বিকাল ৪:৪৮, মঙ্গলবার, ২৩শে মে, ২০১৭ ইং
/ দেশজুড়ে / ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাবলীগ জামাতের ৮ বিদেশীকে অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুট
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাবলীগ জামাতের ৮ বিদেশীকে অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুট
মে ১৭, ২০১৭

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলায় তাবলীগ জামাতের ৮ বিদেশি সদস্যকে অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুটে নিয়েছে এক প্রতারক। কাকরাইল  কেন্দ্রীয় মসজিদ  থেকে  দোভাষী হিসেবে তাদের সঙ্গে আসা হাসান (৩০) গত মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটায়। পরে উপজেলার সীমান্তবর্তী সেনারবাদী জামে মসজিদ থেকে অচেতন তাবলীগ জামাতের ১১ সদস্যকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অসুস্থ তাবলীগ সদস্যদের মধ্যে তিনজন থাইল্যান্ড ও পাঁচজন ইন্দোনেশিয়ান নাগরিক। বাকি তিনজন বাংলাদেশি। তারা হলেন ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক লুৎফি, মুখলেছ, আহামেদ সালেহ, মো. সুসলিম, আবু সালেহ, মাছ বাকি হাবিবি থাইল্যান্ডের আবু আওয়াল আলে, শাহরুন এবং বাংলাদেশের আহসান হাবিব, মো. ইলিয়াস ও হাফিজুর রহমান।  দোভাষী হাসানসহ ১৫ সদস্যের এই জামাতে থাকা  নেত্রকোনা  জেলার  কেন্দুয়া উপজেলার ইলিয়াছ মিয়া জানান, ঢাকার কাকরাইল মসজিদ  থেকে এক সপ্তাহ আগে বিদেশিদের সঙ্গে তারা তাবলীগের দ্বীনি দাওয়াতে  বের হন। বিদেশিদের সহায়তার জন্য কাকরাইল মসজিদ থেকে  দোভাষী হিসেবে আসে ফরিদপুরের বাসিন্দা হাসান। প্রথমে তাবলীগ জামাতে দলটি আখাউড়া পৌর শহরের  দেবগ্রাম কেন্দ্রীয় মসজিদে তিন দিন অবস্থান করেন। সেখান থেকে  গত রোববার সকালে সেনারবাদী জামে মসজিদে আসেন। গত মঙ্গলবার এশার নামাজের পর তালিম শেষে  দোভাষী হাসান দুটি ফ্রুটো জুসের বোতল নিয়ে আসে। এ সময়  সে ওই জুস নিজ হাতে সবাইকে  খেতে  দেয়।
এরপরই তারা সবাই একে একে অচেতন হয়ে পড়েন। এ সুযোগে প্রতারক হাসান বিদেশিদের কাছে থাকা ডলার, দামী মোবাইল ফোন, ক্যামেরা ও নগদ বাংলাদেশি অর্থসহ মূল্যবান সামগ্রী লুটে নিয়ে পালিয়ে যায়। আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক আবু রাইহান ভূইয়া জানান, তাদের অবস্থা এখন ভালোর দিকে। আশা করছি দ্রুতই তারা সুস্থ হয়ে উঠবেন। আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোশাররফ  হোসেন তরফদার জানান, ঘটনার খবর পেয়ে ওই মসজিদ এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। হাসানকে ধরার চেষ্টা চলছে।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top