দুপুর ১:০৭, বুধবার, ২৯শে মার্চ, ২০১৭ ইং
/ চট্রগ্রাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় অজ্ঞাতপরিচয় একজনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। কসবা থানার ওসি মো: মহিউদ্দিন জানান, গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার কুটি ইউনিয়নের কালামুড়িয়া এলাকার একটি সেতুর পাশ থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহতের বয়স আনুমানিক ৪০ বছর বলে জানালেও পুলিশ তার নাম-পরিচয় বলতে পারেনি।

ওসি মহিউদ্দিন জানান, সকালে কুমিল্ল¬া-সিলেট মহাসড়কের ওই সেতুর কাছে লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। তার বুকের বাম দিকে তিনটি গুলির ছিদ্র দেখা যায়। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

কুমিল্লায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ

কুমিল্লা প্রতিনিধি : কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ২ লাখ টাকা দাবিকৃত যৌতুক না দেওয়ায় হনুফা আক্তার ময়না (২৫) নামে এক সন্তানের জননীকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার রাতে উপজেলার শুভপুর ইউনিয়নের কটপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত হনুফা ওই গ্রামের প্রবাস ফেরত মো. শামীমের স্ত্রী। ঘটনার পর থেকে শামীমসহ পরিবারের লোকজন পালিয়ে যায়। মঙ্গলবার সকালে পুলিশ লাশ উদ্ধার শেষে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে।  

নিহত হনুফার ভাই হারেছ মোল্ল¬া জানান, কটপাড়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে মো. শামীমের সাথে হনুফা আক্তার ময়নার (২০) গত বছরের জানুয়ারি মাসে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় যৌতুকের দাবিতে শ্বশুর পক্ষের লোকজন তার উপর নির্যাতন করতো। এরই মধ্যে তাদের ৭৩ হাজার টাকা মূল্যের ফার্নিচার দেয়া হয়। সোমবার রাত ১০টার দিকে তার বোন হনুফা মোবাইলে কল করে বলে- তার স্বামী শামীম দুবাই যাবে। এজন্য ২ লাখ টাকা প্রয়োজন। দাবিকৃত টাকা না দিলে আমাকে নির্যাতন করে পাঠিয়ে দিবে। রাত আনুমানিক বারটার সময় ওই বাড়ির এক নারী ফোন করে হনুফার মৃত্যুর খবর জানায়।  

এ ব্যাপারে চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই মো. ইব্রাহিম জানান, নিহত হনুফার লাশ উদ্ধার শেষে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল¬øা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। গলায় ফাঁসের চিহ্ন আছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর ঘটনাটি হত্যা না আত্মহত্যা জানা যাবে।

কুমিল্লায় ৩ কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ গুলিবিদ্ধসহ আহত ৬

কুমিল্লা প্রতিনিধি : কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন সামনে রেখে নগরীর ২৫ ও ১৫নং ওয়ার্ডের ৩ কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, হামলা, গুলি বিনিময় হয়। এ সময় ৩ প্রার্থীর সমর্থিতদের মধ্যে ১ জন গুলিবিদ্ধসহ ৬ জন আহত হয়েছে।  মঙ্গলবার ভোরে নগরীর ২৫নং ওয়ার্ডের গ্রাম চৌয়ারায় বিএনপির সমর্থকদের হামলায় আবু সাইয়িদ অনিক চৌধুরী নামের এক তরুণ গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এর আগে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর গাড়ির ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এদিকে গত সোমবার রাত ১১টায় ১৫নং ওয়ার্ডের চকবাজার এলাকায় দু’প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ৫ জন আহত হয়েছে।

জানা যায়, নগরীর ২৫নং ওয়ার্ডের বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী খলিলুর রহমান মজুমদার ও তার সমর্থকরা মোটরসাইকেলে করে এসে গ্রাম চৌয়ারায় বাড়ির সামনে দুটি গুলি চালালে একটি অনিকের পায়ে বিদ্ধ হয়। আহত অবস্থায় তাকে কুমিল¬øা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অনিকের বাবার নাম মিঠু চৌধুরী। তিনি অপর কাউন্সিলর প্রার্থী জিল¬ুর রহমান চৌধুরীর সমর্থক।

আহত অনিকের মা বলেন, ফজরের নামাজের আগে বিএনপি সমর্থিত  কাউন্সিলর প্রার্থী খলিলুর রহমান মজুমদারের নেতৃত্বে কয়েকজন লোক  কয়েকটি মোটরসাইকেলে করে এসে বাড়ির সামনে দুইটি গুলি করে। একটা গুলি আমার ছেলের পায়ে লাগে। এর আগে ২৫নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী ও সাবেক কাউন্সিলর মো. খলিলুর রহমান মজুমদারের বাড়িতে রাখা গাড়ি ভাঙচুর করার ঘটনা ঘটে। এ সময় কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলিও হয়। সোমবার রাত ১১টায় হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় খলিলুর রহমানের চাচা দেলোয়ার হোসেন বাদি হয়ে ৫ জনের নাম উল্লে¬খ করে অজ্ঞাত ২০ জনের নামে মামলা দায়ে করেছেন।  

এদিকে ১৫নং ওয়ার্ডের দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ৮ জন আহত হয়। সোমবার দিবাগত রাতে নগরীর ১৫ ওয়ার্ডের চকবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। চকবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সালাউদ্দিন বলেন, দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনার পর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে।

কুমিল্লা ও সুনামগঞ্জে শেষ প্রচারে প্রার্থীরা

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন ও সুনামগঞ্জ-২ উপ নির্বাচনে প্রচারের শেষ দিনে প্রার্থীরা ঘুরছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এক টানা ভোট চলবে দুই নির্বাচনী এলাকায়। এ লক্ষ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করেছে নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচন কমিশনের জনসংযোগ পরিচালক এসএম আসাদুজ্জামান বলেন, মঙ্গলবার মধ্যরাতে প্রচার শেষ হচ্ছে। বুধবার কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে যাবে নির্বাচনী সামগ্রী।

“আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যরা মাঠে রয়েছেন।নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সব ধরনের ব্যবস্থাই আমরা নিয়েছি।”

কুমিল্লা সিটি ভোট

দুটি পৌরসভা নিয়ে ২০১১ সালের জুলাই মাসে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন গঠিত হওয়ার পর দ্বিতীয় ভোট হচ্ছে এবার। ২০১২ সালের ৫ জানুয়ারি প্রথম নির্বাচন নির্দলীয়ভাবে হলেও এবার মেয়র পদে ভোট হচ্ছে দলীয় প্রতীকে।

গত এক মেয়াদে কুমিল্লা সিটির মেয়রের দায়িত্ব পালন করে আসা মনিরুল হক সাক্কু এবারও মেয়র পদে বিএনপির প্রার্থী। আর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থী এবার আঞ্জুম সুলতানা সীমা, যার বাবা আফজল খান গতবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হন।

এছাড়া জাতীয় সমাজতান্তিক দল-জেএসডির শিরিন আক্তার ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মামুনুর রশীদও কুমিল্লার মেয়র হওয়ার লড়াইয়ে আছেন।

এই সিটি করপোরেশনের ২৭টি সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ১১৪ জন এবং নয়টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ৪০ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

কুমিল্লা সিটিতে মোট ভোটার ২ লাখ ৭ হাজার ৫৬৬ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ২ হাজার ৪৪৭ জন এবং নারী ১ লাখ ৫ হাজার ১১৯ জন। ১০৩টি ভোটকেন্দ্রের ৬২৮টি ভোটকক্ষে এবার ভোট হবে।

সুনামগঞ্জ-২ উপ নির্বাচন

চলতি বছরের ৫ ফেব্রুয়ারি আওয়ামী লীগ নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের মৃত্যু হলে সুনামগঞ্জ-২ আসনটি শূন্য হয়।

জাতীয় সংসদে তার আসনের ভোটারদের প্রতিনিধিত্ব করতে এই উপ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে প্রার্থী হয়েছেন তার স্ত্রী জয়া সেনগুপ্ত। তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ছায়েদ আলী মাহবুব হোসেন।

দিরাই ও শাল্লা উপজেলা নিয়ে গঠিত সুনামগঞ্জ-২ আসনে ১৩টি ইউনিয়ন রয়েছে। এ আসনের ১১০টি ভোটকেন্দ্রে ভোটকক্ষ রয়েছে ৫০২টি।

এ আসনের ২ লাখ ৫২ হাজার ৪৩০জন ভোটারের মধ্যে পুরুষ এক লাখ ২৬ হাজার ২২৮ জন; নারী এক লাখ ২৬ হাজার ২০২ জন।

আওয়ামী লীগ নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত জাতীয় সংসদে সুনামগঞ্জের দিরাইয়ের মানুষের প্রতিনিধিত্ব করেছেন সাতবার। সর্বশেষ ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

যান চলাচলে কড়াকড়ি

ইসির জনসংযোগ পরিচালক আসাদুজ্জামান জানান, নির্বাচনী এলাকায় চার দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ১২টা থেকে ভোটের পরের দিন শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর থাকবে।

ভোটের আগের দিন, অর্থাৎ বুধবার মধ্যরাত থেকে বৃহস্পতিবার মধ্যরাত পর্যন্ত অটোরিকশা, ইজিবাইক, টেম্পো, ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপ, কার, বাস ও ট্রাক চলাচলেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে নির্বাচনী এলাকায় তবে জরুরি সেবায় নিয়োজিত যানবাহনের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না।

রিটার্নিং কর্মকর্তার অনুমতি সাপেক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাদের নির্বাচনী এজেন্ট, দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষকদের (পরিচয়পত্র থাকতে হবে) ক্ষেত্রেও যানবাহনের নিয়ম শিথিল থাকবে। তাছাড়া নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত দেশি-বিদেশি সাংবাদিকদের পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে হবে।

জাতীয় মহাসড়ক (হাইওয়ে), বন্দর ও জরুরি পণ্য সরবরাহসহ অন্যান্য জরুরি প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যান চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা শিথিল থাকবে।

 

বাসা দেখতে এসে খুন হওয়া যুবক চবি শিক্ষার্থী

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ বোস্তামী থানার শহীদ নগরে বাসা দেখতে এসে খুন হওয়া যুবকের পরিচয় মিলেছে। মো. আলাউদ্দিন (২৩) নামে ওই যুবক চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) বাংলা বিভাগে মাস্টার্স করছিলেন। তিনি হাটহাজারী উপজেলার ফতেপুর গ্রামের মোশাররফ আলী চেরাংয়ের বাড়ির শাহ আলমের ছেলে।

বৃহস্পতিবার বিকালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে এসে পুলিশের উপস্থিতিতে ওই যুবকের বাবা ও ছোটভাই সালাউদ্দিন লাশ শনাক্ত করেন বলে বায়েজিদ বোস্তামী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন জানান। চট্টগ্রাম নগরীর পশ্চিম শহীদনগর এলাকার একটি চারতলা ভবনের তিনতলার টয়লেটে বুধবার গভীর রাতে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় আলাউদ্দিনের লাশ পাওয়া যায়। ওইসময় তার পরনে ছিল নীল রংয়ের শার্ট ও কালো জিন্স। বাসা ভাড়া নিতে এসে ওই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে বলে লাশ উদ্ধারের পর বাড়িওয়ালার বরাত দিয়ে জানিয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, ওই যুবকের সঙ্গে আরও তিনজন ছিলেন, যাদের খোঁজা হচ্ছে। দড়ি দিয়ে হাত-পা বাঁধা আলাউদ্দিনকে গলায় দড়ি পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক ধারণার কথা জানিয়েছিলেন ওসি মহসিন। তিনি জানান, বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে তিন যুবক ও এক তরুণী বাসা ভাড়া নেওয়ার কথা বলে তিন তলার ঘরটি দেখতে যায়। বাসাটি তাদের পছন্দ হয়েছে এবং একজনের স্ত্রী অন্তঃস্বত্ত্বা জানিয়ে তখন থেকেই বাসায় উঠবে বলে বাড়িওয়ালাকে জানায়।

কিছুক্ষণ পর দুই যুবক ও তরুণী মালপত্র আনার কথা বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। তারা বলে যায়, আরেকজন বাসা পরিষ্কার করছে। রাতে ভবন মালিকের স্ত্রী ওই বাসায় যুবকের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন বলে জানান ওসি। বাইরে থেকে দরজা খোলা থাকায় এবং কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে বাড়িওয়ালার স্ত্রী তাদের নতুন ভাড়াটিয়ার বাসায় ঢোকেন। পরে টয়লেটের ভেতরে লাশ দেখে পুলিশে খবর দেন।

চট্টগ্রামে দুর্ঘটনায় ট্রাক চালক- হেলপারের মৃত্যু

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দুই ট্রাকের সংঘর্ষে চালক ও তার সহকারীর মৃত্যু হয়েছে। হাইওয়ে পুলিশের জোরারগঞ্জ ফাঁড়ির এসআই মুজিবর রহমান জানান, মঙ্গলবার গভীর রাতে উপজেলার থৈয়াছড়া ইউনিয়নের পশ্চিম ফুল মোগড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা হয়।  নিহতরা হলেন- এক ট্রাকের চালক রফিক ঢালি (২৬) এবং তার সহকারী শিমুল (২৪)।

এসআই মুজিব  বলেন, রাত আড়াইটার দিকে সড়কে দাঁড়িয়ে থাকা মালবাহী একটি ট্রাককে পেছন থেকে ধাক্কা দেয় ঢাকামুখী অন্য একটি খালি ট্রাক । এতে পেছনের ট্রাকটির চালক ও সহকারী ঘটনাস্থলেই মারা যান। এসআই মুজিব জানান, দুটি ট্রাকের সংঘর্ষের পর ঢাকামুখী সৌদিয়া পরিবহনের একটি বাসও পেছনের ট্রাকটিকে ধাক্কা দেয়। এতে বাসের সামনের অংশের ক্ষতি হলেও যাত্রীরা আঘাত পাননি।

কক্সবাজারের অস্ত্রসহ ডাকাত আটক

কক্সবাজার প্রতিনিধি: কক্সবাজারের টেকনাফে অস্ত্রসহ এক যুবককে আটক করা হয়েছে; যার বিরুদ্ধে ডাকাতিসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব। র‌্যাব-৭ কক্সবাজার ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক মেজর মো.রুহুল আমিন জানান,বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুরের জাহাজপুরা এলাকায় বুধবার ভোরে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। আটক নুরুল আলম (৩৪) টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এলাকার ইজ্জত আলীর ছেলে। মেজর রুহুল বলেন, সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের উদ্দেশ্যে কয়েকজন দুর্বৃত্তের একত্র হওয়ার এমন গোপন খবর পেয়ে র্যা বের একটি দল অভিযান চালায়। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে র‌্যাব ধাওয়া দিয়ে দেশীয় তৈরি একটি বন্দুক ও চার রাউন্ড গুলিসহ নুরুলকে আটক করে। রুহুল বলেন, পরে নুরুলের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে আরও সাতটি দেশীয় তৈরি বন্দুক ও ১১ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। ডাকাতি ছাড়াও নুরুলের বিরুদ্ধে এক বিদেশী নাগরিককে ধর্ষণসহ বিভিন্ন অপরাধে টেকনাফ থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলে এ র‌্যাব কর্মকর্তা জানান।

নারাযণগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় বৃদ্ধার মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের মৌচাক এলাকায় বাসের চাপায় কাজল বিবি (৮২) নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে।  রোববার ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে রাস্তা পারাপারের সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। কাজল বিবি শরীয়তপুর জেলার দামাইদ্দা থানার চরসিদুরপুড়া এলাকার মৃত আক্কেল আলীর স্ত্রী। তিনি সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় সাহেবপাড়া এলাকার নুরুল ইসলামের বাড়ির ভাড়াটিয়া।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাজহারুল ইসলাম  জানান, সকালে ওই বৃদ্ধা নারী রাস্তা পারাপারের সময় চট্টগ্রামগামী অজ্ঞাত একটি গাড়ি তাকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পরে স্থানীয়রা খবর দিলে দুপুরে পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়।

নোয়াখালীতে বাসচাপায় বাইসাইকেল আরোহী নিহত

নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালীতে বাসচাপায় অতুল চন্দ্র পাল (৬০) নামে বাইসাইকেলের এক আরোহী নিহত হয়েছেন। রোববার সকাল ১১টার দিকে পৌরসভার মাইজদী-সোনাপুর প্রধান সড়কের উত্তর সোনাপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। অতুল বিনোদপুর ইউনিয়নের লালপুর গ্রামের বাসিন্দা এবং নলকূপ মিস্ত্রি ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে বাইসাইকেলে করে জেলা শহর মাইজদী থেকে বাড়ি ফিরছিলেন অতুল। পথে উত্তর সোনাপুরের কলেজিয়েট স্কুল মোড়ে এলে পেছন থেকে আসা একটি বাস বাইসাইকেলটিকে চাপা দেয়। এতে গুরুতর আহত হন অতুল। এ অবস্থায় স্থানীয়রা অতুলকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন  জানান, চালকসহ বাসটি আটক করা হয়েছে। নিহতের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মিনার চৌধুরীর জামিন বাতিল একরাম হত্যা মামলা ছয় মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ

ফেনীর ফুলগাজী উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান একরাম হত্যা মামলার আসামি বিএনপি নেতা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী ওরফে মিনার চৌধুরীর জামিন বাতিল করেছেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে ছয়মাসের মধ্যে মামলার বিচারকাজ শেষ করারও নির্দেশ দিয়েছেন আপলি বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে তিন বিচারপতির বেঞ্চ  রোববার এ আদেশ দেন।

২০১৬ সালের ২৪ নভেম্বর হাইকোর্ট এ মামলায় মিনার চৌধুরীর ৬ মাসের জামিন দেন। এ জামিন আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। সে আবেদনের শুনানি নিয়ে রোববার মিনার চৌধুরীকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন আদেশ বাতিল করেন আপিল বিভাগ। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। মিরার চৌধুরীর পক্ষে শুনানি করেন মনসুরুল হক চৌধুরী। ২০১৪ সালে ২০ মে ফেনী শহরের একাডেমি এলাকায় সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে গুলি করে কুপিয়ে ও পুড়িয়ে সাবেক ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি একরামুল হক একরামকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের ভাই রেজাউল হক জসিম বাদী হয়ে বিএনপি নেতা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীকে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাতনামা ৩০-৩৫ জনের বিরুদ্ধে ফেনী মডেল থানায় মামলা করেন।

রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনে মিয়ানমার প্রতিনিধি দল কক্সবাজারে

কক্সবাজার প্রতিনিধি: রোহিঙ্গা শরণার্থীদের তিনটি শিবির পরিদর্শন করতে কক্সবাজার পৌঁছেছেন মিয়ানমার সরকারের একটি প্রতিনিধি দল। জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন জানান, রোববার সকালে ঢাকা থেকে আকাশ পথে প্রতিনিধি দলের ১০ সদস্য কক্সবাজারে পৌঁছান। সাড়ে ১১টায় তারা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে যান। সেখানে ঘণ্টাখানেক আলোচনা শেষে উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনে যান তারা। দশ সদস্যের এই প্রতিনিধি দলটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন মিয়ানমারের ইনভেস্টিগেশন কমিশনের সেক্রেটারি জ্যাং মিন্ট পে।
গত বছরের অক্টোবরে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পর দেশটির সেনাবাহিনী ব্যাপক অভিযান শুরু করে। ওই অভিযানের সময় ৭০ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা সীমানা পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়ে বলে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম ) এর ধারণা। আন্তর্জাতিক চাপের মুখে মিয়ানমারের নতুন সরকার রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে একটি তদন্ত দল গঠন করে। ওই দলের পাঁচ সদস্য বাংলাদেশে আসা প্রতিনিধি দলেও আছেন। পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখতে ও তাদের সঙ্গে কথা বলতে মিয়ানমার সরকার প্রতিনিধি দলটি পাঠিয়েছে বলে জেলা প্রশাসক জানান। তিনি বলেন, তারা পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। দুই নিকট প্রতিবেশী দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সম্পর্ক উন্নয়ন নিয়েও তাদের সঙ্গে আলাপ হয়েছে। আজ সোমবার সকালে তারা উখিয়ার বালুখালী ও টেকনাফের লেদায় আরও দুটি শরণার্থী শিবির পরিদর্শন করবেন বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

চট্টগ্রামে ছয় লাখ ইয়াবাসহ মিয়ানমারের ৬ নাগরিক আটক

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের পতেঙ্গা এলাকা থেকে ছয় লাখ ইয়াবাসহ আটজন গ্রেপ্তার হয়েছেন, যাদের মধ্যে ছয়জন মিয়ানমারের নাগরিক বলে জানিয়েছে র‌্যাব। র‌্যাব-৭ এর  সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি মিমতানুর রহমান জানান, গোপন খবরের ভিত্তিতে রোববার ভোরে পতেঙ্গা চরপাড়া স্লুইসগেট এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। গ্রেপ্তারদের পরিচয় ও অভিযানের বিস্তারিত তথ্য পরে প্রকাশ করা হবে বলে জানান তিনি।

হাতিয়ায় আওয়ামী লীগের সংঘর্ষে আহত ২০

নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোখালীর হাতিয়া উপজেলার জাহাজমারা বাজারে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। ওই এলাকার বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান মাছুম বিল্লাহ ও সাবেক চেয়ারম্যান একেএম সিরাজ উদ্দিনের অনুসারীদের মধ্যে শনিবার সন্ধ্যায় এই সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে শর্টগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে বলে নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. ইলিয়া শরীফ জানান। আহতদের মধ্যে কয়েকজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শুক্রবার বঙ্গবন্ধুর জম্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে সাবেক চেয়ারম্যান সিরাজ উদ্দিনের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের একটি পক্ষ আলোচনা সভা ও শোভাযাত্রা বের করে। এরপর শনিবার সন্ধ্যায় বর্তমান চেয়ারম্যান মাছুম বিল্লার সমর্থকরা পৃথক কর্মসূচি দেয়। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল উদ্দিন, রুবেল, রাসেল, নেছার, ফারুক, নাছির, আরিফ ও দ্বীজনকে জাহাজমারা বাজারে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা আজ শুরু

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: নগরীর রেলওয়ে পলোগ্রাউন্ড মাঠে আজ রোববার শুরু হচ্ছে চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। এরই মধ্যে মেলার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে আয়োজক প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি। ২৫তম এ মেলা সম্পর্কে অবহিত করতে শনিবার দুপুরে আগ্রাবাদ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হয়। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মাসব্যাপী মেলার উদ্বোধনী দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন শিল্পমন্ত্রী আমীর হোসেন আমু। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন ও এফবিসিসিআই’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো.শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন) বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। মেলা চলবে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত। দর্শনার্থীদের জন্য টিকেটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা।

পার্টনার কান্ট্রি হিসেবে থাকছে থাইল্যান্ড। মেলায় এবার প্রথমবারের মতো অংশ নিচ্ছে মরিশাস। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মেলা কমিটির চেয়ারম্যান মো.নুরুন নেওয়াজ সেলিম। এসময় চেম্বার সভাপতি ও মেলা কমিটির উপদেষ্টা মাহবুবুল আলম উপস্থিত ছিলেন। লিখিত বক্তব্যে মেলা কমিটির চেয়ারম্যান জানান, চার লাখ বর্গফুটের অধিক জায়গাজুড়ে আয়োজিত মেলায় এবার ১৬টি প্রিমিয়ার গোল্ড প্যাভিলিয়ন, ৪টি মিনি মেগা প্যাভিলিয়ন, ৫টি প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন, ১০টি স্ট্যান্ডার্ড প্যাভিলিয়ন, ১৭২টি প্রিমিয়ার মেগা বুথ, ২২টি মেগা বুথ, ১০টি প্রিমিয়ার গোল্ড বুথ, ১৬ টি প্রিমিয়ার বুথ, ১৪টি স্ট্যান্ডার্ড বুথ, তিনটি রেস্টুরেন্টসহ ৩৫টি প্যাভিলিয়ন, পার্টনার কান্ট্রি থাই জোন, তিনটি আলাদা জোন নিয়ে ৪৫০ অধিক প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিচ্ছে।

অন্যান্য বছরের মতো থাইল্যান্ড মেলার পার্টনার কান্ট্রি হিসেবে অংশগ্রহণ করছে জানিয়ে নুরুন নেওয়াজ বলেন, থাইল্যান্ড ৫ হাজার ৪০০ বর্গফুট জায়গা নিয়ে মেলায় অংশ নেবে। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে চেম্বারের অনেক কর্মকা-ের মধ্যে বাণিজ্য মেলা অন্যতম উল্লেখ করে তিনি বলেন, ২৪ বছর ধরে দেশের শিল্পের প্রসার ও মান উন্নয়নে চেম্বার মেলার আয়োজন করে আসছে। বাংলাদেশে এসএমই খাতের বিকাশের লক্ষ্যেই মূলত মেলার আয়োজন। মেলা কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, প্রতিবারের মতো মেলায় বাড়তি নিরাপত্তা বলয় থাকবে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সবসময় নিয়োজিত থাকবেন। তাদের জন্য মেলা চলাকালীন সময় পর্যন্ত স্থায়ী ক্যাম্প তৈরি করা হয়েছে। পাশাপাশি মেলায় ব্যাংক বুথও স্থাপন করা হয়েছে। মেলা চলাকালীন প্রায় প্রতিদিন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা মেলাস্থল পরিদর্শন করবেন। এর আগে সংবাদ সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্যে চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, আজ থেকে ২৪ বছর আগে এমএ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন আউটার স্টেডিয়ামে ছোট্ট পরিসরে বাণিজ্য মেলা শুরু হয়েছিল। সেই মেলায় এখন প্রতিদিন লক্ষাধিক মানুষ আসেন। মেলা থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে অপেক্ষা করেন চট্টগ্রামের মানুস। মেলা বেচাকেনার জন্য নয়, দেশিয় পণ্যের প্রদর্শন এবং আন্তর্জাতিকভাবে দেশিয় পণ্যের পরিচিত পাওয়ার ক্ষেত্রেও ভূমিকা রাখে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। মাহবুবুল আলম বলেন, বাংলাদেশে দুটি বড় বাণিজ্য মেলা হয়। সরকারিভাবে ঢাকায় বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হলেও বেসরকারিভাবে সবচেয়ে বড় বাণিজ্য মেলার আয়োজন করে চট্টগ্রাম চেম্বার। মেলায় দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। বাংলাদেশ উৎপাদিত পণ্য প্রচার ও প্রসারই এ মেলার একমাত্র উদ্দেশ্য। বিগত সময়ের তুলনায় দেরিতে মেলা শুরুর বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে মেলা আয়োজনের জন্য একটি স্থায়ী ভেন্যুর দাবি করে আসছি।

কিন্তু এখনো পর্যন্ত সেটা হয়ে উঠেনি। বাংলাদেশ রেলওয়ের মালিকানাধীন পলোগ্রাউন্ড মাঠে মেলা আয়োজন করে আসছেন জানিয়ে তিনি বলেন, এই মাঠে আরও একটি মেলা হয়। এছাড়া রেলওয়ের বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠিত হয়। অন্যান্যবার আমরা ফেব্রুয়ারিতে মাঠ বুঝে পেলেও এবার পাইনি ফলে নির্দিষ্ট সময়ে আরম্ভ করা সম্ভব হয়নি। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে মেলার কো-চেয়ারম্যান মাহফুজুল হক শাহ, মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী, চেম্বার পরিচালক এম এ মোতালেব,  জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর), একেএম আকতার হোসেন, অহিদ সিরাজ (স্বপন),  প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জঙ্গি আস্তানায় বিপুল পরিমাণ বোমা তৈরির কাঁচামাল উদ্ধার

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: সীতাকুন্ডের প্রেমতলার ছায়ানীড় নামের একটি ভবনে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালানোর দুই দিন পর সেখান থেকে আরও বিপুল পরিমাণ বোমা তৈরির কাঁচামাল ও ১৫টি বোমা উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে ওই আস্তানায় তল্লাশি চালায় নগর পুলিশের বোমা নিস্ক্রিয়করণ দল। এসময় তারা ৫ ড্রাম হাইড্রোজেন ফারঅক্সাইড অক্সিজেন (বোমা তৈরির কাঁচামাল) পাওয়া যায়। প্রতি ড্রামে ৪০ লিটার করে হাইড্রোজেন ফারঅক্সাইড অক্সিজেন রয়েছে। পাশাপাশি তারা তিন থেকে চার কেজি ওজনের ১৫টি বোমা এবং ৪০ লিটার অ্যাসিডও পায় সেখানে। বোমাগুলো তাজা আছে কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। জঙ্গি আস্তানায় তল্লাশি অব্যাহত রয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা বলেন, ‘ছায়ানীড় নামের ভবনের ওই জঙ্গি আস্তানার তিনটি কক্ষের মধ্যে মাত্র একটি কক্ষে তল্লাশি চালিয়ে  ৫ ড্রাম হাইড্রোজেন ফারঅক্সাইড অক্সিজেন ও ১৫টি বোমা পাওয়া গেছে। আরও দুটি কক্ষে তল্লাশি চালানো হবে। আমাদের খুব সতর্কতার সঙ্গে তল্লাশি চালাতে হচ্ছে। কারণ বিস্ফোরণ ঘটে গেছে বড় ধরণের ক্ষয়ক্ষতি হবে। তিনি বলেন, উদ্ধার করা বোমাগুলো তাজা আছে কিনা দেখা হচ্ছে। তাজা থাকলে পুরোপুরি তল্লাশি শেষে তা নিস্ক্রিয়করণ করা হবে। ওই জঙ্গি আস্তানায় বর্তমানে নগর ও জেলা পুলিশের বেশ কয়েকটি টিম তল্লাশি চালাচ্ছে।

 

গোপন আস্তানা ‘নিরাপদ’ রাখতে কৌশলী জঙ্গিরা

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরদারি এড়াতে গোপন আস্তানা নিয়ে একের পর এক কৌশল পাল্টাচ্ছে জঙ্গিরা।  তাদের সর্বশেষ কৌশল হচ্ছে মফস্বল কিংবা শহরের উপকন্ঠে জঙ্গি আস্তানা গড়ে তোলা, বিশেষ করে সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকায়। সীতাকুন্ডে দুই জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের পর এই প্রশ্নটি সামনে এসেছে পুলিশের কাছে এবং বিষয়টি তাদের ভাবিয়ে তুলেছে। পুলিশ কর্মকর্তাদের মতে, শুরুতে জেএমবির বাংলা ভাইয়ের মতো ভয়ঙ্কর জঙ্গিদের উত্থান হয়েছিল একেবারে গ্রামাঞ্চলে।  সেখানে প্রতিরোধের মুখোমুখি হওয়ার পর ঢাকা-চট্টগ্রামের বাইরে বিভাগীয় শহরগুলোতে জঙ্গিরা আস্তানা গড়ে তুলতে শুরু করে।  সেখানে পুলিশের অভিযানে টিকতে না পেরে ঢাকা ও চট্টগ্রাম শহরের মতো বড় শহরে আস্তানা গড়ে তুলে।

সাম্প্রতিক সময়ে জঙ্গিদের আর মূল শহরে আস্তানা গড়ে তুলতে দেখা যাচ্ছে না বলে  জানিয়েছেন পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি শফিকুল ইসলাম। ডিআইজি বলেন, এখন তারা মহাসড়কের পাশে মফস্বল কিংবা শহরের উপকন্ঠ যেগুলোকে বলে সেগুলো বেছে নিচ্ছে।  এটা তাদের ভিন্ন একটা কৌশল হতে পারে।  হয়ত পুলিশের নজরদারি এড়াতে ব্যস্ততম স্থান থেকে একটু দূরে আসা অথবা মহাসড়কে নাশকতার টার্গেট নিয়ে তারা সেখানে অবস্থান নিচ্ছে। গত বছরের ৭ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম নগরীর উপকন্ঠ হিসেবে পরিচিত উত্তর কাট্টলীতে একটি জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পায় র্যাব।  সেখান থেকে পাঁচজনকে আটক করা হয়। এরপর গত ৮ মার্চ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই পৌরসভায় জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পাওয়া যায়। ৭ মার্চ রাতে জঙ্গি আস্তানার সন্ধানে পটিয়ার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। কুমিল্লায় পুলিশের উপর বোমা হামলা করে আটক দুই জঙ্গির তথ্যের ভিত্তিতে মিরসরাইয়ে আস্তানার সন্ধান পাওয়া যায়।  একইভাবে তাদের তথ্যের ভিত্তিতেই পটিয়ায় অভিযান চালানো হয়।


এরপর ১৫ মার্চ আবারও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুন্ড পৌরসভায় দুটি আস্তানার সন্ধান পাওয়া গেল। পুলিশ কর্মকর্তাদের বিশ্লেষণ অনুযায়ী, মফস্বল কিংবা শহরের উপকন্ঠ ছাড়াও জঙ্গিদের আরেকটি কৌশল সাম্প্রতিক সময়ে দেখা যাচ্ছে।  সেটি হল সংখ্যালঘুদের বসতি যেসব এলাকায় বেশি সেখানে আস্তানা গড়ে তোলা। বিষয়টিকে ‘অ্যালার্মিং’ বলছেন চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার (এসপি) নূরে আলম মিনা। এসপি বলেন, এটা অ্যালার্মিং।  জঙ্গিরা নিয়মিত অবস্থান পাল্টাচ্ছে। আস্তানা গড়ে তোলার ক্ষেত্রে নানা কৌশল নিচ্ছে।  মাইনোরিটি এরিয়ায় আস্তানা গড়ে তোলা তাদের একটা কৌশল হতে পারে। পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি সাখাওয়াত হোসেন  বলেন, সাধারণত মাইনোরিটি যেসব এলাকায় বেশি, সেখানে জঙ্গি আস্তানা করলে সন্দেহ কম হবে।  এর মাঝে নাশকতা ঘটানো তাদের জন্য সহজ হবে।  এটাই সম্ভবত তাদের কৌশল। ১৫ মার্চ সীতাকু-ের ৭ নম্বর পশ্চিম আমিরাবাদ ওয়ার্ডের নামারবাজার এলাকায় যেখানে প্রথম জঙ্গি আস্তানা পাওয়া গেছে সাধন কুটির নামের একটি ভবন থেকে।  বাড়ির মালিক সুভাষ চন্দ্র দাশ নামে এক ব্যবসায়ী।

৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাসুদুল আলম  বলেন, আমাদের এলাকায় মাইনোরিটি-মেজরিটি ফিফটি ফিফটি।  তবে যেখানে সাধন কুটির এর আশপাশের পুরো এলাকায় হিন্দু অধ্যুষিত।  সাধুন কুটিরের প্রায় সব ভাড়াটিয়ায় হিন্দু।  এখানে এসে জঙ্গিদের আস্তানা করার বিষয়টি আমাদের অবাক করেছে। ৫ নম্বর দক্ষিণ মহাদেবপুর ওয়ার্ডের প্রেমতলায় যে জঙ্গি আস্তানার সন্ধান মেলে সেই ছায়ানীড় ভবনের আশপাশের ৭০ ভাগ অধিবাসীই হিন্দু বলে জানালেন স্থানীয় কাউন্সিলর শফিকুল আলম চৌধুরী। কাউন্সিলর শফিকুল বলেন, এই এলাকায় ২২টি হিন্দুদের মন্দির আছে। 

উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় হিন্দুদের তীর্থস্থান চন্দ্রনাথ ধাম প্রেমতলা থেকে ৫-৭ কিলোমিটার দূরে।  এখানে আমরা দীর্ঘদিন ধরে হিন্দু মুসলিম বৌদ্ধ খ্রিস্টান সবাই শান্তিপূর্ণভাবে সহাবস্থান করছি। 

এখানে এসে জঙ্গি আস্তানা গড়ে তোলা আমার কাছে মনে হচ্ছে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নস্যাৎ করার একটা কৌশল। ছায়ানীড় ভবন থেকে ৫০ গজ দূরে সাংবাদিক মিহির চক্রবর্তীর বাড়ি।  তিনি  বলেন, আমার কাকার কাছ থেকে জায়গা কিনে ছায়ানীড় ভবনটি তৈরি করা হয়েছে।  প্রেমতলা পুরোটাই সংখ্যালঘু অধ্যুষিত।  চৌধুরীপাড়ায় সংখ্যালঘু কম।  প্রেমতলায় আমরা কখনও কোন ধর্মীয় উগ্রতা দেখিনি। সীতাকুন্ড বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম বাহার  বলেন, জঙ্গিরা এমন এক জায়গা বেছে নিয়েছে, যেখানে এশিয়ার বৃহত্তম তীর্থস্থান চন্দ্রনাথ ধাম আছে।  প্রতি বছর এখানে বিশ্বের বিভিন্ন স্থান থেকে ৩০ লাখ লোক আসে।  এই ধরনের একটা এলাকায় থাকলে পুলিশ সন্দেহ করবে না।  সেই কৌশলটাই নিয়েছিল জঙ্গিরা।

শিক্ষিকাকে পেটানো সেই বখাটের স্বীকারোক্তি আদালতে

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : শ্রেণিকক্ষে ঢুকে লোহার খন্তা দিয়ে পিটিয়ে এক শিক্ষিকার হাত-পা ভেঙে দেওয়ার ঘটনায় গ্রেফতার আহসান উল্লাহ টুটুল (৩০) আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে পটিয়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহিদুল ইসলামের আদালতে টুটুল এ স্বীকারোক্তি দেন। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আহসান উল্লাহ টুটুলকে ৫ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন জানিয়েছিল পুলিশ। তবে এসময় সে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলে আদালত রিমান্ড মঞ্জুর করেননি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পটিয়া থানার এসআই মো. কামাল হোসেন  বলেন, শিক্ষিকা মিসফা সুলতানাকে শ্রেণিকক্ষে ঢুকে খন্তা দিয়ে হাত-পা ভেঙে দেওয়ার ঘটনায় গ্রেফতার টুটুলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন জানিয়েছিল পুলিশ। কিন্তু টুটুল স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ায় আদালত রিমান্ড মঞ্জুর করেননি। পরবর্তীতে দ-বিধির ১৬৬ ধারা অনুযায়ী আবারও রিমান্ড আবেদন জানানো হয়। আদালত তাকে আরও ৩ ঘন্টার সময় দিয়েছেন এবং আদালত চলমান রয়েছে। এর আগে মঙ্গলবার সকালে পটিয়ার দক্ষিণ ভূর্ষি ইউনিয়নের পূর্ব ডেঙ্গামারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা মিসফা সুলতানার (২৫) ওপর হামলা চালায় বখাটে টুটুল। এতে ওই শিক্ষিকার দুই হাত এবং বাম পা ভেঙে যায়। পরে পটিয়া থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওইদিন বেলা ১২টার দিকে টুটুলকে গ্রেফতার করে। আটক টুটুল একই এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে। আহত শিক্ষিকাকে হত্যারচেষ্টার অভিযোগে তার বাবা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুর মোহাম্মদ বাদি হয়ে থানায় মঙ্গলবার রাতেই আহসান উল্লাহ টুটুলের বিরুদ্ধে দ-বিধির ৩২৩, ৩২৫, ৩০৭, ৩৫৪ ও ৫০৬ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। বর্তমানে চমেক হাসপাতালের ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে মিসফা সুলতানা চিকিৎসাধীন আছেন।

 

 

কসবায় বন্দুকযুদ্ধে মামা হুজুর নিহত

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবড়িয়ার কসবা উপজেলার কুটি চৌমুহনী এলাকায় গত বুধবার গভীর রাতে পুলিশের সাথে কথিত ’বন্দুকযুদ্ধে’ তাজুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তাজুল ইসলামের বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার নবীনগর উপজেলার সাদুল্লাপুর গ্রামে।

তিনি কসবায় ’মামা হুজুর’ হিসেবে পরিচিত ছিলেন। সম্প্রতি কসবায় হওয়া এক কবিরাজ হত্যাকান্ডের ঘটনায় তার নাম আলোচনায় আসে।
পুলিশের অভিযোগ, জঙ্গি হামলার প্রস্তুতির খবর পেয়ে অভিযানে গেলে তাদের উপর হামলা হয়। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ পাল্টা গুলি ছুড়ে। মামা হুজুর একজন জঙ্গি। হত্যাকান্ডের ঘটনায় নাম আসার পর থেকেই তিনি আত্মগোপনে চলে যান।

পুলিশের দাবি, নিজ দলের সদস্যদের গুলিতেই তাজুল ইসলাম নিহত হয়েছেন। হামলায় পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ৩৫টি ককটেল, পাঁচটা চাপাতি, একটা পাইপ গান, নয়টা কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। লাশ থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মহিউদ্দিন জানান, এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে ককটেল ও গুলি ছোড়া হয়। পুলিশ আত্মরক্ষার্থে ১২ রাউন্ড গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। নিজ দলের সদস্যদের গুলিতেই তাজুল ইসলাম নিহত হন।

সীতাকুণ্ডের আস্তানায় ‘আত্মঘাতী বিস্ফোরণ’, ৪ জঙ্গি নিহত

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের এক দোতলা বাড়ি ঘিরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর দীর্ঘ ১৯ ঘণ্টার অভিযানের সমাপ্তি ঘটেছে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ও গুলিতে এক নারীসহ চার ‘জঙ্গির’ মৃত্যুর মধ্য দিয়ে।  

পৌর এলাকার ৫ নম্বর প্রেমতলা ওয়ার্ডে ‘ছায়ানীড়’ নামের ওই দ্বিতল ভবন বুধবার বিকাল থেকে ঘিরে রেখেছিল আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। শুরুতে জঙ্গিদের তরফ থেকে কয়েক দফা গ্রেনেড হামলা এবং রাতভর গোলাগুলির পর বৃহস্পতিবার সকালে শুরু হয় পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট ও সোয়াটের ‘অপারেশন অ্যাসল্ট সিক্সটিন’

সোয়াট সদস্যরা পাশের একটি বাড়ি থেকে ছাদ হয়ে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করলে জঙ্গিরা ‘আল্লাহু আকবর’ ধ্বনি দিয়ে সেখানে বড় ধরনের আত্মঘাতি বিস্ফোরণ ঘটায় বলে পুলিশ কর্মকর্তারা জানান।     

পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি সফিকুল ইসলাম সকাল সোয়া ১০টায় ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা এখন পর্যন্ত চারটি ডেডবডি সেখানে দেখেছি। তাদের দুজনের শরীরে ছিল সুইসাইড ভেস্ট। বিস্ফোরণে তাদের মৃত্যু হয়েছে। দেহগুলো ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে। দুজন মারা গেছে পুলিশের গুলিতে। ভেতরে আর কেউ নেই।”

এই অভিযানে জঙ্গিদের ছোড়া গ্রেনেডে তিন পুলিশ সদস্য এবং গ্রিল কাটতে গিয়ে ফায়ার ব্রিগেডের এক সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানান তিনি।

সকাল ১০টার পর অভিযান প্রাথমিকভাবে সমাপ্ত ঘোষণা করা হলেও পুলিশের বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিটের সদস্যরা ভেতরে কাজ করছিলেন।

ডিআইজি সফিকুল বলেন, “জঙ্গিরা দোতলায় দুটি ঘরে ছিল। সেখানে প্রচুর বিস্ফোরক রয়েছে। ছাদেও প্রচুর বোমার মজুদ দেখা গেছে। আমাদের অপারেশন শেষ হয়েছে। তবে ভবনটি নিরাপদ করার জন্য বোমা নিষ্ক্রিয়করণ দল কাজ করছে।”

ছায়ানীড়ের দুই তলার চারটি ইউনিটের একটিতে আস্তানা গেড়িছিল জঙ্গিরা। বাকি তিন ফ্ল্যাটের বাসিন্দাদের সারা রাত আতঙ্কের মধ্যে ভেতরে আটকে থাকতে হয়। সকালে নারী-শিশুসহ ২০ জনকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ।

সফিকুল ইসলাম বলেন, “সাধারণ নাগরিকদের বের করে আনার জন্য গত রাতে আমরা কয়েকবার চেষ্টা করেছি, কিন্তু পারিনি। আজ সকালে তারা আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটানোর পর আবার চেষ্টা শুরু করি। পরে জানালার গ্রিল কেটে বিভিন্ন ঘরের বাসিন্দাদের উদ্ধার করে নিয়ে আসি।

বিস্তারিত আসছে

সীতাকুণ্ডে জঙ্গি আস্তানার খোঁজ মিলল যেভাবে

কাপড় ব্যবসায়ী পরিচয় দিয়ে বাসা ভাড়া নেওয়া এক ব্যক্তির জাতীয় পরিচয়পত্র দেখে বাড়িওয়ালার সন্দেহ থেকে পাশাপাশি দুই ওয়ার্ডে দুটি জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। 


বুধবার বিকেলে সীতাকুণ্ড পৌর এলাকার ৬ নম্বর নামার বাজার ওয়ার্ডের আমিরাবাদ এলাকায় ‘সাধন কুটির’ নামের এক দোতলা বাড়িতে প্রথম জঙ্গি আস্তানার সন্ধান মেলে।

সেখান থেকে গ্রেপ্তার জঙ্গি দম্পতি জসিম ও আর্জিনার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পাশের ৫ নম্বর প্রেমতলা ওয়ার্ডের ‘ছায়ানীড়’ ভবনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযান চালাচ্ছে। দ্বিতীয় আস্তানা থেকে জঙ্গিদের ছোড়া গ্রেনেডে এক পুলিশ কর্মকর্তা আহত হওয়ার পর অভিযানে যোগ দিয়েছেন সোয়াট সদস্যরা।

পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মোহাং শফিকুল ইসলাম বলেন, “নামার বাজারের বাসায় গ্রেপ্তার দুজন জেএমবি সদস্য। সেখান থেকে সুইসাইড ভেস্ট, পিস্তল ও বিস্ফোরক তৈরির বিপুল পরিমাণ সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।”

‘সাধন কুটির’ নামের দুই তলা ওই ভবনের মালিক সুভাষ চন্দ্র দাশ জানান, তার বাড়িতে প্রতি তলায় তিনটি করে মোট ছয়টি ইউনিট। গত ২৭ ফেব্রুয়ারি টেলিফোনে যোগাযোগ করে জসিম নিজেকে কাপড় ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচয় দেন এবং নিচ তলার একটি ইউনিট ভাড়া নিতে চান।

সাড়ে ছয় হাজার টাকা ভাড়া ঠিক হওয়ার পর বাড়ির মালিক সুভাষ তার নতুন ভাড়াটিয়ার কাছে জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি চান। পরে জসিম ২ মার্চ এসে একটি এনআইডির কপি দিয়ে যান।
“ওইদিন সে অনুরোধ করে, তার পরিবারের সদস্যরা ১২ মার্চ আসবে। এর আগে তার দুজন ছোট ভাই বাসায় থাকবে। আমি রাজি না হয়ে তাকে বলি, পরিবারের সদস্যরা যখন আসবে, তখনই যেন সবাই আসে।”

সুভাষ জানান, জসিম যে এনআইডি দেন, তাতে তার বাড়ির ঠিকানা লেখা ছিল কক্সবাজারের রামু। সেখান থেকেই মালামাল আসবে বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

কিন্তু ৪ মার্চ মালামাল আনার সময় রিকশা চালককে জিজ্ঞেস করে সুভাষ জানতে পারেন, মালামাল আনা হয়েছে পাশের ওয়ার্ড প্রেমতলা থেকে।

“তখনই প্রাথমিকভাবে সন্দেহ হয়। তাই আমার স্ত্রীকে নজর রাখতে বলি।”

এর মধ্যে জসিম পরিবার নিয়ে ১২ মার্চ বাসায় ওঠেন। তার বাসার দরজা-জানালা দিনের বেশিরভাগ সময় বন্ধ থাকত এবং রাতের বেলায় লোকজন আসা-যাওয়া করত বলে বাড়িওয়ালার স্ত্রী ছবি রানি দাশ সাংবাদিকদের জানান।
বাড়িওয়ালা সুভাষ বলেন, “গত রোববার ওই বাসায় গিয়ে দেখি বেডরুমে দুই ছেলে, তারা নাকি জসিমের ছোট ভাই। এক জায়গায় কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখা দেখে সরাই। ভেতরে দেখি অনেক সার্কিট আর গোলাকার ধাতব বস্তু।”

সুভাষের প্রশ্নের জবাবে জসিম দাবি করেন, কাপড়ের পাশাপাশি তার লাইটিংয়েরও ব্যবসা রয়েছে। সেখানেই এসব সার্কিট কাজে লাগে।

“পরে আমি তার কাছ থেকে সার্কিটের নমুনা নিয়ে পরিচিত এক মেকানিককে দেখাই। সে জানায়, এগুলো টাইম কার্ড; ফ্রিজে ব্যবহার করা হয়, আবার দূর নিয়ন্ত্রণের কাজেও লাগে।”

এসব দেখে সুভাষের সন্দেহ আরও বাড়ে। বুধবার জসিমের দেওয়া সেই এনআইডির কপি নিয়ে শরের একটি কম্পিউটারের দোকানে যান তিনি।

“ওই দোকানদার ওয়েবসাইটে তথ্য যাচাই করে জানায়, ওই আইডি নম্বর অন্য নামের এক লোকের। জসিম বলে কারও নয়।”

‘ভুয়া’ এনআইডির বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার পর দুই বন্ধু ও স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে জসিমের বাসায় গিয়ে তাদের তখুনি বাসা ছেড়ে দিতে বলেন সুভাষ।
“তারা বাসা ছাড়তে রাজি হচ্ছিল না। তখন সামনের ঘরের খাটের নিচে একটি সুটকেস দেখে সেটা টেনে বাইরে আনার সময় এক জোড়া গামবুট পাই। ওই বুটের ভেতরে পিস্তল দেখে আমি চিৎকার দিলে এলাকার লোকজন ছুটে আসে।”

ঘরের ভেতরে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে খবর পেয়ে পুলিশও ঘটনাস্থলে আসে।

সুভাষ বলেন, বাড়িতে পুলিশ দেখে আর্জিনা ‘কোমরে হাত দেন’। পরে দেখা যায় তার কোমরে ‘বিশেষ ধরনের বেল্ট’ বাঁধা। পুলিশ সেটি খুলে নেয়।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (অপারেশনস) মাহবুব মিল্কি  বলেন, “ওই নারীর কোমরে সুইসাইড বেল্ট ছিল। সেটি আমরা খুলে নিয়েছি।”

জসিম ও আর্জিনাকে গ্রেপ্তারের পাশাপাশি তাদের তিন মাস বয়সী শিশুকেও সেখান থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা। 

চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের অতিরিক্ত সুপার (উত্তর) মসিউদ্দোল্লাহ রেজা বলেন, বাড়িওয়ালা জসিমের দুই ছোট ভাইয়ের কথা বললেও তাদের ওই সময় বাসায় পাওয়া যায়নি।

জঙ্গি আস্তানা: ঢাকার সোয়াট টিম সীতাকুণ্ডে

জঙ্গি দমন অভিযানে সহায়তার জন্য ঢাকা থেকে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে পৌঁছেছে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের একটি দল, চূড়ান্ত অভিযানের জন্য যাদের অপেক্ষায় ছিল স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বুধবার বিকালে সীতাকুণ্ড পৌর শহরে ‘জেএমবির জঙ্গিদের’ একটি আস্তানা থেকে অস্ত্র ও বিস্ফোরকসহ এক দম্পতিকে গ্রেপ্তারের পর পাশের ওয়ার্ডের ওই বাড়িতে অভিযান চালাতে গিয়ে বোমায় আহত হন এক পুলিশ কর্মকর্তা। এরপর থেকে বাড়িটি ঘিরে রেখেছেন পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা।

রাত পৌনে ১টার দিকে ঢাকা থেকে সোয়াটের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এরপর দেড়টার দিকে সেখানে পৌঁছান কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস্যরা।

চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের অতিরিক্ত সুপার (উত্তর) মসিউদ্দোল্লাহ রেজা জানান, ঢাকার এই দলের অপেক্ষায় ছিলেন তারা।

“সোয়াট টিম এসেছে। এখন চূড়ান্ত অভিযান শুরু হবে।”

বাড়িওয়ালার কাছ থেকে খবর পেয়ে বুধবার বেলা ৩টা থেকে সাড়ে ৩টার মধ্যে সীতাকুণ্ড পৌর এলাকার নামার বাজার ওয়ার্ডের আমিরাবাদ এলাকায় দোতলা সাধন কুটিরের নিচতলায় পুলিশের অভিযান শুরু হয়। সেখানে অস্ত্র ও বিস্ফোরকসহ জসিম ও আর্জিনা নামের এক দম্পতিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তাদের দেওয়া তথ্যে পাশের প্রেমতলা ওয়ার্ডের চৌধুরী পাড়ার ‘ছায়ানীড়’ নামের এই দোতলা বাড়িতে অভিযানে যায় পুলিশ। সেখানে গিয়ে গ্রেনেড হামলায় সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোজাম্মেল হক আহত হন। পরে সীতাকুণ্ডের ওসি ইফতেখার হাসানের নেতৃত্বে আরেকটি দল এসে বাড়িটি ঘিরে ফেলে। পরে তাদের সঙ্গে যোগ দেন র‌্যাব ও সোয়াট সদস্যরা।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী নামার বাজার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শফিউল ইসলাম চৌধুরী মুরাদ বলেন, সাধন কুটিরে অভিযানের পর পুলিশের একটি দলের সঙ্গে তিনিও প্রেমতলায় আসেন।

“পুলিশ দলটির নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন পরিদর্শক মোজাম্মেল। তিনি ছায়ানীড়ের গেইটে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দোতলা থেকে গ্রেনেড চার্জ করে। বিস্ফোরণে পায়ে আঘাত পেয়ে তিনি পড়ে যান।”

পুলিশের ঘেরাওয়ের মধ্যে থেকে ওই বাড়ি থেকে জঙ্গিরা মোট সাতটি গ্রেনেড ছোড়ে বলে কাউন্সিলর মুরাদ জানান।

তিনি বলেন, “বিস্ফোরণে পুরো এলাকা কেঁপে ওঠে। মনে হচ্ছে বিস্ফোরকগুলো যথেষ্ট শক্তিশালী। ওই বাড়িতে কয়েকটি পরিবার আটকা পড়েছে।”

ঘটনাস্থলে থাকা  প্রতিবেদক মোস্তফা ইউসুফ জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সোয়াট সদস্যরা ওই বাড়ি ঘিরে অবস্থান নেন এবং চারপাশে রেকি করা শুরু করেন।

পরে ওই বাড়ি ঘিরে তীব্র আলোর ব্যবস্থা করা হয়। একটি সাদা রঙের সাঁজোয়া যানও আনা হয় সেখানে। রাত ৯টার পর থেকে থেমে থেমে গুলির শব্দ পাওয়া যায় সেখান থেকে।

এর আগে পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মোহাং শফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, “বাড়ির মালিক আমাদের বলেছেন, দোতলায় তিনজন আছে। তাদের চারদিক থেকে ঘিরে ফেলা হয়েছে। আমরা তাদের ধরতে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছি।”

ভবনের নিচতলায় থাকা দুটি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছে জানিয়ে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, “তাদের নিরাপদে সরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে।”

চট্টগ্রামে জঙ্গি দমনে বেশ কিছুদিন পুলিশের তেমন কোনো তৎপরতা দেখা না গেলেও সম্প্রতি কুমিল্লায় একটি বাসে তল্লাশির সময় পুলিশের দিকে বোমা ছোড়ার ঘটনার পর নড়েচড়ে বসে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

গত ৭ মার্চ কুমিল্লায় দুই জঙ্গিকে আটক করার পর তাদের একজনকে নিয়ে ওই রাতেই মিরসরাইয়ের একটি বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। সেখান থেকে উদ্ধার করা হয় ২৯টি হাতবোমা, নয়টি চাপাতি, ২৮০ প্যাকেট বিয়ারিংয়ের বল এবং ৪০টি বিস্ফোরক জেল।

এরপর চট্টগ্রাম নগরী ও জেলার বিভিন্ন স্থানে ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহের পাশাপাশি এলাকায় এলাকায় ‘ব্লক রেইড’ দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়ার কথা জানান চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা।

চট্টগ্রামে দুই হাজার ইয়াবাসহ রিকশা চালক গ্রেফতার

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রামে দুই হাজার ইয়াবাসহ কক্সবাজারের এক রিকশা চালককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে নগরীর বায়েজিদ বোস্তামী থানার শেরশাহ এলাকা থেকে হেলাল উদ্দিন (৩৮) নামে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। হেলালের বাড়ি টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের ফুলের ঢেল এলাকায়। সেখানে তিনি রিকশা চালান বলে পুলিশকে জানিয়েছেন।
বায়েজিদ থানার ওসি মো. মহসিন  জানান, গোপন খবরের ভিত্তিতে রাত সাড়ে ১১টার দিকে শেরশাহ এলাকার অটো রিকশা স্ট্যান্ড থেকে হেলালকে আটক করা হয়। পরে তার দেহ তল্লাশি করে দুই হাজার ইয়াবা পাওয়া যায়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হেলাল বলেছে, টেকনাফের এক ব্যক্তি ২০ হাজার টাকায় ইয়াবাগুলো ঢাকায় পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব দিয়েছিল। ওসি জানান, হেলাল ইয়াবা নিয়ে সরাসরি ঢাকা না গিয়ে প্রথমে চট্টগ্রাম আসেন। শেরশাহ এলাকায় থেকে সোমবার রাতে ঢাকা যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি।

নবীনগরে ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরে চাঁদা বাজির মামলার পালাতক আসামি উপজেলার শ্যামগ্রাম ইউয়িনের বর্তমান চেয়ারম্যান (বিএনপি সমর্থিত) আমীর হোসেন বাবুলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাকে গতকাল মঙ্গলবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। গত সোমবার রাতে ঢাকার বাড্ডা থানার পুলিশের সহায়তায় থানার ময়নারবাগ বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

চট্টগ্রামে ট্রেনের ধাক্কায় রেল কর্মচারীর মৃত্যু

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম শহরে একটি রেল ক্রসিংয়ে ট্রেনের ধাক্কায় এক রেল কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে। চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানার ওসি এসএম শহিদুল ইসলাম জানান, সোমবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে কদমতলী রেল ক্রসিংয়ের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

আবদুল মালেক নামের ৫৫ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির বাড়ি ফেনী সদরে। তিনি ট্রেনের অ্যাটেনডেন্ট ছিলেন বলে জানান ওসি। তিনি বলেন, মালেক রেললাইনের পাশ দিয়ে হেঁটে চট্টগ্রাম স্টেশনে আসছিলেন। ওই সময় চাঁদপুর থেকে আসা মেঘনা এক্সপ্রেসও ওই লাইনে আসছিল। ওই সময় ট্রেনের ধাক্কায় আবদুল মালেক ঘটনাস্থলেই মারা যান বলে জানান ওসি। তবে ঠিক কীভাবে, কেন এই দুর্ঘটনা ঘটল- সে বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেননি রেল পুলিশের এই কর্মকর্তা। 

চট্টগ্রামে তিন জঙ্গি সংগঠনের ১৭ সদস্য আটক

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম মহানগরে গোপন বৈঠক করার সময় নিষিদ্ধঘোষিত তিনটি জঙ্গি সংগঠনের ১৭ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার ভোর থেকে রোববার ভোর পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

নগরীর ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মহিউদ্দিন সেলিম জানান, এক গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার ভোরে ডবলমুরিং থানার ঈদগাহ কাঁচারাস্তার মাথায় এক লন্ড্রি দোকানের পেছনে বৈঠকরত অবস্থায় তিনজনকে আটক করা হয়। এরপর রোববার ভোর পর্যন্ত মহানগরের বিভিন্ন এলাকা থেকে নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হিজবুত তাহরির, হিজবুত তাওহীদ ও আল হাদিসের মোট ১৭ সদস্যকে আটক করা হয়। তিনি বলেন, আটকেরা হিজবুত তাহরির ও আল হাদিসের মতাদর্শী। এদের নাশকতার পরিকল্পনা ছিলো- এমন খবর পেয়ে আমরা অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করেছি। অভিযানে বিপুল পরিমাণ জিহাদি বই ও লিফলেট জব্দ করা হয়েছে বলেও জানান ওসি
মহিউদ্দিন।

ফেনীতে গ্রাম পুলিশের সদস্যকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার

ফেনীর সদর উপজেলায় গ্রাম পুলিশের এক নারী সদস্যকে ধর্ষণের মামলায় এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ফেনী মডেল থানার ওসি রাশেদ খান চৌধুরী জানান, বুধবার বিকালে তাকে ফেনী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তার শহীদুল ইসলাম সবুজ (৩০) সদরের শর্শদী ইউনিয়নের মোহাম্মদ আলী গ্রামের বাজারে একটি কাপড়ের দোকান চালান। বুধবার ভোরে ওই এলাকার বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বুধবার দুপুরে ফেনী জেলা সদর হাসাপাতালে ওই নারীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে বলে জানান ওসি। মামলার বরাত দিয়ে ওসি রাশেদ খান চৌধুরী জানান, গত মঙ্গলবার ওই নারী মোহাম্মদ আলী বাজারে যান। সন্ধ্যার দিকে বৃষ্টি শুরু হলে তিনি সবুজের দোকানে গিয়ে দাঁড়ান।

“ওই সময় ঘটনাস্থলে কোনো লোকজন না থাকায় সবুজ দোকানের দরজা বন্ধ করে ওই নারীকে ধর্ষণ করেন।”

রাতেই ওই নারী ফেনী মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন বলে ওসি জানান।

 

সোনাগাজীতে ৩০ হাজার টাকার জন্য যুবক খুন

ফেনী প্রতিনিধি : ফেনীর সোনাগাজীতে মাত্র ৩০ হাজার টাকা পাওনা আদায়ের ঘটনায় শাহাদাত হোসেন ফারুক (২৫) নামে এক যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে। এসময় আহত হয়েছেন নিহত ফারুকের মা আয়েশা বেগম (৪৭)। মঙ্গলবার সকালে সোনাগাজীর কাজির বাজার এলাকার আওরার খিল গ্রামের করিমুল হকের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের মামা জাহিদ হোসেন  জানান, বিদেশে যাওয়ার ভিসা সংক্রান্ত ব্যাপারে ফারুকের পরিবার একই এলাকার ইউসুফদের কাছে ৩০ হাজার টাকা পাওনা ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে এ টাকা চাওয়া হলে তা দিতে অস্বীকৃতি জানায় ইউসুফরা। এরই জের ধরে সকাল ১০টার দিকে ইউসুফের ছেলে মিজানের কাছে টাকা চাইলে মিজান ফারুকের মা আয়েশা আক্তারের ওপর চড়াও হয়। মাকে বাঁচাতে ফারুক এগিয়ে গেলে মিজান তাকে ছুরিকাঘাত করে। এতে গুরুতর আহত হয় ফারুক। কিছুক্ষণ পর হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। সোনাগাজী মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি) হুমায়ুন কবির  একজন নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছেন।

চট্টগ্রামে স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় শুল্ক কর্মকর্তার আত্মসমর্পণ

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রামে স্বর্ণ চোরাচালান মামলার আসামি এক শুল্ক কর্মকর্তা আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। আনিসুর রহমান নামের ওই সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা  মঙ্গলবার মহানগর দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে জামিন চাইলে বিচারক মো. শাহে নূর তা নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এ মামলায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী কাজী সানোয়ার আহমেদ লাভলু  জানান, চার বছর আগের এ মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি আনিসুর। মামলার অপর ছয় আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে বলে জানান দুদকের আইনজীবী জানান। এই ছয়জন হলেন- চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ব্যবস্থাপকের সাবেক ব্যক্তিগত সহকারী মোমেন মোকশেদ, আনসারের সহকারী প্লাটুন কমা-ার ইলিয়াস উদ্দিন, বিমানের ট্রাফিক হেলপার কে এম নুরুদ্দিন, আনসার সদস্য মাহফুজার রহমান ও শাহিন মিয়া এবং দুবাই প্রবাসী আলাউদ্দিন চৌধুরী। আগামী ১৩ মার্চ এ মামলার শুনানির পরবর্তী তারিখ রেখেছে আদালত।

চাঁদপুরে ১৩ মাদক মামলার আসামি গ্রেফতার

চাঁদপুর প্রতিনিধি : চাঁদপুরে এক ডজনের বেশি মাদক মামলার এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। চাঁদপুর সদর থানার ওসি মো.ওয়ালী উল্লাহ ওলি জানান, শহরের বাসস্ট্যান্ড রোডের একটি হোটেল থেকে সোমবার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মো.জলিল ওরফে ভাগিনা জলিল (৩৩) কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানার টেক বালিয়া এলাকার আলী হোসেনের ছেলে।

ওসি ওয়ালী উল্লাহ বলেন, জলিল এলাকায় মাদক সম্রাট ভাগিনা নামে পরিচিত। কুমিল্লার বিভিন্ন সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে আনা মাদক সারাদেশে পাচার করতো সে। তিনি বলেন, মাদক বিক্রির টাকা নিতে জলিল সোমবার রাতে শহরের তাজমহল একটি আবাসক হোটেলের তৃতীয় তলার ৪১৬ নম্বর কক্ষে অবস্থান করে। গোপন সংবাদ পেয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে সেখান থেকে আটক করে। জলিলের বিরুদ্ধে সদর দক্ষিণ থানা ও কোতোয়ালি থানায় ১৩টি মাদক মামলা রয়েছে বলে ওসি জানান।



Go Top