রাত ৯:৪৭, বৃহস্পতিবার, ২৯শে জুন, ২০১৭ ইং
/ সাহিত্য / স্বাধীনতা দিবসে
স্বাধীনতা দিবসে
মার্চ ২৬, ২০১৭

মোনোয়ার হোসেন:দীপুর কী যে ভাল লাগছে ! স্কুল জুড়ে আজ সাজসাজ রব । সবাই নতুন, ধোপদুরস্ত কাপড় পরে ঘুরছেন। স্কুলের মাঠ পরিস্কার করে ঝকঝকে করা হয়েছে ।  লাল, নীল, সবুজ, হলুদ, সাদা রঙের কাগজ কেটে সুন্দর করে নকশা তৈরী করে আঠা লাগিয়ে দড়িতে বেঁধে টাঙ্গিয়ে দেওয়া হচ্ছে। দেয়ালে, দরজার সামনে সুন্দর সুন্দর আলপনা আঁকা হচ্ছে । সুমি আপু, নীলা আপুসহ ক্লাস ফাইভের ছেলে-মেয়েরা ব্যস্ত হয়ে এসব করছে । মৌ ম্যাডাম ঘুরে ঘুরে পুরো বিষয়টা তদারকি করছেন । দীপুর বয়স ছয় বছর । বাড়ির পাশে স্কুল হওয়ায় সকালে ঘুম থেকে উঠে সেও সুমি আপুর সাথে স্কুলে এসেছে । তার মতো আরো অনেকে ভাইয়া , আপুর হাত ধরে স্কুলে এসেছে । সমবয়সি  ছেলেমেয়েদের হাত ধরে দৌড়ে দৌড়ে  ঘুরে ঘুরে এসব দেখছে দীপু ।
দীপুর কী যে ভাল লাগছে !
ইশ ! যদি আমিও কাজ করতে পারতাম !
ঠিক তখনই ডাক পড়ে তার ।
এই দীপু ?
সঙ্গে সঙ্গে দৌড়ে আসে দীপু। জ্বি-সুমিপু ।
ঐ রঙের ডিব্বাটা একটু দে তো আমাকে।
বীরপুরুষের মতো রঙের ডিব্বাটা সুমি আপুকে এগিয়ে দেয় সে ।
আপু ?
বল ।
আজ কী স্কুলের বিয়ে ?
কয়েকদিন আগে মৌরি আপুর বিয়েতে গিয়েছিল দীপু। মৌরি আপুর বিয়েতে এরকম রঙ বেরঙের কাগজ দিয়ে বাড়ি সাজানো হয়েছিল । সে থেকে দীপু জানে বিয়ের বাড়ি রঙিন কাগজ দিয়ে সাজাতে হয় ।
দীপুর কথা শুনে হেসে উঠে সুুমি । কেনো রে ?
মৌরি আপুর বিয়ে বাড়ির মতো স্কুল সাজাচ্ছ যে!
আরে বোকা, স্কুলের আবার কখনো বিয়ে হয় নাকি ?
তাহলে স্কুল সাজাচ্ছো কেনো ?
আজ ২৬ মার্চ। আমাদের স্বাধীনতা দিবস । বুঝলে ?
কি হয় দিবসে ?
একটা শয়তান দেশ ছিল । নাম পাকিস্তান । ১৯৭১ সালে তারা আমাদের উপর আকস্মিক আক্রমন করে । আমরা তাদের সাথে যুদ্ধ করি । এইদিন থেকেই যুদ্ধের শুরু হয়েছিল। তাই আনন্দে প্রতি বছর এই দিন আমরা স্বাধীনতা দিবস পালন করি । এই দিবসে আনন্দ করি । স্কুলে স্কুলে খেলাধুলা করি । আমরাও আজ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আমাদের স্কুলে খেলাধুলা করব । তাই স্কুল সাজাচ্ছি।
তাহলে আমিও ক্রিকেট খেলব ।
দীপুর কথা শুনে আবারো হেসে উঠে সুমি। হাসতে হাসতে বলল, আচ্ছা ,আচ্ছা, খেলিস ।
সুমির কথার অর্থ দীপু কী বুঝল কে জানে !
মাথা নেড়ে বলল, আইচ্ছা ।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top