বিকাল ৪:০৬, শনিবার, ২৭শে মে, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / রাজধানীতে পরিকল্পিত পার্ক নেই
রাজধানীতে পরিকল্পিত পার্ক নেই
মার্চ ১৭, ২০১৭

বাধীনতার পর যুদ্ধ বিধ্বস্ত অর্থনীতি ও অনিয়ন্ত্রিত পরিস্থিতিতে ঢাকায় অস্বাভাবিক জনস্ফীতিতে একদিকে বাড়ন্ত মানুষজনের ঘরবাড়ি নির্মাণের চাপ, অন্যদিকে নতুন রাষ্ট্রের প্রয়োজনে বিভিন্ন ধরনের স্থাপনা নির্মাণের কারণে অনুমোদিত মহাপরিকল্পনায় ভূমি ব্যবহারে ব্যাপক পরিবর্তন ঘটে যায়। স্থানে স্থানে অনেক উন্মুক্ত স্থান দখল-বেদখল হয়ে তথা অযতœ অবহেলায় বেহাত হয়ে যায়। এ রকম পরিস্থিতি শুধু ঢাকা নয় বিভিন্ন জেলায় উন্মুক্ত স্থান দখল-বেদখল হয়ে যায়। এভাবে বর্তমানে নগরীর বেশির ভাগ জায়গায় পার্ক-মাঠ ও অন্যান্য খোলা জায়গা প্রায় শূন্যের কোঠায় চলে এসেছে।

 বাস্তবে নগর ব্যবস্থাপনায় কম পক্ষে ২৫ ভাগ জমি খোলা জায়গা বা উন্মুক্ত স্থান হিসেবে সংরক্ষণ করার কথা থাকলেও ঢাকায় এর পরিমাণ এখন ৭/৮ ভাগের বেশি নয়। চতুর্দিকে নদী পরিবেষ্টিত সমন্বয়ে ঢাকা আগে জন সবুজে পরিপূর্ণ একটি জায়গা ছিল। ঘরবাড়ি ও বসতির মধ্যে উঠোন-বাগান এবং অনেক বসতবাটিতে পুকুর দীঘিও ছিল। প্রতিটি পাড়া মহল্লা এবং সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমনকি সব ছাত্র হল প্রাঙ্গণেও পুকুর মাঠের অবস্থান ছিল। পার্ক বা মাঠের সহস্থান ছিল। কিন্তু কালক্রমে নগরীতে বাড়তি জনগণের অবস্থানের জন্য প্লট সৃষ্টিসহ অন্যান্য সুবিধার সংযোজন করতে গিয়ে বর্তমানে কোথাও আর তেমন পার্ক-মাঠ বা খোলা জায়গা নেই। কিন্তু সেভাবে ঢাকার উন্নয়ন ও বিকাশ ঘটেনি।

বরং একটি মহাপরিকল্পনা থাকা সত্ত্বেও প্রায় ক্ষেত্রে এর থেকে বিচ্যুতির উন্নয়ন হয়েছে বা ঘটানো হয়েছে অর্থাৎ যেখানে যা হওয়ার কথা ছিল সেখানে তা করা হয়নি। ফলে সার্বিকভাবে ঢাকা একটি অপরিকল্পিত নগরী হিসেবে গড়ে ওঠে। পরিকল্পনা অনুযায়ী নগরীতে যেসব খাল-নালা ছিল সেগুলোকে ভরাট করে বক্স কালভার্ট ড্রেন নির্মাণ করেও বড় ধরনের সর্বনাশা ঘটানো হয়েছে। বাস্তবে ঢাকায় পার্ক-মাঠ তথা অন্যান্য উন্মুক্ত স্থানের পরিচর্যা ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য সুনির্দিষ্ট বা আলাদাভাবে কোন সংস্থা বা কর্তৃপক্ষ নেই। ঢাকা ও অন্যান্য নগরীতে কমপক্ষে ২৫ ভাগ জায়গা উন্মুক্ত স্থান হিসেবে সংরক্ষণ করে সেখানে পার্ক ও খোলা জায়গা হিসেবে সংরক্ষণ করা প্রয়োজন।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top