দুপুর ২:৪৫, রবিবার, ২৮শে মে, ২০১৭ ইং
/ জাতীয় / প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত কাল বিশ্ব ইজতেমার লাখো মুসল্লি¬র জুমার নামাজ আদায়
ঈমান-আমল ছাড়া দুনিয়া ও আখিরাতে কামিয়াব হওয়া যাবে না
প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত কাল বিশ্ব ইজতেমার লাখো মুসল্লি¬র জুমার নামাজ আদায়
জানুয়ারি ১৪, ২০১৭

মো: আনোয়ার হোসেন, টঙ্গী (গাজীপুর) : কঠোর নিরাপত্তা, ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ পরিবেশ ও ব্যাপক ধর্মীয় উদ্দীপনায় গতকাল শুক্রবার বাদ ফজর আম বয়ানের মধ্যদিয়ে শুরু হয়েছে ৬ দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমার ৩ দিনের প্রথম পর্ব। রাজধানী ঢাকার উপকন্ঠ টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে তাবলীগ জামাতের বার্ষিক মহাসম্মেলন বিশ্ব ইজতেমার প্রথমদিনে গতকাল অনুষ্ঠিত হয় বিশ্বের বৃহত্তম জুমার জামাত। ইজতেমায় অংশগ্রহণকারী লাখ লাখ মুসল্লি¬¬ ছাড়াও রাজধানীসহ পার্শ্ববর্তী এলাকার হাজার হাজার মানুষ রেলপথ, সড়ক পথ, নৌপথসহ বিভিন্ন যানবাহন এবং অনেকে পায়ে হেঁটে শরিক হন এই বৃহত্তম জুমার জামাতে। বিশ্বে ৯৩টি দেশের প্রায় ১২ হাজার প্রতিনিধিসহ লাখ লাখ মুসল্লি¬ স্বাচ্ছন্দ্যে তাবলীগ জামাতের শীর্ষ মুরুব্বিদের বয়ান শুনছেন এবং এবাদত বন্দেগীতে মশগুল রয়েছেন।

আজ শনিবার ইজতেমার দ্বিতীয় দিন। আগামীকাল রোববার দুপুরের আগে আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে পবিত্র হজের পর মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় ধর্মীয় সমাবেশ বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের সমাপ্তি ঘটবে। মাঝে ৪ দিন বিরতি দিয়ে পুনরায় ২০ জানুয়ারি শুরু হয়ে ২২ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে দ্বিতীয় পর্ব তথা বিশ্ব মুসলিম জাহানের মিলন মেলা এবারের বিশ্ব ইজতেমার ৫২তম আসর। সকাল থেকেই সর্বস্তরের মুসলমানরা জুমার জামাতে শামিল হওয়ার জন্য টুপি, পাঞ্জাবি পরে জায়নামাজ হাতে ইজতেমা মাঠের দিকে ছুটতে দেখা গেছে। দেশ বিদেশের অগণিত মুসল্লির সাথে একই জামাতে শরিক হয়ে নামাজ আদায় করার মাধ্যমে বেশি সাওয়াব হাসিলের উদ্দেশে সকলের মধ্যে দেখা গেছে ব্যাকুলতা। যতই সময় গড়াতে থাকে ততই মুসল্লিদের ঢল আছড়ে পড়ে তুরাগের তীরে। শিশু-কিশোর থেকে শুরু করে সব বয়সী মানুষের সমাবেশ ঘটে জুমার জামাতে। টঙ্গী, উত্তরা, কামারপাড়া, মিরপুর, আবদুল্ল¬াহপুরসহ আশপাশের এলাকার মসজিদে গতকালের জুমার জামাতে মুসল্লির সংখ্যা ছিল খুবই কম। ইজতেমা মাঠে জুমার জামাত সুবিশাল প্যান্ডেলের গন্ডি ছাড়িয়ে বিস্তৃতি লাভ করে চার পাশে। দুপুর ১২টার দিকে মাঠ উপচে আশপাশের খোলা জায়গাসহ সব স্থান জনসমুদ্রে পরিণত হয়। মাঠে স্থান না পেয়ে অনেকে মহাসড়ক ও অলি-গলিসহ যে যেখানে পেরেছেন পাটি, চটের বস্তা, খবরের কাগজ বিছিয়ে জুমার নামাজে শরিক হন। ফলে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে বেশ কিছুক্ষণের জন্য যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। জুমার জামাতে ইমামতি করেন বাংলাদেশের তাবলীগ জামাতের শীর্ষ মুরুব্বি মাওলানা মোহাম্মদ ফারুক হোসেন।

টঙ্গীর যেদিকে চোখ যায় শুধু টুপি-পাঞ্জাবি পরা মুসল্লিদের দেখা মেলে। পুরো টঙ্গী নগরী যেন টুপি-পাঞ্জাবি পরা মানুষের নগরে পরিণত হয়েছে। বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে দেশ-বিদেশ থেকে মুসল্লি¬দের টঙ্গীমুখী স্রোত অব্যাহত রয়েছে। বহুল কাক্সিক্ষত আখেরি মোনাজাত পর্যন্ত এ স্রোত আরও প্রবল হবে। তুরাগ তীরবর্তী বিশাল প্রান্তরে নির্মিত পাটের চট ও লাইলন কাপড়ের প্যান্ডেল ইতোমধ্যেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে। ফলে নতুন করে যারা আসছেন তাদের নিজ উদ্যোগে তাঁবু টানিয়ে অবস্থান নিতে হচ্ছে। গত দু’দিনে শীতের তীব্রতা কম থাকায় মুসল্লিদের ভোগান্তি কিছুটা কম হলেও ধুলায় ধূসরিত গোটা ইজতেমা এলাকায় চলাচল কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। ফলে চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোতে ভিড় করছে সর্দি, কাশি ও পেটের পীড়া নিয়ে শত শত মুসল্লি¬¬।

প্রথম দিনে যারা বয়ান করলেন : বাদ ফজর ভারতের মাওলানা ওবায়দুল্লাহ খুরশেদের আ’ম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে এবারের বিশ্ব ইজতেমা। তার বয়ানের ভাষান্তর করেন বাংলাদেশের মাওলানা মো: জাকির হোসেন। বাদ জুমা বয়ান করেন দিল্লির মাওলানা সা’দ, বাদ আসর বয়ান করেন পাকিস্তানের মাওলানা এহসান, বাদ মাগরিব বয়ান করেন দিল্লির হযরত মাওলানা শওকত আলী।   

প্রথম দিনের বয়ানে যা বলা হলো : বাদ ফজর ভারতে মাওলানা ওবায়দুল্ল¬াহ মুরশেদ তার বয়ানে বলেন, যারা দুনিয়াতে দ্বীনের উপর চলবে, ঈমানকে সুন্দর করবে, আমলকে সুন্দর করবে, আল্ল¬াহ তা’য়ালা তাদের কামিয়াবী দান করবেন। তিনি আরও বলেন, ঈমান ও আমল ছাড়া দুনিয়া ও আখিরাতে কামিয়াব হওয়া যাবে না। তিনি বলেন, ঈমান আমলের পাশাপাশি নামাজকে সুন্দর করতে হবে। আল্ল¬াহকে পেতে হলে নামাজ পড়েতে হবে। জাহান্নাম থেকে বাঁচা এবং জান্নাত লাভের মাধ্যম হলো নামাজ। দিনে ৫ বার নামাজের মাধ্যমে আল্ল¬াহর সাথে কথা বলা হয়।

বয়ানে তাবলীগ মুরব্বীরা আরও বলেন, মোহতারাম ভাই ও দোস্ত আওর বুজুর্গ, আল্লাহ তায়ালা আপনাকে আমাকে দুনিয়াতে পাঠিয়েছেন এবং আল্লাহ তায়ালা এটা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, দুনিয়াতে যে একবার আসবে তাকে মৃত্যুবরণ করতে হবে। আল্ল¬াহ পাকের এ সিদ্ধান্তের কোন পরিবর্তন হবে না। কারণ তিনি কোরআনপাকে বলে দিয়েছেন যে, পৃথিবীতে যত কিছু আছে তা সব কিছুই একদিন শেষ হয়ে যাবে। আল্লাহ পাকের স্বত্বা চিরস্থায়ী, যার কোন শুরু নেই আর শেষও নেই। আল্লাহ পাক পূর্বে ছিলেন, যার পূর্বে কোন কিছু ছিল না এবং তিনি সব কিছুর পরে থেকে যাবেন যার পরে কিছুই থাকবে না। মাখলুকের শুরু আছে কিন্তু আল্লাহ পাকের কোন শুরু নেই। প্রকাশ্যে যা কিছু হয় তা তিনি দেখতে পারেন আর গোপনে যা কিছু হয় তাও তিনি দেখতে পাচ্ছেন। আল্ল¬াহ পাকের দৃষ্টির বাইরে একটা অনু বা একটা র্জারাও নেই।

এ দুনিয়া হচ্ছে ধোঁকার ঘর, এ দুনিয়া হচ্ছে ধোঁকার জীবন। আল্লাহ বলছেন, তুমি এ সব কিছু হতে ফিরে এসে আমার দিকে আস, আমাকে পেতে চেষ্টা কর, তুমি যদি আমাকে পেয়ে যাও তা হলে মনে করবে তুমি দুনিয়ার সব কিছু পেয়ে গেছ। ঐ আল্লাহকে সন্তুষ্ট করাই আমাদের জীবনের লক্ষ্যবস্তু হওয়া দরকার।

বয়ানের তাৎক্ষণিক অনুবাদ : বিশ্ব ইজতেমায় বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানের তাবলীগ মারকাজের ১২-১৫ জন শূরা সদস্য ও বুজর্গ বয়ান পেশ করছেন। মূল বয়ান উর্দুতে হলেও বাংলা, ইংরেজি, আরবি, তামিল, মালয়, তুর্কি ও ফরাসি ভাষায় তাৎক্ষণিক অনুবাদ করা হচ্ছে। বিদেশী মেহমানরা মূল বয়ান মঞ্চের উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্বপাশে হোগলা পাটিতে বসেন। বিভিন্ন ভাষাভাষির মুসল্লিরা আলাদা আলাদা বসেন এবং তাদের মধ্যে একজন মুরব্বি মূল বয়ানকে তাৎক্ষণিক অনুবাদ করে শুনান।

তাশকিলের কামরায় চিল্লাভুক্ত মুসল্লি : ইজতেমার প্যান্ডেলের উত্তর-পশ্চিমে তাশকিলের কামরা স্থাপন করা হয়েছে। বিভিন্ন খিত্তা থেকে বিভিন্ন মেয়াদে চিল্লায় অংশ গ্রহণেচ্ছু মুসল্লিদের এ কামরায় আনা হচ্ছে এবং তালিকাভুক্ত করা হচ্ছে। পরে কাকরাইলের মসজিদের তাবলিগি মুরব্বীদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এলাকা ভাগ করে তাদের দেশের বিভিন্ন এলাকায় তাবলিগি কাজে পাঠনো হবে।

বিদেশী মুসল্লিদের অংশগ্রহণ : ইজতেমার প্রথম পর্বে সৌদি আরব, মিসর, ওমান, সংযুক্ত আরব-আমিরাত, কাতার, কানাডা, কম্বোডিয়া, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, জার্মানী, ইরান, জাপান, মাদাগাস্কার, মালি, মোজাম্বিক, নাইজেরিয়া, পানামা, সেনেগাল, দঃ আফ্রিকা, তাঞ্জানিয়া, রাশিয়া, আমেরিকা, জিম্বাবুয়ে, বেলজিয়াম, ক্যামারুন, চীন, কমোরেস, ফিজী, ফ্রান্স, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, মায়ানমার, নিউজিল্যান্ড, নরওয়ে, ফিলিপাইন, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, ইরাক, ফিলিস্তিন, কুয়েত, মরক্কো, কাতার, সোমালিয়া, সিরিয়া, তিউনিসিয়া, ইয়েমেন, বাহরাইন, ইরিত্রিয়া, জর্দান, ভারত, সুদান, দুবাইসহ বিশ্বের ৯৩টি দেশের  প্রায় ১২ হাজার মুসল্লি ইজতেমায় অংশ নিয়েছেন। বিভিন্ন ভাষাভাষি ও মহাদেশ অনুসারে ইজতেমা ময়দানে বিদেশী মেহমানদের ভিন্ন ভিন্ন তাঁবু নির্মাণ করা হয়েছে। সেখানে তাদের জন্য প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

ইজতেমায় ৫ মুসল্লি¬র মৃত্যু : বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে গত বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত ৫ মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। মৃতরা হলেন-নোয়াখালী জেলার দাগনভূইয়া থানার মাছিমপুর গ্রামের মৃত আবদুর রশিদ ভুইয়ার ছেলে বাবুল ভুইয়া (৬০), সাতক্ষীরা সদরের খেজুরডাঙ্গা গ্রামের মৃত আব্দুস সোবহানের ছেলে আবদুস সাত্তার (৬৫), টাঙ্গাইল জেলার ধনবাড়ী থানার নিজবন্নি গ্রামের মৃত গোলাম হোসেন ফকিরের ছেলে জানু ফকির (৭০), পাটুরিয়া মানিকগঞ্জের সাহেব আলী (৬৫), কক্সবাজার জেলার বাসিন্দা হোসেন আলী (৬৫) মারা যান। এ নিয়ে বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে ৬ মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে।

৩ বিদেশী মেহমান অসুস্থ : এজমাজনিত কারণে সৌদি আরবের এক মুসল্লি টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তিনি ওই দেশের মো. ইব্রাহীমের ছেলে মো. সুলাইমান (৫৪)। এছাড়াও ময়দানে হোঁচট খেয়ে পড়ে পায়ে ব্যথা পেয়ে থাইল্যান্ডের নাগরিক মাইনমার ছেলে মো. আমিন (৬৫) ও বুকের ব্যথাজনিত কারণে ওমানের বাসিন্দা মোহাম্মদের ছেলে সুরাইয়া (৬০) টঙ্গী হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। টঙ্গী সরকারি হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. মো. পারভেজ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত : টঙ্গী হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ইজতেমাস্থল ও আশপাশের খাবারের দোকান ও হোটেলে ১২টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য পরিবেশন ও ভেজাল খাদ্য বিক্রয়ের অভিযোগে বৃহস্পতিবার ও গতকাল শুক্রবার ভ্রাম্যমাণ আদালত বিভিন্ন খাবারের দোকান ও হোটেল মালিকদের ৫৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় ও ৮টি মামলা দায়ের করে।
যানবাহনে ভিড় ও যানজট : গতকাল জুমার আগে ও পরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক, টঙ্গী আশুলিয়া সড়ক ও টঙ্গী-কালীগঞ্জ সড়কসহ বিভিন্ন সড়কগুলো দিয়ে চলাচলকারী যাত্রীবাহী সকল যানবাহনে প্রচন্ড ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। এ সুযোগে রিকসাসহ কিছু কিছু যানবাহন যাত্রীদের নিকট থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়াও সড়ক মহাসড়কের দু-পাশে যানবাহন পার্কিংসহ ফুটপাত দোকানীদের কারণে টঙ্গী ও আশপাশের এলাকায় তীব্র যানজটেরও সৃষ্টি হতে দেখা গেছে।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top