেকে শুধু রুটি আর কলা খেয়েছি। গ্যাস না থাকায় সবচেয়ে বেশি সমস্যা হচ্ছে ব্যাচেলরদের। তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেডের মতিঝিল জোনের ম্যানেজার মো  হুমায়ুন কবির (শিল্প) বলেন, লাইন সংস্কারের জন্যই গ্যাস বন্ধ রাখা হয়েছিল।


 গতরাত ১০টা থেকে সকাল ১০ টার মধ্যে কাজ শেষ করার কথা থাকলেও শেষ হতে প্রায় দুপুর দুইটা বেজে গেছে। দুইটার পর থেকে পুনরায় গ্যাস লাইন চালু হয়েছে। লাইন বন্ধের জন্য কোন ঘোষণা ছিল কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, সংশ্লিষ্ট এলাকা গুলোতে মাইকিং করা হয়েছে, এমনকি টেলিভিশনে এর জন্য প্রচারণা করা হয়েছে। আগাম ঘোষণা দিয়েই সব কিছু করা হয়েছে। দুপুরের পর থেকে ওইসব এলাকায় পর্যায়ক্রমে গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে এবং ধীরে ধীরে বৃহত্তর মীরপুর এলাকার গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হবে বলে তিতাস গ্যাস সূত্রে জানা গেছে।

 

ক্ষতিপূরণ মওকুফ ট্যানারিগুলোকে দিতে হবে ৫০ হাজার টাকা

পরিবেশের ক্ষতিপূরণ বাবদ ১৪২ ট্যানারির বকেয়া ৩০ কোটি ৮৩ লাখ এবং প্রতি মাসের জরিমানার ১০ হাজার টাকা মওকুফ করে কারখানাগুলোকে এককালীন ৫০ হাজার টাকা করে জমা দিতে বলেছে সর্বোচ্চ আদালত।
ট্যানারি গুলোকে ১৫ দিনের মধ্যে ওই টাকা শ্রম মন্ত্রণালয়ে জমা দিতে হবে। হাজারীবাগ থেকে যেসব কারখানা সাভারে যাবে, তাদের শ্রমিকদের পুনর্বাসন ও কল্যাণে ওই অর্থ ব্যয় করবেন শ্রম সচিব।

ট্যানারি মালিকদের একটি আবেদনের শুনানি করে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার সদস্যের বেঞ্চ  রোববার এই আদেশ দেয়। পরিবেশের ক্ষতিপূরণ বাবদ বকেয়া অর্থ পরিশোধের আদেশ স্থগিত এবং প্রতিদিন ১০ হাজার টাকা করে জরিমানার রায় পুনর্বিবেচনার জন্য এই আবেদন করেছিলেন ট্যানারি মালিকরা। আদালতের নির্দেশের পরও সাভারের চামড়া শিল্প নগরীতে না গিয়ে যেসব চামড়া কারখানা রাজধানীর হাজারীবাগে থেকে গেছে, তাদের গ্যাস-বিদ্যুৎ-পানির সংযোগ ইতোমধ্যে বিচ্ছিন্ন করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। রোববারের আদেশে আপিল বিভাগ বলেছে, যেসব ট্যানারি কারখানা সাভারের চামড়া শিল্প নগরীতে গ্যাস, পানি ও বিদ্যুৎ সংযোগের আবেদন করেছে, তাদের ১৫ দিনের মধ্যে সংযোগ নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি সাভারের পরিবেশ রক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করতে পরিবেশ অধিদপ্তর ও বিসিককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আদেশে বলা হয়েছে, সাভারে চামড়া শিল্প নগরীতে বর্জ্য পরিশোধনের জন্য সিইটিপি ও অন্যান্য ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। তা না হলে স্থানান্তর প্রক্রিয়া ফলপ্রসূ হবে না। এই নির্দেশনা অমান্য করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘বুড়িগঙ্গাকে বাঁচাতে গিয়ে ধলেশ্বরী যেন আরেকটি বুড়িগঙ্গা না হয়।’ হাজারীবাগ থেকে ট্যানারি সরানোর পর সেখানে নিজস্ব সম্পত্তি বা স্থাপনা মালিকরা যদি অন্য কোনো কাজে ব্যবহার করতে চান, তাহলে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নিয়ে সেখানে গ্যাস, বিদুৎ, পানির সংযোগ দিতে বলেছে আদালত। আপিল বিভাগে ট্যানারি মালিকদের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সৈয়দ আমিরুল ইসলাম, ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ও ব্যারিস্টার মোহাম্মদ মেহেদী হাসান চৌধুরী। অপরপক্ষে ছিলেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ; রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। বার বার তাগাদা দেওয়ার পরও হাজারীবাগের ট্যানারিগুলো না সরানোয় কারখানাগুলোকে পরিবেশের ক্ষতি হিসেবে প্রতিদিন ১০ হাজার টাকা করে দিতে নির্দেশ দিয়েছিল আপিল বিভাগ। সেই টাকা ট্যানারি মালিকরা না দেওয়ায় হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ হাই কোর্টে আরেকটি আবেদন করে। এরপর বকেয়া প্রায় ৩১ কোটি টাকা পরিশোধের জন্য দুই সপ্তাহ সময় বেঁধে দেয় হাই কোর্ট। বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন ও ফিনিশড লেদার গুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন এর বিরুদ্ধে আপিল করে। সেই সঙ্গে প্রতিদিন ১০ হাজার টাকা করে দেওয়ার আদেশের রিভিউ (পুনর্বিবেচনা) চাওয়া হয়। ওই আবেদনের ওপর শুনানি করে গত ৩০ মার্চ আপিল বিভাগ হাজারীবাগের সব ট্যানারি ৬ এপ্রিলের মধ্যে বন্ধের নির্দেশ দিয়ে। আদেশে বলা হয়, ট্যানারি বন্ধ হওয়ার পর জরিমানা পুনর্বিবেচনার আবেদন আদালত বিবেচনা করবে।

গাড়িচাপায় নারীর মৃত্যু র‌্যাকার এনে বাস উঁচু করে বের করা হলো লাশ

স্টাফ রিপোর্টার: হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সামনের সড়কে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে মরিয়ম (৪৫) নামে এক চা বিক্রেতার মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক পুলিশের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার ফাতেমা ইসলাম বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কে দ্রুতগামী গাজীপুর পরিবহনের চাপায় মরিয়মের মৃত্যু হয়। তার মরদেহ বাসটির চাকার ভিতর আটকে ছিল। পরে রেকার এনে গাড়ি উঁচু করে মরদেহ বের করা হয়।


পুলিশ জানায়, মরিয়মের স্বামীর নাম আমির হোসেন। এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে তারা আশকোনা এলাকার সিভিল অ্যাভিয়েশন টিনশেড কলোনিতে বাস করছে। তাদের বাড়ি কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে। মরিয়মের চা দোকানের পাশের চা দোকানি খাদিজা বেগম জানান, প্রতিদিনের মতো শুক্রবার ভোরেও দোকান খুলে চা বিক্রি শুরু করেন মরিয়ম। একপর্যায়ে দোকানের ময়লা  ফেলতে রাস্তার ওপারে যায় সে।

 ফেরার পথে বাস চাপায় তিনি মারা যান। তিনি জানান, এ এলাকায় মরিয়ম ও তার স্বামী চা বিক্রি করেন বহু বছর ধরে। পালাক্রমে তারা দোকানে থাকতেন। বিমানবন্দর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) টি এম আল আমিন বলেন, মরিয়মের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন, গাড়িটি আটক করা হয়েছে। বিআরটিএর মাধ্যমে মালিককে শনাক্ত করা হবে।


অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার : গতকাল শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর বিমানবন্দর  রেলস্টেশন  থেকে অজ্ঞাত (২৬) এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।ঢাকা রেলপথ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রবিউল্লাহ জানান, রেলস্টেশনের এক নম্বর প্লাটফর্ম থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহতের কনুই থেকে দুই হাত ও দুই পা আগে থেকেই ছিল না। সে বিমানবন্দর রেলস্টেশন এলাকায় ভিা করত। তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠানো হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে অসুস্থতার কারণে তার মৃত্যু হয়েছে।

 

সাভারে কিশোরের আত্মহত্যা

সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি  : সাভারে মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ায় মো. ইমন (১৫) নামে এক কিশোর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। গত সোমবার রাতে সাভার পৌর এলাকার তালবাগ মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে।

ইমন ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জের রুহিতপুর গ্রামের ওমর ফরুকের ছেলে। ইমনের মামা ইমান উদ্দিন জানান, ইমন একটি মোটরসাইকেল আবদার করে তার মায়ের কাছে। কিন্তু তার মা ইয়াসমিন আক্তার মোটরসাইকেল কিনে দিতে না পারায় অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। সোমবার রাতে সবাই আড়ালে ফ্যানের সাথে ঝুলতে দেখে পুলিশ খবর দেয়। সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জামাল  ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। থানায় এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

সাভারে বাসচাপায় ২ যুবক নিহত

সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি : সাভার ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে  দ্রুতগামী সুপার সার্ভিস পরিবহন লি: এর বাসচাপায় দুই বাইসাইকেলের আরোহী নিহত হয়েছে। গত শুক্রবার রাত ৯ টার দিকে সাভারের আমিন বাজার সালেহপুর ব্রিজের পাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হচ্ছে নীলফামারী জেলার জলঢাকার মজিবর রহমানের ছেলে মো: সুমন (১৯) ও  ভোলা জেলার দৌলতখান থানা এলাকার জয়নাল আবেদীনের ছেলে মো: রাসেল (২০)। পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে। এদিকে ঘটনার পর সাভার থানা পুলিশ  অভিযান চালিয়ে ঘাতক বাসটিকে আটক করেছে। নিহত দুই যুবক রাজধানীর শ্যামলী আদাবর এলাকার থাকত বলে জানা যায়।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, নিহত ওই দুই যুবক  বাইসাইকেলে করে রাত ৯টার দিকে আমিনবাজার কি গাবতলীর দিকে যাচ্ছিল। এ সময়  পেছন  থেকে আসা রাজধানী পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১১-৯৪৮০)  তাদের চাপা  দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই  সুমনের মৃত্যু হয়। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় রাসেলকে উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তবরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

 

মুন্সীগঞ্জে বাসের ধাক্কায় নিহত ২

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় বাসের ধাক্কায় দুইজন নিহত হয়েছে। উপজেলার বাউশিয়ায় মতলব সিএনজি পাম্পের সামনে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে ভবেরচর হাইওয়ে ফাঁড়ির সার্জেন্ট মো. হাসেম জানান।

নিহতদের মধ্যে একজন নোয়াখালীর রামগতি থানার চর আফজাল গ্রামের মাঈনুদ্দিন মিয়ার ছেলে মিরাজ (২৮) বলে জানালেও আরেকজনের পরিচয় পাওয়া জানাতে পারেননি তিনি। সার্জেন্ট হাসেম বলেন, পাম্পের সামনে নষ্ট হয়ে যাওয়া একটি পিকআপ ভ্যানকে চালু করার জন্য মিরাজ ও আরেকজন পেছন থেকে ধাক্কা দিচ্ছিল। এ সময় পেছন থেকে একটি বাস ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই এই দুজনের মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনার পর পিকআপ ও বাসটি আটক করা হয়েছে।

 



Go Top