রাত ১১:১৮, বুধবার, ১৬ই আগস্ট, ২০১৭ ইং
/ আইন-আদালত / ওষুধ প্রশাসনের দুই কর্মকর্তাকে অপসারণ নয় কেন: হাই কোর্ট
ওষুধ প্রশাসনের দুই কর্মকর্তাকে অপসারণ নয় কেন: হাই কোর্ট
মার্চ ১৬, ২০১৭

ভেজাল প্যারাসিটামল সেবনে শিশুমৃত্যুর ঘটনায় রিড ফার্মাসিউটিক্যালসের মামলার রায়ের পর্যবেক্ষণে উঠে আসা ওষুধ প্রশাসনের দুই কর্মকর্তার অদক্ষতা ও অযোগ্যতার জন্য তাদেরকে চাকরি থেকে অপসারণের ব্যবস্থা নিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তা জানাতে নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট। অভিযুক্ত এ দুই কর্মকর্তার পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গতকাল বৃহস্পতিবার হিউম্যান রাইটস পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে করা একটি সম্পূরক আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের বেঞ্চ এই আদেশ দেয়। আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব ও ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে জবাব দিতে বলেছে আদালত।

রায়ের পর্যবেক্ষণে যে দুই কর্মকর্তার অদক্ষতা ও অযোগ্যতার বিষয়টি ওঠে আসে তারা হলেন- ওষুধ প্রশাসনের সহকারী পরিচালক শফিকুল ইসলাম ও উপ-পরিচালক আলতাফ হোসেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ; রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার। পরে মনজিল মোরসেদ সাংবাদিকদের বলেন, শিশু মৃত্যুর ঘটনায় করা মামলায় এ দুই কর্মকর্তার অদক্ষতা প্রমাণ হওয়ার পরও তাদের গুরুত্বপূর্ণ পদে রাখা জনস্বার্থবিরোধী। তাই আদালত আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে এ দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে এবং তাদেরকে চাকরি থেকে অপসারণের ব্যবস্থা নিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা আগামী আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে জানাতে স্বাস্থ্য সচিব ও ওষুধ প্রশাসনের মহাপরিচালককে নির্দেশ দিয়েছে।

একইসঙ্গে আদালাতের এই নির্দেশ বাস্তবায়নে কি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সে বিষয়ে আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। আগামী ৬ এপ্রিল পরবর্তী শুনানির দিন ঠিক করেছে আদালত। প্যারাসিটামল সেবনে শিশুমৃত্যুর ঘটনায় করা মামলায় রিড ফার্মাসিউটিক্যালসের মালিকসহ পাঁচ কর্মকর্তাকে ৯ মার্চ আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট। আদেশের কপি পাওয়ার ৭ দিনের মধ্যে তাদেরকে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়। গত বছরের ২৮ নভেম্বর ঢাকার ড্রাগ আদালতের বিচারক এম আতোয়ার রহমান রিড ফার্মার মালিকসহ পাঁচজনকে খালাস দিয়েছিল। তারা হলেন প্রতিষ্ঠানটির মালিক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মিজানুর রহমান, মিজানুর রহমানের স্ত্রী রিড ফার্মার পরিচালক শিউলি রহমান, পরিচালক আবদুল গনি, ফার্মাসিস্ট মাহবুবুল ইসলাম ও এনামুল হক। এই রায়ের বিরুদ্ধে পাঁচজনের পর্যাপ্ত সাজা চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ গত জানুয়ারিতে আপিল করে। ২০০৯ সালের জুন থেকে আগস্ট পর্যন্ত রিড ফার্মার ভেজাল প্যারাসিটামল সিরাপ সেবন করে সারা দেশে ২৮ শিশু মারা যায়। এ ঘটনায় ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক মো. শফিকুল ইসলাম ঢাকার ড্রাগ আদালতে ওষুধ কোম্পানিটির মালিকসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top