দুপুর ১:০৬, বুধবার, ২৯শে মার্চ, ২০১৭ ইং
/ Top News / ‘পদ্মা নিয়ে ইউনূস কখনও কাউকে কিছু বলেননি’
‘পদ্মা নিয়ে ইউনূস কখনও কাউকে কিছু বলেননি’
ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৭


করতোয়া ডেস্ক : মতাসীনদের কথায় পদ্মা সেতু প্রকল্পে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়ন আটকানোর ‘ষড়যন্ত্রকারী’ হিসেবে মুহাম্মদ ইউনূসের নাম উঠে আসার প্রতিক্রিয়ায় ইউনূস সেন্টার বলছে, এই নোবেলজয়ী কখনও প্রকাশ্য বা ব্যক্তিগতভাবে এ বিষয়ে কাউকে কিছু বলেননি।বিভিন্ন সময়ে মুহাম্মদ ইউনূসের পে বক্তব্য-বিবৃতি দিয়ে আসা ইউনূস সেন্টার বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে ইউনূসের ‘কর ফাঁকি’ ও ‘অবৈধভাবে বিদেশে অর্থ পাঠানো’ নিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদেরও প্রতিবাদ জানিয়েছে।


গত মাসে সুইজারল্যান্ড ঘুরে আসার পর সংসদে এক বক্তব্যে পদ্মা সেতু প্রকল্পে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থ আটকানোর জন্য মুহাম্মদ ইউনূসকে দায়ী করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
তিনি বলেন, হিলারি কিনটনকে দিয়ে পদ্মা সেতুতে বিশ্ব ব্যাং কের অর্থায়ন আটকেছিলেন নোবেলজয়ী বাংলাদেশি মুহাম্মদ ইউনূস এবং তাতে বাংলাদেশের এক সম্পাদকেরও ভূমিকা ছিল।


এ বিষয়ে আলোচনার মধ্যেই গত শুক্রবার কানাডার একটি আদালতে সেদেশের একটি কোম্পানির বিরুদ্ধে বাংলাদেশের এই প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রে সম্পৃক্ততার অভিযোগের মামলার রায় প্রকাশ হয়। বিশ্ব ব্যাংকের অভিযোগ নাকচ করে রায়ে বলা হয়, মামলায় প্রমাণ হিসেবে যেগুলো উপস্থাপন করা হয়েছে সেগুলো ‘অনুমানভিত্তিক, গাল-গল্প ও গুজবের বেশি কিছু নয়’।এই রায় প্রকাশের পর পদ্মা সেতু ‘ষড়যন্ত্রে’ জড়িত বিষয়ে সরব হন মন্ত্রী-সাংসদরা। ‘দুর্নীতির মিথ্যা  গল্প’ বানানোর নেপথ্িেয ‘প্রকৃত ষড়যন্ত্রকারীদের’ খুঁজে বের করতে একটি রুলও জারি করেছে হাই কোর্ট।


এ প্রোপটে ইউনূস সেন্টারের বিবৃতিতে বলা হয়, “গত কয়েক দিন ধরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, তার পুত্র প্রধানমন্ত্রীর তথ্য বিষয়ক উপদেষ্টা, কয়েকজন মন্ত্রী ও বেশ কয়েকজন সাংসদসহ দেশের শীর্ষ আইন প্রণেতারা ফেইসবুকে পোস্ট দিয়ে, সংসদের ফোরে দাঁড়িয়ে, সংবাদ সম্মেলন করে এবং বিভিন্ন নীতি-নির্ধারণী বৈঠকে পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির মিথ্যা অভিযোগ সৃষ্টির নেপথ্যে থাকার জন্য নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূসকে কঠোরভাবে অভিযুক্ত করে কটূ ভাষায় বক্তৃতা-বিবৃতি দিয়ে আসছেন।
“প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির সম্ভাবনা বিষয়ে প্রকাশ্যে বা ব্যক্তিগতভাবে কখনো কারো কাছে কোনো বিবৃতি দেননি। আমরা প্রফেসর ইউনূসের বিরুদ্ধে এই ভিত্তিহীন অভিযোগের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।”

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top