রাত ২:১৫, শুক্রবার, ২৫শে মে, ২০১৭ ইং
/ উপ-সম্পাদকীয় / খোকার আজ জন্মদিন
খোকার আজ জন্মদিন
মার্চ ১৬, ২০১৭

মোঃ মিম পোদ্দার : ৭ মার্চ, ১৯২০ সাল। ফরিদপুর জেলার গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া গ্রাম। জন্ম হল একটি শিশুর; জন্ম হল একটি কণ্ঠস্বরের। বীজ বোপিত হল একটি ঐতিহাসিক সংগ্রামের; একটি স্বাধীনতার, একটি বীরত্বগাঁথার।স্কুল জীবন থেকেই শিশুটির রাজনৈতিক ব্যক্তিস্বত্তার প্রকাশ ঘটতে থাকে, যার প্রাতিষ্ঠানিক বহিঃপ্রকাশ ঘটে তৎকালীন মুসলীম লীগের রাজনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িত হওয়ার মধ্য দিয়ে। শিশুটি যত বড় হতে থাকে সাহসী ও প্রতিবাদী মানসিকতা তাঁর ব্যক্তিসত্বাকে দাঁড় করাতে থাকে এক মজবুত ভিত্তির উপর।
শিশুটি যখন সবেমাত্র স্কুল পড়–য়া ছাত্র, সে সময়েই একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের জের ধরে কংগ্রেস ও অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতাদের রোষানলের শিকার হয়ে কারাবরণ করতে হয় তাঁকে। সেই থেকেই কারাবরনের শুরু।

 রাজনৈতিক ২৩ বছরের মধ্যে ১২ বছরের বেশি সময়ই কারাগারে কাটাতে হয় তাঁকে। তিনি ছিলেন নির্যাতিত ও নিপীড়িত মানুষের নেতা। ন্যায়ের প্রশ্নে তিনি নিরপেক্ষ, নীতির প্রশ্নে আপোসহীন; দাবিতে অনমনীয় আর সংগ্রামে অকুতোভয়। তিনি ছিলেন স্বাধীনচেতা ; আর বাংলার অবিসংবাদিত নেতা। শিশুটি বাঙালি জাতির জনক; তিনি ছিলেন খোকা, তিনিই বঙ্গবন্ধু। শিশুটি শেখ মুজিবুর রহমান !

এই শিশুটিই একটি পরাধীন জাতিকে জাতীয় চেতনার সূদৃঢ় ছায়াতলে একত্রিত করতে পেরেছিলেন। এই শিশুটিই ঐতিহাসিক ছয় দফা-কে এক দফায় রূপান্তর করতে পেরেছিলেন। পেরেছিলেন বজ্র কণ্ঠে একটি পরাধীন, নির্যাতিত, শোষিত জাতির স্বাধীনতাকে ঘোষণা করতে। মানুষের জন্য, অধিকারের জন্য; মুক্তির জন্য এই শিশুটিই তৎকালীন সময়ের একটি উন্নততর ও শক্তিশালী সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধের দামামা বাজাতে পেরেছিলেন। আর হ্যাঁ- অধিকার কিম্বা মুক্তি, কিম্বা স্বাধীনতা, কিম্বা বাংলাদেশ- যাই বলি না কেন, সে তো এনে দিয়েছে সেই সে শিশুটিই।

তাই তো স্বাধীনতার ৪৫ বছর পরও শত ষড়যন্ত্রের নিকষ অন্ধকারে কবি শুনতে পান সেই ডাক, খুঁজে পান সেই নির্ভরতা!!
”পরাজিত শক্তি যখন হেঁটে বেড়ায় বিজয়ীর বেশে/ যখন ফুলেরা কাঁদে, হায়েনারা হাসে;/ যখন মানুষ ঘুমায়, পশুরা জাগে;/ তখন আমার ঠিকানায় আসে সেই পুরনো পত্র/ তখন আমার কানে ভাসে সেই পুরনো ছত্র/ ” এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম/ এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম.. জয় বাংলা”।
    
আজ সেই শিশুর, সেই অবিসংবাদিত নেতার, স্বাধীন বাংলার স্থপতি, ইতিহাসের মহানায়ক, বাঙ্গালি জাতির জনক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৭তম জন্মবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি তাঁকে। সেই সাথে রইলো একটি ঐকান্তিক প্রত্যাশা- বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলার রূপকার বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরতœ শেখ হাসিনার হাত ধরে নবীনদের মেধা দেশ গড়ার কাজে লাগুক, স্বাধীনতার মূলমন্ত্রে বিধৌত হোক নতুন প্রজন্মের বিবেক ও চেতনা। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারন করে নতুনদের লড়াই হোক মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে আর সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে-
লেখক ঃ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, বগুড়া জেলা শাখা।
                     ০১৬৭১-৯০৭৮৮২    



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top