রাত ১২:৪০, সোমবার, ২৩শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য
টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য
মে ১৯, ২০১৭

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে লক্ষ্য সুনির্দিষ্ট -দারিদ্রমুক্ত বিশ্ব গঠন, যা হবে টেকসই এবং যেখানে আরো বেশি বেশি লোকের কাছে পৌছবে সমৃদ্ধির সুফল। এ সুফল পৌছাতে কতিপয় করণীয় তুলে ধরা হয়েছে। যেমন সুস্বাস্থ্য, উন্নত শিক্ষা, নারী-পুরুষ সমতা জলবায়ুর জন্য পদক্ষেপ, বিশুদ্ধ পানি ও পয়ঃনিস্কাশন, টেকসই শহর ও সমাজ ইত্যাদি। জাতিসংঘের ১৯৩টি সদস্য রাষ্ট্র পনের সালে সর্বসম্মতভাবে টেকসই উন্নয়ন বা এসডিজির লক্ষ্য গ্রহণ করেছে। এ লক্ষ্য অর্জনের জন্য সময়সূচি ও সুনির্দিষ্ট গত বছরের প্রথম দিন থেকে ১৫ বছর।


সন্দেহ নেই ২০০০ সালে গৃহীত মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল এমডিজি বাস্তবায়নের মাধ্যমে অন্তত ৭০ কোটি মানুষকে দারিদ্র মুক্ত করার সাফল্যই টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্য নির্ধারণে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। আরও উন্নত পৃথিবীর জন্যই মানব- জাতির এ স্বপ্ন এবং তা পূরণে প্রতিটি দেশ অবদান রাখবে- এটাই আমাদের প্রত্যাশা। জাতিসংঘ নির্ধারিত টেকসই উন্নয়ন বা এসডিজিতেও বাংলাদেশ নেতৃত্বদানের সক্ষমতা দেখাচ্ছে এবং এ সাফল্যকে প্রশংসার দৃষ্টিতেই দেখছে বিশ্ব সমাজ।


 এর আগে মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল বা এমডিজি লক্ষ্য অর্জনে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে এগিয়ে থাকার ঈর্ষণীয় সাফল্য দেখাতে সক্ষম হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে  বাংলাদেশের সাফল্যকে এখন মডেল হিসেবেও বিবেচনা করা হয়। একই সঙ্গে সমৃদ্ধির সর্বোচ্চ শিখরে পৌছতে জাতীয়ভাবেও নিতে হবে সমন্বিত পরিকল্পনা। আর তা বাস্তবায়নে চালাতে হবে দলমত নির্বিশেষে সম্মিলিত প্রচেষ্টা।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top