বিকাল ৪:১২, শুক্রবার, ২৮শে এপ্রিল, ২০১৭ ইং
/ শিক্ষা / টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া দৌড় রেকর্ড গড়লেন ঢাবি শিক্ষার্র্থী
টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া দৌড় রেকর্ড গড়লেন ঢাবি শিক্ষার্র্থী
মার্চ ১১, ২০১৭

ঢাবি প্রতিনিধি : দেশের প্রথম মানব হিসেবে টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া দৌড়ে পাড়ি দেওয়ার রেকর্ড গড়লেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র। বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের ১৬ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মোহাম্মাদ সামছুজ্জামান আরাফাত এ কীর্তি গড়েন।

শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আরাফাতের এ কীর্তির কথা তুলে ধরা হয়। এ বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি টেকনাফের নোয়াপাড়া পরিবেশ টাওয়ার থেকে ‘দ্য গ্রেট বাংলাদেশ রান- রান ফর হেলদি বাংলাদেশ’ এর যাত্রা শুরু হয় এবং ৬ মার্চ তেতুলিয়ার বাংলাবান্ধার জিরো পয়েন্টে শেষ হয়। স্থানীয় মানুষজন তাকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানায়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ,উপজেলা চেয়ারম্যান, বাংলাবান্ধার ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নেয়। তার এই ম্যারাথন দৌড়ে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৫০ কি.মি. এর বেশি পথ পাড়ি দিয়েছেন। তার লক্ষ্যে পৌছাতে তিনি ২০ দিন সময় নেন। এই ২০ দিনে তিনি ১০০৪ কি.মি. পথ পাড়ি দিয়েছেন।

তিনি বলেন, এ যাত্রা মোটেও সহজ ছিলো না। হাটুর ইনজুরি নিয়ে প্রায় ১৫ দিনের মতো দৌড়েছি আমি। এর মধ্যে সবচেয়ে কঠিন ছিলো যমুনা সেতু পার হওয়া। যমুনা সেতুর উপর দৌড়ানোর অনুমতি পাই নাই । আমাকে এই প্রবল খরস্রোতা নদী সাতরে পার হতে হয়েছে। আমার এই অর্জনের পিছনে যাদের অবদান আছে তাদের সবার কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আমার এই দৌড়ানোর উদ্দেশ্য হলো–দেশের মানুষকে সুস্থ থাকার জন্য দৌড়ের কোনো বিকল্প নেই এবং মানুষকে ম্যারাথনে আগ্রহী করে তোলা। এনআরবি ব্যাংকে কর্মরত আরাফাত বলেন, একদিন অলিম্পিক সোনা জিতে আনবে বাংলাদেশ। নতুন প্রজন্মের কাছে খেলাধুলাকে তুলে ধরতে চাই। সুস্থ ও সুন্দরভাবে বাঁচার জন্য প্রতিদিন অন্তত ১ কি.মি. দৌড়ান। নিজে সুস্থ থাকুন, পরিবারকেও সুস্থ রাখুন। এসময় তিনি  পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য এনআরবি কমার্সিয়াল ব্যাংকের কাছে বিশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top