রাত ৮:৪৩, শুক্রবার, ২১শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ চট্রগ্রাম

চাঁদপুরে শিক্ষার্থীদের বানানো ‘মানব সেতুতে’ হাঁটার ঘটনায় নির্যাতনের মামলায় হাইমচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের জামিন বাতিল করেছে হাই কোর্ট। চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটোয়ারীকে চার সপ্তাহের মধ্যে চাঁদপুরের মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে আত্মসমর্পণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এক শিক্ষার্থীর অভিভাবকের করা আবেদনে এর আগে দেওয়া রুলের নিষ্পত্তি করে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাই কোর্ট বেঞ্চ  বুধবার এ রায় দেয়। আদালতে আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. শাহরিয়া কবির; সঙ্গে ছিলেন সারওয়ার হোসেন। আর চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটোয়ারীর পক্ষে শুনানি করেন শ ম রেজাউল করিম।

গত ৩০ জানুয়ারি হাইমচরের নীলকমল ওছমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের হাতে হাত রেখে তার ওপর আরেক শিক্ষার্থীকে শুইয়ে বানানো ‘পদ্মা সেতুর’ ওপর দিয়ে হাঁটেন নূর হোসেন পাটোয়ারী। ওই ঘটনার ছবি ও ভিডিও ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় সমালোচনার ঝড়। গত ১ ফেব্রুয়ারি এক অভিভাবক নূর হোসেন পাটওয়ারী ও স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হুমায়ুন আহমেদ, সদস্য আহমেদ ও আবুল বাশারের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) সৈয়দা সারোয়ার জাহান যে তদন্ত প্রতিবেদন দেন, সেখানে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ার কথা জানিয়ে চেয়ারম্যানসহ তিনজনকে দায়ী করা হয়।

চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটোয়ারী গত ২৯ মার্চ আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করলে চাঁদপুর শিশু আদালতের বিচারক অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মামুনুর রশিদ মামলার অভিযোগপত্র দাখিল পর্যন্ত তার জামিন মঞ্জুর করেন। জামিনের ওই আদেশ বাতিল চেয়ে নীলকমল ওছমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক রিট আবেদন করলে গত ২৫ এপ্রিল হাই কোর্ট রুল জারি করে। হাইমচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের জামিন কেন বাতিল হবে না, তা জানতে চাওয়া হয় রুলে। জেলা প্রশাসক, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানসহ বিবাদীদের এর জবাব দিতে বলা হয়। এছাড়া শিশু আদালতের বিচারক কোন কর্তৃত্ববলে জামিন দিয়েছেন, তার ব্যাখ্যা জানতে চাওয়া হয়। ওই রুলের ওপর শুনানি শেষে হাই কোর্ট বুধবার জামিন বাতিল করে হাইমচরের চেয়ারম্যানকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিল। 

এই বিভাগের আরো খবর

চট্টগ্রামে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম শহরে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছেন, যাকে ‘তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী’ বলছে র‌্যাব। বুধবার ভোর রাতে নগরীর পলোগ্রাউন্ড মাঠে গোলাগুলির এ ঘটনা ঘটে বলে র‌্যাব-৭ এর লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশেকুর রহমান জানান। নিহত আবুল কালাম (২৫) ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার বড় দরবেশ গ্রামের হোসেন আহমদের ছেলে। তিনি স্থানীয়ভাবে ‘ল্যাংরা কালাম’ নামে পরিচিত ছিলেন এবং একটি জলদস্যু দলের নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন বলে র‌্যাবের ভাষ্য। লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশেকুর জানান, পলোগ্রাউন্ড মাঠে একদল সশস্ত্র লোকের অবস্থানের খবর পেয়ে র‌্যাবের একটি টহল দল ভোরের দিকে সেখানে যায়। মাঠে থাকা সন্ত্রাসীরা র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময় টহল দলের সঙ্গে আরও র‌্যাব সদস্য এসে যোগ দিলে দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি শুরু হয়। কিছুক্ষণ পর সন্ত্রাসীদের অনেকে দেয়াল টপকে পালিয়ে গেলে মাঠে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক জহিরুল ইসলাম জানান, ভোরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় কালামকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। র‌্যাব-৭ এর স্টাফ অফিসার এএসপি মিমতানুর রহমান  বলেন, কালাম একটি জলদস্যু দল চালাতেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের করা সন্ত্রাসীদের তালিকায় তার নাম ছিল। ঘটনাস্থল থেকে একটি একে-২২ রাইফেল, ৭.৬৫ ক্যালিবারের একটি বিদেশি পিস্তল এবং কিছু গুলি উদ্ধারের কথা জানিয়েছে র্যা ব।

এই বিভাগের আরো খবর

ভারতীয় শিক্ষার্থী খুনে তার স্বদেশী গ্রেফতার

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রামে ভারতীয় শিক্ষার্থী খুনের ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে তার স্বদেশী এক সহপাঠীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার বিকালে নিরাজ গুরু নামে ওই শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করা হয় বলে আকবর শাহ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাকির হোসেন ভূঁইয়া জানিয়েছেন। নিরাজ চট্টগ্রামের বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ইউএসটিসি’র ২৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। ওই ব্যাচেরই শিক্ষার্থী আতিফ শেখ গত সপ্তাহে খুন হন।

পুলিশ কর্মকর্তা জাকির বলেন, বিকালে নিরাজকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে আনার আবেদন করা হবে। গত ১৪ জুলাই রাতে আকবর শাহ থানার আব্দুল হামিদ সড়কের ছয় তলা একটি ভবনের পঞ্চম তলার বাসায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুন হয় আতিফকে। ওই বাসা থেকে আতিফের সহপাঠী আরেক ভারতীয় উইলসন সিংকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আতিফ ও উইলসনকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিলেন নিরাজ। ওই বাসায় স্ত্রীকে নিয়ে থাকতেন নিরাজ। নিহত আতিফ শেখের বাবা আব্দুল খালেক বাদী হয়ে আকবার শাহ থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় সুনির্দিষ্ট কাউকে আসামি করা না হলেও আতিফের সহপাঠী উইলসন, নিরাজসহ ছয় ভারতীয় এবং দুই বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে সন্দেহের তালিকায় রাখা হয় বলে ওসি মুহাম্মদ আলমগীর জানিয়েছিলেন।

এই বিভাগের আরো খবর

সরকারি ১৫৫ মেট্রিক টন চাল পাচারের সময় উদ্ধার, আটক ৫

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: সরকারি গুদাম থেকে পাচারের সময় চট্টগ্রামে ১৫৫ মেট্রিক টন চালসহ পাঁচজনকে আটক করেছে র‌্যাব। আটকদের মধ্যে চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহর খাদ্য গুদামের ব্যবস্থাপক প্রণয়ন চাকমাও রয়েছেন।

র‌্যাব-৭ এর লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশেকুর রহমান জানান, সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার বিকাল পর্যন্ত নগরীর হালিশহর ও সিটি গেইট এলাকায় অভিযান চালিয়ে এসব চাল উদ্ধার করা হয়। তিনি বলেন, প্রথমে সোমবার গভীর রাতে হালিশহর সিএসডি গোডাউন এলাকায় সরকারি চাল ভর্তি চারটি ট্রাক আটক করা হয়।

আটক করা চালের বস্তাগুলোতে ‘খাদ্য অধিদপ্তর’ লেখা ছিল। এরপর মঙ্গলবার ভোরে গুদাম ব্যবস্থাপক প্রণয়ন চাকমাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সিটি গেইট এলাকার একটি ব্যক্তিমালিকাধীন গুদামের সন্ধান দেন তিনি। র‌্যাব কর্মকর্তা আশেক বলেন, প্রণয়নের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যে সিটি গেইট এলাকার কবির কলোনিতে আমরা অভিযান করি। সেখানে ব্যক্তি মালিকানাধীন ওই গুদামের সামনে থেকে আরও তিনটি ট্রাক আটক করা হয়। মোট এক হাজার ৩৯৬ বস্তায় ১৫৫ মেট্রিক চাল উদ্ধার করা হয়েছে জানিয়ে আশেক বলেন, আমরা বিষয়টি নিয়ে খাদ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেছি। তারা নিশ্চিত করেছে চালগুলো সরকারি, গুদাম থেকে পাচার করা হয়েছে। এছাড়া সরকারি চাল কোনো বেসরকারি গুদামে রাখার নিয়ম নেই বলে অধিদপ্তর থেকে তাদের জানানো হয়েছে বলছেন এই র‌্যাব কর্মকর্তা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

সীতাকুন্ডে ৯ শিশুর মৃত্যু ‘হামে’

সীতাকুন্ডের ত্রিপুরা পাড়ার নয় শিশুর মৃত্যুর কারণ হিসেবে হামকে চিহ্নিত করার কথা জানিয়েছে সরকার। একই সঙ্গে দুর্গম ওই এলাকার শিশুরা কখনোই টিকার আওতায় আসেনি বলেও উঠে এসেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুসন্ধানে।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে শিশুমৃত্যুর কারণ উদঘাটনে তাদের তদন্ত প্রতিবেদন উপস্থাপন করে এসব তথ্য জানান। তবে সারা দেশে হাম ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা নেই বলে জানান তিনি।

ত্রিপুরা পাড়ার ৮৫টি পরিবারের কাছে কয়েক দশকেও টিকা পৌঁছে দিতে না পারায় স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের পক্ষ থেকে দুঃখও প্রকাশ করেন মহাপরিচালক। সীতাকুন্ডের ঘটনার বিষয়ে তিনি বলেন, দেশে হামের পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। এটি (ত্রিপুরা পাড়া) একটি ছোট বিচ্ছিন্ন এলাকা এবং তারা কখনোই আধুনিক চিকিৎসা নেয়নি। আধুনিক চিকিৎসা নিলে হয়ত এ প্রাণহানি ঠেকানো যেত বলে মনে করেন তিনি। গত মাসের শেষ দিক থেকে বারআউলিয়ার সোনাইছড়ি ত্রিপুরা পাড়ার শিশুদের মধ্যে জ্বর, ফুসকুড়ি, শ্বাসকষ্ট ও  খিঁচুনির মত উপসর্গ দেখা দেওয়া শুরু করে। কিন্তু অভিভাবকরা হাসপাতালে না যাওয়ায় চট্টগ্রামের স্থানীয় প্রশাসন বিষয়টি জানতে পারে গত বুধবার পর্যন্ত নয় শিশুর মৃত্যুর পর।

পরে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় আরো ৪৬ জনকে। ‘অজ্ঞাত’ রোগে শিশুদের আক্রান্ত খবর পেয়ে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর)ওই এলাকায় যায়। প্রাথমিক অনুসন্ধানে ‘শিশুরা দীর্ঘদিনের অপুষ্টির কারণে এক ধরনের সংক্রমণে আক্রান্ত হচ্ছে’ বলে জানান আইইডিসিআরের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ভিয়েতনাম থেকে চালের দ্বিতীয় চালান চট্টগ্রামে

ভিয়েতনাম থেকে আমদানি করা চালের দ্বিতীয় চালান চট্টগ্রাম বন্দরে এসে পৌঁছেছে। খাদ্য অধিদপ্তরের চলাচল ও সংরক্ষণ নিয়ন্ত্রক মো. জহিরুল ইসলাম জানান, ২৭ হাজার মেট্রিক টন চাল নিয়ে ভিয়েতনাম থেকে আসা জাহাজ ‘এমভি প্যাক্স’ সোমবার সকালে বন্দরের বহির্নোঙরে পৌঁছায়।

“আগের চালানে আসা ২০ হাজার মেট্রিক টন চালের খালাস চলছে। প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে আমরা দ্রুতই নতুন চালানের চাল খালাস শুরু করব।”

বাংলাদেশ সরকারি পর্যায়ে ভিয়েতনাম থেকে যে আড়াই লাখ মেট্রিক টন চাল আমদানি করছে, তার মধ্যে দুই চালানে মোট ৪৭ হাজার মেট্রিক টন দেশে পৌঁছাল।

চালের তৃতীয় চালানটি আগামী ২২ জুলাই দেশে পৌঁছাতে পারে বরে আশা করছেন খাদ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

হাওরে অকাল বন্যায় ফসলের ক্ষতি এবং সরকারি গুদামের মজুদ কমে আসার প্রেক্ষাপেটে সরকার সম্প্রতি ভিয়েতনাম থেকে ৯০৮ কোটি ৮৫ লাখ টাকায় এই আড়াই লাখ মেট্রিক টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়।

সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি গত ১৪ জুন দরপত্র ছাড়াই সরকারি পর্যায়ে এই চাল আমদানির অনুমতি দেয়।

এর মধ্যে প্রতি মেট্রিক টন ৪৭০ মার্কিন ডলার দরে ৫০ হাজার মেট্রিক টন সিদ্ধ চাল কিনতে খরচ পড়ছে ১৯৫ কোটি ৫ লাখ টাকা। আর ৪৩০ মার্কিন ডলার দরে দুই লাখ মেট্রিক টন আতপ চাল আমদানিতে ৭১৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা খরচ হচ্ছে।

চুক্তি অনুযায়ী ভিয়েতনামের রাষ্ট্রায়ত্ত্ব কোম্পানি ভিনাফুড টু এই চালের ৬০ শতাংশ চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে এবং বাকি ৪০ শতাংশ মোংলা বন্দর দিয়ে সরবরাহ করবে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

মিরসরাইয়ে সড়কে গাড়ির ধাক্কায় নিহত ৩

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে লেগুনার সঙ্গে কাভার্ড ভ্যান ও ট্রাকের সংঘর্ষে তিন জন নিহত হয়েছে। রোববার বেলা ২টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই পৌরসভার সুফিয়া রোড এলাকায় এই ঘটনা ঘটে বলে মিরসরাই থানার ওসি শায়রুল ইসলাম জানিয়েছেন।

তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় জানাতে পারেননি তিনি। ওসি শায়রুল বলেন, “দাঁড়িয়ে থাকা একটি লেগুনাকে পেছন থেকে একটি মিনি কাভার্ড ভান ধাক্কা দেয়। সেটাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয় একটি পণ্যবাহী ট্রাক।

“ঘটনাস্থলে তিন জনের মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত একজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়েছে।”

এই বিভাগের আরো খবর

সিতাকুন্ডের ত্রিপুরার আরও ৩৮ শিশু হাসপাতালে

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: সীতাকুণ্ড উপজেলার দুর্গম পাহাড়ি এলাকার ত্রিপুরা পাড়ার আরও ৩৮ শিশু অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে গত তিন দিনে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তবে চিকিৎসাধীন শিশুরা বিপদমুক্ত আছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন আজিজুর রহমান সিদ্দিকী। গত ৮ থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত চার দিনে ত্রিপুরা পাড়ায় অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে নয় শিশুর মৃত্যু হয়। গায়ে জ্বর, ফুসকুড়ি, বমি ও পায়খানার সাথে রক্ত যাওয়াসহ নানা উপসর্গে দুই থেকে দশ বছর বয়সী শিশুরা এ অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। এরপর ১২ জুলাই দুপুর থেকে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের উদ্যোগে আক্রান্ত এলাকার ৪৬ শিশুকে ফৌজদারহাট বাংলাদেশ ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজ (বিআইটিআইডি) ও চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বলেন,  ১২ জুলাইয়ের পর থেকে গত তিন দিনে আরও ৩৮ শিশু এসেছে। এখন মোট ৮৪ শিশু চিকিৎসাধীন আছে । এদের মধ্যে ৫০ জন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও বাকি ৩৪ জন ফৌজদারহাট বিআইটিআইডিতে আছেন। তাদের সবারই অবস্থা ভালো। ধীরে হলেও সবাই সুস্থতার পথে আছে। জুন মাসের শেষের দিকে শিশুরা অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হওয়া শুরু করলেও স্থানীয়ভাবে ঝাঁড়ফুক ও তাবিজ-কবজের মাধ্যমে শিশুদের সারিয়ে তোলার চেষ্টায় ছিলেন ত্রিপুরা পাড়ার দরিদ্র শ্রমজীবী বাসিন্দারা। ঢাকা থেকে আসা ‘রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা’ প্রতিষ্ঠানের চার সদস্যের কমিটি প্রাথমিকভাবে দীর্ঘদিনের অপুষ্টিকে চিহ্নিত করে গেছেন। রক্তশূন্যতা, অপুষ্টি ও শরীরে পটাশিয়ামের অভাবকে এ রোগের জন্য দায়ী করা হয়।

চট্টগ্রামে ভারতীয় শিক্ষার্থী খুন

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামে এক ভারতীয় শিক্ষার্থীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার হয়েছে, আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তার আরেক স্বদেশি সহপাঠীকে। তারা দুজনই চট্টগ্রামের বেসরকারি ইউএসটিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলে পুলিশ জানিয়েছে। নিহত আসিফ শেঠ (২৬) এবং আহত উইলসন (২৬) নগরীর আকবর শাহ থানার আব্দুল হামিদ সড়কের একটি বাসায় এক কক্ষে থাকতেন।

শুক্রবার মধ্যরাতে দুজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসকরা আসিফকে মৃত ঘোষণা করেন বলে মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক মোহাম্মদ হামিদ জানান। আসিফের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে বলে জানান তিনি। হামিদ  বলেন, ইউএসটিসির আরেক ভারতীয় ছাত্র নিরাজ গুরু রাত সোয়া ১টার দিকে ওই দুজনকে হাসপাতালে আনেন। নিরাজ তার স্ত্রীকে নিয়ে ওই ফ্ল্যাটে আসিফ ও উইলসনের পাশের কক্ষে থাকেন। নিরাজ বলেছে, আসিফ ও উইলসন রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাদের কক্ষে মদ্যপান করছিল। ১২টার দিকে ওই কক্ষ থেকে শব্দ পেয়ে তিনি কক্ষটি খোলার চেষ্টা করেন।

কিন্তু কক্ষটি ভেতর থেকে বন্ধ ছিল। এক পর্যায়ে তিনি বিকল্প চাবি দিয়ে দরজা খুলে ভেতরে ঢুকে উইলসনকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান।তখন তিনি স্ত্রীকে নিয়ে উইলসনকে নিচে নামান। এ সময় আসিফকে মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন। পরে প্রতিবেশীদের সহায়তায় দুজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে আনেন বলে নিরাজ জানিয়েছেন। আকবর শাহ থানার এসআই জসিমউদ্দিন জানান, ওই বাসায় যে চারজন থাকতেন তারা সবাই ভারতের মণিপুরের বাসিন্দা। তবে তারা কে কোন বিভাগের কোন বর্ষের ছাত্র তা জানা যায়নি। কীভাবে এ হত্যাকান্ড ঘটল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে এসআই জসিম জানিয়েছেন।

বান্দরবানে অস্ত্র-গুলিসহ ইউপি মেম্বার আটক

বান্দরবান প্রতিনিধি : বান্দরবানের রুমায় অস্ত্র-গুলিসহ শৈ হা পু মারমা (৪৫) নামে এক ইউপি মেম্বারকে আটক করেছে সেনাবাহিনী। গতকাল শুক্রবার ভোরে উপজেলার বাজার এলাকার নিজ বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে ২টি পিস্তল, ৭ রাউন্ড গুলি এবং নগদ ১ লাখ ৩৩ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। আটক শৈ হা পু জনসংহতি সমিতির নাম ব্যবহার করে এলাকায় চাঁদাবাজি করে বেড়াত।

 এছাড়া তার বিরুদ্ধে উন্নয়ন কর্মকা-ে বাধা দেওয়াসহ নানা অভিযোগ রয়েছে বলে জানায় সেনাবাহিনী। সেনাবাহিনীর রুমা জোনের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল গোলাম আরিফুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে  জানান, গোপন সূত্রের ভিত্তিতে তার বাসায় অভিযান চালানো হয়। এসময় দেশি-বিদেশি ২টি পিস্তল, গুলি, নগদ টাকা ও অন্যান্য সরঞ্জামসহ তাকে আটক করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।রুমা থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শরিফুল ইসলাম জানান, শৈ হা পুর বিরুদ্ধে রুমা থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

কক্সবাজারে ইয়াবাসহ ডিবির হাতে আটক নারীকে ছিনতাই

কক্সবাজারের টেকনাফে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অভিযানে ইয়াবাসহ আটক এক নারীকে ছিনিয়ে নিয়েছে তার ‘সহযোগীরা’। বুধবার রাত ৯ টার দিকে টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের সিকদার পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে বলে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি মো. মনিরুল ইসলাম জানান।

রেহেনা আক্তার (৩৫)  নামে ওই নারীর বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় মামলা করেছে পুলিশ। রেহেনা টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের সিকদার পাড়ার প্রয়াত জহির আহমদের স্ত্রী। ওসি মনিরুল বলেন, “বিপুল পরিমাণ ইয়াবা মজুদের খবরে রাতে সিকাদার পাড়ায় অভিযানে যায় পুলিশের একটি দল। এ সময় পাঁচ হাজার ইয়াবাসহ রেহেনাকে আটক করা হয়। পরে তার সহযোগী মাদক বিক্রেতারা পুলিশের উপর হামলা করে রেহেনাকে ছিনিয়ে নেয়।”

 এ ঘটনায় পুলিশের কোনো সদস্য আহত হননি বলে জানান তিনি।

 

সীতাকুন্ডে ৯ শিশুর মৃত্যু হাসপাতালে ৪৬ শিশু

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টামের সীতাকুন্ডে পাহাড়ি এলাকার একটি পাড়ায় ‘অজ্ঞাত রোগে’ গত চার দিনে নয় শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে চার শিশুর মৃত্যু হয়েছে  বুধবার সকালে; অসুস্থ অবস্থায় আরও ৪৬ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে সিভিল সার্জন আজিজুর রহমান সিদ্দিকী জানিয়েছেন।

সিভিল সার্জন আজিজুর রহমান বলেন, কী কারণে শিশু গুলোর মৃত্যু হয়েছে তা আমরা এখনও জানতে পারিনি। আজ (বুধবার) সকালে খবর পাওয়ার পর আমরা বারআউলিয়ার সোনাইছড়ি ত্রিপুরা পাড়া ঘুরে এসেছি। কেবল ওই পাড়াতেই শিশুদের মধ্যে এই অসুস্থতার তথ্য পাওয়া গেছে। তিনি জানান, আক্রান্ত শিশুদের পপ্রন্ড জ্বরের সঙ্গে তীব্র শ্বাসকষ্টের মত লক্ষণ দেখা যাচ্ছে। মাঝেমধ্যে খিঁচুনি দিয়ে সংজ্ঞাও হারাচ্ছে। অসুস্থ ৪৬ শিশুর মধ্যে ১২ জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং বাকিদের ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজে (বিআইটিআইডি) ভর্তি করা হয়েছে। তাদের অধিকাংশের বয়স দুই থেকে দশ বছর। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা আক্রান্ত এক শিশুর বাবা শশী কুমার জানিয়েছেন, ৪-৫দিন আগে তার মেয়ে এই রোগী আক্রান্ত হয়। প্রথমে তারা ধরে নিয়েছিলেন এটি স্বাভাবিক রোগ। কিন্তু স্বাস্থ্যের অবনতি হওয়ায় তাকে বুধবার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি আরও জানান, ‘আমার মেয়ের প্রথমে জ্বরের উপসর্গ দেখা দেয়। পরে ধীরে ধীরে তার শরীরে ফুসকুড়ি, পাতলা পায়খানা, পেটে ব্যাথায় আক্রান্ত হয়।’

রোগ শনাক্ত করার জন্য অসুস্থ শিশুদের রক্তের নমুনা নেওয়া হয়েছে জানিয়ে সিভিল সার্জন বলেন, ঢাকা থেকে ইতোমধ্যে বিশেষজ্ঞদের দুটি দল চট্টগ্রামের পথে রওনা হয়েছে। এ ব্যাপারে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) জ্যেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. এ এস এম আলমগীর বলেন, ‘খবর পাওয়ার এক ঘণ্টার মধ্যে আমরা টিম পাঠিয়েছি। ওখানে ঠিক কী ঘটেছে তা তারা পরীক্ষা করে দেখবেন।’

 

এই বিভাগের আরো খবর

চট্টগ্রামে বিমানবাহিনীর প্রশিক্ষণ উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় বিমানবাহিনীর একটি প্রশিক্ষণ উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়েছে। লোহাগাড়া থানার ওসি মো. শাজাহান বলেন, মঙ্গলবার বেলা সোয়া ২টার দিকে বড় হাতিয়ার ফরিদারঘোনায় দুর্গম এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

“বিমানবাহিনীর একটি প্রশিক্ষণ বিমান সেখানে বিধ্বস্ত হয়েছে। আমি ঘটনাস্থলে যাচ্ছি।” তাৎক্ষণিকভাবে এর বেশি তথ্য দিতে পারেননি তিনি। আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল রাশিদুল হাসান বলেন, “ওটা ছিল প্রশিক্ষণ বিমান। দুজন পাইলট ছিল, তারা অক্ষত আছেন।”

ওই বিমানে থাকা উইং কমান্ডার কামরুল ও স্কোয়াড্রন লিডার নাজমুল প্যারাশুট ব্যবহার করে বেরিয়ে আসেন বলে বাহিনীর একজন কর্মকর্তা  জানান।

আইএসপিআরের সহকারী পরিচালক নূর ইসলাম জানান, ইয়াক-১৩০ মডেলের ওই প্রশিক্ষণ বিমানটি কেন বিধ্বস্ত হল, সে বিষয়ে এখনও কিছু জানতে পারেননি তারা।

বাংলাদেশ বিমানবাহিনীতে রা‌শিয়ার তৈরি কমব্যাট প্রশিক্ষণ বিমান ইয়াকভলেভ ইয়াক-১৩০ এর প্রথম কমিশনিং হয় ২০১৫ সালে।

তিন হাজার কিলোগ্রাম গোলাবারুদ বহনে সক্ষম এই উড়োজাহাজ প্রশিক্ষণের পাশাপাশি যুদ্ধকালীন সময়ে আকাশ প্রতিরক্ষা, প্রয়োজনে আক্রমণেও ব্যবহার করা যায়।

 

এই বিভাগের আরো খবর

খাগড়াছড়িতে বাসের ধাক্কায় ২ বাইক-আরোহী নিহত

খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলায় মিনিবাসের ধাক্কায় দুই মোটরসাইকেল-আরোহীর মৃত্যু হয়েছে; এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও একজন। জেলার মানিকছড়ি থানার ওসি মাইনুদ্দিন জানান, মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৫টায় উপজেলার আমতলা এলাকায় খাগড়াছড়ি-চট্টগ্রাম মহাসড়কে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন – গুইমারা উপজেলার জালিয়াপাড়া এলাকার মো. আরিফ (২৭) ও মহিদুল ইসলাম (৩৮)।

আহত জামালও একই এলাকার বাসিন্দা।

ওসি মাইনুদ্দিন বলেন, খাগড়াছড়িগামী বাসটা আমতলা এলাকায় মোটরসাইকেলকে চাপা দিলে দুই আরোহী মহিদুল ও আরিফ ঘটনাস্থলেই মারা যান। এছাড়া মোটরসাইকেলের অন্য আরোহী জামালও আহত হলে তাকে চট্টগ্রামে পাঠানো হয় বলে তিনি জানান।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ফেনীতে ‘যৌতুক না দেওয়ায়’ হত্যার অভিযোগ

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় ‘যৌতুক না দেওয়ায়’ এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। নিহত তাসলিমা আক্তার (২২) উপজেলার চরদরবেশ ইউনিয়নের মধ্যম চরদরবেশ গ্রামের নূর আলমের স্ত্রী।

সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নূরুল আলম জানান, রোববার দুপুরে গলায় ফাঁস দেওয়া তাসলিমাকে কয়েকজন লোক হাসপাতালে নিয়ে আসে। পরে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যু হয়।

নিহত তাসলিমার বাবা অবদুর রব বলেন, বছর পাঁচেক আগে বিয়ের পর থেকে তাসলিমার বেকার স্বামী নূর আলম, শাশুড়ি মনজা খাতুন, ননদ হাজেরা খাতুন ও ফুফুশাশুড়ি রহিমা আক্তার মিলে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে বাবার বাড়ি থেকে টাকা-পয়সা আনার জন্য চাপ দিতেন।

“তাসলিমা একাধিকবার আমার কাছ থেকে টাকা নিয়ে স্বামী ও তার শশুরবাড়ির লোকজনকে দিয়েছে। মাস ছয়েক আগে নূর আলম দোকান দেওয়ার জন্য আরও ৫০ হাজার টাকা দাবি করে।”

টাকা দিতে না পারায় তাসলিমাকে পিটিয়ে আহত করার পর গলায় ওড়না পেঁছিয়ে হত্যা করা হয় বলে তার বাবার অভিযোগ। সোনাগাজী থানার ওসি মো. হুমায়ুন কবির বলেন, মৃত্যুর পর থেকে তাসলিমার স্বামীর বাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় তার বাবা থানায় হত্যা মামলার প্রস্ততি নিচ্ছেন।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর

কুমিল্লায় বিজিবির গাড়ি খাদে পড়ে আহত ৮

কুমিল্লায় বিজিবি সদস্যদের বহনকারী একটি গাড়ির চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের খাদে পড়ে আটজন আহত হয়েছেন। রোববার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নিমসার পরিহল পাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে কুমিল্লা ১০ বিজিবির অতিরিক্ত পরিচালক (অপারেশন) মেজর নাহিদ জানান।

আহত সিপাহী সিদ্দিক, সাইফুল, শাহিন, আতাউর, হাবিলদার রশিদ, নায়েক সুবেদার মোখলেস, কুক কামরুল ও ক্লিনার তরিকুল কুমিল্লা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
মেজর নাহিদ  বলেন, দুপুরে বিজিবি সদস্যদের নিয়ে একটি গাড়ি খাগড়াছড়ি থেকে ঢাকা যাচ্ছিল। পথে বুড়িচংয়ের নিমসার বাজার সংলগ্ন পরিহলপাড়ায় গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে আটজন আহত হন।

এই বিভাগের আরো খবর

ব্রিজ ভেঙে বান্দরবান-রোয়াংছড়ি সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

বান্দরবান প্রতিনিধি: বান্দরবানে বেইলি ব্রিজ ভেঙে রোয়াংছড়ি উপজেলার সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে রোয়াংছড়ি সড়কের খানসামা পাড়া বিজিবি সদর দপ্তর সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, কয়েকদিনের ভারি বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে তিগ্রস্ত হয় রোয়াংছড়ি সড়কের খানসামা পাড়ার বেইলি ব্রিজটি। সকালে ওই ব্রিজের উপর দিয়ে বালুবোঝাই একটি ট্রাক যাচ্ছিল। এ সময় ব্রিজটির পাটাতন ভেঙে পড়ে। এতে বান্দরবানের সঙ্গে রোয়াংছড়ি উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। দুপুর পর্যন্ত ওই সড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

 বান্দরবান সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ফজলুল হক  বলেন, প্রবল বর্ষণে তিগ্রস্ত হয়ে ভেঙে যাওয়া ব্রিজটি মেরামতের চেষ্টা চলছে। যত দ্রুত সম্ভব ব্রিজটি মেরামত করে যান চলাচল স্বাভাবিক করা হবে। এদিকে বান্দরবানের নিচু এলাকা থেকে পাহাড়ি ঢলের পানি নামতে শুরু করেছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাত কমে যাওয়ায় সাংঙ্গু, মাতামুহুরী ও বাকখালী নদীর পানি কমে গেছে। বান্দরবানের সঙ্গে রাঙ্গামাটি ও থানছি উপজেলার সড়ক যোগাযোগ চালু হলেও পাহাড় ধসের কারণে রুমা উপজেলায় এখনো সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

 

বন্যার পানিতে ডুবে শিশুসহ ৬ জনের মৃত্যু

করতোয়া ডেস্ক: কক্সবাজারের রামু ও উখিয়ায় বানের পানিতে ডুবে সহোদরসহ ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় সহোদর ও দিনের বিভিন্ন সময়ে অন্যরা মারা যান। রামুতে নিহতরা হলো- উপজেলার ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের চালইন্যা পাড়ার কামাল হোসেনের ছেলে মো. শাহিন (১০) ও মো. ফাহিম (৮)। রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম জানান, পাহাড়ি ঢলে বানের পানিতে রামুর এলাকা ডুবে গেছে। প¬াবনের শিকার হচ্ছে রামু উপজেলার উত্তর ফতেখাঁরকুল চালইন্নাপাড়া এলাকাও। বাড়িতে পানি প্রবেশ করায় বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে নানা বাড়ি নিরাপদ আশ্রয়ে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে প্রবল স্রোতে রাতে তারা ভেসে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পরে স্থানীয়রা বিকেলে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। আসরের নামাজের পর পারিবারিকভাবে তাদের দাফন করা হয়েছে।

রামু থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম লিয়াকত আলী তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম ও রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহাজান আলি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে শোকাহত পরিবারের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। অপরদিকে, বন্যার স্রোতে ভেসে গিয়ে ও পাহাড়ের মাটি চাপায় উখিয়ায় নারীসহ চারজনের প্রাণহানি ঘটেছে। নিহতরা হলো, উখিয়া উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের সোনাইছড়ি গ্রামের জাফর আলমের মেয়ে সামিরা আকতার (১৪), পালংখালী ইউনিয়নের আঞ্জুমানপাড়ার সরওয়ার আলমের শিশু পুত্র রাব্বী (৭), রতœাপালং সাদৃকাটা গ্রামের মৃত আবুল হোছনের ছেলে কামাল উদ্দিন (৬০), রতœাপালং ইউনিয়নের মধ্যমরতœা গ্রামের মৃত অমূল্য বড়ুয়ার ছেলে ইতুন বড়ুয়া (১৫)। এদের মাঝে রাব্বী বুধবার রাতে বাড়িতে পাহাড়ের মাটি চাপায় মারা যান। বাকিরা বানের পানিতে ভেসে গিয়ে প্রাণ হারান বলে জানান উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাঈন উদ্দিন।

টানা বৃষ্টিতে বন্যা বাড়বে
কয়েক দিন ধরেই বৃষ্টি ঝরছে সারা দেশে। কখনো থেমে থেমে, কখনো বা ঝুমবৃষ্টি। এভাবে বৃষ্টি হতে থাকলে দেশের বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হবে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। জুন মাসে বাংলাদেশে বৃষ্টির পূর্বাভাস ছিল ৩৪৭ মিলিমিটার। কিন্তু বৃষ্টি হয়েছে ৪৫৭ মিলিমিটার। অর্থাৎ পূর্বাভাসের চেয়ে গড়ে ১১০ মিলিমিটার বেশি বৃষ্টি হয়েছে। গত ৩০ বছরের বৃষ্টিপাতের গড় হিসাব করে স্বাভাবিক বৃষ্টির পূর্বাভাস নির্ধারণ করে আবহাওয়া অধিদপ্তর। তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এ বছরের জুনে সারা দেশে স্বাভাবিকের চেয়ে শতকরা ৩ দশমিক ৭ ভাগ বেশি বৃষ্টি হয়েছে। জুনের পর চলছে জুলাই মাস। কিন্তু বাংলা বর্ষপঞ্জির হিসেবে আষাঢ় মাস বিদায় নিতে আরও এক সপ্তাহ বাকি আছে। আষাঢ়ের বিদায়লগ্নে বৃষ্টির মাত্রা আরও বাড়তে পারে। আর বৃষ্টির মাত্রা বাড়লে দেশের বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের মতে, দেশের উত্তরাঞ্চল ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে এর প্রভাব বেশি পড়তে পারে। বন্যার পানি নেমে যাওয়ার সময় দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চল নদীভাঙন ও নদীতীরবর্তী এলাকা ডুবে যেতে পারে।

২ জুলাই অনুষ্ঠিত আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিশেষজ্ঞ কমিটির বৈঠকের তথ্য অনুযায়ী, মৌসুমি বায়ু ও পশ্চিমা লঘুচাপের প্রভাবে জুন মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে। সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে সিলেটে—৯৫০ মিলিমিটার, যা এই বিভাগীয় অঞ্চলে স্বাভাবিক বৃষ্টির চেয়ে শতকরা ৪৯ দশমিক ৮ ভাগ বেশি। এ ছাড়া চট্টগ্রাম বিভাগে ২১ দশমিক ৩, ময়মনসিংহ বিভাগে ১৭ দশমিক ৪ ও ঢাকা বিভাগে ২ ভাগ বেশি বৃষ্টি হয়েছে। তবে জুন মাসে দাবদাহের কারণে খুলনা, রাজশাহী, রংপুর ও বরিশাল বিভাগে স্বাভাবিকের চেয়ে কম বৃষ্টি হয়েছে। দেশজুড়ে মৌসুমি বায়ুর বিস্তার ঘটায় জুলাই মাসে বৃষ্টি পরিমাণ আরও বেড়ে গেছে।

১ জুলাই থেকে ৬ জুলাই সকাল পর্যন্ত রাজধানী ঢাকাতেই ১৬৫ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। মৌসুমি বায়ু আরও সক্রিয় হওয়ায় বৃষ্টির মাত্রা ঢাকাতেই নয়, সারা দেশেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, জুলাইয়ে ৪৬৫ মিলিমিটার থেকে ৫৭০ মিলিমিটার বৃষ্টি হতে পারে। তাহলে জুনের চেয়ে জুলাই মাসে ১০০ মিলিমিটার বেশি বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মলি¬ক বলেন, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর থেকে আসা বাতাসে প্রচুর জলীয় বাষ্প রয়েছে। এই বাতাস ঊর্ধ্বমুখী হয়ে প্রচুর মেঘ সৃষ্টি করছে।

এ কারণে দেশে প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছে। ৬ ও ৭ জুলাই বৃষ্টির এই ধারা কিছু কমতে পারে। তবে, ৮ জুলাইয়ের পর বৃষ্টি বেশি হতে পারে। মৌসুমি বায়ুর প্রভাব প্রতিবেশী ভারতেও পড়েছে। বাংলাদেশের মতো দেশটির উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলোতেও প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছে। ভারতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তরের ন্যাশনাল ওয়েদার ফোরকাস্টিং সেন্টার পূর্বাভাস থেকে জানা গেছে, ৬ থেকে ১০ জুলাই পর্যন্ত আসাম, মেঘালয়, উত্তরাখন্ড, উত্তর প্রদেশর পূর্বাঞ্চল, ছত্তিশগড়, বিহার, পশ্চিমবঙ্গের দার্জিলিং, সিকিম, ওডিশা, অরুণাচল প্রদেশ, নাগাল্যান্ড, মণিপুর, মিজোরাম ও ত্রিপুরা রাজ্যে ভারী বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে।

তবে এসব রাজ্যে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ আরও বাড়তে পারে। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশে বৃষ্টি হোক আর না-ই হোক, এখানকার নদ-নদী ফুলেফেঁপে উঠবে। কারণ, ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে রয়েছে ৫৪টি অভিন্ন নদ-নদী। এ কথা জানিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক আমানত উল¬াহ খান বলেন, ‘গঙ্গা নদী উত্তরাখন্ড হয়ে বাংলাদেশে ঢোকে পদ্মা নামে। আসাম হয়ে এসেছে ব্রহ্মপুত্র। তিস্তা এসেছে ভারতের সিকিম ও পশ্চিমবঙ্গ থেকে। তাই ভারতের উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্য ভারী বৃষ্টি হলে আমরা বন্যার বিপদের মধ্যে আছি। দুই দেশের আবহাওয়া একই ধরনের। এটি আলাদা করা যায় না। আমাদের দেশে বৃষ্টি না হলেও ভারতের এসব রাজ্যে বৃষ্টির প্রভাব তিন থেকে পাঁচ দিনের মধ্যে পড়বে।’ দেশের ৩২টি নদ-নদী পর্যবেক্ষণ করে থাকে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। তাদের তথ্য অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার বিকেলে সুরমা, কুশিয়ারা ও কংস নদীর পানি বিপৎসীমার ওপরে ছিল। বিপৎসীমার নিচে থাকলেও ভয়ংকর হয়ে উঠছে পদ্মা, ব্রহ্মপুত্র, যমুনা ও তিস্তা। বৃহস্পতিবার বিকেলে ব্রহ্মপুত্র-যমুনা পানি উদ্বেগজনক মাত্রায় চলে এসেছে। এ তথ্য জানিয়ে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, চীন থেকে ব্রহ্মপুত্র নদ ভারতের অরুণাচল প্রদেশ ও আসাম হয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে। অরুণাচল প্রদেশ বৃষ্টি হলে ব্রহ্মপুত্রের পানি বাড়বে। যে ধারায় পানি পাচ্ছে, তাতে শুক্রবারেই ব্রহ্মপুত্র-যমুনার পানি বিপৎসীমা অতিক্রম করতে পারে।

সিলেট: সিলেটে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। সুরমা-কুশিয়ারা নদীর পানি কিছুটা কমলেও বিপদসীমার উপরে বইছে। ত্রাণ যেটুকু মিলছে তা প্রয়োজনের তুলনায় কম বলে দুর্গতদের অভিযোগ। কয়েকটি উপজেলার সাথে জেলা শহরের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

মৌলভীবাজার: টানা তিন সপ্তাহ ধরে বন্যা পরিস্থিতির কারণে স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ছে । তবে, কুশিয়ারা নদীর পানি বিপদ সীমা থেকে কমতে শুরু করেছে। খাবার, পানি ও আশ্রয়ের জন্য বন্যা কবলিত মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে ভিড় করছে।

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

বান্দরবানে পাহাড় ধসে নারীর মৃত্যু

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় পাহাড় ধসে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে; এ ঘটনায় আহত হয়েছেন তার মেয়ে। নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি তৌহিদ কবির জানান, ঘুমধুম ইউনিয়নের ঘুমধুম পাড়ায় বুধবার সন্ধ্যায় হঠাৎ পাহাড় ধসে পড়লে ছেমুনা খাতুন (৪৪) নামে স্থানীয় এক নারীর মৃত্যু হয়।

নিহত ছেমুনা ঘুমধুম পাড়ার মোহাম্মদ মাজেদের স্ত্রী।

দুর্ঘটনায় ছেমুনার মেয়ে আমেনা খাতুন (২৫) আহত হলে তাকে স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। এদিকে সাংগু ও মাতামুহুরী নদীর পানি নামতে শুরু করলেও শহরের বালাঘাটা এলাকায় বড়পুল সেতুটি এখনও পানির নিচে রয়েছে। ফলে বান্দরবানের সঙ্গে রাঙামাটির সড়ক যোগাযোগ বন্ধ আছে।

এছাড়া রুমা উপজেলার দালিয়ানপাড়া এলাকার বেশ কটি সড়কে ধসে পড়া মাটির কারণে জেলা শহরের সঙ্গে রুমার সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

 

কুমিল্লায় শত্রুতার জেরে ছুরিকাঘাতে যুবককে হত্যা

কুমিল্লা প্রতিনিধি : কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলায় জুুনিয়র ও সিনিয়র সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে রহমত উল্লাহ (২০) নামে এক কিশোরের বিরুদ্ধে ইউছুফ কাজী (১৮) নামে অন্য এক কিশোরকে ছুরিকাঘাতে হত্যার অভিযোগ পাওয়া  গেছে। এসময় অভিযুক্ত রহমত উল্লাহকে ধরতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে আরও দুই কিশোর আহত হয়। গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার লালচাঁদপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মনোহরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সামছুজ্জামান দৈনিক করতোয়াকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহত ইউছুফ কাজী লালচাঁদপুর গ্রামের ওয়াজেদ কাজীর  ছেলে। অভিযুক্ত রহমত উল্লাহ একই গ্রামের ফাজিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ আবুল বাশারের  ছেলে। ঘটনায় আহত দুই কিশোর হলো- লালচাঁদপুর গ্রামের শফিউল আলমের ছেলে নেয়ামত উল্লাহ (১৮) এবং রুহুল আমিনের  ছেলে মো. সোহেল (২০)। তাদের স্থানীয় একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার এশার নামাজের পর লালচাঁদপুর গ্রামের আশ্রয়কেন্দ্র সংলগ্ন ব্রিজের ওপর বসে কথা বলছিল ইউসুফ, রহমত,  নেয়ামত ও  সোহেল। এরই এক পর্যায়ে হঠাৎ ছুরি বের করে ইউছুফের বুকে আঘাত করে রহমত। এসময় রহমতকে আটক করতে গিয়ে তার ছুরির আঘাতে নেয়ামত ও সোহেল আহত হয়। ইউছুফকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে   পনওয়ার পথে সে মারা যায়।

ওসি সামছুজ্জামান বলেন, রহমত উল্লাহ পালাতক রয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে জানা  গেছে, অভিযুক্ত ও নিহতের মধ্যে জুুনিয়র ও সিনিয়র সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়ে। অভিযুক্তকে আটকের পর বিস্তারিত জানা যাবে। নিহত ইউসুফের লাশ কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে ।

 

এই বিভাগের আরো খবর

কক্সবাজারে পাহাড় ধসে নারীর মৃত্যু

কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলায় পাহাড় ধসে মাটিচাপায় এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। উপজেলার হোয়ানফ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল জানান, মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে মহুঘাটা গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত মনোয়ারা আলম (৩৩) ওই গ্রামের নূর ইসলামের মেয়ে। চেয়ারম্যান মোস্তফা  বলেন, পাহাড়ি ওই এলাকায় মনোয়ারা তার বাড়ির পাশে ভারি বৃষ্টির মধ্যে মাটি কেটে পানি সরিয়ে দিচ্ছিলেন। এ সময় হঠাৎ পাহাড় ধসে মাটিচাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

লাশ তার বাড়িতে দাফনের অপেক্ষায় রয়েছে বলে জানান চেয়ারম্যান মোস্তফা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ভারি বর্ষণে ফের পাহাড় ধসের শঙ্কা, মাইকিং

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: পাহাড় ধসে ব্যাপক হতাহতের ঘটনার ২০ দিনের মাথায় ফের প্রবল বর্ষণে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে পার্বত্য এলাকায় বসবাসকারীদের মধ্যে। রোববার বিকাল থেকে ভারি বর্ষণ চলছে। মাঝে মাঝে বৃষ্টি কমলেও কখনও পুরোপুরি থমেনি। পাহাড় ধসে প্রাণহানির আশঙ্কায় ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের আশ্রয় কেন্দ্রে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে গতUpload Filesল সোমবার সকাল থেকে খাগড়াছড়ি শহরে মাইকিং করছে প্রশাসন। ২০ দিন আগে পাহাড় ধসের ঘটনায় খোলা পাঁচটি আশ্রয় কেন্দ্র প্রয়োজনে ব্যবহার করা হবে বলে প্রশাসন জানিয়েছে।

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক রাশেদুল ইসলাম বলেন, জেলায় পাঁচটি আশ্রয় কেন্দ্র গত বর্ষণে খোলা হয়েছিল। প্রয়োজন হলে আবার সে আশ্রয় কেন্দ্রগুলো ব্যবহার করার জন্য সকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র রফিকুল আলম বলেন, তিনি সোমবার সকালে জেলা শহরের কলাবাগান, নেন্সিবাজার, শালবন, হরিনাথ পাড়া গ্যাপ, আঠার পরিবার এলাকা পরিদর্শন করে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারী লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে সরে যেতে অনুরোধ করেছেন। এছাড়া খাগড়াছড়ি উপজেলা পরিষদ ও পৌরসভার উদ্যোগে জেলা শহরে মাইকিং করা হচ্ছে বলেও তিনি জানান। গত ১২ জুন রাতে প্রবল বর্ষণে রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও চট্টগ্রামসহ দেশের ছয় জেলায় দেড় শতাধিক মানুষের প্রাণহানি হয়।

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

চাঁদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ব্যবসায়ী নিহত

চাঁদপুর প্রতিনিধি : চাঁদপুরে শহরের ওয়ারলেস মোড় এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় ফারুক হোসেন পাটওয়ারী (৫০) নামে ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন মাইনুদ্দিন (৩৫) নামে অপর একজন। শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে চাঁদপুর-কুমিপা আঞ্চলিক সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।  নিহত ফারুক সদর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের ছোট সুন্দর গ্রামের বাসিন্দা। আহত মাইনুদ্দিনের বাড়ি মতলবের দিঘলদী এলাকায়। চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ জানায়, সকালে ঢাকা থেকে চাঁদপুরগামী একটি বাস শহরের ওয়ারলেস মোড় এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিকে থেকে আসা একটি অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এসময় অটোরিকশাটি উল্টে রাস্তার পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই ফারুক নিহত হন।

এসময় গুরুতর আহত হন মাইনুদ্দিন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে এবং আহত ব্যক্তিকে সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চাঁদপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. সিরাজুল ইসলাম  জানান, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নিহত ফারুকের পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ঘাতক বাসটি আটক করা হয়েছে।

কুমিল্লায় পানিতে ডুবে ভাই-বোনের মৃত্যু

কুমিল্লা প্রতিনিধি : কুমিল্লায় পুকুরের পানিতে ডুবে একই বাড়ির চাচাতো ভাই- বোনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে ভাসমান অবস্থায়। বৃহস্পতিবার জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার গুণবতী ইউনিয়নের ঝিকড্ডা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলো উপজেলার গুণবতী ইউনিয়নের ঝিকড্ডা গ্রামের মৃত মাহবুল হক খসরুর মেয়ে নওরীন আক্তার (৯) ও প্রতিবেশী মনিরুল হক নবীর ছেলে মোজাম্মেল হক নবীন (৭)।
নিহতদের আত্মীয় মো. আজম প্রকাশ নসর জানান, বুধবার সন্ধ্যায় ওই দুই শিশু নিখোঁজ হয়। এরপর আত্মীয়স্বজনসহ সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজাখুঝি করেও তাদের সন্ধান পাওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবার পার্শ্ববর্তী পুকুর থেকে নওরীন ও নবীনের মরদেহ ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

পাহাড়ে ঈদের আনন্দে বেদনার ছায়া

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: দুই সপ্তাহ আগে পাহাড় ধসে যারা স্বজন আর ঘর হারিয়েছেন, ঈদের দিন তারা পাশে পেয়েছেন রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের। সোমবার রাঙামাটি ও কাপ্তাই এলাকার মোট ২২টি আশ্রয় কেন্দ্রে ঈদ উপলক্ষে খাবার ও  পোশাক বিতরণ করা হয়। অনেক হারানোর মাঝেও জেলা প্রশাসনের এ উদ্যোগে হাসি ফুটেছে সর্বহারা মানুষগুলোর মুখে।

রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা–কর্মচারীরা তাদের ঈদের অন্য সব পরিকল্পনা সরিয়ে রেখে কয়েকটি দলে ভাগ হয়ে সোমবার আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে যান; ক্ষতিগ্রস্ত মানুষগুলোর সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগ করে নেন। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান, পুলিশ সুপার সাইয়েদ তারিকুল ইসলাম ও রাঙামাটির পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী দুপুরে রাঙামাটি বেতার ও রাঙামাটি সরকারি কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। তারপর তারা রাঙামাটি সরকারি কলেজ কেন্দ্রে আশ্রিতদের সঙ্গে বসে দুপুরের খাবার খান। জেলা প্রশাসক এ সময় সাংবাদিকদের বলেন, আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা সবার জন্য ঈদের খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ঈদের আগের দিন তাদের জন্য দেওয়া হয়েছে নতুন পোশাক। এক প্রশ্নের জবাবে জেলা প্রশাসক বলেন, আমাদের পরবর্তী লক্ষ্য হচ্ছে দ্রুত তাদের পুর্নবাসনের ব্যবস্থা করা। গত ১২ জুন রাতে প্রবল বর্ষণে রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও চট্টগ্রামসহ দেশের ছয় জেলায় দেড় শতাধিক মানুষের প্রাণহানি হয়। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১২০ জন মারা যায় রাঙামাটিতে। রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খন্দকার মো. ইখতিয়ার উদ্দিন আরাফাত জানান, রাঙামাটিতে ১৯টি এবং কাপ্তাইয়ে তিনটিসহ মোট ২২টি আশ্রয়কেন্দ্রে প্রায় সাড়ে তিন হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছে পাহাড় ধসের পর। দুপুরে তাদের খাবারে পোলাওয়ের সঙ্গে ছিল মুরগির মাংস, ডিম, সবজি আর ফল।

 

নাফ নদীতে নিখোঁজ এক শিশুর লাশ উদ্ধার

কক্সবাজারের টেকনাফে নাফ নদীতে নৌকা ডুবে নিখোঁজ তিন শিশু-কিশোরের মধ্যে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। টেকনাফ থানার ওসি মাঈনুদ্দিন খান জানান, নাফ নদী নতুন জেটিঘাট সংলগ্ন এলাকা থেকে বুধবার বেলা ১১টার দিকে নয় বছর বয়সী মোহাম্মদ আমিনের লাশ উদ্ধার করেন স্থানীয়রা।

আমিন টেকনাফ পৌরসভার পল্লান পাড়ার ছাব্বির আহমদ ওরফে মনু মিয়ার ছেলে।

ঈদের পরদিন মঙ্গলবার বিকালে টেকনাফের নাফ নদীতে বেড়াতে বেরিয়ে নতুন জেটিঘাট এলাকায় নৌকা ডুবে আমিনসহ তিন শিশু-কিশোর নিখোঁজ হয়।   এর মধ্যে টেকনাফ পৌরসভার আনোয়ার ইসলামের ছেলে আনোয়ার সাদেক (৮) ও টেকনাফ সদর ইউনিয়ের উত্তর নাজির পাড়ার হামিদ হোসেনের ছেলে সাদ্দাম হোসেনের (১৬) সন্ধান দুপুর পর্যন্ত পাওয়া যায়নি বলে ওসি মাঈনুদ্দিন খান জানান।

তিনি বলেন, কোস্ট গার্ড, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় জেলেরা নিখোঁজের সন্ধানে তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে নতুন জেটিঘাটসহ নাফ নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে অভিযান চালানো হয়েছে।

এদিকে মঙ্গলবার সকালে সী-গাল পয়েন্টে গোসলে নেমে নিখোঁজ ১৭ বছর বয়সী সুদীপ্ত দের কোনো সন্ধান বুধবার দুপুর পর্যন্ত মেলেনি বলে ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের সহকারী পুলিশ সুপার হোসাইন রায়হান কাজেমী জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, সুদীপ্তকে খুঁজতে মঙ্গলবার বিকাল থেকে অভিযান চালাচ্ছে নৌ বাহিনীর একটি ডুবরি দল। পাশাপাশি ট্যুরিস্ট পুলিশ, লাইফ গার্ড ও স্থানীয় জেলেরাও তল্লাশিতে অংশ নিচ্ছেন।

ঢাকার সূত্রাপুরের খোকন দের ছেলে সুদীপ্ত বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ রাইফেলস পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এবার এসএসসি পাস করে। ঈদের ছুটিতে বন্ধুদের সঙ্গে কক্সবাজারে বেড়াতে এসেছিল সে।

 

অটোরিকশা খালে পড়ে বিদ্যুতায়িত, ৩ জনের মৃত্যু

চট্টগ্রামে অটোরিকশা খালে পড়ে বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। পটিয়া কলেজ বাজার এলাকার চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে মঙ্গলবার গভীর রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে পটিয়া হাইওয়ে থানার ওসি এবিএম মিজানুর রহমান জানান।

নিহতরা হলেন- মোহাম্মদ নূর ও তার দুই ভাস্তে শাহাদাত হোসেনএবং আবদুল মান্নান।তাদের বাড়ি কক্সবাজারের পেকুয়ায়। ওসি মিজানুর বলেন, মঙ্গলবার রাত দেড়টার দিকে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে অটোরিকশাটি উল্টে রাস্তার পাশে একটি খালে পড়ে যায়।

এসময় খালে পড়ে থাকা একটি বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে তিনজনের মৃত্যু হয় বলে জানান তিনি।

 

বাস উল্টে খাগড়াছড়িতে নিহত ৩

খাগড়াছড়ির গুইমারায় বাস উল্টে এক নারী ও তার শিশু সন্তানসহ তিনজনের প্রাণ গেছে; আহত হয়েছেন অন্তত ১৬ জন। গুইমারা কালাপানি এলাকার খাগড়াছড়ি-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বুধবার সকাল ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে গুইমারা থানার ওসি শরিফুল ইসলাম জানান।

নিহতরা হলেন- মাটিরাঙ্গা উপজেলার খেদাছড়ার রিপন নেসা (২৪) ও তার চার বছর বয়সী মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস এবং হাফছড়ির তারিকুল ইসলাম (২০)।

আহতদের পাঠানো হয়েছে মানিকছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্সে। ওসি  বলেন, সকালে বাসটি খাগড়াছড়ি থেকে চট্টগ্রাম যাচ্ছিল।

“পথে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি রাস্তায় উল্টৈ যায়। এ সময় বাসের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই তিনজনের মৃত্যু হয়।” খবর পেয়ে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে বলে জানান তিনি।

 

চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ৫

চট্টগ্রাম নগরীর টাইগার পাস ও সীতাকুণ্ডের বারৈয়ারহাট এলাকায় আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় ট্রাক চালকের এক সহকারী নিহত ও পাঁচজন আহত হয়েছেন।

নিহত আলাউদ্দিন (২০) এর বাড়ি নোয়াখালী জেলায়।

শনিবার সকালে সীতাকুণ্ড পৌর সদরের বারৈয়ারহাট এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দুই ট্রাকের সংঘর্ষে তার মৃত্যু হয়। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক মো. আমির বলেন, একটি ট্রাক আরেকটি ট্রাককে ধাক্কা দিলে আলাউদ্দিন গুরুতর আহত হন।

“হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।”

এদিকে বন্দর নগরীর টাইগার পাস মোড় এলাকায় অটোরিকশায় বাসের ধাক্কায় একই পরিবারের পাঁচ জন আহত হয়েছেন। তারা হলেন- ফেরদৌস শামীম, তার মা হোসনে আরা, শামীমের স্ত্রী রূপমা, পাঁচ বছর বয়সী মেয়ে সাইমা (৫) ও দুই বছর বয়সী ছেলে মেহেদি (২)। পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক মো. আমির বলেন, জামলাপুরের বাড়িতে ঈদ করতে যাওয়ার জন্য তারা সকাল ৭টার দিকে চট্টগ্রাম রেলস্টেশনের দিকে যাচ্ছিল।

“টাইগার পাস মোড়ে একটি বাস তাদের বহনকারী অটোরিকশাকে ধাক্কা দিলে তারা আহত হয়। মেহেদির আঘাত গুরুতর। পাঁচজনই হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে চিকিৎসা নিচ্ছেন।”

 



Go Top