দুপুর ১:৪৪, বৃহস্পতিবার, ১৭ই আগস্ট, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / শিশুশ্রম বন্ধে আইনি পদক্ষেপ জরুরি
শিশুশ্রম বন্ধে আইনি পদক্ষেপ জরুরি
মার্চ ১২, ২০১৭

আমাদের দেশে শিশুদের বৃৃহত্তম অংশ ঝুঁকিপূর্ণ কাজে নিয়োজিত। অল্প বয়স থেকেই অভাব অনটনের তাগিদে বাধ্য হয়ে এসব ঝুঁকিপূর্ণ কাজে যোগ দিতে হচ্ছে তাদের। এসব শিশুকে সুকৌশলে স্কুলমুখী করা তো দূরের কথা সামাজিক বৈষম্যের কারণে দারিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর শিশুরা তাদের জীবনের তাগিদে শ্রম বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করছে।

আমাদের দেশে শহর-শহরতলীতে বসবাসকারী বস্তিবাসী সহ রেল স্টেশন, টার্মিনাল, লঞ্চঘাট, হাটবাজার, অস্থায়ী বা স্থায়ী ভাবে বসবাসকারী পরিবারের অধিকাংশ শিশু অভিভাবকদের সঙ্গে কাজে সহযোগিতা ছাড়াও রিকসা গ্যারেজ, গাড়ি গ্যারেজ, বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে এমনকি বালু পাথর, হোটেল, রেস্টুরেন্টে গ্লøাস বয় হিসেবে শ্রম দিয়ে যাচ্ছে।

 এসব ছাড়াও কৃষি ক্ষেত্রেও শিশুরা অবাধে শ্রম বিক্রি করলেও অল্প মজুরিতে এসব শিশুরা রাতদিন খেটে যাচ্ছে। তাদের ভবিষ্যৎ বলতে কিছুই নেই। এসব শিশু সামাজিকভাবে অবহেলিত। শিশু হিসেবে যে অধিকার পাওয়ার কথা তা থেকে বঞ্চিত। শিশু শ্রম বন্ধে আইন থাকলেও দেশে প্রায় ৫০ লাখ শিশু শ্রমে জড়িয়ে আছে। তারা হারিয়ে ফেলেছে তাদের দুরন্ত শৈশব। অন্ধকারে তলিয়ে যাচ্ছে তাদের সোনালী ভবিষ্যৎ।

 পরিসংখ্যান ব্যুরো এবং আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার এক জরিপ অনুযায়ী কর্মক্ষেত্রে ঝুঁকি রয়েছে মোট ৪৫ ধরনের কাজে। এর মধ্যে ৪১ ধরনের ঝুঁকিপূর্ণ কাজেই শিশুরা অংশ নিচ্ছে। সরকারের পরিসংখ্যান বিভাগের এক হিসাব মতে দেশের মোট শ্রমিকের ১২ শতাংশই শিশু।

শিশুরা এসব কাজে নিয়োজিত থেকে অনেক সময়ই শুধু জীবনধারনের খোরাকি পেয়ে থাকে যা দায়দায়িত্ব বলেও বিবেচিত হয়। গত পাঁচ বছরে দেশে শিশু শ্রমিকের সংখ্যা বেড়েছে ১০ লাখেরও বেশি। শহরাঞ্চলের তুলনায় গ্রামাঞ্চলে শিশু শ্রমের প্রবণতা অনেক বেশি। শিশু শ্রমিকের মধ্যে ১৫ লাখ শহরে এবং ৩৫ লাখ গ্রামে কাজ করে।  

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top