বিকাল ৫:০১, রবিবার, ২৬শে মার্চ, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / চাঙ্গা হচ্ছে জাতীয় অর্থনীতি
চাঙ্গা হচ্ছে জাতীয় অর্থনীতি
জানুয়ারি ৪, ২০১৭

 

চাঙ্গা হচ্ছে দেশের অর্থনীতি, এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। বিজয়ের ৪৫ বছর বাংলাদেশের অর্থনীতির এমন অর্জনকে বিস্ময়কর বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদরা। ১৯৭২-৭৩ অর্থ বছরে মাত্র ৩৪ কোটি মার্কিন ডলারের রফতানি আয় গত অর্থ বছরে ৩ হাজার ৪শ কোটি ডলার ছাড়িয়েছে। মেশিনারিজ আমদানির তথ্যই বলছে, দেশে এখন বিনিয়োগ উপযোগী পরিবেশ বিরাজ করছে।

 একই সময়ে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১৫ শতকের বেশি। আগের বছরের চেয়ে সহনীয় পর্যায়ে রয়েছে মূল্যস্ফীতি। একই সঙ্গে সর্বোচ্চ উচ্চতায় অবস্থান করছে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ। বৈদেশিক মুদ্রার বিনিময় হার, রেমিটেন্স প্রবাহ, বৈদেশিক লেনদেন ভারসাম্যসহ সব সূচকেই এখন উর্ধ্বমুখী ধারায় অবস্থান করছে। সঞ্চয়পত্র বিক্রি বাড়ায় ব্যাংক থেকে সরকারের ঋণ নেয়ার প্রবণতাও কমে আসছে। জানা গেছে, ১৯৭১ সালে অর্থনৈতিক মুক্তির স্বপ্ন নিয়ে পাকিস্তানি শোষণ-শাসনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছিল বাঙালি জাতি।

 স্বাধীনতার পর চার দশক পর সে স্বপ্ন অর্জনের পথে অনেকটাই এগিয়েছে দেশ। আর তা পূরণের সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে রফতানি খাত। যুদ্ধ পরবর্তী সময়ের রফতানি খাত কাঁচা চামড়া ও পাট নির্ভর হলেও সময়ের আবর্তনে সে তালিকায় যুক্ত হয়েছে তৈরি পোশাক, হিমায়িত খাদ্য, চামড়াজাত পণ্য, জাহাজ নির্মাণসহ হাল্কা ও মাঝারি শিল্পের নানা পণ্য। ১৯৭২-৭৩ অর্থ বছরে মাত্র ৩৪ কোটি মার্কিন ডলারের রফতানি আয় গত অর্থ বছরে পৌছেছে প্রায় ৩ হাজার ৪শ কোটি ডলারে। মাথাপিছু কম জমি নিয়ে আর কোন দেশ অর্থনৈতিক উন্নয়নে এমন ইতিহাস করেনি।


 আমাদের বিশ্ব অর্থনীতির সাথে ক্রমাগত ভাবে বেশি করে সংযুক্ত হতে হবে। যে শিল্প পণ্যগুলো বহুমুখী করে রফতানি করব, সে গুলোর কাঁচামাল এবং মধ্যবর্তী পণ্য আমাদের আমদানি করতে হবে। এটাই এখন চ্যালেঞ্জ। অর্থ বছরের জুলাই-নভেম্বর মেয়াদে অর্থাৎ অর্থ বছরের প্রথম ৫ মাসে রফতানি খাতে আয় হয়েছে ১ হাজার ৩৬৯ কোটি ৯ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলার।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top