রাত ২:৫৮, রবিবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট / তৃতীয় দিন শেষে ৩০৩ রান পিছিয়ে নিউ জিল্যান্ড
তৃতীয় দিন শেষে ৩০৩ রান পিছিয়ে নিউ জিল্যান্ড
January 14th, 2017


প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৫৯৫ রানের জবাবে ৩ উইকেট হারিয়ে ২৯২ রান তুলে তৃতীয় দিন শেষ করছে কেন উইলিয়ামসনের দল।

তিন সেশনে ৩ উইকেট, টম ল্যাথামের ষষ্ঠ শতকের ওপর ভর করে বাংলাদেশের বিশাল সংগ্রহের জবাব দিচ্ছে নিউ জিল্যান্ড। ল্যাথাম ১১৯ ও হেনরি নিকোলস ৩৫ রানে ব্যাট করছেন। ল্যাথাম-নিকোলসের অবিচ্ছিন্ন চতুর্থ উইকেট জুটিতে এসেছে ৮৭ রান।
 
দিনের শেষ বলে মেহেদী হাসান মিরাজের বলে সিলি পয়েন্টে সাব্বির রহমানের হাতে জীবন পান নড়বড়ে ব্যাটিং করা নিকোলস।
 
থিতু হওয়ার পরও বড় ইনিংস খেলতে পারেননি কেন উইলিয়ামসন ও রস টেইলর। তবে চারটি জুটিতেই অর্ধশতক পেয়েছে নিউ জিল্যান্ড।
 
নিজের প্রথম বলে জিত রাভালের উইকেট নেওয়া কামরুল ইসলাম রাব্বি পরে ফেরান টেইলরকে। এদিন তিনিই দলের সবচেয়ে সফল বোলার।
 
সাব্বিরের আরেকটি ব্যর্থতায় টেস্টে নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট থেকে বঞ্চিত হন তাসকিন আহমেদ। পরে নিউ জিল্যান্ড অধিনায়ক উইলিয়ামসনকে বিদায় করে এই সংস্করণে নিজের প্রথম উইকেট নেন তিনি।   
 
নিউ জিল্যান্ডে প্রথম স্পিনার হিসেবে প্রথম ইনিংসে বোলিং শুরু করা মিরাজ ভালো বল করেছেন। শেষ বলে সাব্বির ক্যাচ ধরতে পারলে অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসলও পেয়ে যেতেন ২৬ ওভার বল করা এই তরুণ। ১৬ ওভার করে উইকেটশূন্য অভিষিক্ত পেসার শুভাশীষ রায়।
 
দুটি কঠিন ক্যাচ ধরতে পারলে দিনটা আরও ভালো কাটতে পারতো মুশফিকুর রহিমের দলের।

ল্যাথামের ষষ্ঠ শতক
 
তাসকিন আহমেদের বলে চার হাঁকিয়ে শতকে পৌঁছান টম ল্যাথাম। টেস্টে এটি নিউ জিল্যান্ডের বাঁহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের ষষ্ঠ শতক।
 
১৬৭ বলে শতক করতে ১৩টি চার হাঁকান ল্যাথাম।
 
ল্যাথাম-নিকোলস জুটির অর্ধশতক
 
টানা চার উইকেটে অর্ধশত রানের জুটি পায় নিউ জিল্যান্ড। চতুর্থ উইকেটে টম ল্যাথাম-হেনরি নিকোলস পঞ্চাশে যেতে খেলেন ৭১ বল। আগের তিনটি জুটিতেও ছিলেন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ল্যাথাম।

বাংলাদেশের ব্যর্থ রিভিউ
 
৫৭তম ওভারে হেনরি নিকোলসকে করা মেহেদী হাসান মিরাজের বলে এলবিডব্লিউর জোরালো আবেদন করে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। তাতে আম্পায়ার সাড়া না দিলে রিভিউ নেন তামিম। ইম্প্যাক্ট অফ স্টাম্পের বাইরে আম্পায়ার্স কল থাকায় বেঁচে যান নিকোলস।

টেইলরকে ফেরালেন কামরুল
 
আক্রমণাত্মক ইনিংস খেলা রস টেইলরকে ফেরান কামরুল ইসলাম রাব্বি। কোমড় উচ্চতার বল পুল করতে গিয়ে স্কয়ার লেগে মাহমুদউল্লাহকে ক্যাচ দেন চোখের অস্ত্রোপচারের পর এই ম্যাচ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা টেইলর।
 
৫১ বলে ৪০ রান করে টেইলর ফেরার সময় নিউ জিল্যান্ডের স্কোর ২০৫/৩।
 
নিউ জিল্যান্ডের দুইশ’
 
টানা তিন অর্ধশত রানের জুটিতে ৪৬তম ওভারে দুইশ’ রানে যায় নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ। ৪৬ ওভার শেষে স্বাগতিকদের সংগ্রহ ২০৩/২।
 
ল্যাথাম-টেইলর জুটির অর্ধশতক
 
প্রথম তিন উইকেটেই অর্ধশত রানের জুটি গড়ে নিউ জিল্যান্ড। প্রথম দুই উইকেটে পঞ্চাশে লাগে ৭৮ বল করে। টম ল্যাথাম-রস টেইলরের তৃতীয় উইকেট জুটির অর্ধশতক আসে ৪৩ বলে।

দ্বিতীয় সেশনে উইলিয়ামসনের উইকেট
 
দ্বিতীয় সেশনে দ্রুত রান তোলার পথে কেন উইলিয়ামসনকে হারায় নিউ জিল্যান্ড। ২৫ ওভারে ১৩১ রান সংগ্রহ করে স্বাগতিকরা। চা-বিরতিতে যাওয়ার সময় নিউ জিল্যান্ডের স্কোর ৪৩ ওভারে ১৮৬/২। টম ল্যাথাম ৬৫ ও রস টেইলর ৩৬ রানে ব্যাট করছেন।
 
নিজের দ্বিতীয় স্পেলে উইলিয়ামসনকে ফিরিয়ে টেস্টে প্রথম উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ।

আক্রমণে সাকিব
 
রস টেইলর ব্যাটিং আসা মাত্র আক্রমণে আসেন সাকিব আল হাসান। চোখের অস্ত্রোপচারের পর এই ম্যাচ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা টেইলরের বিপক্ষে বাঁহাতি স্পিনাররা বেশ সফল।

তাসকিনের প্রথম টেস্ট উইকেট উইলিয়ামসন
 

ওয়ানডেতে দুইবার কেন উইলিয়ামসনকে ফেরানো তাসকিন আহমেদ নিউ জিল্যান্ড অধিনায়ককে দিয়েই শুরু করেন টেস্ট উইকেট শিকার। চার হাঁকিয়ে অর্ধশতকে পৌঁছানোর পরের বলেই ফিরেন উইলিয়ামসন। অফ স্টাম্পের বাইরের বল খেলতে গিয়ে ক্যাচ দেন ইমরুল কায়েসকে।
 
৫৫ বলে ৮টি চারে ৫৩ রান রান করেন উইলিয়ামসন। অধিনায়ক ফেরার সময় নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ১৩১/২।

ল্যাথামের অর্ধশতক

মেহেদী হাসান মিরাজের বলে ১ রান নিয়ে অর্ধশতকে পৌঁছান টম ল্যাথাম। বাঁহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান অর্ধশতকে পেতে খেলেন ১০৮ বল, হাঁকান ৬টি চার।

ল্যাথাম-উইলিয়ামসন জুটির অর্ধশতক

নিউ জিল্যান্ডের দ্বিতীয় উইকেট জুটিতেও আসে অর্ধশতক। টম ল্যাথাম-কেন উইলিয়ামসন ১৩ ওভারে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন। ৩০ ওভার শেষে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ১১০/১।

নিউ জিল্যান্ডের একশ’

কামরুল ইসলাম রাব্বির বলে কেন উইলিয়ামসনের চারে একশ’ পার হয় নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ। এক দিকে সতর্ক টম ল্যাথাম। অন্য দিকে বোলারদের ওপর চড়াও হন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন।

২৯ ওভার শেষে নিউ জিল্যান্ডের স্কোর ১০২/১।

লাঞ্চের আগে ভাঙল উদ্বোধনী জুটি

৮ উইকেটে ৫৯৫ রানে ইনিংস ঘোষণার পর লাঞ্চের আগেই নিউ জিল্যান্ডের উদ্বোধনী জুটি ভেঙেছে বাংলাদেশ। তৃতীয় দিনের প্রথম সেশন শেষে স্বাগতিকদের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৫৫।

টম ল্যাথাম ২৭ ও কেন উইলিয়ামসন ১ রানে ব্যাট করছেন।

স্পিন দিয়ে বোলিং আক্রমণ শুরু করে নিউ জিল্যান্ডকে চমকে দেয় বাংলাদেশ। অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ উইকেট পেতে পারতেন নিজের দ্বিতীয় ওভারে। একটুর জন্য স্লিপে যায়নি জিত রাভালের ক্যাচ। নিজের প্রথম বলেই আঘাত হানেন কামরুল ইসলাম রাব্বি। টেস্টে নিজের প্রথম ওভারে উইকেট পেতে পারতেন তাসকিন আহমেদও। সাব্বির রহমান স্লিপে রাভালের ক্যাচ ছাড়ায় তা আর হয়নি।

এসেই কামরুলের আঘাত

মেহেদী হাসান মিরাজের জায়গায় বোলিংয়ে এসেই আঘাত হানেন কামরুল ইসলাম রাব্বি। অফ স্টাম্পের বাইরের বলে ইমরুল কায়েসকে সহজ ক্যাচ দেন জিত রাভাল।

২৭ রান করে উদ্বোধনী এই ব্যাটসম্যানের ফেরার সময় নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ৫৪/১।

ল্যাথাম-রাভাল জুটির অর্ধশতক

বাংলাদেশের বিশাল সংগ্রহের জবাব দিতে নেমে টম ল্যাথাম ও জিত রাভালের অর্ধশত রানের জুটি নিউ জিল্যান্ডকে ভালো সূচনা এনে দেয়। ৩৫ রানে ভাঙতে পারতো স্বাগতিকদের উদ্বোধনী জুটি। টেস্ট ক্রিকেটে তাসকিন আহমেদের প্রথম ওভারে রাভালের ক্যাচ ধরতে পারেননি সাব্বির রহমান।

১৩ ওভার শেষে নিউ জিল্যান্ডের স্কোর ৫০/০।

রাভালকে জীবন দিলেন সাব্বির

টেস্ট ক্রিকেটে নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট পেতে পারতেন তাসকিন আহমেদ। জিত রাভালের ব্যাটের কানা ছুঁয়ে আসা নীচু সহজ ক্যাচ থার্ড স্লিপে হাতে জমাতে পারেননি দলের অন্যতম সেরা ফিল্ডার সাব্বির রহমান। সে সময় ২৪ রানে ব্যাট করছিলেন নিউ জিল্যান্ডের বাঁহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান।

মিরাজকে দিয়ে বাংলাদেশের শুরু

অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজকে দিয়ে বোলিং শুরু করে বাংলাদেশ। নিজের দ্বিতীয় ওভারেই সুযোগ তৈরি করেন এই তরুণ। একটুর জন্য স্লিপ ফিল্ডারের হাতে যায়নি জিত রাভালের ক্যাচ।

মুশফিকের বদলে কিপিংয়ে ইমরুল

নিউ জিল্যান্ড ইনিংসের শুরুতে উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়েছেন ইমরুল কায়েস। ব্যাটিংয়ের সময় আঙুলে চোট পাওয়ায় কিপিং করেননি মুশফিকুর রহিম। তার জায়গায় ফিল্ডিংয়ে নামেন সৌম্য সরকার। ২০১৫ সালের এপ্রিলে পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনা টেস্টেও মুশফিকের চোটে কিপিং করেছিলেন ইমরুল।

অভিজ্ঞতা আছে কেবল সাকিবের

বাংলাদেশের পাঁচ বোলারের মধ্যে দেশের বাইরে টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা আছে কেবল অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের। নিজেদের প্রথম টেস্ট খেলছেন তাসকিন আহমেদ ও শুভাশীষ রায়। কামরুল ইসলাম রাব্বি ও মেহেদী হাসান মিরাজ দুটি করে টেস্ট খেলেছেন দেশের মাটিতে, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে।

বাংলাদেশের ইনিংস ঘোষণা

আগের দিনই মুশফিকুর রহিম জানিয়েছিলেন, নিউ জিল্যান্ডকে চাপে ফেলতে তৃতীয় দিন আরও ৫০ রান চাই তাদের। সেই রান হয়ে যেতেই ইনিংস ঘোষণা করেন অধিনায়ক। এরই মধ্যে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় অর্ধশতক তুলে নেন সাব্বির রহমান।

৮ উইকেটে ৫৯৫ রানে ইনিংস ঘোষণা আসায় ব্যাটিংয়ে নামা হয়নি অভিষিক্ত শুভাশীষ রায়ের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ১৫২ ওভারে ৫৯৫/৮ ইনিংস ঘোষণা (তামিম ৫৬, ইমরুল ১, মুমিনুল ৬৪, মাহমুদউল্লাহ ২৬, সাকিব ২১৭, মুশফিক ১৫৯, সাব্বির ৫৪*, মিরাজ ০, তাসকিন ৩, রাব্বি ৬*; বোল্ট ২/১৩১, সাউদি ২/১৫৮, ডি গ্র্যান্ডহোম ০/৬৫, ওয়াগনার ৪/১৫১ স্যান্টনার ০/৬২, উইলিয়ামসন ০/২০)।

সাব্বিরের অর্ধশতক

নিল ওয়াগনারকে চার হাঁকিয়ে অর্ধশতকে পৌঁছান সাব্বির রহমান। দেশের বাইরে নিজের প্রথম টেস্ট ইনিংসে পঞ্চাশ স্পর্শ করলেন এই তরুণ। তখন দলের রান ৫৯৩/৮।

সাব্বিরের অর্ধশতক আসে ৮৫ বলে, ৭টি চারে। তিন টেস্টের ছোট্ট ক্যারিয়ারে এটি তার দ্বিতীয় অর্ধশতক।

আধ ঘণ্টা টিকলেন তাসকিন

অভিষেক টেস্টে নিজের প্রথম ইনিংসে আধ ঘণ্টা টিকে থেকে ৩ রান করে ফিরেন তাসকিন আহমেদ। নিল ওয়াগনারের বলে স্লিপে টিম সাউদিকে ক্যাচ দিয়ে এই পেসারের ফেরার সময় দলের সংগ্রহ তখন ৫৬৬/৮।

জীবন পেলেন সাব্বির

ট্রেন্ট বোল্টের বলে সাব্বির রহমানকে জীবন দেন টম ল্যাথাম। অফ স্টাম্পের বাইরের বল পুল করার চেষ্টায় টাইমিং করতে পারেননি বাংলাদেশের শেষ বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান। মিড অনে আসা সহজ ক্যাচ তালুতে জমাতে পারেননি ল্যাথাম। সে সময় ৩১ রানে ব্যাট করছিলেন সাব্বির। তৃতীয় দিন আরও ৫০ রান যোগ করার লক্ষ্য পূরণে এই তরুণের দিকেই তাকিয়ে দল।

সাড়ে পাঁচশ রান পার

সাব্বির রহমান আর তাসকিন আহমেদের জুটিতে তৃতীয় দিনের শুরুতেই সাড়ে পাঁচশ রান ছাড়ায় বাংলাদেশ দল। টেস্টে এ নিয়ে চতুর্থবার ৫৫০ ছাড়াল তারা।

১৩৯ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ৫৫৭/৭। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে তাদের এর চেয়ে বড় স্কোর আছে আর একটিই। ২০১৩ সালে গলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৬৩৮।  

মুশফিকের লক্ষ্য বড় লিড

স্বপ্নের মতো কেটেছে একটি দিন, স্বপ্নের মতোই কাটবে প্রথম টেস্ট, যদি ফল পক্ষে আনা যায়। জিততে প্রাণপণ চেষ্টা থাকবে বাংলাদেশের। অতিথিদের চাপে ফেলতে সবার আগে বড় লিড চান অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। নিউ জিল্যান্ডে এর আগে কখনও লিড নিতে পারেনি পারেনি তার দেশ।  

আরও ৫০ রান চাই বাংলাদেশের

নিউ জিল্যান্ডকে চাপে ফেলতে প্রথম ইনিংসে তৃতীয় দিন আরও অন্তত ৫০ রান সংগ্রহ করতে চায় বাংলাদেশ। ওয়েলিংটনের বেসিন রিজার্ভে শনিবার ৭ উইকেটে ৫৪২ রান নিয়ে খেলা শুরু করে তারা। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের বিশ্বাস, সাব্বির রহমানকে ঘিরে টেলএন্ডাররা খেললে ছয়শ’ রানের কাছাকাছি সংগ্রহ গড়া সম্ভব।

বোলারদের জন্য কিছু আছে

অনেক রেকর্ড গড়া ৩৫৯ রানের জুটি উপহার দেওয়া মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসানের বিশ্বাস, উইকেট পুরোপুরি ফ্ল্যাট নয়, বোলারদের জন্য কিছু এখনও আছে। ভালো জায়গায় বল করে চাপ ধরে রাখতে পারলে উইকেট পাওয়া সম্ভব।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top