দুপুর ১:০৩, বুধবার, ২৮শে জুন, ২০১৭ ইং
/ দেশজুড়ে / নাসিক নির্বাচন বিশ্বাসযোগ্য শান্তিপূর্ণ হয়েছে: ইডব্লিউজি
নাসিক নির্বাচন বিশ্বাসযোগ্য শান্তিপূর্ণ হয়েছে: ইডব্লিউজি
ডিসেম্বর ২৪, ২০১৬


স্টাফ রিপোর্টার: নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সামগ্রিকভাবে শান্তিপূর্ণ ও বিশ্বাসযোগ্যভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানিয়েছে নির্বাচন পর্যবেক একটি সংস্থা।


দুদিন আগে অনুষ্ঠেয় এ ভোট নিয়ে গতকাল শনিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে পর্যবেণ তুলে ধরে ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপ (ইডব্লিউজি)।
লিখিত বক্তব্যে ইডব্লিউজির পরিচালক মো. আব্দুল আলীম বলেন, আমরা নির্বাচনে কোনো সহিংসতা দেখতে পাইনি। কাউকে জাল ভোট দিতে দেখিনি। আমাদের সামনে কোনো ভোটারকে বাধা দেয়া হয়নি। এ কারণে আমাদের পর্যবেণের মনে হয়েছে, নারায়ণগঞ্জ নির্বাচন শান্তিপূর্ণ ও বিশ্বাসযোগ্য হয়েছে। ভোটগ্রহণে নিয়োজিত কর্মকর্তারা নিরপেতা বজায় রেখে দতা ও পেশাদারিত্বের সঙ্গে তাদের দায়িত্ব পালন করায় ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পেরেছেন। বৃহস্পতিবারের নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী পৌনে এক লাখ ভোটের ব্যবধানে বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে মেয়র নির্বাচিত হন। রিটার্নিং কর্মকর্তার ঘোষিত ফল অনুযায়ী, আইভী নৌকা পেয়েছে ১ লাখ ৭৫ হাজার ৬১১ ভোট। আর তার প্রতিদ্বন্দ্বী সাখাওয়াতের ধানের শীষ পেয়েছে ৯৬ হাজার ৪৪ ভোট।


রাতেই সাখাওয়াত হোসেন খান নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে ‘সন্তুষ্টি’র কথা বললেও ‘ভোট গণনায় ত্রুটি’ হয়েছে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেন। আর বিএনপি নির্বাচনের পরদিন শুক্রবার সংবাদ সম্মেলন করে মতাসীন দলের প্রার্থীকে জয়ী করতে কারচুপি হয়ে থাকতে পারে শংকা প্রকাশ করে ‘বিচার বিভাগীর তদন্ত’ দাবি করেছে। ইডব্লিউজির সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, নারায়ণগঞ্জ সিটির ১৭৪ ভোটকেন্দ্রের মধ্য থেকে দৈবচয়নের ভিত্তিতে ৩১টি কেন্দ্র বাছাই করে পর্যবেণ করা হয়। এর মধ্যে তিনটি কেন্দ্রের ভেতরে পর্যবেকদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি। ভোটকেন্দ্র খোলা থেকে বন্ধ ঘোষণা পর্যন্ত বাইরের পরিবেশসহ সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেণে বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। সব ভোটকেন্দ্রে বড় দুটি রাজনৈতিক দলের পোলিং এজেন্টদের উপস্থিতি ছিল।

 পোলিং এজেন্ট অথবা ভোটারদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়ার কোনো নজির দেখা যায়নি। কোনো প্রার্থী বা রাজনৈতিক দলের প্রার্থী বা এজেন্টদের কাছ থেকে অনিয়মের কোনো অভিযোগও পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে ইডব্লিউজি। ইডব্লিউজির পর্যবেণমতে, সকাল নারায়ণগঞ্জ সিটির র্বিাচনে সকাল ১০টা নাগাদ ২৪ শতাংশ, দুপুর ১টা নাগাদ ৪৫ শতাংশ ও বিকাল ৩টা নাগাদ ৫৬ শতাংশ ভোট পড়েছে। বিকাল ৪টার পর ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার পরপরই ভোটগণনা শুরু হয়। ৯৬ শতাংশ ভোটকেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং এজেন্ট ও পর্যবেকদের প্রবেশ নিশ্চিত করে ভোটগণনা শুরু হয়। গণনাকেন্দ্রে অযাচিত কোনো ব্যক্তির উপস্থিতি দেখা যায়নি।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top