সকাল ৬:১৭, রবিবার, ২৫শে জুন, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তাজাতিক / সিরিয়ার মসজিদে বিমান হামলায় নিহত ৪২
সিরিয়ার মসজিদে বিমান হামলায় নিহত ৪২
মার্চ ১৭, ২০১৭

করতোয়া ডেস্ক: নামাজ আদায়কালে সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত একটি গ্রাম আল-জিনা এলাকায় মসজিদে বিমান হামলা চালানো হয়েছে। নাগরিকের নামাজ আদায় করার সময় মুসল্লিদের ওপর এই হামলার ঘটনায় অন্তত ৪২জন নিহত হয়েছেন। এছাড়াও আহত হয়েছেন আরো অনেকে। তবে ঠিক কারা এই হামালা চালিয়েছে তা এখনো নিশ্চিত নয়। স্থানীয়দের অভিযোগ এ হামলা করেছে মার্কিন সামরিক বাহিনী। কিন্তু, মার্কিন সৈন্যরা সে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, এটা আইএসের কাজ। সিরিয়ার বেসামারিক প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার কর্মীরা, যারা সাদা হেলমেটধারী হিসেবে অধিক পরিচিত তারা জোর দিয়ে দাবি করছে, অবশ্যই এ হামলা মার্কিন সৈন্যরা চালিয়েছে। আইসএস দমনের নাম করে তারা নিজেরাই আসলে ধ্বংসযজ্ঞ চালাচ্ছে।

 প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সিরিয়ায় মার্কিন সৈন্যদের প্রবেশকে অবৈধ-আগ্রাসন বলে অভিযুক্ত করেছেন। সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন, মার্কিন সৈন্যরা তার অনুমতি না নিয়েই তার দেশে ঢুকে পড়েছে। এটাকে তিনি অবৈধ অনুপ্রবেশ আখ্যা দিয়ে বলেন, সিরিয়ায় কোনো বিদেশী সৈন্য ঢুকতে হলে অবশ্যই তার অনুমতি নিয়ে ঢুকতে হবে। অন্যথায় তিনি তাদের দখলদারী বলেই চিহ্নিত করবেন।   দামেস্কের আদালত প্রাঙ্গণে আত্মঘাতী হামলায় ৩১ জন নিহত হওয়ার একদিন পরই এ হামলা হলো। বৃহস্পতিবার ১৬ মার্চ এই হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানেিয়ছে, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মানবাধিকার পর্যবেক্ষক সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস এবং অন্য মানবাধিকারকর্মীদের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো।

 তবে ইদলিব প্রেস সেন্টারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, হামলায় অন্তত ৫০ জন নিহত হয়েছে। সিরিয়ান অবজারভেটরি জানায়, বৃহস্পতিবার আলেপ্পোর আতারিবের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় আল-জিনা এলাকায় ওই বিমান হামলা হয়। সেসময় ৪২ জন নিহত হওয়ার পাশাপাশি অনেকে আহত হয়। স্থানীয় মানবাধিকারকর্মীদের দাবি, বিমান হামলা চলার সময় হাসপাতালের ভেতর ৩শ মানুষ ছিলেন। নিহতদের বেশিরভাগই বেসামরিক নাগরিক। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। উল্লেখ্য, সিরিয়ায় ৬ বছর ধরে গৃহযুদ্ধ চলমান আছে। এ সময়ের মধ্যে ৩ লাখ ২০ হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। ঘরহারা হয়েছে ১ কোটি ১০ লাখ মানুষ।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top