বিকাল ৪:০১, শনিবার, ২৭শে মে, ২০১৭ ইং
/ Top News / সংশোধন না হলে দল থেকে বহিষ্কার কাদের
সংশোধন না হলে দল থেকে বহিষ্কার কাদের
জানুয়ারি ৬, ২০১৭


স্টাফ রিপোর্টার: দলীয় নেতা-কর্মীদের এখনই সংশোধন হতে বললেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক ও পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সংশোধিত না হলে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে বলেও সতর্ক করেছেন তিনি। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে দলীয় সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সভা শেষে সাংবাদিকদের কাছে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি। ১০ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের প্রস্তুতি নিতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাথে যৌথ সভা করে আওয়ামী লীগ।


ওবায়দুল কাদের বলেন, যারা অপকর্ম করে তাদের সংশোধন হতে হবে। যারা সংশোধন হবে না তাদের দল থেকে বের করে দিতে হবে। প্রথমে সংশোধন করবো; যারা সংশোধন হবে না তাদের দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। দেশে ‘সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদী গোষ্ঠীর’ বিপদ এখনো কাটেনি মন্তব্য করে নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন তিনি। আশকোনার জঙ্গি আস্তানায় ‘সাহসী অভিযান সফলভাবে’ শেষ হয়েছে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ নেতা কাদের বলেন, এ রকম আরও কত আশকোনা আছে এটা এই মুহূর্তে বলা যায় না। কারণ, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ এখন একটা গ্লোবাল ফেনোমেনন।

তারা কখন কোথায় হানা দেবে, তাদের ডালপালা আজকে বিস্তারিত হয়ে আছে। আমাদের সতর্ক থাকতে হবে, সাবধান থাকতে হবে। আত্মসন্তুষ্ট হওয়ার কোনো কারণ নেই। বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটির ঘটনাকে ‘শেখ হাসিনাকে হত্যার ২০তম চেষ্টা’ হিসেবে বর্ণনা করে কাদের বলেন, একটা মহল বঙ্গবন্ধুর মতো শেখ হাসিনাকেও সরিয়ে দিতে চেষ্টা করছে। তিনি বলেন, আমাদের যারা প্রতিপ, তারা এতদিনে বুঝতে পেরেছে নির্বাচনের মাধ্যমে শেখ হাসিনাকে পরাজিত করা, হারিয়ে দেওয়া সম্ভব নয়।

 বঙ্গবন্ধুকে কেন হত্যা করা হয়েছে? ওরা বুঝতে পেরেছিল ভোটে তাকে হারানো যাবে না; পরে ষড়যন্ত্র করে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে নৃসংশভাবে হত্যা করা হয়েছে। ওবায়দুল কাদের বলেন, আজকে আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনার যে জনপ্রিয়তা, দূরদর্শী নেতৃত্বের কারণে যতই তিনি জনপ্রিয় হয়ে উঠছেন, ততই তার শত্রু বাড়ছে; জীবন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে।

 শেখ হাসিনাকে ‘উন্নয়নের রোল মডেল’ অ্যাখ্যা দিয়ে ‘পার্টির চেয়েও তার উচ্চতা অনেক বেশি’ বলে মন্তব্য করেন তিনি। ৫ জানুয়ারিকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ হিসেবে পালন করায় বিএনপির সমালোচনা করে কাদের বলেন, মুখে গণতন্ত্রের কথা বললেও বিএনপির কাজ হচ্ছে ষড়যন্ত্র করা। গণতন্ত্র তারা চায় না, তারা চায় ষড়যন্ত্র। তারা ষড়যন্ত্রমূলকভাবে শেখ হাসিনাকে মতা থেকে সরাতে চায়।


১০ জানুয়ারি স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে পুরো ঢাকার রাজপথ সোহরাওর্দীর মোহনায় মিশে যাবে এটা যেমন সত্যি তেমনি শৃঙ্খলার বিষয়টাও স্মরণকালের স্মরণীয় হবে বলে আশ্বাস দেন কাদের। স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাউছারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম। উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার  বিপ্লব বড়ুয়া। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথ।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top