সকাল ৮:৩৭, শনিবার, ২২শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / শক্তিশালী করা হচ্ছে ট্যুরিস্ট পুলিশ
শক্তিশালী করা হচ্ছে ট্যুরিস্ট পুলিশ
ডিসেম্বর ২৮, ২০১৬

 


নানা অস্থিতিশীলতায় মন্দার মুখে পড়েছে দেশের সম্ভাবনাময় পর্যটন খাত। বিশেষ করে নিরাপত্তা ইস্যু কেন্দ্র করে বিদেশী পর্যটকদের আগমন কমেছে অনেক। এ অবস্থায় সম্ভাবনাময় খাতটির মন্দা কাটাতে শক্তিশালী করা হচ্ছে টুরিস্ট পুলিশকে।

 এ জন্য জনবল দ্বিগুণ করার পাশাপাশি পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে নতুন করে পাঁচটি অঞ্চলে কার্যক্রম শুরুর। বাংলাদেশ টুরিস্ট বোর্ডের (বিটিবি) সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ২০১১ ও ২০১২ এ দুই বছরেই দেশে বেড়াতে আসা বিদেশী পর্যটকদের সংখ্যা ছিল ছয় লাখের কাছাকাছি। সেখানে ২০১৩ সালে এ সংখ্যা দাঁড়ায় মাত্র ২৬ হাজার ৯১২ জন। পরবর্তী দুই বছরে অব্যাহত থাকে খাতটির মন্দাভাব।

 এ সময় পর্যটকের সংখ্যা আরো কমে যায়, যার প্রকৃত সংখ্যা এখনো প্রকাশ করেনি বিটিভি। দেশে পর্যটন খাতে দুরবস্থা চলছে পর পর তিন বছর ধরে। নিরাপত্তাহীনতায় বিদেশী পর্যটক না আসায় ব্যবসা ছেড়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করছেন অনেকেই। বর্তমানে দেশী বিদেশী পর্যটকদের নিরাপত্তা ও পর্যটন খাতের সুরক্ষায় নতুন নতুন উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। খাতটির মন্দা কাটাতে শক্তিশালী করা হচ্ছে টুরিস্ট পুলিশকে। ট্যুরিস্ট পুলিশ সদর দপ্তর সূত্র জানায় রাজধানীসহ সারা দেশে পর্যটন কেন্দ্র রয়েছে সাত শতাধিক। পাশাপাশি চালু  করা হচ্ছে নতুন নতুন পর্যটন কেন্দ্র।

 এসব পর্যটন কেন্দ্রে প্রতি বছর দেশী বিদেশী প্রায় ৬০ লাখ পর্যটক ঘুরতে আসেন। তাদের নিরাপত্তা ও পর্যটন খাতের সুরক্ষায় ২০১৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ট্যুরিস্ট পুলিশের কার্যক্রম শুরু হয়। পুলিশের এ ইউনিট কাজ করে পর্যটন করপোরেশনের সঙ্গে সমন্বয় রেখে। ৬৯৯ সদস্যের সমন্বয়ে কার্যক্রম শুরু হয় ট্যুরিস্ট পুলিশের। বিশাল পর্যটন এলাকায় নিরাপত্তায় মাত্র ২৪টি স্থল ও জলজ যানবাহন এবং ২১টি মোটর সাইকেল রয়েছে ট্যুরিস্ট পুলিশের। সারা দেশে সাত শতাধিক পর্যটন স্পট রয়েছে। 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top