সকাল ৭:৫৯, মঙ্গলবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / রাষ্ট্রপতির সংলাপ
রাষ্ট্রপতির সংলাপ
ডিসেম্বর ২৫, ২০১৬

 

 


গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মধ্যে সংলাপ একটি চলমান বিষয়। দেশের যে কোনো সমস্যা নিয়ে সরকার দেশের রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে মত বিনিময় করবে এমনটিই গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে কাঙ্খিত। আগামী ফেব্রুয়ারিতে শেষ হয়ে যাচ্ছে বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ। নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ একটি সার্চ কমিটি নিয়োগ দেবেন।

 রাষ্ট্রপতি ভালো উদ্যোগ নিয়েছেন যা প্রশংসিত। তিনি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ শুরু করেছেন। প্রথম দিনেই গত রোববার তিনি আলোচনা করেছেন বিএনপির সঙ্গে। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে ১১ সদস্যের প্রতিনিধি দলও বঙ্গভবনে গিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আলোচনায় মিলিত হয় এবং নির্বাচন কমিশন ও সার্চ কমিটি প্রসঙ্গে তাদের প্রস্তাব ও মতামত তুলে ধরে। অন্যান্য রাজনৈতিক দলও রাষ্ট্রপতির সংলাপে অংশ নেবেন এবং তাদের মতামত দেবেন। রাষ্ট্রপতি এসব থেকে একটা ভালো উদ্যোগ গ্রহণ করবেন যা গণতান্ত্রিক চর্চায় সহায়ক ভূমিকা রাখে।

 সুস্থ রাজনৈতিক সংস্কৃতি সুস্থ গণতন্ত্রের পূর্ব শর্ত। রাজনৈতিক অস্থিরতা দেশের উন্নয়নকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। আমরা চাই দেশে গণতান্ত্রিক সহিষ্ণুতা চালু হোক। রাজনীতিকে রাজনীতির মতো চলতে দিতে হবে। সব রাজনৈতিক দলের স্বাভাবিক কর্মকান্ড পরিচালনার নিশ্চয়তা বিধান করা রাষ্ট্রের কর্তব্য। প্রত্যেকই যদি নির্বিঘেœ নিজেদের স্বাভাবিক কর্মকান্ড বা ভূমিকা রাখে তাহলে তা সুস্থ রাজনৈতিক সংস্কৃতি নির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। আমরা চাই, বিরোধী দলকে আস্থায় নিয়ে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে আরো শক্তিশালী হোক। রাষ্ট্রপতির এ মহৎ উদ্যোগ অবদান রাখলে গণতন্ত্র আরো কার্যকর হবে। আমরা সবাইকে মনে রাখতে বলব যে, এ দেশ আমাদের সবার এবং এখানে সমৃদ্ধি ও স্থিতিশীলতাই সবার একমাত্র লক্ষ্য হতে হবে।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top