রাত ৮:১৭, বৃহস্পতিবার, ২২শে জুন, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / ব্যাংক নিয়ন্ত্রণে পরিবার
ব্যাংক নিয়ন্ত্রণে পরিবার
মে ১৪, ২০১৭

পরিবারতন্ত্র কায়েম হতে যাচ্ছে বেসরকারি ব্যাংক। নতুন নিয়মে একই পরিবারের চারজন ব্যাংকের পরিচালক হতে পারবেন। আর পরিচালকেরা ব্যাংকে থাকতে পারবেন একটানা ৯ বছর। জাতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত খবর অনুযায়ী মূলত প্রভাবশালী কয়েকজন ব্যবসায়ীকে সুযোগ দিতেই এভাবে ব্যাংক কোম্পানি আইন সংশোধন করা হয়েছে।

 

এমন পরিস্থিতিতে ব্যাংক কোম্পানি (সংশোধন) আইন ২০১৭ গত সোমবার মন্ত্রিসভার নীতিগত অনুমোদন লাভ করেছে। সংশোধিত আইনটি সংসদে অনুমোদিত হলে ব্যাংকে একই পরিবার থেকে চারজন পরিচালক থাকতে পারবেন। বর্তমানে কোনো পরিবার থেকে দু’জনের বেশি পরিচালক থাকতে পারবেন না।

 

 আবার সংশোধিত আইনে কোনো পরিচালক এক নাগাড়ে তিন মেয়াদ বা ৯ বছর দায়িত্বে থাকতে পারবেন, যা বর্তমানে দুই মেয়াদে সীমিত। ব্যাংক সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বিদ্যমান আইনে অনেকেরই পরিচালক থাকার মেয়াদ শেষ হয়ে আসছিল। এর মাধ্যমে ব্যাংক পরিচালকদের কাছে নতি স্বীকার করল সরকার। কেউ কেউ মনে করেন এর ফলে বেসরকারি ব্যাংক-লুটপাটের দরজা খুলে দেওয়া হলো।


 আর বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ মনে করেন, অর্থশক্তির ক্ষমতা যে রাষ্ট্র বা রাজনৈতিক শক্তিকে অতিক্রম করে গেছে, এ সংশোধনীর মাধ্যমে তা প্রমাণিত হলো, যা ব্যাংক খাতের জন্য খুবই খারাপ হবে। বর্তমানে দেশে বেসরকারি ব্যাংকের সংখ্যা ৪০। এসব ব্যাংকে উদ্যোক্তারা মূলধনের জোগান দিয়েছেন ১৬ হাজার কোটি টাকা।

 

এসব ব্যাংকে আমানতের পরিমাণ প্রায় ৬ লাখ কোটি টাকা। তারাই এখন ব্যাংক মালিক হিসেবে স্থায়ী বন্দোবস্তের ব্যবস্থা করে নিলেন। ব্যাংকের মতো একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান, যার সঙ্গে হাজার হাজার মানুষের স্বার্থ জড়িয়ে যায় তা পুরোপুরি কোনো একটি পরিবারের নিয়ন্ত্রণে চলে গেলে তার পরিণতি সুখকর হতে পারে না।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top