দুপুর ২:৫৩, শনিবার, ২২শে জুলাই, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / চীনের এক অঞ্চল, এক পথ
চীনের এক অঞ্চল, এক পথ
মে ১৭, ২০১৭

চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং তার এক অঞ্চল, এক পথ বা নতুন রেশম পথের উদ্যোগে বাড়তি কয়েক হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। সি চিন পিং তার পররাষ্ট্র নীতির এই উদ্যোগকে অন্তর্ভুক্তিমূলক উল্লেখ করে, এটি যাতে পুরোনো বৈরিতা আর ক্ষমতার লড়াইয়ে জিম্মি না হয়ে গড়ে সেটিও উল্লেখ করেছেন। গত রোববারের চীনের রাজধানী বেইজিং-এ দুইদিনের সম্মেলনের আলোচনার প্রথম দিনে মূল বক্তৃতায় সি চিন পিং এ কথা বলেন।


 রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এর দোয়ান, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ, শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে সহ অন্তত ২৯টি দেশের সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানেরা এতে অংশ নিয়েছিলেন।

এর মধ্যে ভারত এই সম্মেলনে অংশ না নিলেও বাংলাদেশ সহ অন্য দেশগুলো প্রতিনিধি পাঠিয়েছে। নাম উল্লেখ না করলেও পুরানো বৈরিতা আর ক্ষমতার লড়াই, বলতে সিচিন পিং তার বক্তৃতায় ভারতের কথাই বুঝিয়েছেন। কারণ এক অঞ্চল এক পথ (ওবিওআর) নামের তার এই উদ্যোগের অন্যতম প্রকল্প চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোর (সিপিইসি) পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের মধ্যে দিয়ে গেছে বলে নতুন রেশম পথের উদ্যোগের বিরোধিতা করছে ভারত।

 ভারত এই ভূখন্ডকে সব সময়ই নিজেদের বলে দাবি করে থাকে। বিশ্বায়নের এই যুগে চীনের উঠতি নেতৃত্বের জানান দিতে বেইজিংয়ে আয়োজন করা দুদিনের সম্মেলনটি মূলত সিচিন পিংয়ের বহুল প্রত্যাশিত ওয়ান বেল্ট ওয়ান রোড প্রকল্পটি উপস্থাপনের একটি প্লাট ফর্ম।

বলা হচ্ছে, এই প্রকল্প বিশ্ব বাণিজ্য ও ভূ-রাজনীতিতে চীনের বিদ্যমান শক্তিশালী অবস্থানকে আরও দৃঢ় করবে। ভারতের নাম উল্লেখ না করে চীনের প্রেসিডেন্ট বলেন, ওবিও আর থেকে বিচ্ছিন্ন থাকলে পিছিয়ে পড়তে হবে। ওবিওআর প্রকল্পে অতিরিক্ত ১২ হাজার ৪০০ কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top