বিকাল ৫:২১, সোমবার, ২৯শে মে, ২০১৭ ইং
/ তথ্যপ্রযুক্তি / স্টার্টআপদের এগিয়ে নিতে সাহস দিতে চাই: পলক
স্টার্টআপদের এগিয়ে নিতে সাহস দিতে চাই: পলক
স্টার্টআপদের এগিয়ে নিতে সাহস দিতে চাই: পলক
এপ্রিল ১৮, ২০১৭

প্রযুক্তি খাতে তরুণ উদ্ভাবকদের সৃজনশীলতাকে উৎসাহিত করতে অর্থায়নসহ বিভিন্ন সহযোগিতার ক্ষেত্র তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।  মঙ্গলবার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের বিসিসি অডিটোরিয়ামে ‘ডিজিটাল অপরচুনিটি ফর স্টাটআপ ইন আইসিটি ডিভিশন’ শীর্ষক এক কর্মশালায় বক্তব্য দিচ্ছিলেন প্রতিমন্ত্রী।

স্টার্টআপদের সব উদ্যোগে সাহস ও সুযোগ দিতে নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে পলক বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে স্টার্টআপদের সব উদ্যোগই সফল হবে তা নয়, ব্যর্থ হওয়ার পর যে সাহসটা দেওয়া দরকার সেই সাহসটাই দিতে চাই, ফেইল করলে সব শেষ হয় না। একটি উদ্যোগ ব্যর্থ হলে হতাশ হওয়া যাবে না। এমন কোনো উদ্যোগ যা বিশ্বমানের, যা এখন নাই এমন কিছু সল্যুসন নিয়ে আসেন। সম্পূর্ণ ফান্ডিং যত রকমের সহযোগিতা লাগে আমরা দেব। ই-ইমিগ্রেশন, মিউনিসিপালিটি সিটিজেন সার্ভিস সিস্টেম, ই-কাস্টমস সার্ভিস সিঙ্গেল উইন্ডো ইত্যাদি এখন হাই প্রয়োরিটি। এগুলোর সল্যুসন নিয়ে আসেন, এগুলো আমাদের দরকার, আমাদের ফান্ড আছে, প্রজেক্ট আছে। মোবাইল গেইম ও আপ্লিকেশন তৈরিতে সহযোগিতা করা হচ্ছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ১৬ হাজারের বেশি তরুণ-তরুণীকে বিনামূল্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এক হাজার ৫০টি মোবাইল গেইম ও অ্যাপ তৈরি করব, যারা অ্যাপ বা গেইম ডেভলপার যারা তাদের আইডিয়া প্রোডাক্ট হিসেবে নিয়ে আসতে চান, তাদের ফান্ড দিয়ে সহযোগিতা করা হবে। বিভাগের ইনোভেশন ফান্ড থেকে স্টার্টআপদের ন্যূনতম ৩০ লাখ এবং বিশেষ অনুদান হিসেবে ৫০ লাখ টাকা দেওয়ার সুযোগ রয়েছে জানিয়ে পলক বলেন, দেশের ২৮টি হাইটেক পার্কে স্টার্টআপদের জন্য বিনামূল্য স্পেস দেওয়া হবে। অনুষ্ঠানে মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশ এর প্রধান নির্বাহী কামাল কাদির টেকনোলজ ইনোভেশনে দেশিয় স্টার্টআপদের যে সব চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয় এবং সমাধানের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরে বলেন, স্টার্টআপদের সব জায়গায় সুযোগ রয়েছে। তবে মনে রাখতে হবে সব আইডিয়া কাজ করে না। এখানে পুঁজির কোনো অভাব নেই, অভাব রয়েছে আস্থার। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন দেশিয় স্টার্টআপ উন্নয়নে সহযোগীতাকারী শাহানা শারমিন ও সাইফ কামাল। কর্মশালায় প্রায় ১২০টি স্টার্টআপ ও উদ্যোক্তা অংশ নেন।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top