রাত ৯:৫৬, বৃহস্পতিবার, ২৯শে জুন, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / রফতানিকৃত মাছেও ফরমালিন
রফতানিকৃত মাছেও ফরমালিন
মার্চ ৭, ২০১৭

অসাধু ব্যবসায়ীদের অতিলোভের কারণে দেশের ভাবমূর্তি হুমকির মুখে। গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে বাংলাদেশের রফতানিকৃত মাছে ফরমালিন পাওয়ায় রাজ্য সরকার বাংলাদেশ থেকে মাছ আমদানিতে বিধিনিষেধ চালু করেছে। গত শুক্রবার এ কথা জানিয়ে রাজ্যটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাদল চৌধুরী বলেন, ‘পানির সঙ্গে ফরমালিন অথবা ফরমাল ডিহাইডিল মিশ্রণ করে সেই পানি মাছ সংরক্ষণে ব্যবহার করা হচ্ছে।

 বাংলাদেশ থেকে যে মাছ আমদানি করা হচ্ছে সেখান থেকে ছয়টি মাছের নমুনার মধ্যে এই নিষিদ্ধ ফরমালিন পাওয়া গেছে। তিনি আরও বলেন, ‘আগরতলা-আখাউড়া সুসংহত চেকপোষ্ট ছাড়া রাজ্যের সাতটি ল্যান্ড কাষ্টমস স্টেশন দিয়ে বাংলাদেশ থেকে যাতে ত্রিপুরায় মাছ আমদানি না হয় সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আসলে এটা আমাদের জন্য লজ্জাজনক। দেশের অভ্যন্তরে খাদ্য পণ্যে কী ভয়ঙ্কর আকারে ফরমালিনসহ মানবদেহে ক্ষতিকর এমন নানা ধরনের কেমিকেল মিশ্রিত হয় তা এখন কমবেশি দেশের মানুষ জানেন।

 এখন খবর পাওয়া যাচ্ছে এই সব ভেজালকারিদের দৌরাত্ম দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও পৌঁচুচ্ছে। কিন্তু বিদেশ সেটা মেনে নেব কেন। জনস্বাস্থ্য হুমকির মুখে পড়ে সেটা কেউ চাইবে না। আমাদের দেশে আন্তরিকতার অভাব না থাকলেও মাঠ পর্যায়ে মনিটরিং এর ব্যবস্থা নেই সার্বক্ষণিকভাবে। আর তাতে ভেজাল চক্রেরই লাভ। যাবতীয় দুর্নীতি, অনিয়মসহ আইনের কঠোর প্রয়োগ করা না গেলে ফরমালিনের দৌরাত্ম থেকে মুক্তি নেই। যারা বিদেশে ফরমালিন মিশ্রিত করে দেশের ভাবমূর্তির ক্ষতি করেছে তাদের কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top