সকাল ৮:৩৯, সোমবার, ২৪শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / জঙ্গিবিরোধী অভিযান
জঙ্গিবিরোধী অভিযান
মে ১৪, ২০১৭

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার বেনীপুর গ্রামে জঙ্গি আস্তানায় পুলিশের শ্বাসরুদ্ধকর ‘সান ডেভিল’ অপারেশন চলাকালে আত্মঘাতী বিস্ফোরণে এক নারী সহ ৫ জঙ্গি নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে চারজন একই পরিবারের। বৃহস্পতিবার সকালে এ জঙ্গি আস্তানায় অভিযানকালে জঙ্গিদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গোদাগাড়ী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মি আব্দুল মতিনও নিহত হন।

 

৩৬ ঘন্টা পর শুক্রবার দুপুরে অভিযানের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষণা করেন রাজশাহী রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (অপারেশন) নিশারুল আরিফ। জঙ্গি আস্তানা থেকে এক নারী আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন। এ সময় সেখান থেকে উদ্ধার করা হয় দুই শিশুকে।

 

 জঙ্গি আস্তানা থেকে পুলিশ বেশ কিছু বোমা, একটি পিস্তল, দুটি সুইসাইড ভেষ্ট এবং গান পাউডারও উদ্ধার করেছে। জঙ্গিবাদ একটি আন্তর্জাতিক সমস্যা। এটা দেশে দেশে দেখা দিচ্ছে। ইতিমধ্যে জঙ্গিদের মধ্যে আত্মঘাতী হামলা ও পারিবারিক ইউনিট গড়ে তোলার এক ধরনের প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

 

ইতিপূর্বে আতিয়া মহলের বাইরের দুটি বিস্ফোরণের একটি আত্মঘাতী ছিল বলে জাতীয় গণমাধ্যমেই খবর ছিল। এবারও গোদাগাড়ীতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এ অবস্থায় জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান না নেওয়ার উপায় নেই।


 স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও দেশের স্থিতিশীলতার জন্য যে কোনো মূল্যে এ ব্যাধির মূলোৎপাটনের চেষ্টা নিতে হবে। আশার কথা, চৌকস আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতার কারণে জঙ্গিদের অপচেষ্টা একের পর এক ব্যর্থতায় পর্যবসিত হচ্ছে। তবে সবাইকে আরো সতর্ক থাকতে হবে।

 

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন ও সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে। অস্বীকার করার উপায় নেই, ধর্মীয় অপব্যাখ্যার মাধ্যমেই তরুণদের জঙ্গিবাদে জড়ানো হচ্ছে। ফলে ধর্মের সঠিক শিক্ষা ও উপলব্ধি ছড়িয়ে দিতে হবে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও সচেতন নাগরিক সমাজের যৌথ উদ্যোগই পারে সব ধরনের জঙ্গিবাদ রুখে দিতে।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top