সকাল ৯:৪৯, বুধবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ তথ্যপ্রযুক্তি / যুক্তরাষ্ট্রে তথ্য ও প্রযুক্তিতে বাংলাদেশিদের সাফল্য
যুক্তরাষ্ট্রে তথ্য ও প্রযুক্তিতে বাংলাদেশিদের সাফল্য
মে ১২, ২০১৭

করতোয়া ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি ও বেসরকারি তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা সাফল্যের স্বাক্ষর রেখে চলেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড ডিপার্টমেন্টের ইউনাইটেড স্টেটস সিটিজেনশিপ অ্যান্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিসের  তরুণ ঠিকাদার প্রবাসী বাংলাদেশি শেখ রহমান।

 

ত্রিশ বছর বয়সেই তিনি অটোমেশন ইঞ্জিনিয়ার টিমের ম্যানেজার হিসাবে কাজ করছেন। প্রায় বিশ জন প্রকৌশলীর একটি অটোমেশন দলের দায়িত্ব পালন করা শেখ রহমান বলেন, আমার টিমের বেশির ভাগ সদস্যই বাংলাদেশি। সবাই দক্ষতা ও সফলতার সাথে কাজ করছেন।

 

 যখনই কোন সুযোগ আসে আমি বাংলাদেশিদের নিয়োগ দেই। যুক্তরাষ্ট্রে আসার পর ইনফরমেশন টেকনোলজির উপর আমার আগ্রহ তৈরি হয় এবং এই বিষয়ে পড়াশুনা করি। এখন আমি বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ারিং টিমের নেতৃত্ব দিচ্ছি। এটা আমার জন্য গর্বের। শেখ রহমান আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটির বিভিন্ন প্রজেক্টে কয়েকশ’ বাংলাদেশি কাজ করছেন।

 

 শুধু হোমল্যান্ড ডিপার্টমেন্টের ইউনাইটেড স্টেটস সিটিজেনশিপ অ্যান্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিসে প্রায় ষাট থেকে সত্তরজন বাংলাদেশি আছেন। আমি যে কোম্পানির হয়ে কাজ করছি সেই কোম্পনিতে প্রায় ত্রিশজন বাংলাদেশি কাজ করেন। যুক্তরাষ্ট্রে নেটওয়ার্ক ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করা মোহাম্মদ সাইদ বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের তরুণ প্রজন্মের বাংলাদেশিরা অত্যন্ত মেধাবী।

 

শুধু যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটিতেই নয়, যুক্তরাষ্ট্র সরকারের বিভিন্ন বিভাগে কয়েকশ’ বাংলাদেশি দক্ষতা ও সফলতার সাথে তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে কাজ করছেন। ইউনাইটেড স্টেটস সিটিজেনশিপ অ্যান্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিসে লিড হিসাবে কাজ করছেন মোহাম্মদ আজাদ। ছয় থেকে সাতজনের একটি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন তিনি।

 

 তিনি বলেন, আমার টিমে আমেরিকান, রাশ্যান, অফ্রিকানসহ বিভিন্ন দেশের প্রকৌশলীরা কাজ করেন। আবদুল্লা চৌধুরী কাজ করছেন পারফর্মেন্স ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে। পনের জন প্রকৌশলীর এই দলনেতা বলেন, “সবার সাথে পাল্লা দেওয়া প্রতিযোগিতার মাধ্যমে আমরা কাজ করছি ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটির বিভিন্ন প্রজেক্টে। এছাড়া তারিক আলম, মুকুল মোহসীন, তাজবীর আহমেদ, আবু মাহফুজ, আজাদ আহমেদ, কাজী রশীদ, মোহাম্মদ আলমসহ আরো অনেক তরুণ প্রজন্মের প্রকৌশলী ও স্থপতি কাজ করছেন যুক্তরাষ্ট্র সরকারের বিভিন্ন প্রজেক্টে।

 

 সফটওয়ার ডেভেলপমেন্ট, নেটওয়ার্ক ইঞ্জিনিয়ার, ডাটাবেজ ডেভেলপমেন্ট ও ম্যানেজম্যান্ট, অটোমেশন ইঞ্জিনিয়ারিং, পারফর্মেন্স ইঞ্জিনিয়ারিং, টেস্টিং ইত্যাদি ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী তরুণ প্রজন্মের বাংলাদেশিরা  কাজ করে সাফল্য পাচ্ছেন। আয় করছেন পাঁচ থেকে ছয় অংকের বেতন। তরুণ এই প্রযুক্তবিদরা জানান, প্রবাসী বাংলাদেশি তরুণ প্রজন্মকে নতুন নতুন তথ্য ও প্রযুক্তির সাথে পরিচিত করে তাদেরকে কাজের উপযুক্ত করে তোলার চেষ্টা করছি আমরা। শুধু প্রবাসে নয় দেশের উন্নয়নেও তারা যেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে সেই লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top