সকাল ৬:০৫, সোমবার, ২৯শে মে, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / ভর্তি নিয়ে টেনশন
ভর্তি নিয়ে টেনশন
মে ১২, ২০১৭

এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে গত ৪মে। মাধ্যমিকে পাসের হার আনন্দে আত্মহারা শিক্ষার্থীদের এখন দুশ্চিন্তার ভাঁজ। একাদশ শ্রেণীতে কোথায় ভর্তি হবে? ভর্তিচ্ছু ও অভিভাবকদের এ টেনশনের মধ্যে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তিতে অন লাইনে আবেদন শুরু হয়েছে ইতিমধ্যেই।

 

চলবে ৩১মে পর্যন্ত। চলতি বছর এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় সারা দেশে পাস করেছে ১৪ লাখ ৩১ হাজার ৭২২ জন এবং জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১ লাখ ৪ হাজার ৭৬১। জিপিএ ৫ এর চেয়ে কম কিন্তু জিপিএ ৪ কিংবা তার চেয়ে বেশি পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৫৪৫ জন।


 প্রায় ৬ লাখ শিক্ষার্থীর লক্ষ্য নামকরা কোনো কলেজে ভর্তি হওয়া। ভালো কলেজ বলে বিবেচিত কলেজগুলোতে এবারের ভর্তিযোগ্য আসন সংখ্যা প্রায় ৫০ হাজার। ভর্তি পরীক্ষা আমাদের দেশে সব সময়ই তীব্র প্রতিযোগিতামূলক হয়। কারণ ভর্তি ইচ্ছুকদের চেয়ে আসন সংখ্যা কম। ফলে এই আসন সংকটের কারণে স্বপ্ন ভঙ্গ হবে লাখো শিক্ষার্থীর। এই স্বপ্নভঙ্গ তাদের পরবর্তী শিক্ষা জীবনে বড় ধরনের ছাপ যে ফেলবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও অনেক শিক্ষার্থী তাদের স্বপ্নের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে পারবে না।


 সৃজনশীল ও নকলমুক্ত শিক্ষা ব্যবস্থায় দেশে প্রতি বছর পাসের হার বাড়ে। বাড়ছে শিক্ষার্থীদের মধ্যে লেখাপড়ার আগ্রহ। ভর্তি পরীক্ষা শেষে ক্লাস শুরু হবে ১ জুলাই থেকে। তবে এবারের ভর্তির নতুন নীতিমালায় যে সব নির্দেশনা রয়েছে তাতে বিপদে পড়েছে ভর্তি ইচ্ছুকেরা।

 

ভালো কলেজের সংখ্যা এবং সেখানে আসন যেমন সীমিত তাতে একমাত্র জিপিএ ৫ প্রাপ্তদেরই আবেদনের সুযোগ থাকায় অন্যরা অর্থাৎ জিপিএ৫ এর কম প্রাপ্তরা পড়েছেন বেকায়দায়। এ নিয়ে ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের। চাহিদা অনুপাতে মান সম্পন্ন স্কুল কম বলেই যত বিপত্তি। সে ক্ষেত্রে বেসরকারি স্কুল-কলেজগুলোতে মান বাড়ানোর ওপর সর্বাধিক গুরুত্ব দিতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যেন কোনোক্রমেই বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত না হয়, লক্ষ্য রাখতে হবে সেদিকেও।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top