বিকাল ৫:০৯, রবিবার, ২৬শে মার্চ, ২০১৭ ইং
/ শিরোনাম / সুজানগরে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত
সুজানগরে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত
জানুয়ারি ৬, ২০১৭

সুজানগর (পাবনা) প্রতিনিধি : জমি সংক্রান্ত জটিলতার কারণে পাবনার সুজানগরের দুরিয়া ধুলদী বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে। এতে অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দুরিয়া ধুলদী গ্রামে কোন প্রাথমিক বিদ্যালয় ছিল না। এ গ্রামের কোমলমতি ছেলে-মেয়েরা দূরবর্তী কামালপুর, নুরুদ্দিনপুর ও সৈয়দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে লেখাপড়া করতো। তবে শিশু ছেলে-মেয়েরা শুষ্ক মৌসুমে ওই সকল বিদ্যালয়ে যেতে পারলেও বর্ষা মৌসুমে যেতে পারে না। এসময় তাদের লেখা-পড়া চরমভাবে ব্যাহত হয়। এমতাবস্থায় এলাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মঞ্জু শেখ ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে বিদ্যালয়বিহীন এ গ্রামে ওই বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠা লগ্নে মঞ্জু শেখসহ এলাকার মাহতাব উদ্দিন, তাহের বিশ্বাস, গনি শেখ, আশরাফ আলী ও গনি বিশ্বাস বিদ্যালয়ের নামে মৌখিকভাবে ৩৩ শতাংশ জমি দেন। দীর্ঘ দুই বছর বিদ্যালয়ের কার্যক্রম ভালভাবেই চলে আসছিল। ইতিমধ্যে বিদ্যালয়টি থেকে ২০ জন শিক্ষার্থী প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়েছে। তা ছাড়া বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে প্রথম শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত প্রায় ৪শ শিক্ষার্থী রয়েছে।


জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছে ৪ জন শিক্ষক। কিন্তু সম্প্রতি মাহতাব উদ্দিন মৌখিকভাবে দেওয়া তার ১৩ শতাংশ জমি দিতে অনীহা প্রকাশ করেন। শুধু তাই-না ইতিমধ্যে তিনি তার ওই জমি দখলে নিয়ে ধানের বীজতলা বপন করার পাশাপাশি কিছু অংশ আবাদের জন্য চাষ করেছেন। এলাকাবাসী তাকে বৃহত্তর স্বার্থে জমির দখল ছেড়ে দিতে অনুরোধ জানালেও তিনি তাদের কথা শুনছেন না। এ পরিস্থিতিতে বিদ্যালয়টির ভবিষ্যৎ নিয়ে বেশ অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। এতে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা তাদের সন্তানের লেখা-পড়া নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে সত্য হলে সমস্যা সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top