সকাল ৯:৩৯, শুক্রবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ইং
/ রাজশাহী / কুড়িগ্রামে দুর্ভোগে ১৫ গ্রামের ৪০ হাজার মানুষ
ব্রিজের এক পাশের সংযোগ বিচ্ছিন্ন
কুড়িগ্রামে দুর্ভোগে ১৫ গ্রামের ৪০ হাজার মানুষ
January 5th, 2017

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার পৌরসভা এলাকায় বালাঘাট ব্রিজটির একপাশ ভেঙে সংযোগ রাস্তা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে একদিকে হেলে গেছে। পাশাপাশি বিচ্ছিন্ন এ অংশে কাঠ বসিয়ে ব্রিজের সাথে সংযোগ ঘটিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করছে লোকজন। এ অবস্থায় নির্বিঘেœ যাতায়াত ও মালপত্র আনা-নেয়ায় দুর্ভোগে পড়েছে ১৫ গ্রামের প্রায় ৪০ হাজার মানুষ। এলাকাবাসী জানায়, দেড়যুগ আগে নাগেশ্বরী পৌরসভার গোদ্ধারের পাড়, মোছলিয়া ও মেছনি বিলের সংযোগ স্থলে বালাঘাট ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়।

ওই ব্রিজটি দিয়ে উপজেলার কানিপাড়া, জোলাপাড়া, টাপুরচর, নেয়াখালীপাড়া, সাতানিপাড়া, হিন্দুপাড়া, মুন্সীটারী, পঞ্চায়েতপাড়া, ফকিকের হাট, নেওয়াশী, খরিবাড়ী গ্রামের মানুষ যাতায়াত করেন।  গত বন্যার সময় ব্রিজটির দুই মোখার সংযোগ সড়ক ভেঙে ব্রিজটি হেলে পড়ে। ফলে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আশঙ্কায় পড়েছে ১৫ গ্রামের প্রায় ৪০ হাজার মানুষ। স্থানীয়রা ভাঙা সংযোগ সড়ক ও ব্রিজের বিচ্ছিন্ন পাশে কাঠের চরাটি দিয়ে পারাপারের ব্যবস্থা করলেও তা ঝুঁকিপূর্ণ। তারপরেও প্রতিদিন দুর্ঘটনার আশঙ্কা নিয়েই ব্রিজের উপর দিয়ে যাতায়াত করছেন পথচারী, সাইকেল আরোহী ও রিকসা চালকরা। তবে ভারী কোন জিনিসপত্র ব্রিজের উপর দিয়ে আনা নেয়া করতে পারছেন না কেউ। এলাকাবাসীর দাবি পুরাতন ব্রিজটি ভেঙে ফেলে নতুন ব্রিজ নির্মাণ করা হোক।

মোছলিয়া গ্রামের আবেদ আলী জানান, এই ব্রিজের কারণে আমরা এলাকাবাসী যানবাহন নিয়ে ভালোভাবে চলাফেরা করতে পারি না। কোন মালামাল আনা নেয়া করতে পারি না। আমরা এলাকাবাসী দাবি জানাই দ্রুত এখানে একটি নতুন ব্রিজ নির্মাণ করা হোক। কানিপাড়া গ্রামের শামসুল হক বলেন, আমরা গত বন্যার পর থেকে নাগেশ্বরী পৌরসভার মেয়রকে ব্রিজ নির্মাণের কথা জানাচ্ছি। কিন্তু কোন কাজ হচ্ছে না। এই ভাঙা ব্রিজে বিভিন্ন সময় দুর্ঘটনা ঘটছে। বিশেষ করে রাতের বেলা। ব্রিজটির একপাশ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় আমাদের যানবাহন দিয়ে জিনিষপত্র আনা-নেয়া করতে ভীষণ অসুবিধা হচ্ছে। এ ব্যাপারে নাগেশ্বরী পৌরসভার পৌর মেয়র আব্দুর রহমান জানান, ব্রিজটির একপাশ বিচ্ছিন্ন হয়ে লোকজনের চলাচলে অসুবিধা হচ্ছে। আমি ব্যবস্থা নিতে প্রকৌশলীকে বলেছি। চলতি অর্থবছরে এখানে নতুন ব্রিজের কাজ হয়ে যাবে আশা করছি।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top