রাত ২:৩৪, শুক্রবার, ৩০শে মার্চ, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তাজাতিক / রাশিয়া ও চীনের হুমকিতে গর্জে উঠলেন ট্রাম্প
রাশিয়া ও চীনের হুমকিতে গর্জে উঠলেন ট্রাম্প
জানুয়ারি ৯, ২০১৭

করতোয়া ডেস্ক: চীন ও রাশিয়ার সমর প্রস্তুতির মুখে যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার দেশের সবচেয়ে বড় নৌবহর মোতায়েনের নির্দেশ দিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের ৩৫৫-রণতরী বহর, বিভিন্ন যুদ্ধজাহাজ ও সাবমেরিন ওই বহরে থাকছে। সারা বিশ্ব জুড়ে উত্তেজনার প্রেক্ষিতেই ট্রাম্প এধরনের রণহুংকার দিচ্ছেন। যুক্তরাষ্ট্র ইতিমধ্যে তার নৌ প্রতিরক্ষাকে জোরদার করতে শুরু করেছে। ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে যুদ্ধের শীতল বার্তা হিসেবে, ‘ আপনি একটি যুদ্ধ চাইলে তা পাবেন’ এমন ধরনের ঘোষণা আসার পর যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধের প্রস্তুতি শুরু করে।


এর পাশাপাশি দক্ষিণ চীন সাগরের বিতর্কিত অঞ্চল নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চীনের সর্ম্পক এমনিতেই উত্তপ্ত হয়ে আছে। ধারণা করা হচ্ছে ট্রাম্প যে সমর প্রস্তুতি নিচ্ছেন তার অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীকে আরো আধুনিক করতে খরচ হবে সাড়ে ৪ বিলিয়ন পাউন্ড। এছাড়া পেন্টাগন ইতিমধ্যে ১২টি নিউক্লিয়ার সাবমেরিন তৈরি করতে ১’শ বিলিয়ন পাউন্ড খরচ করার একটি পরিকল্পনা অনুমোদন দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের ২৭৪টি যুদ্ধজাহাজ থাকলেও দেশটির প্রতিরক্ষা শক্তি আরো বৃদ্ধি করতে দীর্ঘদিন ধরে বরাদ্দ প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।


শিপবিল্ডার্স কাউন্সিল অব আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ম্যাথিউ প্যাক্সটন বলেছেন, রাশিয়া ও চীন তাদের নৌবাহিনীর জন্যে অব্যাহতভাবে জাহাজ নির্মাণ করে যাচ্ছে। এ ধরনের জটিল পরিস্থিতি মোকাবেলা করা মোটেই সহজ হবে না। নৌবাহিনীর শক্তিবৃদ্ধি অন্য যে কোনো শক্তির চেয়ে জরুরি। আমাদের সে ধরনের নৌবাহিনী প্রয়োজন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষার জন্যে আরো বড় ধরনের নৌবহর প্রয়োজন। রক্ষণাবেক্ষণের জন্যে আরো বেশি সময় লাগে হবে এ বিষয়টিও মাথায় রাখা প্রয়োজন। তবে সমর বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্র যদি ফের নৌবহর শক্তিশালী করতে বিভিন্ন পরিকল্পনা হাতে নেয় তাহলে পরিস্থিতি ফের ঠান্ডা যুদ্ধের আগের পর্যায়ে চলে যাবে।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top