রাত ১১:৫৬, শুক্রবার, ২৮শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / শিশু ভিক্ষাবৃত্তি লজ্জাস্কর
শিশু ভিক্ষাবৃত্তি লজ্জাস্কর
এপ্রিল ২১, ২০১৭

শিশুরা সর্বদাই সুন্দর। আজকের শিশুরা ভবিষ্যৎ জাতির উন্নয়নের চাবিকাঠি। এসব শিশুর মধ্যে কিছু শিশু রয়েছে যারা সত্যিই হতভাগ্য। তাদের জন্ম যেন আজন্ম পাপ। এসব শিশু সমাজের অনিয়ম, অবহেলা, বঞ্চনা লাঞ্ছনা, ঘৃণা, নির্যাতন ও বৈষম্যের শিকার, যারা দারিদ্রের জাঁতাকলে পিষ্ট হয়ে নষ্ট করছে নিজ এবং দেশের ভবিষ্যৎ। তারা বাবা-মা পরিবার হারা পথ শিশু। এদের এ পরিস্থিতির জন্য একক কোনো কারণ নেই, তবে একাধিক কারণ রয়েছে। এসব পথ শিশু বেঁচে থাকার তাগিদে বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করতে বাধ্য হয়।


 আর এতটাই হতভাগ্য যে সামান্য নিরাপত্তা, স্নেহ, ভালোবাসা দিয়ে মুড়িয়ে রাখার কেউ নেই তাদের পাশে। তারা সবাই শিশু। এটা সত্য, তাদের জীবন উপভোগ করতে দেওয়া আমাদের সবার কর্তব্য। আমাদের পথ শিশুরা তাদের সোনালি ভবিষ্যৎ বিলিয়ে দিচ্ছে ঝুঁকিপূর্ণ কাজে, অনেকে নিচ্ছে শিশু বয়সে ভিক্ষাবৃত্তি। কেউ ইচ্ছা করে ভিক্ষা করে না, নিরুপায় হয়েই করে।


 আবার বিভিন্ন পত্রিকার মাধ্যমে জানা যায় এই অসহায় এতিম শিশুদের ভিক্ষাবৃত্তিতে আবার করুণ কাহিনী যা জাতিকে কাঁদায়। নিষ্ঠুর মানুষ রূপী মানুষগুলো এসব পথ শিশুরা দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে ভিক্ষা করতে বাধ্য করছে, থাকা খাওয়া দোহাই দিয়ে।

 

একটি জরিপে দেখা যায় আমাদের দেশে কর্মজীবী শিশু রয়েছে এর ৫৫ শতাংশই শহরে বাস করে। আবার এই ৫৫ শতাংশ শিশুর মধ্যে ৯ শতাংশ ভিক্ষাবৃত্তি জড়িত। জরিপ পরিসংখ্যান যাই হোক, শিশুরা ভিক্ষা করবে এটা আমাদের কারো কাম্য নয়। তাছাড়া শিশু ভিক্ষা বৃত্তি দেশ ও জাতির জন্য লজ্জার।


 শিশুদের ভিক্ষুক বানানোর কারিগরদের আইনের আওতায় আনতে হবে। কঠিন শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। শিশু ভিক্ষা বৃত্তির স্থায়ী একটা সমাধানও চাই। এ জন্য দরকার সরকার ও বিরোধী দল এবং সরকারের দৃঢ় রাজনৈতিক সদিচ্ছা এবং স্বল্প মেয়াদি ও দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top