দুপুর ১:০৩, শনিবার, ২৪শে জুন, ২০১৭ ইং
/ আর্ন্তাজাতিক / কাস্ত্রোর নামে নামকরণে নিষেধাজ্ঞার আইন কিউবায়
কাস্ত্রোর নামে নামকরণে নিষেধাজ্ঞার আইন কিউবায়
ডিসেম্বর ২৮, ২০১৬

করতোয়া ডেস্ক : কিউবার প্রয়াত নেতা ফিদেল কাস্ত্রোর কোনো স্মারক মূর্তি বা তার নামে কোনো স্থানের নামকরণের বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করে একটি আইন পাস করেছে কিউবার জাতীয় আইন পরিষদ। নভেম্বর মাসে মারা যাওয়া বিপ্লবী নেতা ফিদেলের ইচ্ছার প্রতি সম্মান দেখিয়ে করা আইনটি মঙ্গলবার পাস হয়েছে। ফিদেল সব সময় বলে এসেছেন, ব্যক্তিপূজা হোক তা তিনি চান না।

 কিউবার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়েছে, আইন পরিষদে প্রেসিডেন্ট রাউল কাস্ত্রো বলেছেন, “কিউবার সব বিপ্লবীর মধ্যে তার লড়াইয়ের চেতনা আজ, আগামীকাল এবং সব সময়য়ের জন্য জাগ্রত থাকবে।”


‘এল কমাদান্তে’কে শ্রদ্ধা জানানোর সবচেয়ে সেরা উপায় তার বিপ্লবী চেতনাকে ধারণ করা, বলেন প্রেসিডেন্ট রাউল। তবে সমালোচকদের দাবি, কিউবার সবখানেই ব্যক্তি ফিদেলের ‘পূজা’ চলছে। সারা দেশজুড়ে ফিদেলে উদ্ধৃতি দিয়ে বড় বড় বিলবোর্ডে টানানো হয়েছে। প্রতিটি সরকারি অনুষ্ঠানে তার নাম নেওয়া হচ্ছে।  নতুন আইনে সংগীত, সাহিত্য, নৃত্য, চলচ্চিত্র ও শিল্পের অন্যান্য মূর্ত রূপে ফিদেল কাস্ত্রোর অবয়ব বা ব্যক্তিত্বের ব্যবহারে কোনো ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়নি বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। বিভিন্ন দপ্তরে, পাঠাগারে বা সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে ফিদেলের ছবি রাখা যাবে।

 ২৫ নভেম্বর ৯০ বছর বয়সে ফিদেল মৃত্যুবরণ করেন। তারপর থেকে সামরিক পোশাক পড়া, রাইফেল কাঁধে ও পিঠে ব্যাগপ্যাক চাপানো তরুণ বিপ্লবী ফিদেল কাস্ত্রোর একটি বিশাল ছবি হাভানার রেভ্যুলুশন স্কয়ারের একটি ভবনে টাঙিয়ে রাখা হয়েছে। গত শতাব্দীতে শীতল যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নাকের ডগায় অবস্থিত কিউবায় একটি কম্যুনিস্ট রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করেন। বারবার চেষ্টা সত্বেও তাকে ক্ষমতা থেকে সরাতে ব্যর্থ হয় পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র। আট বছর আগে স্বাস্থ্যগত কারণে বিপ্লবী সঙ্গী ছোট ভাই রাউল কাস্ত্রোর কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন ফিদেল।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top