বিকাল ৩:৫৯, সোমবার, ২১শে আগস্ট, ২০১৭ ইং
/ চট্রগ্রাম

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামে কর্ণফুলি নদীর শাহ আমানত সেতুর টোল প্লাজায় দাঁড়িয়ে থাকা একটি অটোরিকশায় ট্রাকের ধাক্কায় দুই শিশুসহ চারজনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার মধ্যরাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে কর্ণফুলি থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান। তিনি বলেন, রাত ১২টার দিকে টোল প্লাজায় অপেক্ষারত সিএনজিচালিত একটি অটোরিকশাকে পিছন থেকে ধাক্কা দেয় একটি ট্রাক। এতে ঘটনাস্থলে চারজনের মৃত্যু হয়। নিহতদের মধ্যে একজন পুরুষ, একজন নারী ও দুই শিশু রয়েছে। তবে তাদের নাম-পরিচয় এবং পরস্পরের মধ্যে সম্পর্ক জানাতে পারেনি পুলিশ।

এই বিভাগের আরো খবর

কক্সবাজারে কার-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ২

কক্সবাজার শহরে প্রাইভেট কারের সঙ্গে অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে; এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন। সদর থানার ওসি রণজিৎ কুমার বড়ুয়া জানান, শনিবার সকাল ৯টার দিকে কক্সবাজার শহরের বিজয় সরণির মোটেল শৈবালের সামনে অটোরিকশার যাত্রীরা হতাহত হন।

নিহতরা হলেন – চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া উপজেলার চরপাথরঘাটা এলাকার আহমদ মিয়ার ছেলে শাহ আলম (৫০) ও একই উপজেলার কুসুমপুরা গ্রামের মনা মিয়ার ছেলে আব্দুস সালাম (৩৫)।

ওসি রণজিৎ বলেন, আরাকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ নির্বাচনে ভোট দিতে কক্সবাজার শহরে যাচ্ছিলেন অটোরিকশা-আরোহীরা।

“মোটেল শৈবালের সামনে বিপরীত দিক থেকে আসা প্রাইভেট কারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই একজন মারা যান। হাসপাতালে মারা যান আরও একজন।”

আহতরা হলেন – চট্টগ্রামের কর্ণফুলী থানার বাসিন্দা জাহাঙ্গীর আলম (৪০), একই এলাকার হারুনুর রশিদ (৩০), হেলাল উদ্দিন (৩৭), মোহাম্মদ আলমগীর (৪০) ও অটোরিকশার চালক মো. এনামুল হক (৪২)।

আহতদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান ওসি রণজিৎ।

তিনি বলেন, প্রাইভেট কারের চালকসহ অন্যরা পালিয়ে গেছে। দুর্ঘটনায় পড়া গাড়ি দুটি পুলিশ জব্দ করেছে।

লাশ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

কক্সবাজারে মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার

কক্সবাজার প্রতিনিধি: কক্সবাজারের চকরিয়ায় থেকে মস্তকবিহীন অজ্ঞাত পরিচয় এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের বালুরচর এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয় বলে চকরিয়া থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান। নিহতের বয়স আনুমানিক ৩০ বছর বলে জানালেও তাৎক্ষণিকভাবে তার নাম-পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।

 সাংবাদিকদের ওসি বখতিয়ার বলেন, সকালে স্থানীয়রা ওই মৃহদেহ পড়ে থাকতে দেথে থানায় খবর দেয়।পরে পুলিশ গিয়ে তা উদ্ধার করে। লাশটি মাথা বিচ্ছিন্ন অবস্থায় পাওয়া গেছে। আশপাশে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও সেটির সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ পুলিশ কর্মকর্তা জানান, নিহত যুবকের গায়ের রং কালো, মুখে দাঁড়ি রয়েছে। পরনে ফুল জিন্স প্যান্ট ও ফুলহাতা সাদা চেক শার্ট রয়েছে। তবে মস্তক ছাড়া নিহতের পরিচয় নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে না।মস্তকের সন্ধানে পুলিশ বিভিন্ন এলাকায় উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে বলে জানান তিনি।

 

চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

করতোয়া ডস্কে: বন্দর নগরী চট্টগ্রামের আকবর শাহ থানাধীন ইস্পাহানি এক নম্বর রেলগেটের কাছে  ট্রাকের ধাক্কায় তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোররাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, নগরীর আগ্রাবাদ মৌলভীপাড়ার মো. আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে নিজাম (৩২), ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার মধ্যম শিমুলিয়া এলাকার মো. ঈসমাইলের ছেলে কামরুল ইসলাম (২৭) ও বাগেরহাট জেলার রামদা উপজেলার বদিগঞ্জের আব্দুর রশিদ তালুকদারের ছেলে রেজাউল (৩০)।এ ঘটনায় ট্রাকচালক ও তার সহকারীকে আটক করেছে পুলিশ।

আকবর শাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর মাহমুদ জানান, ‘ইস্পাহানি এলাকায় ভোরের দিকে একটি ট্রাক মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেলের দুই আরোহী ঘটনাস্থলেই মারা যান। অপর একজন গুরুতর আহত হন। পরে হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনার পরপর ঘটনাস্থলে গিয়ে ট্রাকচালক ও তার সহকারীকে আটক করেছে পুলিশ।’

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, নিহতরা একে খান গেটের দিক থেকে মোটর সাইকেল নিয়ে ফয়’স লেকের দিকে যাচ্ছিলেন। ইস্পাহানি রেল গেইট অতিক্রম করে বাঁক নেওয়ার সময় তারা দুর্ঘটনার শিকার হয় ।চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, ‘ভোর ৪টার দিকে তিনজনকে হাসপাতালে আনা হয়। এরমধ্যে ঘটনাস্থলেই নিজাম ও রেজাউলের মৃত্যু হয়।গুরুতর আহত অবস্থায় কামরুল ইসলামকে হাসপাতালে আনা হলে কতব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।‘

 

এই বিভাগের আরো খবর

ভাঙা রাস্তায় ট্রেলার উল্টে প্রাণ গেল দুই অটোরিকশা আরোহীর

চট্টগ্রামে ভাঙা রাস্তায় কন্টেইনারবাহী একটি ট্রেলার উল্টে অটোরিকশার ওপর পড়ে দুইজন নিহত ও দুইজন আহত হয়েছেন। রোববার সকাল পৌনে ১০টার দিকে বন্দরনগরীর নিমতলা মোড় থেকে ৫০০ গজ দূরে বিশ্বরোডে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে বন্দর থানার ওসি ময়নুল ইসলাম জানান।  

তিনি বলেন, ট্রেলার ও অটোরিকশা দুটোই নিমতলা মোড়ের দিকে যাচ্ছিল। এক পর্যায়ে ট্রেলারটি উল্টে গিয়ে অটোরিকশাটিকে চাপা দেয়।

এতে ঘটনাস্থলেই দুইজনের মৃত্যু হয় জানিয়ে তিনি বলেন, “রাস্তা ভাঙা থাকায় ট্রেলারটি উল্টে যায়। পরে বড় ক্রেন এনে ট্রেলারটি সরিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করা হয়।”

আগ্রাবাদ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক জসিম উদ্দিন জানান, ওই অটো রিকশায় চালকসহ মোট চারজন ছিলেন। তাদের দুজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের পরিচয় জানা যায়নি।

তিনি বলেন, পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় ফায়ার সার্ভিস ট্রেলারটি সরিয়ে নিলে বেলা সাড়ে এগারটার দিকে ওই সড়ক যান চলাচলের উপযোগী করে।

 

চট্টগ্রামে দুর্ঘটনায় মোটর সাইকেল চালক নিহত

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলায় এক মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহত মো. বাবুল উপজেলার কাঞ্চননগর এলাকার হেফাজুর রহমানের ছেলে। তিনি ভাড়ায় মোটর সাইকেল চালাতেন। মঙ্গলবার সকালে ফটিকছড়ির পেলাগাজি দিঘী এলাকায় ও দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানান ফটিকছড়ির থানার এসআই হাবিবুর রহমান। তিনি বলেন, সকাল ১০টার দিকে বাড়ি যাওয়ার পথে পেলাগাজি দিঘী এলাকার সেতুর কাছে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তা থেকে ছিটকে পড়েন বাবুল। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

এই বিভাগের আরো খবর

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে মাথা হেট হয়ে আসে: এরশাদ

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের দেওয়া রায় পড়ে ‘লজ্জায় মাথা হেট হয়ে গেছে’ বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ।  

সোমবার  ইউনিয়ন ব্যাংকের সভায় এবং একটি সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে চট্টগ্রামে আসা এরশাদ গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে আলাপে এই মন্তব্য করেছেন।  চট্টগ্রামের হোটেল রেডিসন ব্লুতে গণমাধ্যম কর্মীদের মুখোমুখি হন এই রাজনীতিক। রায় নিয়ে প্রশ্নের জবাবে এরশাদ বলেন, বাংলাদেশিদের মাথা হেট হয়ে গেছে।  আমরা নিজেদের খুব দুর্ভাগ্যবান মনে করছি।  রায়টা পড়ার পর মনে হয়েছে আমরা খুব দুর্ভাগ্যবান।  লজ্জায় আমাদের মাথা হেট হয়ে গেছে। বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা অবৈধ ঘোষণা করে দেওয়া সুপ্রিম কোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় গত ১ অগাস্ট প্রকাশ হয়েছে। সামনের সংসদ নির্বাচন নিয়েও কথা বলেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এইচ এম এরশাদ।  তিনি বলেন, গতবারের মতো একটি নির্বাচন দেশের মানুষ চায় না। আশা করি এবারের নির্বাচনটা সুষ্ঠু হবে। 

নিরপেক্ষ হবে। ‘তবে সেটার সবকিছু নির্ভর করবে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের উপর।  তিনি যদি আর্মি চান, সরকার দিতে বাধ্য।  উনি যদি ডিসির পোস্টিং চান, সরকার ডিসির পোস্টিং দিতে বাধ্য।  প্রধান নির্বাচন কমিশনারের অসীম ক্ষমতা। তিনি সেই ক্ষমতা খাটাবেন কি না এবং সত্যিকারভাবে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারবেন কি না সেটা নির্ভর করছে তার উপর।’ তিনি বলেন, নতুন নির্বাচন কমিশনের উপর আস্থা আছে।  আশা করি তারা একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে পারবেন।  যদি না পারেন, সেটা নির্বাচনের পর বলা যাবে। দেশের সুশানের অভাব আছে মন্তব্য করে এরশাদ বলেন, প্রতিদিন পত্রিকার পাতা খুললে দেখা যায় শুধু ধর্ষণ আর খুন। এদেশে নারী হয়ে জন্মগ্রহণ করা একটা মহাপাপ। নারীর ক্ষমতায়নের কথা শুনি, সেটা শুধু ঢাকা শহরে। বাইরের গ্রামেগঞ্জের মেয়েরা নিরাপদ নয়। দু:খ হয়, আমরা তো এই অবস্থায় ছিলাম না। 

তাহলে এখন কেন হচ্ছে। এরশাদ বলেন, যতদিন পর্যন্ত রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা আসবে না ততদিন পর্যন্ত এখানে বাইরের লোক বিনিয়োগ করতে আসতে পারবে না। জাতীয় পার্টির রাজনৈতিক অবস্থান প্রসঙ্গে এরশাদ বলেন, আমরা কোন অ্যালায়েন্সে নেই। আমরা বিরোধীদল।  যদিও নামমাত্র বিরোধীদল, তবুও আমরা বিরোধীদল। দলের মধ্যে কোন্দল প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা রাজনীতি করছি ক্ষমতায় যাবার জন্য। আমাদের মধ্যে কোনো গ্রুপিং নেই। আগে এখানে (চট্টগ্রামে) আমাদের এমপি বেশি ছিল না। এখন তিনজন এমপি আছে। সেজন্য গ্রুপিংয়ের কথা বলা হচ্ছে। আসলে কোন গ্রুপিং নেই। আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়েছি আগামী নির্বাচনে জিতে ক্ষমতায় যাবার জন্য।

 

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

চট্টগ্রামে কাপড়ের দোকানে অগ্নিকাণ্ড

চট্টগ্রাম নগরীর একটি শপিং মলে কাপড়ের দোকানে আগুন পুড়েছে। সোমবার সকালে ডবলদুরিং থানার আগ্রাবাদ লাকী প্লাজায় অগ্নিকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটে বলে চট্টগ্রাম বিভাগীয় ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণ কক্ষের কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, সকাল পৌনে ৭টার দিকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে ‘আল হেরা ক্লথ স্টোর’ নামের দোকানটিতে আগুন লাগে।

“আগ্রাবাদ ফায়ার স্টেশনের পাঁচটি ইউনিট সাড়ে ৮টার দিকে আগুন পুরাপুরি নেভিয়ে ফেলে।”

আগুনে দোকানের বেশকিছু মালামাল পুড়ে গেছে বলে তিনি জানান।

 

এই বিভাগের আরো খবর

পটিয়া থানায় দায়িত্বরত অবস্থায় কনস্টেবলের মৃত্যু

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: পটিয়া থানায় দায়িত্বরত অবস্থায় অনুস্থ হয়ে আবুল কাশেম (৫০) নামে এক কনস্টেবলের মৃত্যু হয়েছে।   রোববার সকালে এ ঘটনা ঘটে। আবুল কাশেম নোয়াখালী জেলার সেনবাগের মৃত আবদুল খালেকের ছেলে। রোববার সকালে  থানায় দায়িত্ব পালনকালে অসুস্থ হয়ে পড়লে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়।

হাসপাতালে দায়িত্বরত চিকিতসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান চমেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক আবদুল হামিদ। তিনি বলেন, কনস্টেবল কাশেম স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছিলেন বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

 

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

ভয়াবহ আগুনে পুড়ল চাক্তাই চালপট্টি

চট্টগ্রামের চাক্তাই এলাকায় চালের গুদাম ও মিল পুড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বন্দরনগরীতে পাইকারী চালের বড় বাজার চাক্তাই চালপট্টিতে শনিবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে আগুন লাগার পর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা রোববার সকালে তা নিয়ন্ত্রণে আনে।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণ কক্ষের কর্মকর্তা বিশ্বান্তর বড়ুয়া জানান, আগুন লাগার খবর পেয়ে তাদের লামারবাজার, চন্দনপুরা, নন্দনকানন ও আগ্রাবাদ ফায়ার স্টেশনের ১০টি গাড়ি ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ শুরু করে।

সকাল সোয়া ৬টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও পুরোপুরি নেভাতে বেলা সাড়ে ১১টা বেজে যায়। চট্টগ্রাম চাল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ওমর আজম জানান, আগুনে তিনটি চালের মিল, গুদাম ও পাইকারী দোকান এবং কয়েকটি মুদি দোকানসহ অন্তত ১৫টি দোকান ভস্মীভূত হয়েছে।

ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কয়েক কোটি টাকা হতে পারে জানিয়ে তিনি বলেন, “শুক্র ও শনিবার ব্যাংক বন্ধ থাকায় অনেক ব্যবসায়ী নগদ টাকা দোকানে রেখে গিয়েছিলেন। গুদাম ও মিলগুলোতে বস্তায় অনেক চাল ছিল।”

তিনি অভিযোগ করেন, ফায়ার সার্ভিস খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে এলেও কাজ শুরু করতে তাদের দেরি হওয়ায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ফায়ার সার্ভিস চট্টগ্রাম বিভাগীয় অফিসের সহকারী পরিচালক পরিমল কুণ্ড বলেন, “যখন আগুন লেগেছিল, তখন সেখানে প্রত্যেকটি বিদ্যুৎ লাইন সচল ছিল, প্রতিটি পোলে স্পার্ক হচ্ছিল। ওই অবস্থায় সেখানে পানি ছিটানো হলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারত।”

তিনি বলেন, আগুন নেভানোর সময় ফায়ারম্যানদের নিরাপত্তার বিষয়টিও মাথায় রাখতে হয়। সে কারণে বিদ্যুৎ লাইন বন্ধ করে কাজ শুরু করতে একটু বিলম্ব হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর

দুর্নীতিমুক্ত সেবা দিন নইলে কারাগারে : দুদক চেয়ারম্যান

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: জনগণকে দুর্নীতিমুক্ত সেবা দিতে না পারলে কারাগারে যেতে হবে বলে সরকারি কর্মকর্তাদের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। বুধবার চট্টগ্রামে ‘দুর্নীতিমুক্ত সরকারি সেবা: দুর্নীতির অভিযোগের প্রকৃতি’ শিরোনামে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

জনগণকে দুর্নীতিমুক্ত সেবা দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, দুর্নীতিমুক্ত সেবা দিতে হবে। দিস ইজ আওয়ার ডিউটি, রেসপনসিবিলিটি। দিস ইজ দেয়ার রাইট। ইফ ইউ ফেইল, ইউ হেল্ড আপ ইন জেল। দুদকের আয়োজনে এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্দেশে ইকবাল মাহমুদ বলেন, জনগণকে নিয়ে কাজ করুন। জনগণের বিরুদ্ধে যেন আমরা না দাঁড়াই। জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে আপনি জিতবেন না। কেউ জিততে পারে না। নব্বইয়ে স্বৈরাচারি সরকারের পতনের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে যাবেন না। জনগণকে তাদের সেবা দিন। আমরা যদি জনগণকে সেবা দিতে না পারি তাহলে আমাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আপনাদের কাছে বিনীত অনুরোধ, আমরা যেন কেউই আইনের বাইরে গিয়ে কাজ না করি।

আমরা যেন জনগণকে সার্ভিস দেই। টাকার বিনিময়ে আমরা যদি সার্ভিস দেই একদিন, দুইদিন, তিন দিন, ১০ দিন…. কাউকে ছাড় দেয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব না। আমি সবাইকে বলছি আইনটা মানেন। সরকারি কার্যালয়গুলোতে বিদ্যমান পদ্ধতি মেনে সেবা দেওয়ার পাশাপাশি তা উন্নত করতে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান দুদক চেয়ারম্যান। তিনি বলেন, যে পদ্ধতি আছে সে পদ্ধতি মানেন, যদি পারেন সে পদ্ধতি উন্নতি করেন। কিন্তু পদ্ধতি থেকে বের হয়ে যাবেন না। আমি জানি আপনাদের চাপ থাকে। সে চাপ সহ্য করতে হবে।

দিস ইজ আওয়ার ডিউটি। চাপের কাছে মাথানত না করার আহ্বান জানিয়ে ইকবাল মাহমুদ বলেন, আসুন আমরা চাপের কাছে মাথা নত না করে জনগণের কাছে মাথা নত করি। আমরা জনগণের কাছে অ্যাকাউন্টএবল, কোনো ব্যক্তির কাছে অ্যাকাউন্টএবল না। বক্তব্যে দুর্নীতির অভিযোগে অনেক সরকারি কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার প্রসঙ্গ তুলে ধরেন দুদক চেয়ারম্যান।

ব্যাংকের বহু এমডি, ব্যবসায়ী এয়াপোর্টের দিকে যেতে পারছেন না। দে আর নট অ্যালাউ টু লিভ দিস কান্ট্রি। সভার শুরুতে বিভিন্ন সরকারি অফিসের বিরুদ্ধে দুদকে জমা হওয়া অভিযোগের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন দুদকের মহাপরিচালক (দুর্নীতি প্রতিরোধ ও গণসচেতনা) ড. মো. শামসুল আরেফীন। পরে বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা তাদের বক্তব্য তুলে ধরেন। এ বিষয়ে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, সব অভিযোগ সত্য- আমরা বলব না। তবে কিছু যদি সত্য না থাকে তাহলে এতগুলো কন্টেইনার স্ক্যানিং ছাড়া কিভাবে চলে যায়। অনেকে একমত হবেন, ওখানে যে অস্ত্র যায়নি কে বলবে? চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. রুহুল আমীনের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি এসএম মনিরুজ্জামান, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন, কাস্টমস কমিশনার এএফএম আব্দুল্লাহ খানসহ সরকারি কর্মকর্তারা বক্তব্য রাখেন।

এই বিভাগের আরো খবর

ফেনীতে ট্রাকচাপায় এনজিওকর্মী নিহত

ফেনী শহরে ঢাকা-চট্টগ্রাম পুরাতন মহাসড়কে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল-আরোহী এক এনজিওকর্মীর মৃত্যু হয়েছে। ফেনী মডেল থানার ওসি মো. রাশেদ খান চৌধুরী জানান, মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে শহরের সোনাগাজী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন মিফতাহুল মাদরাসা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত কবির আহম্মদ (২০) বেসরকারি ক্ষুদ্রঋণদাতা আশার সোনাগাজী উপজেলার কুঠিরহাট শাখায় কর্মরত ছিলেন। তার বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলায়।

ওসি রাশেদ বলেন, চট্টগ্রামগামী একটি ট্রাক পেছন থেকে মোটরসাইকেলটিকে খাক্কা দিলে কবিরসহ দুইজন ছিটকে পড়েন। এ সময় কবির ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান।

গুরুতর আহত অন্যজনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়। পুলিশ ট্রাকটি আটক করলেও চালক পালিয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ওসি রাশেদ।

 

এই বিভাগের আরো খবর

পাতার বস্তায় লুকিয়ে অস্ত্র পাচার, চট্টগ্রামে গ্রেফতার ১

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: বস্তায় গাছের পাতা ভরে তার ভেতরে লুকিয়ে অস্ত্র বহনের সময় চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত হারুণ (৪২) উপজেলার মাদার্শা ৭ ন¤॥^র ওয়ার্ডের বাসিন্দা। গতকাল শুক্রবার দুপুরে ডলুব্রিজ সংলগ্ন রামপুরা জলদাস পাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে সাতকানিয়া থানার এসআই সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, দুপুরে গোপন সবাদের ভিত্তিতে রামপুর জলদাস পাড়া থেকে হারুণকে আটক করা হয়। পরে তার সাথে থাকা একটি পাতার বস্তার ভেতর থেকে একটি এক নলা বন্দুক, একটি এলজি ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। অস্ত্রগুলো কোথায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল তা জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে এবং মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান এসআই সিরাজ।

চট্টগ্রামে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে শিশুর মৃত্যু

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে মোবাইল চার্জার নিয়ে খেলার সময় বিদ্যুতায়িত হয়ে এক শিশু নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে হাটহাজারী উপজেলার দক্ষিণ বুড়িশ্চরে এ ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানায়। নিহত নিশান (৩) ওই এলাকার মো. সরোয়ারের ছেলে। পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, রাতে বাসায় মোবাইল চার্জার নিয়ে খেলতে খেলতে নিশান তা মাল্টিপ্লাকে লাগানোর চেষ্টা করে। এসময় সে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়। গুরুতর অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামে আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় এক আইনজীবীসহ দুইজন নিহত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার ভোর রাত ও সকালে চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলী ও হালিশহর এলাকায় এ দুই দুর্ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানায়। এর মধ্যে পাহাড়তলী এলাকার দুর্ঘটনায় নিহত মো. আইয়ুব আলী ওরফে সুজনের (২৬) বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি। অন্যদিকে হালিশহর নিহত ওই এলাকার বাসিন্দা আইনজীবী রফিকুল ইসলাম (৭০)। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মো. আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, হালিশহর কে ব্লক এলাকায় প্রাতঃ ভ্রমণে বের হয়েছিলেন আইনজীবী রফিকুল ইসলাম।

 এসময় একটি ট্রাক তাকে চাপ দিয়ে দ্রুত চলে যায়। স্থানীয় লোকজন ও পরিবারের সদস্যরা রফিকুলকে হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পাহাড়তলী সরাইপাড়া এলাকায় সুজনও গাড়ি চাপায় নিহত হন বলে জানান পুলিশ সদস্য আলাউদ্দিন। তিনি জানান, ভোররাত ৩টার দিকে সরাইপাড়া এলাকায় রাস্তা পারাপারের সময় গাড়ি চাপায় গুরুতর আহত হন সুজন। স্থানীয়রাতাকে হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তবে কোন ধরনের গাড়ি সুজনকে চাপা দিয়েছে স্থানীয়রা তা শনাক্ত করতে পারেন নি বলে জানান এএসআই আলাউদ্দিন।

 

কক্সবাজারে পাহাড় ধসে নিহত ৪

ভারি বৃষ্টির মধ্যে পাহাড় ধসে কক্সবাজারে এক পরিবারের দুই শিশুসহ চারজনের মৃত্যু হয়েছে; আহত হয়েছেন আরও অন্তত পাঁচজন। জেলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুল মালেক জানান, মঙ্গলবার রাত ৩টার দিকে কক্সবাজার শহর ও রামু উপজেলায় হতাহতের এসব ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন – রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নের চেইন্দা এলাকার জিয়াউর রহমানের মেয়ে সায়মা (৫), ছেলে জিহান (৭), সদর উপজেলাল চৌফলদণ্ডী ইউনিয়নের খামারপাড়ার নূরুল হকের ছেলে মোহাম্মদ শাহেদ (১৮) ও পিএমখালী ইউনিয়নের ধামনখালী এলাকার এরশাদ উল্লাহর ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২৮)।

ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা মালেক বলেন, কক্সবাজার শহরের লাইট হাউজ এলাকার পাহাড় ধসে ঘটনাস্থলে মারা যান শাহেদ। এখানে আহত তিনজনকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে সাদ্দাম নামে আরও একজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

চিকিৎসাধীন অন্য দুইজন হলেন – উখিয়া উপজেলার হলদিয়া পালং ইউনিয়নের মরিচ্যা এলাকার দেলোয়ার হোসেন (২৫) ও নিহত সাদ্দামের বড় ভাই আরফাত হোসেনকে (৩০)।

রামুর ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয় একটি পরিবার।

ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা মালেক বলেন, রামুর চেইন্দা এলাকার পাহাড় ধসে ঘুমন্ত অবস্থায় মারা যায় সায়মা ও তার ভাই জিহান। এ সময় মাটিচাপায় আহত হন তাদের বাবা জিয়াউর রহমান (৩৫) ও মা আনার কলি (২৯)। তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ভারি বৃষ্টির কারণেই পাহাড় ধসের এসব ঘটনা ঘটছে বলে সংশ্লিষ্টদের ধারণা।

বৃষ্টিপাত সম্পর্কে কক্সবাজারের সহকারী আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক বলেন, সোমবার দুপুর থেকে কক্সবাজারে থেমে থেমে ভারি বৃষ্টি শুরু হয়। রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অবিরাম ধারায় শুরু হয়।

সোমবার সকাল থেকে মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ২০৮ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, মঙ্গল ও বুধবার আরও বৃষ্টির মধ্যে পাহাড় ধসের আশংকা রয়েছে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

চট্টগ্রাম বন্দরে জাহাজ থেকে কাঠ নামাতে গিয়ে দুই শ্রমিক নিহত

চট্টগ্রাম বন্দরে জাহাজ থেকে কাঠ নামাতে গিয়ে দুর্ঘটনায় পড়ে দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার রাতের কোনো এক সময় বন্দর জেটিতে নোঙ্গর করা ‘এমভি লতিকা নারী’ নামে বিদেশি জাহাজে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত দুই শ্রমিকের নাম মো. আতিক (৫২) ও মো. খোরশেদ (৫০)। নিহতদের বাড়ি নোয়াখালী জেলায়।

চট্টগ্রাম বন্দর থানা পুলিশের এসআই রবিউল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, রাতে চার শ্রমিক আফ্রিকা থেকে চট্টগ্রাম বন্দরে আসা ওই কাঠ বোঝাই জাহাজ থেকে কাঠ নামানোর কাজ করছিলেন। রাতের কোনো এক সময় দুজন শ্রমিক সরু সিঁড়ি দিয়ে জাহাজে নামতে গিয়ে জাহাজের ভেতরে পড়ে যান বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাদের মরদেহ জাহজের ভেতরে সিঁড়ির নিচে পাওয়া গেছে।

এসআই রবিউল ইসলাম বলেন, আমরা মরদেহ দুটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছি। নিহতদের পরিবারকে খবর দেয়া হয়েছে। তারা থানায় এসে মরদেহ নিয়ে যাবে।

এই বিভাগের আরো খবর

অফিসে যাওয়ার জন্য নৌকা কিনল চট্টগ্রাম কর অফিস !

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: পানিতে থৈ থৈ করছে পানি। কোমর পানি ডিঙিয়ে অফিস করছেন তারা। কারণ বান হোক তুফান হোক কর্মস্থলে যেতেই হবে। প্রবল বৃষ্টি কিংবা জোয়ার এলে সবাইকে এ সমস্যার মোকাবেলা করতে হচ্ছে। কিন্তু দিনের পর দিন তো এভাবে চলে না।

এমতাবস্থায় উপায় একমাত্র নৌকা। সেই সমস্যা নিরসনে এই বর্ষা মৌসুমে একটি নৌকা কিনেছে চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-৪ কর্তৃপক্ষ। আগ্রাবাদ সিডিএ-১ নম্বর সড়কে হাতেখড়ি স্কুলের বিপরীতে কর অঞ্চল-৪ এর কার্যালয়। সেখান থেকে আগ্রাবাদ মূল সড়কের কাছে ভ্যাট অফিসে যাওয়া আসার কাজেই এই নৌকায় যাতায়াতের সুবিধা নিচ্ছেন কর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। পাশাপাশি আয়কর দিতে আসা নাগরিকদেরও এই নৌকায় চড়তে দেখা গেছে। এছাড়া অতিরিক্ত বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে রহিম ম্যানশনের ছয়তলা ভবনটির সামনের সড়কটি নিয়মিতই কোমর থেকে হাঁটু পানিতে তলিয়ে যায়। যে কারণে বাধ্য হয়েই নৌকা কিনতে হয়েছে তাদের। এ অঞ্চলে কর্মরত কয়েকজন কর্মকর্তা জানান, আগ্রাবাদ সিডিএ এলাকার প্রায় প্রতিটি সড়কের নিয়মিত দৃশ্য এটি।

কোনো সড়কে কোমর পানি, কোনোটিতে হাঁটু পানি ওঠে। এ এলাকায় কর্মরত সরকারি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আগ্রাবাদ বাদামতলী এলাকায় নেমে সিডিএ এলাকার ভ্যাট অফিসের সামনে এসে পানির কারণে অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে রিকশা নিতে হয়। প্রতিদিনের এ দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পেতে দুই সপ্তাহ আগে লাল রঙের নৌকাটি কেনার কথা স্বীকার করেন কর অঞ্চল-৪ এর কমিশনার আহমেদ উল্লাহ। তিনি বলেন, প্রায় প্রতিদিনই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এতে কর্মকর্তা-কর্মচারী ও করদাতাদের আসা-যাওয়াসহ দাফতরিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। এজন্যই নৌকাটি কেনা হয়েছে। তিনি জানান, দুই সপ্তাহ আগে চট্টগ্রামের কুমিরা এলাকা থেকে প্রায় ২৬ হাজার টাকায় নৌকাটি কেনা হয়। যাত্রী নেয়ার পর নৌকাটিকে কর অফিসের একজন দারোয়ান ঠেলে অথবা দাঁড় বেয়ে চালিয়ে নিয়ে যান। আগ্রাবাদ সিডিএ এলাকায় বিভিন্ন ভবনে চট্টগ্রামের আয়কর বিভাগের বিভিন্ন অঞ্চলের কার্যালয় রয়েছে। এছাড়া কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছাড়াও আবাসিক এলাকার বাসিন্দারা নিয়মিতই এ দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। কর কার্যালয়ের কয়েকজন কর্মকর্তা-কর্মচারী বলেন, এ এলাকার জলাবদ্ধতা শুধু বৃষ্টির কারণে নয়, রৌদ্রোজ্জ্বল দিনেও জোয়ারের পানিতে সড়ক ডুবে যায়। ফলে আমাদের দুর্ভোগের শেষ থাকে না।

 

এই বিভাগের আরো খবর

চাঁদপুরে তেল চুরির মামলায় যমুনা অয়েলের ৫ কর্মচারী গ্রেপ্তার

তেল চুরির মামলায় চাঁদপুরে যমুনা অয়েল কোম্পানির একটি ডিপোর পাঁচ কর্মচারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। চাঁদপুর মডেল থানার ওসি ওয়ালী উল্লাহ অলি জানান, যমুনা অয়েল কোম্পানি চাঁদপুর ডিপোর সুপার  খায়রুল কবির বাদী হয়ে শনিবার চাঁদপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে।

এরা হলেন- প্রতিষ্ঠানটির চাঁদপুর ডিপোর সুপার (সাময়িক বরখাস্ত) শেখ মোহাম্মদ খাদেমুল (৩৬), অপারেটর মো. মিজানুর রহমান (৪৮), আবু বকর সিদ্দিক (৫০), মিটারম্যান মো.মজিবুল হক (৩৮) ও কর্মচারী মোসলেম শাহ (৩৮)।

মামলার এজাহারে বলা হয়, গত ১৯ জুন যমুনা অয়েল কোম্পানির আগের নিবন্ধিত ইরাবতি জাহাজের সুপারভাইজার আফছার যমুনার ডিপো সুপার খাদেমুলকে মোবাইলে ফোন করে সাত লাখ লিটার ডিজেল চাঁদপুর ডিপোতে গ্রহণ করতে বলেন।

পরে তা ডিপোর স্টাফদের সহযোগিতায় বিআইডব্লিউটিএ-এর একটি জাহাজ থেকে ডিপোর ৮ নম্বর ট্যাংকে গ্রহণ করেন খাদেমুল। এ ডিজেল আফছারের কাছ থেকে প্রতি লিটার ৫৮ টাকা দরে ক্রয় করা হয় বলে মামলায় বলা হয়েছে।  

অভিযোগে বলা হয়, ক্রয়ের এই অর্থ খাদেমুল পদ্মা, মেঘনা, যমুনার এজেন্ট ফয়সাল এন্টারপ্রাইজ ও হান্নান ফিলিং স্টেশনের কাছ থেকে তিনটি ব্যাংকের কয়েকটি চেকের মাধ্যমে গ্রহণ করেন।

খাদেমুল এই চেক জাহাজের সুপারভাইজারকে দেন এবং পরবর্তীতে খাদেমুল এই ডিজেল ফয়সাল এন্টারপ্রাইজের প্রদত্ত ডিলারের তালিকা অনুযায়ী ডিপোর ৮ নম্বর ট্যাংক থেকে সরবরাহ করেন বলে অভিযোগ।

খাদেমুলের নির্দেশে কর্মচারীরা মিটার রিডিং পরিবর্তন করে তেল পাচারে সহযোগিতা করেন। এই অনিয়মের কারণে সরকারের চার কোটি ৫০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে হজাহারে উল্লেখ করা হয়।

মামলার বরাত দিয়ে ওসি ওয়ালী উল্লাহ জানান, ঘটনাটি বিভিন্ন গণ্যমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলে যমুনা অয়েল কোম্পানি লিমিটেড (জেওসিএল) এবং বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) থেকে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

“ওই সময়ে তাৎক্ষণিক যমুনা অয়েল কোম্পানির চাঁদপুর ডিপোর সুপার খাদেমুলকে সময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়।”

শনিবার তদন্ত টিমের প্রধান অতিরিক্ত সচিব ও বিপিসির পরিচালক (বিপণন) মীর আলী রেজার নেতৃত্বে অপর দুই সদস্য বিপিসির ম্যানাজার (বিপণন) মোরশেদ হোসাইন আজাদ ও মেঘনা অয়েল কোম্পানির ডিজিএম শেখ আব্দুল মতলব চাঁদপুরে এসে ঘটনার তদন্ত করেন।

তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় যমুনা অয়েল কোম্পানি চাঁদপুর ডিপোর বর্তমান সুপার খায়রুল কবির বাদী হয়ে চাঁদপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।  

 

এই বিভাগের আরো খবর

চাঁদপুরে ছাত্রের পিঠে হাঁটা সেই চেয়ারম্যানের জামিন হাই কোর্টে বাতিল

চাঁদপুরে শিক্ষার্থীদের বানানো ‘মানব সেতুতে’ হাঁটার ঘটনায় নির্যাতনের মামলায় হাইমচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের জামিন বাতিল করেছে হাই কোর্ট। চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটোয়ারীকে চার সপ্তাহের মধ্যে চাঁদপুরের মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে আত্মসমর্পণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এক শিক্ষার্থীর অভিভাবকের করা আবেদনে এর আগে দেওয়া রুলের নিষ্পত্তি করে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাই কোর্ট বেঞ্চ  বুধবার এ রায় দেয়। আদালতে আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. শাহরিয়া কবির; সঙ্গে ছিলেন সারওয়ার হোসেন। আর চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটোয়ারীর পক্ষে শুনানি করেন শ ম রেজাউল করিম।

গত ৩০ জানুয়ারি হাইমচরের নীলকমল ওছমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের হাতে হাত রেখে তার ওপর আরেক শিক্ষার্থীকে শুইয়ে বানানো ‘পদ্মা সেতুর’ ওপর দিয়ে হাঁটেন নূর হোসেন পাটোয়ারী। ওই ঘটনার ছবি ও ভিডিও ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় সমালোচনার ঝড়। গত ১ ফেব্রুয়ারি এক অভিভাবক নূর হোসেন পাটওয়ারী ও স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হুমায়ুন আহমেদ, সদস্য আহমেদ ও আবুল বাশারের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) সৈয়দা সারোয়ার জাহান যে তদন্ত প্রতিবেদন দেন, সেখানে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ার কথা জানিয়ে চেয়ারম্যানসহ তিনজনকে দায়ী করা হয়।

চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটোয়ারী গত ২৯ মার্চ আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করলে চাঁদপুর শিশু আদালতের বিচারক অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মামুনুর রশিদ মামলার অভিযোগপত্র দাখিল পর্যন্ত তার জামিন মঞ্জুর করেন। জামিনের ওই আদেশ বাতিল চেয়ে নীলকমল ওছমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক রিট আবেদন করলে গত ২৫ এপ্রিল হাই কোর্ট রুল জারি করে। হাইমচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের জামিন কেন বাতিল হবে না, তা জানতে চাওয়া হয় রুলে। জেলা প্রশাসক, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানসহ বিবাদীদের এর জবাব দিতে বলা হয়। এছাড়া শিশু আদালতের বিচারক কোন কর্তৃত্ববলে জামিন দিয়েছেন, তার ব্যাখ্যা জানতে চাওয়া হয়। ওই রুলের ওপর শুনানি শেষে হাই কোর্ট বুধবার জামিন বাতিল করে হাইমচরের চেয়ারম্যানকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিল। 

এই বিভাগের আরো খবর

চট্টগ্রামে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম শহরে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছেন, যাকে ‘তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী’ বলছে র‌্যাব। বুধবার ভোর রাতে নগরীর পলোগ্রাউন্ড মাঠে গোলাগুলির এ ঘটনা ঘটে বলে র‌্যাব-৭ এর লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশেকুর রহমান জানান। নিহত আবুল কালাম (২৫) ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার বড় দরবেশ গ্রামের হোসেন আহমদের ছেলে। তিনি স্থানীয়ভাবে ‘ল্যাংরা কালাম’ নামে পরিচিত ছিলেন এবং একটি জলদস্যু দলের নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন বলে র‌্যাবের ভাষ্য। লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশেকুর জানান, পলোগ্রাউন্ড মাঠে একদল সশস্ত্র লোকের অবস্থানের খবর পেয়ে র‌্যাবের একটি টহল দল ভোরের দিকে সেখানে যায়। মাঠে থাকা সন্ত্রাসীরা র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময় টহল দলের সঙ্গে আরও র‌্যাব সদস্য এসে যোগ দিলে দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি শুরু হয়। কিছুক্ষণ পর সন্ত্রাসীদের অনেকে দেয়াল টপকে পালিয়ে গেলে মাঠে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক জহিরুল ইসলাম জানান, ভোরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় কালামকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। র‌্যাব-৭ এর স্টাফ অফিসার এএসপি মিমতানুর রহমান  বলেন, কালাম একটি জলদস্যু দল চালাতেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের করা সন্ত্রাসীদের তালিকায় তার নাম ছিল। ঘটনাস্থল থেকে একটি একে-২২ রাইফেল, ৭.৬৫ ক্যালিবারের একটি বিদেশি পিস্তল এবং কিছু গুলি উদ্ধারের কথা জানিয়েছে র্যা ব।

এই বিভাগের আরো খবর

ভারতীয় শিক্ষার্থী খুনে তার স্বদেশী গ্রেফতার

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রামে ভারতীয় শিক্ষার্থী খুনের ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে তার স্বদেশী এক সহপাঠীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার বিকালে নিরাজ গুরু নামে ওই শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করা হয় বলে আকবর শাহ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাকির হোসেন ভূঁইয়া জানিয়েছেন। নিরাজ চট্টগ্রামের বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ইউএসটিসি’র ২৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। ওই ব্যাচেরই শিক্ষার্থী আতিফ শেখ গত সপ্তাহে খুন হন।

পুলিশ কর্মকর্তা জাকির বলেন, বিকালে নিরাজকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে আনার আবেদন করা হবে। গত ১৪ জুলাই রাতে আকবর শাহ থানার আব্দুল হামিদ সড়কের ছয় তলা একটি ভবনের পঞ্চম তলার বাসায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুন হয় আতিফকে। ওই বাসা থেকে আতিফের সহপাঠী আরেক ভারতীয় উইলসন সিংকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আতিফ ও উইলসনকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিলেন নিরাজ। ওই বাসায় স্ত্রীকে নিয়ে থাকতেন নিরাজ। নিহত আতিফ শেখের বাবা আব্দুল খালেক বাদী হয়ে আকবার শাহ থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় সুনির্দিষ্ট কাউকে আসামি করা না হলেও আতিফের সহপাঠী উইলসন, নিরাজসহ ছয় ভারতীয় এবং দুই বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে সন্দেহের তালিকায় রাখা হয় বলে ওসি মুহাম্মদ আলমগীর জানিয়েছিলেন।

এই বিভাগের আরো খবর

সরকারি ১৫৫ মেট্রিক টন চাল পাচারের সময় উদ্ধার, আটক ৫

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: সরকারি গুদাম থেকে পাচারের সময় চট্টগ্রামে ১৫৫ মেট্রিক টন চালসহ পাঁচজনকে আটক করেছে র‌্যাব। আটকদের মধ্যে চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহর খাদ্য গুদামের ব্যবস্থাপক প্রণয়ন চাকমাও রয়েছেন।

র‌্যাব-৭ এর লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশেকুর রহমান জানান, সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার বিকাল পর্যন্ত নগরীর হালিশহর ও সিটি গেইট এলাকায় অভিযান চালিয়ে এসব চাল উদ্ধার করা হয়। তিনি বলেন, প্রথমে সোমবার গভীর রাতে হালিশহর সিএসডি গোডাউন এলাকায় সরকারি চাল ভর্তি চারটি ট্রাক আটক করা হয়।

আটক করা চালের বস্তাগুলোতে ‘খাদ্য অধিদপ্তর’ লেখা ছিল। এরপর মঙ্গলবার ভোরে গুদাম ব্যবস্থাপক প্রণয়ন চাকমাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সিটি গেইট এলাকার একটি ব্যক্তিমালিকাধীন গুদামের সন্ধান দেন তিনি। র‌্যাব কর্মকর্তা আশেক বলেন, প্রণয়নের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যে সিটি গেইট এলাকার কবির কলোনিতে আমরা অভিযান করি। সেখানে ব্যক্তি মালিকানাধীন ওই গুদামের সামনে থেকে আরও তিনটি ট্রাক আটক করা হয়। মোট এক হাজার ৩৯৬ বস্তায় ১৫৫ মেট্রিক চাল উদ্ধার করা হয়েছে জানিয়ে আশেক বলেন, আমরা বিষয়টি নিয়ে খাদ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেছি। তারা নিশ্চিত করেছে চালগুলো সরকারি, গুদাম থেকে পাচার করা হয়েছে। এছাড়া সরকারি চাল কোনো বেসরকারি গুদামে রাখার নিয়ম নেই বলে অধিদপ্তর থেকে তাদের জানানো হয়েছে বলছেন এই র‌্যাব কর্মকর্তা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

সীতাকুন্ডে ৯ শিশুর মৃত্যু ‘হামে’

সীতাকুন্ডের ত্রিপুরা পাড়ার নয় শিশুর মৃত্যুর কারণ হিসেবে হামকে চিহ্নিত করার কথা জানিয়েছে সরকার। একই সঙ্গে দুর্গম ওই এলাকার শিশুরা কখনোই টিকার আওতায় আসেনি বলেও উঠে এসেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুসন্ধানে।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে শিশুমৃত্যুর কারণ উদঘাটনে তাদের তদন্ত প্রতিবেদন উপস্থাপন করে এসব তথ্য জানান। তবে সারা দেশে হাম ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা নেই বলে জানান তিনি।

ত্রিপুরা পাড়ার ৮৫টি পরিবারের কাছে কয়েক দশকেও টিকা পৌঁছে দিতে না পারায় স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের পক্ষ থেকে দুঃখও প্রকাশ করেন মহাপরিচালক। সীতাকুন্ডের ঘটনার বিষয়ে তিনি বলেন, দেশে হামের পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। এটি (ত্রিপুরা পাড়া) একটি ছোট বিচ্ছিন্ন এলাকা এবং তারা কখনোই আধুনিক চিকিৎসা নেয়নি। আধুনিক চিকিৎসা নিলে হয়ত এ প্রাণহানি ঠেকানো যেত বলে মনে করেন তিনি। গত মাসের শেষ দিক থেকে বারআউলিয়ার সোনাইছড়ি ত্রিপুরা পাড়ার শিশুদের মধ্যে জ্বর, ফুসকুড়ি, শ্বাসকষ্ট ও  খিঁচুনির মত উপসর্গ দেখা দেওয়া শুরু করে। কিন্তু অভিভাবকরা হাসপাতালে না যাওয়ায় চট্টগ্রামের স্থানীয় প্রশাসন বিষয়টি জানতে পারে গত বুধবার পর্যন্ত নয় শিশুর মৃত্যুর পর।

পরে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় আরো ৪৬ জনকে। ‘অজ্ঞাত’ রোগে শিশুদের আক্রান্ত খবর পেয়ে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর)ওই এলাকায় যায়। প্রাথমিক অনুসন্ধানে ‘শিশুরা দীর্ঘদিনের অপুষ্টির কারণে এক ধরনের সংক্রমণে আক্রান্ত হচ্ছে’ বলে জানান আইইডিসিআরের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ভিয়েতনাম থেকে চালের দ্বিতীয় চালান চট্টগ্রামে

ভিয়েতনাম থেকে আমদানি করা চালের দ্বিতীয় চালান চট্টগ্রাম বন্দরে এসে পৌঁছেছে। খাদ্য অধিদপ্তরের চলাচল ও সংরক্ষণ নিয়ন্ত্রক মো. জহিরুল ইসলাম জানান, ২৭ হাজার মেট্রিক টন চাল নিয়ে ভিয়েতনাম থেকে আসা জাহাজ ‘এমভি প্যাক্স’ সোমবার সকালে বন্দরের বহির্নোঙরে পৌঁছায়।

“আগের চালানে আসা ২০ হাজার মেট্রিক টন চালের খালাস চলছে। প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে আমরা দ্রুতই নতুন চালানের চাল খালাস শুরু করব।”

বাংলাদেশ সরকারি পর্যায়ে ভিয়েতনাম থেকে যে আড়াই লাখ মেট্রিক টন চাল আমদানি করছে, তার মধ্যে দুই চালানে মোট ৪৭ হাজার মেট্রিক টন দেশে পৌঁছাল।

চালের তৃতীয় চালানটি আগামী ২২ জুলাই দেশে পৌঁছাতে পারে বরে আশা করছেন খাদ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

হাওরে অকাল বন্যায় ফসলের ক্ষতি এবং সরকারি গুদামের মজুদ কমে আসার প্রেক্ষাপেটে সরকার সম্প্রতি ভিয়েতনাম থেকে ৯০৮ কোটি ৮৫ লাখ টাকায় এই আড়াই লাখ মেট্রিক টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়।

সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি গত ১৪ জুন দরপত্র ছাড়াই সরকারি পর্যায়ে এই চাল আমদানির অনুমতি দেয়।

এর মধ্যে প্রতি মেট্রিক টন ৪৭০ মার্কিন ডলার দরে ৫০ হাজার মেট্রিক টন সিদ্ধ চাল কিনতে খরচ পড়ছে ১৯৫ কোটি ৫ লাখ টাকা। আর ৪৩০ মার্কিন ডলার দরে দুই লাখ মেট্রিক টন আতপ চাল আমদানিতে ৭১৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা খরচ হচ্ছে।

চুক্তি অনুযায়ী ভিয়েতনামের রাষ্ট্রায়ত্ত্ব কোম্পানি ভিনাফুড টু এই চালের ৬০ শতাংশ চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে এবং বাকি ৪০ শতাংশ মোংলা বন্দর দিয়ে সরবরাহ করবে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

মিরসরাইয়ে সড়কে গাড়ির ধাক্কায় নিহত ৩

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে লেগুনার সঙ্গে কাভার্ড ভ্যান ও ট্রাকের সংঘর্ষে তিন জন নিহত হয়েছে। রোববার বেলা ২টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই পৌরসভার সুফিয়া রোড এলাকায় এই ঘটনা ঘটে বলে মিরসরাই থানার ওসি শায়রুল ইসলাম জানিয়েছেন।

তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় জানাতে পারেননি তিনি। ওসি শায়রুল বলেন, “দাঁড়িয়ে থাকা একটি লেগুনাকে পেছন থেকে একটি মিনি কাভার্ড ভান ধাক্কা দেয়। সেটাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয় একটি পণ্যবাহী ট্রাক।

“ঘটনাস্থলে তিন জনের মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত একজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়েছে।”

এই বিভাগের আরো খবর

সিতাকুন্ডের ত্রিপুরার আরও ৩৮ শিশু হাসপাতালে

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: সীতাকুণ্ড উপজেলার দুর্গম পাহাড়ি এলাকার ত্রিপুরা পাড়ার আরও ৩৮ শিশু অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে গত তিন দিনে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তবে চিকিৎসাধীন শিশুরা বিপদমুক্ত আছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন আজিজুর রহমান সিদ্দিকী। গত ৮ থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত চার দিনে ত্রিপুরা পাড়ায় অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে নয় শিশুর মৃত্যু হয়। গায়ে জ্বর, ফুসকুড়ি, বমি ও পায়খানার সাথে রক্ত যাওয়াসহ নানা উপসর্গে দুই থেকে দশ বছর বয়সী শিশুরা এ অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। এরপর ১২ জুলাই দুপুর থেকে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের উদ্যোগে আক্রান্ত এলাকার ৪৬ শিশুকে ফৌজদারহাট বাংলাদেশ ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজ (বিআইটিআইডি) ও চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বলেন,  ১২ জুলাইয়ের পর থেকে গত তিন দিনে আরও ৩৮ শিশু এসেছে। এখন মোট ৮৪ শিশু চিকিৎসাধীন আছে । এদের মধ্যে ৫০ জন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও বাকি ৩৪ জন ফৌজদারহাট বিআইটিআইডিতে আছেন। তাদের সবারই অবস্থা ভালো। ধীরে হলেও সবাই সুস্থতার পথে আছে। জুন মাসের শেষের দিকে শিশুরা অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হওয়া শুরু করলেও স্থানীয়ভাবে ঝাঁড়ফুক ও তাবিজ-কবজের মাধ্যমে শিশুদের সারিয়ে তোলার চেষ্টায় ছিলেন ত্রিপুরা পাড়ার দরিদ্র শ্রমজীবী বাসিন্দারা। ঢাকা থেকে আসা ‘রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা’ প্রতিষ্ঠানের চার সদস্যের কমিটি প্রাথমিকভাবে দীর্ঘদিনের অপুষ্টিকে চিহ্নিত করে গেছেন। রক্তশূন্যতা, অপুষ্টি ও শরীরে পটাশিয়ামের অভাবকে এ রোগের জন্য দায়ী করা হয়।

চট্টগ্রামে ভারতীয় শিক্ষার্থী খুন

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামে এক ভারতীয় শিক্ষার্থীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার হয়েছে, আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তার আরেক স্বদেশি সহপাঠীকে। তারা দুজনই চট্টগ্রামের বেসরকারি ইউএসটিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলে পুলিশ জানিয়েছে। নিহত আসিফ শেঠ (২৬) এবং আহত উইলসন (২৬) নগরীর আকবর শাহ থানার আব্দুল হামিদ সড়কের একটি বাসায় এক কক্ষে থাকতেন।

শুক্রবার মধ্যরাতে দুজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসকরা আসিফকে মৃত ঘোষণা করেন বলে মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক মোহাম্মদ হামিদ জানান। আসিফের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে বলে জানান তিনি। হামিদ  বলেন, ইউএসটিসির আরেক ভারতীয় ছাত্র নিরাজ গুরু রাত সোয়া ১টার দিকে ওই দুজনকে হাসপাতালে আনেন। নিরাজ তার স্ত্রীকে নিয়ে ওই ফ্ল্যাটে আসিফ ও উইলসনের পাশের কক্ষে থাকেন। নিরাজ বলেছে, আসিফ ও উইলসন রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাদের কক্ষে মদ্যপান করছিল। ১২টার দিকে ওই কক্ষ থেকে শব্দ পেয়ে তিনি কক্ষটি খোলার চেষ্টা করেন।

কিন্তু কক্ষটি ভেতর থেকে বন্ধ ছিল। এক পর্যায়ে তিনি বিকল্প চাবি দিয়ে দরজা খুলে ভেতরে ঢুকে উইলসনকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান।তখন তিনি স্ত্রীকে নিয়ে উইলসনকে নিচে নামান। এ সময় আসিফকে মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন। পরে প্রতিবেশীদের সহায়তায় দুজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে আনেন বলে নিরাজ জানিয়েছেন। আকবর শাহ থানার এসআই জসিমউদ্দিন জানান, ওই বাসায় যে চারজন থাকতেন তারা সবাই ভারতের মণিপুরের বাসিন্দা। তবে তারা কে কোন বিভাগের কোন বর্ষের ছাত্র তা জানা যায়নি। কীভাবে এ হত্যাকান্ড ঘটল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে এসআই জসিম জানিয়েছেন।

বান্দরবানে অস্ত্র-গুলিসহ ইউপি মেম্বার আটক

বান্দরবান প্রতিনিধি : বান্দরবানের রুমায় অস্ত্র-গুলিসহ শৈ হা পু মারমা (৪৫) নামে এক ইউপি মেম্বারকে আটক করেছে সেনাবাহিনী। গতকাল শুক্রবার ভোরে উপজেলার বাজার এলাকার নিজ বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে ২টি পিস্তল, ৭ রাউন্ড গুলি এবং নগদ ১ লাখ ৩৩ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। আটক শৈ হা পু জনসংহতি সমিতির নাম ব্যবহার করে এলাকায় চাঁদাবাজি করে বেড়াত।

 এছাড়া তার বিরুদ্ধে উন্নয়ন কর্মকা-ে বাধা দেওয়াসহ নানা অভিযোগ রয়েছে বলে জানায় সেনাবাহিনী। সেনাবাহিনীর রুমা জোনের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল গোলাম আরিফুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে  জানান, গোপন সূত্রের ভিত্তিতে তার বাসায় অভিযান চালানো হয়। এসময় দেশি-বিদেশি ২টি পিস্তল, গুলি, নগদ টাকা ও অন্যান্য সরঞ্জামসহ তাকে আটক করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।রুমা থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শরিফুল ইসলাম জানান, শৈ হা পুর বিরুদ্ধে রুমা থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 



Go Top