রাত ২:৪৪, শনিবার, ২১শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / ভূমিকম্পের ঝুঁকি
ভূমিকম্পের ঝুঁকি
জানুয়ারি ৮, ২০১৭

 

ভূমিকম্প নিয়ে কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় গত বছরের জুলাই মাসে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল, বাংলাদেশ বড় ভূমিকম্পের ঝুঁকিতে রয়েছে। মাত্রায় তা রিখটার স্কেলে ৯ পর্যন্ত হতে পারে।

 কবে নাগাদ এই ভূমিকম্প হতে পারে তার পূর্বাভাস না মিললেও বড় ভূমিকম্পের আগে ছোট ছোট ভূমিকম্প আঘাত হানার আভাস দিয়েছিলেন গবেষকরা। বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র ও সিঙ্গাপুরের একদল গবেষক যৌথভাবে গবেষণা পরিচালনা এবং ১০ বছরের তথ্য বিশ্লেষণ করে এমন আশংকার কথা জানিয়েছিলেন। বিগত দশ বছরের তথ্য বিশ্লেষণ করে এই গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশ ও ভারতের পূর্বাংশের ভূগাঠনিক প্লেট উত্তর-পূর্ব দিকে সরে গিয়ে মায়ানমারের পশ্চিমাঞ্চলের ভূ-গাঠনিক প্লেটে চাপ সৃষ্টি করছে।

 বাংলাদেশ অঞ্চলের নিচে দুটি ভূগাঠনিক প্লেট চেপে বসতে থাকায় সেখানে শক্তি জমা হচ্ছে। এই ভূমিকম্পের ফলে বাংলাদেশ সহ আশে পাশের অঞ্চলের ১৪ কোটি মানুষ ক্ষতির মুখোমুখি হবে। ভূমিকম্প এমন একটি প্রাকৃতিক দুর্যোগ, যার পূর্বাভাস দেওয়ার সক্ষমতা মানুষ অর্জন করতে পারেনি। ভূমিকম্প থেকে রক্ষা পাওয়ার প্রকৃষ্ট উপায় হলো সব ধরনের স্থাপনা দুর্যোগ মোকাবিলা উপযোগী করে গড়ে তোলা।

 আমাদের দেশে ভবন নির্মাণে বিল্ডিং কোড মানা হয় না। এমন অভিযোগই প্রবল। ফলে মাঝারি ধরনের ভূমিকম্পও বাংলাদেশে বিপর্যয়ের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। বড় ধরনের ভূমিকম্প ডেকে আনতে পারে মানবিক বিপর্যয়। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি ভূমিকম্প-পরবর্তী বিপর্যয়কর পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমাদের প্রস্তুতি নেই বললেই চলে। উদ্ধার কাজ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত জনশক্তির যেমন অভাব রয়েছে, তেমন অভাব প্রযুক্তিগত সুবিধার ভূমিকম্প সম্পর্কে আতঙ্কে না ভুগে ঘরবাড়ি যাতে ভূমিকম্প সহনীয়ভাবে তৈরি করা হয় সেদিকে নজর দিতে হবে। দুর্যোগ পরবর্তী কঠিন অবস্থা মোকাবিলার জন্য জনশক্তি গড়ে তোলা ও প্রযুক্তিগত সুবিধা অর্জনও জরুরি।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top